× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য

খেলা
Three women footballers are going to Ronaldos country from Mymensingh
hear-news
player
print-icon

ময়মনসিংহ থেকে রোনালডোর দেশে যাচ্ছেন তিন নারী ফুটবলার

ময়মনসিংহ-থেকে-রোনালডোর-দেশে-যাচ্ছেন-তিন-নারী-ফুটবলার- পর্তুগালে প্রশিক্ষণের সুযোগ পাওয়া সিনহা জাহান শিখা, তানিয়া আক্তার তানিশা ও স্বপ্না আক্তার। ছবি: নিউজবাংলা
১১ জনের সঙ্গে পাঁচজনকে রাখা হয়েছে অতিরিক্ত হিসেবে। ওই ১১ জনের দুজন হচ্ছেন শিখা ও স্বপা। তানিশা আছেন স্ট্যান্ডবাই পাঁচজনের কাতারে। 

ময়মনসিংহ থেকে ক্রিস্টিয়ানো রোনালডোর দেশ পর্তুগালে প্রশিক্ষণের সুযোগ পেয়েছেন নান্দাইলের তিন ফুটবলার সিনহা জাহান শিখা, স্বপ্না আক্তার ও তানিয়া আক্তার তানিশা। উচ্চতর প্রশিক্ষণ নিয়ে জাতীয় দলের জার্সিতে সুনাম কুড়ানোর লক্ষ্য তিনজনেরই।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ক্রীড়া পরিদপ্তরের উদ্যোগে বঙ্গমাতা নারী ফুটবলের সেরা ৪০ খেলোয়াড়কে নিয়ে বিকেএসপিতে দুই মাসের প্রশিক্ষণ ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে ১৬ জনের একটি দলকে বেছে নেয়া হয় উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য।

১১ জনের সঙ্গে পাঁচজনকে রাখা হয়েছে অতিরিক্ত হিসেবে। ওই ১১ জনের দুজন হচ্ছেন শিখা ও স্বপা। তানিশা আছেন স্ট্যান্ডবাই পাঁচজনের কাতারে।

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে ২০১৮ সালে রানার আপ ও পরের বছর চ্যাম্পিয়ন হওয়া নান্দাইলের পাঁচরুখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল দলের সদস্য ছিলেন এ তিন ফুটবলার। বর্তমানে শিখা নান্দাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণিতে পড়ছেন। স্বপ্না ও তানিয়া অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।

উপজেলার রাজাবাড়িয়া গ্রামের টমটমচালক বিপ্লব মিয়ার মেয়ে শিখা মূলত খেলেন লেফট উইংয়ে। একই এলাকার ইলাশপুরের কৃষক ফয়জুদ্দিন ফকিরের মেয়ে স্বপ্না গোলকিপারের দায়িত্ব পালন করেন। আর মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ কুতুবপুর গ্রামের দিনমজুর দুলাল মিয়ার মেয়ে তানিশা মূলত ডিফেন্ডার।

নিজের ফুটবল মাঠের যাত্রার পেছনের গল্পটা নিউজবাংলাকে বলেন এই তিন ফুটবলার।

তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ার সময় শিখার মা মারা যান। বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করার পর সেই পরিবারে জায়গা পাননি তিনি। বাবা ভরণপোষণের খরচ দিলে দেখভালের দায়িত্ব নেন শিখার নানি।

পাঁচরুখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার সময়ই ফুটবল নেশায় জড়ান শিখা। তারপর থেকে শুধু ওপরের দিকে চলা।

সেই পথটা সহজ ছিল না উল্লেখ করে শিখা বলেন, ‘তারপরও খেলেছি। নানির পুত্রসন্তান নেই। আর্থিক অবস্থা তেমন ভালো না থাকায় অতিকষ্টে তিনি আমাদের বড় করেছেন। ডিম বিক্রি করেও টাকা দিয়েছেন আর বাবা যতটুকু পেরেছেন খরচ জুগিয়েছেন।’

কঠিন সময় পেরিয়ে এসে বিশ্বসেরা প্রশিক্ষণ পাওয়ার দ্বারপ্রান্তে শিখা। এমন সুযোগে আনন্দিত তার পুরো পরিবার।

ময়মনসিংহ থেকে রোনালডোর দেশে যাচ্ছেন তিন নারী ফুটবলার
ঘরের উঠানে শিখা ও স্বপ্নার ফুটবল অনুশীলন। ছবি: নিউজবাংলা

শিখা বলেন, ‘এমনও সময় গেছে যখন বাড়িতে তিন বেলা রান্না হয় নাই। ক্ষুধা নিয়ে খেলতে মাঠে গেছি। ধীরে ধীরে নিজেকে তৈরি করেছি। পর্তুগাল যাওয়ার খবরে পরিবারের সবাই আনন্দিত। জাতীয় দলে খেলতে পারলেই আমার স্বপ্ন পূরণ হবে।’

