× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট

খেলা
The Warriors won the NBA title four years after losing to the Celtics
hear-news
player
print-icon

সেল্টিকসকে হারিয়ে ৪ বছর পর এনবিএ শিরোপা ওয়ারিয়র্সের

সেল্টিকসকে-হারিয়ে-৪-বছর-পর-এনবিএ-শিরোপা-ওয়ারিয়র্সের
সেল্টিকসের বিপক্ষে ফাইনালে পয়েন্ট স্কোর করছেন স্টেফ কারি। ছবি: এএফপি
বেস্ট অফ সেভেন সিরিজের ফাইনালের ৬ষ্ঠ ম্যাচে ১০৩-৯০ পয়েন্টে বোস্টন সেল্টিকসকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নিয়েছে ওয়ারিয়র্স।

চার বছর পর বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় বাস্কেটবল লিগ এনবিএর শিরোপা জিতেছে গোল্ডেন স্টেট ওয়ারিয়র্স। বেস্ট অফ সেভেন সিরিজের ফাইনালের ৬ষ্ঠ ম্যাচে ১০৩-৯০ পয়েন্টে বোস্টন সেল্টিকসকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নিয়েছে ওয়ারিয়র্স।

সিরিজের প্রথম ম্যাচে জয় পায় ওয়ারিয়র্স। কিন্তু পরের দুই ম্যাচ জিতে দারুণ ভাবে সিরিজে ফেরে সেল্টিকস। তাদের সামনে সম্ভাবনা জাগে ২০০৮ সালের পর শিরোপা জয়ের।

কিন্তু চতুর্থ ম্যাচে স্বরূপে ফেরেন ওয়ারিয়র্সের সেরা তারকা স্টেফ কারি। তার অনবদ্য পারফরম্যান্সে সিরিজে ২-২ সমতা ফেরায় ওয়ারিয়র্স। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাদের।

টানা তিন ম্যাচ জিতে ৪-২ ব্যবধানে সিরিজ নিজেদের করে নেয় ওয়ারিয়র্স। শেষ ম্যাচেও জ্বলে ওঠেন কারি।

তৃতীয় কোয়ার্টার শেষে ম্যাচে ৭৬-৬৬ পয়েন্টে এগিয়ে ছিল ওয়ারিয়র্স। কিন্তু তৃতীয় কোয়ার্টারে ২৭-২২ পয়েন্টে তাদেরকে পেছনে ফেলে সেল্টিকস।

এরপরই ম্যাচ নিজের করে নেন স্টেফ কারি। আবারও প্রমাণ দেন কেন তিনি বিশ্বের অন্যতম সেরা বাস্কেটবল খেলোয়াড়। ফাইনালে ৩৪ পয়েন্ট স্কোর করেন কারি। রিবাউন্ড নেন ৭টি আর অ্যাসিস্ট করেন ৭টি।

ফাইনাল সিরিজের সেরা খেলোয়াড়ও নির্বাচিত হন ওয়ারিয়র্সের এ পয়েন্ট গার্ড। ফাইনালে তার ম্যাচ প্রতি গড় ছিল ৩১.২ পয়েন্ট। ৬টি রিবাউন্ড ও ৫টি অ্যাসিস্ট।

কারির নৈপূণ্যে গত ৮ বছরে ৪টি শিরোপা জিতেছে ওয়ারিয়র্স। গত দুই মৌসুম ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করেছেন কারি। সবশেষে এবারের মৌসুমে চাঙ্গা হয়ে দলকে জেতালেন শিরোপা।

ফাইনালের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পাওয়ার পর কারি সে স্মৃতিগুলোই রোমন্থন করেন। চোট কাটিয়ে আবারও সেরা ছন্দে ফিরতে পারবেন কিনা সেটা নিতে তার মনে ছিল শঙ্কা।

কারি বলেন, ‘গত ৩ বছর, প্লে-অফের শেষ দুই মাস আর সবশেষ ৪৮ ঘণ্টার প্রতিটা মুহূর্ত আমি খুব আবেগী হয়ে পড়েছি। মাঠ ও মাঠের বাইরে খুব কঠিন সময় পার করেছি। সবকিছুকে সঙ্গে নিয়েই স্বপ্নকে বাস্তবতায় পরিণত করার লড়াইয়ে আমরা সবাই নেমেছিলাম। যে কারণে আমার কাছে এ শিরোপাটা ভিন্নরকম।’

