× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

খেলা
There is no comparison with Messi
hear-news
player
print-icon

মেসির সঙ্গে কারও তুলনা হয় না

মেসির-সঙ্গে-কারও-তুলনা-হয়-না-
ক্রিস্টিয়ান রোমেরো ও লিওনেল মেসি। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
মেসিকে সবার থেকে আলাদা আখ্যা দিয়েছেন আর্জেন্টিনার ডিফেন্ডার ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো। জাতীয় দলের অধিনায়কের মতো কোনো খেলোয়াড় দেখেননি বলে দাবি তার।

ফুটবল দুনিয়ায় সর্বকালের সেরা ফুটবলারদের তালিকায় লিওনেল মেসির নাম শুরুর দিকে আসে। ৭ বারের ব্যালন ডর জয়ী এই ফরোয়ার্ডকে নিয়ে এবার কথা বলেছেন তার সতীর্থ ক্রিস্টিয়ান রোমেরো।

২৪ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন এ ডিফেন্ডার কোপা আমেরিকা ও ফিনালিসিমা জিতেছেন জাতীয় দলের হয়ে। প্রিমিয়ার লিগে গত মৌসুমে রোমেরো সেরা ডিফেন্ডারদের একজন ছিলেন। দারুণ পারফরম্যান্সে টটেনহ্যাম হটস্পার ও আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছেন তিনি।

স্কাই স্পোর্টসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে লিওনেল মেসিকে অনন্য হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি। পেশাদার ক্যারিয়ারে তার মতো সতীর্থ পাননি বলেও জানান রোমেরো।

তিনি বলেন, ‘মেসি আমার কাছে ভিন্ন মাপের খেলোয়াড়। তার মতো কাউকে আমি জীবনে দেখিনি। মাঠে তিনি যা করেন তা অবিশ্বাস্য। আমি মনে করি না তার কোনো তুলনা আছে। তার সঙ্গে খেলতে পারাটা দারুণ ব্যাপার।’

শুধু মেসিই নন, আরেক আর্জেন্টাইন সতীর্থ লিসান্দ্রো মার্তিনেসকেও প্রশংসায় ভাসিয়েছেন রোমেরো। আয়াক্স আমস্টার্ডাম ছেড়ে এ মৌসুমেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছেন মার্তিনেস। জাতীয় দলে নিজের সেন্টার ব্যাক পার্টনারকে প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম সেরা হিসেবে অবিহিত করেছেন রোমেরো।

তিনি বলেন, ‘আমার চোখে তারা প্রিমিয়ার লিগে সেরা। তারা দুজনই দারুণ ডিফেন্ডার।’

আরও পড়ুন:
জিনিয়াস ফেডেরারকে শ্রদ্ধা মেসি ও টেন্ডুলকারের
মেসির রেকর্ডের রাতে পিএসজির সহজ জয়
নেইমারের গোলে আবারও জয় পিএসজির

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
Withdrawal of the case footballer Ankhis land is intact

মামলা প্রত্যাহার, ফুটবলার আঁখির জমি নিষ্কণ্টক

মামলা প্রত্যাহার, ফুটবলার আঁখির জমি নিষ্কণ্টক মা-বাবার সঙ্গে ফুটবলার আঁখি। ফাইল ছবি
সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট লুৎফুন নাহার জানান, বাদী পক্ষ মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন করেছে। ফলে মামলাটি খারিজ হয়ে গেছে। বর্তমানে ফুটবলার আঁখিকে বরাদ্দ দেয়া ওই জমি সম্পূর্ণ নিষ্কণ্টক।

নারী ফুটবলার আঁখি খাতুনকে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ৮ শতাংশ জমির ওপর করা মামলা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। সোমবার দুপুরে মামলার বাদী হাজী মকরম প্রামানিক সিরাজগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বরাবর মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন করেন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট লুৎফুন নাহার জানান, বাদী পক্ষ মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন করেছে। ফলে মামলাটি খারিজ হয়ে গেছে। বর্তমানে ফুটবলার আঁখিকে বরাদ্দ দেয়া ওই জমি সম্পূর্ণ নিষ্কণ্টক।

শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম বলেন, ‘সাফ উইমেন্স চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী ফুটবলার আঁখির জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ১ নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত ৮ শতাংশ জমির একটি প্লট বরাদ্দ দেয়া হয়। ৪ জুন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার জমির দলিল হস্তান্তর করেন।

‘সম্প্রতি হাজী মকরম প্রামাণিক নামে এক ব্যক্তি ওই জমি তাদের দখলে রয়েছে দাবি করে মামলা করেন। তবে মামলার তফসিলে তিনি খতিয়ান উল্লেখ বা জমিটির মালিকানা দাবি করেননি। সোমবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বাদী নিজেই মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন করলে মামলাটি খারিজ হয়ে যায়।

