× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

খেলা
Qatar World Cup eight stadiums
hear-news
player
google_news print-icon

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ

যে-আট-স্টেডিয়ামে-হবে-কাতার-বিশ্বকাপ
বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে কাতারে নির্মাণ করা হয়েছে সাতটি নতুন স্টেডিয়াম। দেশটির আগের একটি স্টেডিয়ামসহ মোট আটটি ভেন্যুতে হবে এবারের বিশ্বকাপ। পুরোপুরি প্রস্তুতি সম্পন্ন হওয়া স্টেডিয়মাগুলোতে এখন শুধু ম্যাচ গড়ানোর অপেক্ষা।

ফিফা বিশ্বকাপের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। ৩২ দেশের অংশগ্রহণে কাতারে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ। একে একে দেশটিতে পৌঁছাতে শুরু করেছে দলগুলো। আয়োজক দেশটি এরই মধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতিও শেষ করেছে।

বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে কাতারে নির্মাণ করা হয়েছে সাতটি নতুন স্টেডিয়াম। দেশটির আগের একটি স্টেডিয়ামসহ মোট আটটি ভেন্যুতে হবে এবারের বিশ্বকাপ। পুরোপুরি প্রস্তুতি সম্পন্ন হওয়া স্টেডিয়মাগুলোতে এখন শুধু ম্যাচ গড়ানোর অপেক্ষা।

জেনে নেয়া যাক, বিশ্বকাপের আট স্টেডিয়ামের বিশেষত্ব-

লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম, লুসাইল (ধারণক্ষমতা ৮০ হাজার)

এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় এই স্টেডিয়ামে আগামী ১৮ ডিসেম্বর ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া গ্রুপ পর্বের বেশ কয়েকটি ম্যাচসহ প্রথম সেমিফাইনালের ভেন্যুও এই লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম।

দোহার ১৫ কিলোমিটার উত্তরে দুই লাখ জনসংখ্যার পরিকল্পিত একটি শহর লুসাইল। বিশ্বকাপের পর এই স্টেডিয়ামটিকে সামাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের বড় একটি স্থান হিসেবে রূপান্তরের পরিকল্পনা রয়েছে। এ কারণে ৮০ হাজার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন স্টেডিয়ামটির বেশিরভাগ আসন উঠিয়ে অন্যত্র দান করা হবে।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম

আল-বায়াত স্টেডিয়াম, আল-খোর (ধারণক্ষমতা ৬০ হাজার)

আগামী ২০ নভেম্বর কাতার বনাম ইকুয়েডরের উদ্বোধনী ম্যাচটি আল-খোরের আল-বায়াত স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া গ্রুপ পর্বের স্পেন বনাম জার্মানির মধ্যকার হাই ভোল্টেজ ম্যাচটিসহ গ্রুপ পর্বের পাঁচটি, শেষ-১৬ এর একটি, কোয়ার্টার ফাইনালের একটি ও দ্বিতীয় সেমিফাইনাল এই মাঠেই অনুষ্ঠিত হবে।

বেদুইনদের তাবুর আদলে এই স্টেডিয়ামটি নির্মাণ করা হয়েছে। বিশ্বকাপের পর স্টেডিয়ামটির ছাদ সরিয়ে ফেলার পরিকল্পনা রয়েছে কর্তৃপক্ষের।

দোহার ৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় অন্যতম ব্যস্ত শহর হিসেবে আল-খোর পরিচিত। আল-খোর থেকে রাজধানী দোহায় দ্রুত পৌঁছানোর জন্য মেট্রো রেলের ব্যবস্থা আছে। সমর্থকদের যাতায়াতের জন্য সবচেয়ে কষ্টকর একটি ভেন্যুও বলা যায়।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
আল-বায়াত স্টেডিয়াম

অ্যাডুকেশন সিটি স্টেডিয়াম, আল-রাইয়ান (ধারণক্ষমতা ৪০ হাজার)

দোহার পশ্চিমাঞ্চলে আল-রাইয়ান শহরের বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের মধ্যে এই স্টেডিয়ামটি অবস্থিত। এখানে যেতেও মেট্রো রেল ব্যবহার করতে হবে। এই স্টেডিয়ামে গ্রুপ পর্বের ৬টি, শেষ ১৬ ও কোয়ার্টার ফাইনালের একটি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বকাপের পর এর ধারনক্ষমতা অর্ধেকে নামিয়ে আনা হবে।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
এডুকেশন সিটি স্টেডিয়াম

