× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

তারুণ্য
Dhaka Custom House Job Circular Salary Scale Maximum Tk 27300
google_news print-icon

ঢাকা কাস্টম হাউসে চাকরির সুযোগ, বেতন স্কেল সর্বোচ্চ ২৭,৩০০

ঢাকা কাস্টম হাউস
ঢাকা কাস্টম হাউস। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া
ঢাকা কাস্টম হাউস (কাস্টম হাউস আইসিডি, ঢাকা নামেও পরিচিত) বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থা, যা বিভিন্ন চালানে কর ও শুল্ক আরোপ করে থাকে। এটি বাংলাদেশের বৃহত্তম বিমানবন্দর কাস্টমস হাউজ।

ঢাকা কাস্টম হাউস সম্প্রতি জনবল নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। প্রতিষ্ঠানটি ১১ ক্যাটাগরির পদে ৪৮ জনকে নিয়োগ দেবে। আবেদন গ্রহণ ২৩ মার্চ সকাল ১০টায় শুরু হয়ে চলবে ১২ এপ্রিল বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

ঢাকা কাস্টম হাউস (কাস্টম হাউস আইসিডি, ঢাকা নামেও পরিচিত) বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থা, যা বিভিন্ন চালানে কর ও শুল্ক আরোপ করে থাকে। এটি বাংলাদেশের বৃহত্তম বিমানবন্দর কাস্টমস হাউজ।

১. পদের নাম: পরিসংখ্যান অনুসন্ধায়ক

পদসংখ্যা: ১

গ্রেড: ১২

বেতন স্কেল: ১১,৩০০-২৭,৩০০ টাকা

যোগ্যতা:গণিত/পরিসংখ্যান/অর্থনীতি বিষয়ে দ্বিতীয় শ্রেণির স্নাতক (সম্মান) ডিগ্রি অথবা স্নাতকোত্তর ডিগ্রি।

২. পদের নাম: সাঁটলিপিকার কাম কম্পিউটার অপারেটর

পদসংখ্যা: ২

গ্রেড: ১৩

বেতন স্কেল: ১১,০০০-২৬,৫৯০ টাকা

যোগ্যতা:স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি। কম্পিউটার ব্যবহারে দক্ষতা ও সাঁটলিপিতে সর্বনিম্ন গতি প্রতি মিনিটে ইংরেজিতে ৮০ শব্দ ও বাংলায় ৫০। কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরে সর্বনিম্ন গতি প্রতি মিনিটে ইংরেজিতে ৩০ শব্দ ও বাংলায় ২৫ শব্দ থাকতে হবে।

৩. পদের নাম: উচ্চমান সহকারী

পদসংখ্যা: ২

গ্রেড:১৪

বেতন স্কেল: ১০,২০০-২৪,৬৮০ টাকা

যোগ্যতা: স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি। কম্পিউটার ব্যবহারে দক্ষতা এবং কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরে সর্বনিম্ন গতি প্রতি মিনিটে ইংরেজিতে ৩০ শব্দ ও বাংলায় ২৫ শব্দ থাকতে হবে।

৪. পদের নাম: সাঁটমুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর

পদসংখ্যা: ২

গ্রেড:১৪

বেতন স্কেল: ১০,২০০-২৪,৬৮০ টাকা

যোগ্যতা: স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি। কম্পিউটার ব্যবহারে দক্ষতা এবং সাঁটলিপিতে সর্বনিম্ন গতি প্রতি মিনিটে ইংরেজিতে ৭০ শব্দ ও বাংলায় ৪৫। কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরে সর্বনিম্ন গতি প্রতি মিনিটে ইংরেজিতে ৩০ শব্দ ও বাংলায় ২৫ শব্দ থাকতে হবে।

৫. পদের নাম: অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক

পদসংখ্যা: ১

গ্রেড: ১৬

বেতন স্কেল: ৯,৩০০-২২,৪৯০ টাকা

যোগ্যতা: এইচএসসি বা সমমান পাস। কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরে সর্বনিম্ন গতি প্রতি মিনিটে ইংরেজিতে ২০ শব্দ ও বাংলায় ২০ শব্দ থাকতে হবে।