ফুটবলে অবদান এবং দরিদ্র পরিবারের কথা বিবেচনা করে তিন বছর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিদের্শনায় আঁখিকে জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই জমির মালিকানা দাবি করে শাহজাদপুরের একজন ব্যবসায়ী মামলা করেন।

বিষয়টি নিয়ে নিউজবাংলায় সংবাদ প্রচারের পর সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন ওই জমির বরাদ্দ বাতিল করে ১ নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত ৮ শতাংশ নতুন জমি আঁখির নামে বরাদ্দ দেয়। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার ৪ জুন আঁখির পরিবারের কাছে ওই জমির দলিল হস্তান্তর করেন।

এদিকে সম্প্রতি আঁখি খাতুনকে বরাদ্দ দেয়া সেই জমির দখল নিয়ে হাজী মকরম প্রামানিক আদালতে মামলা করেন। মামলায় আঁখিসহ পাঁচজনকে বিবাদী করা হয়।

বুধবার রাতে মামলার নোটিশ নিয়ে সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মামুনুর রশিদ ও কনস্টেবল আবু মুসা আঁখির গ্রামের বাড়িতে গেলে তার বাবার সঙ্গে বিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে আঁখির বাবাকে পুলিশ শাসায় এবং থানায় নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেয় বলে অভিযোগ করা হয়। এ নিয়ে সিরাজগঞ্জসহ দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় ওঠে। পরবর্তীতে ওই দুই পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। এ ঘটনার পাঁচদিন পর স্ব-ইচ্ছায় বাদী মামলাটি প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

মন্তব্য

খেলা
Messi said Mbappe is the best of the future

এমবাপেকে ভবিষ্যতের সেরা বললেন মেসি

এমবাপেকে ভবিষ্যতের সেরা বললেন মেসি পিএসজির জার্সিতে কিলিয়ান এমবাপে ও লিওনেল মেসি। ফাইল ছবি
আমেরিকার স্প্যানিশ টিভি নেটওয়ার্ক টিইউডিএনকে এক সাক্ষাৎকারে মেসি সোমবার বলেন, বিশ্বসেরা হওয়ার সব বৈশিষ্ট্য আছে ২৩ বছর বয়সী এমবাপের মধ্যে।

দীর্ঘ দেড় দশক ফুটবলবিশ্বে রাজত্ব করেছেন লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো। এই দুই বিশ্বসেরা তারকার ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে কে হবেন তাদের উত্তরসূরি, সেটা নিয়ে ভক্তদের মধ্যে চলছে তুমুল আলোচনা।

কেউ বলছেন ফ্রান্স ও পিএসজি তারকা কিলিয়ান এমবাপের হাতেই উঠছে মেসি-রোনালডোর ব্যাটন। আবার একদলের বিশ্বাস নরওয়ে ও ম্যানচেস্টার সিটির স্ট্রাইকার আর্লং হালান্ডই ভবিষ্যতে কাঁপাবেন ফুটবলবিশ্ব।

তবে নিজের পছন্দ হিসেবে এমবাপেকে বেছে নিয়েছেন লিওনেল মেসি। আমেরিকার স্প্যানিশ টিভি নেটওয়ার্ক টিইউডিএনকে এক সাক্ষাৎকারে মেসি সোমবার বলেন, বিশ্বসেরা হওয়ার সব বৈশিষ্ট্য আছে ২৩ বছর বয়সী এমবাপের মধ্যে।

মেসি যোগ করেন, ‘কিলিয়ান একেবারে আলাদা ধাঁচের খেলোয়াড়। মাঠে ওয়ান-অন-ওয়ানে বা খালি জায়গায় সে দানবের মতো। ও খুব দ্রুতগতির আর প্রচুর গোলও করে। আমার চোখে সে পূর্ণাঙ্গ একজন খেলোয়াড়। বহুদিন ধরেই সে এমনটা খেলে আসছে। ভবিষ্যতে আমি নিশ্চিত সে সেরাদের একজন হবে।’

পিএসজিতে গত মৌসুমটা ম্লান কাটলেও চলতি মৌসুমে দারুণ ফর্মে রয়েছেন মেসি। মেসি-নেইমার ও এমবাপে ত্রয়ীর ওপর ভর করে লিগে এখনও অপরাজিত পিএসজি।

এমবাপের পাশাপাশি প্রিয় বন্ধু নেইমারের প্রশংসাও করেছেন মেসি। ব্রাজিলের এ তারকার সঙ্গে খেলা উপভোগ করেন বলে জানান আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