আহমাদ বিন আলি স্টেডিয়াম, আল-রাইয়ান (ধারণক্ষমতা ৪০ হাজার)

কাতারের ঘরোয়া ফুটবলের অন্যতম সফল ক্লাব আল-রাইয়ানের হোম ভেন্যু এই আহমাদ বিন আলি স্টেডিয়াম। পুরনো ভেন্যুর ঠিক পাশেই নতুন করে বিশ্বকাপকে সামনে রেখে এই স্টেডিয়ামটি নির্মাণ করা হয়েছে। অ্যাডুকেশন সিটির কাছেই এই ভেন্যুর জন্য একটি মেট্রো স্টেশন আছে। এখানে আসলে সমর্থকরা মধ্যপ্রাচ্যের মরুভূমির আবহ পাবেন। এই স্টেডিয়ামটিরও ধারনক্ষমতা বিশ্বকাপের পর অর্ধেকে নামিয়ে আনার পরিকল্পনা রয়েছে।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
আহমাদ বিন আলি স্টেডিয়াম

খালিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম, দোহা (ধারণক্ষমতা ৪০ হাজার)

১৯৭৬ সালে নির্মিত এই স্টেডিয়ামটি কাতার বিশ্বকাপের স্বত্ত্ব পাওয়ার সময় একমাত্র ফুটবল ভেুন্য হিসেবে পরিচিত ছিল। যদিও তারপর এর অনেক কিছুই সংষ্কার করা হয়েছে। ২০১১ এশিয়ান কাপ ফাইনাল ও লিভারপুল-ফ্ল্যামেঙ্গোর মধ্যকার ২০১৯ সালের ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপের ফাইনাল এই স্টেডিয়ামেই অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগামী ২১ নভেম্বর এই মাঠেই ইরানের বিপক্ষে ইংল্যান্ড তাদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে। এ ছাড়া গ্রুপ পর্বের আরও পাঁচটি ও নক আউট পর্বে শেষ-১৬ এর একটি ম্যাচ এখানে অনুষ্ঠিত হবে।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
খালিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম

আল-থুমামা স্টেডিয়াম, দোহা (ধারণক্ষমতা ৪০ হাজার)

দোহার দক্ষিণে হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে অবস্থিত এই স্টেডিয়ামটি। মধ্যপ্রাচ্যে পুরুষরা ঐতিহ্যগতভাবে মাথায় যে টুপি পড়ে থাকে তার আদলেই এই স্টেডিয়ামটি নির্মাণ করা হয়েছে। এখানে ৬টি গ্রুপ পর্বের ম্যাচ ও একটি কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ আয়োজিত হবে। বিশ্বকাপের পর ব্যয় সংকোচনে এর ধারণক্ষমতা ২০ হাজারে নামিয়ে আনা হবে।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
আল-থুমামা স্টেডিয়াম

স্টেডিয়াম ৯৭৪, দোহা (ধারণক্ষমতা ৪০ হাজার)

৯৭৪ নম্বরটি কাতারের আন্তর্জাতিক ডায়াল কোড। একইসাথে স্টেডিয়াম নির্মাণে যে কন্টেইনার ব্যবহার করা হয়েছে তার সংখ্যাও এটি প্রতিনিধিত্ব হয়েছে। বিশ্বকাপের পর এই স্টেডিয়ামটি পুরোপুরি ভেঙে ফেলা হবে।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
স্টেডিয়াম ৯৭৪

আল-জানুব স্টেডিয়াম, আল-ওয়ারকাহ (ধারণক্ষমতা ৪০ হাজার)

দোহার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর আল-ওয়ারকাহতে এই স্টেডিয়ামটি অবস্থিত। কাতারের ঐতিহ্যবাহী বিশেষ নৌকার আদলে এই স্টেডিয়ামটি নির্মাণ করা হয়েছে। এই ধরনের নৌকার সাহায্যে সমুদ্রে মাছ ধরা ও মুক্তা আহরণ করা হয়।

যে আট স্টেডিয়ামে হবে কাতার বিশ্বকাপ
আল-জানুব স্টেডিয়াম

আরও পড়ুন:
যাদের বিপক্ষে খেলেছি তাদের মধ্যে মেসিই সেরা: রোনালডো
হোটেলে নয়, মেসিরা উঠেছেন ছাত্রাবাসে
ফার্নান্দেজের জোড়া গোলে নাইজেরিয়াকে উড়িয়ে দিল পর্তুগাল

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
Croatias win in the tiebreak is a tearful farewell to Japan