৬. পদের নাম: গাড়িচালক

পদসংখ্যা: ১

গ্রেড: ১৬

বেতন স্কেল: ৯,৩০০-২২,৪৯০ টাকা

যোগ্যতা: জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট বা সমমান পাস। হালকা গাড়ি চালানোর বৈধ হালকা ড্রাইভিং লাইসেন্স। অভিজ্ঞতাসম্পন্ন চালকরা অগ্রাধিকার পাবেন।

৭. পদের নাম: টেলিফোন অপারেটর

পদসংখ্যা: ১

গ্রেড: ১৬

বেতন স্কেল: ৯,৩০০-২২,৪৯০ টাকা

যোগ্যতা: এইচএসসি বা সমমান পাস। সংশ্লিষ্ট কাজে তিন বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

৮. পদের নাম: সিপাই

পদসংখ্যা: ৩৫

গ্রেড: ১৭

বেতন স্কেল: ৯,০০০-২১,৮০০ টাকা

যোগ্যতা: এসএসসি বা সমমান পাস। পুরুষের ক্ষেত্রে উচ্চতা ন্যূনতম ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি, নারীদের ক্ষেত্রে ৫ ফুট ২ ইঞ্চি। বুকের মাপ ন্যূনতম ৩০-৩২ ইঞ্চি (উভয় ক্ষেত্রে)।

৯. পদের নাম: ডেসপাচ রাইডার

পদসংখ্যা: ১

গ্রেড: ১৮

বেতন স্কেল: ৮,৮০০-২১,৩১০ টাকা

যোগ্যতা: দ্বিতীয় বিভাগ সমমানের জিপিএতে এসএসসি বা সমমান পাস। মোটরসাইকেল চালানোয় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত বৈধ লাইসেন্সধারী; কম্পিউটার ব্যবহারে দক্ষতা।

১০. পদের নাম: ডুপ্লিকেটিং মেশিন অপারেটর

পদসংখ্যা: ১

গ্রেড: ১৮

বেতন স্কেল: ৮,৮০০-২১,৩১০ টাকা

যোগ্যতা: এসএসসি বা সমমান পাস। ডুপ্লিকেটিং মেশিন চালানোর দুই বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

১১. পদের নাম: নিরাপত্তা প্রহরী

পদসংখ্যা: ১

গ্রেড: ২০

বেতন স্কেল: ৮,২৫০-২০,০১০ টাকা

যোগ্যতা: অষ্টম শ্রেণি পাস।

বয়স: ১ মার্চ ২০২৩ তারিখে ১৮ থেকে ৩০ বছর। কোটায় ৩২ বছর। ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সর্বোচ্চ বয়সসীমার মধ্যে থাকলেও আবেদন করা যাবে।

আবেদন করার নিয়ম: আগ্রহী প্রার্থীরা http://dch.teletalk.com.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেনদন করতে পারবেন। বিজ্ঞপ্তি দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

তারুণ্য
Career and Networking Day held at IUB

আইইউবিতে ক্যারিয়ার অ্যান্ড নেটওয়ার্কিং ডে অনুষ্ঠিত

আইইউবিতে ক্যারিয়ার অ্যান্ড নেটওয়ার্কিং ডে অনুষ্ঠিত আইইউবির ক্যারিয়ার গাইডেন্স প্লেসমেন্ট অ্যান্ড অ্যালামনাই রিলেশন্স (সিজিপিঅ্যান্ডএআর) অফিস আয়োজিত অনুষ্ঠানে শতাধিক প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। ছবি: আইইউবি
উপাচার্য অধ্যাপক তানভীর হাসান বলেন, ‘আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের কাজের জন্য যোগ্য করে গড়ে তোলার ওপর জোর দিয়ে থাকি, যাকে ইংরেজিতে বলে এমপ্লয়েবিলিটি। তার জন্য অ্যাকাডেমিক শিক্ষার চেয়ে বাড়তি অনেক কিছু প্রয়োজন হয়। যেমন: পেশাদারত্ব, কাজের ক্ষেত্রে শিষ্টাচার এবং নেটওয়ার্কিং।’