মেসি বলেন, ‘নেইমারকে আমি খুব ভালো করে জানি। বার্সেলোনায় আমরা অনেকটা সময় একসঙ্গে উপভোগ করেছি। বার্সেলোনায় ওর সঙ্গে আরও কিছুদিন খেলতে পারলে ভালো লাগত। কিন্তু প্যারিসে আমরা আবার একসঙ্গে হয়েছি। আমরা দারুণ আনন্দিত একসঙ্গে খেলতে পেরে। আমি তার সঙ্গে খেলতে ভালোবাসি। প্রতিদিন তার সঙ্গে সময় কাটাতে আমার ভালো লাগে।’

আপাতত জাতীয় দলের হয়ে নেশনস লিগ ও ফিফা ফ্রেন্ডলির দায়িত্বে রয়েছেন মেসি, নেইমার ও এমবাপে। তিন তারকাকে নিয়ে পিএসজি আবারও মাঠে নামছে ২ অক্টোবর। নিজ মাঠে ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের ম্যাচে চ্যাম্পিয়নরা মোকাবিলা করবে নিসের।

আরও পড়ুন:
মেসির জোড়া গোলে আর্জেন্টিনার জয়
মেসি জাতীয় দলের হয়ে সব ম্যাচ খেলতে চান: স্কালোনি
মেসির গোলে টেবিলের শীর্ষে পিএসজি

মন্তব্য

খেলা
Croatia and the Netherlands in the semis of the Nations League

নেশনস লিগের সেমিতে ক্রোয়েশিয়া ও নেদারল্যান্ডস

নেশনস লিগের সেমিতে ক্রোয়েশিয়া ও নেদারল্যান্ডস ফ্রান্সের বিপক্ষে দ্বিতীয় গোলের পর উচ্ছ্বসিত ডেনমার্ক দল। ছবি: টুইটার
ডেনমার্কের কাছে ২-০ গোলে হেরেছে ফ্রান্স। বেলজিয়ামকে ১-০ গোলে হারিয়েছে নেদারল্যান্ডস।

ইউয়েফা নেশনস লিগের শেষ চার নিশ্চিত করেছে ক্রোয়েশিয়া ও নেদারল্যান্ডস। আর ডেনমার্কের কাছে হারের পরও রেলিগেশন এড়িয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স।

ডেনমার্কের কাছে ২-০ গোলে হেরে ৬ ম্যাচে মাত্র ১ জয় নিয়ে নেশনস লিগ শেষ করেছে ফ্রান্স। গ্রুপ-ওয়ানের আরেক ম্যাচে ক্রোয়েশিয়া ৩-১ গোলে অস্ট্রিয়াকে হারানোয় ফ্রান্সের অবনমন রক্ষা পায়। তলানিতে থাকা অস্ট্রিয়ার থেকে ১ পয়েন্ট এগিয়ে ফ্রান্স গ্রুপ টেবিলের তৃতীয় স্থানে থেকে এবারের আসর শেষ করেছে।

কোপেনহেগেনে কাল দুটি গোলই এসেছে বিরতির আগে। ৩৩ মিনিটে মিকেল ডামসগার্ডের ক্রস থেকে কাসপার ডোলবার্গ প্রথমে গোল করে ডেনমার্ককে এগিয়ে দেন। ছয় মিনিট পর আন্দ্রেস স্কোভ ওলসেনের ভলিতে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়। বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বেও ডেনমার্কের মুখোমুখি হতে হবে ফ্রান্সকে।

ডেনমার্কের জয়ে শীর্ষস্থান নিশ্চিতের জন্য অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে পূর্ণ ৩ পয়েন্টের প্রয়োজন ছিল ক্রোয়েশিয়ার। ২০১৮ ফাইনালিস্টদের উড়ন্ত সূচনা এনে দেন তারকা মিডফিল্ডার লুকা মডরিচ। ৬ মিনিটে মডরিচ গোলে এগিয়ে যায় ক্রোয়াটরা।

৩ মিনিটের মধ্যে ক্রিস্টোফ বমগার্টনারের হেডে সমতায় ফেরে অস্ট্রিয়া। দ্বিতীয়ার্ধে ৬৯ ও ৭২ মিনিটে মার্কো লিভায়া ও ডেয়ান লভরেনের পরপর দুই গোলে শেষ পর্যন্ত ক্রোয়েশিয়ার জয় নিশ্চিত হয়। এ হারের পর অস্ট্রিয়া লিগ-বিতে রেলিগেটেড হয়ে গেছে।

আরেক ম্যাচে বেলজিয়ামকে ১-০ গোলে পরাজিত করে গ্রুপ-ফোরের শীর্ষস্থান নিশ্চিত করেছে নেদারল্যান্ডস। আমস্টারডামের ইয়োহান ক্রুইফ অ্যারেনাতে ম্যাচের ১৭ মিনিটে ভার্জিল ফন ডাইকের হেডের গোলে ডাচদের জয় নিশ্চিত হয়।

