ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন তুষার ইমরান

ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন তুষার ইমরান

ক্রিকেট থেকে বিদায় বেলায় তুষার ইমরান। ছবি: সংগৃহীত

ব্যাটার হিসেবে বিদায় নিলেও ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট কাজে ২২ গজে ঠিকই থাকছেন এই ক্রিকেটার। ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর আগেই কোচিংয়ে নাম লিখিয়েছেন তুষার ইমরান। শেখ জামাল ক্রিকেট একাডেমির হেড কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

নিজের ব্যাট-প্যাড আজীবনের জন্য তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জাতীয় দলের এক সময়ের তারকা ক্রিকেটার তুষার ইমরান। শনিবার জাতীয় লিগের শেষ রাউন্ডে খুলনা ও ঢাকার মধ্যকার ম্যাচের প্রথম দিন সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন ৩৮ বছর বয়সী এ ক্রিকেটার।

লম্বা সময় ধরেই ইনজুরির কবলে ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। যে কারণে জাতীয় লিগের শেষ রাউন্ডে মাঠে নামা হচ্ছে না তার। মাঠ থেকে অবসর নিতেই কেবলমাত্র শিরোপা নির্ধারনী ম্যাচের দিন উপস্থিত থেকেছেন তিনি।

রান মেশিন হিসেবে পরিচিত এই ক্রিকেটার চোটের কারণে মাইলফলক স্পর্শের আগেই বিদায় জানিয়ে দিলেন ক্রিকেটকে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১২ হাজার রানের মাইলফলকের খুব কাছে গিয়েও ইনজুরির কারণে সেটি স্পর্শ করতে ব্যর্থ হন তুষার। মাত্র ২৮ রান দূরে থাকতেই থেমে যায় তার ব্যাট।

আর এর মধ্য দিয়েই ইতি টানলেন ২১ বছরের বর্ণিল ক্রিকেট ক্যারিয়ার।

২০০২ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্টের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর মাত্র পাঁচটি টেস্ট খেলার সৌভাগ্য হয়েছে ডানহাতি এই ব্যাটারের।

সেই পাঁচ টেস্টে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৮৯ রান।

পাশাপাশি একই বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে অভিষিক্ত হয়েছিলেন তুষার। ক্যারিয়ারে খেলা ৪১ ওয়ানডেতে তিনি করেছেন ৫৭৪ রান।

২০০৭ সাল থেকে সব ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাহিরে রয়েছেন প্রতিভাবান এই ক্রিকেটার। বাদ পড়ার পর থেকেই জাতীয় লিগে নিয়মিত মুখ ছিলেন তিনি।

অবসর নেয়ার আগ পর্যন্ত ১৮২টি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ম্যাচ খেলেছিলেন তুষার ইমরান। এই ১৮২ ম্যাচে তার ব্যাট থেকে এসেছে ১১ হাজার ৯৭২ রান। আর মাত্র ২৮ রান করলেই ঢুকে যেতেন ১২ হাজারির এলিট ক্লাবে।

ইনজুরিটা যদি জেঁকে না ধরত, তাহলে হয়তো জাতীয় লিগের এবারের আসরেই এলিট ক্লাবে নাম লেখাতেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ইনজুরির কারণে চলতি আসরের দুই রাউন্ড ও শেষ রাউন্ডের ম্যাচটি মিস করেছেন তারকা এই ক্রিকেটার। কিন্তু অপেক্ষা না করে ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দিলেন তিনি।

একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে ১২ হাজারি ক্লাবের থেকে ২৮ রান দূরে থাকার দুঃখ স্পষ্ট প্রকাশ পায় তুষারের কণ্ঠে, ‘এটা আসলে আমারই ব্যর্থতা। চলতি এনসিএলে পাঁচটি ইনিংস খেলার সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারিনি বলেই আমাকে ২৮ রান দূরে থামতে হচ্ছে।’

তবে ব্যাটার হিসেবে বিদায় নিলেও ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট কাজে ২২ গজে ঠিকই থাকছেন এই ক্রিকেটার। ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর আগেই কোচিংয়ে নাম লিখিয়েছেন তুষার ইমরান। শেখ জামাল ক্রিকেট একাডেমির হেড কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রিকেটার্স ওয়েলফেরার অ্যাসোসিয়েশনের (কোয়াব) এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে রোববার তুষার ইমরানকে বিদায় জানানোর কথা রয়েছে।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন

মন্তব্য

‘এক ইনিংস খেলতে পারলেও ড্র হবে’

‘এক ইনিংস খেলতে পারলেও ড্র হবে’

বৃষ্টির সময় ফিল্ড আম্পায়ারের সঙ্গে আলোচনায় বাংলাদেশের অধিনায়ক মুমিনুল হক। ছবি: এএফপি

তিন দিন বৃষ্টিতে হারালে টেস্টে ফল আসার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তবে টাইগারদের ফিল্ডিং কোচের মতে, বাংলাদেশ এক ইনিংস খেললেও অন্তত ড্রয়ের সম্ভাবনা থাকত।

ঢাকা টেস্টে এখন চলছে বৃষ্টির ব্যাঘাত। প্রথম দিনে ৩৩ ওভার নষ্ট হওয়ার পরদিন খেলা হয়েছে মাত্র ৩৮ বল। তৃতীয় দিনেও আছে বৃষ্টির প্রবল সম্ভাবনা। এমন অবস্থায় ড্র-ই যেন হয়ে উঠছে বাংলাদেশ-পাকিস্তান সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের একমাত্র পরিণতি।

স্বাগতিক দল অবশ্য এমনটা চায়নি। চট্টগ্রামে হারের পর দল ঢাকায় এসেছিল জয়ের তৃষ্ণা নিয়ে। জয়ের জন্য দল মুখিয়ে থাকলেও বৃষ্টিতে এখন সেটা দূরের সম্ভাবনা বলে মনে হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে।

দিনের খেলা পরিত্যক্ত হওয়ার পর অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানান বাংলাদেশের ফিল্ডিং কোচ মিজানুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘টি-টোয়েন্টি হারার পরও টেস্টে আমাদের বডি ল্যাংগুয়েজ ইতিবাচক ছিল। ভালো করার মানসিকতা ছিল। আমরা জেতার জন্য খেলতে এসেছিলাম।’

তিন দিন বৃষ্টিতে হারালে টেস্টে ফল আসার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তবে টাইগারদের ফিল্ডিং কোচের মতে, বাংলাদেশ এক ইনিংস খেললেও অন্তত ড্রয়ের সম্ভাবনা থাকত।

মিজানুর বলেন, ‘একটা ইনিংস খেলতে পারলে ড্র হতো। এখনও ইতিবাচক মানসিকতা আছে আমাদের। আমরা কখনই ড্রয়ের জন্য খেল না। চট্টগ্রামে হারের প্রতিশোধ এখানে নেওয়ার ইচ্ছে থাকলেও আবহাওয়ার কারণে শুরু করতে পারিনি।’

বৃষ্টির কারণে শেরেবাংলার মাঠে খেলার চেয়ে বাইরের বিষয় নিয়ে আলোচনা বেশি চলছে। এর অন্যতম হচ্ছে নিউজিল্যান্ড সফর থেকে সাকিবের ছুটির আবেদন। তবে মিজানুরের কাছে ছুটির বিষয়টা ব্যক্তিগত।

তিনি বলেন, ‘এটা ব্যক্তিগত ব্যাপার। সাকিব যাবে কি যাবে না, এটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। বোর্ডের বিষয়। এগুলো দলে কোনো প্রভাব ফেলে না। কেউ না গেলে তাকে নিয়ে চিন্তা করার সুযোগ নেই। তবে সাকিব বা অন্য যারা ভালো খেলোয়াড় তারা থাকলে দলের শক্তি বাড়ে।’

দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা টেস্টে তৃতীয় দিনও সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হবে প্রথম সেশন। পাকিস্তান খেলা শুরু করবে ২ উইকেটে ১৮৮ রানের স্কোর নিয়ে।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন

৩৮ বলে শেষ দ্বিতীয় দিনের খেলা

৩৮ বলে শেষ দ্বিতীয় দিনের খেলা

শেরে বাংলার পিচ কভারের ওপর স্লাইড করছেন সাকিব আল হাসান। ছবি: এএফপি

ছয় ওভারে রান এসেছে ২৭। দিন শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ২ উইকেটের খরচায় ১৮৮ রান। উইকেটে ৫২ রান নিয়ে আছেন আজহার আলি। তার সঙ্গী বাবর আজমের সংগ্রহ ৭১।

