× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

খেলা
Chelsea has the most injuries in Europe
hear-news
player
google_news print-icon

ইউরোপে সবচেয়ে বেশি ইনজুরি চেলসিতে

ইউরোপে-সবচেয়ে-বেশি-ইনজুরি-চেলসিতে
চোটের কারণে এক মাস মাঠের বাইরে আছেন চেলসির মিডফিল্ডার এনগলো কান্তে। ছবি: টুইটার
প্রিমিয়ার লিগে সব মিলিয়ে ২০২১-২২ মৌসুমে ১ হাজার ২৩১ খেলোয়াড় ইনজুড়িতে পড়েন। যার মধ্যে চেলসিতে রয়েছে সর্বোচ্চ ৯৭টি ইনজুরি।

ইউরোপের সেরা পাঁচ লিগে ইনজুরি গত মৌসুমে প্রায় ২০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে এক ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠানের সমীক্ষায় জানানো হয়েছে। এর মধ্যে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে রয়েছে সবচেয়ে বেশি ইনজুরি।

প্রিমিয়ার লিগে সব মিলিয়ে ২০২১-২২ মৌসুমে ১ হাজার ২৩১ খেলোয়াড় ইনজুড়িতে পড়েন। যার মধ্যে চেলসিতে রয়েছে সর্বোচ্চ ৯৭টি ইনজুরি। ইন্স্যুরেন্স ব্রোকার হাউডেনস পরিচালিত এই সমীক্ষায় এমনটা বলা হয়েছে।

ইনজুরির কারণে ইংলিশ ক্লাবগুলোই ইউরোপের অন্যান্য ক্লাবের তুলনায় আর্থিকভাবে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গত মৌসুমে এই ক্ষতির পরিমাণ ছিল ১৮ কোটি ৪৫ লাখ পাউন্ড (২ হাজার কোটি টাকা প্রায়)।

ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগে গত মৌসুমে সর্বমোট ৪ হাজার ৮১০ খেলোয়াড় ইনজুরিতে পড়েছেন, ২০২০-২১ মৌসুমের তুলনায় যা ২০ শতাংশ বেশি। চোটের কারণে ইউরোপে ক্লাবগুলো মোট ৫১ কোটি ৩২ লাখ পাউন্ড (সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকা) ক্ষতির মুখে পড়েছে, যা আগের মৌসুমের তুলনায় ২৯ শতাংশ বেশি।

হাউডেনেসের সমীক্ষামতে, ২০২১-২২ মৌসুমে প্রথমবারের মতো ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগ প্রিমিয়ার লিগ, লা লিগা, বুন্ডেসলিগা, লিগ ওয়ান ও সেরি আয় ইনজুরির কারণে ক্লাবগুলোর ব্যয়ের মাত্রা ৫০ কোটি পাউন্ড ছাড়িয়েছে।

প্রিমিয়ার লিগে চেলসির পর সবচেয়ে বেশি ইনজুরি হয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (৮১) ও লিভারপুলের (৮০)। চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটিতে হয়েছে ৬৭টি। গড়ে প্রতি ম্যাচে ইনজুরির কারণে তিনজন খেলোয়াড় অনুপস্থিত ছিলেন।

ইনজুরির পেছনে বিভিন্ন লিগে ব্যস্ত সূচিকেই বেশি দায়ী করা হয়েছে। ইউরোপের ক্লাবগুলোর জন্য ইনজুরির বিষয়টি এখন বড় দুঃশ্চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। পেশাদার খেলোয়াড়দের ইউনিয়ন সম্প্রতি এক সমীক্ষায় জানিয়েছে, ব্যস্ত সূচিতে একজন খেলোয়াড়ের প্রয়োজনীয় রিকভারি হচ্ছে না।

আরও পড়ুন:
ইপিএলে লিভারপুল, চেলসি ও ইউনাইটেডের ম্যাচ স্থগিত
উলভসের হয়ে আবারও প্রিমিয়ার লিগে কস্তা
প্রিমিয়ার লিগের এ সপ্তাহের ম্যাচ স্থগিত

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
This years cup will be picked up by Messi

