× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

খেলা
The team did not hold Shakib Mustafiz Rashid
google_news print-icon

সাকিব, মুস্তাফিজ, রাশিদদের ধরে রাখল না দল

সাকিব-মুস্তাফিজ-রাশিদদের-ধরে-রাখল-না-দল
বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে সাকিব ও মুস্তাফিজ। ছবি: এএফপি
আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী আগের মৌসুমের চারজন খেলোয়াড়কে ধরে রাখতে পারবে কোনো দল। যার কারণে দল ছাড়া হয়েছে সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান ও রাশিদ খানের মতো সেরা তারকারা।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) নতুন মৌসুমের আগে রিটেইনার তালিকা প্রকাশ করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। তালিকায় আটটি বর্তমান দল জানিয়েছে তারা কোনো কোনো পুরোনো খেলোয়াড়কে ধরে রাখতে চায়।

আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী আগের মৌসুমের চারজন খেলোয়াড়কে ধরে রাখতে পারবে কোনো দল। যার কারণে দল ছাড়া হয়েছে সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান ও রাশিদ খানের মতো সেরা তারকারা।

গত মৌসুমে কলকাতা নাইট রাইডার্সে (কেকেআর) খেলেন সাকিব। মুস্তাফিজ খেলেন রাজস্থান রয়্যালসে। আর রাশিদ খান খেলেছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদে।

একই সঙ্গে কেএল রাহুল ও হার্দিক পান্ডিয়ার মতো তারকারাও দল ছাড়া হয়েছেন। যারা রিটেইনার তালিকায় নেই তাদের আবার নিলামের মাধ্যমে দলগুলো স্কোয়াকে অন্তর্ভুক্ত করতে পারে।

যাদের রেখে দিয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো:

কেকেআর- আন্ড্রে রাসেল, ভারুন চক্রবর্তি, ভেঙ্কটেশ আইয়ার, সুনিল নারিন

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স- রোহিত শর্মা, জাসপ্রিত বুমরাহ, সুরিয়াকুমার ইয়াদভ, কাইরন পোলার্ড

চেন্নাই সুপার কিংস- রভিন্দ্র জাডেজা, এমএস ধোনি, রুতুরাজ গায়েকোয়াড়, মইন আলি

দিল্লি ক্যাপিটালস- রিশাভ পান্ট, আক্সার পাটেল, পৃথভি শ, আনরিখ নরটিয়া

রাজস্থান রয়্যালস- সাঞ্জু স্যামসন, জস বাটলার, ইয়াসশভি জেইসওয়াল

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর- ভিরাট কোহলি, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মোহাম্মদ সিরাজ

সানরাইজার্স হায়দরবাদ- কেইন উইলিয়ামসন, আবদুল সামাদ, উমরান মালিক

পাঞ্জাব কিংস- মায়াংক আগারওয়াল, আর্শদিপ সিং

আরও পড়ুন:
আইপিএল শেষে জাতীয় দলে ফিরবেন সাকিব
কেকেআরকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়লেন সাকিব
ফিরেই দারুণ সাকিব

মন্তব্য

আরও পড়ুন

খেলা
India won the toss and batted

টস জিতে ব্যাটিংয়ে ভারত

টস জিতে ব্যাটিংয়ে ভারত
আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে রোহিত শর্মা বলেন, ‘উইকেটে ঘাস রয়েছে। ফলে সময়ের সঙ্গে তা স্লো হয়ে যাবে। তাই আগে ব্যাটিং করতে চাই।’

অপরাজিত থেকে গ্রুপ পর্ব শেষ করার পর এবার সেমিফাইনালের মিশনে মাঠে নেমেছে ভারত। প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টস জিতেছেন রোহিত শর্মা।

বৃহস্পতিবার বার্বাডোজের কিংস্টন ওভালে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। ফলে শুরুতে ফিল্ডিংয়ে নেমেছে আফগানরা।

আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে রোহিত শর্মা বলেন, ‘উইকেটে ঘাস রয়েছে। ফলে সময়ের সঙ্গে তা স্লো হয়ে যাবে। তাই আগে ব্যাটিং করতে চাই।’

আফগানদের বিপক্ষে পেসার মোহাম্মদ সিরাজকে বিশ্রাম দিয়ে একজন অতিরিক্ত স্পিনার নিয়েছে ভারত। তার পরিবর্তে কুলদীপ যাদব মাঠে নামছেন বলে জানিয়েছেন রোহিত।

অন্যদিকে, টস জিতলে আগে ব্যাটিং নিতেন আফগান অধিনায়ক রশিদ খানও।

তিনি বলেন, ‘যাইহোক, এখন আমাদের কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। (সুপার এইটে) দারুণ সব প্রতিপক্ষের মোকাবিলা করতে হবে আমাদের। আজকের ম্যাচে আবেগ ধরে রাখাটাই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আবেগ নিয়ন্ত্রণ করে নিজেদের খেলাটা খেলতে পারলে ভালো কিছু হবে আশা করছি।’

একাদশে এক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামছে আফগানিস্তানও। বোলিং অলরাউন্ডার করিম জানাতের পরিবর্তে ব্যাটার হজরতউল্লাহ জাজাইকে দলে ডাকা হয়েছে।

ভারত একাদশ: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), বিরাট কোহলি, ঋষভ পান্ত (উইকেটরক্ষক), সূর্যকুমার যাদব, শিবম দুবে, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, অক্ষর প্যাটেল, কুলদীপ যাদব, আর্শদীপ সিং ও জাসপ্রিত বুমরাহ।

আফগান একাদশ: রশিদ খান (অধিনায়ক), রহমানউল্লাহ গুরবাজ (উইকেটরক্ষক), ইব্রাহিম জাদরান, হজরতউল্লাহ জাজাই, গুলবাদিন নায়েব, নাজিবউল্লাহ জাদরান, আজমাতউল্লাহ ওমরজাই, মোহাম্মদ নবী, নূর আহমদ, নবীন-উল-হক ও ফজলহক ফারুকি।

আরও পড়ুন:
জয় দিয়ে সুপার এইট শুরু দক্ষিণ আফ্রিকার

মন্তব্য

খেলা
South Africa started the Super Eight with a win

জয় দিয়ে সুপার এইট শুরু দক্ষিণ আফ্রিকার

জয় দিয়ে সুপার এইট শুরু দক্ষিণ আফ্রিকার ছবি: ক্রিকইনফো
দক্ষিণ আফ্রিকার দেয়া ১৯৫ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১৮ রানে হেরেছে যুক্তরাষ্ট্র।

১৯৫ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে প্রোটিয়া বোলারদের সামনে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাটাররা দাঁড়াতে পারবেন কি না, তা নিয়েই ছিল সংশয়। শুরুতে থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারালেও মাঝে ৯১ রানের ঝড়ো জুটি গড়ে জয়ের ইঙ্গি দেয় স্বাগতিকরা। তবে একেবারে শেষ মুহূর্তে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন কাগিসো রাবাদা। ফলে তীরে গিয়ে তরী ডুবল যুক্তরাষ্ট্রের।

দক্ষিণ আফ্রিকার দেয়া ১৯৫ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১৮ রানে হেরেছে যুক্তরাষ্ট্র।

৬ উইকেটে ১৭৬ রান সংগ্রহ করতে গিয়ে ওপেনার অ্যান্ড্রিস গাউস করেন অপরাজিত ৮০ রান। ৪৭ বলে তার এই ইনিংসটি ছিল পাঁচটি করে ছক্কা ও চারের মারে সাজানো। এছাড়া সপ্তম ব্যাটার হারমিত সিং করেন ২২ বলে ৩৮ রান।

নির্ধারিত চার ওভারে মাত্র ১৮ রানে তিন উইকেট নিয়ে দলের জয়ে বড় ভূমিকা রাখেন রাবাদা। তবে ব্যাট হাতে দলকে বড় সংগ্রহ এনে দেয়া এবং উইকেটের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করায় ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন কুইন্টন ডি কক।