স্বপ্না আক্তারের শুরুর গল্পটাও একই রকম। সাত ভাইবোনের মধ্যে সবার ছোট ক্লাস এইটের ছাত্রী স্বপ্না। ভাইবোনেরা গার্মেন্টসকর্মী। পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ার সময় ফুটবলের সঙ্গে পরিচয় তার।

স্বপ্না বলেন, ‘অনেক মেয়ে ফুটবল খেলছে দেখতাম। আমারও ভালো লাগত। আমিও খেলা শুরু করলাম। সেই থেকে মনে স্বপ্ন জাগে একদিন দেশসেরা ফুটবলার হব।’

অনুশীলনের জন্য ২ কিমি রাস্তা হেঁটে ও অনেকখানি পথ গাড়িতে পাড়ি দিতে হতো স্বপ্নাকে। ঘরে অভাব-অনটনের পাশাপাশি ছিল আশপাশের মানুষের বাঁকা দৃষ্টি। তবে মা-বাবার সমর্থন পাওয়ায় সবকিছু উপেক্ষা করে চালিয়ে গেছেন নিজের খেলা।

স্বপ্না যোগ করেন, ‘অনেক সময় বাবা-মা ধার করেও খরচ জুগিয়েছে। ভালো খেলি বলে প্রতি সপ্তাহে চন্ডীপাশা মাঠে আমার খেলা দেখতে যেতেন বাবা। এ জন্য মনে আরও বেশি সাহস পেয়েছি। জাতীয় পর্যায়ে যেন খেলতে পারি এবং দেশের সুনাম যেন বয়ে আনতে পারি এই লক্ষ্য নিয়ে খেলে যাচ্ছি।’

তানিয়া আক্তার তানিশার শুরুটাও স্কুলে। মায়ের উৎসাহে ফুটবল খেলা শুরু করেন তিনি। বাবা অন্যের জমিতে কাজ করে সংসার চালাতেন। অর্থাভাবে অনেক দিনই গেছে যখন অনুশীলনে যেতে পারেননি।

অনেকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলেও মন্দ কথা বলার লোকের অভাব ছিল না।

তানিশা বলেন, ‘অনেকে বাবা-মাকে বলেছে ফুটবল খেললে মেয়েকে বিয়ে দিতে পারবা না। এসব খেলাধুলা করা ঠিক না। কিন্তু আমার পরিবার তাদের কথায় কান দেয়নি৷ ফলে আমিও নিজের মতো প্র্যাকটিস চালিয়ে গেছি।’

ময়মনসিংহ থেকে রোনালডোর দেশে যাচ্ছেন তিন নারী ফুটবলার
মায়ের সঙ্গে মেডেল হাতে তানিশা। ছবি: নিউজবাংলা

জাতীয় দলের হয়ে খেলে সুনাম অর্জনের পাশাপাশি তানিশার আরেকটি বড় লক্ষ্য মায়ের চিকিৎসা। গলায় টিউমারের রোগী তার মা।

তানিশা বলেন, ‘চিকিৎসক বলেছেন অপারেশন করলে সুস্থ হবে। টাকার অভাবে অপারেশন হচ্ছে না। যদি ভালো কিছু করতে পারি, টাকা ইনকাম করতে পারি, তাহলে অপারেশন করে প্রথমে মাকে সুস্থ করব।’

এই তিন নারী ফুটবলারকে স্থানীয়ভাবে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন মকবুল হোসেন। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, তিন ফুটবলার অভাব-অনটনসহ নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও এ পর্যন্ত আসতে পরেছে। এই তিনজন ছাড়াও নান্দাইলের ১৫ সদস্যের একটি ফুটবল দলকে তিনি প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। বাকিরাও ওই তিনজনকে দেখে উৎসাহ নিয়ে খেলছে।

আরও পড়ুন:
জয়ের স্বস্তি নিয়ে দেশে ফিরতে চায় বাংলাদেশ
সহজ জয়ে সাফ মিশন শুরু করল বাংলাদেশের মেয়েরা
ভারতে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলে করোনার থাবা

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
After 11 years the drunken Milan rejoiced to win the title

১১ বছর পর শিরোপা জয়ের আনন্দে মাতোয়ারা মিলান

১১ বছর পর শিরোপা জয়ের আনন্দে মাতোয়ারা মিলান ১১ বছর পর লিগ শিরোপা জয়ে মিলানের উচ্ছ্বাস। ছবি: টুইটার
সাসুয়োলোকে ৪-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা নিশ্চিত করে স্টেফানো পিওলির দল। ১১ বছর পর শিরোপা উৎসবে মাতে মিলানের লাল অংশ। ইন্টারও জয় পায়। সাম্পদোরিয়াকে ৩-০ গোলে হারালেও দ্বিতীয় সেরা হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের।  

