× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

খেলা
PSG won again with Neymars goal
hear-news
player
print-icon

নেইমারের গোলে আবারও জয় পিএসজির

নেইমারের-গোলে-আবারও-জয়-পিএসজির
মেসি-নেইমারের সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ে ব্রেস্তর ফরোয়ার্ড। ছবি: এএফপি
ব্রেস্তর দারুণ রক্ষণে বিরতির আগে ও পরে চেষ্টা করলেও ব্যবধান বাড়াতে পারেননি মেসি-নেইমার-এমবাপেরা, তবে প্রথমার্ধে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়কে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন নেইমার।

লিগ ওয়ানে চলতি মৌসুমের শুরু থেকে টানা জয়ে টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। নিজেদের সপ্তম ম্যাচেও মেসি-নেইমার রসায়নে ব্রেস্তর বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পেয়েছে প্যারিসের ক্লাবটি।

নিজেদের ঘরের মাঠ পার্ক দ্য প্রিন্সেসে শনিবার রাতে ম্যাচের শুরু থেকেই চাপে রাখে ফ্রান্সের আরেক ক্লাব ব্রেস্তকে। ম্যাচের ১৩তম মিনিটেই লিড নেয়ার সুযোগ ছিল মেসি-নেইমারদের। লিওনেল মেসির কাছ থেকে বল পেলেও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ড নেইমার। এর কিছু সময় পর আরও একটি সুযোগ মিস করেন ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপে।

বেশ কয়েকবার সুযোগ পেয়ে কাজে লাগাতে না পারলেও খেলার আধা ঘণ্টার মাথায় লিড নেন ক্রিস্তোফ গলতিয়ের শিষ্যরা। মেসির কাছ থেকে বল পেয়ে এবার বল জালে জড়াতে ভুল করেননি নেইমার। তার গোলে ১-০তে লিড নেয় পিএসজি।

ব্রেস্তর দারুণ রক্ষণে বিরতির আগে ও পরে চেষ্টা করলেও ব্যবধান বাড়াতে পারেননি মেসি-নেইমার-এমবাপেরা, তবে প্রথমার্ধে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়কে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন নেইমার।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫০তম মিনিটে এমবাপের পাসে বক্সে বল পেয়ে হেড নেন মেসি। তার প্রচেষ্টা ব্যর্থ হলে লিড বাড়াতে পারেনি পিএসজি। দ্বিতীয়ার্ধের ৭০ মিনিটে সমতায় ফেরার সুযোগ পায় ব্রেস্ট, কিন্তু ইসলাম সিলিমানির শট রুখে দেন পিএসজির গোলকিপার জিয়ানলুইগি ডোনারুম্মা।

চলতি মৌসুমে সাত ম্যাচ খেলে ছয়টি জয় ও একটি ড্রয়ে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে পিএসজি।

আরও পড়ুন:
ইউভেন্তাসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু পিএসজির
মেসি-নেইমারদের বিপক্ষে খেলা হচ্ছে না ডি মারিয়ার
নেইমারের সঙ্গে সম্পর্ক কখনো উত্তপ্ত, কখনো শীতল: এমবাপে

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
Rupanad is not interested in taking credit

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই মনিকা, আনাই, আনুচিং, রিতুপর্ণা ও সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমাদের গড়ে তোলা কোচসহ অন্যরা। ছবি: সংগৃহীত
মেয়েদের যে দলটি সাফের শিরোপা নিয়ে এসেছে, তার পাঁচজন রাঙ্গামাটির একটি স্কুল থেকে উঠে এসেছে। তাদের তৈরি করার পেছনে তিনজনের ভূমিকা ছিল অনন্য। বছরের পর বছর ধরে তারা ফুটবলার জোগান দেয়ার চেষ্টা করছেন। রূপনাদের সাফল্যের পরও কেউ এতটুকু কৃতিত্ব দাবি করছেন না।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নে ঘাগড়া (বহুমুখী) উচ্চ বিদ্যালয় হঠাৎ করেই ব্যাপক পরিচিতি পেয়ে গেছে।

বাংলাদেশের যে নারী ফুটবল দলটি সাফের শিরোপা নিয়ে এসেছে, সেই দলের পাঁচজন খেলোয়াড় উঠে এসেছেন এই একটি স্কুল থেকে। এরা হলের মনিকা চাকমা, আনাই মগিনী, আনুচিং মগিনী, রিতুপর্ণা চাকমা ও সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমা।

