× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

খেলা
Heres what to watch on TV today including the Hockey Champions Trophy game
hear-news
player
google_news print-icon

হকি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির খেলাসহ টিভিতে আজ যা দেখবেন

হকি-চ্যাম্পিয়নস-ট্রফির-খেলাসহ-টিভিতে-আজ-যা-দেখবেন
প্রতীকী ছবি
ফ্র্যাঞ্চাইজি হকি লিগের প্রথম কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেটর রাউন্ডের খেলা রয়েছে সোমবার।

হকি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি

একমি চট্টগ্রাম-রূপায়ণ কুমিল্লা
সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা, টি স্পোর্টস।

মেট্রো বরিশাল-মোনার্ক পদ্মা
রাত সোয়া ৮টা, টি স্পোর্টস।

কাবাডি

প্রো কাবাডি লিগ
সন্ধ্যা ৫টা ৫০ মিনিট, স্টার স্পোর্টস টু।

টেনিস

এটিপি ফাইনালস
সন্ধ্যা ৭টা, স্পোর্টস এইটিন ওয়ান।

আরও পড়ুন:
বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচসহ টিভিতে আজ যা দেখবেন
ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগসহ টিভিতে আজকের খেলা
টিভিতে আজকের খেলা

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
Excitement of Qatari expatriates of Bangladesh in the World Cup

বিশ্বকাপে কাতারপ্রবাসী বাংলাদেশিদের উচ্ছ্বাস

বিশ্বকাপে কাতারপ্রবাসী বাংলাদেশিদের উচ্ছ্বাস বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনা ছুয়েছে প্রবাসে থাকা বাংলাদেশীদের। ছবি: নিউজবাংলা
চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার রাজারামপুর গ্রামের ফয়সাল আহমেদ জানান, তিনি দীর্ঘদিন থেকেই কাতারে থাকেন। ব্রাজিল-ক্যামেরুনের ম্যাচে তার সঙ্গে ছিলেন সুজন, সেলিম, নাসির হোসেন ও কাওসার আলী। সবাই লুঙ্গি পরে, ঘাড়ে গামছা ও  মাথায় মাথাল দিয়ে, বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে স্টেডিয়ামে যান।

বিশ্বকাপে ফুটবলের উন্মাদনা ছুঁয়েছে প্রবাসে থাকা বাংলাদেশিদের। বিশেষ করে কাতারে থাকা বাংলাদেশিরা অনেকেই স্টেডিয়ামে খেলা দেখার সুযোগ হাতছাড়া করছেন না। খেলা দেখাকে ঘিরে একত্রিত হওয়ারও সুযোগ হয়েছে তাদের। অনেকটা দলবেঁধেই খেলা দেখতে যাচ্ছেন তারা। অনেকেই প্রিয় দলের পতাকা নিয়ে যাচ্ছেন, তেমনি সঙ্গে নিচ্ছেন বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকাও। সেই সঙ্গে অনেকেই বাংলাদেশের প্রচলিত ও ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরে যাচ্ছেন স্টেডিয়ামে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার রাজারামপুর গ্রামের ফয়সাল আহমেদ জানান, তিনি দীর্ঘদিন থেকে কাতারে থাকেন। ব্রাজিল-ক্যামেরুনের ম্যাচে তার সঙ্গে ছিলেন সুজন, সেলিম, নাসির হোসেন ও কাওসার আলী। সবাই লুঙ্গি পরে, ঘাড়ে গামছা ও মাথায় মাথাল দিয়ে এবং বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে স্টেডিয়ামে যান। এ সময় তিনি দর্শকসারি থেকে একটি ভিডিও রেকর্ড করেন, সেই ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট করার পর অনেকেই ধন্যবাদ দিচ্ছেন। সেই সঙ্গে অনেকে শেয়ারও করেছেন।

