× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Pakistans foreign minister called the defeat of 1971 a military failure
google_news print-icon

একাত্তরের পরাজয়কে ‘সামরিক ব্যর্থতা’ বললেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

একাত্তরের-পরাজয়কে-সামরিক-ব্যর্থতা-বললেন-পাকিস্তানের-পররাষ্ট্রমন্ত্রী
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি (বাঁয়ে); ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে ভারতীয় জেনারেল জে এস অরোরার কাছে পাকিস্তানি জেনারেল নিয়াজীর আত্মসমর্পণ; পাকিস্তানের সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
পাকিস্তান পিপলস পার্টির প্রতিষ্ঠাতা জুলফিকার আলী ভুট্টোর নাতি বিলাওয়াল ভুট্টো বলেন, ‘সেই বিপর্যস্ত সময়ে যখন জুলফিকার আলী ভুট্টো দেশের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তখন গোটা জাতি মানসিকভাবে অনেক ভেঙে পড়েছিল, সব আশা হারিয়ে ফেলেছিল। সেই সব চ্যালেঞ্জ সফলতার সঙ্গে মোকাবিলা করেছেন জুলফিকার আলী ভুট্টো।’

১৯৭১ সালে গ্লানিকর পরাজয়ের মধ্য দিয়ে পাকিস্তান ভেঙে বাংলাদেশ নামের নতুন রাষ্ট্রের জন্ম হওয়াকে ‘সামরিক ব্যর্থতা’ হিসেবে অভিহিত করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি। দেশটির সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া পাকিস্তান ভেঙে যাওয়ার জন্য রাজনৈতিক ব্যর্থতাকে দায়ী করার এক সপ্তাহ পর এমন মন্তব্য করেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) প্রতিষ্ঠাতা জুলফিকার আলী ভুট্টোর নাতি বিলাওয়াল ভুট্টো।

স্থানীয় সময় বুধবার করাচির নিশতার পার্কে পিপিপির ৫৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে এই মন্তব্য করেন দলটির বর্তমান চেয়ারম্যান বিলাওয়াল।

তিনি বলেন, ‘সেই বিপর্যস্ত সময়ে যখন জুলফিকার আলী ভুট্টো দেশের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তখন গোটা জাতি মানসিকভাবে অনেক ভেঙে পড়েছিল, সব আশা হারিয়ে ফেলেছিল। সেই সব চ্যালেঞ্জ সফলতার সঙ্গে মোকাবিলা করেছেন জুলফিকার আলী ভুট্টো।’

বিলাওয়াল আরও বলেন, ‘তিনি (জুলফিকার আলী ভুট্টো) পাকিস্তান জাতিকে পুনর্গঠন করেছেন, জনগণের মধ্যে সাহস ফিরিয়ে এনেছিলেন। অবশেষে, আমাদের ৯০ হাজার সেনাকে দেশে ফিরিয়ে আনেন। ‘সামরিক ব্যর্থতার’ কারণে যে ৯০ হাজার সেনা সদস্য যুদ্ধবন্দি হয়েছিলেন তারা পরিবারের সঙ্গে পুনরায় মিলিত হতে পেরেছিলেন। আর এসবই সম্ভব হয়েছিল রাজনীতিতে আশা ছড়িয়ে দিয়ে ঐক্য আর অন্তর্ভুক্তির সমন্বয়ে।’

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোর কন্যা ও দেশটির প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টো দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন।

দেশটির অন্যতম সংবাদমাধ্যম ডনের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে দ্য হিন্দু।

অবসর নেয়ার ৬ দিন আগে দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া পশ্চিম পাকিস্তান ও পূর্ব পাকিস্তান আলাদা হয়ে যাওয়ার জন্য তখনকার রাজনৈতিক নেতাদের ব্যর্থতাকে দায়ী করেন। সেই সঙ্গে তিনি সেই বিপর্যয়ে সেনাবাহিনীর ত্যাগ ও অবদানকে হেয় করারও তীব্র সমালোচনা করেন।

১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধে নিহত সেনাদের আত্মত্যাগ স্মরণে গত ২৩ নভেম্বর রাওয়ালপিন্ডিতে জেনারেল হেডকোয়ার্টার্সে আয়োজিত প্রতিরক্ষা ও শহীদ দিবস অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার সময় জেনারেল বাজওয়া এমন মন্তব্য করেন। সেই সময় সেনাপ্রধান তার বক্তব্যে ১৯৭১ সালের ‘গৃহযুদ্ধে’ সেনাবাহিনীর অবস্থান নিয়েও কথা বলেন।