এ বিদ্যালয়ের ফুটবল প্রশিক্ষক শান্তিমনি চাকমা ও মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক বীরসেন চাকমা, আর ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দ্রা দেওয়ানের ভূমিকা অনন্য।

মেয়েরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ান পর ভীষণ গর্বিত এই তিনজন। কিন্তু কৃতিত্ব নিতে একটুকু চেষ্টাও নেই তাদের। বরং একজন বলেন আরেকজনের কথা। সেই সঙ্গে তুলে ধরছেন মেয়েদের পরিশ্রমের বিষয়টি।

পাহাড়ের সেরা এ পাঁচ তারকার এক জায়গায় নিয়ে আসতে প্রধান ভূমিকা রাখেন বীরসেন। বিভিন্ন জায়গা থেকে ফুটবল খেলোয়াড় সংগ্রহ করে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করাই তার শখ। আর সেসব খেলোয়াড়ের প্রশিক্ষণের দায়িত্ব দিতেন ফুটবল প্রশিক্ষক শান্তিমনি চাকমাকে।

আর মেয়েদের আবাসনের জন্য উদ্যোগ নেন চন্দ্রা দেওয়ান। আনসার ভিডিপির কোচ সুইলা মং মারমা ও ধারজ মনি চাকমাও সহযোগিতা করেন তাদের।

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই
স্কুলের মাঠে স্থানীয় কোচের সঙ্গে নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা। ছবি: সংগৃহীত

পাঁচ তারকার মধ্যে আনাই মগিনী, আনুচিং মগিনী, মনিকা চাকমা খাগড়াছড়ি জেলার বাসিন্দা। তাদের মধ্যে সবচে দুর্গম লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা থেকে ঘাগড়ায় চলে আসেন মনিকা।

রিতুপর্ণা চাকমার বাড়ি ঘাগড়া এলাকাতেই। আর রূপনার বাড়ি নানিয়ারচর উপজেলার ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের ভূঁইয়ো আদামে।

রিতুপর্ণা এই স্কুলে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ে বিকেএসপিতে চলে যান। রূপনা এখনও দশম শ্রেণিতে পড়ে। বাকিরা এখান থেকেই এসএসসি পাস করেন।

এই স্কুলে ফুটবলার তৈরির কার্যক্রম জেনে এসেছে নিউজবাংলা।

শান্তিমনি চাকমার নির্দেশনায় প্রতিদিন ভোর ৬টা ও বিকেল ৪টায় স্কুল মাঠে চলে প্রশিক্ষণ। সেখানে মেয়েদের জন্য করা হয়েছে হোস্টেলের ব্যবস্থাও। ফুটবলপ্রেমী মেয়েরা বাড়ি ছেড়ে থাকে এখানে।

রূপনা, মগিনী, মনিকারা স্বপ্ন ছড়িয়ে দিয়েছে অন্যদের মধ্যেও। তারাও লাল-সবুজের পতাকা হাতে নিয়ে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে চায়।

জাতীয় দলে খেলবে এমন আশায় জোর অনুশীলন করে যাচ্ছে নবম শ্রেণির ছাত্রী নবনিতা চাকমা। সে বলে, ‘মনিকা, আনাই, আনু, রিতু, রূপনা দিদিদের মতো বড় খেলোয়াড় হতে চাই। আমাদের সকাল-বিকেল প্রতিদিন ফুটবলে অনুশীলন করাচ্ছেন শান্তিমনি স্যার।’

‘একদিন জাতীয় দলের খেলোয়াড় হব’- আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলে নবম শ্রেণির জুলেখা চাকমাও। সে বলে, ‘বাংলাদেশের মেয়েরা এবার যে বিজয় লাভ করেছে তাতে আমি খুব খুশি।’

হোস্টেলে থেকে এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে মেন্টি চাকমা। পড়াশোনার চাপের মধ্যেও ফুটবলের অনুশীলন থেমে নেই তার।

মেন্টি বলে, ‘ফুটবলকে ভালোবেসে স্কুলের হোস্টেলে থাকি, যাতে একদিন স্বপ্ন পূরণ করতে পারি।’

ঘাগড়া ইউনিয়নের সাবেক সদস্য শান্তিমনি চাকমা বলেন, ‘যদি সরকারিভাবে সহযোগিতা করা হয়, তাহলে ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে আরও অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড় উঠে আসবে।’