আরও পড়ুন:
কারির সামনে এখন শুধু অ্যালেন
যুক্তরাষ্ট্রের বাস্কেটবলের ইতিহাস বদলে দিলেন যে নারী
‘টাইম’ এর বর্ষসেরা লেব্রন জেমস
তৃতীয় ম্যাচ জিতে সিরিজে ফিরল হিট

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
Archer Dia Siddiqui received the BKSP Blue Award

বিকেএসপি ব্লু পেলেন আর্চার দিয়া সিদ্দিকী

বিকেএসপি ব্লু পেলেন আর্চার দিয়া সিদ্দিকী আর্চারি দিয়া সিদ্দিকী। ফাইল ছবি
প্রথম বারের মত ব্লু পাওয়ার পর তিনি বলেন, প্রতি বছর এমন সম্মাননা দিলে শিক্ষার্থীরা আরও বেশি উৎসাহিত হবেন।

গতবছর থেকে ক্রীড়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে সেরা একজনকে ব্লু সম্মাননা দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি)। এ বছর দেশসেরা নারী আরচার দিয়া সিদ্দিকী পেয়েছেন এ বিশেষ সম্মাননা।

বিকেএসপিতে বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘ব্লু’ সহ আরও দুই ক্যাটাগরিতে এ সম্মাননা তুলে দেন বিকেএসপির মহা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম মাজহারুল হক।

সম্মাননা পেয়ে উচ্ছ্বাসিত দিয়া সিদ্দিকী। প্রথম বারের মত ব্লু পাওয়ার পর তিনি বলেন, প্রতি বছর এমন সম্মাননা দিলে শিক্ষার্থীরা আরও বেশি উৎসাহিত হবেন।

বিকেএসপির শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন তাদেরকে এ সম্মাননা দেয়া হয়েছে। দিয়া ২০২১ সালে টোকিও অলম্পিকে অংশগ্রহণের মাধ্যমে দেশের হয়ে বিকেএসপির মর্যাদা বৃদ্ধি পেয়েছে। যে কারনেই তাকে বিশেষ এ সম্মাননা দেয়া হয়।এছাড়াও দিয়া ২০২১ সালে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেশের হয়ে দারুণ পার্ফরম করেন।

দিয়া ছাড়া অন্য ৩ ক্রীড়াবিদকেও ব্লু দেয়া হয়েছে। তারা হলেন-দেশের দ্রুততম মানবী সুমাইয়া দেওয়ান এবং দুই সাঁতারু মো. হোসাইন ও আমিরুল ইসলাম।

আরও পড়ুন:
রোমান-নাসরিনদের নিয়ে জাতীয় আর্চারি শুরু ২৭ মার্চ
আর্চারিতে বাংলাদেশের তিন স্বর্ণ
দিয়া-নাসরিন-নিশায় দ্বিতীয় স্বর্ণ বাংলাদেশের
রোমান-নাসরিন জুটিতে প্রথম স্বর্ণ বাংলাদেশের
আর্চারিতে স্বর্ণ নিশ্চিত বাংলাদেশের

মন্তব্য

খেলা
Serenas departure from the first round of Wimbledon

উইম্বলডনের প্রথম রাউন্ডেই সেরিনার বিদায়

উইম্বলডনের প্রথম রাউন্ডেই সেরিনার বিদায় উইম্বলডনের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে সেরিনা উইলিয়ামস। ছবি: সংগৃহীত
ম্যাচের শুরু থেকেই চিরচেনা ফর্মে ছিলেন ছয়বারের উইম্বলডনজয়ী সেরিনা। প্রথম সেটে তিনি এগিয়ে ছিলেন ৪-২ গেমে। পরে ফরাসি তানের সঙ্গে এমন কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে, তা ভাবেনি কেউ।

