× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

খেলা
Tigresses start Asia Cup mission with victory
hear-news
player
google_news print-icon

জয় দিয়ে এশিয়া কাপ শুরু টাইগ্রেসদের

জয়-দিয়ে-এশিয়া-কাপ-শুরু-টাইগ্রেসদের
জয়সূচক রানের দৌড়ে বাংলাদেশের দুই ব্যাটার। ছবি: বিসিবি
থাইল্যান্ডের দেয়া ৮৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৫৪ বল ও ৯ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। জয়ের সেই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রইল এশিয়া কাপের শুরুতেও।

থাইল্যান্ডের বিপক্ষে ৯ উইকেটের বড় জয় দিয়ে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের লড়াই শুরু করলেন জাহানারা-সালমারা।

থাইল্যান্ডের দেয়া ৮৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৫৪ বল ও ৯ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে টাইগ্রেস বোলারদের চেপে ধরা বোলিংয়ে শুরু থেকেই চাপে পড়ে থাইল্যান্ড।

১৬ রান তুলতেই তারা হারায় দুই টপ অর্ডারকে। ওপেনার নান্নাপাত মেঘলার শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন ৮ রান করে। আর অধিনায়ক নরেমল চাইওয়াইয়ের ব্যাট থেকে আসে ২ রান।

এরপর নাত্থাকান চানথাম ও ফান্নিতা মায়ার জুটিতে ভর করে কিছুটা হলেও ট্র্যাকে ফেরার চেষ্টা চালায় থাইল্যান্ড, কিন্তু দলীয় ৫৪ রানে মায়া ও ৫৯ রানে চানথামের বিদায়ের পর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে থাইল্যান্ডের ব্যাটিং লাইনআপ।

মায়া ও চানথামের বিদায়ের পর শুধু তিপোচ ও রজনানের পক্ষে সম্ভব হয় দুই অঙ্কের রান ছোঁয়া। বাকিদের মাঠ ছাড়তে হয় এক অঙ্কে আটকে থেকেই।

শেষ পর্যন্ত টাইগ্রেস বোলারদের দাপুটে বোলিংয়ে সব উইকেট হারিয়ে ৮২ রানের পুঁজি নিয়ে মাঠ ছাড়ে থাইল্যান্ড।

বাংলাদেশের হয়ে তিনটি উইকেট নেন রুমানা আহমেদ। দুটি করে উইকেট নেন নাহিদা আক্তার, সানজিদা আক্তার ও সোহেলি আক্তার। একটি উইকেট যায় সালমা খাতুনের ঝুলিতে।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৬৯ রানে ১ রানের জন্য অর্ধশতক হাতছাড়া হওয়ার আক্ষেপ নিয়ে শামিমা সুলতানা মাঠ ছাড়েন। বাকি কাজটা সেরে আসেন ফারজানা হক ও নিগার সুলতানা জ্যোতি। দলকে ৯ উইকেটের বড় জয় এনে দিয়ে মাঠ ছাড়েন এ দুই ব্যাটার।

আরও পড়ুন:
প্রথম নারী এফটিপিতে টাইগ্রেসরা খেলবে ৫০ ম্যাচ
ডিএলএস নিয়মে থাইল্যান্ডের কাছে হারল বাংলাদেশ
বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নারীদের অধিনায়ক নিগার সুলতানা
বাছাই দিয়ে কমনওয়েলথ গেমস খেলতে হবে জাহানারাদের
প্রস্তুত হয়েই আমিরাত যাচ্ছেন সালমা-জাহানারা

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
Windies hit by Australias run hill

অস্ট্রেলিয়ার রান পাহাড়ে চাপা উইন্ডিজ

অস্ট্রেলিয়ার রান পাহাড়ে চাপা উইন্ডিজ ডাবল সেঞ্চুরির পর দর্শকদের অভিবাদনের জবাব দিচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ। ছবি: সংগৃহীত
আগে ব্যাট করে ৪ উইকেটে ৫৯৮ রানে নিজেদের ইনিংস ঘোষণা করেছে অজিরা। জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিন শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৭৪।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে সুবিধাজনক অবস্থায় আছে অস্ট্রেলিয়া। মারনাস ল্যাবুশেইন ও স্টিভেন স্মিথের ডাবল সেঞ্চুরিতে আগে ব্যাট করে ৪ উইকেটে ৫৯৮ রানে নিজেদের ইনিংস ঘোষণা করেছে অজিরা।

জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিন শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৭৪। এখনও ৫২৪ রান পিছিয়ে সফরকারী দল। ফলোঅন এড়াতে তাদের চাই আরও ৩২৪ রান।

পার্থে ব্যাট করতে নেমে স্মিথ ক্যারিয়ারের ২৯তম টেস্ট সেঞ্চুরিটিকে পরিণত করেন ডাবল সেঞ্চুরিতে। এটি তার ক্যারিয়ারের চতুর্থ ডাবল।

অন্যপ্রান্তে অষ্টম টেস্ট সেঞ্চুরি করা ল্যাবুশেইন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। ২০৪ রানে আউট হন তিনি।

৯৯ রান করে অস্ট্রেলিয়ার শেষ ব্যাটার হিসেবে আউট হন ট্র্যাভিস হেড। তার আউটের পরপরই ইনিংস ঘোষণা করে দেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক প্যাট কামিনস।

উইন্ডিজের হয়ে ২টি উইকেট নেন ক্রেগ ব্র্যাথওয়েট। ১টি করে উইকেট নেন জেইডন সিলস ও কাইল মেয়ার্স।

তৃতীয় দিন ২৫ ওভার ব্যাট করার সুযোগ পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। স্বাগতিক বোলারদের সামলে দিনশেষে দলকে উইকেটশূন্য রাখেন দুই উইন্ডিজ ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েইট ও তেজনারায়ন চন্দরপল।

অধিনায়ক ব্র্যাথওয়েইট ১৮ রানে অপরাজিত আছেন। আর অভিষেক হওয়া চন্দরপাল দিনশেষে খেলছিলেন ৪৭ রান নিয়ে।

আরও পড়ুন:
৮ রানের জয়ে সিরিজ ইংল্যান্ডের
গ্রিন-ওয়েড ঝড়ে জয়ে শুরু অস্ট্রেলিয়ার
গ্রিনের বোলিংয়ে জিম্বাবুয়েকে হারাল অস্ট্রেলিয়া

মন্তব্য

খেলা
New Zealand won the series by two overs

বৃষ্টির বাধাতেও সিরিজ নিউজিল্যান্ডের

বৃষ্টির বাধাতেও সিরিজ নিউজিল্যান্ডের দুই ম্যাচ পরিত্যাক্ত হওয়ায় ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে নিউজিল্যান্ড। ছবি: সংগৃহীত
রান তাড়ায় ব্যাট করতে নেমে বৃষ্টি আইনে ১৮ ওভারেই জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রানের চেয়ে ৫০ রান এগিয়ে ছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু ১৮ ওভার শেষে বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর আর খেলা মাঠে গড়ায়নি। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী অন্তত ২০ ওভার খেলা হওয়ার পর নির্ধারিত হবে জয় পরাজয়। আর তাই খেলায় আসেনি কোন ফল।

বৃষ্টিতে কপাল পুড়ল নিউজিল্যান্ডের। ভারতের বিপক্ষে সিরিজের টানা দুই ম্যাচ পণ্ড হয়েছে বৃষ্টিতে। তবে প্রথম ম্যাচে ৭ উইকেটে জয়লাভ করায় ১-০ ব্যবধানে সিরিজ ঠিকই জিতে নিয়েছে স্বাগতিকরা।

সর্বশেষ ম্যাচে রান তাড়ায় ১৮ ওভার ব্যাটিং করে ডাক ওয়ার্থ লুইসে এগিয়ে ছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী ২০ ওভার খেলা না হওয়ায় বাতিল হয় ম্যাচটি।

বৃষ্টি আইনে ১৮ ওভারেই জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রানের চেয়ে ৫০ রান এগিয়ে ছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু ১৮ ওভার শেষে বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর আর খেলা মাঠে গড়ায়নি। তাতে করে ম্যাচে এগিয়ে থেকেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়া সম্ভব হয়নি নিউজিল্যান্ডের।

ক্রাইস্টচার্চে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩৯ রানে প্রথম উইকেট হারায় ভারত। নিয়মিত বিরতিতে উইকেটের পতন ঘটতে থাকলেও শ্রেয়াস আইয়ারের ৪৯ আর ওয়াশিংটন সুন্দরের ৫১ রানের সুবাদে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ২১৯ রানের পুঁজি পায় ভারত।