এই শান্তিমনি ফুটবল প্রশিক্ষক শান্তিমনি নন। তিনি জানান, মনিকা, আনাই, আনুচিং ও রিতু প্রাথমিকের বঙ্গমাতা টুর্নামেন্ট খেলেছিল। তারা মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়। এরপর তাদের বর্তমান পর্যায়ে উঠে আসার পেছনে কারিগর ছিলেন বীরসেন চাকমা। তিনি ছিলেন ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক।

বীরসেন যতটা করেছেন, তাতে খুশি নন। বরং আরও অনেক কিছু করার ছিল ভেবে আক্ষেপ করেন।

রূপনাদের গড়ে তুলছেন, কৃতিত্ব নিতে আগ্রহ নেই
মনিকা, আনাই, আনুচিং, রিতুপর্ণা ও সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমাদের স্কুল, ঘাগড়া (বহুমুখী) উচ্চ বিদ্যালয়। ছবি: নিউজবাংলা

তিনি বলেন, ‘২০১২ সালে বঙ্গমাতা গোল্ডকাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ঘাগড়ার মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। কিন্তু জেলা পর্যায়ে কোনো ক্লাবই তাদের স্বীকৃতি দেয়নি। শুধু তা-ই নয়, যখন আনু, মনিকা, আনাই, রিতু বঙ্গমাতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল, তখন তাদের প্রতিভা ধরে রাখতে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান, রাঙ্গামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও পৌরসভা মেয়রের কাছে গিয়েছিলাম। নিজের জন্য না, খেলোয়াড়দের জন্য গিয়েছিলাম। কিন্তু কোনো সহযোগিতাই দেয়নি।’

তিনি বলেন, ‘মেয়েরা এতদূর আসার পেছনে শান্তিমনি চাকমা, সুইলা মং মারমা, চন্দ্র বিকাশ দেওয়ানসহ অনেকে ভূমিকা রেখেছিলেন। তাদের এ অর্জনে মনে হচ্ছে যেন চ্যাম্পিয়ন আমি নিজে হয়েছি।’

এবার কথা হলো সেই শান্তিমনি চাকমার সঙ্গে, যিনি তৈরি করেছেন রূপনাদের। তিনি বলেন, ‘মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বীরসেন চাকমার দাদার পরামর্শে ২০১১ সালে বাচ্চাদের নিয়ে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করা এবং চ্যাম্পিয়নশিপ অর্জন করা। পরে সব খেলোয়াড়কে একত্র রাখতে ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি করানো হয়।

‘সেখানে এসে তাদের প্রশিক্ষণ দিই। এভাবে ধাপে ধাপে তারা শিরোপা অর্জন করে। একপর্যায়ে ভালো খেলাতে তারা ফেডারেশনে ডাক পায়। আজ তারা জাতীয় দলের সেরা খেলোয়াড়। এর পেছনে যিনি ভূমিকা রেখেছেন বীরসেন দাদার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

নিজের কৃতিত্ব কি একটুকুও নেবেন না শান্তিমনি? তিনি বলেন, ‘তাদের প্রতিটি খেলা দেখেছি। চমৎকার খেলেছে। আমার পরিশ্রম কিছু মনে করি না। তাদের চ্যাম্পিয়ন দেখে নিজেকে গর্ববোধ মনে করি।

ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে শুধু নারী ফুটবলাররা কেন উঠে এসেছে..?। ছেলেদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেই কি না জানতে চাইলে শান্তিমনি বলেন, ‘এর আগে ছেলেদের প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। কিন্তু ছেলেরা এক দিন এলে তিন দিন আসত না। নিয়মিত অনুশীলন হতো না। নারী ফুটবলাররা মনোযোগ দিয়ে অনুশীলন করার কারণে তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।’

ঘাগাড়া (বহুমুখী) উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দ্রা দেওয়ানও কোনো কৃতিত্ব নিতে চান না। তিনি বলেন, ‘মনিকা, আনাই, আনুচিং, রিতু, তারা সর্বপ্রথম খেলেছিল প্রাথমিকের বঙ্গমাতা টুর্মামেন্টে। তখনই তারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। এসবের সবকিছু করেছিলেন বীরসেন চাকমা। তিনি মনিকাকে লক্ষ্মীছড়ি থেকে এনেছেন। আনাই, আনুকে আনেন খাগড়াছড়ি থেকে। তখন রূপনা ছিল না। বঙ্গমাতার পর তাদের ভর্তি করানো হয়।