এক বছর পর উইম্বলডনে ফেরাটা সুখের হয়নি আমেরিকান তারকা সেরিনা উইলিয়ামসের। ২৩টি গ্র্যান্ড স্ল্যামজয়ী ৪০ বছর বয়সী সেরিনা উইম্বলডনের প্রথম রাউন্ডেই ফ্রান্সের হার্মনি তানের কাছে ধরাশায়ী হয়ে ছিটকে গেছেন টুর্নামেন্ট থেকে।

আমেরিকান এ তারকা গত বছর পরাজিত হয়ে এই সেন্টার কোর্ট থেকেই বিদায় নিয়েছিলেন। মঙ্গলবার সেই সেন্টার কোর্টেই নেমেছিলেন তিনি।

গ্রাস কোর্টের রানিখ্যাত সেরিনা নিজের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচেই হোঁচট খেয়েছেন। অল ইংল্যান্ড ক্লাবের সেন্টার কোর্টে ফরাসি তানের সঙ্গে ৩ ঘণ্টা ১৪ মিনিটের লড়াইয়ে ২-১ সেট ব্যবধানে হেরে উইম্বলডন থেকে বিদায় নেন তিনি।

ম্যাচের শুরু থেকেই চিরচেনা ফর্মে ছিলেন ছয়বারের উইম্বলডন বিজয়ী সেরিনা। প্রথম সেটে তিনি এগিয়ে ছিলেন ৪-২ গেমে। পরে ফরাসি তানের সঙ্গে এমন কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে, তা ভাবেনি কেউ।

তান প্রথম সেটেই দুর্দান্তভাবে ম্যাচে ফিরলে ৭-৫ গেমে সেটটি জিতে নেন তিনি। দ্বিতীয় সেটে নিজের স্বভাবসুলভ টেনিস খেলেন সেরিনা। আবারও পুরোনো আগ্রাসী টেনিস দেখতে পেলেন সেন্টার কোর্টের দর্শকরা।

দ্বিতীয় সেটে একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করে ৬-১ গেমে সেটটি জিতে সমর্থকদের জানান দেন তিনি এখনও ফুরিয়ে যাননি।

তৃতীয় সেটে শুরুতে প্রথমেই সার্ভ ব্রেক করেন সেরিনা। ৩-১ গেমে এগিয়ে থাকা এই আমেরিকান তারকা হঠাৎ নিজের ছন্দ হারান।

টানা তিনটি গেম জিতে ৪-৩ গেমে এগিয়ে যান হার্মনি তান। শেষ পর্যন্ত ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকে। শেষ দিকে সেন্টার কোর্টের সমর্থকদের হতাশ করে ১০-৭ পয়েন্টে ম্যাচ জিতে নেন তান।

আর তাতেই ছয়বারের উইম্বলডনজয়ী তারকা প্রথম রাউন্ড থেকে ছিটকে যান।

এটাই তার শেষ উইম্বলডন কি না ম্যাচ শেষে জানতে চাইলে সেরিনা বলেন, ‘এটি এমন একটি প্রশ্ন যার উত্তর আমি দিতে পারব না। আমি আবার ঘুরে দাঁড়াতে পারব না, এমনটা তো নয়।’

বর্তমানে র‍্যাংকিংয়ে ১২০৪তম স্থানে থাকা সেরিনা খেলতে নেমেছিলেন ওয়াইল্ডকার্ড নিয়ে।

ম্যাচ শেষে র‍্যাংকিংয়ে ১১৫তম স্থানে থাকা তান বলেন, ‘আমার প্রথম উইম্বলডনের জন্য এটা দারুণ। খুবই দারুণ!’