এই জয়ে সুপার এইটে নিজেদের তিন ম্যাচের প্রথমটি জিতে সেমিফাইনালের দিকে এক ধাপ এগিয়ে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা।

আরও পড়ুন:
ডি ককের ব্যাটে যুক্তরাষ্ট্রকে ১৯৫ রানের লক্ষ্য দিল প্রোটিয়ারা
আচরণবিধি ভঙ্গ, শাস্তির মুখে তানজিম

মন্তব্য

খেলা
Proteas set USA a target of 195 runs with the bat of de Kock

ডি ককের ব্যাটে যুক্তরাষ্ট্রকে ১৯৫ রানের লক্ষ্য দিল প্রোটিয়ারা

ডি ককের ব্যাটে যুক্তরাষ্ট্রকে ১৯৫ রানের লক্ষ্য দিল প্রোটিয়ারা দলীয় বড় স্কোর গড়তে ব্যাট হাতে প্রথাম ভূমিকা রাখেন ডি কক। ছবি: ক্রিকইনফো
এদিন ব্যাট হাতে উজ্জ্বল ছিলেন প্রোটিয়া উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি কক। তার ব্যাট থেকেই দলীয় সর্বোচ্চ ৭৪ রান আসে। ৪০ বল মোকাবিলায় ৫টি ছক্কা ও ৭টি চারের সাহায্যে এই রান করেন তিনি।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইট খেলতে নেমেই স্বরূপে ফিরেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথমে ব্যাটিং করে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রকে ১৯৫ রানের লক্ষ্য দিয়েছে প্রোটিয়ারা।

বুধবার অ্যান্টিগার স্যার ভিভিয়ান রিচার্ড স্টেডিয়ামে টস জিতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে আগে ব্যাট করতে পাঠান যুক্তরাষ্ট্রের অধিনায়ক অ্যারন জোনস। শুরুতে ব্যাটিং করে চার উইকেট হারিয়ে ১৯৪ রান সংগ্রহ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

এদিন ব্যাট হাতে উজ্জ্বল ছিলেন প্রোটিয়া উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি কক। তার ব্যাট থেকেই দলীয় সর্বোচ্চ ৭৪ রান আসে। ৪০ বল মোকাবিলায় ৫টি ছক্কা ও ৭টি চারের সাহায্যে এই রান করেন তিনি। এছাড়া আইডেন মার্করাম ৩২ বলে ৪৬, হাইনরিখ ক্লাসেন ২২ বলে অপরাজিত ৩৬ এবং ট্রিস্টান স্টাবস ১৬ বলে অপরাজিত ২০ রান করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সৌরভ নেত্রভালকার ও হারমিত সিং দুটি করে উইকেট নেন। বড় স্কোরের দিনও এই দুই বোলার ছিলেন যথেষ্ঠ ইকোনোমিক। সৌরভ চার ওভারে ২১ ও হারমিত ২৪ রান দিয়েছেন।

আরও পড়ুন:
আচরণবিধি ভঙ্গ, শাস্তির মুখে তানজিম
লাখ লাখ অভিবাসী স্বামী-স্ত্রীকে বৈধতা দিতে বাইডেনের আদেশ
আফগানিস্তানকে গুঁড়িয়ে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, একাধিক রেকর্ড
সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ও ভেন্যু
নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ

মন্তব্য

খেলা
Tanzim faces punishment for breaking the code of conduct

আচরণবিধি ভঙ্গ, শাস্তির মুখে তানজিম

আচরণবিধি ভঙ্গ, শাস্তির মুখে তানজিম
নেপালের বিরুদ্ধে ম্যাচে প্রথম চার বলে দুই ব্যাটারকে আউট করার পর ক্রিজে আসেন অধিনায়ক রোহিত। প্রথম বলটি ঠেকানোর পর দ্বিতীয় অর্থাৎ ওভারের শেষ বলটি থেকেও কোনো রান নিতে না পারায় ক্ষুব্ধ রোহিতের সঙ্গে বিবাদে জড়ান তানজিম। এমনকি তাকে বুক দিয়ে ধাক্কা দেন তানজিম।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ জিতে প্রায় অর্ধ যুগ পর সুপার এইটে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ। তবে নেপালের বিপক্ষে ওই ম্যাচে আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগে শাস্তি পেয়েছেন পেসার তানজিম হাসান সাকিব।