‘আশা করছি এবারের কাপটা মেসির হাতেই উঠবে’

‘আশা করছি এবারের কাপটা মেসির হাতেই উঠবে’ আর্জেন্টিনার দুটি গোলে উল্লাসে মেতে ওঠেন শেরপুরের সমর্থকরা। ছবি: নিউজবাংলা
আর্জেন্টিনার সমর্থক শেরপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও ক্রীড়া সংগঠক মো. মেরাজ উদ্দিন বলেন, ‘সৌদি আরবের সঙ্গে প্রথম ম্যাচ হারার পর অনেকেই মনে করেছিল আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ মিশন শেষ হয়েছে। এমন অনেক খেলোয়াড় আছেন, যাদের একজনকে আটকালে অন্যরা জ্বলে ওঠেন। আমরা আশা করছি এবারের কাপটা মেসির হাতেই উঠবে।’

কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবের কাছে হারের পর মেক্সিকোর বিপক্ষে আর্জেন্টিনা বড় জয় পেলেও স্বস্তিতে ছিল না সমর্থকরা। কঠিন সমীকরণে আটকে যাওয়ার পর পোলেন্ডের বিপক্ষেও জ্বলে উঠেন দলের খেলোয়াড়রা।

মেসির প্যানাল্টি মিসের পর সমর্থকদের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়লেও পরবর্তীতে দুটি গোলে উল্লাসে মেতে ওঠেন শেরপুরের সমর্থকরা। খেলা শেষ হওয়ার পর সমর্থকরা আনন্দ-উল্লাসে মেতে উঠেন। আর্জেন্টিনার পতাকা নিয়ে স্লোগানে স্লোগানে মুখর হয় শেরপুরের বিভিন্ন এলাকা। এ ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় বড় পর্দায় দেখানো হয় খেলা।

তারা আশা করছেন এবারের বিশ্বকাপটা মেসির হাতেই উঠবে। মেসি ভক্তদের প্রত্যাশা সামনে আরও ভালো খেলবে প্রিয় দল আর্জেন্টিনা।

আর্জেন্টিনার সমর্থক শেরপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও ক্রীড়া সংগঠক মো. মেরাজ উদ্দিন বলেন, ‘সৌদি আরবের সঙ্গে প্রথম ম্যাচ হারার পর অনেকেই মনে করেছিল আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ মিশন শেষ হয়েছে। কিন্তু আর্জেন্টিনার দলে মেসি, দিবালা, ডিমারিয়া, আলবারেস, মার্টিনেস ও ডিপলসহ এমন সব খেলোয়াড় আছেন, যাদের একজনকে আটকালে অন্যরা জ্বলে ওঠেন। আমরা আশা করছি এবারের কাপটা মেসির হাতেই উঠবে।’

অপর সমর্থক হাসানুর রহমান আলাল বলেন, ‘আমরা এবার আর্জেন্টিনা কাপ পাবে এটাই আশা করছি।’

সমর্থক শাহিন বলেন, ‘সৌদির কাছে হঠাৎ হেরে গিয়ে আর্জেন্টিনা আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠেছে। কাজেই বিশ্বকাপ এবার মেসির হাতেই উঠবে।’

আরও পড়ুন:
বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের মাটিতে নামাল তিউনিসিয়া
‘হ্যান্ড অফ গডের’ পর এবারে ‘হেয়ার অফ গড’
মেসিকে থামানোর উপায় জানেন না পোল্যান্ডের কোচ
স্বাগতিক হিসেবে সবচেয়ে বাজে রেকর্ড কাতারের
সৌদির কপাল খুলতে দরকার কঠিন হিসাব-নিকাশ

মন্তব্য

খেলা
messi

পেনাল্টি মিসকেই শাপে বর মনে করছেন মেসি

পেনাল্টি মিসকেই শাপে বর মনে করছেন মেসি আর্জেন্টিনার জার্সিতে লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি
ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মেসি বলেন, ‘পেনাল্টি মিসের পর নিজের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছিলাম, কিন্তু আমার ভুলের পর দল আরও শক্তিশালী হয়ে উঠে। আমরা জানতাম প্রথমে একটা গোল হয়ে গেলে খেলা বদলে যাবে।’

