পুঁজিবাজারে লেনদেন ১০টা থেকে ২টা

পুঁজিবাজারে লেনদেন ১০টা থেকে ২টা

ব্যাংকের সঙ্গে মিল রেখে পুঁজিবাজারে লেনদেনের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত। ফাইল ছবি

শাটডাউনে সপ্তাহে তিন দিন ব্যাংক বন্ধ থাকার নির্দেশনা আসায় পুঁজিবাজারও এক দিন অতিরিক্ত সময় বন্ধ থাকবে। ব্যাংকের সঙ্গে মিল রেখে লেনদেনের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে আরও এক সপ্তাহ বাড়ানো হয়েছে শাটডাউন। ফলে আগামী সপ্তাহেও শাটডাউন অব্যাহত থাকবে সারা দেশে।

এর মধ্যে নতুন করে বাড়ানো শাটডাউনে ব্যাংকের লেনদেনের সময়সীমা একঘণ্টা বাড়িয়ে নির্দেশনা জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ব্যাংকের কার্যক্রম আগামী বৃহস্পতিবার থেকে চলবে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত। তবে আগের মতো ‍দুদিন সরকারি ছুটির সঙ্গে রোববারও বন্ধ থাকবে ব্যাংকের কার্যক্রম।

শাটডাউনে সপ্তাহে তিন দিন ব্যাংক বন্ধ থাকার নির্দেশনা আসায় পুঁজিবাজারও এক দিন অতিরিক্ত সময় বন্ধ থাকবে। ব্যাংকের সঙ্গে মিল রেখে লেনদেনের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত।

এর আগে শাটডাউনে ব্যাংকের কার্যক্রমের সঙ্গে সমন্বয় রেখে আধা ঘন্টা কমিয়ে পুঁজিবাজারের লেনদেন সময় নির্ধারন করা হয় সকাল ১০টা থেকে একটা।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র রেজাউল করিম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শাটডাউনে পুঁজিবাজারের লেনদেন ব্যাংকের সময় সীমার সঙ্গে সমন্বয় করে রাখা হয়েছে। নতুন করে ব্যাংক ১০টা থেকে আড়াই পর্যন্ত খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়ায় ‍পুঁজিবাজারের লেনদেন চলবে সকাল ১০ টাকা থেকে ২টা পর্যন্ত।’

গত ৫ এপ্রিল লকডাউন দেয়ার পর থেকে ব্যাংকে লেনদেনের সময়সীমা কমানো হলেও সপ্তাহে ৫ দিনই খোলা রাখা হয়। তবে এবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক লেনদেনের সময় সীমা কমানোর পাশাপাশি সাপ্তাহিক ছুটি একদিন বাড়িয়েছে। সিদ্ধান্ত হয়েছে সোম থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত চলবে লেনদেন।

আর পুঁজিবাজারে লেনদেনের জন্য ব্যাংক খোলা থাকতে হয়। তাই রোববার আর্থিক খাতের কোম্পানিগুলো বন্ধ থাকায় পুঁজিবাজারও বন্ধ রাখতে হবে।

বিএসইসির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, খোলা থাকলেও শাটডাউন চলাকালে বিনিয়োগকারীরা ব্রোকারেজ হাউজে গিয়ে লেনদেন করতে পারবেন না। অনলাইনে অ্যাপের মাধ্যমে বা ফোনে কেনাবেচার অর্ডার দিতে হবে।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে চলার পরিপ্রেক্ষিতে এবার সারা দেশে চলমান বিধিনিষেধ আরও কঠোর করেছে সরকার, যা পরিচিতি পেয়েছে শাটডাউন হিসেবে।

গত বৃহস্পতিবার সরকারের পক্ষ থেকে এই পরিকল্পনা জানানোর পর থেকেই পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারীদের মধ্যে নতুন করে অস্থিরতা দেখা দেয়। গত ৫ এপ্রিল লকডাউন দেয়ার পরও পুঁজিবাজার খোলা থাকা এবং এবারও চালু রাখার ইঙ্গিত পাওয়ার পরও রোববার সূচক কমে ১০০ পয়েন্ট।