জেনারেল বাজওয়া বলেন, ‘আমি কিছু তথ্য সংশোধন করতে চাই। প্রথমত, সাবেক পূর্ব পাকিস্তানে (বর্তমান বাংলাদেশ) ছিল ইসলামাবাদের রাজনৈতিক ব্যর্থতা, সামরিক ব্যর্থতা নয়।

‘যুদ্ধরত সেনার সংখ্যা ৯২ হাজার ছিল না। যুদ্ধ করেছেন ৩৪ হাজার সেনা। বাকিরা ছিল বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের লোকজন। এই ৩৪ হাজার সেনা ভারতীয় সেনাবাহিনীর ২ লাখ ৫০ হাজার সেনা সদস্য এবং মুক্তিবাহিনীর ২ লাখ যোদ্ধার মুখোমুখি হয়েছিল।

‘এই কঠিন প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে আমাদের সেনাবাহিনী সাহসিকতার সঙ্গে লড়াই করেছে। ত্যাগ স্বীকার করেছে, যা ভারতের তৎকালীন সেনাপ্রধান ফিল্ড মার্শাল মানেকশ স্বীকার করেছিলেন।’

জাতি এখনও এই ত্যাগকে যথেষ্ট সম্মান জানাতে পারেনি দাবি করে পাকিস্তানের সেনাপ্রধান বাজওয়া বলেন, ‘এটা অবিচার। আজকের আয়োজনে বক্তব্য রাখার সুযোগ কাজে লাগিয়ে আমি এই শহীদদের অভিবাদন জানাই। এটা অব্যাহত থাকবে। তারা আমাদের নায়ক। তাদের নিয়ে জাতির গর্ব করা উচিত।’

ছয় বছর ধরে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর নেতৃত্ব দিয়েছেন জেনারেল বাজওয়া। ২৯ নভেম্বর অবসরে যান তিনি।

২০১৬ সালে তিন বছরের জন্য সেনাপ্রধান নিযুক্ত হন বাজওয়া। পরে সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপে তার মেয়াদ আরও তিন বছর বাড়ে।

সেনাপ্রধান হিসেবে জনগণের উদ্দেশে নিজের শেষ ভাষণের একটি বড় অংশে ছিল রাজনৈতিক ইস্যু।

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে ভারতীয় জেনারেল জে এস অরোরার নেতৃত্বে যৌথ বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন পাকিস্তানি জেনারেল নিয়াজী।

আরও পড়ুন:
রাজনৈতিক ব্যর্থতায় পাকিস্তান ভেঙেছে: সেনাপ্রধান বাজওয়া
রাজাপুর পাকহানাদার মুক্ত দিবস
‘সেনাপ্রধান নিয়োগের পর ইমরানকে দেখে নেব’

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
The US is considering new sanctions on Iran

ইরানের তেল বাণিজ্যে লাগাম টানতে পারে যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের তেল বাণিজ্যে লাগাম টানতে পারে যুক্তরাষ্ট্র ইরানের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের ধ্বংসাবশেষ দেখাচ্ছেন ইসরায়েলের এক সেনা সদস্য। ছবি: রয়টার্স
ইয়েলেন বলছেন, নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে ইরানের ওপর। তাদের তেল বাণিজ্যেও এই নিষেধাজ্ঞা প্রভাব ফেলবে।

ইসরায়েলে ইরান সরাসরি হামলা চালানোর পর পশ্চিমাসহ অনেক দেশই বেশ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দিয়েছে। আরোপ করা হয়েছে নানা নিষেধাজ্ঞা। এবার যুক্তরাষ্ট্র দেশটির ওপর আরও কঠোর হওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি সেক্রেটারি জ্যানেট ইয়েলেন ওয়াশিংটনে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার এ প্রসঙ্গে কথা বলেন বলে রয়টার্সের এক প্রতিবেদন জানিয়েছে।

ইয়েলেন বলছেন, নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে ইরানের ওপর। তাদের তেল বাণিজ্যেও এই নিষেধাজ্ঞা প্রভাব ফেলবে।

