× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট

খেলা
At the end of the second day Bangladesh and Sri Lanka were tied
hear-news
player
print-icon

দ্বিতীয় দিনশেষে সমানে সমান বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা

দ্বিতীয়-দিনশেষে-সমানে-সমান-বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা
দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে মাঠ ছাড়ছে বাংলাদেশ দল। ছবি: এএফপি
মিরপুরে দ্বিতীয় দিন শেষে ২ উইকেট হারিয়ে লঙ্কানদের সংগ্রহ ১৪৩ রান। দিন শেষে ৭০ রানে অপরাজিত রয়েছেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ কারুনারত্নে। বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ ৩৬৫।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের করা ৩৬৫ রানের ভালো জবাব দিচ্ছে শ্রীলঙ্কা। মিরপুরে দ্বিতীয় দিন শেষে ২ উইকেট হারিয়ে লঙ্কানদের সংগ্রহ ১৪৩ রান। বাংলাদেশ দিনের দ্বিতীয় সেশনে ৩৬৫ রানে অলআউট হয়ে যায়।

মঙ্গলবার দিন শেষে ৭০ রানে অপরাজিত রয়েছেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ কারুনারত্নে। তাকে রানের খাতা না খুলে সঙ্গ দিচ্ছেন নাইট ওয়াচম্যান কাসুন রাজিথা। এখনও স্বাগতিকদের চেয়ে সফরকারীদের পিছিয়ে ২২২ রানে।

ঢাকা টেস্টে নিজেদের ইনিংসের শুরু থেকে আগ্রাসী ভূমিকায় অবতীর্ণ হন দুই লঙ্কান ওপেনার। উইকেটে থিতু হয়ে একের পর এক বাউন্ডারি মেরে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন ওশাদা ফার্নান্দো ও দিমুথ কারুনারত্নে। টাইগারদের সামনে দুটো সুযোগ এসেছিল থিতু হয়ে বসা এই জুটি ভাঙ্গার।

প্রথম সুযোগ আসে তাইজুল ইসলামের হাত ধরে। ইনিংসের ১৫ তম ওভারে ফার্নান্দোকে এলবিডব্লিউ করেন তাইজুল। কিন্তু আম্পায়ার্স কলে আউট হয়েও প্রথমবারের মতো জীবন পান ফার্নান্দো।

দ্বিতীয় সুযোগ হাতছাড়া করেন সাকিব আল হাসান। ইনিংসের ১৮তম ওভারে সাকিব ফার্নান্দোর ক্যাচ নিতে পারলে ৪৩ রানে তাকে ফিরে যেতে হত সাজঘরে।

দুইবার জীবন পেয়ে চা বিরতির আগে ব্যক্তিগত অর্ধশতক হাঁকান ফার্নান্দো।

উইকেটশূন্য অবস্থায় চা-বিরতি থেকে ফেরার পর শুরুতেই ওশাদা ফার্নান্দোকে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। ৫৭ রান করা লঙ্কান ওপেনারকে আউট করে বাংলাদেশকে ব্রেক থ্রু এনে দেন এবাদত হোসেন। ৯৫ রানে তাদের প্রথম উইকেট হারায় সফরকারী দল।

এরপর কুশল মেন্ডিসকে নিয়ে দলের রানের চাকা সচল রাখেন দিমুথ কারুনারত্নে। দেখেশুনে ব্যাট চালিয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন দলকে। তাতে বাধ সাধেন সাকিব আল হাসান।

দিনের শেষ দিকে এসে আরও একটি ব্রেক থ্রু আসে বাঁহাতি এই অলরাউন্ডারের হাত ধরে। এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে কুশল মেন্ডিসকে ১১ রানে সাজঘরের পথ দেখিয়ে দেন সাকিব। আর তাতেই ১৩৯ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটে লঙ্কানদের।

এরপর দিনের বাকিটা সময় নির্বিধ্নেই কাটিয়ে দেন দিমুথ কারুনারত্নে ও কাসুন রাজিথা। দলকে এনে দেন দ্বিতীয় দিন শেষে ১৪৩ রানের পুঁজি।