এরপর সরকার সিদ্ধান্ত কিছুটা পাল্টে সোমবার থেকে শাটডাউন না দিয়ে সীমিত লকডাউনের প্রজ্ঞাপন জারি করে। এই সময়ে ব্যাংকে লেনদেনের সময়সীমা না পাল্টানোয় পুঁজিবাজারেও তিন দিন লেনদেন চলে আগের সময়েই।

গত বুধবার ১ জুলাই থেকে কঠোর বিধিনিষেধ তথা শাটডাউনের প্রজ্ঞাপন জারি হয়। সেখানে জরুরি সেবা হিসেবে কী কী চালু থাকবে, তার মধ্যে ব্যাংক থাকায় বিনিয়োগকারীদের মধ্যে স্বস্তি জন্ম নেয় যে, পুঁজিবাজারও চালু থাকবে।

২০২০ সালের মার্চে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ার পর সাধারণ ছুটি ঘোষিত হলে ব্যাংক চালু থাকলেও ৬৬ দিন বন্ধ থাকে পুঁজিবাজার। তবে শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলামের নেতৃত্বাধীন কমিশন পুঁজিবাজার বন্ধ রাখার পক্ষ নেন।

৫ এপ্রিল লকডাউনের ঘোষণা আসার আগেই কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয় ব্যাংক চালু থাকলে পুঁজিবাজারেও লেনদেন চলবে। তবে ব্যাংক খোলা রাখার প্রজ্ঞাপন আসতে একদিন দেরি হলে ৪ এপ্রিল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ-ডিএসইর প্রধান সূচক হারায় ১৮১ পয়েন্ট।

সেই বিকেলেই আসে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা যে, লকডাউনে চালু থাকবে পুঁজিবাজার। আর ৫ এপ্রিল থেকেই ঘুরে দাঁড়ায় সূচক। তিন মাসেরও কম সময়ে সূচকে যোগ হয় এক হাজার পয়েন্টের বেশি।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সিদ্ধান্ত নিয়েছে, শাটডাউনে রোববারও বন্ধ থাকবে ব্যাংক। তাই পুঁজিবাজারও সেদিন বন্ধ রাখা হয়েছে।

গত সপ্তাহের বুধবার লেনদেন চলাকালে বেলা সাড়ে ১১টায় আসে শাটডাউনের প্রজ্ঞাপন। এতেও উল্লেখ থাকে, খোলা থাকবে ব্যাংক। আর বিএসইসির আগের ঘোষণায় থাকায় বিনিয়োগকারীদের মনে সামান্য যে সংশয় ছিল, সেটিও উবে যায়।

এই ঘোষণা আসার পরে তিন ঘণ্টায় সূচকে যোগ হয় ৬১ পয়েন্ট। সব মিলিয়ে দিনে ১০৮ পয়েন্ট।

এরপর ১ জুলাই ব্যাংক হ্যালি ডে থাকায় বন্ধ থাকে পুঁজিবাজারের লেনদেন। ২ ও ৩ জুলাই সরকারি ছুটি, ৪ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী বাড়তি একদিন ছুটি ঘোষণা করায় পুঁজিবাজারে পরবর্তী লেনদেন হয় ৫ জুলাই। সেদিন পুঁজিবাজারে সূচক বাড়ে ৬৯ পয়েন্ট। তবে তারপর দিন ৬ জুলাই সূচক কমেছে ২৩ পয়েন্টে।

আরও পড়ুন:
পুঁজিবাজারের লেনদেন ১০টা থেকে ২টা
পুঁজিবাজারে লকডাউনের উচ্ছ্বাস শাটডাউনেও

শেয়ার করুন

মন্তব্য