মেসি না লেভা: রাতে জানা যাবে কে পাচ্ছেন ব্যালন

player
মেসি না লেভা: রাতে জানা যাবে কে পাচ্ছেন ব্যালন

ছবি: সংগৃহীত

আয়োজনের সব আলো মূলত মেসি ও লেওয়ানডোভস্কিকে ঘিরেই। বার্সেলোনার হয়ে শেষ মৌসুমে ৩০ গোলের পাশাপাশি জিতেছেন কোপা দেল রে। তবে মেসির সবচেয়ে বড় সাফল্য জাতীয় দলের হয়ে কোপা আমেরিকা জয়।

বিশ্বসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ব্যালন ডর ঘোষণা করা হবে রাতে। প্যারিসের থিয়েটার দ্যু শ্যাটেলেতে বাংলাদেশ সময় রাত দেড়টায় শুরু হবে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানের শেষে জানা যাবে কার হাতে উঠছে সোনার বল। লিওনেল মেসির সপ্তম নাকি রবার্ট লেওয়ানডোভস্কির প্রথম? নাকি থাকছেন নতুন কেউ? উত্তর জানতে অপেক্ষা আর কয়েক ঘণ্টার।

এবারের আয়োজনের সব আলো মূলত মেসি ও লেওয়ানডোভস্কিকে ঘিরেই। বার্সেলোনার হয়ে শেষ মৌসুমে ৩০ গোলের পাশাপাশি জিতেছেন কোপা দেল রে। তবে মেসির সবচেয়ে বড় সাফল্য জাতীয় দলের হয়ে কোপা আমেরিকা জয়।

যে কারণে মেসিকেই ধরা হচ্ছে ৭ নম্বর ব্যালন ডরের জন্য ফেভারিট। স্পেনের অনেক সংবাদমাধ্যম আগ বাড়িয়ে এও বলে দিয়েছে যে মেসিই নিশ্চিত বিজয়ী।

মেসির সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন লেওয়ানডোভস্কি। গত মৌসুমে বুনডেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে ২৯ ম্যাচে এই পোলিশ স্ট্রাইকার করেন রেকর্ড ৪১ গোল। ২০২০ সালে ফিফা দ্য বেস্টও জিতে নিয়েছিলেন তিনি।

গত এক দশকে ১২টি ব্যালন ডরের মধ্যে ১১টি মেসি ও রোনালডো একে অপরের মধ্যে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা ও ক্রোয়েশিয়াকে বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলতে সহযোগিতা করার জন্য ২০১৮ সালে লুকা মডরিচ জেতেন এই ট্রফি।

এবারে অবশ্য অনেকটা পিছিয়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সর্বোচ্চ এই গোলদাতা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেবার পর ইউরোপে খেলা পাঁচ ম্যাচের সব কটিতে গোল করেছেন।

তবে গত মৌসুমে ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে কোনো শিরোপা জেতেননি রোনালডো। সবশেষ ২০১৭ সালে নিজের পঞ্চম ব্যালন ডর জেতেন এই পর্তুগিজ মহাতারকা।

৩০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা ইউরো ২০২০ বিজয়ী ইতালির পাঁচজন সদস্যের মধ্যে অন্যতম হলেন চেলসি মিডফিল্ডার জর্জিনিয়ো। এ ছাড়া নেইমার ও লিভারপুলের মিশরীয় তারকা মোহাম্মদ সালাহর সঙ্গে রয়েছেন কিলিয়ান এমবাপে ও নরওয়ের আর্লিং হালান্ড।

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন

মন্তব্য

শক্তিশালী জাতীয় দল গড়ার প্রত্যাশা কাবরেরার

শক্তিশালী জাতীয় দল গড়ার প্রত্যাশা কাবরেরার

সাইফ এসসি অনুশীলন পরিদর্শনে জাতীয় দলের হেড কোচ হাভিয়ের কাবরেরা। ছবি: বাফুফে

জাতীয় দলের হেড কোচ বলেন, ‘খেলোয়াড়দের পারফর্ম দেখে মুগ্ধ। বিশেষ করে তাদের টেকনিক্যাল সক্ষমতা, প্রগাঢ়তা আমার ভালো লেগেছে। আশা করি ভালো একটা জাতীয় দল গড়তে পারব।’