‘আমার জন্য এটা স্বপ্নের মতো। আমি যখন ছোট ছিলাম, তখন সেরিনাকে টিভিতে দেখতাম। তিনি একজন কিংবদন্তি। তার সঙ্গে খেলতে আমি ভয় পাচ্ছিলাম, তবে ম্যাচ জেতার পর সত্যিই খুব খুশি হয়েছি।’

আরও পড়ুন:
উইম্বলডন থেকে বিদায় ফেডেরারের
উইম্বলডন খেলছেন না চ্যাম্পিয়ন হালেপ
উইম্বলডনের জন্য প্রস্তুত ৩০ টন স্ট্রবেরি
চ্যাম্পিয়নদের প্রাইজমানি কমাচ্ছে উইম্বলডন
দর্শকশূন্য হতে পারে ২০২১ উইম্বলডন

মন্তব্য

খেলা
Mushfiqur next to the flood victims in Sylhet

সিলেটের বন্যার্তদের পাশে মুশফিক

সিলেটের বন্যার্তদের পাশে মুশফিক সিলেটের বন্যার্তদের সাহায্য হাত বাড়িয়ে দিলেন মুশফিক। ফাইল ছবি
আশা করা হচ্ছে, অন্তত দেড় হাজার পরিবারের কাছে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা সম্ভব হবে মুশির অনুদানের অর্থ দিয়ে।

সিলেটের বন্যার্তদের সাহায্যার্থে হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন জাতীয় দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটার মুশফিকুর রহিম। নিজের এক মাসের বেতনের পুরোটাই তিনি অনুদান হিসেবে দিয়েছেন বন্যার্তদের সাহায্যার্থে।

জানা গেছে, মুশফিকের এই অনুদান দিয়ে সিলেটের স্থানীয় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ হিসেবে বিতরণ করবে। আশা করা হচ্ছে, অন্তত দেড় হাজার পরিবারের কাছে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা সম্ভব হবে মুশির অনুদানের অর্থ দিয়ে।

বর্তমানে পবিত্র হজ্ব পালনের জন্য ছুটিতে রয়েছেন জাতীয় দলের অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার। কিছুদিনের মধ্যেই হজ্ব পালনের উদ্দেশে দেশ ত্যাগ করবেন ডানহাতি এই ব্যাটার।

এর আগে সিলেটের বন্যা কবলিত অঞ্চলের মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবি। পাঁচ হাজার মানুষকে খাদ্য সরবরাহ করেছিল দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

এ ছাড়া তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারও হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বন্যার্তদের সাহায্যার্থে।

আরও পড়ুন:
বিশ্ব টিকাদান সপ্তাহে মুশফিকের বার্তা
সোবার্স, শচীন, ইমরানের সঙ্গে এক দলে মুশফিক
‘অস্ত্রে’ শাণ দিচ্ছেন মুশফিক
আচরণের জন্য শাস্তি পেলেন মুশফিক
ক্ষমা চেয়ে মুশফিক বললেন, ভবিষ্যতে আর হবে না

মন্তব্য

খেলা
With one match left the series is for Sri Lanka

এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ শ্রীলঙ্কার

এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ শ্রীলঙ্কার
টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রথমেই বিপর্যয়ে পড়ে শ্রীলঙ্কা। তবে চারিথ আশালাঙ্কার সেঞ্চুরিতে ভর করে শেষ পর্যন্ত ২৫৮ রানের সংগ্রহ গড়ে স্বাগতিকরা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ডেভিড ওয়ার্নারের ৯৯ ছাড়া অস্ট্রেলিয়া দলের আর কেউই বড় অংকের স্কোর গড়তে পারেননি।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হ্যাট্রিক জয় তুলে নিয়ে সিরিজ নিজেদের করে নিল শ্রীলঙ্কা। সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে অজিদের ২৫৯ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দিয়ে শেষ ওভারের রোমাঞ্চে ৪ রানে জয় পেল স্বাগতিকরা।

এই জয়ের সুবাদে ৩-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়েছে লঙ্কানরা।

কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টসে জিতে শ্রীলঙ্কাকে ব্যাট করতে পাঠায় অস্ট্রেলিয়া। ব্যাট হাতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ম্যাক্সওয়েলের শিকার হয়ে ১ রানে সাজঘরে ফিরে যান ওপেনার নিরোশান ডিকভেলা।

এরপর স্কোরবোর্ডে ৩৪ রান তুলতেই সাজঘরের পথ ধরেন কুশল মেন্ডিস ও পাথুম নিশাঙ্কা। প্যাট কামিন্স ফেরান মেন্ডিসকে ১৪ রানে আর আর মিচেল মার্শের শিকার হয়ে ১৩ রানে ফেরেন নিশাঙ্কা।