শতাধিক প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণে বুধবার ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ তথা আইইউবিতে অনুষ্ঠিত হলো বার্ষিক ক্যারিয়ার অ্যান্ড নেটওয়ার্কিং ডে-২০২৪।

আইইউবির ক্যারিয়ার গাইডেন্স প্লেসমেন্ট অ্যান্ড অ্যালামনাই রিলেশন্স (সিজিপিঅ্যান্ডএআর) অফিস এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান, টেলিকম অপারেটর, ফার্মাসিউটিকাল, প্রযুক্তি, খাদ্য ও কোমল পানীয়, এনজিও, উন্নয়ন সংস্থা, গণমাধ্যম, বিজ্ঞাপন, স্টার্টআপ, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠানসহ দেশের প্রায় সব খাতের প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণ ছিল আইইউবির ক্যারিয়ার ডেতে।

অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ছিলো রবি, স্কয়ার, হা-মীম গ্রুপ, এবিসি গ্রুপ, পূর্বানী গ্রুপ, এসিআই, বসুন্ধরা, ডোরীন গ্রুপ, ডানকান, রেনাটা, ম্যারিকো, নিটল-নিয়ল গ্রুপ, ব্র্যাক ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, মিডল্যান্ড ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, কমার্শিয়াল ব্যাংক অফ সিলন, আইডিএলসি, লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ, জিজিকন টেকনোলজিস, প্রথম আলো, ডিবিসি নিউজ, ম্যাগনিটো ডিজিটাল, ইত্যাদি।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে স্থাপিত স্টলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা দিনভর শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং আগ্রহী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সিভি সংগ্রহ করেন।

সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাল্টিপারপাস হলে অনুষ্ঠিত উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আইইউবি ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান দিদার এ হোসেইন।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘মন থেকে ভালোবেসে কাজ করা যায় এমন ক্যারিয়ার বেছে নিতে হবে। বেতন বা সুযোগ-সুবিধার কথা ভেবে প্রলুব্ধ হলে চলবে না। যে প্রতিষ্ঠানে কাজ করছো, সেই প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ কেমন সেটা আগে দেখতে হবে এবং বুঝতে হবে তুমি সেই পরিবেশে ভালো করতে পারবে কি না।’

উপাচার্য অধ্যাপক তানভীর হাসান বলেন, ‘আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের কাজের জন্য যোগ্য করে গড়ে তোলার ওপর জোর দিয়ে থাকি, যাকে ইংরেজিতে বলে এমপ্লয়েবিলিটি। তার জন্য অ্যাকাডেমিক শিক্ষার চেয়ে বাড়তি অনেক কিছু প্রয়োজন হয়। যেমন: পেশাদারত্ব, কাজের ক্ষেত্রে শিষ্টাচার এবং নেটওয়ার্কিং।’

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক নিয়াজ আহমদ খান বলেন, ‘বিভিন্ন খাতের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান থেকে আসা যোগ্যতাসম্পন্ন পেশাদার ব্যক্তিরা আমাদের ডাকে সাড়া দিয়েছেন। গত কয়েক বছর ধরেই আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে আরও বেশি বেশি প্রতিষ্ঠান আমাদের এখানে আসছেন।

‘এ জন্য আমরা সম্মানিত বোধ করছি। এতে প্রমাণ হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে আইইউবির ওপর আস্থা বাড়ছে।’

অনুষ্ঠানের মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিল একাত্তর টেলিভিশন, দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড ও দেশ রূপান্তর।

আরও পড়ুন:
আন্তবিশ্ববিদ্যালয় স্কোয়াশ টুর্নামেন্টে আইইউবির তিন পদক
আইইউবির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন দিদার এ হোসেইন
আইইউবি-তে মৌলিক পাইথন প্রোগ্রামিং কোর্স করলেন ১০ শিক্ষক
অনলাইন সাংবাদিকতার চ্যালেঞ্জ বিষয়ে এআইইউবিতে সেমিনার
আইইউবিতে পালা নাটক ‘দেওয়ানা মদিনা’ মঞ্চস্থ