আরও পড়ুন:
নিষ্প্রাণ মিরপুরে বাংলাদেশকে ব্রেক থ্রু দিলেন এবাদত
৬ ডাক ও ২ সেঞ্চুরির অনন্য রেকর্ড মুশফিকদের
৩৬৫ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
History of England at Edgbaston during the Root Bairstow storm

রুট-বেয়ারস্টো ঝড়ে এজবাস্টনে ইংল্যান্ডের ইতিহাস

রুট-বেয়ারস্টো ঝড়ে এজবাস্টনে ইংল্যান্ডের ইতিহাস সেঞ্চুরির পর জো রুটের সঙ্গে উদযাপন করছেন জনি বেয়ারস্টো। ছবি: টুইটার
জো রুট ও জনি বেয়ারস্টোর ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৭ উইকেটে ভারতকে শেষ টেস্টে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। চতুর্থ উইকেটে ২৬৯ রানের অপরাজিত জুটি গড়ে ইংল্যান্ডকে জয় পাইয়ে দেয়ার পাশাপাশি একগাদা রেকর্ডও ভেঙেছেন দুই ব্যাটার।

ভারতের বিপক্ষে সিরিজের পঞ্চম টেস্টের শেষ দিন নাটকের মঞ্চ প্রস্তুত হয়েই ছিল। পঞ্চম দিন ইতিহাস তৈরিতে দুই অপরাজিত ব্যাটার সময় নেন দেড় ঘণ্টার কিছু বেশি। জো রুট ও জনি বেয়ারস্টোর ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৭ উইকেটে ভারতকে শেষ টেস্টে হারিয়েছে ইংল্যান্ড।

টেস্ট জয় ও সিরিজ ২-২ সমতায় শেষ করতে প্রয়োজনীয় ১১৯ রান তুলে নেয় রুট-বেয়ারস্টো জুটি।

৩৭৮ রানে জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে, পঞ্চম দিন ৩ উইকেটে ২৫৯ রান নিয়ে খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। দুই ব্যাটারের মধ্যে ৭৬ রানে অপরাজিত থাকা রুট আগে সেঞ্চুরির দেখা পান। ক্যারিয়ারের ২৮তম সেঞ্চুরি পূর্ণ করে ১৪২ রানে অপরাজিত থাকেন সাবেক ইংল্যান্ড অধিনায়ক।

অন্যপ্রান্তে আগ্রাসী খেলতে থাকা বেয়ারস্টো ১৩তম সেঞ্চুরির দেখা পান রুটের পর। ১১৪ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি।

চতুর্থ উইকেটে ২৬৯ রানের অপরাজিত জুটি গড়ে ইংল্যান্ডকে জয় পাইয়ে দেয়ার পাশাপাশি একগাদা রেকর্ডও ভেঙেছেন দুই ব্যাটার।

তাদের এ জুটি টেস্ট ইতিহাসে চতুর্থ ইনিংসে চতুর্থ সর্বোচ্চ জুটি। এছাড়া এজবাস্টনে ১২০ বছরের মধ্যে এ প্রথম চতুর্থ ইনিংসে কোনো দল ৩০০ পার হলো। এটিই টেস্ট ক্রিকেটের ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়।

এ ইনিংসে সেঞ্চুরি করে টানা ৪ টেস্টে সেঞ্চুরির দেখা পেলেন বেয়ারস্টো। এ টেস্টে করেছেন জোড়া সেঞ্চুরি। হয়েছেন ম্যাচসেরা।

আর জো রুটের এটি ভারতের বিপক্ষে নবম সেঞ্চুরি। ভারতের বিপক্ষে আর কোনো ব্যাটার এতগুলো শতকের দেখা পাননি।

এ সিরিজ ২-২ এ ড্র হওয়ার ফলে ২০০৭ সালের পর এ প্রথম ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয় থেকে বঞ্চিত হলো ভারত।