কিউইদের হয়ে ৩টি করে উইকেট নেন অ্যাডাম মিলনে ও ড্যারেল মিচেল। ২টি উইকেট নেন টিম সাউদি। লকি ফার্গুসন ও মিচেল স্যান্টনার নেন ১টি করে উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা বেশ দাপুটেই করে নিউজিল্যান্ড। ফিন অ্যালেন ও ডেভন কনওয়ে উদ্বোধনী জুটিতেই দলকে এনে দেন ৯৭ রান। ৫৪ বলে ৫৭ করে অ্যালেন বিদায় নিলেও শক্তহাতে দলের হাল ধরে রাখেন কনওয়ে।

কিন্তু ১৮ ওভার শেষে বৃষ্টির কারণে ম্যাচ বন্ধ হয়ে যায়। দলের সংগ্রহ সে সময় ছিল ১ উইকেটে ১০৪।

খেলা বন্ধ হওয়ার সময় বৃষ্টি আইনের হিসেবে ৫০ রানে এগিয়ে ছিল তখন স্বাগতিকরা। জয়টা ছিল হাতের নাগালেই। কিন্তু মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হওয়ায় আর খেলা শুরু করা যায়নি। ২০ ওভার খেলা না হওয়ায় আসেনি কোন ফলাফলও।

আরও পড়ুন:
লেইথাম-উইলিয়ামসনের ব্যাটে জয় দিয়ে সিরিজ শুরু কিউইদের

মন্তব্য

খেলা
Kohli Rohit are coming to Dhaka on Monday evening

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকা আসছেন কোহলি-রোহিতরা

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকা আসছেন কোহলি-রোহিতরা ফাইল ছবি
সাত বছর পর বাংলাদেশে আসছে ভারত ক্রিকেট দল। এর আগে ২০১৫ সালে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে ঢাকায় আসে ভারত।

আগামী ৪ ডিসেম্বর শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ বনাম ভারতের তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের আনুষ্ঠানিকতা। প্রথম ওয়ানডের মধ্য দিয়ে শুরু হবে সিরিজ।

সিরিজ উপলক্ষে সোমবার ঢাকা আসছেন ভারতের ওয়ানডে ও টেস্ট দলের ক্রিকেটাররা। সবকিছু ঠিক থাকলে সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পা রাখবেন কোহলি-রোহিতরা।

এতে করে সাত বছর পর বাংলাদেশে আসছে ভারত ক্রিকেট দল। এর আগে ২০১৫ সালে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে ঢাকায় আসে ভারত। সেই সিরিজ ২-১ এ জিতেছিল বাংলাদেশ।

৪ ডিসেম্বর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। একই ভেন্যুতে ৭ ডিসেম্বর গড়াবে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে।

এরপর ১০ ডিসেম্বর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে হবে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে।

১৪ ডিসেম্বর একই ভেন্যুতে হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট। এরপর হোম অফ ক্রিকেট মিরপুরে ২২ ডিসেম্বর গড়াবে শেষ টেস্টটি।

ওয়ানডে সিরিজের দল: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), কেএল রাহুল (সহ-অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, ভিরাট কোহলি, রজত পাতিদার, শ্রেয়াস আইয়ার, রাহুল ত্রিপাঠী, রিশাভ পান্ট, ঈশান কিশান, রভিন্দ্র জাদেজা, আক্সার প্যাটেল, ওয়াশিংটন সুন্দর, শার্দুল ঠাকুর, মোহাম্মদ শামি, মোহাম্মদ সিরাজ, দিপক চাহার, ইয়াশ দায়াল।

টেস্ট দল: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), কেএল রাহুল (সহ-অধিনায়ক), শুভমন গিল, চেতেশ্বর পুজারা, ভিরাট কোহলি, শ্রেয়াস আইয়ার, রিশাভ পান্ট, কেএস ভরত, রভিচন্দ্রন অশ্বিন, রভিন্দ্র জাদেজা, অক্সার প্যাটেল, কুলদিপ ইয়াদভ, শার্দুল ঠাকুর, মোহাম্মদ শামি, মোহাম্মদ সিরাজ, উমেশ ইয়াদভ।

আরও পড়ুন:
ওয়ানডে দলে ফিরলেন সাকিব- রাব্বি
ড্রাফট শেষে যেমন হলো বিপিলের সাত দল
মেসির খেলা দেখতে মাঠে থাকবেন সাকিব
দেরিতে পৌঁছানোয় তিন ক্লাবকে সিসিডিএমের জরিমানা