গ্রুপের শীর্ষস্থান নিশ্চিতে তাদের শুধু ৩ গোলের ব্যবধানে পরাজয় এড়াতে হতো। পুরো ম্যাচে বেলজিয়ামের ফিরে আসার কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি। কর্নার থেকে পোস্টের মাত্র ছয় গজ দূরত্বে অনেকটা ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থাকা ফন ডাইক হেডের সাহায্যে দলকে এগিয়ে দিতে কোনো ভুল করেননি।

একই গ্রুপের ঘরের মাঠে পোল্যান্ডের কাছে ১-০ গোলে হেরে রেলিগেটেড হয়ে গেছে ওয়েলস।

আরও পড়ুন:
ঘরের মাঠে স্পেনের হারের দিনে বড় জয় পর্তুগালের
এমবাপের গোলে জয় পেল ফ্রান্স
ইতালিকে উড়িয়ে দিল জার্মানি

মন্তব্য

খেলা
A big win for Portugal on a day when Spain lost at home

ঘরের মাঠে স্পেনের হারের দিনে বড় জয় পর্তুগালের

ঘরের মাঠে স্পেনের হারের দিনে বড় জয় পর্তুগালের চেক রিপাবলিকের বিপক্ষে গোল উদযাপন পর্তুগালের। ছবি: এএফপি
২০১৮ সালের পর ঘরের মাঠে এটিই স্পেনের প্রথম হার। মাঝে ঘরের মাঠে ২২ ম্যাচ অপরাজিত ছিল তারা।

চার বছর পর ঘরের মাঠে পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে স্পেনকে। উজ্জীবিত পারফরম্যান্সে স্প্যানিশদের বিপক্ষে দারুণ জয় পেয়েছে সুইসরা।

নেশনস লিগের ‘বি’ গ্রুপে শনিবার রাতের ম্যাচে স্পেনকে ২-১ গোলে হারিয়েছে সুইজারল্যান্ড।

ম্যাচের শুরু থেকে বল দখলের লড়াইয়ে স্পেন এগিয়ে থাকলেও গোল করার মতো সুযোগ তৈরিতে ব্যর্থ হন লুইস এনরিকের শিষ্যরা। প্রথমার্ধে দুটি শট নিলেও লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি তারা।

অন্যদিকে প্রথমার্ধেই লিড নিয়ে নেয় সুইজারল্যান্ড। ম্যাচের ২১তম মিনিটে ম্যানুয়েল আকানজির গোলে স্কোরলাইন হয় ১-০।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫৫তম মিনিটের মাথায় স্বাগতিকদের সমতায় ফেরান লেফটব্যাক জর্দি আলবা, তবে স্পেনের এই আনন্দ বেশি সময় স্থায়ী হতে দেয়নি প্রতিপক্ষ। তিন মিনিটের মধ্যেই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সুইস তারকা ব্রিল এমবলো।

শেষের দিকে গোলের জন্য সুইসদের ওপর একের পর এক চাপ সৃষ্টি করেও তা আদায়ে ব্যর্থ হয় স্প্যানিশরা।

২০১৮ সালের পর ঘরের মাঠে এটিই স্পেনের প্রথম হার। মাঝে নিজেদের মাঠে ২২ ম্যাচ অপরাজিত ছিল দলটি।

চেক রিপাবলিককে উড়িয়ে দিল পর্তুগাল

নেশনস লিগে রাতের আরেক ম্যাচে চেক রিপাবলিকের বিপক্ষে বড় জয় পেয়েছে পর্তুগাল, তবে দলের বড় জয়ের ম্যাচেও গোল পাননি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো।

পর্তুগালের পক্ষে জোড়া গোল করেন দিয়োগো দালোত। অন্য দুই গোলদাতা হলেন ব্রুনো ফের্নান্দেস ও দিয়োগো জটা।

বেশ কয়েকবার সুযোগ নষ্ট করে ৩৩তম মিনিটে লিড পায় রোনালডোর দল। দিয়াগো দালোতের গোলে ১-০তে এগিয়ে যায় পর্তুগাল।

পাঁচ মিনিটের মাথায় আবারও সুযোগ পেয়ে নষ্ট করেন রোনালডো। ফের্নান্দেসের কাছ থেকে বল পেয়ে উড়িয়ে মারলেও তা জালে জড়াতে পারেননি পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। বারবার ব্যর্থ হয়ে নিজের ওপর বিরক্তি প্রকাশ করেন রোনালডো।

প্রথমার্ধে বাড়তি সময়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ফের্নান্দেস। এর মধ্য দিয়ে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় পর্তুগাল।

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হলে অষ্টম মিনিটে ফের্নান্দেসের ছোট পাস থেকে স্কোরলাইন ৩-০তে পরিণত করেন দালোত। এর মাধ্যমে নিজের দ্বিতীয় গোলের দেখা পেয়ে যান তিনি।

৮২তম মিনিটে চতুর্থ গোলটি করেন দিয়াগো জটা। তার গোলে ৪-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পর্তুগাল।