এজবাস্টন টেস্টে আগে ব্যাট করে ৪১৬ রান সংগ্রহ করে ভারত। দ্বিতীয় ইনিংসে সফরকারী দলের সংগ্রহ ছিল ২৪৫।

আর ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ২৮৪ রানে অলআউট হয়ে যায়। ফলে, তাদের সামনে চতুর্থ দিন জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৭৮।

আরও পড়ুন:
পান্টের সেঞ্চুরিতে প্রথম দিনে চালকের আসনে ভারত
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেন বিশ্বকাপজয়ী মর্গান
অবসরে যাচ্ছেন মর্গান

মন্তব্য

খেলা
The team will play a series with HP before the West Indies tour

উইন্ডিজ সফরের আগে এইচপির বিপক্ষে এ-দলের সিরিজ

উইন্ডিজ সফরের আগে এইচপির বিপক্ষে এ-দলের সিরিজ বাংলাদেশ-এ দল। ছবি: সংগৃহীত
দেশ ছাড়ার আগে জাতীয় দলের হাই পারফরম্যান্স ইউনিটের বিপক্ষে দুটি ওয়ানডে ও একটি তিন দিনের ম্যাচ খেলবে এ-দল।

জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে উইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ফরম্যাটের সিরিজ খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাচ্ছে বাংলাদেশ-এ দল। দেশ ছাড়ার আগে জাতীয় দলের হাই পারফরম্যান্স ইউনিটের বিপক্ষে দুটি ওয়ানডে ও একটি তিন দিনের ম্যাচ খেলবে তারা।

সবগুলো ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে খুলনায়। সিরিজটি খেলেই উইন্ডিজ যাবে এ-দল।

সূচি অনুযায়ী ১৬ জুলাই খুলনায় অনুশীলন শুরু করবে দুই দল। এরপর ১৯ ও ২১ জুলাই দুটি একদিনের ম্যাচে লড়বে এইচপি ও এ-দল। এরপর ২৪ জুলাই শুরু হবে তিন দিনের ম্যাচটি।

এরপরই ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেবে এ-দল। সেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এ-দলের বিপক্ষে ওয়ানডে, টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। তবে কয়টি ম্যাচ খেলবে সেটি এখনও জানানো হয়নি বোর্ডের পক্ষ থেকে।

জাতীয় দলের পাইপলাইনকে শক্ত করতে নেয়া পদক্ষেপের অংশ হিসেবে বোর্ড ঢেলে সাজিয়েছে হাই পারফরম্যান্স ইউনিট ও বাংলাদেশ টাইগার্স দল। ইতোমধ্যে একটি সিরিজও খেলেছে দুই দল। দুই দলের থেকে সেরা খেলোয়াড়দের নিয়ে গঠন করা হবে বাংলাদেশ-এ দল।

বর্তমানে দুই দলের ক্রিকেটাররা ছুটিতে। ঈদের ছুটি শেষে ঘোষণা করা হবে কারা যাচ্ছেন এ-দলের হয়ে উইন্ডিজ সফরে।

যারা এ-দলে জায়গা থাকছেন না তারা বসে থাকবে না। আগস্টে দুই দলের বাকি ক্রিকেটাররা ব্যস্ত থাকবেন নিজেদের ভেতর সিরিজ খেলতে। সেই সময়টাতে তিন ফরম্যাটের সিরিজ খেলবে দুই দল।

আরও পড়ুন:
আবারও মাস সেরার দৌড়ে মুশফিক
জেলা-বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থাকে বোনাস দেবে বিসিবি
পন্টিংয়ের উপহার সবার জন্যেই অনুপ্রেরণা: মুস্তাফিজ

মন্তব্য

খেলা
Men and women have equal match fees in New Zealand cricket

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটে নারী পুরুষ সমান ম্যাচ ফি

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটে নারী পুরুষ সমান ম্যাচ ফি নিউজিল্যান্ড নারী ক্রিকেট দল। ছবি: আইসিসি
এনজেডসি ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনসহ মোট ছয়টি বড় অ্যাসোসিয়েশনের মধ্যে এই চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। যে চুক্তির আওতায় নারী ক্রিকেটাররা ৫ বছরের জন্য পুরুষদের সমান ম্যাচ ফি পাবেন।