মন্তব্য

খেলা
Rituraj made a history of 43 in one over

এক ওভারে ৪৩, ইতিহাস গড়লেন রুতুরাজ

এক ওভারে ৪৩, ইতিহাস গড়লেন রুতুরাজ রুতুরাজ গায়কোয়াড। ফাইল ছবি
বিজয় হাজারে ট্রফির এক ম্যাচে উত্তর প্রদেশের বিপক্ষে এক ওভারে ৪৩ রান নেন এ ব্যাটার। ৪৯তম ওভার উত্তর প্রদেশের লেগস্পিনার শিভা সিংয়ের ওভারে ৭টি ছক্কা হাঁকান রুতুরাজ।

ক্রিকেটের এক ওভারে ৩৬ রান নেয়ার ঘটনা আছে বেশ কয়েকটি। বর্তমান সময়ের মারকুটে ক্রিকেটে ওভারে ৩০-৩২ রান হচ্ছে প্রায়ই। কিন্তু এক ওভারে ৪৩ রান শুনলে হয়তো অনেকেই ভড়কে যাবেন।

অবিশ্বাস্য এ কীর্তি গড়েছেন ভারতের ব্যাটার রুতুরাজ গায়কোয়াড়। বিজয় হাজারে ট্রফির এক ম্যাচে উত্তর প্রদেশের বিপক্ষে এক ওভারে ৪৩ রান নেন এ ব্যাটার।

৪৯তম ওভার উত্তর প্রদেশের লেগস্পিনার শিভা সিংয়ের ওভারে ৭টি ছক্কা হাঁকান রুতুরাজ। ওভারের শুরুটা করেন ছক্কা হাঁকিয়ে। এরপর একে একে হাঁকান আরও তিনটি ছক্কা।

ইনিংসের চতুর্থ বলটি হয় নো বল। সেই বলেও ছক্কা হাঁকান মহারাষ্ট্রের দলপতি। পরের দুই বলেও ওভার বাউন্ডারি হাঁকিয়ে এক ওভারে ৪৩ রানের বিরল রেকর্ড গড়েন রুতুরাজ।

১৫৯ বলে ২২০ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে ম্যাচের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন তিনি। দুর্দান্ত এই ইনিংসে ছিল তার ১০টি ৪ আর ১৬টি ছক্কার মার। তার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের সুবাদে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৩০ রানের পুঁজি নিয়ে মাঠ ছাড়ে মহারাষ্ট্র।

রুতুরাজ ভারতের হয়ে একটি ওয়ানডে খেলেছেন। তবে আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের নিয়মিত মুখ তিনি।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে নেই জাদেজা
রোহিতের অধীনে পুরো শক্তির ভারত আসছে বাংলাদেশে
‘নতুন লক্ষ্য’ সৌরভের সামনে
ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের হাল ধরছেন রজার বিনি

মন্তব্য

খেলা
Kiwis started the series with Laitham Williamsons strong win

লেইথাম-উইলিয়ামসনের ব্যাটে জয় দিয়ে সিরিজ শুরু কিউইদের

লেইথাম-উইলিয়ামসনের ব্যাটে জয় দিয়ে সিরিজ শুরু কিউইদের নিউজিল্যান্ডের বড় জয়ের দুই নায়ক উইলিয়ামসন ও লেইথাম। ছবি: এএফপি
ভারতের দেয়া ৩০৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে কেইন উইলিয়ামসন ও টম লেইথামের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ১৭ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় নিউজিল্যান্ড।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতে নিলেও ওয়ানডে সিরিজের শুরুতে হোঁচট খেয়েছে ভারত। স্বাগতিকদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডের প্রথমটিতে তারা হেরেছে ৭ উইকেটে।

ভারতের দেয়া ৩০৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে কেইন উইলিয়ামসন ও টম লেইথামের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ১৭ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় নিউজিল্যান্ড।

অকল্যান্ডে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত সূচনা করেন ভারতীয় দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান ও শুভমন গিল। উদ্বোধনী জুটিতে দলকে এনে দেন তারা ১২৪ রান।

ম্যাচের ২৪তম ওভারে ফার্গুসনের শিকার বনে ৬৫ বলে ৫০ করা গিলের বিদায়ের মধ্য দিয়ে ভাঙ্গে সেই জুটি। পরের ওভারে টিম সাউদি সাজঘরের পথ দেখিয়ে দেন ৭৭ বলে ৭২ রান করা ধাওয়ানকে।

এরপর হুট করেই যেন ধস নেমে আসে ভারতের ব্যাটিং লাইন আপে। স্কোর বোর্ডে ৩৬ রান যোগ করতে মাঠ ছাড়তে হয় রিশাভ পান্ট ও সুরিয়াকুমার ইয়াদভকে। আর তাতেই ১৬০ রানে ৪ উইকেট নেই ভারতের।