চার দলের ফাইনালে ওঠার লক্ষ্যে আগামী মঙ্গলবার স্পেনের মুখোমুখি হবে পর্তুগিজরা। সেদিন ড্র করলেই ফাইনালে উঠবে পর্তুগালের।

সুইজারল্যান্ড ও চেক রিপাবলিকের মধ্যে শীর্ষ স্তরে টিকে থাকার লড়াইও জমে উঠেছে। ৬ পয়েন্ট নিয়ে সুইসরা আছে তৃতীয় স্থানে; ২ পয়েন্ট কম নিয়ে চার নম্বরে আছে চেক রিপাবলিক।

পাঁচ ম্যাচে তিন জয় ও এক ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে লিগের ‘বি’ গ্রুপের শীর্ষে এখন পর্তুগাল।

আরও পড়ুন:
এমবাপের গোলে জয় পেল ফ্রান্স
লাল-সবুজে বিশ্বকাপ খেলবেন রোনালডোরা
চিকিৎসা না পেয়ে অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ

মন্তব্য

খেলা
Rupanad is not interested in taking credit

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই মনিকা, আনাই, আনুচিং, রিতুপর্ণা ও সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমাদের গড়ে তোলা কোচসহ অন্যরা। ছবি: সংগৃহীত
মেয়েদের যে দলটি সাফের শিরোপা নিয়ে এসেছে, তার পাঁচজন রাঙ্গামাটির একটি স্কুল থেকে উঠে এসেছে। তাদের তৈরি করার পেছনে তিনজনের ভূমিকা ছিল অনন্য। বছরের পর বছর ধরে তারা ফুটবলার জোগান দেয়ার চেষ্টা করছেন। রূপনাদের সাফল্যের পরও কেউ এতটুকু কৃতিত্ব দাবি করছেন না।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নে ঘাগড়া (বহুমুখী) উচ্চ বিদ্যালয় হঠাৎ করেই ব্যাপক পরিচিতি পেয়ে গেছে।

বাংলাদেশের যে নারী ফুটবল দলটি সাফের শিরোপা নিয়ে এসেছে, সেই দলের পাঁচজন খেলোয়াড় উঠে এসেছেন এই একটি স্কুল থেকে। এরা হলের মনিকা চাকমা, আনাই মগিনী, আনুচিং মগিনী, রিতুপর্ণা চাকমা ও সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমা।

এ বিদ্যালয়ের ফুটবল প্রশিক্ষক শান্তিমনি চাকমা ও মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক বীরসেন চাকমা, আর ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দ্রা দেওয়ানের ভূমিকা অনন্য।

মেয়েরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ান পর ভীষণ গর্বিত এই তিনজন। কিন্তু কৃতিত্ব নিতে একটুকু চেষ্টাও নেই তাদের। বরং একজন বলেন আরেকজনের কথা। সেই সঙ্গে তুলে ধরছেন মেয়েদের পরিশ্রমের বিষয়টি।

পাহাড়ের সেরা এ পাঁচ তারকার এক জায়গায় নিয়ে আসতে প্রধান ভূমিকা রাখেন বীরসেন। বিভিন্ন জায়গা থেকে ফুটবল খেলোয়াড় সংগ্রহ করে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করাই তার শখ। আর সেসব খেলোয়াড়ের প্রশিক্ষণের দায়িত্ব দিতেন ফুটবল প্রশিক্ষক শান্তিমনি চাকমাকে।

আর মেয়েদের আবাসনের জন্য উদ্যোগ নেন চন্দ্রা দেওয়ান। আনসার ভিডিপির কোচ সুইলা মং মারমা ও ধারজ মনি চাকমাও সহযোগিতা করেন তাদের।

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই
স্কুলের মাঠে স্থানীয় কোচের সঙ্গে নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা। ছবি: সংগৃহীত

পাঁচ তারকার মধ্যে আনাই মগিনী, আনুচিং মগিনী, মনিকা চাকমা খাগড়াছড়ি জেলার বাসিন্দা। তাদের মধ্যে সবচে দুর্গম লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা থেকে ঘাগড়ায় চলে আসেন মনিকা।

রিতুপর্ণা চাকমার বাড়ি ঘাগড়া এলাকাতেই। আর রূপনার বাড়ি নানিয়ারচর উপজেলার ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের ভূঁইয়ো আদামে।

রিতুপর্ণা এই স্কুলে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ে বিকেএসপিতে চলে যান। রূপনা এখনও দশম শ্রেণিতে পড়ে। বাকিরা এখান থেকেই এসএসসি পাস করেন।