তিনি বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে, আমি পুরোপুরি আশা করি যে, আমরা আগামী দিনে ইরানের বিরুদ্ধে আরও নিষেধাজ্ঞা দেব।’

ইয়েলেন বলেন, ‘আমরা আমাদের নিষেধাজ্ঞার পূর্বরূপ দেখি না। তবে আমার কাছে ইরানের সন্ত্রাসী অর্থায়ন ব্যাহত করার সব বিকল্প আছে।’

তিনি বলেন, আগেও ট্রেজারি এবং স্টেট ডিপার্টমেন্ট তেল রপ্তানি করার ক্ষমতা হ্রাস করে ইরানের ‘অস্থিতিশীল’ আচরণ নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিয়েছে।

ট্রেজারি সেক্রেটারি বলেন, ‘স্পষ্টতই, ইরান কিছু তেল রপ্তানি চালিয়ে যাচ্ছে। আমাদের আরও কিছু করার আছে। আমি আমাদের প্রকৃত নিষেধাজ্ঞার কার্যক্রমের পূর্বরূপ দেখাতে চাই না, তবে অবশ্যই আমরা সমাধান করতে পারি।’

গত শনিবার ইসরায়েলি ভূখণ্ডে প্রথম বারের মতো সরাসরি হামলা চালানো শুরু করে ইরান। শত শত ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন নিক্ষেপ করে এই হামলা হয়।

এই হামলায় একটি সাত বছর বয়সী একটি মেয়ে আহত হয়েছে এবং একটি সামরিক স্থাপনা সামান্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ওই হামলার পর পরই প্রতিক্রিয়া দেখাতে শুরু করেছে নানা পক্ষ।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েল হামলা করলে কয়েক সেকেন্ডেই জবাব: ইরান
ইরানকে কঠোর জবাব দেবে ইসরায়েল, মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত
ইরানের ওপর প্রতিশোধমূলক হামলায় অংশ নেবে না যুক্তরাষ্ট্র: হোয়াইট হাউস

মন্তব্য

বাংলাদেশ
If Israel attacked the response would be within seconds Iran

ইসরায়েল হামলা করলে কয়েক সেকেন্ডেই জবাব: ইরান

ইসরায়েল হামলা করলে কয়েক সেকেন্ডেই জবাব: ইরান ইরানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলি বাঘেরি কানি। ছবি: সংগৃহীত
ইরানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলি বাঘেরি কানি বলেছেন, ইরান এবার জবাব দেয়ার জন্য ১২ দিন অপেক্ষা করবে না; এমনকি, এক ঘণ্টাও দেরি করবে না।

ইরানের জবাবের পর ইসরায়েল যে পাল্টা হামলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, তার প্রতি আরও কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে তেহরান। দেশটির উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলি বাঘেরি কানি বলেছেন, ইসরায়েল যদি আবার আক্রমণ চালায়, তবে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে তার জবাব দেবে ইরান।

মঙ্গলবার ইরানের রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনে দেয়া সাক্ষাৎকারে বাঘেরি বলেন, ‘ইসরায়েলের যেকোনো প্রতিশোধমূলক পদক্ষেপের বিরুদ্ধে তেহরানের পাল্টা আক্রমণ হবে মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ব্যাপার। ইরান এবার জবাব দেয়ার জন্য ১২ দিন অপেক্ষা করবে না; এমনকি, এক ঘণ্টাও দেরি করবে না।’

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি ও ফ্রান্সকে ইসরায়েলের পক্ষে অবস্থান না নিতে আহ্বান জানিয়েছেন ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর জ্যেষ্ঠ মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল ফজল শেকারচি। তিনি বলেন, ইরান প্রমাণ করেছে যে তারা যুদ্ধবাজ নয় ও যুদ্ধের বিস্তার চায় না। তবে ইসরায়েল যদি প্রতিশোধ বা উসকানিমূলক কোনো আগ্রাসন চালায়, তবে ইরান আরও শক্তিশালী জবাব দেবে।

গত শনিবার ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে তিন শতাধিক ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে নজিরবিহীন হামলা চালায় ইরান। সম্প্রতি সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে ইরানি কনস্যুলেটে হামলা চালিয়ে ১৩ জনকে হত্যার প্রতিক্রিয়ায় এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানায় তেহরান। দামেস্কে ১ এপ্রিলের ওই হামলার পরপরই কঠোর প্রতিশোধ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছিল ইরান।