সৌদি আরবের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ হারের পর আর্জেন্টিনার শেষ ষোলোতে ওঠা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন অনেকে। সে শঙ্কা কিছুটা কাটে মেক্সিকোর বিপক্ষে ২-০ গোলের জয়ে, কিন্তু এরপরও পোল্যান্ডের সঙ্গে ম্যাচের আগে নানা সমীকরণ নিয়ে মাঠে নামতে হয়েছিল মেসিদের। সেসব সমীকরণকে অতীত করে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে লিওলেন স্কালোনির দল।

হাই ভোল্টেজ ম্যাচ শেষে তৃপ্তির হাসি নিয়ে সাজঘরে ফিরলেও শুরুটা সাদামাটা ছিল টিম আর্জেন্টিনার। প্রথমার্ধে বলের দখলে এগিয়ে থাকলেও জাল খুঁজে পাচ্ছিল না আর্জেন্টিনার শটগুলো।

মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা হয়ে দাঁড়ায় মেসির পেনাল্টি কিক মিস, তবে সে মুহূর্তটাকেই শাপে বর মনে করছেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। তার মতে, পেনাল্টিতে গোল না পাওয়ায় মরিয়া হয়ে ওঠে দল।

প্রথমার্ধে কোনো গোল না করে বিরতিতে যাওয়া আর্জেন্টিনা দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ডেডলক ভাঙে। ম্যাচের ৪৬তম মিনিটে আলেক্সিস ম্যাকঅ্যালিস্টারের গোলে এগিয়ে যায় আলবিসেলেস্তেরা। পরে ৬৭তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন হুলিয়ান আলভারেস।

এ দুজনের গোলে মেসির স্বপ্নজয়ের সম্ভাবনা বাড়িয়ে সুপার সিক্সটিনে পৌঁছে যায় আর্জেন্টিনা।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মেসি বলেন, ‘পেনাল্টি মিসের পর নিজের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছিলাম, কিন্তু আমার ভুলের পর দল আরও শক্তিশালী হয়ে উঠে। আমরা জানতাম প্রথমে একটা গোল হয়ে গেলে খেলা বদলে যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগের ম্যাচ থেকে আমরা আত্মবিশ্বাস পেয়েছি। তা ছাড়া আগেই আমাদের জানা ছিল এ ম্যাচ আমাদের জিততে হবে।’

আগামী শনিবার বাংলাদেশ সময়ে রাত ১টায় নকআউট পর্বে আস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা, তবে এবারের বিশ্বকাপে যেকোনো দল যে কাউকেই হারাতে পারেন বলে মনে করেন মেসি। সবাইকে সমানভাবেই দেখছেন সাতবারের ব্যালন ডরজয়ী এ তারকা।

৩৫ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটা খুব কঠিন হতে চলেছে। যে কেউ অন্যকে হারাতে পারে; সবই সমান, তবে আমরা সবসময়ের মতোই প্রস্তুতি নিয়ে তাদের মুখোমুখি হব।

‘আমাদের শান্ত থাকতে হবে। তা ছাড়া ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলা উচিত। এখন আরেকটি বিশ্বকাপ শুরু হলো। আজ আমরা যা করেছি, আশা করছি তা ধরে রাখতে পারব।’

আরও পড়ুন:
বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের মাটিতে নামাল তিউনিসিয়া
‘হ্যান্ড অফ গডের’ পর এবারে ‘হেয়ার অফ গড’
মেসিকে থামানোর উপায় জানেন না পোল্যান্ডের কোচ
স্বাগতিক হিসেবে সবচেয়ে বাজে রেকর্ড কাতারের
সৌদির কপাল খুলতে দরকার কঠিন হিসাব-নিকাশ