বৃষ্টির বাধায় মাত্র ৬.২ ওভার খেলে শেষ হলো ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিন। সকাল থেকেই হালকা বৃষ্টির কারণে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা দেরিতে শুরু হয় দিনের খেলা। ১২.৫০ মিনিটে নামে দুই দল।

মাঠে গড়ানোর ৩০ মিনিট পর ফের শেরে বাংলায় আঘাত হানে বৃষ্টি। যার ফলে দিনের সপ্তম ওভারের মাঝপথে মাঠ ছাড়তে হয় দুই দলের ক্রিকেটারদের।

এই ৬ ওভার দুই বলে রান এসেছে ২৭। দিন শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ২ উইকেটের খরচায় ১৮৮ রান। উইকেটে ৫২ রান নিয়ে আছেন আজহার আলি। তার সঙ্গী বাবর আজমের সংগ্রহ ৭১।

বেলা ৩টায় পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা না দেখে দিনের খেলার সমাপ্তি ঘোষণা করেন আম্পায়াররা।

মিরপুর টেস্টের প্রথম দিন থেকে শুরু হয় বৃষ্টির ব্যাঘাত। আলোকস্বল্পতা ও বৃষ্টির বাধায় প্রথম দিনের খেলা ৩৩ ওভার আগে শেষ হলে ম্যাচ অফিশিয়ালরা দ্বিতীয় দিন সকাল সাড়ে ৯টায় খেলা শুরুর সিদ্ধান্ত নেয়।

দ্বিতীয় দিন সকাল থেকে বৃষ্টি থাকায় খেলা শুরুর সময় পিছিয়ে প্রথমে ১০.৪০ এরপর ১১.২০ করা হয়। এরপরও সম্ভব না হলে মধ্যাহ্ন বিরতির ঘোষণা দেন আম্পায়াররা।

দ্বিতীয় সেশন ১২.১০ থেকে শুরুর কথা থাকলেও মাঠ খেলার উপযোগী করে তুলতে আধঘণ্টার মতো সময় লাগে।

ফলে ১২.৫০ মিনিটে শুরু হয় দ্বিতীয় দিনের খেলা। ২ উইকেটে ১৬১ রান দিয়ে দিনের খেলা শুরু করে পাকিস্তান।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন

৬ ওভার পর আবারও বৃষ্টিতে বন্ধ খেলা

৬ ওভার পর আবারও বৃষ্টিতে বন্ধ খেলা

বৃষ্টিতে মিরপুরের উইকেট ঢেকে রাখা হয়েছে। ছবি: এএফপি

৬ ওভার খেলার পর মাঠ ছাড়তে হয় দুই দলের ক্রিকেটারদের। এই ছয় ওভারে রান এসেছে ২৭। বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে পাকিস্তানের সংগ্রহ ২ উইকেটের খরচায় ১৮৮ রান।

বৃষ্টিতে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর মাঠে গড়ায় বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তান সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা। কিন্তু মাঠে গড়ানোর ৩০ মিনিট পর ফের শেরে বাংলায় আঘাত হেনেছে বৃষ্টি।

৬ ওভার খেলার পর মাঠ ছাড়তে হয় দুই দলের ক্রিকেটারদের। এই ছয় ওভারে রান এসেছে ২৭। বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে পাকিস্তানের সংগ্রহ ২ উইকেটের খরচায় ১৮৮ রান।

উইকেটে ৫২ রান নিয়ে আছেন আজহার আলি। তার সঙ্গী বাবর আজমের সংগ্রহ ৭১।

মিরপুর টেস্টের প্রথম দিন থেকে শুরু হয় বৃষ্টির ব্যাঘাত। আলোকস্বল্পতা ও বৃষ্টির বাধায় প্রথম দিনের খেলা ৩৩ ওভার আগে শেষ হলে ম্যাচ অফিশিয়ালরা দ্বিতীয় দিন সকাল সাড়ে ৯টায় খেলা শুরুর সিদ্ধান্ত নেয়।