‘শুধু তাদের নয়। বিভিন্ন জায়গা থেকে খেলোয়াড় সংগ্রহ করা হয়েছিল। তারা প্রতিদিন শান্তিমনি চাকমার কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নিত। একসময় তারা জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পায়।’

‘স্কুলে যিনি কোচ আছেন শান্তিমনি চাকমা তিনিই তাদের অনুশীলন করান। সকাল-বিকেল অনুশীলনের মাধ্যমে তার হাত ধরেই মনিকা, আনাই, আনু, রিতু ও রূপনাদের উঠে আসার গল্প। তিনিই ছিলেন তাদের কারিগর’- নেপথ্যের তিন কারিগর একজন অন্যজনকে দেন কৃতিত্ব।

আরও পড়ুন:
বেতন বাড়ছে সাবিনা-কৃষ্ণাদের
মনে হয় শেখ হাসিনা ক্যাপ্টেন ছিলেন: মান্না
খেলোয়াড়দের চুরি যাওয়া টাকা দেবে বাফুফে
তালাবদ্ধ অক্ষত লাগেজ দেয়া হয়েছে: বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ
আসলে কী হয়েছিল বাফুফের সংবাদ সম্মেলনে

মন্তব্য

খেলা
Baffa returned the stolen money to the players

সাফ জয়ীদের চুরির ক্ষতিপূরণ দিল বাফুফে

সাফ জয়ীদের চুরির ক্ষতিপূরণ দিল বাফুফে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার পর বাফুফের নারী উইংয়ের প্রধান মাহফুজা আক্তার কিরণের সঙ্গে (বাম থেকে) কৃষ্ণা রানি, সানজিদা ও শামসুন্নাহার। ছবি: বাফুফে
টাকা ও ফোন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও নারী উইংয়ের প্রধান মাহফুজা কিরণের পক্ষ থেকে দেয়া হয়।

সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপজয়ী দলের সদস্যদের টাকা চুরির ক্ষতিপূরণ দিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। শনিবার বিকেলে খেলোয়াড়দের হাতে টাকা ও ফোন বুঝিয়ে দেয়া হয়।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন বাফুফের মিডিয়া ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ নওমী। খেলোয়াড়দের চুরি যাওয়া অর্থের বেশি তাদেরকে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

দুই খেলোয়াড়ের সবমিলিয়ে ১৩০০ ডলার হারিয়েছিল। এর মধ্যে কৃষ্ণার ৯০০ ডলার ও শামসুন্নাহার ও সানজিদার ৪০০ ডলার। সানজিদা তার টাকা দিয়ে ফোন কিনতে চেয়েছিলেন। ফেডারেশন তাদেরকে এর চেয়ে বেশি টাকা দিয়েছে।

নওমী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কৃষ্ণা রানি সরকারকে দেড় লাখ টাকা, শামসুন্নাহার সিনিয়রকে এক লাখ ও সানজিদাকে আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স দেয়া হয়েছে। টাকা চুরি যাওয়ার বিষয়ে এখনও অনুসন্ধান চলমান রয়েছে।’

নওমী আরও জানান, টাকা ও ফোন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও নারী উইংয়ের প্রধান মাহফুজা কিরণের পক্ষ থেকে দেয়া হয়।

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা জয়ের ইতিহাস গড়ে চ্যাম্পিয়নরা দেশে ফিরেন বুধবার দুপুরে। নারী ফুটবল দলের আগমনে বিমানবন্দরে দেশের মানুষ যখন উচ্ছ্বাসে ব্যস্ত, সেই মুহূর্তে নারী ফুটবলাররা পান দুঃখজনক খবর।

বাংলাদেশ নারী দলের দুই ফুটবলার কৃষ্ণা রানী সরকার ও শামসুন্নাহারের লাগেজ থেকে খোয়া যায় অর্থ। আর সানজিদা হারান মোবাইল ফোন।

বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে ফেডারেশন। বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ জানান, বিষয়টি নিয়ে মতিঝিল ও বিমানবন্দর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
সাফজয়ীদের সংবর্ধনা, কোটি টাকা দেবে সেনাবাহিনী
ট্রফি উঁচিয়ে নিজ শহরে সাবিনা
খেলোয়াড়দের বাড়ির ছাদ তৈরির আহ্বান শিরিনের
সাফজয়ী আঁখির বাড়িতে পুলিশ: এসআই-কনস্টেবল প্রত্যাহার
বেতন বাড়ছে সাবিনা-কৃষ্ণাদের