ইরানের হামলার জবাবে ইসরায়েল ঠিক কী পদক্ষেপ নেবে, তা নির্দিষ্ট করেননি জেনারেল হারজি। তাছাড়া কবে, কখন ইসরায়েল এই জবাব দেবে, তার কোনো সময়সীমা উল্লেখ করেননি তিনি। ইসরায়েলের মিত্ররা ইরানের হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। তবে তারা এই হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সরকারকে সংযম দেখানোর আহ্বান জানিয়েছে।

পরিস্থিতি সামাল দেয়ার সক্ষমতা ইরানের আছে

ইসরায়েলে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার পর ইরানকে সরাসরি সমর্থন দেয়নি চীন। তবে এবার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই যা বললেন, তাতে দেশটি ইরানের পক্ষে আছে বলেই মনে হতে পারে। তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার ক্ষমতা রয়েছে ইরানের। এ অঞ্চলে বিশৃঙ্খলা যাতে না হয়, তারা সেটি দেখছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, সোমবার ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হুসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ানের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। এ সময় ওয়াং ই বলেন, ইরান নিজেদের প্রতিরক্ষা ও সার্বভৌমত্বের চিন্তা করে হামলা করেছে বলে জানিয়েছে। সিরিয়ায় ইরানি দূতাবাসে হামলার তীব্র নিন্দা জানান তিনি।

এ নিয়ে মঙ্গলবার প্রকাশিত চীনের বার্তা সংস্থা শিনহুয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিবেশী ও আঞ্চলিক দেশগুলোতে হামলা না করার দিকে যেভাবে ইরান জোর দিয়েছে তাতে সমর্থন দিয়েছেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এ সময় ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হুসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ান ওয়াং ইকে বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিরতা নিয়ে ইরানও চিন্তিত। এ নিয়ে তারা পরিকল্পনা করছে। এই উত্তেজনা যাতে আর না বাড়ে সে জন্য তারা সব করতে রাজি।

ইরানের হামলার পর সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফাহিয়ান আল সৌদের সঙ্গেও কথা বলেন ওয়াং ই। মধ্যপ্রাচ্য নিয়ে রিয়াদের সঙ্গে কাজ করতে বেইজিং প্রস্তুত বলে জানান তিনি। এমনকি গাজায় যুদ্ধবিরতি নিয়েও কাজ করবে চীন।

গত ১ এপ্রিল সিরিয়ার দামেস্কে ইরানের কনস্যুলেটে হামলা চালিয়ে একজন কমান্ডারসহ ইরানের ইসলামিক বিপ্লবী গার্ড কর্পসের সাত কর্মকর্তাকে হত্যা করে ইসরায়েল। এ হামলার জবাবে গত রোববার ভোরে ইসরায়েলের ভূখণ্ড লক্ষ্য করে তিন শতাধিক ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইরান। ইসরায়েল দাবি করেছে, ইরানের হামলায় খুব সামান্যই ক্ষতি হয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেপণাস্ত্রই আয়রন ডোম প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার মাধ্যমে ধ্বংস করা হয়েছে। এতে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জর্ডান সহায়তা করেছে।

ইরানের ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার জবাবে ইসরায়েল কী করে, তা দেখতে উদগ্রীব পুরো বিশ্ব। তবে এখনই ইসরায়েলকে কিছু না করার পরামর্শ দিয়েছে পশ্চিমা মিত্র দেশগুলো। উত্তেজনা না বাড়ানোর জন্য সোমবার ইসরায়েলের পশ্চিমা মিত্রগুলো আহ্বান জানিয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বলছে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতিবিষয়ক প্রধান ও জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসও ইসরায়েলকে সংযত থাকতে বলেছেন।

আরও পড়ুন:
ইরানকে কঠোর জবাব দেবে ইসরায়েল, মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত
ইরানের ওপর প্রতিশোধমূলক হামলায় অংশ নেবে না যুক্তরাষ্ট্র: হোয়াইট হাউস
ইসরায়েলে হামলার আগে সতর্ক করা হয়েছিল: ইরান