ঘরোয়া ফুটবলের অন্যতম শীর্ষ দল সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব পরিদর্শন করছেন জাতীয় দলের নতুন হেড কোচ হ্যাভিয়ের কাবরেরা। দলের অনুশীলন দেখে মুগ্ধ কোচ।

ঢাকা আবাহনী, উত্তর বারিধারা ও সাইফের অনুশীলন দেখে জাতীয় দলের ভবিষ্যত নিয়ে স্বস্তির ঢেকুর হয়তো নিয়েছেন এ স্প্যানিশ কোচ।

পরিদর্শন শেষে মঙ্গলবার গণমাধ্যমকে নানা প্রত্যাশার কথা জানান কাবরেরা।

জাতীয় দলের হেড কোচ বলেন, ‘খেলোয়াড়দের পারফর্ম দেখে মুগ্ধ। বিশেষ করে তাদের টেকনিক্যাল সক্ষমতা, প্রগাঢ়তা আমার ভালো লেগেছে। আশা করি ভালো একটা জাতীয় দল গড়তে পারব।’

এ সময় জাতীয় দলের পারফরম্যান্স উন্নতিতে সাইফের প্রাণভোমরা জামালের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে হবে বলে মন্তব্য করেন কাবরেরা।

তিনি বলেন, ‘সে (জামাল) খুব ভালো প্লেয়ার। সাইফ স্পোর্টিংয়ের প্রাণভোমরা। সামনে জাতীয় দলের পারফরম্যান্সে উন্নতি করতে তাকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে। অনুশীলন, অবকাঠামো দেখে সাইফকে পেশাদার মনে হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখানে আসতে পেরে আমি আনন্দিত। ক্লাবটি গোছানো, অবকাঠামো দিক দিয়েও উন্নত। ক্লাবটির টেকনিক্যাল টিমও ভালো। খেলোয়াড়রা খুবই পরিশ্রমী।’

মার্চে ফিফা উইন্ডোতে জাতীয় দলের ম্যাচ পাওয়ার কথা কাবরেরার। ক্যাম্প শুরু হওয়ার আগে লিগের পারফরম্যান্স দেখে খেলোয়াড় বাছাই করবেন। এরপর ফিফা উইন্ডোর ম্যাচ দিয়ে প্রথম পরীক্ষার মুখে পড়বেন তিনি।

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন

কন্তের অধীনে টটেনহ্যাম বদলালে কাবরেরাও পারবে: জামাল

কন্তের অধীনে টটেনহ্যাম বদলালে কাবরেরাও পারবে: জামাল

জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার সঙ্গে হেড কোচ হাভিয়ের কাবরেরা। ছবি: বাফুফে

হাভিয়ের কাবরেরার মিশন এবার আরও কঠিন। মার্চে ফিফা উইন্ডো ও জুনে এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বসহ বিশাল কর্মযজ্ঞ আর পরীক্ষা অপেক্ষা করছে এ স্প্যানিশ কোচের সামনে। তবে, কাবরেরার এই বন্ধুর যাত্রায় সফলতার লক্ষ্যে পৌঁছাবে বাংলাদেশ এমনটাই মনে করেন জামাল ভূঁইয়া।

নিকট অতীতের ইতিহাস বলছে, জাতীয় ফুটবল দলের কোচ হওয়া মানেই ‘রিটার্ন টিকিট’ হাতে রেখে দায়িত্ব নেয়া। জাতীয় দল ব্যর্থ হলেই কোচের হাতে পদত্যাগের চিঠি ধরিয়ে দেয়া হয়। জেমি ডে’র বিদায়ের পর এই অনিশ্চিয়তার রাস্তায় পা রেখেছেন নতুন হেড কোচ হাভিয়ের কাবরেরা।