শাস্তি হিসেবে তানজিমের ম্যাচ ফির ১৫ শতাংশ জরিমানা করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা- আইসিসি। সে সঙ্গে তার নামের পাশে যুক্ত হয়েছে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট।

ঘটনা নেপালের ইনিংসের তৃতীয় ওভারের। ওই ওভারটি মেডেন নেন তানজিম। প্রথম চার বলে নেপালের দুই ব্যাটারকে আউট করার পর ক্রিজে আসেন অধিনায়ক রোহিত পাউড়েল। প্রথম বলটি ঠেকানোর পর দ্বিতীয় অর্থাৎ ওভারের শেষ বলটি থেকেও কোনো রান নিতে না পারায় রোহিতের সঙ্গে বিবাদে জড়ান তানজিম। সে সময় হঠাৎ রোহিতের দিকে আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে এগিয়ে যান তিনি। এমনকি তাকে বুক দিয়ে ধাক্কা মেরে বসেন তানজিম।

কী ঘটেছিল সে সময়- ম্যাচ শেষে এমন প্রশ্নের জবাবে রোহিত বলেন, সাকিব তাকে বলেছিলেন- মেরে দেখাও। এরপর তিনি ফিরতি উত্তরে বলছিলেন- যাও, বল কর।

এরপর পরপর দুই বলে রান নিতে পারেননি রোহিত। তারপর ওই ঘটনা ঘটান তানজিম। এমন আচরণের মাধ্যমে আইসিসির নিয়ম লঙ্ঘন করায় শাস্তি পেতে হয়েছে তাকে।

আইসিসির কোড অব কন্ডাক্টের ২.১২ ধারা অনুযায়ী, কোনো খেলোয়াড়ের আম্পায়ার, ম্যাচ রেফারি বা অন্য কোনো ব্যক্তির সঙ্গে শারীরিকভাবে মুখোমুখি অবস্থানে আসার অনুমতি নেই।

খেলা শেষে ম্যাচ রেফারি রিচি রিচার্ডসনের দেয়া শাস্তি মেনে নেন তানজিম। ফলে আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজন পড়েনি।

সুপার এইট নিশ্চিত করা ওই ম্যাচে অসাধারণ বোলিং নৈপুণ্য দেখান তানজিম। ক্যারিয়ারসেরা বোলিংয়ে মাত্র ৭ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরাও হন তিনি। এছাড়া সেদিন চার ওভারের ২১টি বলই ডট দেন তিনি, যা বিশ্বকাপে কোনো বোলারের সর্বোচ্চ ডট বল করার রেকর্ড।

আরও পড়ুন:
সুপার এইটের লক্ষ্যে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত ভারতের
তৌহিদ-লিটনের ব্যাটে জয় দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু
আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান খেলবে চমক দেখানো যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে
আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে হেসেখেলে জিতল ভারত
ভারতীয় বোলিং তোপে অল্পতেই গুটিয়ে গেল আয়ারল্যান্ড

মন্তব্য

খেলা
West Indies crushed Afghanistans multiple records

আফগানিস্তানকে গুঁড়িয়ে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, একাধিক রেকর্ড