অবশেষে এসি মিলান ফিরেছে ইতালির ফুটবলের শীর্ষস্থানে। আশি ও নব্বই দশকের বিশ্বসেরা ক্লাবটিকে গত এক দশক বেশ ঝক্কি পোহাতে হয়েছে একরকম টিকে থাকতেই। শেষ পর্যন্ত লিগ শিরোপা জিতে তাদের পুনর্জাগরণ সম্পূর্ন করেছে লাল-কালোরা।

সেরি আ শিরোপা নিষ্পত্তি হয় রোববার রাতে। নগর প্রতিদ্বন্দ্বি ইন্টারনাৎসিওনালের চেয়ে দুই পয়েন্ট এগিয়ে সাসুয়োলোর মুখোমুখি হয় মিলান। আর ইন্টারের প্রতিপক্ষ ছিল সাম্পদোরিয়া।

মিলান পা হড়কালেই ইন্টারের সামনে সুযোগ ছিল শিরোপা লুফে নেয়ার। তেমনটা হতে দেয়নি লাল-কালোরা।

সাসুয়োলোকে ৪-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা নিশ্চিত করে স্টেফানো পিওলির দল। ১১ বছর পর শিরোপা উৎসবে মাতে মিলানের লাল অংশ। ইন্টারও জয় পায়। সাম্পদোরিয়াকে ৩-০ গোলে হারালেও দ্বিতীয় সেরা হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের।

মিলানের জয়ে পুরো শহর পরিণত হয় উৎসবের নগরীতে। সারারাত ভক্তরা নেচে গেয়ে ও মিছিল করে আনন্দ প্রকাশ করেছেন। নগর প্রতিদ্বন্দ্বি ও একই শহরের আরেক বড় ক্লাব ইন্টার মিলানকেও খোঁচা দিতে ভোলেননি কেউ কেউ।

ভক্তদের প্রত্যাশা এ জয় দিয়ে পুরনো সেই শ্রেষ্ঠত্বের দিনে ফিরে যেতে পারবে মিলান। সামনের মৌসুম ইউরোপ সেরার টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়নস লিগে ইতালির চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই লড়বে তারা।

পুরো একটা মৌসুম ভক্তদের পাশে পেয়েছে মিলান। অলিভিয়ে জিরু ও স্লাতান ইব্রাহিমোভিচদের মতো অভিজ্ঞ তারকাদের দলে টানার জন্য সমালোচকদের তোপের মুখেও পড়তে হয়েছে কোচ স্পিওলিকে। তবে ৪০ বছরের ইব্রা ও ৩৫ বছরের জিরুকে নিয়েই শিরোপা উপহার দিয়েছে মিলান।

দ্বিতীয় দফায় ২০১৯ সালে মিলানে যোগ দেন স্লাতান। এসেই বলেছিলেন দলকে শিরোপা উপহার দিতে চান। রোববার রাতে শিরোপা জয়ের পর মনে করিয়ে দেন সে কথা।

ইব্রা বলেন, ‘আমি এখানে ফিরে আসার পর বলেছিলাম মিলানকে শীর্ষে নিয়ে যেতে চাই। ও শিরোপা জিততে চাই। এখানের খেলোয়াড়রা সবাই দারুণ। আমরা পরিশ্রম করেছি। দুই বছর আগে আমরা নীরবে কাজ শুরু করেছিলাম।’

২০১১ সালে যখন মিলান শিরোপা জেতে সেবারও স্লাতান ওই দলের অংশ ছিলেন।

আরও পড়ুন:
ইউভেন্তাস ছাড়ছেন দিবালা, বার্সেলোনায় ক্রিস্টেনসেন
ইউভেন্তাসকে হারিয়ে মৌসুমের প্রথম শিরোপা ইন্টারের
এসি মিলানেই শেষ করতে চান ইব্রাহিমোভিচ

মন্তব্য

খেলা
Manchester City won the title at the end of the last days drama

শেষ দিনের নাটকীয়তায় শিরোপা ম্যানচেস্টার সিটির

শেষ দিনের নাটকীয়তায় শিরোপা ম্যানচেস্টার সিটির শিরোপা জয়ী গোলের পর উচ্ছ্বসিত ইলকায় গুন্দোয়ান। ছবি: টুইটার
ইতিহাদ স্টেডিয়ামে সিটি রোববার রাতে অ্যাস্টন ভিলাকে হারিয়েছে ৩-২ গোলে। রাতের আরেক ম্যাচে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সকে ৩-১ গোলে হারিয়েও দ্বিতীয় সেরা হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় লিভারপুলকে।