টাইব্রেকে জয় ক্রোয়েশিয়ার, কান্নার বিদায় জাপানের

টাইব্রেকে জয় ক্রোয়েশিয়ার, কান্নার বিদায় জাপানের ম্যাচ শেষে জয় উদযাপনে ক্রোয়েশিয়ার গোলদাতা ইভান পেরিসিচ। ছবি: সংগৃহীত
তুমুল উত্তেজনার ম্যাচে জাপানকে টাইব্রেকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ক্রোয়েশিয়া।

কাতার বিশ্বকাপের প্রথম টাইব্রেক রোমাঞ্চে শেষ হাসিটা হাসল ক্রোয়েশিয়া। তুমুল উত্তেজনার ম্যাচে জাপানকে টাইব্রেকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে তারা।

১২০ মিনিটের বেশি সময় জাল আগলে রাখলেও টাইব্রেকে নিজেদের অসহায়ত্ব চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে এশিয়ান জায়ান্ট জাপান। যার ফলে কান্নায় বিদায় নিতে হয়েছে কাতার বিশ্বকাপ থেকে।

টসে জিতে আগে শট করে শুরুর দুই গোলই মিস হয় জাপানের। অপরদিকে ক্রোয়েশিয়ার অর্জন দুইয়ে দুই। তৃতীয় শটে জাপান জালের ঠিকানা খুঁজে নিলেও ম্যাচ জমিয়ে রাখতেই হয়তো তিন নম্বর শট মিস করে ক্রোয়েশিয়া।

তবে চতুর্থ শটে গেল বারের রানার আপরা জালের ঠিকানা খুঁজে পেলেও ব্যর্থ হয় জাপান। আর তাতেই এশিয়ানদের স্বপ্নভঙ্গ করে শেষ আটে নাম লেখায় লুকা মডরিচরা।

প্রথমবারের মতো ফিফা বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলতে নেম গত আসরের রানার আপদের ঘাম ছুটিয়ে দেয় এশিয়ান জায়ান্টরা। প্রথমার্ধে জাপান ১-০ গোলে এগিয়ে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সমতায় ফেরে ক্রোয়েশিয়া।

ম্যাচের নির্ধারিত ৯০ মিনিটে আর গোলের দেখা পায়নি ক্রোয়েশিয়া ও জাপান। যে কারণে কাতার বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো কোন খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

এরপর অতিরিক্ত সময়েও গোলের দেখা পায়নি দুই দল। যে কারণে অতিরিক্ত ৩০ মিনিট পেরিয়ে গেলে ফলাফল নিষ্পত্তির জন্য পেনাল্টি শ্যুট আউটে গড়ায় ম্যাচের ভাগ্য।

প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা জাপান ম্যাচের শুরু থেকেই চেপে ধরে গতবারের ফাইনালিস্টদের। ম্যাচের তৃতীয় মিনিট থেকেই ক্রোয়েশিয়ার জাল লক্ষ্য করে আক্রমণ চালানো শুরু করে এশিয়ানরা। কিন্তু বারবার আক্রমণের পরও ফিনিশিংয়ের অভাবে সফলতার মুখ দেখছিল না জাপান। বল দখলে পিছিয়ে থাকলেও আক্রমণে কমতি ছিল না জাপানিদের।

দুই দলের একের পর এক ব্যর্থ আক্রমণে প্রথমার্ধ গোলশূন্য শেষ হওয়ার ইঙ্গিত মিলছিল। ৪৩ মিনিটে ডেডলক ভেঙ্গে জাপানিদের এগিয়ে দেন স্ট্রাইকার ডাইজেন মাইদা। ডোয়ানের কর্ণার থেকে করা ক্রস দুর্দান্ত এক হেডে মাইদার কাছে পাঠান ইয়াশিদা। সেখান থেকে জালের ঠিকানা খুঁজে নিতে বিন্দুমাত্র দেরি হয়নি মাইদার। আর তাতেই ১ গোলে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যেতে হয় বর্তমান রানার আপদের।

বিরতি থেকে ফিরে ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে পড়ে ক্রোয়েশিয়ানরা। আর দ্বিতীয়ার্ধের ১০ মিনিটের মাথাতেই সফল হয় গেলবারের ফাইনালিস্টরা। ডি বক্সের বাহিরে থেকে নেয়া লভরেনের দুর্দান্ত এক ক্রস দৃষ্টিনন্দন এক হেডে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন ইভান পেরিসিক। আর তাতেই দল ফেরে সমতায়।