এই স্কুলে ফুটবলার তৈরির কার্যক্রম জেনে এসেছে নিউজবাংলা।

শান্তিমনি চাকমার নির্দেশনায় প্রতিদিন ভোর ৬টা ও বিকেল ৪টায় স্কুল মাঠে চলে প্রশিক্ষণ। সেখানে মেয়েদের জন্য করা হয়েছে হোস্টেলের ব্যবস্থাও। ফুটবলপ্রেমী মেয়েরা বাড়ি ছেড়ে থাকে এখানে।

রূপনা, মগিনী, মনিকারা স্বপ্ন ছড়িয়ে দিয়েছে অন্যদের মধ্যেও। তারাও লাল-সবুজের পতাকা হাতে নিয়ে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে চায়।

জাতীয় দলে খেলবে এমন আশায় জোর অনুশীলন করে যাচ্ছে নবম শ্রেণির ছাত্রী নবনিতা চাকমা। সে বলে, ‘মনিকা, আনাই, আনু, রিতু, রূপনা দিদিদের মতো বড় খেলোয়াড় হতে চাই। আমাদের সকাল-বিকেল প্রতিদিন ফুটবলে অনুশীলন করাচ্ছেন শান্তিমনি স্যার।’

‘একদিন জাতীয় দলের খেলোয়াড় হব’- আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলে নবম শ্রেণির জুলেখা চাকমাও। সে বলে, ‘বাংলাদেশের মেয়েরা এবার যে বিজয় লাভ করেছে তাতে আমি খুব খুশি।’

হোস্টেলে থেকে এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে মেন্টি চাকমা। পড়াশোনার চাপের মধ্যেও ফুটবলের অনুশীলন থেমে নেই তার।

মেন্টি বলে, ‘ফুটবলকে ভালোবেসে স্কুলের হোস্টেলে থাকি, যাতে একদিন স্বপ্ন পূরণ করতে পারি।’

ঘাগড়া ইউনিয়নের সাবেক সদস্য শান্তিমনি চাকমা বলেন, ‘যদি সরকারিভাবে সহযোগিতা করা হয়, তাহলে ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে আরও অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড় উঠে আসবে।’

এই শান্তিমনি ফুটবল প্রশিক্ষক শান্তিমনি নন। তিনি জানান, মনিকা, আনাই, আনুচিং ও রিতু প্রাথমিকের বঙ্গমাতা টুর্নামেন্ট খেলেছিল। তারা মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়। এরপর তাদের বর্তমান পর্যায়ে উঠে আসার পেছনে কারিগর ছিলেন বীরসেন চাকমা। তিনি ছিলেন ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক।

বীরসেন যতটা করেছেন, তাতে খুশি নন। বরং আরও অনেক কিছু করার ছিল ভেবে আক্ষেপ করেন।

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই
মনিকা, আনাই, আনুচিং, রিতুপর্ণা ও সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমাদের স্কুল, ঘাগড়া (বহুমুখী) উচ্চ বিদ্যালয়। ছবি: নিউজবাংলা

তিনি বলেন, ‘২০১২ সালে বঙ্গমাতা গোল্ডকাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ঘাগড়ার মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। কিন্তু জেলা পর্যায়ে কোনো ক্লাবই তাদের স্বীকৃতি দেয়নি। শুধু তা-ই নয়, যখন আনু, মনিকা, আনাই, রিতু বঙ্গমাতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল, তখন তাদের প্রতিভা ধরে রাখতে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান, রাঙ্গামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও পৌরসভা মেয়রের কাছে গিয়েছিলাম। নিজের জন্য না, খেলোয়াড়দের জন্য গিয়েছিলাম। কিন্তু কোনো সহযোগিতাই দেয়নি।’

তিনি বলেন, ‘মেয়েরা এতদূর আসার পেছনে শান্তিমনি চাকমা, সুইলা মং মারমা, চন্দ্র বিকাশ দেওয়ানসহ অনেকে ভূমিকা রেখেছিলেন। তাদের এ অর্জনে মনে হচ্ছে যেন চ্যাম্পিয়ন আমি নিজে হয়েছি।’

এবার কথা হলো সেই শান্তিমনি চাকমার সঙ্গে, যিনি তৈরি করেছেন রূপনাদের। তিনি বলেন, ‘মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বীরসেন চাকমার দাদার পরামর্শে ২০১১ সালে বাচ্চাদের নিয়ে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করা এবং চ্যাম্পিয়নশিপ অর্জন করা। পরে সব খেলোয়াড়কে একত্র রাখতে ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি করানো হয়।

‘সেখানে এসে তাদের প্রশিক্ষণ দিই। এভাবে ধাপে ধাপে তারা শিরোপা অর্জন করে। একপর্যায়ে ভালো খেলাতে তারা ফেডারেশনে ডাক পায়। আজ তারা জাতীয় দলের সেরা খেলোয়াড়। এর পেছনে যিনি ভূমিকা রেখেছেন বীরসেন দাদার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