মন্তব্য

খেলা
Saudi Arabias goal against Mexico knocks out Poland

মেক্সিকোর বিপক্ষে সৌদির গোলে নকআউটে পোল্যান্ড

মেক্সিকোর বিপক্ষে সৌদির গোলে নকআউটে পোল্যান্ড মেক্সিকোর বিপক্ষে দলের একমাত্র গোল করেন সৌদি আরবের অধিনায়ক সালেম আল-দাওসারি। ছবি: টুইটার
অতিরিক্ত সময়ের শেষ মিনিটে গোল করে পোল্যান্ডের সব দুশ্চিন্তার অবসান ঘটান সৌদি আরবের অধিনায়ক সালেম আল-দাওসারি। ওই গোলে মেক্সিকোর বিপক্ষে হার এড়াতে না পারলেও নিশ্চিত হয়ে যায় পোল্যান্ডের চেয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েছে মেক্সিকানরা।

বিশ্বকাপ ইতিহাসের অন্যতম বড় অঘটনের জন্ম দিয়ে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে সৌদি আরব। তবে তাদের সেই প্রতাপ পরের দুই ম্যাচে বজায় থাকেনি।

পোল্যান্ডের কাছে ২-০ গোলে হারের পর নিজেদের শেষ ম্যাচে মেক্সিকোর কাছে হেরে সি-গ্রুপের তলানিতে থেকেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছেন গ্রিন ফ্যালকনরা।

তবে বিদায় নেয়ার আগে আদতে তারা সুবিধা করে দিয়েছে পোল্যান্ডের। এক কথায় সৌদি আরবের জন্যই নিশ্চিত হয়ে যায় পোলিশদের শেষ ষোলো।

আর্জেন্টিনার কাছে ২-০ গোলে হারের পর পোল্যান্ড তাকিয়ে ছিল মেক্সিকো ম্যাচের দিকে। মেক্সিকোর বিপক্ষে সৌদি আরব পিছিয়ে ছিল ২-০ গোলে।

সে সময় পয়েন্ট, হেড টু-হেড ও গোল পার্থক্যে মেক্সিকো ও পোল্যান্ড সমানে-সমান। ফিফার নিয়ম অনুযায়ী ‘ফেয়ার প্লে’ অর্থাৎ গ্রুপপর্বের ম্যাচে হলুদ ও লাল-কার্ড কম পেয়ে এগিয়ে নকআউটে যাওয়ার জন্যে ফেভারিট পোল্যান্ড।

পোল্যান্ডের ম্যাচ শেষ হওয়ার সময় মেক্সিকো ম্যাচে চলছিল অতিরিক্ত সময়। সেই অতিরিক্ত সময়ের শেষ মিনিটে গোল করে পোল্যান্ডের সব দুশ্চিন্তার অবসান ঘটান সৌদি আরবের অধিনায়ক সালেম আল-দাওসারি।

ওই গোলে মেক্সিকোর বিপক্ষে হার এড়াতে না পারলেও নিশ্চিত হয়ে যায় পোল্যান্ডের চেয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েছে মেক্সিকানরা।

ফলে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে আর্জেন্টিনার সঙ্গে নক আউট নিশ্চিত করে রবার্ট লেওয়ানডোভস্কির পোল্যান্ড। গোলের খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আর্জেন্টিনার ম্যাচ শেষে ড্রেসিং রুমে ফিরতে থাকা পোল্যান্ড দল উদযাপন শুরু করে।

অন্যদিকে বীরবিক্রমে লড়াই করে ম্যাচ জেতার পরও মেক্সিকোকে বিদায় নিতে হয় গ্রুপ পর্ব থেকে। ম্যাচ জয়ের পরও উৎসবে ভাটা পড়ে তাদের।

রোববার নক আউট রাউন্ডে পোল্যান্ড মুখোমুখি হবে বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের।

আরও পড়ুন:
মেসির পেনাল্টি মিসের পরও হেসেখেলে নকআউটে আর্জেন্টিনা
প্রথমার্ধে শেজনি দেয়াল ভাঙতে পারল না আর্জেন্টিনা
পোল্যান্ডের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার একাদশে ৪ পরিবর্তন