যে ম্যাচে শিরোপা নিশ্চিত করতে ম্যানচেস্টার সিটির দরকার ছিল ১ পয়েন্ট, সে ম্যাচে ৭৬ মিনিটে পর্যন্ত ২-০ গোলে পিছিয়ে ছিল তারা। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে অবিশ্বাস্যভাবে ১ পয়েন্টের ব্যবধানে লিভারপুলকে পেছনে ফেলে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের টানা দ্বিতীয় শিরোপা ঘরে তুলেছে সিটি।

নিজ মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে তারা রোববার রাতে অ্যাস্টন ভিলাকে হারিয়েছে ৩-২ গোলে। রাতের আরেক ম্যাচে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সকে ৩-১ গোলে হারিয়েও দ্বিতীয় সেরা হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় লিভারপুলকে।

রোববার রাত ৯টায় শুরু হয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শেষ দিনের সবগুলো ম্যাচ। শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি ও লিভারপুলের জন্য শিরোপার সমীকরণ ছিল জয়।

ইতিহাদে ৩৭ মিনিটে ম্যাটি ক্যাশের গোলে লিড নেয় অ্যাস্টন ভিলা। প্রথমার্ধ তো বটেই ফেলিপে কোতিনিয়োর ৬৯ মিনিটের গোলে তারা ৭৬ মিনিট পর্যন্ত ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে ছিল।

সে সময় উলভারহ্যাম্পটনের মাঠে ১-১ গোলে সমতায় থেকে পয়েন্ট টেবিলের এগিয়ে লিভারপুল।

কিন্তু ৭৬ থেকে ৮১ এ ৫ মিনিটের ঝড়ে সবকিছু পালটে দেয় সিটি। পিছিয়ে থাকা সিটির ম্যানেজার পেপ গার্দিওলা আবারও জানান দেন কেন তাকে বলা হয় সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবল কোচ।

খেলার দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নামা ইলকায় গুন্দোয়ান জোড়া গোল করেন চোখের পলকে। সঙ্গে যোগ হয় রদ্রির স্ট্রাইক। ২-০ তে পিছিয়ে থাকা সিটি ৫ মিনিটে স্কোরলাইন বানিয়ে দেয় ৩-২। সেখান থেকে আর পিছু হটেনি তারা। ফলে, উলভারহ্যাম্পটনকে ৩-১ গোলে হারিয়েও দ্বিতীয় সেরা হয়ে থাকতে হয় লিভারপুলকে।

আর ম্যাচ জিতে ৯৩ পয়েন্ট নিয়ে অষ্টমবারের মতো লিগ শিরোপা জিতে নেয় ম্যান সিটি। লিভারপুলের সংগ্রহ ছিল ৯২ পয়েন্ট।

শুধু শিরোপা লড়াই নয় এদিন ছিল লিগে টিকে থাকার লড়াইও। সে লড়াইয়ে ব্রেন্টফোর্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে অবনমন ঠেকিয়েছে লিডস ইউনাইটেড। আর লিডসের জয়ে ওয়াটফোর্ড ও নরউইচ সিটির সঙ্গে রেলিগেটেড হয়েছে বার্নলি।

রাতে নিজ নিজ ম্যাচে আরও জয় পেয়েছে চেলসি, আর্সেনাল ও টটেনহ্যাম হটস্পার। হার দিয়ে শেষ হয়েছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালডোর মৌসুম। ক্রিস্টাল প্যালেসের কাছে শেষ দিন ১-০ গোলে হেরে ৬ষ্ঠ স্থানে থেকে লিগ শেষ করে রোনালডোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

আরও পড়ুন:
ইপিএলের বর্ষসেরা ব্রুইনা-ফোডেন
মৌসুমের সেরা ম্যাচ উপহার দিল ম্যান সিটি-রিয়াল
স্টার্লিংয়ের হ্যাটট্রিকে বড় জয় সিটির

মন্তব্য

খেলা
Todays settlement is the Premier League title

আজ নিষ্পত্তি প্রিমিয়ার লিগ শিরোপার

আজ নিষ্পত্তি প্রিমিয়ার লিগ শিরোপার ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ে লিভারপুলের ফরোয়ার্ড সাদিও মানে। ছবি: এএফপি
ইতিহাদ স্টেডিয়ামে এক পয়েন্ট পেলে পেপ গার্দিওলার দলের ৫ বছরে চতুর্থ লিগ শিরোপা নিশ্চিত হবে। আর ঐতিহাসিক কোয়াড্রাপল শিরোপা জয়ের লক্ষ্য নিয়ে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সকে আতিথ্য দেবে লিভারপুল।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ২০২১-২২ মৌসুমের শেষ দিনে শিরোপা জয়ের মিশনে মাঠে নামছে ম্যানচেস্টার সিটি ও লিভারপুল। অ্যাস্টন ভিলার বিপক্ষে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে এক পয়েন্ট পেলে পেপ গার্দিওলার দলের ৫ বছরে চতুর্থ লিগ শিরোপা নিশ্চিত হবে। আর ঐতিহাসিক কোয়াড্রাপল শিরোপা জয়ের লক্ষ্য নিয়ে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সকে আতিথ্য দেবে লিভারপুল।

