ডমিঙ্গোর সঙ্গে চুক্তি বাড়ানোটা ছিল ‌‘অযৌক্তিক’

ডমিঙ্গোর সঙ্গে চুক্তি বাড়ানোটা ছিল ‌‘অযৌক্তিক’

প্রধান নির্বাচকের সঙ্গে রাসেল ডমিঙ্গো। ফাইল ছবি

জাতীয় দলের দায়িত্ব বুঝে নেয়ার পর কোচ হিসেবে তার অধীনে এখন পর্যন্ত তামিম-মাহমুদুল্লাহরা মাঠে নেমেছেন ৬০টি ম্যাচে। এই ৬০ ম্যাচের ভেতর মাত্র ২৯ ম্যাচে জয়ের মুখ দেখেছে বাংলাদেশ। শতকরার হিসেবে সেটি ৫০ শতাংশেরও কম।

২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর স্টিভ রোডসকে বিদায় করে দুই বছরের চুক্তিতে টাইগারদের হেড কোচের দায়িত্ব তুলে দেয়া হয়েছিল রাসেল ডমিঙ্গোর হাতে। অক্টোবরের ২১ তারিখ তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে বুঝে নেন জাতীয় দলের হেড কোচের দায়িত্ব।

মূলত জাতীয় দলের হাই পারফরম্যান্স ইউনিট (এইচপি) দলের কোচ হিসেবে যোগ দেয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু বিসিবি কর্তারা সাকিব-মুশফিকদের কোচিংয়ের দায়িত্ব সঁপে দিয়েছিলেন এই প্রোটিয়ার হাতে।

দায়িত্ব বুঝে নিয়েই ব্যর্থতার প্রমাণ দেয়া শুরু করেন এই প্রোটিয়া। ঘরের মাঠে নবাগত টেস্ট খেলুড়ে দল আফগানিস্তানের কাছে লাল বলের খেলায় হেরে বসে বাংলাদেশ দল। এরপর ভারত ও পাকিস্তান সফর থেকেও ফিরতে হয়েছে শূন্য হাতে।

এরপর করোনার প্রভাবে লম্বা সময় খেলা গড়ায়নি মাঠে। করোনার বিরতি কাটিয়ে মাঠে খেলা ফিরলেও ভাগ্য খুব একটা বদলায়নি টাইগারদের। হারতে হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও।

এরপর নতুন এক ‘থিওরি’ বের করেন প্রোটিয়া এই কোচ। ঘরের মাঠ শেরে বাংলায় নিজের ইচ্ছেমতো ক্রিকেটের অযোগ্য পিচ বানিয়ে শুরু করেন খেলা। আর তাতেই দেখতে পান সাফল্যের মুখ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জয় আর জিম্বাবুয়ে সফরের পারফরম্যান্সের পর কিছুটা স্বস্তি ফেরে।

সবশেষ মিরপুরের বধ্যভূমিতে দুই পরাশক্তি অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে আকাশে উড়তে থাকেন ডমিঙ্গো। আর উড়তে উড়তেই দলকে নিয়ে যান বিশ্বকাপের মঞ্চে।

কিন্তু শেরে বাংলার বাজে উইকেটে খেলার পরিণামটা বিশ্বকাপে বেশ বাজেভাবেই দিতে হয়েছে বাংলাদেশকে। আফ্রিকান কোচের ‘দুর্দান্ত ফর্মের’ সার্টিফিকেট নিয়ে বাছাইপর্বে টেনেটুনে পাস করলেও, বাংলাদেশ ফেল করেছে বিশ্বকাপের মূল পর্বে গিয়ে। একটি ম্যাচেও জয়ের মুখ দেখা হয়নি ডমিঙ্গো শিষ্যদের।

জাতীয় দলের দায়িত্ব বুঝে নেয়ার পর কোচ হিসেবে তার অধীনে এখন পর্যন্ত তামিম-মাহমুদুল্লাহরা মাঠে নেমেছেন ৬০টি ম্যাচে। এই ৬০ ম্যাচের ভেতর মাত্র ২৯ ম্যাচে জয়ের মুখ দেখেছে বাংলাদেশ। শতকরার হিসাবে সেটি ৫০ শতাংশেরও কম।

১০ টেস্টে ৭টি, ১৫ ওয়ানডেতে ৪টি আর ৩৫ টি-টোয়েন্টির ১৮টিতেই হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

সবশেষ সদ্য বিশ্বকাপ মিশন শেষ করে দেশে ফেরার আগে বাছাইপর্বের ম্যাচসহ মোট আট ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। যেখানে ব্যর্থতার চরম দৃষ্টান্ত স্থাপন করে ৬ ম্যাচেই হারতে হয়েছে লাল সবুজের প্রতিনিধিদের।

জাতীয় দলের দায়িত্ব নিয়ে কোচ হিসেবে এক প্রকারে ব্যর্থই বলা চলে ডমিঙ্গোকে। ব্যর্থতার বেড়াজালে আটকে থাকার পরও কোনো এক অজানা কারণে ডমিঙ্গোকে ছাড়তে চাইছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কর্তারা।