মন্তব্য

তারুণ্য
Students got career guidance in Kishoreganj

কিশোরগঞ্জে ক্যারিয়ারের দিকনির্দেশনা পেলেন শিক্ষার্থীরা

কিশোরগঞ্জে ক্যারিয়ারের দিকনির্দেশনা পেলেন শিক্ষার্থীরা
‘দক্ষতা নিজের সম্পদ, দক্ষ জনশক্তি দেশের সম্পদ’ প্রতিপাদ্যে মঙ্গলবার সকালে কিশোরগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ক্যারিয়ার মিট আপে পলিটেকনিকের আড়াই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। কোলাজ: নিউজবাংলা
অনুষ্ঠানে বক্তারা শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ারবিষয়ক বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেন। সরকারি, বেসরকারি চাকরি প্রস্তুতি, বর্তমান চাকরির বাজার সম্পর্কে বক্তাদের বাস্তব অভিজ্ঞতা জানান তাদের।

ক্যারিয়ারের বিষয়ে শিক্ষার্থীদের দিকনির্দেশনা দিতে তৌহিদ অ্যাসোসিয়েটসের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হলো ‘ক্যারিয়ার মিট আপ- কিশোরগঞ্জ’।

‘দক্ষতা নিজের সম্পদ, দক্ষ জনশক্তি দেশের সম্পদ’ প্রতিপাদ্যে মঙ্গলবার সকালে কিশোরগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এ ক্যারিয়ার মিট আপ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে পলিটেকনিকের আড়াই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

কিশোরগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ আবদুল হান্নান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন তৌহিদ অ্যাসোসিয়েটসের প্রতিষ্ঠাতা মো. তৌহিদুজ্জামান, বিডি জবসের এজিএম (প্রোগ্রাম) মোহাম্মদ আলী ফিরোজ, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের ডেপুটি ম্যানেজার জুবায়ের হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার্স কোচিং হোমের সহকারী পরিচালক আবদুর রহমানসহ সংশ্লিষ্টরা।

অনুষ্ঠানে বক্তারা শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ারবিষয়ক বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেন। সরকারি, বেসরকারি চাকরি প্রস্তুতি, বর্তমান চাকরির বাজার সম্পর্কে বক্তাদের বাস্তব অভিজ্ঞতা জানান তাদের।

দেশ-বিদেশে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের বিষয়টি তুলে ধরার পাশাপাশি বক্তারা কর্মমুখী প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্ব দেন।

আয়োজনে সর্বাত্মক সহযোগিতা করে হক পাবলিকেশনস। অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা এমন আয়োজনের জন্য উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন।

তৌহিদ অ্যাসোসিয়েটস শিক্ষার্থীদের নিয়ে ক্যারিয়ারবিষয়ক পরামর্শমূলক এমন আয়োজন অনলাইন ও অফলাইনে নিয়মিত করে আসছে। এরই মধ্যে সিলেট, বরিশাল, রংপুর, নোয়াখালী ও ঢাকায় ক্যারিয়ার মিট আপের আয়োজন করেছে কনসালট্যান্সি ফার্মটি।

আরও পড়ুন:
লিজগ্রহীতাকে না জানিয়ে সম্পত্তি বিক্রির অভিযোগ 
ভৈরবে হেফাজতে নারী আসামির মৃত্যু তদন্ত করবে র‌্যাব
মোটরসাইকেলে বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল মামা-ভাগ্নের 
দাদির কষ্ট মনে রেখে ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস জনির
বিনা পয়সায় পছন্দের জামা পেল শিশুরা

মন্তব্য

তারুণ্য
The decision to reinstate the freedom fighter quota in the job is upheld for the time being

চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালের রায় আপাতত বহাল

চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালের রায় আপাতত বহাল সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ। ফাইল ছবি
হাইকোর্ট বিভাগের রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্র পক্ষে আনা আবেদনের ওপর ৪ জুলাই আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির দিন নির্ধারণ করে রোববার আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগের চেম্বার কোর্ট বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম।

প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে দেয়া হাইকোর্ট বিভাগের রায় আপাতত বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের চেম্বার জজ। একইসঙ্গে এ বিষয়ে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য ৪ জুলাই দিন ধার্য করা হয়েছে।