লিগের শেষ রাউন্ডের ম্যাচের আগে সিটির পয়েন্ট ৯০ আর লিভারপুলের ৮৯।

ম্যানচেস্টার সিটির ম্যানেজার পেপ গার্দিওলা রোববারের মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এমন দিনে আবেগকে সংযত করা মুশকিল। তবে তার খেলোয়াড়রা চেষ্টা করবেন যতটা সম্ভব মাথা ঠান্ডা রেখে খেলার।

তিনি বলেন, ‘এই ধরনের একটি ম্যাচের আগে নিজের আবেগকে ধরে রাখা অনেকটাই অসম্ভব। খেলোয়াড়রাও মানুষ। কিন্তু বুঝতে হবে এটাই ফুটবল। অনেকেই মনে করছেন সবকিছু শেষ হয়ে গেছে। আসলে বিষয়টি তা নয়।’

লিভারপুলের সামনে লিগ শিরোপা ও অন্যদিকে ইউরোপ সেরা হবার স্বপ্ন। আগামী সপ্তাহে প্যারিসের ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ রিয়াল মাদ্রিদ। এক বছরে চারটি বড় শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে এখন লিভারপুল। ইয়ুর্গেন ক্লপের দল এরই মধ্যে লিগ কাপ ও এফএ কাপ শিরোপা ঘরে তুলেছে।

ক্লপের মতে তার ছেলেরা মৌসুমে প্রত্যাশার চেয়েও ভালো খেলেছে। লিগের শেষ দিনটা তাই তাদের উপভোগ করা উচিত।

এ জার্মান কোচ বলেন, ‘মৌসুমের শুরুতে যদি কেউ বলত যে আমরা ৩টি ফাইনালে পৌঁছাব ও লিগ শিরোপা লড়াইয়ে মাঠে নামব, সেটা হতো একটা অসম্ভব ব্যাপার। কিন্তু ছেলেরা আজ সেটাকে বাস্তবে রূপ দিয়েছে। সমর্থকরা সব সময় পাশে ছিল। তাদের জন্যও এটা একটি গর্বের মুহূর্ত। এখন আমাদের শেষ দুটি ম্যাচ উপভোগ করার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।’

আগামী মৌসুমে সিটি ও লিভারপুলের সাথে চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলা নিশ্চিত হয়েছে চেলসির। চতুর্থ স্থানের জন্য এখনও লড়াইয়ে টিকে রয়েছে টটেনহ্যাম হটস্পার ও আর্সেনাল। অবনমন নিশ্চিত হয়ে যাওয়া নরউইচ সিটির বিপক্ষে এক পয়েন্ট পেলে স্পার্সের চতুর্থ স্থান নিশ্চিত হবে। একই স্থান নিশ্চিত করতে আর্সেনালের জয় পেতে হবে এভারটনের বিপক্ষে।

রোববার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমের শেষ ম্যাচ ডেতে সবগুলো খেলা শুরু হবে রাত ৯টায়।

আরও পড়ুন:
চ্যাম্পিয়নস লিগ সামনে রেখে দল সাজাচ্ছেন গার্দিওলা
নিউকাসলকে বিধ্বস্ত করে শিরোপার কাছে ম্যান সিটি
প্রথমার্ধের সুনামিতে সিটিকে উড়িয়ে ফাইনালে লিভারপুল

মন্তব্য

খেলা
Mbape is the dictator of PSG

পিএসজির একনায়ক হচ্ছেন এমবাপে

পিএসজির একনায়ক হচ্ছেন এমবাপে চুক্তি নবায়নের পর ক্লাব সভাপতি নাসির এল খেলাইফির সঙ্গে কিলিয়ান এমবাপে। ছবি: টুইটার
এমবাপের নতুন চুক্তি নবায়নের পরই পিএসজি বরখাস্ত করে তাদের স্পোর্টিং ডিরেক্টর লিওনার্দোকে। এ সপ্তাহের মধ্যে বরখাস্ত হতে পারেন ম্যানেজার মরিসিও পচেত্তিনো। নতুন ম্যানেজার হিসেবে তিনি চাইছেন জিনেদিন জিদানকে।

গত দুই বছর ধরে ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত দড়ি টানাটানি শেষ হয়েছে শনিবার রাতে। রিয়াল মাদ্রিদকে দুই বছর ধরে ঝুলিয়ে রাখার পর পিএসজির হয়েই নিজের ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করেছেন ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপে।