ফয়সাল আরও জানান, বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে মাঠে যেতে উৎসাহিত করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের হামিদুল্লা উচ্চ বিদ্যালয় এলাকার শামসুল হক। তিনি একসময় ক্রিকেট খেলতেন বলে জানান ফয়সাল। সেই ক্রিকেট পাগল মানুষটি ফয়সালকে মনে করিয়ে দেয় যে বিশ্বকাপ স্টেডিয়ামে যেন অবশ্যই বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে যাই ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নামোশংকরবাটি এলাকার কাতারপ্রবাসী দেলোয়ার হোসেনকে ফয়সাল বলেন, ‘একদিন গল্প করতে করতে দেলোয়ার ভাইকে বললাম, এবার কাতারে বিশ্বকাপ ফুটবল অনুষ্ঠিত হবে। আমরা তো কাতার যাচ্ছি, এমন কিছু নিয়ে যাই যাতে মানুষকে আনন্দ দিতে বা দেশের কালচার তুলে ধরতে পারি।

এরপর আমরা চলে যাই নতুন হাট এলাকায়, মনিরুল ভাইয়ের আব্বার কাছে। তিনি আমার পূর্ব পরিচিত। তাকে বললাম, চাচা আমাদের মাথাল বানিয়ে দিতে হবে। উনি আমাদের মাথাল বানিয়ে দেন। যাই হোক, আমি কাতার চলে আসায় সেগুলো নিয়ে আসতে পারিনি, পরে দেলোয়ার ভাই দেশ থেকে নিয়ে আসে ও সেগুলোতে রং করেন। সেটা আপনারা আমাদের মাথায় দেখেছেন।’

আগামীতেও দেশকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টার কথা উল্লেখ করে ফয়সাল বলেন, ‘আমরা আশা করি, একদিন ফুটবল বিশ্বকাপে বাংলাদেশও খেলবে। তখন অন্য দেশের খেলায় নয়, আমরা মাঠে গিয়ে লাল সবুজের ১১ জনকে উৎসাহ দিব।’

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য এবারে আর্জেন্টাইন ফ্যান গ্রুপ
চোটে বিশ্বকাপ শেষ জেসুসের
আর্জেন্টিনা-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে পোলিশ রেফারি
বিশ্বকাপে যে ভেন্যুর শেষ ম্যাচে খেলবে আর্জেন্টিনা ও অস্ট্রেলিয়া
ফুটবল মাঠে কী কাজ অধিনায়কের?

মন্তব্য

খেলা
Messis biggest picture hand painted on Coxs Bazar beach

কক্সবাজার সৈকতে হাতে আঁকা মেসি

কক্সবাজার সৈকতে হাতে আঁকা মেসি হাতে আঁকা মেসির ছবি ঘিরে কক্সবাজার সৈকতে ভক্তরা। ছবি: নিউজবাংলা
সাদা কাপড়ে অ্যাক্রেলিক রং দিয়ে আঁকা হয়েছে মেসির ছবি। এর দৈর্ঘ্য ৩৪ ফুট এবং প্রস্থ ২২ ফুট। আয়োজক ও শিল্পীর দাবি, কাপড়ে আঁকা এই ছবিটিই বিশ্বের মধ্যে হাতে আঁকা মেসির সবচেয়ে বড় ছবি।

কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে হয়ে গেল হাতে আঁকা ফুটবলার লিওনেল মেসির ছবির প্রদর্শনী। শিল্পী তারিকুল ইসলাম ও হাসিঘর ফাউন্ডেশন কক্সবাজারের উদ্যোগে শনিবার বিকেলে সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্টে এই প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। সৃষ্টিশীল এই প্লেমেকারের ছবি দেখতে সৈকতে ছিল পর্যটক ও মেসি ভক্তদের ভিড়।

ছবির কারিগর শিল্পী তারিকুল ইসলামের দাবি, এটি হাতে আঁকা মেসির ‘সবচেয়ে বড় ছবি’।

আয়োজকরা বলছেন, ‘ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে প্রিয় খেলোয়াড় লিওনেল মেসির সবচেয়ে বড় ছবি সাদা কাপড়ে অ্যাক্রেলিক রং দিয়ে আঁকা হয়েছে। এর দৈর্ঘ্য ৩৪ ফুট ও প্রস্থ ২২ ফুট। তাদের দাবি, কাপড়ে আঁকা এই ছবিটি হবে বিশ্বের মধ্যে হাতে আঁকা মেসির সবচেয়ে বড় ছবি। এই ছবিতে সাতটি রঙের ব্যবহার হয়েছে।’