আফগানিস্তানকে গুঁড়িয়ে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, একাধিক রেকর্ড সেন্ট লুসিয়ায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে উইকেট শিকারের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের উল্লাস। ছবি: সংগৃহীত
সেন্ট লুসিয়ায় টসে হেরে ব্যাটিং করতে নেমে নিকোলাস পুরানের ৯৮ রানের ইনিংসে ২১৮ রান তোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টার্গেট তাড়া করতে নেমে ১১৪ রানে গুটিয়ে গেছে আফগানিস্তান। ৯৮ রানের ইনিংস খেলার পথে পুরান গড়েছেন একটি রেকর্ড।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে প্রতিপক্ষ আফগানিস্তানকে এককথায় গুড়িয়ে দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আর এই জয়ের মধ্য দিয়ে গ্রুপ পর্বের চারটি ম্যাচেই জয় তুলে নিয়েছে ক্যারিবিয়ানরা।

অপরদিকে চার ম্যাচের তিনটিতে জয় ও একটিতে হারল আফগানিস্তান।

শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি রেকর্ডও গড়েছে ক্যারিবিয়ানরা। বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ গড়েছে তারা। নিকোলাস পুরান গড়েছেন ব্যক্তিগত রেকর্ড।

আফগানিস্তানকে ১০৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিকরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তান আগেই সুপার এইট নিশ্চিত করেছে। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন কিংবা রানার্সআপ হওয়ার ক্ষেত্রেও এই ম্যাচের ফল কোনো প্রভাব ফেলবে না। তাই ম্যাচটিকে সুপার এইট শুরুর আগের প্রস্তুতি হিসেবেই ধরে নেয়া যায়। সেই প্রস্তুতিটা দারুণভাবে সেরেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

সেন্ট লুসিয়ায় টসে হেরে ব্যাটিং করতে নেমে নিকোলাস পুরানের ৯৮ রানের ইনিংসে ২১৮ রান তোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টার্গেট তাড়া করতে নেমে ১১৪ রানে গুটিয়ে গেছে আফগানিস্তান। ৯৮ রানের ইনিংস খেলার পথে পুরান গড়েছেন একটি রেকর্ড। আটটি ছক্কা মেরেছেন এই বাঁহাতি ব্যাটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড এখন এই উইকেটকিপার কাম ব্যাটারের।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে পুরানের ছক্কা এখন ১২৮টি। এর আগে ১২৪ ছক্কা নিয়ে শীর্ষে ছিলেন ক্রিস গেইল। স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫০০ ছক্কা মেরেছেন পুরান। স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে বেশি ১০৫৬টি ছক্কার মালিক গেইল।

পুরানের ব্যক্তিগত রেকর্ডের পাশাপাশি কিছু দলীয় রেকর্ডও গড়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পাওয়ার-প্লেতে ৯২ রান তোলে স্বাগতিকরা, যা বিশ্বকাপ ইতিহাসে সর্বোচ্চ। এছাড়া তাদের করা ২১৮ এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহও এটি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওবেদ ম্যাকয় ১৪ রান দিয়ে নেন ৩টি উইকেট। মোতি তুলে নেন ২টি উইকেট।

সুপার এইটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড ও যুক্তরাষ্ট্র।

অপরদিকে আফগানিস্তান খেলবে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশের বিপক্ষে।

আরও পড়ুন:
তৌহিদ-লিটনের ব্যাটে জয় দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু
আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান খেলবে চমক দেখানো যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে
আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে হেসেখেলে জিতল ভারত
ভারতীয় বোলিং তোপে অল্পতেই গুটিয়ে গেল আয়ারল্যান্ড
টস জিতে ফিল্ডিংয়ে ভারত

মন্তব্য

খেলা
Bangladesh opponent and venue in Super Eight

সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ও ভেন্যু

সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ও ভেন্যু সুপার এইটে লড়ার জন্য প্রস্তুত বাংলাদেশ দল। ছবি: সংগৃহীত
অ্যান্টিগায় শুক্রবার অস্ট্রেলিয়া, পরদিন একই ভেন্যুতে ভারত এবং ২৫ জুন কিংসটাউনে আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে টাইগাররা।

নেপালের বিরুদ্ধে কষ্টার্জিত জয়ে সুপার এইট নিশ্চিত হয়েছে বাংলাদেশের। এবার সেই বৈতরণী পার হওয়ার পালা।