মন্তব্য

বাংলাদেশ
13 more members of Myanmar Army and BGP are in Bangladesh

মিয়ানমারের সেনা ও বিজিপির আরও ১৩ সদস্য বাংলাদেশে

মিয়ানমারের সেনা ও বিজিপির আরও ১৩ সদস্য বাংলাদেশে প্রতীকী ছবি
বিজিবি সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সকালে নতুন করে ১২ জন এবং দুপুরে আরও একজন পালিয়ে আসেন।

মিয়ানমারের চলমান গৃহযুদ্ধের জের ধরে মিয়ানমারের সেনা ও দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) আরও ১৩ সদস্য পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। এ নিয়ে গত ৩ দিনে মিয়ানমার থেকে মোট ২৯ জন বাংলাদেশে এসেছেন।

বিজিবি সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মো. শরীফুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সকালে নতুন করে ১২ জন এবং দুপুরে আরও একজন পালিয়ে আসেন। এর মধ্যে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশফাড়ি সীমান্ত দিয়ে একজন, রেজুপাড়া সীমান্ত দিয়ে দুজন এবং জমছড়ি সীমান্ত দিয়ে ১০ জন বাংলাদেশে প্রবেশ করেন।

এই ১৩ জনের সবাই দেশটির বিজিপি ও সেনা সদস্য, তবে কোন বাহিনীর কত জন সদস্য, তা নিশ্চিত করতে পারেননি এ কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানিয়েছেন, তাদের কাছে থাকা অস্ত্রগুলো জমা নিয়ে বিজিবি নিজেদের হেফাজতে রেখেছে। পরে তাদের নাইক্ষ্যংছড়ি সদরে ১১ বিজিবি হেফাজতে রাখা হয়েছে।

এর আগে সোমবার দুপুরে বাইশফাড়ি সীমান্ত দিয়ে ২ সেনা সদস্য বাংলাদেশে আসেন। এছাড়া রোববার টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে আসেন বিজিপির আরও ১৪ জন সদস্য।

১১ বিজিবি হেফাজতে আগে থেকেই ১৮০ জন আশ্রিত রয়েছে। এ নিয়ে আশ্রিতের সংখ্যা দাঁড়াল ২০৯ জনে।

ওই ১৮০ জনের মধ্যে সেনাবাহিনীর ৩ জন সদস্য গত ৩০ মার্চ মিয়ানমার নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত দিয়ে এদেশে আসেন। তার আগে ১১ মার্চ আশ্রয় নেন আরও ১৭৭ জন বিজিপি ও সেনাসদস্য।

এ ছাড়াও কয়েক দফায় বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন আরও ৩৩০ জন, যাদের গত ১৫ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন:
মিয়ানমারের ১৮০ সেনা ফিরে যাবে, তবে এখনই নয়: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
এবার বাংলাদেশে আশ্রয় মিয়ানমারের ২৯ সীমান্তরক্ষীর

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Israel cabinet decision to give tough response to Iran

ইরানকে কঠোর জবাব দেবে ইসরায়েল, মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত

ইরানকে কঠোর জবাব দেবে ইসরায়েল, মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত ইসরায়েলে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার কয়েক ঘণ্টা পর রোববার ইসরায়েলের যুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রিসভা ও শীর্ষ নিরাপত্তা কর্মকর্তারা তেল আবিবে বৈঠক করেন। ছবি: টাইমস অফ ইসরায়েল।
হামলার জবাব দিয়ে ইসরায়েল কোনোভাবেই আঞ্চলিক যুদ্ধে জড়াতে চায় না বলে টাইমস অফ ইসরায়েলের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সমন্বয় করেই তারা পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে চায়।

সিরিয়ার দামেস্কে ইরানি কনস্যুলেটে হামলার জবাব হিসেবে তেহরানের ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার কঠোর জবাব দেয়া হবে বলে ইসরায়েলের যুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সোমবার ইসরায়েলি টেলিভিশন চ্যানেল চ্যানেল ১২-এর বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে টাইমস অফ ইসরায়েল।

সিরিয়ায় গত ১ এপ্রিল ইরানের কনস্যুলেটে হামলার জবাবে শনিবার রাতে ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে তিন শতাধিক ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে তেহরান। এসব অস্ত্রের বেশির ভাগ ভূপাতিত করে ইসরায়েল, যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্র দেশগুলো।