হাইকোর্ট বিভাগের রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্র পক্ষে আনা আবেদনের ওপর ৪ জুলাই আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির দিন নির্ধারণ করে রোববার আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগের চেম্বার কোর্ট বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম। সূত্র: বাসস

আদালতে রাষ্ট্র পক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। আর রিটের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু।

সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে ৫ জুন রায় দেয় হাইকোর্ট বিভাগ। ওই রায়ের ফলে সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল হয়।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর নবম থেকে ১৩তম গ্রেড পর্যন্ত সরাসরি নিয়োগে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করে একটি পরিপত্র জারি করে।

তাতে বলা হয়েছিল, নবম গ্রেড (আগের প্রথম শ্রেণি) এবং ১০ম-১৩তম গ্রেড (আগের দ্বিতীয় শ্রেণি) পদে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে মেধা তালিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দিতে হবে। ওই পদগুলোতে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি বাতিল করা হলো। সেখানে নারী কোটা ১০, মুক্তিযোদ্ধা কোটা ৩০, জেলা কোটা ১০, উপজাতি কোটা ৫ ও প্রতিবন্ধীদের ১ শতাংশ কোটা বাতিল করা হয়।

পরিপত্রের মুক্তিযোদ্ধা কোটা ৩০ শতাংশ চ্যালেঞ্জ করে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সভাপতি অহিদুল ইসলাম তুষারসহ সাতজন হাইকোর্ট বিভাগে রিট করেন।

ওই রিটের শুনানি নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট বিভাগ। সেই রুল যথাযথ ঘোষণা করে ৫ জুন রায় দেয় হাইকোর্ট বিভাগ।

আরও পড়ুন:
চাকরিতে কোটা: হাইকোর্টের রায় বাতিলে আলটিমেটাম শিক্ষার্থীদের
কোটা পদ্ধতি পুনর্বহালের প্রতিবাদে জাবিতে মানববন্ধন
কোটা বহালে আদালতের রায়, ঢাবিতে প্রতিবাদ বিক্ষোভ

মন্তব্য

তারুণ্য
Quota in jobs ultimatum to students overturning High Courts verdict

চাকরিতে কোটা: হাইকোর্টের রায় বাতিলে আলটিমেটাম শিক্ষার্থীদের

চাকরিতে কোটা: হাইকোর্টের রায় বাতিলে আলটিমেটাম শিক্ষার্থীদের সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালের প্রতিবাদে রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিলে শিক্ষার্থীরা। ছবি: নিউজবাংলা
মিছিল পরবর্তী সমাবেশে ঢাবি ছাত্রী তামান্না আক্তার বলেন, ‘আমি নারী হয়ে বলছি, আমি নারী কোটা চাই না। আমরা একটি বৈষম্যহীন বাংলাদেশ নির্মাণ করতে চাই। মেধাবীরা যোগ্যতা দিয়ে চাকরি পাবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে উপেক্ষা করে যে রায় দিয়েছে, তা আমরা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করলাম।’

সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালের রায় বাতিলের দাবিতে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত আলটিমেটাম দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যদালয়ের শিক্ষার্থীরা।

এ সময়ের মধ্যে রায় বাতিল করা না হলে দেশের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে রোববার হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন তারা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে শিক্ষার্থীরা ওই আলটিমেটাম দেন।

সরকারি চাকরিতে ২০১৮ সালের পরিপত্র বাতিল করে কোটা পদ্ধতি পুনর্বহাল সংক্রান্ত হাইকোর্টের রায়ের প্রতিবাদ এবং মেধাভিত্তিক নিয়োগ বহাল রাখার দাবিতে তৃতীয় দিনের মতো আজ বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। ওই বিক্ষোভ শেষে শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধি দল আ্যাটর্নি জেনারেলের কাছে স্মারকলিপি জমা দিতে ক্যাম্পাস ছাড়েন।

এর আগে শিক্ষার্থীদের মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজু ভাস্কর্যে এসে শেষ হয়।