আগামী পরশু যুক্তরাষ্ট্র-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে সুপার এইট পর্ব। এই রাউন্ডে বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। অ্যান্টিগায় ভোর ৬টা ৩০ মিনিটে শুরু হবে ম্যাচটি।

এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দুটি গ্রুপে চারটি দল করে সুপার এইট গঠিত হয়েছে। গ্রুপ-১ এ বাংলাদেশের সঙ্গে রয়েছে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও আফগানিস্তান। আর গ্রুপ-২ এ রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

সুপার এইটে প্রথম ম্যাচে শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে টাইগাররা। অ্যান্টিগায় অজিদের বিপক্ষে এই ম্যাচ খেলার পর বিশ্রামের সুযোগ নেই বাংলাদেশ দলের। পরদিনই তাদের খেলতে হবে আরেক শক্তিশালী দল ভারতের বিপক্ষে। ২২ জুন বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচটিও হবে অ্যান্টিগায়। এই ম্যাচ শুরু হবে রাত ৮টা ৩০ মিনিটে।

২৫ জুন সুপার এইটে বাংলাদেশ নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে, যারা প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইটে উঠেছে। কিংসটাউনে ম্যাচটি শুরু হবে ভোর ৬টা ৩০ মিনিটে।

মন্তব্য

খেলা
Bangladesh defeated Nepal in the Super Eight
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ

নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ নেপালকে হারিয়ে সুপার এইট নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। ছবি: বাসস
দুই পেসার তানজিম হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমানের বোলিং নৈপুণ্য ঈদুল আজহার দিন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসরে সুপার এইট নিশ্চিত করল বাংলাদেশ। সোমবার গ্রুপ ‘ডি’তে নিজেদের চতুর্থ ও শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ ২১ রানে হারিয়েছে নেপালকে।

গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচ জিতেই সুপার এইট নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

দুই পেসার তানজিম হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমানের বোলিং নৈপুণ্য ঈদুল আজহার দিন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসরে সুপার এইট নিশ্চিত করল বাংলাদেশ। আজ গ্রুপ ‘ডি’তে নিজেদের চতুর্থ ও শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ ২১ রানে হারিয়েছে নেপালকে। খবর বাসসের

এই জয়ে ৪ ম্যাচে ৩ জয় ও ১ হারে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থেকে সুপার এইটে খেলবে বাংলাদেশ। নেপাল ছাড়াও গ্রুপ পর্বে শ্রীলঙ্কা ও নেদারল্যান্ডসকে হারিয়েছিল টাইগাররা। এই প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বোচ্চ ৩ ম্যাচ জয়ের নজির গড়ল বাংলাদেশ।

গ্রুপ রানার্স-আপ হয়ে সুপার এইটে গ্রুপ-১ এ অস্ট্রেলিয়া (২১ জুন), ভারত (২২ জুন) ও আফগানিস্তানের (২৫ জুন) বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। ৪ ম্যাচে পূর্ণ ৮ পয়েন্ট নিয়ে এই গ্রুপ থেকে আগেই সুপার এইট নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

এ ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ১৯ দশমিক ৩ ওভারে ১০৬ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। এরপর তানজিম-মুস্তাফিজের দারুণ বোলিংয়ে নেপালকে ৮৫ রানে গুটিয়ে দেয় টাইগাররা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এই প্রথম কোন দল এত কম রানের পুঁজি নিয়ে ম্যাচ জিতল। তানজিম ৪টি ও মুস্তাফিজ ৩ উইকেট নেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেন্ট ভিনসেন্টে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের প্রথম বলে নেপালের পেসার সোমপাল কামির বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে গোল্ডেন ডাক মারেন বাংলাদেশের ওপেনার তানজিদ হাসান।

দ্বিতীয় ওভারে নেপালের স্পিনার দিপ্রেন্দ্র সিংয়ের বলে বোল্ড হয়ে ব্যক্তিগত ৪ রানে সাজঘরে ফিরেন বাংলাদেশ অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