তার মিশন আরও কঠিন। মার্চে ফিফা উইন্ডো ও জুনে এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বসহ বিশাল কর্মযজ্ঞ আর পরীক্ষা অপেক্ষা করছে এ স্প্যানিশ কোচের সামনে। তবে ১১ মাসের চুক্তিতে দায়িত্ব পাওয়া কাবরেরার এই বন্ধুর যাত্রায় সফলতার লক্ষ্যে পৌঁছাবে বাংলাদেশ, এমনটাই মনে করেন জামাল ভূঁইয়া।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দল টটেনহ্যামের উদাহরণ টেনে জাতীয় দলের অধিনায়ক বলেন, ‘আমাদের সবার সক্ষমতা আছে। আমি যদি উদাহরণ দিই কন্তে উনি টটেনহ্যামে। যখন সে আসছে সবকিছু বদলে গেছে। সেও (কাবরেরা) এটা করতে পারে। ও কেন পারবে না? সেও করতে পারবে।’

মঙ্গলবার দুপুরে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব পরিদর্শনে যান নতুন কোচ হাভিয়ের কাবরেরা। এ সময় জামালসহ ক্লাবের খেলোয়াড়দের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। পরে অনুশীলন দেখেন স্প্যানিশ এই কোচ।

সাক্ষাৎ শেষে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন জামাল ভূঁইয়া। সাক্ষাতে জাতীয় দলের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানান অধিনায়ক।

কন্তের অধীনে টটেনহ্যাম বদলালে কাবরেরাও পারবে: জামাল
সাইফ স্পোর্টি ক্লাব পরিদর্শন করেন জাতীয় দলের নতুন হেড কোচ হাভিয়ের কাবরেরা। ছবি: বাফুফে

জামাল ভূঁইয়া বলেন, ‘তার আইডিয়া শুনেছি। প্লেয়ারদের কাছে কী চায় এবং তার ভিশন আর সামনে কীভাবে কাজ করতে হবে এ বিষয়ে আলোচনা করছি।’

জাতীয় দল নিয়ে আলোচনা এলেই গোল স্কোরিং সমস্যা সামনে চলে আসে। এ কোচের অধীনে এই সমস্যা কাটিয়ে উঠবে দল এমন প্রশ্নে জামাল বলেন, ‘সবাই জানে স্প্যানিশ কোচ একটু ডিফারেন্ট। ওরা বল রাখতে চায়। বল পজিশন। এসব বিষয়ের ওপর কাজ করব এবং গোল করা। এটা আমাদের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমরা কম গোল করি।’

জেমি ডে, অস্কার ব্রুজন ও মারিও লেমস। ইতোমধ্যে ইউরোপের কোচদের অধীনে খেলেছেন জামালরা। কাবরেরার অধীনে নতুন কী পেতে পারেন এমন প্রশ্নে জামাল বলেন, ‘তার সঙ্গে মাঠে এখনও কাজ করা হয়নি। অস্কার ব্রুজন, মারিও লেমস কাছাকাছি এরা। সে নিজের স্টাইল ইমপ্লিমেন্ট করবে।’

আগামী মার্চে ফিফা উইন্ডোতে প্রীতি ম্যাচ খেলার সুযোগ রয়েছে জামালদের। তার আগেই খেলোয়াড় বাছাইসহ দল গঠন করে ফেলবেন নতুন কোচ। তারই ধারাবাহিকতায় এখন ক্লাব পরিদর্শনে মাঠে নেমেছেন হাভিয়ের কাবরেরা।

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন

অবকাঠামো উন্নয়নই ফুটবল উন্নয়নের চাবি: কাবরেরা

অবকাঠামো উন্নয়নই ফুটবল উন্নয়নের চাবি: কাবরেরা

জাতীয় ফুটবল দলের হেড কোচ হাভিয়ের কাবরেরা। ছবি: বাফুফে

বারিধারা-মোহামেডানসহ দেশের অনেক ক্লাবেরই নেই নিজস্ব ট্রেনিং গ্রাউন্ড বা খেলার মাঠ। তাই ভারত-যুক্তরাষ্ট্র-স্পেনের ফুটবলে কাজ করা হাভিয়ের কাবরেরার কাছে এ দৃশ্যটা একটু অপরিচিত। দেশের ফুটবল উন্নয়নের জন্য অবকাঠামো উন্নয়নেই জোর দিলেন তিনি।