এরপর ম্যাচের বাকিটা সময় আক্রমণের দেখা পেলেও ব্যবধান তৈরিতে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা মেলেনি। যে কারণে সমতায় থেকেই দুই দলকে তাদের শেষ করতে হয় ৯০ মিনিট। আর ফলাফল নিষ্পত্তির জন্য খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

সেখানেও সফলতার মুখ দেখেনি জাপান বা ক্রোয়েশিয়া। যে কারণে অতিরিক্ত সময়ের ৩০ মিনিটও তাদের থাকতে হয় সমতায়। আর তাতে ট্রাইব্রেকে গড়ায় ম্যাচ।

আরও পড়ুন:
জাপান-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচ গড়াল অতিরিক্ত সময়ে
অবশেষে আর্জেন্টিনাকে ফেভারিট মানছেন মেসি
বাড়িতে ডাকাতি, বিশ্বকাপ থেকে দেশে ফিরলেন স্টার্লিং
অনুশীলনে নেইমার, থাকছেন স্কোয়াডে
খেলোয়াড়দের ঝুঁকিতে ফেলার কথা অস্বীকার তিতের

মন্তব্য

খেলা
Neymar returned to Brazils eleven

ব্রাজিলের একাদশে ফিরলেন নেইমার

ব্রাজিলের একাদশে ফিরলেন নেইমার ম্যাচের আগে মাঠে প্রবেশ করছেন নেইমার। ছবি: টুইটার
দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে ব্রাজিল একাদশে তাকে রেখেছেন হেড কোচ লিওনার্দো তিতে। এতে করে তাকে নিয়ে এক সপ্তাহের জল্পনা-কল্পনার অবসান হলো।

সব শঙ্কা কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন নেইমার। দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে ব্রাজিল একাদশে তাকে রেখেছেন হেড কোচ লিওনার্দো তিতে। এতে করে তাকে নিয়ে এক সপ্তাহের জল্পনা-কল্পনার অবসান হলো।

বিশ্বকাপের সার্বিয়ার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চোট পান নেইমার। তার গোড়ালির লিগামেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ধারণা করা হচ্ছিল বিশ্বকাপে তার আর না-ও খেলা হতে পারে। তবে শুক্রবার ব্রাজিল দলের চিকিৎসক রদ্রিগো লাসমার ও ব্রাজিলের হেড কোচ লিওনার্দো তিতে নেইমারের ফেরা নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

রোববার সংবাদ সম্মেলনে তিতে জানান অনুশীলনে তারকা এই ফরোয়ার্ডের অবস্থা পর্যালোচনা করা হবে।

তিতে যোগ করেন, ‘নেইমার রোববার অনুশীলন করবে। সে যদি সুস্থ থাকে তাহলে কাল খেলতে পারে। আমি মিথ্যা তথ্য ছড়াই না। আজ অনুশীলনে সবকিছু ঠিক থাকলে কাল সে খেলবে।’

অনুশীলনে নেইমার ভালো বোধ করায় তিতে তাকে রেখেছেন শুরুর একাদশে।

ব্রাজিলের হয়ে শেষ দুই গ্রুপ ম্যাচে খেলতে পারেননি নেইমার। তবে রিচার্লিসন ও ভিনিসিয়াসের সঙ্গে আজ নেতৃত্ব দেবেন দলের আক্রমণভাগকে।

শুধু নেইমারই নন চোট থেকে সেরে উঠে সরাসরি একাদশে ফিরেছেন ডিফেন্ডার দানিলো। এদার মিলিতাও, অধিনায়ক থিয়াগো সিলভা ও মার্কিনিয়োসের সঙ্গে তিনি রক্ষণ সামলাবেন।

ব্রাজিলের একাদশ: আলিসন, এদার মিলিতাও, থিয়াগো সিলভা, মার্কিনিয়োস, দানিলো, কাসেমিরো, লুকাস পাকেতা, রাফিনিয়া, ভিনিসিয়াস, নেইমার ও রিচার্লিসন।

মন্তব্য

খেলা
Japans lead in the first half with a last minute goal

জাপান-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচ গড়াল অতিরিক্ত সময়ে

জাপান-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচ গড়াল অতিরিক্ত সময়ে দুই দলের ফুটবলারদের বল দখলের লড়াই। ছবি: এএফপি
ডাইজেন মাইদার ৪৩ মিনিটের গোলে ১ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে গেছে জাপান।