মন্তব্য

খেলা
Despite Messis penalty miss Argentina is knocked out

মেসির পেনাল্টি মিসের পরও হেসেখেলে নকআউটে আর্জেন্টিনা

মেসির পেনাল্টি মিসের পরও হেসেখেলে নকআউটে আর্জেন্টিনা দ্বিতীয় গোলের পর আর্জেন্টিনার দলের উল্লাস। ছবি: টুইটার
পোল্যান্ডকে পাত্তা না দিয়েই ২-০ গোলে ম্যাচ জিতে সি-গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নকআউটে পৌঁছে গেছে আর্জেন্টিনা। শেষ ষোলোতে তারা খেলবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

দলের শেষ গ্রুপ ম্যাচে পেনাল্টি মিস করেছেন লিওনেল মেসি। তার পেনাল্টি ঠেকিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি পোল্যান্ডের গোলকিপার ভইচেক শেজনি ও তার দলের।

পোল্যান্ডকে পাত্তা না দিয়েই ২-০ গোলে ম্যাচ জিতে সি-গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নকআউটে পৌঁছে গেছে আর্জেন্টিনা। শেষ ষোলোতে তারা খেলবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

সৌদি আরবের বিপক্ষে অঘটনের হার দিয়ে শুরু করা আর্জেন্টিনা নিজেদের শেষ গ্রুপ ম্যাচে খেলেছে বিশ্বসেরা দলের মতোই। দুটি গোলই এসেছে দ্বিতীয়ার্ধে।

আলেক্সিস ম্যাকঅ্যালিস্টার ৪৬ মিনিটে ডেডলক ভাঙার পর ৬৭ মিনিটে হুলিয়ান আলভারেসের গোলে ম্যাচভাগ্য নিশ্চিত করে আলবিসেলেস্তেরা।

টুর্নামেন্টে টিকে থাকার ম্যাচে শুরুটা দারুণ করে আর্জেন্টিনা। মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে শুরু থেকে চাপ বজায় রাখে পোল্যান্ডের ওপর। মেসি, মারকোস আকুনিয়া শুরুতে সুযোগ পেয়েছিলেন গোলের। কিন্তু লক্ষ্যভেদ করতে পারেনি।

এরপর মাঠে শুরু হয় শেজনি শো। ইউভেন্তাসে খেলা ৩২ বছর বয়সী এ গোলকিপার একে কে ফেরান হুলিয়ান আলভারেস ও আনহেল দি মারিয়ার শট।

প্রথমার্ধের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত উপস্থিত হয় ৩৭ মিনিটে। মেসিকে নিজেদের বক্সে ফাউল করেন শেজনি। প্রথমে পেনাল্টির নির্দেশ না দিলেও ভিডিও রিপ্লে দেখে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

স্পট ঠেকে নেয়া মেসির কিক ঠেকিয়ে দেন শেজনি। এটি টুর্নামেন্টে তার দ্বিতীয় পেনাল্টি সেভ। এর আগে সৌদি আরবের বিপক্ষে পেনাল্টি ঠেকিয়েছিলেন তিনি।

আর বিশ্বকাপে এটি মেসির দ্বিতীয় পেনাল্টি ব্যর্থতা। ২০১৮ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে স্পট থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক।

এরপরের সময়ে আর গোল হয়নি। ৬৬ শতাংশ পজেশন রাখলেও আর্জেন্টিনার ফরোয়ার্ড লাইন শেজনির রক্ষণ দেয়াল ভাঙতে পারেনি। গোলশূন্য অবস্থায় শেষ হয় প্রথম ৪৫ মিনিটে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে গোলের দেখা পায় আর্জেন্টিনা। মাঝমাঠ থেকে মাঠের ডানপ্রান্তে বল পেয়ে যান নায়ুয়েল মলিনা। তার মাপা ক্রস বক্সে খুঁজে নেয় অরক্ষিত ম্যাকঅ্যালিস্টারকে। কাছ থেকে বল জালে জড়াতে ভুল করেননি এ মিডফিল্ডার। এটি আর্জেন্টিনার জার্সিতে তার প্রথম গোল।

এক গোল পেয়ে আরও দুর্দান্ত খেলা উপহার দেয় আর্জেন্টিনা। পোল্যান্ডকে মাঝমাঠে কোনো জায়গা দিচ্ছিলেন না মেসি-রদ্রিগো দে পলরা।