দেশের প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব উত্তর বারিধারার সঙ্গে সাক্ষাৎ করার কথা জাতীয় দলের হেড কোচ হাভিয়ের কাবরেরার। রাজধানী থেকে কিছুটা বিচ্ছিন্ন পূর্বাচল এক্সপ্রেস ওয়ের পথ ধরে ৩ শ’ ফিট আর পিঙ্ক সিটির পাশে। ওখানে একটা ভাড়া করা মাঠের মধ্যে চলছে বারিধারার অনুশীলন।

সেখানে দলের সঙ্গে পরিচয় পর্ব আর খেলোয়াড় বাছাইয়ের অংশ হিসেবে এই পথ পাড়ি দিয়ে মাঠে হাজির হন নতুন হেড কোচ।

এর আগে ঢাকা আবাহনীর খেলোয়াড়দের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন কোচ। বারিধারা-মোহামেডানসহ দেশের অনেক ক্লাবেরই নেই নিজস্ব ট্রেনিং গ্রাউন্ড বা খেলার মাঠ।

নিজস্ব মাঠ বা হোম ভেন্যু তো এখনও স্বপ্নের মতো ঘটনা। স্বভাবতই ভারত-যুক্তরাষ্ট্র-স্পেনের ফুটবলে কাজ করা হাভিয়ের কাবরেরার কাছে এ দৃশ্যটা একটু অপরিচিত।

তাই তার কাছে প্রশ্নটা ছিল এমন- কোনও দেশের সর্বোচ্চ লিগের দলগুলোর বেশিরভাগের নাই হোম গ্রাউন্ড। ভাড়া করে অনুশীলন করতে হয় দলগুলোকে। একজন ফুটবলের মানুষ হিসেবে বিষয়টি কীভাবে দেখেন?

জবাবে কী বলবেন সেটাই যেন খুঁজে পাচ্ছিলেন না যুক্তরাষ্ট্রের বার্সা একাডেমিকে কাজ করা এ স্প্যানিশ কোচ। তার মতে, দেশের ফুটবল উন্নয়নে অবকাঠামো উন্নয়নের বিকল্প নাই।

হাভিয়ের কাবরেরা বলেন, ‘যে কোনো দেশের জন্য অবকাঠামো উন্নয়ন হওয়া উচিৎ ফুটবল উন্নয়নের চাবি। আমি খুব একটা ভালো জানি না বাংলাদেশের অবস্থা সম্পর্কে। তাই নির্দিষ্ট করে বলতে পারছি না। শুধু এটি বলব যে দেশের ফুটবল উন্নয়নে অবকাঠামোর উন্নয়ন প্রয়োজন।’

বাংলাদেশ ফুটবলের সর্বোচ্চ লিগের এমন করুণ পরিণতির চেহারা যেন আরও একবার সামনে এলো নতুন হেড কোচের কথায়। হাভিয়েরের মতে- স্পেনের প্রতিটি শহরের সব জায়গায় খেলার মাঠে ভরা। যেখানে শূন্যতা ঘেরি বাংলাদেশের ফুটবল।

একটু ঘুরিয়ে হাভিয়ের বলেন, ‘স্পেনে আমাদের অনেক মাঠ আছে। প্রতিটি শহরের সব জায়গায় অনেক খেলার মাঠ পাবেন। আমি এখনও বাংলাদেশের সম্পর্কে ওতো জানি না। তাই প্রকৃত ব্যাখ্যাটা দিতে পারব না। যেটা গুরুত্বপূর্ণ তা হলো অবকাঠামোয় বিনিয়োগ করা।’

ঘরোয়া ফুটবলের এমন নাকাল অবস্থার ফল সরাসরি পড়ে জাতীয় দলের পারফরম্যান্সে। কোচ আসা-যাওয়ার খেলায় নতুন কোচ কী ম্যাজিকে বদলে দেবেন জাতীয় দলের ব্যর্থতার চেহারা সেটা এখনই বলা মুশকিল।