প্রথমবারের মতো নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (এনজেডসি) বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে নারী ও পুরুষ ক্রিকেটারদের জন্য সমান ম্যাচ ফি। নিউজিল্যান্ডের নারী ক্রিকেটাররা এখন থেকে ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ম্যাচে কেইন উইলিয়ামসন–টম লেইথামদের সমান ম্যাচ ফি পাবেন ।

এনজেডসি ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনসহ মোট ছয়টি বড় অ্যাসোসিয়েশনের মধ্যে এই চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। যে চুক্তির আওতায় নারী ক্রিকেটাররা ৫ বছরের জন্য পুরুষদের সমান ম্যাচ ফি পাবেন।

ক্রিকইনফোকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক সোফি ডিভাইন বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক এবং ঘরোয়া নারী খেলোয়াড়দের জন্য পুরুষদের পাশাপাশি একই চুক্তিতে স্বীকৃতি পাওয়া খুবই দারুণ একটি বিষয়। যা তরুন নারী ক্রিকেটারদের উৎসাহিত করবে।’

পুরুষদের সমান প্রতি ওয়ানডেতে ৪ হাজার নিউজিল্যান্ড ডলার পাবেন নারী ক্রিকেটাররা। টি-টোয়েন্টিতে পাবেন ২,৫০০ নিউজিল্যান্ড ডলার। আর ক্রিকেটের সবচেয়ে লঙ্গার ভার্শন টেস্টে পাবেন ১০,২৫০ নিউজিল্যান্ড ডলার।

নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটে ফোর্ড ট্রফিতে ৮০০ এবং সুপার স্ম্যাশে থাকছে ৫৭৫ নিউজিল্যান্ড ডলার করে পান পুরুষ ক্রিকেটররা, যা এখন থেকে নারীরাও পাবেন।

এই নতুন চুক্তিতে সর্বোচ্চ পর্যায়ের নিউজিল্যান্ডের নারী ক্রিকেটাররা এক বছরে ১৬৩,২৪৬ নিউজিল্যান্ড ডলার আয় করতে পারবেন। যা আগে ছিল ৮৩,৪৩২ নিউজিল্যান্ড ডলার।

এছাড়া ১৪তম র‍্যাংকে থাকা ক্রিকেটারের বাৎসরিক ম্যাচ ফি হবে ১৪২,৩৪৬ ডলার (আগে ছিল ৬২,৮৩৩)।

ঘরোয়া ক্রিকেটে সর্বোচ্চ র‍্যাংকের খেলোয়াড় এখন থেকে বছরে ম্যাচ ফি পাবেন সর্বোচ্চ ১৯,১৪৬ নিউজিল্যান্ড ডলার। যা আগে ছিল ৩,৪২৩ ডলার। এছাড়া ষষ্ঠ র‍্যাংকের ক্রিকেটার ১৮,৬৪৬ এবং ১২তম র‍্যাংকের ক্রিকেটার পাবেন ১৮,১৪৬ ডলার।

নতুন এ চুক্তিতে ঘরোয়া ক্রিকেটে বাড়ানো হচ্ছে নারী ক্রিকেটারের সংখ্যা। এনজেডসি এ ক্রিকেটারদের সংখ্যা বাড়িয়ে ৫৪ থেকে বাড়িয়ে ৭২ জন করেছে। আগস্ট মাসে চুক্তি কার্যকর হলে চালু হবে নতুন সিরিজ।

আরও পড়ুন:
ইনজুরিতে ছিটকে গেলেন জেমিসন
করোনা আক্রান্ত উইলিয়ামসন, ছিটকে গেলেন দ্বিতীয় টেস্ট থেকে
টেস্টে ১০ হাজার রান ক্লাবে জো রুট

