20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
দেশের ৬ প্রতিষ্ঠান পেল উইটসা পুরস্কার

দেশের ৬ প্রতিষ্ঠান পেল উইটসা পুরস্কার

‘গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ নামের পুরস্কারটি দিয়েছে ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিস অ্যালায়েন্স- উইটসা।

তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে দেশের মানুষের জীবনমান উন্নত করা ও সহজেই হাতের নাগালে সেবা পৌঁছে দেয়ার স্বীকৃতি হিসেবে চলতি বছর ছয় ক্যাটেগরিতে আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠান।

‘গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ নামের পুরস্কারটি দিয়েছে ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিস অ্যালায়েন্স- উইটসা।

বুধবার মালোয়েশিয়ায় শুরু হয়েছিল তিন দিনের উইটসা সম্মেলন। বৃহস্পতিবার রাতে সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে পুরস্কার ঘোষণা দিয়েছে। শুক্রবার শেষ দিনে ওয়েবসাইটে পুরস্কার বিজয়ীদের নাম জানিয়েছে ৮০টি দেশের তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক সংস্থাটি।

চলতি বছর ১০ বিভাগে বিজয়ী ও রানারআপ এবং ২১টি মেরিট পুরস্কার ঘোষণা করেছে সংগঠনটি। এর মধ্যে চারটি বভিাগে রানানআপ ও দুই বিভাগে মেরিট পুরস্কার জিতেছে বাংলাদেশ।

প্রতিষ্ঠানগুলো হলো কোভিড ১৯ টেক সলিউশনস ফর সিটিজ অ্যান্ড লোকালিটিজ বিভাগে সিনেসিস আইটি লিমিটেড ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের এটুআই প্রকল্প, পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ বিভাগে সরকারের ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্ট্রাপ্রেনিউরশিপ একাডেমি (আইডিয়া) প্রকল্প, ইনোভেটিভ ই-হেলথ সল্যুসনস বিভাগে মাইসফটের মাই হেলথ বিডি, ভার্চুয়াল হসপিটাল অব বাংলাদেশ, ই-এডুকেশন অ্যান্ড লার্নিং বিভাগে বিজয় ডিজিটাল।

মেরিট পুরস্কার হিসেবে ডিজিটাল অপরচুনিটি অর ইনক্লুশন বিভাগে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস নগদ ও সাসটেইনেবল গ্রোথ বিভাগে ডিভাইন আইটি লিমিটেডের প্রিজম ইআরপি।

শুক্রবার এক বিজ্ঞপ্তিতে নগদ তাদের পুরস্কার পাওয়ার কথা জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে উইটসা অ্যাওয়ার্ডটিকে গুরুত্বপূর্ণ ও সম্মানজনক আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি হিসেবে উল্লেখ করেছে। উইটসার কাছ থেকে এই স্বীকৃতি বাংলাদেশ বিশ্বে তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর সেবার ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করবে বলে প্রত্যাশার কথা জানিয়েছে নগদ।

আরেক বিজ্ঞপ্তিতে মাইহেলথ জানিয়েছে, তারা দেশের স্বাস্থ্য খাত ডিজিটালাইজেশনের কাজ করছে। তাদের লক্ষ্য প্রযুক্তিকে স্বাস্থ্যসেবা খাতের একটি সম্পদ হিসেবে তৈরি করা।

শেয়ার করুন

মন্তব্য