মন্তব্য

খেলা
Hungary top the table with victory over Germany England bottom
নেশনস লিগ

জার্মানিকে হারিয়ে শীর্ষে হাঙ্গেরি, তলানিতে ইংল্যান্ড

জার্মানিকে হারিয়ে শীর্ষে হাঙ্গেরি, তলানিতে ইংল্যান্ড জার্মানির বিপক্ষে জয় উদযাপন হাঙ্গেরির ফুটবলারদের। ছবি: এএফপি
নেশনস লিগে ৫ ম্যাচে ৩ জয় এবং একটি করে ড্র ও হার নিয়ে ১০ পয়েন্ট পেয়ে টেবিলের শীর্ষে হাঙ্গেরি। ৮ ও ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে আছে ইতালি ও জার্মানি। কোনো ম্যাচ জিততে না পারা ইংল্যান্ড রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

ইউয়েফা নেশনস লিগের ফাইনালে জায়গা করে নেয়ার পথে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেছে হাঙ্গেরি। দারুণ ফর্মে থাকা দলটি জার্মানির বিপক্ষে জয় পেয়েছে ১-০ গোলের ব্যবধান।

অন্যদিকে নেশনস লিগে রাতের আরেক ম্যাচে ইংল্যান্ডকে একই ব্যবধানে হারিয়েছে ইতালি।

নেশনস লিগে ৫ ম্যাচে ৩ জয় এবং একটি করে ড্র ও হার নিয়ে ১০ পয়েন্ট পেয়ে টেবিলের শীর্ষে হাঙ্গেরি। ৮ ও ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে আছে ইতালি ও জার্মানি। কোনো ম্যাচ জিততে না পারা ইংল্যান্ড রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

লাইপজিগের রেড বুল অ্যারেনায় শুক্রবার রাতে হাঙ্গেরির হয়ে একমাত্র গোলটি করেন এডাম সলোই। বল দখলের লড়াইয়ে জার্মানি এগিয়ে থাকলেও শেষ পর্যন্ত হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় হান্সি ফ্লিকের শিষ্যদের।

ঘরের মাঠে এই হারে শিরোপা লড়াইয়ে যাওয়ার আশা শেষ হয়ে গেছে জার্মানির। প্রতিপক্ষের মাঠে প্রথম লেগে ম্যাচের শুরুতেই গোল খেয়ে বসে জার্মানি। এবারও গোলটি হজম করতে হয়েছে ম্যাচ শুরুর অল্প সময়ের মধ্যেই।

ম্যাচের ১৭তম মিনিটে দারুণ গোলে দলকে এগিয়ে নেন অ্যাডান সালাই। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলকে ঠিকানায় পাঠান তিনি। এতে করে একমাত্র গোলে জয়ে পেয়ে যায় হাঙ্গেরি।

রাতে আরেক ম্যাচে ইতালির কাছে হেরে ইউয়েফা নেশনস লিগের দ্বিতীয় স্তরে নেমে গেছে ইংল্যান্ড।

খেলার প্রথমার্ধে দুই দলই অগোছালো ফুটবল খেলেছে, তবে দ্বিতীয়ার্ধের খেলার ৬৮তম মিনিটের গোলে ইতালিকে এগিয়ে দেন জাকোমো রাসপাদরি। লিওনার্দো বোনুচ্চির উঁচু করে বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দুর্দান্ত শটে গোল পান তিনি।

১-০ গোলে পিছিয়ে পড়লে আর আক্রমণের ধার বাড়লেও গোলের দেখা পায়নি ইংলিশরা।

আরও পড়ুন:
৭০ বছর পর খেলার মাঠে ‘গড সেভ দ্য কিং’

মন্তব্য

খেলা
Brazils victory over Ghana in a series of victories

প্রীতি ম্যাচে ঘানাকে উড়িয়ে দিল ব্রাজিল

প্রীতি ম্যাচে ঘানাকে উড়িয়ে দিল ব্রাজিল ম্যাচে বল নিয়ন্ত্রণ করছেন ব্রাজিলের ফরোয়ার্ড নেইমার। ছবি: এএফপি
গত বছর কোপা আমেরিকার ফাইনালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে হারের পর থেকে টানা ১৪ ম্যাচে অপরাজিত ব্রাজিল। এর মধ্যে দলটি জয় পেয়েছে ১১টি; ড্র করেছে তিনটি ম্যাচ।