শিল্পী তারিকুল ইসলাম আরও বলেন, “হাতে আঁকা মেসির ছবি ছাড়াও মিষ্টিকুমড়া বীজে আঁকা ক্ষুদ্র আটটি ছবি রয়েছে। নিজস্ব শিল্পকর্ম দিয়ে তারিকুল ‘শেখ হাসিনা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড-২০২২’ পেয়েছেন। জায়গা করে নিয়েছেন ‘এশিয়া বুক অফ রেকর্ডে’।”

মেসির ভক্ত কক্সবাজার সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী রবিউল আলম বলেন, ‘লা লিগা (১৮৩) এবং কোপা আমেরিকার (১২) ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলে সহায়তাকারীর কৃতিত্বেরও মালিক মেসি। জাতীয় দল এবং ক্লাবের হয়ে তিনি ৭০০-র অধিক পেশাদার গোল করেছেন। পাশাপাশি মেসি একজন সৃষ্টিশীল প্লেমেকার হিসেবেও পরিচিত। আমি মেসির ভক্ত। তার ছবি নিয়ে প্রদর্শনীতে এসে খুব ভালো লাগছে।’

কক্সবাজারে ঘুরতে আসা রাজশাহীর বাসিন্দা রাজিব হাসান ও রুমানা বলেন, ‘মেসির ছবি প্রদর্শনীর খবর শুনে ছুটে এসেছি। বেড়াতে এসে সমুদ্র দর্শনের সঙ্গে মেসির ছবির পাশে ক্যামরাবন্দি হতে পারা অতিরিক্ত পাওয়া।’

রামু ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী আফরা রুমালি অথৈ বলেন, ‘আমি যদিও ব্রাজিল সমর্থক। কিন্তু মেসি একজন ভালো ফুটবলার। সেই জায়গা থেকে আমি প্রদর্শনীতে এসেছি। অন্যদের মতো আমিও তার ছবির পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তুলেছি।’

শিল্পী তারিকুলের বাড়ি বগুড়ার ধুনট উপজেলার বেড়েরবাড়ি। তার বাবার নাম মো. আব্দুল কাফি প্রামাণিক। ছবি আঁকার হাতেখড়ি বড় ভাই তাজমিনুর রহমান তাজের মাধ্যমে। তারিকুল রামু ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজে চারু ও কারুকলা বিষয়ে সহকারী শিক্ষক।

আরও পড়ুন:
সবার আগে শেষ আটে নেদারল্যান্ডস
আর্জেন্টিনা-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে পোলিশ রেফারি
ফুটবল মাঠে কী কাজ অধিনায়কের?
নেদারল্যান্ডস-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ দিয়ে শুরু বিশ্বকাপের নকআউট
আর্জেন্টিনার সম্ভাব্য একাদশ

মন্তব্য

খেলা
KSRM 8th Golf Tournament completed

কেএসআরএম অষ্টম গলফ টুর্নামেন্ট সম্পন্ন

কেএসআরএম অষ্টম গলফ টুর্নামেন্ট সম্পন্ন চট্টগ্রামের ভাটিয়ারি গলফ অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে শুক্রবার টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম। ছবি: সংগৃহীত
সমাপনী অনুষ্ঠানে মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম বলেন, ‘প্রতিবছর আমরা কেএসআরএম-এর সহযোগিতায় এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করে থাকি। এটা অত্যন্ত আনন্দের ও দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ধারাবাহিকতা। আশা এ সম্পর্ক আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।’

চট্টগ্রামের ভাটিয়ারি গলফ অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে অষ্টম গলফ টুর্নামেন্ট সম্পন্ন হয়েছে। শুক্রবার এ টুর্নামেন্টের আয়োজন করে দেশের অন্যতম বৃহৎ ইস্পাত শিল্প প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম।