মন্তব্য

খেলা
Root Bairstow in the ICCs best run of the month

আইসিসির মাস সেরার দৌড়ে রুট-বেয়ারস্টো

আইসিসির মাস সেরার দৌড়ে রুট-বেয়ারস্টো ইংল্যান্ড জাতীয় দলের জার্সিতে জো রুট ও জনি বেয়ারস্টো। ছবি: এএফপি
ক্রিকেটভক্তদের ভোট ও আইসিসির বিশেষজ্ঞ প্যানেলের বিচারে নির্বাচিত হন প্লেয়ার অফ দ্য মান্থ। এর ভেতর ১০ শতাংশ নির্ধারিত হবে দর্শকদের ভোটে আর বাকি ৯০ শতাংশ বিশেষজ্ঞদের বিচারে। আইসিসির ওয়েবসাইটে দেয়া যাবে এই ভোট। সবার জন্য এটি উন্মুক্ত।

জুন মাসের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে জায়গা করে নেয়া ৩ ক্রিকেটারের নাম প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। মাস সেরা ক্রিকেটারের দৌড়ে জায়গা করে নিয়েছেন ইংল্যান্ডের দুইজন ও নিউজিল্যান্ডের এক ক্রিকেটার।

মাস সেরার দৌড়ে ঠাঁই পাওয়া দুই ইংলিশ ক্রিকেটার হলেন ফর্মের তুঙ্গে থাকা জো রুট ও জনি বেয়ারস্টো। তাদের সঙ্গে তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন ব্ল্যাকক্যাপ ব্যাটার ড্যারিল মিচেল।

ক্রিকেটভক্তদের ভোট ও আইসিসির বিশেষজ্ঞ প্যানেলের বিচারে নির্বাচিত হন প্লেয়ার অফ দ্য মান্থ। এর ভেতর ১০ শতাংশ নির্ধারিত হবে দর্শকের ভোটে, বাকি ৯০ শতাংশ বিশেষজ্ঞদের বিচারে। আইসিসির ওয়েবসাইটে গিয়ে দেয়া যাবে এই ভোট। সবার জন্য এটি উন্মুক্ত।

মাসজুড়েই রান ফোয়ারা ছুটেছে বেয়ারস্টোর ব্যাট থেকে। জুনের শুরুতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে দুই সেঞ্চুরি ও এক ফিফটিতে তিনি করেছেন ৩৯৪ রান। জুনে তার ব্যাট থেকে গড়ে এসেছে ৭৮.৮০ রান।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ৯২ বলে ১৩৬ রানের ইনিংস খেলে ইংল্যান্ডকে জয় এনে দেয়ার অন্যতম নায়ক ছিলেন তিনি। এরপর শেষ টেস্টের প্রথম ইনিংসে খেলেছিলেন ১৫৭ বলে ১৬২ রানের ইনিংস আর দ্বিতীয় ইনিংসে অপরাজিত থাকেন ৪৪ বলে ৭১ রান করে।

সেই সুবাদে এই ইংলিশ উইকেটকিপার ব্যাটার জায়গা করে নিয়েছেন জুন মাসের সেরা ক্রিকেটারের তালিকায়।

এদিকে বেয়ারস্টোর সতীর্থ ও ইংল্যান্ড টেস্ট দলের সাবেক অধিনায়ক জো রুট জুন মাসে ছিলেন রেকর্ড গড়ার মিশনে। একই সঙ্গে দুই রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি গত মাসে।

রুটের রেকর্ড গড়ার শুরুটা হয় ১০ হাজারি ক্লাবে প্রবেশের মধ্য দিয়ে। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্বিতীয় ইংলিশ ব্যাটার হিসেবে ১০ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন তারকা এই ব্যাটার। পাশাপাশি সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার আলিস্টার কুকের সঙ্গে যৌথভাবে নাম লেখান সবচেয়ে কম বয়সে (৩১ বছর ১৫৭ দিন) ১০ হাজারি ক্লাবে প্রবেশ করা ক্রিকেটার হিসেবে।