হামলায় দক্ষিণ ইসরায়েলে বিমান বাহিনীর একটি ঘাঁটি ক্ষতিগ্রস্ত হলেও সেটিতে কার্যক্রম স্বাভাবিক আছে। এ হামলায় সাত বছর বয়সী এক ইসরায়েলি শিশু মারাত্মক আহত হয়েছে। এর বাইরে বড় ধরনের ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

টাইমস অফ ইসরায়েলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, (ইরানকে) এমন বার্তা পাঠানোর জন্য প্রতিক্রিয়াটি জানানো হবে যে, ‘ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যেকোনো মাত্রার হামলারই জবাব নিশ্চিত করা হবে’, সেটা যেন তারা বুঝতে পারে। প্রতিক্রিয়ায় এটিও স্পষ্ট করা হবে যে, কয়েকদিন ধরে ইরান যে হামলার পাল্টা জবাব দিয়ে ‘সমীকরণ স্থাপনের’ কথা বলছে, তা কখনোই বাস্তবায়ন হবে না। ভবিষ্যতেও ইরানের ভূখণ্ড, তাদের আন্তর্জাতিক কনস্যুলেটগুলোকে হামলার জবাব হিসেবে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করা হবে।

এদিকে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োয়াভ গালান্ট ও আইডিএফের চিফ অফ স্টাফ হারেজি হালেভি মনে করেন, ইসরায়েলের অবশ্যই (ইরানের হামলার) জবাব দেয়া উচিৎ। সেইসঙ্গে তারা এটাও বিবেচনায় রাখছেন যে, এমন কিছু করা ঠিক হবে না যাতে যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে তাদের সম্পর্কের অবনতি হয়।

হামলার জবাব দিয়ে ইসরায়েল কোনোভাবেই আঞ্চলিক যুদ্ধে জড়াতে চায় না বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সমন্বয় করেই তারা পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে চায়।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার আবারও আলোচনায় বসবে মন্ত্রিসভা। তবে তারা তাদের মূল লক্ষ্য থেকে সরে আসবে না।

এর ফলে আজ রাতে আর ইরানকে পাল্টা জবাব দেয়ার সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

আরও পড়ুন:
ইরানের ওপর প্রতিশোধমূলক হামলায় অংশ নেবে না যুক্তরাষ্ট্র: হোয়াইট হাউস
ইসরায়েলে হামলার আগে সতর্ক করা হয়েছিল: ইরান
ইসরায়েল-ইরান যুদ্ধ চায় না বাংলাদেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
হামলার পর ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্কবার্তা ইরানের
ইসরায়েলে সরাসরি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করল ইরান

মন্তব্য

বাংলাদেশ
US will not participate in retaliatory strikes on Iran White House

ইরানের ওপর প্রতিশোধমূলক হামলায় অংশ নেবে না যুক্তরাষ্ট্র: হোয়াইট হাউস

ইরানের ওপর প্রতিশোধমূলক হামলায় অংশ নেবে না যুক্তরাষ্ট্র: হোয়াইট হাউস ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে শনিবার রাতে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। ফাইল ছবি
সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রোববার বাইডেন প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা বলেন, ইসরায়েলে প্রথমবারের মতো সরাসরি ও নজিরবিহীন ইরানি হামলার জবাবে ‘খুবই সতর্কভাবে ভেবেচিন্তে এবং কৌশলগতভাবে’ ইসরায়েলি বাহিনীর প্রতিক্রিয়া ঠিক করতে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

ইসরায়েলে হামলার জবাবে ইরানের ওপর কোনো ধরনের প্রতিশোধমূলক হামলায় যুক্তরাষ্ট্র অংশ নেবে না বলে তেল আবিবকে সতর্ক করে দিয়েছে হোয়াইট হাউস।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।