মিছিলে শিক্ষার্থীরা ‘চাকরিতে কোটা, মানি না মানব না’, ‘মুক্তিযুদ্ধের বাংলায়, কোটার ঠাঁই নাই’, ‘হাইকোর্টের রায়, মানি না মানব না’, ‘সংবিধানের মূলকথা সুযোগের সমতা, মুক্তিযুদ্ধের মূলকথা সুযোগের সমতা’, ‘কোটা না মেধা, মেধা মেধা’, ‘সারা বাংলা খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে’ ধরনের স্লোগান দেন।

মিছিল পরবর্তী সমাবেশে ঢাবি ছাত্রী তামান্না আক্তার বলেন, ‘আমি নারী হয়ে বলছি, আমি নারী কোটা চাই না। আমরা একটি বৈষম্যহীন বাংলাদেশ নির্মাণ করতে চাই। মেধাবীরা যোগ্যতা দিয়ে চাকরি পাবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে উপেক্ষা করে যে রায় দিয়েছে, তা আমরা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করলাম।’

বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের ছাত্র মোয়াজ্জেম হোসেন রিহাম বলেন, ‘আমরা হাইকোর্টের রায়কে ঘৃণাভরে প্রত্যাখান করছি। শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, কোটা প্রথা বিদ্যমান রাখার জন্য, কিন্তু আমাদের প্রশ্ন উনি কি সাধারণ শিক্ষার্থীদের শিক্ষামন্ত্রী নাকি দুই পারসেন্ট শিক্ষার্থীর মন্ত্রী?’

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ছাত্র রিফাত রশিদ বলেন, ‘আমাদের সংবিধানে সরকারি চাকরিতে সমতা নিশ্চিতের কথা বলা হয়েছে, কিন্তু আজকে কোটার মাধ্যমে মেধাবীদের অবহেলা করা হচ্ছে। এই ছাত্রসমাজ কোনো দাবি আদায়ে যতবারই রাস্তায় নেমেছে, সেই দাবি আদায় করে রাজপথ ছেড়েছে।

‘আজকেও আমরা কোটা পুনর্বহালের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছি। যদি এই বৈষম্যমূলক কোটা পুনর্বহালের সিদ্ধান্ত বাতিল না করা হয়, তাহলে শিক্ষার্থীরা এই রাজপথ ছাড়বে না। প্রয়োজনে রক্ত ঝরবে, রাজপথে লাশ পড়বে, তবুও আমরা এই দাবি আদায় করে ছাড়ব ইনশাল্লাহ।’

আরও পড়ুন:
‘প্রত্যয় স্কিম’ ইস্যুতে কর্মবিরতির কর্মসূচি ঢাবি শিক্ষক সমিতির
দস্যুতার মামলায় দুই ঢাবি শিক্ষার্থী গ্রেপ্তার, পরে জামিন
‘প্রশিক্ষণে ৭০% নম্বর ছাড়া ঢাবি প্রভাষকদের পদোন্নতি নয়’
শ্রাবণের ওপর হামলার প্রতিবাদে নয়াপল্টনে ছাত্রদলের বিক্ষোভ
রবীন্দ্রনাথে প্রভাবিত হয়ে বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন করেছেন: ঢাবি উপাচার্য

মন্তব্য

তারুণ্য
Tushar and Liku were dropped from the Prime Ministers press wing

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে বাদ পড়লেন তুষার ও লিকু

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে বাদ পড়লেন তুষার ও লিকু হাসান জাহিদ তুষার (বাঁয়ে) ও গাজী হাফিজুর রহমান লিকু। কোলাজ: নিউজবাংলা
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের উপ-প্রেস সচিব (ডিপিএস) হাসান জাহিদ তুষার এবং অপরজন একান্ত সহকারী সচিব গাজী হাফিজুর রহমান লিকুর চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিল করা হলো।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দুই কর্মকর্তার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে। বুধবার তাদের নিয়োগ বাতিল করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

তাদের একজন হলেন উপ-প্রেস সচিব (ডিপিএস) হাসান জাহিদ তুষার এবং অপরজন একান্ত সহকারী সচিব গাজী হাফিজুর রহমান লিকু।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সম্পাদিত চুক্তিপত্রের অনুচ্ছেদ-৮ অনুযায়ী হাসান জাহিদ তুষারের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ ১ জুন থেকে বাতিল করা হলো।