চলতি মৌসুমে পিএসজিতে দারুণ ফর্মে থাকা ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ড নেইমার জাতীয় দলেও ছড়াচ্ছেন আলো।

ফ্রান্সের ল্য আভেতে ঘানার বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে নিজে গোল করতে না পারলেও সতীর্থদের দিয়ে দুটি গোল করিয়েছেন তিনি। তার এ অবদানে বড় ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছে দল।

স্থানীয় সময় শুক্রবার রাতের ওই ম্যাচের শুরু থেকেই প্রতিপক্ষের ওপর চড়াও হয় নেইমারবাহিনী।

ম্যাচের প্রথমার্ধেই ভাগ্য নিশ্চিত হয় ব্রাজিলের। সবগুলো গোল হয় প্রথমার্ধে।

খেলা শুরুর ১০ মিনিটের মধ্যেই লিড নেয় পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। নবম মিনিটে রাফিনিয়ার কর্নারে অনেকটা লাফিয়ে উঠে হেড করে দলকে এগিয়ে নেন পিএসজির ডিফেন্ডার মার্কিনিয়োস।

এর মিনিট পাঁচেক পর দারুণ সুযোগ হারান রাফিনিয়া। ভিনিসিউসের কাছ থেকে বল পেলেও লক্ষ্যে রাখতে পারেননি বার্সেলোনার এ ফরোয়ার্ড।

২৮তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রিচার্লিসন। নেইমারের কাছ থেকে বল পেয়ে ডান পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি। এতে করে ২-০তে এগিয়ে যায় ব্রাজিল।

বিরতির আগে ৪০তম মিনিটে স্কোরলাইন ৩-০ করে ব্রাজিল। বাঁ দিক থেকে নেইমারের ফ্রি-কিকে হেডে গোলটি করেন রিচার্লিসন।

এ গোলের মধ্য দিয়ে ব্রাজিলের হয়ে ৫ ম্যাচে তার গোল হয়েছে ৬টি। জাতীয় দলের জার্সিতে তার মোট গোল ১৬টি।

দ্বিতীয়ার্ধে ঘানার ওপর চাপ সৃষ্টি করলেও গোলের দেখা পায়নি ব্রাজিল। এতে করে ৩-০ গোলের বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিতের শিষ্যরা।

গত বছর কোপা আমেরিকার ফাইনাল ম্যাচে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে হারের পর থেকে এ নিয়ে টানা ১৪ ম্যাচে অপরাজিত ব্রাজিল। এর মধ্যে দলটি জয় পেয়েছে ১১টি; ড্র করেছে তিনটি ম্যাচ।

কাতার বিশকাপের আগে ব্রাজিল শেষ প্রীতি ম্যাচটি খেলবে মঙ্গলবার। প্যারিসে উত্তর আফ্রিকার দেশ তিউনিসিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে লাতিন আমেরিকার দলটি।

আরও পড়ুন:
নেইমারের গোলে আবারও জয় পিএসজির
নেইমারের সঙ্গে সম্পর্ক কখনো উত্তপ্ত, কখনো শীতল: এমবাপে
এমবাপের জোড়া গোলে সহজ জয় পিএসজির

মন্তব্য

খেলা
The army will give crores of rupees to the winners

সাফজয়ীদের সংবর্ধনা, কোটি টাকা দেবে সেনাবাহিনী

সাফজয়ীদের সংবর্ধনা, কোটি টাকা দেবে সেনাবাহিনী নগর শোভাযাত্রার সময় সাফ শিরোপা উঁচিয়ে ধরেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। ছবি: পিয়াস বিশ্বাস/নিউজবাংলা
আইএসপিআরের বার্তায় বলা হয়, ‘সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ-২০২২-এর অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলকে সেনাবাহিনী কর্তৃক আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ সংবর্ধনা এবং এক কোটি টাকা পুরস্কার প্রদান করা হবে।’

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলকে সংবর্ধনার পাশাপাশি এক কোটি টাকা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সেনাবাহিনী।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আইএসপিআরের সহকারী পরিচালক (সেনাবাহিনী ডেস্ক) রাশেদুল আলম খান স্বাক্ষরিত ওই বার্তায় বলা হয়, ‘সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ-২০২২-এর অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলকে সেনাবাহিনী কর্তৃক আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ সংবর্ধনা এবং এক কোটি টাকা পুরস্কার প্রদান করা হবে।’

