ব্যবসায়িক ভিডিও কনফারেন্সিং যত অ্যাপ

ব্যবসায়িক ভিডিও কনফারেন্সিং যত অ্যাপ

ভিডিও কনফারেন্স করতে কিছু জনপ্রিয় অ্যাপ।

চলতি করোনা মহামারি সময়ে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সফটওয়্যার হলো জুম। বিজনেস পারপাসে ব্যবহারের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার এটি।

ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে আমরা দূরে কারও সঙ্গে মিটিং করতে ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার ব্যবহার করি। ট্রাভেল করতে করতে গাড়িতে বসে, কখনো অফিসে, বাসায় বসেও মিটিং করি।

এসব কাজে সাধারণ ব্যবহারের পাশাপাশি কিছু ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করি।

চলুন দেখে নিই ব্যবসায়িক কাজে কোন ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যারগুলো বেশি ব্যবহার হচ্ছে।

জুম

চলতি করোনা মহামারি সময়ে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সফটওয়্যার হলো জুম। বিজনেস পারপাসে ব্যবহারের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার এটি।

এর মাধ্যমে ওয়ান-টু-ওয়ান চ্যাট পরিচালনার পাশাপাশি গ্রুপ কল করতে পারবেন। পরিচালনা করতে পারবেন ট্রেনিং সেশন, অভ্যন্তরীণ ও বাইরের অনেকেই এতে যোগ দিতে পারবেন।

এমনকি একসঙ্গে এক হাজার জন যুক্ত হতে পারবেন ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে। আর এক সঙ্গে স্ক্রিনে ৪৯টি এইচডি ভিডিও দেখা যাবে এতে। তবে এটি ব্যবহার করতে হলে মাসে সর্বনিম্ন ১৫ ডলার সাবস্ক্রিপশন ফি গুণতে হবে আপনাকে। (https://zoom.us/pricing) জুম ডটকম ইউএস ঠিকানা থেকে প্যাকেজটি কিনে ইনস্টল করা যাবে সফটওয়্যারটি।

ব্লুজিন্স মিটিং

অনলাইনে মিটিং প্লাটফর্মের জন্য আপনার পছন্দের আরেকটি সফটওয়্যার হতে পারে ব্লুজিন্স মিটিং। এটি একটি আধুনিক ভিডিও কনফারেন্সিং মিটিংয়ের সহজ প্লাটফর্ম। কাউকে খুব দ্রুত মিটিংয়ে সংযুক্ত করতে চাইলে ব্লুজিন্সের জুড়ি নেই।

স্মার্টফোন, ডেক্সটপ অ্যাপ এমনকি এটি ব্রাউজার থেকেও সহজে ব্যবহার করা যায়। ডলবি ভয়েজ, ব্যাকগ্রাউন্ড নয়েজ ক্যান্সেলিং ফিচারের সঙ্গে করা যাবে অন্যদের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ারিং।

ব্লুজিন্সে এক সঙ্গে ৫০ জন যুক্ত হয়ে মিটিং করা যাবে। সে জন্য অবশ্য এটির কয়েকটি সাবস্ক্রিপশন ফি রয়েছে। মাসিক ও বাৎসরিক প্যাকেজ, এমনকি প্রতিবার মিটিং ভিত্তিতেও প্যাকেজ রয়েছে। ব্লুজিন্স মিটিং সাবস্ক্রাইব করতে চাইলে ব্লুজিন্স ডটকমে (www.bluejeans.com/) গিয়ে প্যাকেজ কিনতে পারবেন। চাইলে স্বল্প সময়ের জন্য ফ্রি ট্রায়াল ভার্সনও ব্যবহার করা যাবে।

মাইক্রোসফট টিম

মাইক্রোসফট টিম কোম্পানিটির আরেক তুমুল জনপ্রিয় ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ যা স্কাইপের উত্তরসূরী। এটি মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫-এর একটি পণ্য। এতে যে কেউ ফ্রি ভার্সনে সাইন আপ করতে পারেন। অবশ্য এজন্য মাইক্রোসফটে অ্যাকাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক।

এক সঙ্গে ৩০০ জন যুক্ত হওয়ার পাশাপাশি থাকছে গেস্ট অ্যাক্সেস, ওয়ান টু ওয়ান, গ্রুপ ভিডিও, স্ক্রিন শেয়ারিংসহ আরও অনেক সুবিধা।

মাইক্রোসফটের সেবাটি প্রোডাক্ট ডট অফিস ডটকমে (products.office.com) গিয়ে কিনতে পারবেন।

গো টু মিটিং

লগমিইন কয়েক বছর আগে টিয়ার অধিগ্রহণ করে। পরে তারা ২০১৬ সালে গো টু মিটিং ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যারটি নিয়ে আসে। অবশ্য এর একটি উন্নত এবং প্রধান আপডেট বাজারে ছাড়া হয় ২০১৯ সালে। সেখানে অনেক নতুন ফিচার দেওয়া হয়। এটি ওয়েব ব্রাউজার, মোবাইল ও ডেক্সটপ সংস্করণে ব্যবহার করা যাবে।