টুর্নামেন্টের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভাটিয়ারি গলফ অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ও ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেএসআরএম-এর জ্যেষ্ঠ মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয় ও বিপণন) মো. জসিম উদ্দিন, বিজনেস রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট উইংয়ের মহাব্যবস্থাপক কর্নেল (অব.) মো. আশফাকুল ইসলাম, মহাব্যবস্থাপক (মানবসম্পদ ও প্রশাসন) সৈয়দ নজরুল আলম, ভাটিয়ারি গলফ অ্যান্ড কাট্রি ক্লাবের ভাইস প্রসিডেন্ট (অ্যাডমিন অ্যান্ড ফিন্যান্স) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী ইফতেখারুল আলম এবং কেএসআরএমের মিডিয়া অ্যাডভাইজার মিজানুল ইসলাম।

সমাপনী অনুষ্ঠানে মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম বলেন, ‘প্রতিবছর আমরা কেএসআরএম-এর সহযোগিতায় এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করে থাকি। এটা অত্যন্ত আনন্দের ও দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ধারাবাহিকতা। এজন্য কেএসআরএম কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক ধন্যবাদ। আমরা করি এ সম্পর্ক আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।’

আঞ্চলিক পর্যায়ের এসব গলফ টুর্নামেন্ট জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেএসআরএমের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক (ব্র্যান্ড) শাহেদ পারভেজ, উপ-ব্যবস্থাপক মনিরুজ্জামান রিয়াদ, সহকারী ব্যবস্থাপক ডেনিয়েল দেওয়ান, জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা মিজান উল হক, মিথুন বড়ুয়া, মিজানুল ইসলাম, আশরাফুল ইসলাম প্রমুখ।

শেষে টুর্নামেন্টে ১৭০ প্রতিযোগী গলফারের মধ্যে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করা হয় এবং র‌্যাফেল ড্র-এর মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুন:
দুই বলে হ্যাটট্রিক, ইতিহাস গড়লেন আমেরিকার পেইসার
খেলাধুলায় বন্ধুত্বের বন্ধনে মিলিত
শেষ হলো কেএসআরএম গলফ টুর্নামেন্ট
দেশে প্রথমবারের মতো ই-স্পোর্টস টুর্নামেন্ট
শেষ হলো পুলিশ কমিশনারস টেনিস টুর্নামেন্ট

মন্তব্য

খেলা
If you get a legend at the end

অন্তিমক্ষণে পেলে!

অন্তিমক্ষণে পেলে! ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার পেলে। ছবি: সংগৃহীত
হৃদযন্ত্রের সমস্যা ও শরীর ফুলে যাওয়ায় ৮২ বছর বয়সী পেলেকে সাও পাওলোর অ্যালবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমন একসময় এই কিংবদন্তি হাসপাতালে ভর্তি হলেন, যখন কাতারে বিশ্বকাপে লড়ছেন তার উত্তরসূরীরা।

শারীরিক অবস্থা আরও সঙ্কটজনক হয়েছে ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের। কেমোথেরাপি কাজ করছে না তার শরীরে। ব্রাজিলের সংবাদপত্র ‘ফোলহা ডে সাও পাওলো’ এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পেলেকে রাখা হয়েছে ‘প্যালিয়াটিভ কেয়ার’-এ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, প্যালিয়াটিভ কেয়ার একটি বিশেষ ব্যবস্থা। মুমূর্ষু রোগীদের এই ব্যবস্থায় নেয়া হয়। যখন রোগীর শরীরে কোনও চিকিৎসা কাজ করে না, তখনই তাকে প্যালিয়াটিভ কেয়ারে রাখা হয়।

গত মঙ্গলবার হৃদযন্ত্রের সমস্যা ও শরীর ফুলে যাওয়ায় ৮২ বছর বয়সী পেলেকে সাও পাওলোর অ্যালবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমন একসময় এই কিংবদন্তি হাসপাতালে ভর্তি হলেন, যখন কাতারে বিশ্বকাপে লড়ছেন তার উত্তরসূরীরা।

১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি অ্যাডসন অ্যারানটিস দো নাসিমেন্তো বিশ্বজুড়ে পরিচিত পেলে নামেই। তাকে বলা হয় সর্বকালের সেরা ফুটবলার।