সিরিয়ায় গত ১ এপ্রিল ইরানের কনস্যুলেটে হামলার জবাবে শনিবার রাতে ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে তিন শতাধিক ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে তেহরান। এসব অস্ত্রের বেশির ভাগ ভূপাতিত করে ইসরায়েল, যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্র দেশগুলো।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বিবিসি আরও জানায়, ইরানের হামলার বিষয়ে ‘সতর্কভাবে’ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে ইসরায়েলকে তাগিদ দিয়েছেন বাইডেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রোববার বাইডেন প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা বলেন, ইসরায়েলে প্রথমবারের মতো সরাসরি ও নজিরবিহীন ইরানি হামলার জবাবে ‘খুবই সতর্কভাবে ভেবেচিন্তে এবং কৌশলগতভাবে’ ইসরায়েলি বাহিনীর প্রতিক্রিয়া ঠিক করতে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, দামেস্কে ইরানের কনস্যুলেট ভবনে ইসরায়েলি হামলায় ইসলামি বিপ্লবী গার্ড কোরের (আইআরজিসি) জ্যেষ্ঠ কমান্ডারদের প্রাণহানির পরিপ্রেক্ষিতে ইসরায়েল ‘সবচেয়ে ভালোটা’ পেয়েছে বলে মনে করে বাইডেন প্রশাসন।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলে হামলার আগে সতর্ক করা হয়েছিল: ইরান
ইসরায়েল-ইরান যুদ্ধ চায় না বাংলাদেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
হামলার পর ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্কবার্তা ইরানের
ইসরায়েলে সরাসরি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করল ইরান
হরমুজ প্রণালিতে ইসরায়েল সংশ্লিষ্ট জাহাজ জব্দ ইরানের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Warned before attack on Israel Iran

ইসরায়েলে হামলার আগে সতর্ক করা হয়েছিল: ইরান

ইসরায়েলে হামলার আগে সতর্ক করা হয়েছিল: ইরান ইসরায়েলের আরাদ এলাকার কাছে রোববার ইরান থেকে ছোড়া একটি রকেটের অংশবিশেষ খতিয়ে দেখছেন পুলিশের এক কর্মকর্তা ও স্থানীয়রা। ওই রকেটের আঘাতে সাত বছর বয়সী এক মেয়ে আহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েল। ছবি: রয়টার্স
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদোল্লাহিয়ান রোববার বলেন, হামলার ৭২ ঘণ্টা আগে প্রতিবেশী একাধিক দেশ ও ইসরায়েলের মিত্র যুক্তরাষ্ট্রকে নোটিশ দিয়েছিল তেহরান।

ইসরায়েলে শনিবার রাতভর হামলার কয়েক দিন আগে ইরান এ বিষয়ে সতর্কবার্তা দিয়েছিল বলে রোববার দাবি করেছেন তুরস্ক, জর্ডান ও ইরাকের কর্মকর্তারা।

এমন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বলছেন, ওয়াশিংটনকে এ বিষয়ে কিছু জানায়নি তেহরান। ইসলামী প্রজাতন্ত্রটির উদ্দেশ্য ছিল ইহুদি রাষ্ট্রটির উল্লেখযোগ্য ক্ষতিসাধন।

সিরিয়ায় গত ১ এপ্রিল ইরানের কনস্যুলেটে হামলার জবাবে শনিবার ইসরায়েলের দিকে শতাধিক ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে তেহরান।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইরানের ছোড়া বেশির ভাগ ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ইসরায়েলি ভূখণ্ডে পড়ার আগেই ভূপাতিত করা হয়। যদিও এক মেয়েশিশু গুরুতর আহত হয়।

এমন বাস্তবতায় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা আরও বাড়ার শঙ্কা দিয়েছে।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদোল্লাহিয়ান রোববার বলেন, হামলার ৭২ ঘণ্টা আগে প্রতিবেশী একাধিক দেশ ও ইসরায়েলের মিত্র যুক্তরাষ্ট্রকে নোটিশ দিয়েছিল তেহরান।

এ বিষয়ে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, হামলার আগে ওয়াশিংটন ও তেহরানে সঙ্গে কথা বলেছে আঙ্কারা।

তুরস্ক আরও বলেছে, ইরানের প্রতিক্রিয়া যেন আনুপাতিক হয়, তা নিশ্চিতে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করেছে দুই মহাদেশ বিস্তৃত দেশটি।

‘ইরান বলেছে, দামেস্কে তাদের দূতাবাসে হামলার জবাবে প্রতিক্রিয়া দেখানো হবে এবং এটি এর চেয়ে বেশি কিছু হবে না। আমরা (হামলার) সম্ভাবনার বিষয়ে সজাগ ছিলাম। সর্বশেষ ঘটনাগুলো অবাক হওয়ার মতো কিছু নয়’, বলে তুরস্কের একটি কূটনৈতিক সূত্র।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদোল্লাহিয়ানের বিবৃতি নাকচ করে দিয়ে বলেন, সুইজারল্যান্ডের মাধ্যমে তেহরানের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে আমেরিকা, তবে হামলার ৭২ ঘণ্টা আগে কোনো নোটিশ পায়নি।