৬১ মিনিটে ম্যাকঅ্যালিস্টার আরেকটি সুযোগ পেয়েছিলেন দলের লিড বড় করার। কাছ থেকে লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি তিনি।

এর ৬ মিনিট পরই অবশ্য দ্বিতীয় গোলের দেখা পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। এনজো ফার্নান্দেসের পাস পেয়ে চমৎকার শটে বক্সের ভেতর থেকেই লক্ষ্যভেদ করেন আলভারেস।

মেসি নিজেই গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন ৭১ মিনিটে। কিন্তু ওয়ান-অন-ওয়ান সিচুয়েশন থেকে তার শট ঠেকিয়ে দেন শেজনি।

শেষ দিকে পরিষ্কার দুটি সুযোগ নষ্ট করেন বদলি হিসেবে নামা নিকোলাস তালিয়াফিকো ও লাউতারো মার্তিনেস। ফলে আর্জেন্টিনার জয়ের ব্যবধান আর বড় হয়নি।

এ জয়ে ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্টের সঙ্গে গ্রুপের শীর্ষস্থান নিয়ে নকআউট নিশ্চিত করেছে আর্জেন্টিনা। শনিবার রাত ১টায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শেষ ষোলোর ম্যাচে নামবে মেসির দল।

অন্যদিকে আর্জেন্টিনার কাছে হেরেও নকআউটে পৌঁছেছে পোল্যান্ড। মেক্সিকোর সঙ্গে পয়েন্ট পার্থক্য না থাকলেও গোল ব্যবধানে গ্রুপের দ্বিতীয় সেরা হয়ে নকআউটে চলে গেছে রবার্ট লেওয়ানডোভস্কির দল।

রোববার রাত ৯টায় ফ্রান্সের বিপক্ষে খেলবে পোল্যান্ড।

মন্তব্য

খেলা
Argentina could not break the wall in the first half

প্রথমার্ধে শেজনি দেয়াল ভাঙতে পারল না আর্জেন্টিনা

প্রথমার্ধে শেজনি দেয়াল ভাঙতে পারল না আর্জেন্টিনা মেসির পেনাল্টি শট ঠেকিয়ে দিচ্ছেন পোল্যান্ডের গোলকিপার ভইচেক শেজনি। ছবি: টুইটার
স্পট ঠেকে নেয়া মেসির কিক ঠেকিয়ে দেন শেজনি। এটি টুর্নামেন্টে তার দ্বিতীয় পেনাল্টি সেভ। এর আগে সৌদি আরবের বিপক্ষে পেনাল্টি ঠেকিয়েছিলেন তিনি।

গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে পোল্যান্ড ও আর্জেন্টিনা। জয়ের জন্য মরিয়া আর্জেন্টিনাকে প্রথমার্ধে একা হাতেই রুখে দিয়েছেন পোলিশ গোলকিপার ভইচেক শেজনি। একের পর এক আক্রমণ রুখে দেয়ার পাশাপাশি ঠেকিয়েছেন লিওনেল মেসির পেনাল্টিও।

টুর্নামেন্টে টিকে থাকার ম্যাচে শুরুটা দারুণ করে আর্জেন্টিনা। মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে শুরু থেকে চাপ বজায় রাখে পোল্যান্ডের ওপর। মেসি, মারকোস আকুনিয়া শুরুতে সুযোগ পেয়েছিলেন গোলের। কিন্তু লক্ষ্যভেদ করতে পারেনি।

এরপর মাঠে শুরু হয় শেজনি শো। ইউভেন্তাসে খেলা ৩২ বছর বয়সী এ গোলকিপার একে কে ফেরান হুলিয়ান আলভারেস ও আনহেল দি মারিয়ার শট।

প্রথমার্ধের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত উপস্থিত হয় ৩৭ মিনিটে। মেসিকে নিজেদের বক্সে ফাউল করেন শেজনি। প্রথমে পেনাল্টির নির্দেশ না দিলেও ভিডিও রিপ্লে দেখে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