তালিকায় তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে রয়েছেন নিউজিল্যান্ডের মিডলঅর্ডার ব্যাটার ড্যারিল মিচেল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন টেস্টের সিরিজে ১০৭.৬০ গড়ে ৫৩৮ রান করেন তিনি।

আরও পড়ুন:
আইসিসির মাস সেরার দৌড়ে রুট-বেয়ারস্টো
শেষ দিনের রোমাঞ্চের সঙ্গে ইতিহাস গড়ার পথে ইংল্যান্ড
ফিকার প্রথম নারী সভাপতি অজি ক্রিকেটার লিসা

মন্তব্য

খেলা
England on the way to making history with the thrill of the last day

শেষ দিনের রোমাঞ্চের সঙ্গে ইতিহাস গড়ার পথে ইংল্যান্ড

শেষ দিনের রোমাঞ্চের সঙ্গে ইতিহাস গড়ার পথে ইংল্যান্ড ইংল্যান্ডকে জয়ের দিকে এক পা এগিয়ে রেখে দিন শেষে মাঠ ছাড়ছেন রুট ও বেয়ারস্টো। ছবি: এএফপি
ভারতের দেয়া ৩৭৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে চতুর্থ দিন শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৫৯ রানের পুঁজি পেয়েছে স্বাগতিকরা।

টেস্টে কোনো দলের তৃতীয় ইনিংসে করা রানের পাহাড় টপকানো যেন মামুলি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে ইংল্যান্ডের কাছে। যেকোনো লক্ষ্য চতুর্থ ইনিংসে হেসেখেলে পার করে দিচ্ছেন রুট-বেয়ারস্টোরা।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টানা তিন টেস্টে সে নজির দেখিয়েছে ইংলিশরা। সে ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে তারা ভারতের বিপক্ষে সিরিজের পঞ্চম টেস্টেও।

এজবাস্টনে সিরিজের পঞ্চম টেস্টের নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ইতিহাস গড়ার পথে হাঁটছে ইংল্যান্ড। ভারতের দেয়া ৩৭৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে চতুর্থ দিন শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৫৯ রানের পুঁজি পেয়েছে স্বাগতিকরা।

জয়ের জন্য পঞ্চম দিনে বেন স্টোকসদের প্রয়োজন আর মাত্র ১১৯ রান। হাতে রয়েছে আরও ৭টি উইকেট। পঞ্চম দিন ১১৯ রান করে জয় বাগিয়ে নিলে ইংল্যান্ড ভাঙবে ১২০ বছরের রেকর্ড।

এজবাস্টনে এটিই হবে ১২০ বছরের ভেতর ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান। সেই সঙ্গে রয়েছে প্রথম দল হিসেবে এই ভেন্যুতে ৩০০ ছাড়ানো সংগ্রহের রেকর্ডের হাতছানি।

চতুর্থ দিন শেষে ১১২ বলে ৭৬ রান করে অপরাজিত রয়েছে জো রুট। তাকে উইকেটে সঙ্গ দিয়ে দিন শেষ করেন জনি বেয়ারস্টো। তার সংগ্রহ ৮৭ বলে ৭২ রান।

তিন উইকেটে ১২৫ রান নিয়ে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করে দিনের প্রথম সেশনে চার উইকেট হারায় সফরকারীরা।

ইংল্যান্ডের হয়ে দিনের শুরুটা হয় স্টুয়ার্ট ব্রডের হাত ধরে। দিনের ১৩তম ওভারেই অ্যালেক্স লিসের তালুবন্দি করে সাজঘরে ফেরত পাঠান চেতেশ্বর পুজারাকে।

এরপর একে একে মাঠ ছাড়েন শ্রেয়াস আইয়ার, রিশাভ পান্ট, শার্দুল ঠাকুর ও মোহাম্মদ সামি। দ্বিতীয় সেশনে আর বেশি সময় টিকতে পারেনি ভারতের ব্যাটাররা।