দলের এই ব্যাটিং বিপর্যয়ে ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে সঙ্গে নিয়ে ইনিংস মেরামতের মিশনে নামেন চারিথ আশালাঙ্কা। দুজনে মিলে ১০১ রানের জুটি গড়ে দলকে ফেরান ট্র্যাকে। দলীয় ১৩৫ রানে ধনঞ্জয়া ৬০ রান করে মাঠ ছাড়লেও উইকেট কামড়ে ধরে রানের চাকা সচল রাখেন আশালাঙ্কা।

উইকেটের অপর প্রান্ত থেকে সাড়া না মিললেও ৯৯ বলে ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে শতক তুলে নেয়ার পাশাপাশি তিনি দলকে পার করান ২৫০ রানের কোঠা। দলীয় ২৫৬ রানে আশালাঙ্কা বিদায় নেয়ার পর দলের স্কোর আর বেশিদূর এগুতে পারেনি। ভেঙে পড়ে লঙ্কানদের ব্যাটিং লাইন-আপ।

শেষতক ২৫৮ রানে গুটিয়ে যায় লঙ্কানদের ইনিংস।

অজিদের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন প্যাট কামিন্স, মিচেল মার্শ ও ম্যাথিউ কুনেম্যান। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল নেন একটি উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই অ্যারন ফিঞ্চকে হারায় অজিরা। এরপর একে একে সাজঘরে ফিরতে হয় মিচেল মার্শ (২৬), মার্নাস ল্যাবুশেইন (১৪), অ্যালেক্স ক্যারি (১৯), ট্রাভিস হেডকে (২৭)।

তবে উইকেটের এক প্রান্ত আগলে রেখে ব্যক্তিগত অর্ধশতক তুলে নেন ডেভিড ওয়ার্নার। হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে তিনি ব্যাট ছুটান সেঞ্চুরির পথে। কিন্তু তারকা এই ব্যাটারকে মাঠ ছাড়তে হয় এক রানের হতাশা নিয়ে।

ব্যক্তিগত ৯৯ রানে ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে মারতে গিয়ে পরাস্ত হন ওয়ার্নার। উইকেটের পেছনে থাকা ডিকিভেলার স্টাম্পিংয়ের শিকার হয়ে একবুক হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

এরপরই বলতে গেলে জয়ের আশার প্রদীপ নিভু নিভু হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার। শেষ দিকে প্যাট কামিন্সের ৩৫ ও ম্যাথিউ উ কুনেম্যানের ১৫ রানে ভর করে জয়ের কাছাকাছি গিয়েও শেষরক্ষা হয়নি অস্ট্রেলিয়ার। চার রানের হার সঙ্গী করে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। একইসঙ্গে সিরিজ ঘরে তোলে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা।

আরও পড়ুন:
দ্বিতীয় টেস্টেই খেলতে চান বিজয়
শ্রীলঙ্কায় খাদ্যের অভাব ৫০ লাখ মানুষের: জাতিসংঘ
নিশাঙ্কার সেঞ্চুরিতে লঙ্কানদের টানা দ্বিতীয় জয়
দলের ভেতরের খবর পাচ্ছেন না পাপন
ব্যর্থতায় ভরা টেস্টেও টাইগারদের রেকর্ডের ছড়াছড়ি

মন্তব্য

খেলা
Trans women are banned from world womens swimming competitions

ট্রান্স নারীরা ‘বিশ্ব নারী সাঁতার প্রতিযোগিতা’ থেকে নিষিদ্ধ

ট্রান্স নারীরা ‘বিশ্ব নারী সাঁতার প্রতিযোগিতা’ থেকে নিষিদ্ধ লিয়া টমাস মার্চে এনসিএএ সাঁতার প্রতিযোগিতায় প্রথম ট্রান্স ক্রীড়াবিদ হিসেবে শিরোপা জেতেন। ছবি: এপি
নতুন নীতি সম্পর্কে ফিনার প্রেসিডেন্ট হুসেন আল-মুসাল্লাম বলেন, ‘ক্রীড়াবিদদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অধিকার রক্ষা করতে হবে। আমাদের ইভেন্টগুলোতে, বিশেষ করে ফিনা প্রতিযোগিতায় নারী বিভাগে প্রতিযোগিতামূলক ভারসাম্য রক্ষা করতে হবে।’