কয়েক বছর ধরেই ক্যানসারের চিকিৎসা নিচ্ছেন পেলে। গত বছর তার কোলন টিউমারও ধরা পড়ে। শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে খারাপ হওয়ায় তাকে আর সেভাবে প্রকাশ্যে দেখা যায় না এখন।

একদিন আগেই পেলের অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়লে ভক্তদের আশ্বস্ত করেছিলেন তার মেয়ে কেলি নাসিমেন্তো। গত শুক্রবার ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে তিনি লিখেছিলেন, ‘বাবার শরীর নিয়ে গণমাধ্যমে বেশ উদ্বেগ। তবে জরুরি বা ভয়ের কিছু নেই।’

এদিকে শনিবার ফোলহা ডে সাও পাওলো জানায়, পেলে অন্ত্রের ক্যান্সার মোকাবিলা করার জন্য কয়েক মাস ধরে কেমোথেরাপি নিচ্ছেন। তবে এখন চিকিৎসা আর কাজ করছে না।

আরও পড়ুন:
শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে আবার নেপালের মুখোমুখি বাংলাদেশ
ভুটানকে ৮-০ গোলে হারাল বাংলাদেশের মেয়েরা
তারা খালি টাকা চায়: সালাউদ্দিন
অস্ত্রোপচারের পর সুস্থ আছেন মান্ডা
পুরস্কার আর সংবর্ধনায় ভাসলেন সাফজয়ী পাহাড়ি কন্যারা

মন্তব্য

খেলা
The anger of a section of students at the football festival in DU

ঢাবিতে ফুটবল উৎসবে শিক্ষার্থীদের একাংশের ক্ষোভ  

ঢাবিতে ফুটবল উৎসবে শিক্ষার্থীদের একাংশের ক্ষোভ

  ঢাবিতে বড় পর্দায় খেলা উপভোগ করা দর্শকদের একাংশ। ছবি: নিউজবাংলা
গাড়িচাপায় গৃহবধূ রুবিনা আক্তারের মৃত্যুর পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের একটি অংশ ক্যাম্পাসে রাতের বেলায় বড় পর্দায় বিশ্বকাপ খেলা না দেখানোর দাবি জানায়, তবে সেটি না ঘটায় ক্ষোভ জানিয়েছে তারা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) এলাকায় সাবেক শিক্ষক আজাহার জাফর শাহর প্রাইভেট কারের চাপায় নারী নিহত হওয়ার ঘটনার মধ্যে ক্যাম্পাসে ফুটবল উৎসব নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন একদল শিক্ষার্থী।

প্ল্যাকার্ড হাতে সড়কে দাঁড়িয়ে ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক স্ট্যাটাসে তারা এ ক্ষোভের কথা জানান।

ননদের স্বামীর মোটরসাইকেলে চড়ে শুক্রবার ঢাবি হয়ে হাজারীবাগ যাচ্ছিলেন গৃহবধূ রুবিনা আক্তার। বিকেল সোয়া ৩টার দিকে চারুকলা অনুষদের বিপরীতে পাশের রাস্তা ধরে যাওয়ার সময় আজাহারের গাড়ির ধাক্কায় তিনি পড়ে যান। পরে আজাহার গাড়ি না থামিয়ে রুবিনাকে টেনেহিঁচড়ে নীলক্ষেত পর্যন্ত নিয়ে যান। এতে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনার পর ঢাবি শিক্ষার্থীদের একটি অংশ বিশ্ববিদ্যালয়ে রাতের বেলায় বড় পর্দায় বিশ্বকাপ খেলা না দেখানোর দাবি জানায়, তবে শুক্রবার মধ্যরাতে ব্রাজিল-ক্যামেরুনের ম্যাচের সময় চেনা দৃশ্য দেখা যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুহসীন হল মাঠ ও টিএসসিতে।

এতে ক্ষুব্ধ কিছু শিক্ষার্থী মধ্যরাতেই রাজু ভাস্কর্যে প্ল্যাকার্ড হাতে দাঁড়িয়ে নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবি জানান। তাদের একজন এসএম হল ছাত্র সংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক (জিএস) জুলিয়াস সিজার তালুকদার বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস অনিরাপদ, আমি এখানে দাঁড়িয়ে যখন রুবিনা হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ জানাচ্ছি, তখনও ক্যাম্পাসে অনিরাপদের সব আয়োজন চলছে।