৮২ ওভারে ২৪৫ রানে তাদের আটকে দেন ইংলিশ বোলাররা। আর ইংল্যান্ডের সামনে টার্গেট দাঁড়ায় ৩৭৮ রানের।

আরও পড়ুন:
ইংল্যান্ডের লাল বলের দলের দায়িত্বে ম্যাককালাম
ক্রিকেটের ঠাসা সূচি অযৌক্তিক: স্টোকস
টেস্টে ভাগ্য ফিরবে স্টোকসের নেতৃত্বে: ইসিবি
অধিনায়কত্ব ছাড়লেন রুট
চলে গেলেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক ইলিংওয়ার্থ

মন্তব্য

খেলা
Bangladesh is on its way to Guyana to play the third T20

আকাশপথে গায়ানা গেল বাংলাদেশ

আকাশপথে গায়ানা গেল বাংলাদেশ গায়ানার উদ্দেশে বিমানে চাপছে বাংলাদেশ স্কোয়াড। ছবি: বিসিবি
ওয়েস্ট ইন্ডিজে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি খেলতে সোমবার বিকেলে গায়ানা গেছে দিয়েছে বাংলাদেশ দল।

ফেরিতে সমুদ্র পাড়ি নয়, এবার আকাশপথে যাত্রা করেছে মাহমুদউল্লাহ বাহিনী। ওয়েস্ট ইন্ডিজে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি খেলতে সোমবার বিকেলে গায়ানা গেছে দিয়েছে বাংলাদেশ দল।

ডমিনিকায় সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি গেছে বৃষ্টির পেটে। আর দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশকে পেতে হয়েছে পরাজয়ের স্বাদ। এবার তৃতীয় টি-টোয়েন্টির মাধ্যমে জয়ের ধারায় ফিরতে চায় বাংলাদেশ। কঠিন এ মিশনে নামতে ইতিমধ্যে ডমিনিকা ছেড়েছে দলটি।

এর আগে সেইন্ট লুসিয়া থেকে সমুদ্রপথে ডমিনিকা এসেছিল বাংলাদেশ। আর ফেরিযাত্রার সে ঘটনা নানা আলোচনার জন্ম দেয়। বিমানের টিকিট না পেয়ে সমুদ্রপথ পাড়ি দিতে হয়েছিল ফেরিতে। এক দ্বীপ থেকে অন্য দ্বীপে যেতে এর বিকল্প ছিল না। শুরুতে ক্রিকেটাররা ফেরিযাত্রা উপভোগ করেন। তবে বিপত্তি শুরু হয় মাঝসাগরে যাওয়ার পর।

সময় যত গড়াতে থাকে, ফেরিতে থাকা ক্রিকেটাররা অনুভব করতে থাকেন ঢেউ আর ফেরির দুলুনি।

ফেরি ভ্রমণের একপর্যায়ে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, বাঁহাতি পেইসার শরিফুল ইসলাম, উইকেটকিপার নুরুল হাসান সোহান, ম্যানেজার নাফিস ইকবাল এবং সাপোর্ট স্টাফের এক সদস্য অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ওই ক্রিকেটারদের অনেকে যাত্রার আগে ওষুধ খেয়ে নিয়েছিলেন। এরপরও তাদের মধ্য থেকে কয়েকজন বমি করেন। কেউ কেউ অসুস্থ হয়ে শুয়ে পড়েন ফেরির মেঝেতে।

ঘণ্টা দেড়েক ভয়ানক এ অভিজ্ঞতার পর মার্টিনেক নামক দ্বীপে দেয়া হয় যাত্রাবিরতি। সে সময় কয়েকজন ক্রিকেটার অনুরোধ করেন, তাদের যেন ভ্রমণের বাকি পথটুকু বিমানে নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