আনুষ্ঠানিকভাবে আরও দুই বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করেছেন বিশ্ব ফুটবলের সেরা তরুণ তারকা। রিয়াল মাদ্রিদ তার জন্য টাকার থলে নিয়ে অপেক্ষায় ছিল। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, রিয়াল প্রায় ২০ কোটি ইউরো অফার করত এমবাপেকে। শুধু তা-ই নয়, ক্রিস্টিয়ানো রোনালডোর মতো এমবাপেই হতেন মাদ্রিদের পরের এক দশকের আইকন।

সেসব কিছুকে পেছনে ফেলে এমবাপে পিএসজিতে থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। শনিবার রাতে চুক্তি নবায়নের পর তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমি ফ্রান্সে থাকতে পেরে খুশি। প্যারিস আমার নিজের শহর। ফুটবল ম্যাচ ও ট্রফি জয় করতে আমি ভালোবাসি। আশা করি সে কাজটাই আমি আপনাদের জন্য করতে পারব।’

এমবাপেকে দলে রাখতে মোটা অঙ্কের অর্থ খরচ করতে হয়েছে পিএসজিকে। সাইনিং বোনাস হিসেবেই এমবাপে পাচ্ছেন ১৫ কোটি ইউরো। বা প্রায় ১,৪০০ কোটি টাকা। আর এখন থেকে বেতন ভাতা মিলিয়ে বছরে ১০ কোটি ইউরো পারিশ্রমিক পাবেন ২৩ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড, যা তাকে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া ফুটবলারে পরিণত করবে।

এ অঙ্কটা লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো ও নেইমারের চেয়েও বেশি।

তবে এমবাপের শেষ মুহূর্তের এই না বলাকে সহজভাবে মেনে নিতে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদ ম্যানেজমেন্ট। তারা একে দেখছে বিশ্বাসঘাতকতা হিসেবে। রিয়ালের ভক্তদের মতে, এমবাপে রিয়ালের চুক্তির ভয় দেখিয়ে নিজের বেতন বাড়িয়ে নিয়েছেন। লা লিগার সভাপতি হাভিয়ের তেবাস পিএসজির নামে ইউয়েফার কাছে নালিশ জানাবেন বলেছেন।

মেসি ও রোনালডো চলে যাওয়ার পর জনপ্রিয়তা হারানো লা লিগা আশায় ছিল এমবাপের। তেমনটা না হওয়ায় চটেছেন তেবাস। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘গত বছর তারা ৭০ কোটি ইউরো ক্ষতি দেখিয়েছে। তারা খেলোয়াড়দের বেতন দেয় ৬ কোটি ইউরো। আমি জানি না পিএসজি কী করে এটা পারছে। ফুটবলের জন্য এটা অপমানজনক। এল খেলাইফি ফুটবলের জন্য অত্যন্ত বিপজ্জনক ব্যক্তি।’

শুধু ইউয়েফার ফিন্যানশিয়াল ফেয়ার প্লের নিয়ম ভাঙাই নয়, এমবাপের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে। নতুন চুক্তি পাওয়ার জন্যে ক্লাবের সিদ্ধান্তেও হস্তক্ষেপ করছেন তিনি।

এমবাপের নতুন চুক্তি নবায়নের পরই পিএসজি বরখাস্ত করে তাদের স্পোর্টিং ডিরেক্টর লিওনার্দোকে। এ সপ্তাহের মধ্যে বরখাস্ত হতে পারেন ম্যানেজার মরিসিও পচেত্তিনো। নতুন ম্যানেজার হিসেবে এমবাপে চাইছেন জিনেদিন জিদানকে।

সর্বকালের সেরা লিওনেল মেসিকেও খুব একটা পছন্দ করেন না এমবাপে। যে কারণে মেসিকে নয়, বরং নিজেকেই পিএসজির আইকন হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার দাবি জানিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে ক্লাবে নতুন খেলোয়াড় কেনাবেচা নিয়েও মতামত দেবেন এমবাপে।

আরও পড়ুন:
মেসির জন্য নেইমারের কাছে ১০ নম্বর জার্সি চাইলেন দি মারিয়া
এমবাপের ভবিষ্যৎ জানা যাবে রোববার
ক্লাবের মালিকানা দিয়ে মেসিকে নিতে চায় মায়ামি

মন্তব্য

খেলা
The Maria asked Neymar for the number 10 jersey for Messi

মেসির জন্য নেইমারের কাছে ১০ নম্বর জার্সি চাইলেন দি মারিয়া

মেসির জন্য নেইমারের কাছে ১০ নম্বর জার্সি চাইলেন দি মারিয়া ম্যাচ শেষে দর্শকদের অভিবাদনের জবাব দিচ্ছেন আনহেল দি মারিয়া। ছবি: টুইটার
মেসি, দি মারিয়া, লিয়ান্দ্রো পারেদেসসহ সব খেলোয়াড়ের পরিবার হাজির ছিলেন স্টেডিয়ামে। ম্যাচ শেষে বিদায়ী বক্তব্যে দি মারিয়া বলেন, তিনি চান আগামী বছর মেসি যেন ১০ নম্বর জার্সি পরে খেলেন।