‘এই খেলা দেখার ছলে ক্যাম্পাসের বাইরের অন্তত কয়েক হাজার লোক এখানে অবস্থান করছে। তারা ভুভুজেলা বাজিয়ে শব্দদূষণ করছে। তাদের শব্দদূষণের কারণে এখন যাদের পরীক্ষা চলমান, তাদের কেউ পড়তে পারছে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজকের মর্মান্তিক ঘটনা জানার পর যে কেউ একটু সংবেদনশীল হবে, কিন্তু এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উৎসব চলছে।

‘খেলা উৎসব। আমরাও দেখব, কিন্তু বড় পর্দায় সম্মিলিতভাবে না দেখালে কি হতো না আজ? বিভিন্ন করপোরেট ব্যানারের আড়ালে বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব কালো মুখ লুকিয়ে আছে, তাদের প্রতিহত করতে হবে।’

এদিকে ফেসবুকে মনসুর রাফি নামের এক শিক্ষার্থী লিখেন, ‘আজ দুপুরে একটি রক্তক্ষয়ী ঘটনা ঘটে গেল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে৷ সেই রক্ত শুকানোর আগেই ফুটবল উৎসবে মেতে উঠেছি আমরা। ছি!’

আজহার উদ্দীন অনিক নামে আরেক শিক্ষার্থী লেখেন, ‘আমি আশা করেছিলাম, অন্তত আজকের মতো হৈ-হুল্লোড় করে খেলা দেখা বন্ধ থাকবে। যেহেতু ওই নারীকে গাড়ির তলায় চেপে টিএসসি থেকেই নীলক্ষেতের দিকে মুহসীন হলের মাঠের বিপরীত রাস্তা দিয়েই পিষে ফেলা হয়েছিল, কিন্তু আমি জানি সেটা অবাস্তব আশা; কিছু হবে না।’

সানজানা আফিফা অদিতি নামের একজন লেখেন, ‘এখনও খেলা দেখা হচ্ছে!!! বাঁশি বাজানো হচ্ছে!!! আপনাদের বিবেক কি একটুও কাজ করে না??? এতদিন তো প্রতিদিন বাঁশি বাজিয়ে খেলা দেখলেন। আজও???’

সাইদ আবদুল্লাহ লেখেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যে নারীকে গাড়ির চাকায় আটকে টেনে নিয়ে পিষিয়ে পিষিয়ে মারা হয়েছে, রাস্তায় এখনও হয়তো তার রক্তের দাগ শুকায় নাই। অথচ এর ভেতরেই সেই ক্যাম্পাসেই বড় পর্দায় বিশ্বকাপ খেলা দেখার হিড়িক লেগে গেছে, বাজছে বাঁশি, হচ্ছে লাফালাফি-ঝাঁপাঝাঁপি।

‘ভাবতে অবাক লাগে, এই ক্যাম্পাসের ছাত্ররাই একসময় ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের নেতৃত্ব দিত। আর এখনকার ছাত্ররা রক্তের ওপর দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ তো নয়ই, বরং আনন্দ-উৎসবে মত্ত থাকাটাই প্রেফার করে!’

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানালেন আর্জেন্টিনার কোচ
আর্জেন্টিনাকে পাত্তা দিচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া
বাংলাদেশকে ধন্যবাদ আর্জেন্টিনা দলের
পর্তুগালের সঙ্গী হওয়ার সুযোগ তিন দলের
বিশ্বকাপে আর না-ও দেখা যেতে পারে নেইমারকে

মন্তব্য

খেলা
Argentina beat Brazil in Sherpur

শেরপুরে ব্র‍াজিলকে হারাল আর্জেন্টিনা

শেরপুরে ব্র‍াজিলকে হারাল আর্জেন্টিনা ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশের ফটোসেশন। ছবি: নিউজবাংলা
শুরু থেকেই আধিপত্য বিস্তার করে খেলে আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশ। শেষের দিকে শাহরিয়ার শাকিরের গোলে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। এরপর ব্রাজিল সমর্থক একাদশের খেলোয়াড়রা গোল শোধ করার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে। শেষ পর্যন্ত আর কোনো গোল না হওয়ায় আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশ জয়ী হয়।