গত ১৯ সেপ্টেম্বর সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতে বাংলাদেশ। এর মধ্য দিয়ে টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো কাপ যায় ভারতের বাইরে।

এর আগে ২০১৬ সালে ফাইনাল খেলেছিলেন বাংলাদেশের নারীরা। সেবার ভারতের সঙ্গে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয় তাদের।

এবার আর সেটি হতে দেননি সাবিনা, কৃষ্ণারা। কাঠমান্ডুর দশরথ রঙ্গশালা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে দাপুটে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন গোলাম রাব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

সাফজয়ী দলকে ৫০ লাখ টাকা পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। একই পরিমাণ অর্থ পুরস্কারের ঘোষণা দেয় এনভয় ও তমা গ্রুপ।

নেপালজয় শেষে গত ২১ সেপ্টেম্বর দুপুরে দেশে ফেরে বাংলাদেশ দল। এরপর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছাদখোলা বাসে করে তাদের নেয়া হয় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) ভবনে। সেদিন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের শুভেচ্ছায় সিক্ত হন চ্যাম্পিয়নরা।

সাফজয়ীদের সংবর্ধনা, কোটি টাকা দেবে সেনাবাহিনী
বাফুফে ভবনের গেটে সাফ চ্যাম্পিয়নদের বহনকারী বাস। ছবি: নিউজবাংলা

বর্তমানে বাফুফে ভবনে বিশ্রামে আছেন সানজিদা, আঁখিরা। অধিনায়ক সাবিনা খাতুন গেছেন গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরায়। সেখানে ব্যাপক আয়োজন করে তাকে সংবর্ধনা দিয়েছেন স্থানীয়রা।

আরও পড়ুন:
খেলোয়াড়দের চুরি যাওয়া টাকা দেবে বাফুফে
তালাবদ্ধ অক্ষত লাগেজ দেয়া হয়েছে: বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ
আসলে কী হয়েছিল বাফুফের সংবাদ সম্মেলনে
সাফজয়ী আঁখির বাড়িতে পুলিশ
বিমানবন্দরে লাগেজ কেটে সাফজয়ী ৩ ফুটবলারের ডলার চুরি

মন্তব্য

খেলা
Argentina won with Messis double goal

মেসির জোড়া গোলে আর্জেন্টিনার জয়

মেসির জোড়া গোলে আর্জেন্টিনার জয় মেসির সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ে হন্ডুরাসের খেলোয়াড়রা। ছবি: এএফপি
হন্ডুরাসের বিপক্ষে জয়ের মধ্য দিয়ে টানা ৩৪ ম্যাচে অপরাজিত আর্জেন্টিনা। এর আগে ১৯৯১-৯৩ সালে টানা ৩৩ ম্যাচে জয় ছিল দলটির।

বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতিটা ভালো হচ্ছে আর্জেন্টিনার। হন্ডুরাসের বিপক্ষে সহজ জয় পেয়েছে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। লিওনেল মেসির জোড়া গোলে হন্ডুরাসকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে মেসিবাহিনী।

যুক্তরাষ্ট্রের মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় শনিবার ভোরে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে লাউতারো মার্তিনেসের গোলে দল এগিয়ে যাওয়ার পর দুবার জালে বল জড়ান মেসি।

ম্যাচের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দারুণ ছন্দে ছিল আর্জেন্টিনা। একের পর এক আক্রমণে হন্ডুরাসকে কোণঠাসা করে রাখে দলটি।

ম্যাচের ১৬তম মিনিটে লিড নেয় আর্জেন্টিনা। ডি বক্সের ভেতর পাপু গোমেসের কাছ থেকে বল পেয়ে জালে জড়ান মার্তিনেস। এতে করে ১-০তে লিড নেয় দলটি।

বিরতির আগে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি। ডি-বক্সে জিওভানি লো সেলসো ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় আর্জেন্টিনা। নিখুঁত স্পট কিকে স্কোরলাইন ২-০তে পরিণত করেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হলে আবারও আক্রমণের শিকার হয় হন্ডুরাস। ৬৯তম মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল পেয়ে যান মেসি। প্রতিপক্ষের ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন তিনি।

হন্ডুরাসের কেরভিন আরিয়াগা বল হারিয়ে ফেললে ২৫ গজ দূর থেকে স্কুপ শট নেন মেসি। দারুণ শটে প্রতিপক্ষের গোলকিপারের ওপর দিয়ে বল জালে জড়ালে ব্যবধান আরও বাড়ে।