কাতার বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো অতিরিক্ত সময়ে গড়াল কোন ম্যাচ। শেষ আটের লড়াইয়ে জাপান ও ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ নির্ধারিত ৯০ মিনিটে ১-১ গোলে সমতা থাকায় সেটি গড়িয়েছে অতিরিক্ত সময়ে।

দুই অর্ধে ১৫ মিনিট করে ৩০ মিনিট আরও খেলা হবে। সেখানে ফলাফল নিষ্পত্তি না হলে ম্যাচ গড়াবে পেনাল্টি শ্যুট আউটে।

শেষ আট নিশ্চিতের লড়াইয়ে জাপানের বিপক্ষে প্রথমার্ধেই কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায় ক্রোয়েশিয়া। ডিজেন মাইদার ৪৩ মিনিটের সময় দেয়া গোলে ১-০ লিড নিয়ে বিরতিতে যায় জাপান।

আর বিরতির পরই ক্রোয়েশিয়াকে সমতায় ফেরান ইভান পেরিসিচ। ৫৫তম মিনিটে দেয়ান লভরেনের ক্রস থেকে দারুণ এক হেডে গোল করেন টটেনহ্যাম হটস্পার তারকা পেরিসিচ। ৯০ মিনিট পর্যন্ত ম্যাচ চলেছে সমতায়।

প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা জাপান ম্যাচের শুরু থেকেই চেপে ধরে গেলবারের ফাইনালিস্টদের। ম্যাচের তৃতীয় মিনিট থেকেই ক্রোয়েশিয়ার জাল লক্ষ্য করে আক্রমণ চালানো শুরু করে এশিয়ানরা।

কিন্তু বারবার আক্রমণের পরও ফিনিশিংয়ের অভাবে সফলতার মুখ দেখছিল না জাপান।

বল দখলে পিছিয়ে থাকলেও আক্রমণে কমতি ছিল না জাপানিদের। যদিও ক্রোয়েশিয়ার ফুটবলারদের প্রতি বেশ আক্রমণাত্মক আচরণ করতে দেখা গেছে ম্যাচ জুড়ে জাপানিদের।

দুই দলের একের পর এক ব্যর্থ আক্রমণে প্রথমার্ধ গোলশূণ্য শেষ হওয়ার ইঙ্গিত মিলছিল। কিন্তু ৪৩ মিনিটে ডেডলক ভেঙ্গে জাপানিদের এগিয়ে দেন স্ট্রাইকার ডাইজেন মাইদা। ডোয়ানের কর্ণার থেকে করা ক্রস দুর্দান্ত এক হেডে মাইদার কাছে পাঠান ইয়শহিদা। সেখান থেকে জালের ঠিকানা খুঁজে নিতে বিন্দুমাত্র দেরি হয়নি মাইদার। আর তাতেই ১ গোলে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যেতে হয় বর্তমান রানার আপদের।

বিরতি থেকে ফিরে ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে পড়ে ক্রোয়েশিয়ানরা। আর দ্বিতীয়ার্ধের ১০ মিনিটের মাথাতেই সফল হয় গেলবারের ফাইনালিস্টরা।

ডি বক্সের বাহিরে থেকে নেয়া লভরেনের দুর্দান্ত এক ক্রস দৃষ্টিনন্দন এক হেডে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন ইভান পেরিসিক। আর তাতেই দল ফেরে সমতায়।

এরপর ম্যাচের বাকিটা সময় জোড়ালো কিছু আক্রমণের দেখা মিলেছিল দুই শিবির থেকেই। কিন্তু কাঙ্খিত গোলের দেখা মেলেনি কারোরই।

যে কারণে সমতায় থেকেই তাদের শেষ করতে হয় ৯০ মিনিট। আর ফলাফল নিষ্পত্তির জন্য খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

আরও পড়ুন:
অবশেষে আর্জেন্টিনাকে ফেভারিট মানছেন মেসি
বাড়িতে ডাকাতি, বিশ্বকাপ থেকে দেশে ফিরলেন স্টার্লিং
অনুশীলনে নেইমার, থাকছেন স্কোয়াডে

মন্তব্য

খেলা
News of Peles critical condition is wrongly claimed by Peles daughter

‘পেলের সংকটাপন্ন অবস্থার খবর ভুল’

‘পেলের সংকটাপন্ন অবস্থার খবর ভুল’ ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি ফুটবলার পেলে।ফাইল ছবি
পেলের কন্যা ফ্লাভিয়া নাসিমেন্তো বলেছেন, ‘এটা অন্যায় যে লোকজন বলছেন বাবা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে এবং প্যালিয়াটিভ কেয়ারে আছেন। বিশ্বাস করুন বিষয়টা তেমন নয়।’