শেরপুরে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল দল সমর্থনকারীদের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ হয়েছে। এতে ব্রাজিল সমর্থক একাদশকে ১-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশ।

শেরপুর পৌরসভার কালিগঞ্জ হাসেম ব্র‍িকস মাঠে শুক্রবার বিকেলে ম্যাচটি হয়।

আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল সমর্থকদের মধ্যে সুসম্পর্ক তৈরির লক্ষ্যে খোয়ারপাড় শাপলা চত্বর স্পোর্টিং ক্লাব ম্যাচের আয়োজন করে।

খেলায় শুরু থেকেই আধিপত্য বিস্তার করে আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশ। শেষের দিকে শাহরিয়ার শাকিরের গোলে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। পরে ব্রাজিল সমর্থক একাদশের খেলোয়াড়রা গোল পরিশোধ করার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন। শেষ পর্যন্ত আর কোনো গোল না হওয়ায় আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশ জয়ী হয়।

খেলা শেষে আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশের স্কোরার শাকির বলেন, ‘গোল দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে। শেষ মুহূর্তে এসে গোলটা করেছি।

‘আজকে আমরা যেভাবে জিতলাম, তেমনি আর্জেন্টিনাও ফাইনাল জিতে বিশ্বকাপ নেবে; মেসির হাতেই এবারের কাপটা উঠবে।’

আর্জেন্টিনা সমর্থক একাদশের অধিনায়ক সোহেল বলেন, ‘আমাদের দলের সদস্যরা কেউ নিয়মিত খেলোয়াড় নয়। তবুও আমরা জিতেছি। রাতে বিরিয়ানির আয়োজন আছে। আজ সবাইকে নিয়ে উৎসব হবে।’

ব্র‍াজিল সমর্থক একাদশের অধিনায়ক তাজউদ্দিন দিপু বলেন, ‘খেলায় হার-জিত থাকবেই। ভাগ্য সহায় ছিল না বলে ভালো খেলার পরেও আমরা হেরেছি। ব্র‍াজিল টিম এবার কাপের দাবিদার।’

খোয়ারপাড় শাপলাচত্বর স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি মেরাজ উদ্দিন বলেন, ‘প্রতি বছর আমরা এ ধরনের আয়োজন করব। আমরা চাই সবাই মাদক ছেড়ে খেলাধুলায় মন দিক। এতে সমাজটা সুন্দর হবে।’

আরও পড়ুন:
বিশ্বকাপের ঢেউ আছড়ে পড়েছে দেশে
ডিআরইউ ফুটবলের শিরোপা জিতল চ্যানেল আই
বিশ্বকাপ: টিভিতে ২২ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়
মিডিয়া কাপ প্রীতি ম্যাচে জিতল নগদ
অ্যাকাউন্টিং দিবসে আয়োজিত হলো ফুটবল ফেস্ট

মন্তব্য

খেলা
Sandeep Singh Bhatti will take part in the Tyson Furys event

টাইসন ফিউরির ইভেন্টে অংশ নেবেন সানদিপ সিং

টাইসন ফিউরির ইভেন্টে অংশ নেবেন সানদিপ সিং বক্সিং রিংয়ে সানদিপ সিং। ছবি: সংগৃহীত
বিশ্বজুড়ে ক্রীড়াবিদদের প্রমোশন করা টপ র‍্যাঙ্ক (বক্সিং প্রচারমূলক সংস্থা) ও ফ্র্যাঙ্ক ওয়ারেন (কুইন্সবেরি প্রচারের প্রতিষ্ঠাতা) এর সমর্থনে সানদিপ সিং ৩ ডিসেম্বর ব্রিটিশ পেশাদার বক্সার আইস্যাক লোয়ের বিরুদ্ধে লড়বেন।