দ্বিতীয় দিন সকাল থেকে বৃষ্টি থাকায় খেলা শুরুর সময় পিছিয়ে প্রথমে ১০.৪০ এরপর ১১.২০ করা হয়। এরপরও সম্ভব না হলে মধ্যাহ্ন বিরতির ঘোষণা দেন আম্পায়াররা।

দ্বিতীয় সেশন ১২.১০ থেকে শুরুর কথা থাকলেও মাঠ খেলার উপযোগী করে তুলতে আধঘণ্টার মতো সময় লাগে।

ফলে ১২.৫০ মিনিটে শুরু হয় দ্বিতীয় দিনের খেলা। ২ উইকেটে ১৬১ রান দিয়ে দিনের খেলা শুরু করে পাকিস্তান।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন

সাড়ে তিন ঘণ্টা পর শুরু হলো খেলা

সাড়ে তিন ঘণ্টা পর শুরু হলো খেলা

দ্বিতীয় দিন পাকিস্তানের হয়ে উইকেটে আছেন বাবর আজম ও আজহার আলি। ছবি: এএফপি

১২.৫০ মিনিটে শুরু হয় দ্বিতীয় দিনের খেলা। দুই উইকেটে ১৬১ রান দিয়ে দিনের খেলা শুরু করে পাকিস্তান। 

বৃষ্টিতে প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর অবশেষে শুরু হয়েছে ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা। পাকিস্তানের হয়ে উইকেটে আছেন বাবর আজম ও আজহার আলি।

প্রথম দিন আলোকস্বল্পতায় ৩৩ ওভার আগে খেলা শেষ হলে ম্যাচ অফিশিয়ালরা দ্বিতীয় দিন সকাল সাড়ে ৯টায় খেলা শুরুর সিদ্ধান্ত নেন।

দ্বিতীয় দিন সকাল থেকে বৃষ্টি থাকায় খেলা শুরুর সময় পিছিয়ে প্রথমে ১০.৪০ এরপর ১১.২০ করা হয়। এরপরও সম্ভব না হলে মধ্যাহ্ন বিরতির ঘোষণা দেন আম্পায়াররা।

দ্বিতীয় সেশন ১২.১০ থেকে শুরুর কথা থাকলেও মাঠ খেলার উপযোগী করে তুলতে আধঘণ্টার মতো সময় লাগে।

ফলে ১২.৫০ মিনিটে শুরু হয় দ্বিতীয় দিনের খেলা। দুই উইকেটে ১৬১ রান দিয়ে দিনের খেলা শুরু করে পাকিস্তান।

বাবর আজম ৬০ ও আজহার ৩৬ রান নিয়ে খেলছেন।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন

খেলা শুরুর নতুন সময় বেলা ১২.৫০

খেলা শুরুর নতুন সময় বেলা ১২.৫০

বৃষ্টির কারণে ঢেকে রাখা হচ্ছে উইকেট। ছবি: এএফপি

দিনের দ্বিতীয় সেশনের খেলা শুরু হওয়ার কথা ছিল ১২.১০ মিনিটে। তবে বৃষ্টি অবিরত থাকায় খেলা শুরু করা যায়নি। খেলা শুরু হওয়ার নতুন সময় নির্ধারিত হয়েছে ১২.৫০ মিনিট।

ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শুরুতে বাধ সেধেছে বৃষ্টি। বৃষ্টির কারণে মাঠে নামতে দেরি হচ্ছে দুই দলের। ঢেকে রাখা হয়েছে উইকেট। চলছে মাঠ রোলিংয়ের কাজ।

আম্পায়াররা মধ্যাহ্ন বিরতি ঘোষণা করে দিয়েছেন। ফলে দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশন পুরোটাই নষ্ট হলো। দিনের খেলা হবে দুই সেশনের। দিনের দ্বিতীয় সেশনের খেলা শুরু হওয়ার কথা ছিল ১২.১০ মিনিটে।

তবে বৃষ্টি অবিরত থাকায় খেলা শুরু করা যায়নি। খেলা শুরু হওয়ার নতুন সময় নির্ধারিত হয়েছে ১২.৫০ মিনিট।