শারীরিক অবস্থার অবনতিতে শনিবার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি ফুটবলার পেলেকে। ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাওয়া সাবেক এই ফুটবলারের শরীরে কেমোথেরাপি কাজ না করায় ‘প্যালিয়াটিভ কেয়ার’-এ রাখার খবর প্রকাশিত হয় বেশ কিছু সংবাদমাধ্যমে। এই সংবাদের বিপরীত তথ্য দিয়েছেন পেলের কন্যা ফ্লাভিয়া নাসিমেন্তো।

প্যালিয়াটিভ কেয়ার একটি বিশেষ ব্যবস্থা। মুমূর্ষু রোগীদের এই ব্যবস্থায় নেয়া হয়। যখন রোগীর শরীরে কোনো চিকিৎসা কাজ করে না, তখনই তাকে প্যালিয়াটিভ কেয়ারে রাখা হয়।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে শনিবার অনেক সংবাদমাধ্যমেই প্রকাশিত হয়, জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে পেলে।

তবে সংবাদমাধ্যমের এই দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন পেলের কন্যা ফ্লাভিয়া নাসিমেন্তো। গ্লোবো টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘এটা অন্যায় যে লোকজন বলছেন বাবা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে এবং প্যালিয়াটিভ কেয়ারে আছেন। বিশ্বাস করুন বিষয়টা তেমন নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আসলে কোলন ক্যানসার থেকে সেরে ওঠার স্থায়ী কোনো চিকিৎসা নেই। তাই অবস্থা বুঝে চিকিৎসায় সামঞ্জস্য আনতে হয়।’

পেলে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর ব্রাজিলের দৈনিক পত্রিকা ‘ফোলহা ডি সাও পাওলো’ তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, অন্ত্রের ক্যানসার চিকিৎসায় কেমোথেরাপিতে পেলের শরীর আর সাড়া দিচ্ছে না। সে কারণে তাকে প্যালিয়েটিভ কেয়ার ইউনিটে নেয়া হয়েছে।

‘ফোলহা ডি সাও পাওলো’ সেই খবরে সরগরম হয়ে পড়ে পুরো বিশ্ব। তাদের বরাত দিয়ে বিবিসিসহ বিশ্বের শীর্ষ মিডিয়াগুলোতে একই খবর প্রকাশ করে।

যদিও পরদিন নিজের ইন্সটাগ্রামে পেলে লেখেন, ‘বন্ধুরা, সবাই শান্ত ও ইতিবাচক থাকুন। অনেক আশায় আছি, আমি শক্ত আছি। আগের মতোই চিকিৎসা নিচ্ছি। মেডিক্যাল ও নার্সিং টিম আমাকে যে সেবা দিচ্ছে তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।’

তিনি আরও লেখেন, ‘আমার ঈশ্বরের প্রতি অনেক বিশ্বাস আছে এবং সারা বিশ্ব থেকে পাওয়া ভালোবাসার প্রতিটি বার্তাই আমাকে শক্তিতে ভরপুর রাখে।’

আরও পড়ুন:
আশায় আছি, শক্ত আছি: পেলে
অন্তিমক্ষণে পেলে!
পেলের অবস্থা স্থিতিশীল

মন্তব্য

খেলা
Bashundhara Kings are champions of Independence Cup for the second time

দ্বিতীয়বারের মতো স্বাধীনতা কাপ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

দ্বিতীয়বারের মতো স্বাধীনতা কাপ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস বসুন্ধরা কিংসের স্বাধীনতা কাপের শিরোপা উদযাপন। ছবি: নিউজবাংলা
ফাইনালে টাইব্রেকারে শেখ রাসেলকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে বিপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। নির্ধারিত সময়ে দুই দলের খেলা ২-২ গোলে ড্র ছিল।

চার বছর পর স্বাধীনতা কাপের শিরোপা জিতেছে বসুন্ধরা কিংস। ফাইনালে টাইব্রেকারে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে বিপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। নির্ধারিত সময়ে দুই দলের খেলা ২-২ গোলে ড্র ছিল।

কুমিল্লার ভাষাশহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে সোমবার বিকেলে দুই দলের আক্রমণাত্মক ফুটবল ম্যাচে উত্তেজনা ছড়ায়।