নিজের কৃতিত্ব কি একটুকুও নেবেন না শান্তিমনি? তিনি বলেন, ‘তাদের প্রতিটি খেলা দেখেছি। চমৎকার খেলেছে। আমার পরিশ্রম কিছু মনে করি না। তাদের চ্যাম্পিয়ন দেখে নিজেকে গর্ববোধ মনে করি।

ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে শুধু নারী ফুটবলাররা কেন উঠে এসেছে..?। ছেলেদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেই কি না জানতে চাইলে শান্তিমনি বলেন, ‘এর আগে ছেলেদের প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। কিন্তু ছেলেরা এক দিন এলে তিন দিন আসত না। নিয়মিত অনুশীলন হতো না। নারী ফুটবলাররা মনোযোগ দিয়ে অনুশীলন করার কারণে তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।’

ঘাগাড়া (বহুমুখী) উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দ্রা দেওয়ানও কোনো কৃতিত্ব নিতে চান না। তিনি বলেন, ‘মনিকা, আনাই, আনুচিং, রিতু, তারা সর্বপ্রথম খেলেছিল প্রাথমিকের বঙ্গমাতা টুর্মামেন্টে। তখনই তারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। এসবের সবকিছু করেছিলেন বীরসেন চাকমা। তিনি মনিকাকে লক্ষ্মীছড়ি থেকে এনেছেন। আনাই, আনুকে আনেন খাগড়াছড়ি থেকে। তখন রূপনা ছিল না। বঙ্গমাতার পর তাদের ভর্তি করানো হয়।

‘শুধু তাদের নয়। বিভিন্ন জায়গা থেকে খেলোয়াড় সংগ্রহ করা হয়েছিল। তারা প্রতিদিন শান্তিমনি চাকমার কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নিত। একসময় তারা জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পায়।’

‘স্কুলে যিনি কোচ আছেন শান্তিমনি চাকমা তিনিই তাদের অনুশীলন করান। সকাল-বিকেল অনুশীলনের মাধ্যমে তার হাত ধরেই মনিকা, আনাই, আনু, রিতু ও রূপনাদের উঠে আসার গল্প। তিনিই ছিলেন তাদের কারিগর’- নেপথ্যের তিন কারিগর একজন অন্যজনকে দেন কৃতিত্ব।

আরও পড়ুন:
বেতন বাড়ছে সাবিনা-কৃষ্ণাদের
মনে হয় শেখ হাসিনা ক্যাপ্টেন ছিলেন: মান্না
খেলোয়াড়দের চুরি যাওয়া টাকা দেবে বাফুফে
তালাবদ্ধ অক্ষত লাগেজ দেয়া হয়েছে: বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ
আসলে কী হয়েছিল বাফুফের সংবাদ সম্মেলনে

মন্তব্য

খেলা
Baffa returned the stolen money to the players

সাফজয়ীদের চুরির ক্ষতিপূরণ দিল বাফুফে

সাফজয়ীদের চুরির ক্ষতিপূরণ দিল বাফুফে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার পর বাফুফের নারী উইংয়ের প্রধান মাহফুজা আক্তার কিরণের সঙ্গে (বাম থেকে) কৃষ্ণা রানি, সানজিদা ও শামসুন্নাহার। ছবি: বাফুফে
টাকা ও ফোন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও নারী উইংয়ের প্রধান মাহফুজা কিরণের পক্ষ থেকে দেয়া হয়।

সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপজয়ী দলের সদস্যদের টাকা চুরির ক্ষতিপূরণ দিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। শনিবার বিকেলে খেলোয়াড়দের হাতে টাকা ও ফোন বুঝিয়ে দেয়া হয়।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন বাফুফের মিডিয়া ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ নওমী। খেলোয়াড়দের চুরি যাওয়া অর্থের বেশি তাদেরকে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

দুই খেলোয়াড়ের সবমিলিয়ে ১৩০০ ডলার হারিয়েছিল। এর মধ্যে কৃষ্ণার ৯০০ ডলার ও শামসুন্নাহার ও সানজিদার ৪০০ ডলার। সানজিদা তার টাকা দিয়ে ফোন কিনতে চেয়েছিলেন। ফেডারেশন তাদেরকে এর চেয়ে বেশি টাকা দিয়েছে।

নওমী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কৃষ্ণা রানি সরকারকে দেড় লাখ টাকা, শামসুন্নাহার সিনিয়রকে এক লাখ ও সানজিদাকে আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স দেয়া হয়েছে। টাকা চুরি যাওয়ার বিষয়ে এখনও অনুসন্ধান চলমান রয়েছে।’

নওমী আরও জানান, টাকা ও ফোন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও নারী উইংয়ের প্রধান মাহফুজা কিরণের পক্ষ থেকে দেয়া হয়।