নোটিশের বিষয়ে ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘এটা একেবারেই সত্য নয়।’

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলে ইরানের হামলার হুমকি বাস্তব: হোয়াইট হাউস
ইরানের হামলার শঙ্কা, শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসছেন নেতানিয়াহু
২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ইসরায়েলে হামলা চালাতে পারে ইরান
ইসরায়েলের অভ্যন্তরে ভ্রমণের ক্ষেত্রে কূটনীতিকদের সতর্ক করল যুক্তরাষ্ট্র
ইরানে এবার সরাসরি হামলা চালানোর হুমকি ইসরায়েলের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Iran warns Israel and the US after the attack

হামলার পর ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্কবার্তা ইরানের

হামলার পর ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্কবার্তা ইরানের ইরানের ছোড়া হামলা প্রতিহত করছে ইসরায়েল। ছবি: রয়টার্স
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির আবদোল্লাহিয়ান বলেছেন, ইসরায়েলে সংক্ষিপ্ত পরিসরে এবং আত্মরক্ষার অংশ হিসেবে হামলা চালানো হবে বলে ওয়াশিংটনকে অবহিত করেছিল তেহরান।

ইসরায়েলি ভূখণ্ডে শনিবার রাতভর ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর রোববার ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে ইরান বলেছে, ইসলামি প্রজাতন্ত্রটিতে পাল্টা হামলা চালানো হলে ‘অনেক বড় জবাব’ দেয়া হবে।

অন্যদিকে ইরানের বদলার শিকার ইসরায়েল বলেছে, অভিযান এখনও শেষ হয়নি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, মধ্যপ্রাচ্যের চিরশত্রু দুই দেশের যুদ্ধের প্রকাশ্য হুমকি এবং এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের পরোক্ষ সংশ্লিষ্টতা উদ্বেগ বাড়িয়েছে মধ্যপ্রাচ্যে।

এমন বাস্তবতায় ওয়াশিংটন বলেছে, ইরানের সঙ্গে সংঘাত চায় না আমেরিকা, তবে দেশটি মধ্যপ্রাচ্যে তাদের সেনা ও ইসরায়েলকে রক্ষায় ইতস্তত বোধ করবে না।

গত ১ এপ্রিল সিরিয়ায় ইরানের কনস্যুলেটে হামলায় ইসলামি বিপ্লবী গার্ড কোরের (আইআরজিসি) শীর্ষস্থানীয় কয়েকজন কমান্ডার নিহত হন। এ হামলার জন্য ইসরায়েলকে দায়ী করে দেশটিতে পাল্টা হামলা চালায় ইরান।

ইসরায়েলের দিকে শতাধিক ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোনের বেশির ভাগ ছোড়া হয় ইরানের অভ্যন্তর থেকে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও জর্ডানের সহায়তায় এসব ড্রোনের বেশির ভাগ ভূপাতিত করে ইসরায়েল, যার ফলে এগুলো সামান্য ক্ষতি করেছে ইহুদি রাষ্ট্রটির।

হামলায় দক্ষিণ ইসরায়েলে বিমান বাহিনীর একটি ঘাঁটি ক্ষতিগ্রস্ত হলেও সেটিতে কার্যক্রম স্বাভাবিক আছে। হামলায় সাত বছর বয়সী এক ইসরায়েলি শিশু মারাত্মক আহত হয়েছে। এর বাইরে বড় ধরনের ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির আবদোল্লাহিয়ান বলেছেন, ইসরায়েলে সংক্ষিপ্ত পরিসরে এবং আত্মরক্ষার অংশ হিসেবে হামলা চালানো হবে বলে ওয়াশিংটনকে অবহিত করেছিল তেহরান।

আরও পড়ুন:
২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ইসরায়েলে হামলা চালাতে পারে ইরান
ইসরায়েলের অভ্যন্তরে ভ্রমণের ক্ষেত্রে কূটনীতিকদের সতর্ক করল যুক্তরাষ্ট্র
ইরানে এবার সরাসরি হামলা চালানোর হুমকি ইসরায়েলের
ঈদের দিনে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের আহ্বান ইরানের সর্বোচ্চ নেতার
ইসরায়েলি হামলা অবরোধের মধ্যে নিরুত্তাপ ঈদ গাজায়

মন্তব্য

p
উপরে