আন্তর্জাতিক নারী সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন না ট্রান্সজেন্ডার। এ প্রশ্নে হওয়া ভোটের পর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সাঁতারের বিশ্ব পরিচালন সংস্থা- ফিনা। তারা বলেছে, যেসব নারী পুরুষালি আচরণের যেকোনো শারীরিক অভিজ্ঞতা অনুভব করেছেন, তাদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে।

হাঙ্গেরির বুদাপেস্টে ১৫২টি দেশের ফেডারেশন ভোটে অংশ নেয়। ৭১ শতাংশ ভোট পড়ে ট্রান্সজেন্ডারদের বাদ দেয়ার পক্ষে।

ফিনা বৈজ্ঞানিক প্যানেলের একটি প্রতিবেদন বলছে, ট্রান্স নারীরা ওষুধের মাধ্যমে তাদের টেস্টোস্টেরনের মাত্রা কমানোর পরও সিসজেন্ডার নারী সাঁতারুদের তুলনায় উল্লেখযোগ্য সুবিধা পেয়ে থাকে।

ফিনার নতুন ৩৪ পৃষ্ঠার নীতিতে বলা হয়েছে, পুরুষ থেকে নারীতে রূপান্তর ক্রীড়াবিদরা কেবল তখনই নারী বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবে, যখন তারা এটা প্রমাণ করতে পারবে যে ট্যানার স্টেজ-টুর বাইরে পুরুষ বয়ঃসন্ধির কোনো কিছু অনুভব করেনি।

নতুন নীতি সম্পর্কে ফিনার প্রেসিডেন্ট হুসেন আল-মুসাল্লাম বলেন, ‘ক্রীড়াবিদদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অধিকার রক্ষা করতে হবে। আমাদের ইভেন্টগুলোতে, বিশেষ করে ফিনা প্রতিযোগিতায় নারী বিভাগে প্রতিযোগিতামূলক ভারসাম্য রক্ষা করতে হবে।’

এই জটিলতায় যারা পড়বেন তাদের আশাহত হওয়ার কারণ নেই। ফিনার নতুন নীতিতে বলা হয়েছে, কিছু ইভেন্টে ট্রান্স নারীদের জন্য একটি ‘উন্মুক্ত’ বিভাগ খোলা হবে।

ফিনার সভাপতি মুসাল্লাম বলেন, ‘আমরা সব সময় ক্রীড়াবিদকে স্বাগত জানাই। একটি উন্মুক্ত বিভাগ তৈরির অর্থ হলো, প্রত্যেকেরই অভিজাত স্তরে প্রতিযোগিতা করার সুযোগ রয়েছে। এটি আগে করা হয়নি। তাই ফিনাকে পথ দেখাতে হবে।’

এর আগে ২০২০ সালে বিশ্ব রাগবি প্রতিযোগিতায় এমন সিদ্ধান্ত এসেছিল। তবে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা দিয়ে বাছাই করাকে অনেকেই করেছেন প্রশ্নবিদ্ধ। আরও অনেক প্রতিযোগিতায় এই পদ্ধতির মধ্য দিয়ে যেতে হয় ট্রান্স নারীদের।

যুক্তরাষ্ট্রে লিয়া টমাস এক ট্রান্স নারী সাঁতারু, যিনি কলেজভিত্তিক একটি সাঁতার প্রতিযোগিতায় (পুরুষ বিভাগে) গেল মার্চে শিরোপা জেতেন। বিষয়টি তখন বেশ আলোচিত হয়। অনেকেই দাবি তুলেছিলেন, এ ধরনের সাফল্য অবশ্যই উদযাপন করা উচিত। ফিনার নতুন সিদ্ধান্তে প্যারিস অলিম্পিকে থমাস আর নারী বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না।