৭ রানে ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়া বাংলাদেশকে লড়াইয়ে ফেরানোর চেষ্টায় ব্যর্থ হন আরেক ওপেনার লিটন দাস ও আগের ম্যাচের হিরো সাকিব আল হাসান। ১০ রান করা লিটনকে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান সোমপাল।

লিটনের বিদায়ে ক্রিজে এসে দুটি চারে ইনিংস শুরু করলেও নেপালের অধিনায়ক রোহিত পাউডেলের বলে আউট হন ৯ রান করা তাওহিদ হৃদয়।

চতুর্থ উইকেটে ২০ বলে ২২ রানের জুটি গড়েন সাকিব ও মাহমুদুল্লাহ। নবম ওভারে মাহমুদুল্লাহর রান আউটে ভাঙে জুটি। দুটি চারে ১৩ রান করেন তিনি। নবম ওভারে দলীয় ৫২ রানে ৫ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

১১তম ওভারে পাউডেলের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে ২২ বলে ১৭ রান করেন সাকিব। এরপর তানজিম হাসান ৩ ও জাকের আলি ১২ রানে বিদায় নিলে ৭৫ রানে অষ্টম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। শেষ দুই উইকেটে ৩১ রান যোগ করে বাংলাদেশের রান ১০০ পার করেন রিশাদ হোসেন, তাসকিন ও মুস্তাফিজ।

নবম উইকেটে রিশাদের সঙ্গে ১৩ ও শেষ উইকেটে মুস্তাফিজকে নিয়ে ১৮ রান তুলেন তাসকিন। এতে ১৯ দশমিক ৩ ওভারে ১০৬ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। রিশাদ ১৩ ও মুস্তাফিজ ৩ রানে আউট হলেও, ১২ রানে অপরাজিত থাকেন তাসকিন। নেপালের সোমপাল কামি, পাউডেল, দিপেন্দ্র ও লামিচানে ২টি করে উইকেট নেন।

১০৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে বাংলাদেশের পেসার তানজিম হাসানে তোপের মুখে পড়ে ২৬ রানে ৫ উইকেট হারায় নেপাল। ওপেনার কুশল ভার্তেল(৪), অনিল শাহ(০) , অধিনায়ক পাউডেল(১) ও সুন্দীপ জোরাকে (১) শিকার করেন তানজিম। এরমধ্যে নিজের দ্বিতীয় ওভারে ডাবল উইকেট মেডেন নেন তানজিম। পরের ওভারে আরও একটি মেডেন উইকেট নেন তানজিম।

তানজিমের সঙ্গে উইকেট শিকারে মেতে নেপালের ওপেনার আসিফ শেখকে ১৭ রানে বিদায় করেন মুস্তাফিজুর।

সপ্তম ওভারে ইনিংসের অর্ধেক ব্যাটার সাজঘরে ফেরত যাওয়ায় দ্রুতই হারের মুখে ছিটকে পড়ে নেপাল। কিন্তু ষষ্ঠ উইকেটে ৫৮ বলে ৫২ রান যোগ করে নেপালকে দারুণভাবে লড়াইয়ে ফেরান কুশল মাল্লা ও দিপেন্দ্র।

১৭তম ওভারের চতুর্থ বলে মাল্লাকে আউট করে বাংলাদেশকে গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক-থ্রু এনে দেন মুস্তাফিজ।

দলীয় ৭৮ রানে মুস্তাফিজের ব্রেক-থ্রুর পর আর লড়াই করতে পারেনি নেপাল। ১৯ দশমিক ২ ওভারে ৮৫ রানে গুটিয়ে যায় তারা। দিপেন্দ্র দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন।

৪ ওভারে ২ মেডেনে ৭ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হন বাংলাদেশের তানজিম। ১০ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি এটিই ক্যারিয়ার সেরা বোলিং তার। এ ছাড়া শততম ম্যাচে মুস্তাফিজ ৪ ওভারে ৭ রানে ৩, সাকিব ৯ রানে ২ এবং তাসকিন ১ উইকেটে নেন।

মন্তব্য

p
উপরে