টাইসন ফিউরিস আন্ডরকার্ড দলের হয়ে প্রো বক্সিংয়ে সুযোগ পেয়েছেন ভিএন প্রমোশনসের প্রতিনিধিত্ব করা ভারতীয় বক্সার সানদিপ সিং ভাট্টি। বিশ্বজুড়ে ক্রীড়াবিদদের প্রমোশন করা টপ র‍্যাঙ্ক (বক্সিং প্রচারমূলক সংস্থা) ও ফ্র্যাঙ্ক ওয়ারেন (কুইন্সবেরি প্রচারের প্রতিষ্ঠাতা) এর সমর্থনে সানদিপ সিং ৩ ডিসেম্বর ব্রিটিশ পেশাদার বক্সার আইস্যাক লোয়ের বিরুদ্ধে লড়বেন।

পেশাদার প্রো বক্সিং ফাইটার নিরজ গোয়াত ও বিকাশ ইয়াদভ ২০২০ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ভিএন প্রমোশন। তাদের প্রচারে মাঠে ও বাইরে উভয় ক্ষেত্রেই শীর্ষস্থানীয় ভারতীয় পেশাদার বক্সারদের দেখা গেছে।

সম্প্রতি স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট কোম্পানিটির সঙ্গে চুক্তি করা সানদিপ আফগান বক্সার আইমাল সেদিকজাদার বিপক্ষে ৮ রাউন্ডের ডব্লিউ ভিসি শিরোপা জয় করে খ্যাতি পান। বেশ কয়েকটি ভারতীয় পেশাদার বক্সিং টুর্নামেন্টে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার পর তিনি এখন টাইসন ফিউরির কার্ডের অধীনে লড়াই করবেন। পরবর্তীতে বক্সিং চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগও থাকছে তার কাছে।

তার প্রথম আন্ডারকার্ড লড়াইয়ে অংশ নিতে সাহায্য করার বিষয়ে ভিএন প্রমোশনের মালিক নিরজ গোয়াত বলেছেন, ‘সানদিপ একজন বক্সারের চেয়ে বেশি যোদ্ধা। তিনি শুধুমাত্র ভারতে পেশাদার বক্সিং-এর জন্য উচ্চতাই বাড়াননি-এবারের আন্ডারকার্ড লড়াইয়ে তার নির্বাচন নিঃসন্দেহে তাকে লড়াই স্পোর্টস কমিউনিটিতেও তাকে জনপ্রিয় করে তুলবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই মুহূর্তে ভারতের অন্যতম বড় পেশাদার বক্সার হচ্ছে সানদিপ। টপ র্যাঙ্ক ও ফ্র্যাঙ্ক ওরেনসের সাহায্য তাকে আন্তর্জাতিক চ্যাম্পিয়ন করতে ও বিশ্বসেরাদের বিপক্ষে লড়াই করাবে। অনেক ভারতীয় ভক্তই হয়তো দেখে অবাক হবে সন্দ্বীপ আন্তর্জাতিক তারকাদের সঙ্গে একই মঞ্চে লড়াই করছে। এটা অন্য ভারতীয় বক্সারদের জন্যও দরজা খুলে দেবে।’

নিজের রোমাঞ্চের কথা জানিয়ে সানদিপ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘এমন পেশাদার বক্সারদের বিপক্ষে লড়তে পারা আমার ক্যারিয়ারের জন্য অনেক বড় উন্নতি। আমি নিরাজ গোয়াতের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই এটা করে দেওয়ার জন্য। একই সঙ্গে র্যাঙ্ক ইন্ডিয়া ও মিস্টার ফ্রাঙ্ক ওরেনকেও ধন্যবাদ জানাই আন্তর্জাতিক লিগে এত দ্রুত লড়ার সুযোগ করে দেওয়ায়।’

আরও পড়ুন:
দেশি বক্সারদের নিয়ে ফাইট নাইটের পরবর্তী পর্ব ২৯ জুলাই
প্রো বক্সিংয়ের মাধ্যমে বক্সাররা স্বাবলম্বী হতে পারবেন: আল আমিন
‘সাফল্যের আনন্দে আঘাতের যন্ত্রণা ভুলে যাই’

মন্তব্য

p
উপরে