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের শিরোপা নিশ্চিত হয়েছিল আগেই। শনিবার রাতে নিশ্চিত হয় ক্লাবের অন্যতম সেরা তারকা কিলিয়ান এমবাপের থেকে যাওয়া। আর মৌসুমে নিজেদের শেষ ম্যাচে পিএসজি মেতসকে হারিয়েছে ৫-০ গোলের বড় ব্যবধানে।

সব মিলিয়ে মৌসুমের সমাপনী দিনটা ছিল প্যারিসিয়ানদের জন্য উৎসবের। এর মধ্য দিয়ে পিএসজি বিদায় জানিয়েছে দলের পুরোনো সৈনিক আনহেল দি মারিয়াকে। এ আর্জেন্টাইন উইঙ্গার আগেই জানিয়েছিলেন এটাই তার শেষ মৌসুম হতে যাচ্ছে।

ম্যাচের শুরুতে সতীর্থরা গার্ড অফ অনার দেন দি মারিয়াকে। আর গ্যালারিতে ভক্তরা ব্যানার টানিয়েছিলেন তাকে ধন্যবাদ দিয়ে।

শেষ ম্যাচেও দারুণ খেলেছেন তিনি। দলের পাঁচ গোলের বন্যার শেষটি আসে তার পা থেকে। ৬৭ মিনিটে দি মারিয়া নাম ওঠান স্কোরশিটে। তবে তার আগে হ্যাটট্রিক করেন এমবাপে ও এক গোল করেন নেইমার। আর অ্যাসিস্ট আসে লিওনেল মেসির পা থেকে।

হ্যাটট্রিক করে মৌসুমে ২৮ গোল করা এমবাপে ফরাসি লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হন। আর এক গোল করে পিএসজির জার্সিতে নেইমার শততম গোল করেন।

সব মিলিয়ে সেরা তারকাদের সেরা পারফরম্যান্স দিয়েই ভক্তদের মৌসুমের সমাপনী উপহার দেয় পিএসজি।

ম্যাচ শেষে ছিল শিরোপা উৎসব। মেসি, দি মারিয়া, লিয়ান্দ্রো পারেদেসসহ সব খেলোয়াড়ের পরিবার হাজির ছিলেন স্টেডিয়ামে। ম্যাচ শেষে বিদায়ী বক্তব্যে দি মারিয়া বলেন, তিনি চান আগামী বছর মেসি যেন ১০ নম্বরে জার্সি পরে খেলেন।

ফরাসি টিভি চ্যানেল কানাল প্লাসকে তিনি বলেন, ‘আমি নেইমারকে বলেছি যে সামনের মৌসুমে আমার ১১ নম্বর জার্সি নিয়ে নিতে। আর ওর ১০ নম্বর মেসিকে দিতে। সে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়। ১০ নম্বর জার্সিটা ওরই প্রাপ্য।’

ম্যাচের শেষে পিএসজি গোলকিপার কেইলর নাভাসও নিশ্চিত করেছেন ক্লাব ছাড়ছেন না তিনি। ইতালিয়ান গোলকিপার জানলুইজি দোন্নারুম্মা আসার পর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল নাভাস ক্লাব ছেড়ে দেবেন। তবে ম্যাচ শেষে সে গুঞ্জন উড়িয়ে দেন তিনি।

আরও পড়ুন:
ক্লাবের মালিকানা দিয়ে মেসিকে নিতে চায় মায়ামি
মেসির জোড়া গোলে পিএসজির বড় জয়
১১০০ কোটি টাকা আয় করে শীর্ষে মেসি

মন্তব্য

খেলা
Bruini Foden of the Year of the Epil

ইপিএলের বর্ষসেরা ব্রুইনা-ফোডেন

ইপিএলের বর্ষসেরা ব্রুইনা-ফোডেন বর্ষসেরার পুরস্কার হাতে ডি ব্রুইনা ও ফিল ফোডেন। ছবি: টুইটার
শনিবার ইপিএলের অফিসিয়াল সাইটে প্রকাশিত তালিকায় এই দুই সেরার নাম প্রকাশ হয়। এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ইপিএল সেরা নির্বাচিত হলেন ব্রুইনা ও ফোডেন।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে (ইপিএল) দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের সুবাদে ২০২১-২২ মৌসুমের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটির মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইনা। পাশাপাশি উদীয়মান খেলোয়াড় হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ব্রুইনার সতীর্থ ফিল ফোডেন।

শনিবার ইপিএলের অফিসিয়াল সাইটে প্রকাশিত তালিকায় এই দুই সেরার নাম প্রকাশ হয়। এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ইপিএল সেরা নির্বাচিত হলেন ব্রুইনা ও ফোডেন।