স্পট ঠেকে নেয়া মেসির কিক ঠেকিয়ে দেন শেজনি। এটি টুর্নামেন্টে তার দ্বিতীয় পেনাল্টি সেভ। এর আগে সৌদি আরবের বিপক্ষে পেনাল্টি ঠেকিয়েছিলেন তিনি।

আর বিশ্বকাপে এটি মেসির দ্বিতীয় পেনাল্টি ব্যর্থতা। ২০১৮ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে স্পট থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক।

এরপরের সময়ে আর গোল হয়নি। ৬৬ শতাংশ পজেশন রাখলেও আর্জেন্টিনার ফরোয়ার্ড লাইন শেজনির রক্ষণ দেয়াল ভাঙতে পারেনি। গোলশূন্য অবস্থাতে শেষ হয় প্রথম ৪৫ মিনিটে।

একই সময়ে শুরু হওয়া সি গ্রুপের সৌদি আরব ও মেক্সিকোর ম্যাচেও গোল হয়নি।

আরও পড়ুন:
পোল্যান্ডের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার একাদশে ৪ পরিবর্তন
ডেনমার্ককে হারিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে নকআউটে অস্ট্রেলিয়া
বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের মাটিতে নামাল তিউনিসিয়া

মন্তব্য

খেলা
4 changes to Argentinas XI against Poland

পোল্যান্ডের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার একাদশে ৪ পরিবর্তন

পোল্যান্ডের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার একাদশে ৪ পরিবর্তন পোল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের আগে স্টেডিয়ামে ঢুকছেন লিওনেল মেসি। ছবি: টুইটার
লিয়ান্দ্রো পারেদেসের জায়গায় খেলবেন তরুণ তারকা এনজো ফার্নান্দেস। মেক্সিকোর বিপক্ষে দর্শনীয় এক গোল করে আলোচনায় আসেন ২১ বছর বয়সী এ উইঙ্গার।

কাতার বিশ্বকাপে নকআউটে ওঠার আগে নিজেদের শেষ গ্রুপ ম্যাচে একাদশে একাধিক পরিবর্তন এনেছেন আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি। মেক্সিকোর বিপক্ষের ম্যাচজয়ী একাদশ থেকে ৪টি পরিবর্তন করেছেন তিনি।

আর্জেন্টিনার একাদশে রক্ষণ, মাঝমাঠ ও আক্রমণ সব জায়গাতেই খেলোয়াড় বদল করেছেন স্কালোনি।

ডিফেন্সে লিসান্দ্রো মার্তিনেস ও গনসালো মন্তিয়েলের জায়গায় খেলবেন ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো ও নায়ুয়েল মলিনা।

মাঝমাঠে লিয়ান্দ্রো পারেদেসের জায়গায় খেলবেন তরুণ তারকা এনজো ফার্নান্দেস। মেক্সিকোর বিপক্ষে দর্শনীয় এক গোল করে আলোচনায় আসেন ২১ বছর বয়সী এ উইঙ্গার।

আক্রমণভাগেও তারুণ্যের ওপর ভরসা করছেন স্কালোনি। অভিজ্ঞ লাউতারো মার্তিনেসকে বেঞ্চে বসিয়ে একাদশে রেখেছেন হুলিয়ান আলভারেসকে।

ম্যানচেস্টার সিটির ২১ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড বিশ্বকাপে দলের হয়ে আগের দুই ম্যাচ খেললেও সময়ের অভাবে খুব বেশি প্রভাব রাখতে পারেননি ম্যাচে।

আক্রমণভাগে আলভারেসের সঙ্গে অবশ্যই আছেন লিওনেল মেসি ও আনহেল দি মারিয়া। পোল্যান্ডকে হারালে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউটে চলে যাবে আর্জেন্টিনা।

আর্জেন্টিনার একাদশ: এমি মার্তিনেস, নায়ুয়েল মলিনা, ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো, নিকোলাস ওতামেন্দি, মারকোস আকুনিয়া, এনজো ফার্নান্দেস, রদ্রিগো দে পল, আলেক্সিস ম্যাকঅ্যালিস্টার, লিওনেল মেসি, আনহেল দি মারিয়া ও হুলিয়ান আলভারেস।