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা জয়ের ইতিহাস গড়ে চ্যাম্পিয়নরা দেশে ফিরেন বুধবার দুপুরে। নারী ফুটবল দলের আগমনে বিমানবন্দরে দেশের মানুষ যখন উচ্ছ্বাসে ব্যস্ত, সেই মুহূর্তে নারী ফুটবলাররা পান দুঃখজনক খবর।

বাংলাদেশ নারী দলের দুই ফুটবলার কৃষ্ণা রানী সরকার ও শামসুন্নাহারের লাগেজ থেকে খোয়া যায় অর্থ। আর সানজিদা হারান মোবাইল ফোন।

বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে ফেডারেশন। বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ জানান, বিষয়টি নিয়ে মতিঝিল ও বিমানবন্দর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
সাফজয়ীদের সংবর্ধনা, কোটি টাকা দেবে সেনাবাহিনী
ট্রফি উঁচিয়ে নিজ শহরে সাবিনা
খেলোয়াড়দের বাড়ির ছাদ তৈরির আহ্বান শিরিনের
সাফজয়ী আঁখির বাড়িতে পুলিশ: এসআই-কনস্টেবল প্রত্যাহার
বেতন বাড়ছে সাবিনা-কৃষ্ণাদের

মন্তব্য

খেলা
Hungary top the table with victory over Germany England bottom
নেশনস লিগ

জার্মানিকে হারিয়ে শীর্ষে হাঙ্গেরি, তলানিতে ইংল্যান্ড

জার্মানিকে হারিয়ে শীর্ষে হাঙ্গেরি, তলানিতে ইংল্যান্ড জার্মানির বিপক্ষে জয় উদযাপন হাঙ্গেরির ফুটবলারদের। ছবি: এএফপি
নেশনস লিগে ৫ ম্যাচে ৩ জয় এবং একটি করে ড্র ও হার নিয়ে ১০ পয়েন্ট পেয়ে টেবিলের শীর্ষে হাঙ্গেরি। ৮ ও ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে আছে ইতালি ও জার্মানি। কোনো ম্যাচ জিততে না পারা ইংল্যান্ড রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

ইউয়েফা নেশনস লিগের ফাইনালে জায়গা করে নেয়ার পথে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেছে হাঙ্গেরি। দারুণ ফর্মে থাকা দলটি জার্মানির বিপক্ষে জয় পেয়েছে ১-০ গোলের ব্যবধান।

অন্যদিকে নেশনস লিগে রাতের আরেক ম্যাচে ইংল্যান্ডকে একই ব্যবধানে হারিয়েছে ইতালি।

নেশনস লিগে ৫ ম্যাচে ৩ জয় এবং একটি করে ড্র ও হার নিয়ে ১০ পয়েন্ট পেয়ে টেবিলের শীর্ষে হাঙ্গেরি। ৮ ও ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে আছে ইতালি ও জার্মানি। কোনো ম্যাচ জিততে না পারা ইংল্যান্ড রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

লাইপজিগের রেড বুল অ্যারেনায় শুক্রবার রাতে হাঙ্গেরির হয়ে একমাত্র গোলটি করেন এডাম সলোই। বল দখলের লড়াইয়ে জার্মানি এগিয়ে থাকলেও শেষ পর্যন্ত হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় হান্সি ফ্লিকের শিষ্যদের।

ঘরের মাঠে এই হারে শিরোপা লড়াইয়ে যাওয়ার আশা শেষ হয়ে গেছে জার্মানির। প্রতিপক্ষের মাঠে প্রথম লেগে ম্যাচের শুরুতেই গোল খেয়ে বসে জার্মানি। এবারও গোলটি হজম করতে হয়েছে ম্যাচ শুরুর অল্প সময়ের মধ্যেই।

ম্যাচের ১৭তম মিনিটে দারুণ গোলে দলকে এগিয়ে নেন অ্যাডান সালাই। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলকে ঠিকানায় পাঠান তিনি। এতে করে একমাত্র গোলে জয়ে পেয়ে যায় হাঙ্গেরি।

রাতে আরেক ম্যাচে ইতালির কাছে হেরে ইউয়েফা নেশনস লিগের দ্বিতীয় স্তরে নেমে গেছে ইংল্যান্ড।

খেলার প্রথমার্ধে দুই দলই অগোছালো ফুটবল খেলেছে, তবে দ্বিতীয়ার্ধের খেলার ৬৮তম মিনিটের গোলে ইতালিকে এগিয়ে দেন জাকোমো রাসপাদরি। লিওনার্দো বোনুচ্চির উঁচু করে বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দুর্দান্ত শটে গোল পান তিনি।

১-০ গোলে পিছিয়ে পড়লে আর আক্রমণের ধার বাড়লেও গোলের দেখা পায়নি ইংলিশরা।

আরও পড়ুন:
৭০ বছর পর খেলার মাঠে ‘গড সেভ দ্য কিং’

মন্তব্য

p
উপরে