সাঞ্জু স্যামসনকে সঙ্গে নিয়ে শক্ত হাতে দলকে টেনে নিয়ে যেতে থাকেন শ্রেয়াশ আইয়ার। ৯৬ রানের জুটি গড়ে দলকে টেনে নিয়তে যান বড় সংগ্রহের পথে।

সঙ্গী স্যামসন ৩৬ করে মাঠ ছাড়লেও ওয়াশিংটন সুন্দরকে নিয়ে দলীয় সংগ্রহ ৩০০ পার করেন আইয়ার। ৭৬ বলে ৮০ রান করে তাকে থামতে হয় সাউদির শিকার হয়ে।

শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেট হারিয়ে নিউজিল্যান্ডকে ৩০৭ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে সক্ষম হয় ভারত।

সাউদি ও ফার্গুসন নেন ৩টি করে উইকেট। আর অ্যাডান নিলনের ঝুলিতে যায় একটি উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দলীয় সংগ্রহ শতরান ছোঁয়ার আগেই তিন টপ অর্ডারকে হারিয়ে বসে নিউজিল্যান্ড। ফিন অ্যালেন ফেরেন ২২ করে। ডেভন কনওয়ে ২৪ আর ড্যারেল মিচেল করেন ১১ রান।

এরপরই ইডেন পার্কে ঝড় তোলেন টম লেইথাম। সঙ্গে নেন দলপতি উইলিয়ামসনকে।

এই দুজনের ব্যাটে ভর করে আর কোন উইকেট না হারিয়েই ১৭ বল হাতে রেখে জয় বাগিয়ে নেন স্বাগতিকরা।

লেইথাম অপরাজিত থাকেন ১৪৫ রানে। এটি তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৭ম সেঞ্চুরি। তবে সঙ্গী উইলিয়ামসন পাননি সেঞ্চুরির দেখা। ৯৪* করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাকে।

মন্তব্য

খেলা
Shakib Rabi returned to the ODI team without Shariful Mosaddek
বাংলাদেশ-ভারত সিরিজ

ওয়ানডে দলে ফিরলেন সাকিব- রাব্বি

ওয়ানডে দলে ফিরলেন সাকিব- রাব্বি ফাইল ছবি
বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে রান না করেও জিম্বাবুয়ে সিরিজের পারফরম্যান্স দিয়ে ১৬ সদস্যের দলে টিকে গেছেন এনামুল হক বিজয়। অপরদিকে বিসিএলে পারফরম্যান্স দেখিয়েও নির্বাচকদের নজরে আসতে পারেননি মোহাম্মদ নাঈম শেখ।

৪ ডিসেম্বর থেকে মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের তিন ওয়ানডে ও দুই টেস্টের সিরিজ। সিরিজকে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার ১৬ সদস্যের ওয়ানডে দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

সবশেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের দলটা ভারতের বিপক্ষেও মোটামুটি একই রকমের রেখেছে বোর্ড। এসেছে দুই পরিবর্তন।

জিম্বাবুয়ে সিরিজে দলের সঙ্গে ছিলেন না সাকিব আল হাসান ও ইয়াসির আলি রাব্বি। সাকিব ছিলেন ছুটিতে আর রাব্বি ইনজুরিতে। এই দুইজনকে ভারতের বিপক্ষে সিরিজে ফিরিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

জিম্বাবুয়ের পক্ষে সিরিজের মাঝপথে দলে জায়গা পাওয়া এবাদত হোসেনও রয়েছেন ভারতের বিপক্ষের ওয়ানডে স্কোয়াডে। একইসঙ্গে টি-টোয়েন্টি সিরিজের মাঝপথে ছিটকে যাওয়া নুরুল হাসান সোহান ঢুকেছেন দলে।

ভারতের বিপক্ষে ১৬ জনের স্কোয়াডে জায়গা হয়নি জিম্বাবুয়ে সিরিজে দলে থাকা তিন ক্রিকেটার মোসাদ্দেক হোসেন, শরীফুল ইসলাম ও তাইজুল ইসলামের।

শরিফুলকে বাদ দেয়া হয়েছে এ-দলের হয়ে খেলার জন্য। রাব্বির দলে ফেরায় বাদ দেয়া হয়েছে মোসাদ্দেককে। আর তাইজুলকে টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে বিবেচনা করা হচ্ছে শুধুমাত্র টেস্ট দলের জন্য।