সকাল সাড়ে ৯টায় খেলা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ে খেলা মাঠে গড়ায়নি। ১০টা ৪০ মিনিটে মাঠ পর্যবেক্ষণের কথা থাকলেও বৃষ্টির কারণে ১১টায় মাঠে আসেন ম্যাচ অফিসিয়ালরা।

মাঠ পর্যবেক্ষণের পর আম্পায়াররা সিদ্ধান্ত দেন বেলা ১১টা ২০ মিনিটে শুরু হবে খেলা। তবে আবারও বৃষ্টি শুরু হলে ম্যাচ নির্ধারিত সময়ে শুরু করা যায়নি।

এর আগে ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনে বাবর আজম ও আজহার আলির ধৈর্য্যশীল ব্যাটিংয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে থেকে দিন শেষ করেছে পাকিস্তান। প্রথম দিন শেষে সফরকারী দলের সংগ্রহ দুই উইকেটে ১৬১ রান।

আলোকস্বল্পতার কারণে চা বিরতির পর আর মাঠে গড়ায়নি দিনের খেলা। ৩৩ ওভার বাকি থাকতেই শেষ করা হয় প্রথম দিন। দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু হওয়ার কথা ছিল রোববার সকাল ৯.৩০ মিনিটে।

৯৯ বলে ৬০ রানে অপরাজিত রয়েছেন বাবর আজম। ১১২ বল খেলে ৩২ রান করে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন আজহার আলি।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন

ডমিঙ্গোর দোষ খুঁজে পায়নি বিসিবি

ডমিঙ্গোর দোষ খুঁজে পায়নি বিসিবি

বাংলাদেশের অনুশীলনে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে আলোচনায় হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। ফাইল ছবি

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘সমস্যা থাকলে সেগুলো এত সহজে বের করা যায় না। কিছু বিষয় জানা গেলেও কোচিং স্টাফের ব্যাপারে কিছু পাওয়া যায়নি। খেলোয়াড়রা যদি বলে, না কোচ নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। তাহলে আপনি কী করবেন? আপনার কি কিছু করার আছে?’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভরাডুবির কারণ খুঁজে বের করতে দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিসিবির দুই পরিচালক এনায়েত হোসেন সিরাজ ও মোহাম্মদ জালাল ইউনুসকে গঠিত কমিটি তাদের প্রতিবেদন জমা দেয়নি এখনও। তবে বিসিবি সভাপতি জানালেন, তদন্তে টাইগারদের হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর কোনো দোষ খুঁজে পাননি দুই পরিচালক।

সংবাদমাধ্যমকে শনিবার এমনটাই জানিয়েছেন বোর্ডের প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। তবে ডমিঙ্গোকে এত সহজে নির্দোষের ছাড়পত্র দিতে রাজি নন তিনি।

পাপন বলেন, ‘আমরা একটি কমিটি করেছিলাম। ইনফরমালি আমি জালাল ভাইয়ের কাছ থেকে কিছু তথ্য নেওয়ার চেষ্টা করেছি। বাস্তবতা হচ্ছে, আহামরি তেমন কিছু পাওয়া যায়নি। এটাতে আমি অবাক হইনি। আমি জানতাম এ রকমই হবে।’

তিনি যোগ করেন, ‘সমস্যা থাকলে সেগুলো এত সহজে বের করা যায় না। কিছু বিষয় জানা গেলেও কোচিং স্টাফের ব্যাপারে কিছু পাওয়া যায়নি। খেলোয়াড়রা যদি বলে, না কোচ নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। তাহলে আপনি কী করবেন? আপনার কি কিছু করার আছে?’

তদন্ত কমিটির ওপর সম্পূর্ণ ভরসা রাখছেন না বিসিবি বস। ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাদাভাবে আলোচনায় বসে আসল কারণ তিনি নিজে খুঁজে বের করার চেষ্টা করবেন বলে আশ্বস্ত করেন। তবে সেটি আনুষ্ঠানিক প্রতিবেদন পাওয়ার পর।