আরও পড়ুন:
ডেনমার্ককে হারিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে নকআউটে অস্ট্রেলিয়া
বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের মাটিতে নামাল তিউনিসিয়া
‘হ্যান্ড অফ গডের’ পর এবারে ‘হেয়ার অফ গড’

মন্তব্য

খেলা
Australia beat Denmark in knockout with France

ডেনমার্ককে হারিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে নকআউটে অস্ট্রেলিয়া

ডেনমার্ককে হারিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে নকআউটে অস্ট্রেলিয়া অস্ট্রেলিয়া ও ডেনমার্কের মধ্যে বল দখলের লড়াই। ছবি: এএফপি
১-০ গোলের জয় নিয়েই ডেনমার্ককে ছিটকে দিয়ে রাউন্ড অফ সিক্সটিনে নাম লেখায় অস্ট্রেলিয়া। ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে দ্বিতীয় হয়ে নকআউটে গেল তারা।

ফ্রান্সের হারের দিন দ্বিতীয় ম্যাচে ডেনমার্ককে হারিয়ে রাউন্ড অফ সিক্সটিন নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া। ম্যাথিউ লকির একমাত্র গোলে শেষ ষোল নিশ্চিত হয় তাদের।

অস্ট্রেলিয়া ও ডেনমার্কের জন্য এটি ছিল ডু অর ডাই ম্যাচ। যেখানে শেষ ষোলো নিশ্চিতে দুই দলেরই প্রয়োজন ছিল জয়ের। সেই জয়টা বাগিয়ে নিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গী হিসেবে ২০০৬ সালের পর দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া।

ম্যাচের প্রথম থেকেই দুই দল আক্রমণাত্মক খেলে। কাউন্টার অ্যাটাকের পসরা সাজিয়ে বসেছিল তারা প্রথমার্ধে।

১৯ মিনিটের মাথায় অজি গোলকিপার ম্যাট রায়ানের দুর্দান্ত সেভে লিড নিতে ব্যর্থ হয় ডেনমার্ক। দুই মিনিট পরেই পাল্টা আক্রমণে যাওয়া ডেনমার্কের ডি বক্স থেকে গোলবার লক্ষ্য করে হাফ ভলি শট নেন রাইলি ম্যাকগি। সেটি আটকে যায় ডেনমার্কের গোলকিপার ক্যাসপার স্মাইকেলের হাতে।

প্রথমার্ধের বাকিটা সময় বলের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখে আক্রমণ চালিয়ে গিয়েছিল ডেনমার্ক। পাল্টা আক্রমণটাও বেশ জোরালো ছিল অস্ট্রেলিয়ার। তাতে লাভ হয়নি কোনই।

ম্যাচের ৬০ তম মিনিটে এসে ম্যাথিউ লকি ভাঙ্গেন ডেডলক। ম্যাকগির কাছ থেকে বল পাওয়ার পর প্রায় একক প্রচেষ্টায় ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোল করেন লকি।

লিড পেয়ে আক্রমণের ধার বেড়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার। কম যায়নি ডেনমার্কও। বেশ কয়েকটি সুযোগও সৃষ্টি করেছিল তারা। কিন্তু তাতে পরিবর্তন আসেনি ফলাফলে।

১-০ গোলের জয় নিয়েই ডেনমার্ককে ছিটকে দিয়ে রাউন্ড অফ সিক্সটিনে নাম লেখায় অস্ট্রেলিয়া। ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে দ্বিতীয় হয়ে নকআউটে গেল তারা।

আর ৩ ম্যাচ থেকে মাত্র ১ পয়েন্ট পাওয়া ডেনমার্কের বিশ্বকাপ শেষ হলো গ্রুপ পর্বে সবশেষ স্থান পেয়ে।

আরও পড়ুন:
বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের মাটিতে নামাল তিউনিসিয়া
‘হ্যান্ড অফ গডের’ পর এবারে ‘হেয়ার অফ গড’
মেসিকে থামানোর উপায় জানেন না পোল্যান্ডের কোচ

মন্তব্য

p
উপরে