ম্যাচের শেষ দিকে ৮৪তম মিনিটে হ্যাটট্রিকের সুযোগ ছিল মেসির। ডি বক্সের ভেতর থেকে নেয়া শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে গেলে তা আর হয়নি।

হন্ডুরাসের বিপক্ষে জয়ের মধ্য দিয়ে টানা ৩৪ ম্যাচে অপরাজিত আর্জেন্টিনা। এর আগে ১৯৯১-৯৩ সালে টানা ৩৩ ম্যাচে জয় ছিল দলটির।

আর চারটি ম্যাচ জিততে পারলে আর্জেন্টিনার সামনে হাতছানি আছে সর্বকালের সেরা ইতালির রেকর্ড (৩৭ ম্যাচে অপরাজিত) ভেঙে দেয়ার।

আরও পড়ুন:
মেসি জাতীয় দলের হয়ে সব ম্যাচ খেলতে চান: স্কালোনি
মেসির গোলে টেবিলের শীর্ষে পিএসজি
মেসির সঙ্গে কারও তুলনা হয় না

মন্তব্য

খেলা
Sabina lifts the trophy in her hometown

ট্রফি উঁচিয়ে নিজ শহরে সাবিনা

ট্রফি উঁচিয়ে নিজ শহরে সাবিনা
সাবিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের এ বিজয় দেশবাসির প্রতি উৎসর্গ করেছি। বাবা বেঁচে থাকলে তিনি আজ সবচেয়ে বেশি খুশি হতেন। আমার প্রয়াত শিক্ষাগুরু আকবর আলীর কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ।’

সাফ শিরোপাজয়ী নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ট্রফি উঁচিয়ে নিজ জেলা সাতক্ষীরার শহরে ঘুরে বেড়িয়েছেন। বাংলাদেশের জন্য বয়ে আনা অনন্য অর্জনকে তুলে ধরেছেন, কুড়িয়েছেন অভিবাদন।

সাতক্ষীরার সবুজবাগে সাবিনার বাড়ি। শুক্রবার ভোরে তিনি বাড়ি পৌঁছান। বেলা ১১টার দিকে ট্রফি নিয়ে ছাদখোলা গাড়িতে করে শহর প্রদক্ষিণে বের হন।

সাতক্ষীরা সার্কিট হাউস থেকে শুরু করে নিউমার্কেট, সঙ্গীতা মোড় হয়ে টাউন স্পোর্টিং ক্লাব, পুরাতন সাতক্ষীরা, কলেজ মোড় ঘুরে নিউমার্কেট মোড়ে এসে থামে তাকে বহন করা গাড়িটি। পুরো সময়টা জুড়ে রাস্তায় রাস্তায় হাজারও লোক করতালি ও অভিনন্দনে সাবিনাকে বরণ করে নেয়।

সাবিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের এ বিজয় দেশবাসির প্রতি উৎসর্গ করেছি। বাবা বেঁচে থাকলে তিনি আজ সবচেয়ে বেশি খুশি হতেন। আমার প্রয়াত শিক্ষাগুরু আকবর আলীর কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ।’

ট্রফি উঁচিয়ে নিজ শহরে সাবিনা

তিনি বলেন, ‘সাতক্ষীরাসহ দেশবাসির ভালোবাসায় আজ বাংলাদেশ নারী ফুটবল টিম বিজয় উল্লাস প্রকাশ করতে পারছি। এজন্য বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনসহ (বাফুফে) সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাবলিল সহযোগিতা আমাদেরকে উদ্দীপ্ত করেছে। বিশেষ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নিয়ে থাকেন। তিনি আমাদের সব সময় প্রেরণা দিচ্ছেন। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ।

‘আগামীতে আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রেরণা ও দেশবাসির ভালোবাসায় এগিয়ে যাব ইনশাল্লাহ।’

আরও পড়ুন:
তালাবদ্ধ অক্ষত লাগেজ দেয়া হয়েছে: বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ
আসলে কী হয়েছিল বাফুফের সংবাদ সম্মেলনে
সাফজয়ী আঁখির বাড়িতে পুলিশ
বিমানবন্দরে লাগেজ কেটে সাফজয়ী ৩ ফুটবলারের ডলার চুরি
প্রয়োজন অনুযায়ী বাড়ি পাবেন সাফজয়ী নারী ফুটবলাররা

মন্তব্য

p
উপরে