এদিকে চলতি বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে রান না করেও জিম্বাবুয়ে সিরিজের পারফরম্যান্স দিয়ে ১৬ সদস্যের দলে টিকে গেছেন এনামুল হক বিজয়। অপরদিকে বিসিএলে পারফরম্যান্স দেখিয়েও নির্বাচকদের নজরে আসতে পারেননি মোহাম্মদ নাঈম শেখ।

এছাড়া লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ অবধারিতভাবেই ওয়ানডে দলে জায়গা করে নিয়েছেন।

৪ ও ৭ ডিসেম্বর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডে। এরপর ১০ ডিসেম্বর সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।

বাংলাদেশের ওয়ানডে দল: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), লিটন দাস, এনামুল হক, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন, ইয়াসির আলী, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, হাসান মাহমুদ, ইবাদত হোসেন, নাসুম আহমেদ, মাহমুদউল্লাহ, নাজমুল হোসেন ও নুরুল হাসান।

আরও পড়ুন:
ড্রাফট শেষে যেমন হলো বিপিলের সাত দল
মেসির খেলা দেখতে মাঠে থাকবেন সাকিব
ভারত সিরিজের আগে কোচিং প্যানেল নিয়ে দোটানায় বিসিবি
দেরিতে পৌঁছানোয় তিন ক্লাবকে সিসিডিএমের জরিমানা

মন্তব্য

খেলা
Jadeja is not in the ODI against Bangladesh

বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে নেই জাদেজা

বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে নেই জাদেজা ভারতের জার্সিতে অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা। ফাইল ছবি/এএফপি
গত ৩১ আগস্ট হংকংয়ের বিপক্ষে জাতীয় দলের হয়ে খেলেছিলেন জাদেজা। তারপরই ডান হাঁটুর চোটে পড়েন তিনি। যে কারণে এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারেননি অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

ডিসেম্বরের শুরুতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসবে ভারত। হাঁটুর চোটের কারণে সে সিরিজে রভিন্দ্র জাদেজাকে পাচ্ছে না টিম ইন্ডিয়া। পুরোপুরি সেরে না উঠলেও এই অলরাউন্ডারকে রেখে বাংলাদেশের বিপক্ষে স্কোয়াড ঘোষণা করে ভারত। ঠিক সময়ে সেরে না ওঠায় দল থেকে ছিটকে গেলেন তিনি।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে (বিসিসিআই) থেকে বুধবার জানানো হয়েছে, জাদেজা ছাড়াও বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের স্কোয়াড থেকে ছিটকে গেছেন ইয়াশ দায়াল। পিঠের সমস্যায় ভুগছেন বাঁহাতি এই পেসার।

গত ৩১ আগস্ট হংকংয়ের বিপক্ষে জাতীয় দলের হয়ে খেলেছিলেন জাদেজা। তারপরই ডান হাঁটুর চোটে পড়েন তিনি। যে কারণে এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারেননি অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

টেস্ট সিরিজের আগে সুস্থ না হলে সেখান থেকেও বাদ পড়তে পারেন জাদেজা। সে ক্ষেত্রে দলের সঙ্গে যুক্ত হতে পারেন পারেন বাঁহাতি স্পিনার সৌরভ কুমার। ভারত এ-দলের বাংলাদেশ সফরের স্কোয়াডে রয়েছেন তিনি।

তিনটি ওয়ানডে ও দুই টেস্ট খেলতে আগামী ১ ডিসেম্বর বাংলাদেশে আসবে ভারত দল। ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচটি শুরু হবে ৪ ডিসেম্বর। ৭ ও ১০ ডিসেম্বর হবে বাকি দুটি ম্যাচ। টেস্ট ম্যাচ দুটি মাঠে গড়াবে ১৪ ও ২২ ডিসেম্বর।

ভারতের ওয়ানডে দল: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক) শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, ভিরাট কোহলি, রজত পাতিদার, শ্রেয়াস আইয়ার, রাহুল ত্রিপাঠি, রিশভ পান্ট, ইশান কিশান, আক্সার পাটেল, ওয়াশিংটন সুন্দার, শার্দুল ঠাকুর, মোহাম্মদ শামি, মোহাম্মদ সিরাজ, ইয়াস দয়াল ও দিপক চাহার।

আরও পড়ুন:
রোহিতের অধীনে পুরো শক্তির ভারত আসছে বাংলাদেশে
‘নতুন লক্ষ্য’ সৌরভের সামনে
১৫ বছর পর পাকিস্তান সফরের প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত

মন্তব্য

p
উপরে