৯০ মিনিটেও বিজয়ী খুঁজে না পাওয়া গেলে শুরু হয় অতিরিক্ত ৩০ মিনিট। সেখানেও দুই দলকে আলাদা করা যায়নি। শেষ পর্যন্ত পেনাল্টি শুট আউটে কিংস গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো শেখ রাসেলের দুটি শট ঠেকিয়ে দেন।

খেলার প্রথম মিনিটে গোল করেন বসুন্ধরার খেলোয়াড় ব্রাজিলিয়ান মিগুয়েল ফিগেরা। ১২ মিনিটে শেখ রাসেল সমতা ফেরায়। উদো গোলমুখের সামনে থেকে স্কোর ১-১ করেন।

৩০ মিনিটে গোলের জন্য বক্সে ঢুকে পড়া বাপুকোকে ফাউল করেন তারেক কাজী। পেনাল্টি দেন রেফারি। চার্লস দিদিয়ের স্পট থেকে লক্ষ্যভেদ করেন।

বিরতির ঠিক আগে পেনাল্টি পায় কিংস। ৪৩ মিনিটে রবসন রবিনিয়ো বক্সের মধ্যে ঢুকলে ইয়াসিন খান তাকে ফাউল করেন। রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজালে রবিনিয়ো স্পট থেকে গোল করে সমতা ফেরান।

দ্বিতীয়ার্ধে আর কোনো গোল না হলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। ২-২ এ শেষ হয় ৯০ মিনিটের খেলা। অতিরিক্ত সময়ে দুই দল স্কোর পাল্টাতে পারেনি।

বিজয়ী ও রানার্সআপ দলের হাতে পুরস্কার তুলে দেন কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র আরফানুল হক রিফাত। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নাজমুল আহসান ফারুক রোমেনসহ বাফুফে কর্মকর্তারা।

ম্যাচে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হন বসুন্ধরার গোলকিপার জিকো। টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ গোলদাতা হন একই দলের গোমেজ। তিনি ৯ গোল করেন। টুর্নামেন্টের সেরা খেলেয়াড় হন বসুন্ধরা কিংসের রাকিব হোসেন।

মন্তব্য

খেলা
The World Cup will return to Argentina in the eyes of Messi

অবশেষে আর্জেন্টিনাকে ফেভারিট মানছেন মেসি

অবশেষে আর্জেন্টিনাকে ফেভারিট মানছেন মেসি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ শেষে মেসির জয় উদযাপন। ছবি: এএফপি
নেদারল্যান্ডসকে হারাতে পারলে শিরোপা জয়ের পথে এক ধাপ এগিয়ে যাবে লাতিন আমেরিকান জায়ান্টরা। আর এমন সময়ে এসে মেসির কাছ থেকে পাওয়া গেল বিশ্বকাপ জয়ের আশ্বাস। তার মতে, কাতার বিশ্বকাপ উঠবে আকাশি-নীলদের হাতেই।

ফেভারিট তকমা নিয়েই কাতার বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছিল আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপের সময়ে আলবিসেলেস্তে অধিনায়ক লিওনেল মেসির কাছে অসংখ্যবার জানতে চাওয়া হয়েছে, কাতার বিশ্বকাপ কি ঘরে তুলবে আকাশি-নীলরা? নিজের শেষ বৈশ্বিক আসরের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পরেই কি অবসরে যাবেন মেসি?

প্রতিবার এই প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়েছিলেন মেসি। এমনকি নিজেদের ফেভারিট মানতেও নারাজ ছিলেন বিশ্বকাপের শুরু থেকেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা সৌদি আরবের বিপক্ষে হার দিয়ে হলেও আর্জেন্টিনা নিশ্চিত করেছে শেষ আট। হোঁচট খেয়ে শুরুটা হলেও ছন্দে ফিরতে বেশি সময় নেয়নি দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। নিজেদের স্বরূপে ফিরে বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়ার দুয়োধ্বনির দাঁতভাঙা জবাব দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে মেসিরা।

শেষ আটে তাদের প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডস। নেদারল্যান্ডসকে হারাতে পারলে শিরোপা জয়ের পথে এক ধাপ এগিয়ে যাবে লাতিন আমেরিকান জায়ান্টরা। আর এমন সময়ে এসে মেসির কাছ থেকে পাওয়া গেল বিশ্বকাপ জয়ের আশ্বাস। তার মতে, কাতার বিশ্বকাপ উঠবে আকাশি-নীলদের হাতেই।