ইংল্যান্ড-সেরা হওয়ার দৌড়ে ব্রুইনা পেছনে ফেলেন সাতজনকে। তার সঙ্গে দৌড়ে থাকা বাকিরা হলেন- ট্রেন্ট অ্যালেকজ্যান্ডার-আর্নল্ড (লিভারপুল), জোয়াও কানসেলো (ম্যানচেস্টার সিটি), জেরার্ড বোয়েন (ওয়েস্ট হ্যাম), বুকায়ো সাকা (আর্সেনাল), সন হিউং-মিন (টটেনহ্যাম হটস্পার) ও জেমস ওয়ার্ড-প্রোস (সাউদাম্পটন)।

অপরদিকে ফোডেন শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট জয়ের মিশনে টপকেছেন সাতজনকে। বাগিয়ে নিয়েছেন দ্বিতীয়বারের মতো ইপিএলের সেরা উদীয়মান ফুটবলারের খেতাব।

চলতি মৌসুমটা দুর্দান্ত কাটাচ্ছেন ডি ব্রুইনা। এখন পর্যন্ত চলতি লিগে ১৫ গোল করেছেন ৩০ বছর বয়সী এই ফুটবলার। বেলজিয়ান এই তারকার অ্যাসিস্ট রয়েছে ৭টি।

এদিকে চলতি আসরে দলকে লিগ শিরোপা লড়াইয়ে টিকিয়ে রাখতে চোখে পড়ার মতো অবদান রেখেছেন ফোডেন। লিগে এখন পর্যন্ত ২৭ ম্যাচে ৯ গোলের পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে ৫টি গোল করিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন:
মৌসুমের সেরা ম্যাচ উপহার দিল ম্যান সিটি-রিয়াল
স্টার্লিংয়ের হ্যাটট্রিকে বড় জয় সিটির
বিশ্বকাপজয়ী মেন্ডির বিরুদ্ধে ধর্ষণের আরেক অভিযোগ

মন্তব্য

খেলা
MBAP is staying in PSG

পিএসজিতেই থাকছেন এমবাপে

পিএসজিতেই থাকছেন এমবাপে কিলিয়ান এমবাপে। ছবি: সংগৃহীত
নতুন চুক্তি অনুযায়ী ২০২৭ সাল পর্যন্ত পিএসজিতেই থেকে যাচ্ছেন ফরাসি এই তারকা ফরোয়ার্ড।

অবসান ঘটল সব জল্পনা-কল্পনার। রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়ার গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়েই (পিএসজি) থাকার সিদ্ধান্ত নিলেন ফরাসি তারকা ফুটবলার কিলিয়ান এমবাপে। এমনটাই নিশ্চিত করেছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কা।

মার্কা তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, এমবাপে রিয়ালের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন। একইসঙ্গে পিএসজির সঙ্গে নতুন চুক্তিতেও আবদ্ধ হয়েছেন তিনি। নতুন চুক্তি অনুযায়ী ২০২৭ সাল পর্যন্ত পিএসজিতেই থেকে যাচ্ছেন ফরাসি এই তারকা ফরোয়ার্ড।

প্রতিবেদনে আরও জানা যায়, এমবাপেকে রেখে দিতে বেশ কিছু লোভনীয় প্রস্তাব দিয়েছে পিএসজি। এমনকি ক্লাবের স্পোর্টিং ডিরেক্টর ও পরবর্তী কোচ নির্বাচনের ক্ষেত্রেও ফরাসি এই তারকার মতামত প্রাধান্য পাবে বলে প্রকাশ করা হয়েছে সংবাদমাধ্যমটিতে।

এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো রিয়ালের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিলেন এমবাপে। এর আগে ২০১৭ সালে আরও একবার রিয়ালকে খালি হাতেই ফিরতে হয়েছিল এমবাপের দরবার থেকে।

আগামী জুনে পিএসজির সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার কথা এমবাপের। সেই মোতাবেক বেশকিছুদিন ধরেই বেশ জল্পনা-কল্পনা চলছিল- এই তারকা ফুটবলার নতুন ঠিকানা বেছে নিয়ে স্পেনে উড়াল দেবেন নাকি থেকে যাবেন পুরনো নিবাস প্যারিসেই।

আরও পড়ুন:
পিএসজিতেই থাকছেন এমবাপে
এমবাপেকে নিয়ে রিয়াল সভাপতির ইঙ্গিত
মেসি রেকর্ড ভাঙলে দুঃখ থাকবে না আলভেসের
দুর্দান্ত গোলের পর শিরোপার স্বাদ নিলেন মেসি
শিরোপার কাছে গিয়েও সন্তুষ্ট নন পচেত্তিনো

মন্তব্য

p
উপরে