যাত্রায় বিরতি দিলেও তখন বিমানের টিকিট জোগাড় করা সম্ভব হয়নি। এতে করে বাকি পথ যেতে হয় ফেরিতে করেই। তবে বিরতির পরের যাত্রায় সাগর কিছুটা শান্ত থাকায় ক্রিকেটাররাও স্বস্তি পান। মনের ভয় দূর না হলেও বিকল্প উপায় না থাকায় বিষয়টি মেনে নিতে হয় তাদের।

তবে এবারে আর সমুদ্রযাত্রার সাহস করেননি ক্রিকেটাররা। ডমিনিকা থেকে গায়ানা যেতে সোমবার বিকেলে বিমানে চেপেছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

৭ জুলাই বাংলাদেশ সময় সাড়ে ১১টায় শুরু হবে ম্যাচটি। এরপর ১০ জুলাই থেকে মাঠে গড়াবে ওয়ানডে সিরিজ। সিরিজের তিনটি ওয়ানডেই হবে একই ভেন্যুতে।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটি হবে ১০ জুলাই। এরপর ১৩ ও ১৬ জুলাই মাঠে গড়াবে সিরিজের বাকি দুটি ওয়ানডে।

আরও পড়ুন:
বৃষ্টিতে পেছাল প্রথম টি-টোয়েন্টি
লাইসেন্স নিয়েই ওপেনিংয়ে বিজয়-মুনিম
‘বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে ডমিনিকা’
আরও একটি মাইলফলকের সামনে সাকিব
১০ ম্যাচে ১ জয় নিয়ে দুইবারের বিশ্বসেরাদের সামনে বাংলাদেশ

মন্তব্য

খেলা
Pujara Punts bat gave India a lead of two and a half hundred

পুজারা-পান্টের ব্যাটে লিড আড়াই শ ছাড়াল ভারতের

পুজারা-পান্টের ব্যাটে লিড আড়াই শ ছাড়াল ভারতের হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর দর্শকের অভিবাদনের জবাব দিচ্ছেন চেতেশ্বর পুজারা। ছবি: এএফপি
তৃতীয় দিনের খেলা শেষে ২৫৭ রানে এগিয়ে আছে সফরকারী দল। ভারতের হয়ে ৫০ রান নিয়ে খেলছিলেন চেতেশ্বর পুজারা আর ৩০ রানে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন রিশাভ পান্ট।

এজবাস্টন টেস্টে জয়ের সুবাস পাচ্ছে ভারত। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের পঞ্চম টেস্টে তৃতীয় দিনের খেলা শেষে ২৫৭ রানে এগিয়ে আছে সফরকারী দল।

ভারতের হয়ে ৫০ রান নিয়ে খেলছিলেন চেতেশ্বর পুজারা আর ৩০ রানে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন রিশাভ পান্ট।

৫ উইকেটে ৮৪ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। স্বাগতিকদের হয়ে একাই লড়াই করেন জনি বেয়ারস্টো। ক্যারিয়ারের ১১তম সেঞ্চুরি করে ১০৬ রানে আউট হন এ উইকেটকিপার ব্যাটার।

তার সঙ্গে বেন স্টোকসের ২৫ ও স্যাম বিলিংসের ৩৬ রানে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২৮৪।

ভারতের হয়ে মোহাম্মদ সিরাজ ৪টি আর জাসপ্রিত বুমরাহ ৩টি উইকেট নেন।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে শুভমান গিলকে হারায় ভারত। এরপর হনুমা ভিহারি ও ভিরাট কোহলিও বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি।

ভিহারি ১১ আর কোহলি ২০ রান করে বিদায় নেন। দিনের বাকিটা সময় ব্যাট করেন পান্ট ও পুজারা। ৩ উইকেটে ১২৫ রান নিয়ে দিনের খেলা শেষ করে ভারত।

চতুর্থ দিনে লিড বড় করার লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামবেন এ দুইজন। সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে আছে ভারত।

আরও পড়ুন:
৬ মাসে ভারতের ৬ অধিনায়ক
ভারতের টেস্ট অধিনায়ক হচ্ছেন বুমরাহ

মন্তব্য

p
উপরে