কোয়ার্টার ফাইনালের আগে সোমবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মেসি বলেন, ‘আর্জেন্টিনা (বিশ্বকাপ জয়ের) সম্ভাব্য দলগুলোর একটি। আমরা শক্তিশালী ও সব সময়ই সেরা দলগুলোর মধ্যেই থাকি। আমরা জানি, আমরা ফেভারিট দলগুলোর একটি। তবে আমাদের এটা মাঠে প্রমাণ করতে হবে।’

শিরোপাজয়ে মেসি এগিয়ে রাখছেন আরও তিন দলকে। শিরোপার দৌড়ে তিনি এগিয়ে রেখেছেন স্পেন, ফ্রান্স ও ব্রাজিলকেও।

মেসি বলেন, ‘আমরা সবাই বিশ্বকাপের সব ম্যাচই দেখার চেষ্টা করি। ক্যামেরুনের বিপক্ষে হারলেও ব্রাজিল ভালো খেলছে। তারা এখনও সবচেয়ে ফেভারিট দলগুলোর একটি। ফ্রান্সও ভালো খেলছে।

‘স্পেন জাপানের বিপক্ষে হারলেও বেশ ভালো খেলছে। তারা নিজেদের খেলা নিয়ে বেশ পরিষ্কার ধারণা রাখে। ওদের থেকে বল নেওয়া খুবই কঠিন। ওরা লম্বা সময় ধরে বল দখলে রেখে মাঠের নিয়ন্ত্রণে থাকে। ওদের হারানো খুবই কঠিন হবে।’

আরও পড়ুন:
বাড়িতে ডাকাতি, বিশ্বকাপ থেকে দেশে ফিরলেন স্টার্লিং
জাপানের সামনে ক্রোয়েশিয়া চ্যালেঞ্জ
বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো মুখোমুখি ব্রাজিল-কোরিয়া
সেনেগালকে উড়িয়ে শেষ আটে ফ্রান্সের সামনে ইংল্যান্ড
এমবাপে-জিরুর গোলে পোল্যান্ড বাধা টপকাল ফ্রান্স

মন্তব্য

খেলা
Raheem Sterling returned home from the World Cup

বাড়িতে ডাকাতি, বিশ্বকাপ থেকে দেশে ফিরলেন স্টার্লিং

বাড়িতে ডাকাতি, বিশ্বকাপ থেকে দেশে ফিরলেন স্টার্লিং ইংল্যান্ডের ফরোয়ার্ড রাহিম স্টার্লিং। ফাইল ছবি
ইংলিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন নিশ্চিত করেছে স্টার্লিং রোববার নকআউট পর্বে সেনেগালের বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয়ের ম্যাচটিতে পারিবারিক কারণে দলের বাইরে ছিলেন।

লন্ডনে নিজের বাড়িতে ডাকাতি হওয়ায় কাতারে দলের ক্যাম্প থেকে ইংল্যান্ডে ফিরে গেছেন ফরোয়ার্ড রাহিম স্টার্লিং। শনিবার কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে তিনি ফিরবেন কি না, তা এখনও নিশ্চিত নয়।

ইংলিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন নিশ্চিত করেছে স্টার্লিং রোববার নকআউট পর্বে সেনেগালের বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয়ের ম্যাচটিতে পারিবারিক কারণে দলের বাইরে ছিলেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে শনিবার রাতে স্টার্লিংয়ের লন্ডনের বাসায় সশস্ত্র ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ইংলিশ ম্যানেজার গ্যারেথ সাউথগেট জানিয়েছেন, ‘এই মুহূর্তে অবশ্যই পরিবারের সঙ্গে তার থাকাটা জরুরি। তার প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন আছে। যতদিন সে থাকতে চায় তাকে ছুটি দেয়া হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে তার ওপর আমি কোনো ধরনের চাপ দিতে চাই না। কখনও কখনও পরিবার যখন সামনে চলে আসে, তখন ফুটবলের গুরুত্ব কমে যায়।’

সাউথগেটের ছয় বছরের দায়িত্বে স্টার্লিং জাতীয় দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড় ছিলেন। ২৭ বছর বয়সী স্টার্লিং এ পর্যন্ত ৮১টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে ২০ গোল দিয়েছেন। ইরানের বিপক্ষে কাতার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ৬-২ গোলের জয়ে স্টার্লিং এক গোল করেছেন।

আরও পড়ুন:
সেনেগালকে উড়িয়ে শেষ আটে ফ্রান্সের সামনে ইংল্যান্ড
প্রথমার্ধে হেন্ডারসন ও কেইন এগিয়ে দিলেন ইংল্যান্ডকে

মন্তব্য

p
উপরে