সাবেক ব্রিটিশ সাঁতারু শ্যারন ডেভিস অবশ্য এই খবরকে স্বাগত জানিয়েছেন। টুইটে তিনি লেখেন, ‘আমি আপনাকে বলতে পারব না যে আমি আমার খেলাধুলার জন্য কতটা গর্বিত। ফিনা এবং ফিনা প্রেসিডেন্ট বিজ্ঞানের ভিত্তিতে এমন করছেন। সাঁতার সব সময় সবাইকে স্বাগত জানাবে, তবে ন্যায্যতা হলো খেলার ভিত্তি।’

আরেক সাবেক ব্রিটিশ সাঁতারু ক্যারেন পিকারিং বলেন, ‘উপস্থাপনা, আলোচনা এবং ভোটের জন্য ফিনা কংগ্রেসে ছিলাম। যেকোনো ক্রীড়াবিদ যারা এখন প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে না তাদের জন্য সহানুভূতি জানাতে পারি। নারীদের বিভাগে প্রতিযোগিতামূলক ন্যায্যতা অবশ্যই রক্ষা করা উচিত।’

আরও পড়ুন:
পুলিশের উদ্যোগে ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য পার্লার-ফুডকোর্ট
ট্রান্সজেন্ডারদের সুরক্ষায় হচ্ছে আইন
ট্রান্সজেন্ডার মেঘা চাকরির আবেদন করলেন ‘নারী’ হিসেবে
মা-বাবার সম্পত্তি পাবেন ট্রান্সজেন্ডার
করোনায় চিকিৎসা নিতে বৈষম্যের শিকার ট্রান্সজেন্ডাররা

মন্তব্য

খেলা
Serena ready to return with Wimbledon after one year

উইম্বলডন দিয়ে এক বছর পর ফিরতে চান সেরিনা

উইম্বলডন দিয়ে এক বছর পর ফিরতে চান সেরিনা টেনিস কোর্টে আমেরিকান তারকা সেরিনা উইলিয়ামস। ফাইল ছবি
দীর্ঘদিন না খেলার কারণে র‍্যাঙ্কিংয়েও পিছিয়ে পড়েছেন সেরিনা। ১৩ জুন প্রকাশিত র‍্যাঙ্কিংয়ে তিনি আছেন ১,২০৮ তম স্থানে। তাই উইম্বলডন খেলতে ওয়াইল্ড কার্ডের বিকল্প নেই তার।

প্রায় ১ বছর বছর কোর্টের বাইরে আমেরিকান তারকা সেরিনা উইলিয়ামস। চলতি বছর উইম্বলডন দিয়ে আবারও টেনিস কোর্টে ফেরার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্টের মাধ্যমে মঙ্গলবার রাতে এ ইঙ্গিত দেন ২৩টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী এ তারকা। ইনস্টাগ্রামে উইম্বলডনের ছবি পোস্ট করে তিনি লেখেন, ‘দেখা হবে সেখানে।’

৭ বারের উইম্বলডন জয়ী সেরিনা এক বছর আগে উইম্বলডন খেলতে যেয়েই চোট পান। ব্যাথা পেয়ে প্রথম রাউন্ডে টুর্নামেন্ট শেষ হয়ে যায় ৪০ বছর বয়সী এ তারকার।

দীর্ঘদিন না খেলার কারণে র‍্যাঙ্কিংয়েও পিছিয়ে পড়েছেন সেরিনা। ১৩ জুন প্রকাশিত র‍্যাঙ্কিংয়ে তিনি আছেন ১,২০৮ তম স্থানে। তাই উইম্বলডন খেলতে ওয়াইল্ড কার্ডের বিকল্প নেই তার।

সেরিনা সিঙ্গলস নাকি ডাবলসে খেলবেন তা এখনও নিশ্চিত করেননি। ২৭ জুন থেকে শুরু হচ্ছে উইম্বলডন।

আরও পড়ুন:
রাশিয়া ও বেলারুশের খেলোয়াড়দের নিষেধাজ্ঞার বিপক্ষে নাদাল
উইম্বলডনের সিদ্ধান্তের নিন্দা দুই শীর্ষ টেনিস সংস্থার
টাইব্রেকের বাধা টপকে কোয়ার্টার ফাইনালে নাদাল

মন্তব্য

p
উপরে