তবে আপাতত সাবেক জাতীয় দলের হেড কোচ জেমি ডে’র দলের অনেক কিছুই পরিবর্তন আসছে সেই আভাস দিয়েছেন হাভিয়ের কাবরেরা।

তিনি বলেন, ‘আমি আগেও বলেছি। পুরো দলের প্রত্যেকটা বিভাগ নিয়ে বৈশ্বিক উপায়ে কাজ করব। কোনও স্পেসিফিক বিভাগ নয়, পুরো দল নিয়ে কাজ করব। টেকনিক্যাল সাইড থেকে শুরু করে ফিটনেস ট্রেইনার, বিশ্লেষক, মেডিক্যাল টিমসহ বৈশ্বিক একটা কাজ করতে চাই। সবাই মিলে কাজ করতে চাই।’

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন

তপু বর্মণের সফল অস্ত্রোপচার

তপু বর্মণের সফল অস্ত্রোপচার

মুম্বাইয়ে অস্ত্রোপচারের পর তপু বর্মণ। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন ধিরুবাই আম্বানি হাসপাতালে এ তারকা ডিফেন্ডারের সার্জারি করেন ভারতের বিখ্যাত চিকিৎসক দিনশো পার্দিওয়ালা।

অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে জাতীয় ফুটবল দলের ফুটবলার তপু বর্মণের। সোমবার ভারতের মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন ধিরুবাই আম্বানি হাসপাতালে এ তারকা ডিফেন্ডারের সার্জারি করেন ভারতের বিখ্যাত চিকিৎসক দিনশো পার্দিওয়ালা।

সার্জারি শেষে হাসপাতালে বিশ্রামে আছেন তপু বর্মণ। পার্দিওয়ালা ওই হাসপাতালের স্পোর্টস অর্থোপেডিক্সের পরিচালক।

আইসিসি থেকে শুরু করে কমনওয়েলথ গেমসে ভারতের অ্যাথলেটদের চিকিৎসক হিসেবে ছিলেন তিনি। ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার, শ্রীলঙ্কার মুত্তাইয়া মুরালিধরন, অলিম্পিকস পদকজয়ী ভারতের শাটলার সাইনা নেহওয়াল, অলিম্পিকস স্বর্ণজয়ী নিরাজ চোপরাসহ অনেক তারকা ক্রীড়াবিদের অস্ত্রোপচার করিয়েছেন ভারতের এ চিকিৎসক।

গত ১৮ জানুয়ারি মুম্বাইয়ে পৌঁছান তপু বর্মণ। ২১ জানুয়ারি চিকিৎসকের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। পরে তাকে অস্ত্রোপচারের নির্দেশনা দেয়া হয়। তার সঙ্গে বসুন্ধরা কিংসের ফিজিও সুফিয়ান সরকার আছেন দেখভালের জন্য।

গত বছরের ৪ ডিসেম্বর স্বাধীনতা কাপের একটি ম্যাচে ইনজুরিতে পড়েন তপু। কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামের টার্ফের মধ্যে বুটের স্পাইক আটকে গিয়ে বাম পায়ের হাঁটুর লিগামেন্টে চোট পান বসুন্ধরা কিংসের এ অধিনায়ক।

পরে স্থানীয় চিকিৎসকের পরামর্শে দেড় মাস বিশ্রামে ছিলেন। এ সময়ে পুনর্বাসনে ছিলেন এ ডিফেন্ডার। ক্লাবের চিকিৎসক দলের পরামর্শে জিম, সাইক্লিং ও সুইমিং করেন বলে নিউজবাংলাকে জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন

মেসিকে সই করা জার্সি উপহার পোপের

মেসিকে সই করা জার্সি উপহার পোপের

পোপের প্রতিনিধির কাছ থেকে জার্সি উপহার নিচ্ছেন মেসি। ছবি: সংগৃহীত

ফুটবলের দারুণ ভক্ত পোপ ফ্রান্সিস। ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় এ নেতার জন্ম আর্জেন্টিনায়। স্বাভাবিকভাবে নিজ দেশ আর্জেন্টিনার ফুটবল দলের সমর্থক তিনি।