এটি প্রথম ১৪ দিন ট্রায়াল ভার্সন হিসেবে বিনামূল্যে ব্যবহার করা গেলেও এরপর সাবস্ক্রিপশন করতে হবে। এজন্য মাসিক ১২ ডলার থেকে এর শুরু করে কয়েকটি প্যাকেজ নিতে পারবেন গোটুমিটিং ডটকম (gotomeeting.com) থেকে।

জোহো মিটিং

প্রায় ২৫ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত জোহো এখন বিশ্বব্যাপী অন্তত ৫ কোটি মানুষ ব্যবহার করছে। এটি জোহো ওয়ানের একটি ফ্ল্যাগশিপ পণ্য। এটি ওয়েব নির্ভর হলেও এর মোবাইল অ্যাপ রয়েছে। রয়েছে জোহো মিটিং ওয়েবিনার ট্রেনিং, অনলাইন মিটিং এবং প্ল্যান স্টার্টিং। zoho.com/meeting থেকে কেনা যাবে সফটওয়্যারটি।

এর জন্য অবশ্য প্রতি মাসে একটি মিটিংয়ে ১০ ডলার গুণতে হবে আপনাকে। একসঙ্গে ১০০ জন একটি মিটিং করতে পারবেন। অবশ্য তারা বার্ষিক ভিত্তিতেও ভিডিও কনফারেন্সিং প্যাকেজ অফার করে থাকে।

সিসকো ওয়েবএক্স

ওয়েবএক্স ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার জগতে খুবই পরিচিত নাম। এটি ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। আর ২০০৭ সালে সিসকো এটি নিজেদের পকেটে পুরে। ওয়েবএক্সে বিনামূল্যে ব্যবহারের জন্য অনেক ধরনের ফিচার রয়েছে। ফুল এইচডি ভিডিও, স্ক্রিন শেয়ারিং, ডেক্সটপ ও মোবাইলে এটি ব্যবহার করা যাবে।

নির্দিষ্ট পরিমাণ ভিডিও রেকর্ড সুবিধাও পাওয়া যাবে। প্রতিটি মিটিংয়ে ৫০ জন অংশ নিতে পারবেন। এছাড়াও পেইড সংস্করণে মাসে ১৩ দশমিক ৫০ ডলার থেকে শুরু হয় এর প্যাকেজ। রয়েছে এন্টারপ্রাইজ প্ল্যান। কেনা যাবে webex.com ওয়েবসাইটে গিয়ে।

জয়েন ডটমি

এটি লগমিইন পরিবারের আরেকটি ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার। ফ্রিতে অডিও মিটিং, স্ক্রিন শেয়ারিং করা যাবে তিনজন পর্যন্ত। তবে পেইড সংস্করণে ২৫০ জন পর্যন্ত ভিডিও কলে যুক্ত হতে পারবেন। পেইড সংস্করণে মাসে সর্বিনম্ন ১০ ডলার থেকে গুণতে হতে পারে ৩০ ডলার পর্যন্ত। জয়েন ডট মি (join.me) ঠিকানায় গিয়ে যে কেউ কিনতে পারবেন সফটওয়্যারটি।

গুগল হ্যাংআউট মিট

গুগলের হ্যাংআউট মিট বিজনেস মিটিংয়ের জন্য উপযুক্ত একটি ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার। জি স্যুট সাবস্ক্রাইবারদের জন্য এটি বিজনেস মিটিং কনফারেন্সিং সেবা দেয়। এখানে বাইরের যেকেউ অংশ নিতে পারেন।

গুগলের ক্রোম ব্রাউজারের জন্য ডিজাইন করা হলেও অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস সংস্করণেও ব্যবহার করা যায় সফটওয়্যারটি। সাধারণ জি স্যুট ব্যবহারকারীরা ১০০ জন, বিজনেসে ১৫০ জন এবং এন্টারপ্রাইজ সংস্করণে এতে ২০০ জন পর্যন্ত একসঙ্গে মিটিং করতে পারেন। সাবস্ক্রাইব করতে আপনাকে যেতে হবে জিস্যুট ডট গুগল ডটকমে।

স্ল্যাক

আপনার প্রতিষ্ঠান যদি পেইড কোনো ভিডিও কনফারেন্স সফটওয়্যার ব্যবহার করতে না চায় তাহলে স্ল্যাক ব্যবহার করে দেখতে পারেন। slack.com ওয়েবসাইট থেকে বিনামূল্যে নামিয়ে নিতে পারবেন এটি। ভালো মানের ভিডিও কলিং, বেশ কছু ফিচারে অভিজ্ঞতা খারাপ হবে না। এতে অবশ্য শুধু ভিডিও কলের ক্ষেত্রে ডেক্সটপ সংস্করণ ব্যবহার করতে পারবেন। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস ব্যবহারে শুধু ভয়েস কল করতে পারবেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য