পাপন বলেন, ‘এই তদন্ত পর্যাপ্ত না। আমার নিজেরও তদন্ত করা উচিত। ওয়ান-টু-ওয়ান কথা বলা দরকার। কিছু জুনিয়র, কিছু সিনিয়র খেলোয়াড়ের সঙ্গে যারা এবার যাচ্ছে না নিউজিল্যান্ড সিরিজে। মাহমুদউল্লাহসহ বেশ কিছু টি-টোয়েন্টি খেলোয়াড় আছে। উনারা রিপোর্ট যেদিন দেবেন তারপর বসতে চাই।’

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ তাদের বাছাইপর্ব শুরু করে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হার দিয়ে। এরপর ওমান ও পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে জয় পেয়ে মূল পর্বে পা রাখলেও লাভ হয়নি। সুপার টুয়েলভে ভাগ্য পরিবর্তন করতে পারেনি ডমিঙ্গো শিষ্যরা।

শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও সাউথ আফ্রকার বিপক্ষে হারকে সঙ্গী করেই মাঠ ছাড়তে হয় রিয়াদ-মুশফিকদের।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন

কোচের বিষয়ে জানুয়ারিতে সিদ্ধান্ত নেবে বিসিবি

কোচের বিষয়ে জানুয়ারিতে সিদ্ধান্ত নেবে বিসিবি

রাসেল ডমিঙ্গো। ছবি: এএফপি

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মাঝপথে আনুষ্ঠানিকভাবে ডমিঙ্গোর সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যা নিয়ে বোর্ডকে কঠোর সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছে।

কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে খুব একটা সুনাম কামাতে পারেননি রাসেল ডমিঙ্গো। ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সের অবনতি, দলীয় কোন্দল, ব্যর্থতা সব মিলিয়ে তার বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই।

তারপরও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মাঝপথে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রোটিয়া এই কোচের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

জাতীয় দলের কোচিং প্যানেলে ‘পরিবর্তন’ নিয়ে বিশ্বকাপের পর থেকে জোর গুঞ্জন চলতে থাকে ক্রিকেট পাড়ায়। শোনা যেতে থাকে পদ হারাতে যাচ্ছেন হেড কোচসহ কোচিং স্টাফের বড় একটি অংশ।

এ বিষয়ে শনিবার মুখ খুললেন খোদ বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি জানান, জানুয়ারিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে কোচিং প্যানেলের পরিবর্তন আসবে কি না সেই বিষয়ে।

পাপন বলেন, ‘কোচের সঙ্গে দূরত্ব, মনোমালিন্য আপনারা যেমন জানেন, আমিও তেমন জানি। এটা আসল জায়গা থেকে বলতে হবে। তা না হলে লাভ নেই। শোনা যায় অনেক কিছু। কিন্তু আসল জায়গা থেকে যদি না বের হয় তাহলে কোন লাভ নেই।’

‘অধৈর্য্য হওয়ার কিছু নেই। আমাদের হাতে জানুয়ারি মাসটা আছে। এই মাস পর আমরা যা সিদ্ধান্ত নেয়ার তা নেব,’ তিনি যোগ করেন।

এখন প্রশ্ন জাগতে পারে এতো কিছু জানার পরও কেন চুক্তি নবায়ন করা হল ডমিঙ্গোর সঙ্গে? উত্তরে বিসিবি বস জানালেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত অন্য কোনো কোচের স্লট খালি না থাকায় বাধ্য হয়েই চুক্তি নবায়ন করেছে বোর্ড।

পাপন বলেন, ‘বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগ মুহূর্তে রাসেল ডমিঙ্গো আমাদের কাছে লিখিতভাবে জানায় যে তার একটা ভালো প্রস্তাব আছে। যদি আমরা তাকে নতুন চুক্তির আওতায় নিয়ে আসি তাহলে সে থাকবে। আর যদি না করি তবে সে ঐ ঝুঁকির মধ্যে থাকবে না।’

জোর গুঞ্জন, নিউজিল্যান্ড সিরিজের পরই শেষ হতে যাচ্ছে রাসেল ডমিঙ্গো অধ্যায়ের।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে নারাজ ভক্তরা
ক্যাচ মিসকে দুর্ভাগ্য বললেন অধিনায়ক
বায়োবাবল ভেঙে দর্শক মাঠে
বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ অনায়াসে টপকে সিরিজ পাকিস্তানের
মুশফিককে বিসিবির তলব

শেয়ার করুন