আর তার প্রিয় খেলোয়াড় যে আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসি, সেটা আগেও বহুবার বলেছেন পোপ ফ্রান্সিস। মেসির সঙ্গে বেশ কয়েকবার দেখাও করেছেন ভ্যাটিকানের প্রধান।

আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনার জার্সি পোপকে উপহার দিয়েছেন মেসি। নতুন ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) যোগ দেয়ার পরও জার্সি পাঠাতে ভুল করেননি সাতবারের ব্যালন ডর জয়ী।

গত অক্টোবরেই ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী জ্যঁ কাসটেক্সকে দিয়ে পোপের কাছে পিএসজির কাছে নিজের ৩০ নম্বর জার্সিটি সই করে পাঠিয়েছিলেন মেসি।

ওই উপহার পাওয়ার মাস তিনেক পর এবারে পোপ জার্সি পাঠালেন মেসিকে। সর্বকালের সেরা ফুটবলারের কাছে প্রতিনিধির হাতে ভ্যাটিকান সিটির অফিশিয়াল ক্রীড়া দল আথলেতিকা ভাতিকানার হলুদ জার্সি পাঠান পোপ। পাঠানোর আগে সই করতে ভোলেননি ৮৫ বছর বয়সী এ ধর্মীয় নেতা।

করোনাভাইরাসের আক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে পিএসজির হয়ে রোববার রাতে মাঠে নেমেছিলেন মেসি।

ম্যাচের পর পোপের পাঠানো উপহার সাদরে গ্রহণ করেন মেসি। পোপের প্রতিনিধি এমানুয়েল গোবিয়া তার হাতে জার্সি তুলে দেন।

মেসির সঙ্গে দেখা হওয়ার পর গোবিয়া এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘মেসি একজন ধর্মপ্রাণ ব্যক্তি। সে আমাকে বলেছে যে এ উপহারটা তার কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একসঙ্গে প্রার্থনাও করেছি।’

পিএসজির হয়ে দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নেমে গোল না পেলেও দলের ৪-০ গোলের বড় জয়ের পর বেশ চনমনে ছিলেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা।

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন

রিয়ালের ড্রয়ের রাতে বার্সেলোনার স্বস্তির জয়

রিয়ালের ড্রয়ের রাতে বার্সেলোনার স্বস্তির জয়

ম্যাচের একমাত্র গোল করার পর ডি ইয়ংকে ঘিরে সতীর্থদের উল্লাস। ছবি: এএফপি

নিজ মাঠে এলচের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছে রিয়াল মাদ্রিদ আর দেপোর্তিভো আলাভেসের মাঠে ১-০ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা।

স্প্যানিশ লা লিগায় রিয়াল মাদ্রিদের ড্রয়ের রাতে স্বস্তির জয় পেয়েছে বার্সেলোনা। নিজ মাঠে এলচের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছে রিয়াল আর দেপোর্তিভো আলাভেসের মাঠে ১-০ গোলে জিতেছে বার্সা।

এলচের বিপক্ষে বিপদে পড়ে রিয়াল। নিজ মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে মাদ্রিদের জায়ান্টরা।

৪২ মিনিটে এলচের প্রথম গোল করেন লুকাস বোয়ে আর ৭৬ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন পেরে মিজা।

মাত্র ১৫ মিনিট বাকি থাকতে ২-০ গোলে পিছিয়ে যাওয়ার পর হারের শঙ্কায় ছিলেন স্বাগতিক দলের সমর্থকেরা।

তাদেরকে স্বস্তি দেন লুকা মডরিচ। ৮২ মিনিটে এ অভিজ্ঞ তারকার পেনাল্টি গোলে লাইফলাইন পায় মাদ্রিদ।