২০১৯ সালের ৪ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব পদে নিয়োগ পেয়েছিলেন তুষার। সবশেষ ২৮ জানুয়ারি তাকে একই পদে পুনরায় নিয়োগ দেয়া হয়। এর প্রায় চার মাস পর তার নিয়োগ বাতিল করা হলো।

প্রসঙ্গত, মাগুরা জেলায় জন্মগ্রহণকারী হাসান জাহিদ তুষার দীর্ঘদিন একটি ইংরেজি দৈনিকে কর্মরত ছিলেন। সেখান থেকে চাকরি হারানোর পর তিনি যুক্তরাষ্ট্রে থিতু হওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রয়াত এক প্রভাবশালী ব্যক্তির সুপারিশে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইংয়ে জায়গা পান তিনি।

কী কারণে তুষারের নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে তা প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়নি। তবে একটি অনলাইন পোর্টালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তার সম্পর্কে তার স্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর কাছে গুরুতর অভিযোগ করেছেন এবং সেই অভিযোগগুলোর সততা যাচাই করে প্রমাণ হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতেই প্রধানমন্ত্রী এই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। সামাজিক গণমাধ্যমে বেশ কিছুদিন ধরেই তুষারের বিরুদ্ধে পরকীয়াসহ নারী কেলেংকারির ঘটনা নিয়ে লেখালেখি চলছিলো।

এদিকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে তুষারের একটি ছবি অন্তর্জালে অনেক দিন ধরেই দেখা যাচ্ছিল। এছাড়া তার বিরুদ্ধে রূঢ় আচরণ, দাম্ভিক ব্যবহার, সাংবাদিকদের সঙ্গে অসহযোগিতামূলক আচরণের অভিযোগ অনেক দিন আগে থেকেই। কয়েকজন সাংবাদিকের চাকরি চলে যাওয়ার পেছনেও তার হাত রয়েছে বলে মনে করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এই নিয়োগ নিয়ে বুধবার কথা বলেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। দলের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, দায়িত্ব পালনে কোনো প্রকার বিচ্যুতি ঘটেছে বলেই তাদের নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে।

গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের দুর্নীতির বিষয়ে ব্যবস্থা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আজ (বুধবার) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দুই গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তার চুক্তি বাতিল করা হয়েছে। সে বিষয়ে আপনারা কি আগে রিপোর্ট করেছিলেন? সেটা এখন পাচ্ছেন আপনারা।’

তাদের (দুই কর্মকর্তার) বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আছে কি না জানতে চাইলে কাদের বলেন, ‘তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির কোনো অভিযোগ আছে কি না সেটা আমি জানি না। নিশ্চয়ই তাদের কর্তব্যে কোনো প্রকার বিচ্যুতি ঘটেছে। তবে সেটি কী রকম আমি জানি না।’

মন্তব্য

তারুণ্য
The new director general of RAB is Haroon Or Rashid

র‌্যাবের নতুন মহাপরিচালক হারুন অর রশিদ

র‌্যাবের নতুন মহাপরিচালক হারুন অর রশিদ ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদ। ছবি: সংগৃহীত
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, র‌্যাবের নতুন মহাপরিচালক হিসেবে ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদের নিয়োগ কার্যকর হবে ৫ জুন থেকে। তিনি বর্তমান মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেনের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন।

র‌্যাবের নতুন মহাপরিচালক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন পুলিশ সদর দপ্তরে দায়িত্বরত অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদ। তিনি বর্তমান মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেনের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে বুধবার প্রজ্ঞাপন জারি করে এই নিয়োগের খবর জানানো হয়েছে। বলা হয়েছে, এই নিয়োগ আদেশ কার্যকর হবে ৫ জুন থেকে।

পৃথক প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে, বর্তমান মহাপরিচালক খুরশীদ হোসেন অবসর-উত্তর ছুটিতে যাবেন, যা ৫ জুন শুরু হয়ে শেষ হবে ২০২৫ সালের ৪ জুন।

ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদের গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের মোল্লাকান্দি গ্রামে। বর্তমানে তিনি পুলিশ সদর দপ্তরে অতিরিক্ত আইজিপি (হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট) পদে কর্মরত। এর আগে ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি ছিলেন তিনি।

হারুন অর রশিদ ১৯৯৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরিসংখ্যান বিভাগ থেকে এমএসসি করেন। ২০০৯ সালে যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অফ লন্ডন থেকে এলএলবি এবং ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন।

ছোটবেলা থেকে অসম্ভব মেধাবী হারুন অর রশিদের বাবা আহম্মেদ আলী ছিলেন একজন ব্যবসায়ী। সাত ভাই-বোনের মধ্যে তিনি ষষ্ঠ। হারুন অর রশিদ ১৯৯৫ সালে ১৫তম বিসিএস পুলিশ ক্যাডারে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি পুলিশের বিভিন্ন পদে চাকরি করেছেন।

মন্তব্য

তারুণ্য
35 aspirants block Shahbag intersection 10 arrested

৩৫ প্রত্যাশীদের শাহবাগ মোড় অবরোধ, ১০ জন ‘আটক’

৩৫ প্রত্যাশীদের শাহবাগ মোড় অবরোধ, ১০ জন ‘আটক’ শনিবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে শাহবাগ মোড়ে পেট্রোল জালিয়ে বিক্ষোভ করতে দেখা যায় ৩৫ প্রত্যাশীদের। ছবি: নিউজবাংলা
সাড়ে তিনটার দিকে তারা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে শাহবাগ মোড়ে বসে পড়েন। এ সময় সেখানে যান চলাচল স্থবির হয়ে পড়ে। শিক্ষার্থীদের এই অবরোধ কর্মসূচি চলার ১০/১৫ মিনিটের মধ্যে পুলিশ এসে তাদের ছত্রভঙ্গ করে কয়েকজন আন্দোলনকারীকে আটক করে।

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার দাবিতে আন্দোলনরতরা রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে। তাদের দাবি, ছত্রভঙ্গ করার সময় পুলিশ তাদের ওপর লাঠিচার্জ করে কয়েকজনকে আটক করেছে। এছাড়া মেয়েদের গায়েও হাত তুলেছেন বলেও অভিযোগ তাদের।

শনিবার বেলা সাড়ে তিনটার পর এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে, বেলা ১১টা থেকে ৩৫ প্রত্যাশী শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রাজু ভাষ্কর্যের সামনে তাদের সমাবেশ শুরু করেন। পরে বেলা আড়াইটার দিকে তারা তাদের দাবি বাস্তবায়নে গণভবনের দিকে যাত্রা শুরু করলে শাহবাগ মোড়ে ব্যারিকেড দিয়ে আন্দোলনকারীদের আটকে দেয় পুলিশ। প্রায় এক ঘণ্টা সেখানে পুলিশ এবং আন্দোলনকারীরা মুখোমুখি অবস্থান করেন।

পরে সাড়ে তিনটার দিকে তারা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে শাহবাগ মোড়ে বসে পড়েন। এ সময় সেখানে যান চলাচল স্থবির হয়ে পড়ে। শিক্ষার্থীদের এই অবরোধ কর্মসূচি চলার ১০/১৫ মিনিটের মধ্যে পুলিশ এসে তাদের ছত্রভঙ্গ করে কয়েকজন আন্দোলনকারীকে আটক করে। এ সময় নারী শিক্ষার্থীদেরও আটক করতে দেখা গেছে।

আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থী খাদিজা মুক্তা বলেন, ‘পুলিশ আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে লাঠিচার্জ করে আমাদের দশজন সহকর্মীকে আটক করেছে। আমাদের নারী শিক্ষার্থীদের গায়েও হাত তুলেছে। আমরা এটির বিচার চাই। বর্তমানে আমরা রাজু ভাষ্কর্যে অবস্থান করছি। এখান থেকেই পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

আরও পড়ুন:
চাকরির বয়সসীমা ৩৫ করার দাবিতে শাহবাগ অবরোধ
শাহবাগে পুলিশের বাধায় পণ্ড ‘লাল কার্ড সমাবেশ’

মন্তব্য

p
উপরে