আর ইনজুরি টাইমের ৯২ মিনিটে এদার মিলিতাওয়ের গোলে নিজ মাঠে এক পয়েন্ট রেখে দিতে সমর্থ হয় কার্লো আনচেলত্তির দল।

ম্যাচ ২-২ গোলে ড্র হওয়ায় ২২ ম্যাচে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষেই থাকল রিয়াল তবে দুইয়ে থাকা সেভিয়ার সঙ্গে তাদের পয়েন্ট পার্থক্য কমে দাঁড়িয়েছে চারে।

রাতের আরেক ম্যাচে আলাভেসের মাঠে দারুণ ফুটবল খেলতে পারেনি বার্সেলোনা। প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধেও খেলা ছিল নিস্প্রাণ।

অবশেষে ৮৭ মিনিটে ম্যাচে প্রাণ ফেরান ফ্র্যাংকি ডি ইয়ং। এই ডাচম্যানের শেষ মুহূর্তের গোলে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করে বার্সেলোনা।

এ জয়ে টেবিলের পাঁচে উঠে এসেছে চাভি এর্নান্দেসের দল। ২১ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৩৫ পয়েন্ট।

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন

মেসির ফেরার ম্যাচে বড় জয় পিএসজির

মেসির ফেরার ম্যাচে বড় জয় পিএসজির

সতীর্থদের সঙ্গে দলের জয় উদযাপন করছেন লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের ম্যাচে রেঁসকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছে প্যারিসিয়ানরা। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নেমেছেন মেসি।

ম্যাচের আগে সবার নজর ছিল লিওনেল মেসির দিকে। আর্জেন্টাইন তারকা করোনাভাইরাসের আক্রমণ থেকে সুস্থ হওয়ার পর এ ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরবেন এমনটা আগেই জানিয়েছেন পিএসজি ম্যানেজার মরিসিও পচেত্তিনো।

ভক্তদের আগ্রহ ছিল নিজ মাঠে মেসি কি শুরুর একাদশে সুযোগ পান না বেঞ্চে থাকেন তা নিয়ে।

মেসি ম্যাচ শুরু করেননি। দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নেমেছেন। তাতে বড় জয় পেতে সমস্যা হয়নি প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি)।

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের ম্যাচে রেঁসকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছেন প্যারিসিয়ানরা।

নিজ মাঠে মার্কো ভেরাত্তির ৪৪ মিনিটের গোলে লিড নিয়ে বিরতিতে যায় পিএসজি। বিরতি থেকে ফিরে এসে রেঁসের জালে ঢোকায় আরও তিন গোল।

দ্বিতীয়ার্ধে লিড দ্বিগুন করেন স্বাগতিকরা। ৬২ মিনিটে নতুন ক্লাবের হয়ে প্রথম গোল করেন সার্হিও রামোস। পরের মিনিটে দলের সঙ্গে যোগ দেন লিওনেল মেসি।

পচেত্তিনো আনহেল দি মারিয়াকে বদলে মেসিকে নামান। মেসি নামার পর আরও দুই গোল বাগিয়ে নেয় পিএসজি। ৬৭ মিনিটে ভোট ফেসের আত্মঘাতী গোল ও ৭৫ মিনিটে দানিলো পেরেইরার স্ট্রাইকে নিশ্চিত হয় পিএসজির দারুণ জয়।

এ জয়ে ২২ ম্যাচে ৫৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থান আরও মজবুত করল পচেত্তিনোর দল। দ্বিতীয় স্থানে থাকা নিসের চেয়ে ১১ পয়েন্ট এগিয়ে তারা।

দলের এমন পার্ফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত পচেত্তিনো। ম্যাচ শেষে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘ভালো একটা ম্যাচ ছিল। তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করা গেছে। যারা অনেক দিন গোল পায় না তারাও গোল করেছে।’

আরও পড়ুন:
রামোসের অভিষেকে লাতিন জাদুতে পিএসজির জয়
গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নক আউটে সিটি, লিভারপুল ও রিয়াল
মেসির ‘অভিষেক’ গোলে ১০ জন নিয়ে জিতল পিএসজি

শেয়ার করুন