ব্যর্থতার পাশাপাশি অভিযোগের কমতি নেই ডমিঙ্গোর বিপক্ষেও। এর ভেতর বহুল আলোচিত অভিযোগটি ছিল দলের ভেতর সিনিয়র-জুনিয়রদের মধ্যে বিদ্বেষ সৃষ্টি করার। একই সঙ্গে অভিযোগ রয়েছে সিনিয়র ক্রিকেটারদের প্রতি বিমাতাসুলভ আচরণের।

বিশ্বকাপের আগে থেকে বোর্ড সভাপতি চুক্তি বাড়ানোর কথা জানিয়ে দেয়ার পর বিশ্বকাপের মাঝপথে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রোটিয়া এই কোচের সঙ্গে দুই বছর চুক্তি বাড়িয়েছে বোর্ড। তাও আবার সেই চুক্তিতে শর্ত জুড়ে দিয়েছেন ডমিঙ্গো।

চুক্তি অনুযায়ী আগামী এক বছর বিসিবি তাকে চাইলেই চাকরিচ্যুত করতে পারবেন না। যদি কোনো কারণে চুক্তি ভাঙতে হয় তাহলে প্রায় দুই কোটি টাকা তাকে বাধ্যতামূলকভাবে দিয়ে বিদায় জানাতে হবে।

আর এই বিষয়টিই পুরোপুরি অযৌক্তিক মনে করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক পরিচালক খন্দকার জামিল উদ্দিন।

জামিল বলেন, ‘ডমিঙ্গোর সঙ্গে যেই ছয় মাসের ক্লজ রয়েছে, সেটা বিসিবি কেন করল সেটাই আমি বুঝতে পারছি না। এই শর্তটাসহ বিসিবি কেন চুক্তিটা করল সেটাই আমার বোধগম্য হচ্ছে না। এই শর্তটার কারণে ব্যর্থতার পরও তাকে বাদ দেয়া যাচ্ছে না। এটাই হচ্ছে মূল সমস্যা।’

বিশ্বকাপের মিশন শেষ করে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা দেশে ফেরার দিন থেকেই গুঞ্জন উঠতে থাকে টিম ম্যানেজমেন্টে বড় পরিবর্তনের। গুঞ্জন ওঠে ডমিঙ্গোকে সরিয়ে দিতে যাচ্ছে বিসিবি, তার স্থলাভিষিক্ত করা হবে জনপ্রিয় কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিনকে।

সেই ঘটনার দিন দুয়েক পর সালাহউদ্দিনকে সহকারী কোচ হিসেবে দায়িত্ব দেয়ার প্রস্তাবনা পাঠানো হয় বিসিবির পক্ষ থেকে। যদিও সালাহউদ্দিন আরও কয়েকটি দলের কোচ হিসেবে চুক্তিবদ্ধ থাকায় নাকচ করে দেন বোর্ডের প্রস্তাব।

কেন নাকচ করেছেন সেটি না জানালেও সালাহউদ্দিনের সিদ্ধান্তের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে জামিল জানান, এখনই দেশীয় কোচের হাতে দায়িত্ব তুলে দেয়াটা যুক্তিযুক্ত হবে না। তাদের আগে জাতীয় দলের পরিবেশটা বুঝতে হবে। শুরুতে সহকারী কোচের দায়িত্ব দিয়ে তারপর হেড কোচের পদে বসানোটাই উপযুক্ত হবে বলে মনে করছেন তিনি।

জামিল বলেন, ‘আমি অনেক আগে থেকেই বলে আসছিলাম, দেশীয় কোচদের আস্তে আস্তে তৈরি করতে হবে। অনেক আগে থেকেই তাদের জাতীয় দলে অ্যাসিসট্যান্ট কোচ হিসেবে রাখলেও তো কোনো সমস্যা ছিল না। এই প্রক্রিয়াটা তো আমরা অনুসরণ করছিলাম না। এখন হুট করে তাদের দায়িত্ব দিয়ে দিলে সেটা কতটা যুক্তিযুক্ত হবে সেখানে কিন্তু সন্দেহ থেকেই যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘এতদিন ধরে তো বিদেশি স্টাফ দিয়ে চালানো হচ্ছিল, হঠাৎ করেই জাতীয় দলের গুরুত্বপূর্ণ একটি দায়িত্ব একজন দেশি কোচকে দিলে ফলাফল কতটা পজিটিভ হবে সেটা বলা আসলেই মুশকিল। আমরা যেটা বলে আসছিলাম, সেই প্রক্রিয়াটা যদি বিসিবি অনুসরণ করত, তাহলে সহজেই কিন্তু সালাহউদ্দিনের হাতে দায়িত্ব তুলে দেয়া যেত।’

সাবেক এই বোর্ড পরিচালক মনে করেন দেশীয় কোচ দিয়ে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের কোচিংয়ের সুযোগ এখনই শেষ হয়ে যায়নি। দেশীয় কোচদের ধীরে ধীরে জাতীয় দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত করারও তাগিদ দেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে জামিল বলেন, ‘এখনও সুযোগ আছে। সুজন টিম ডিরেক্টর হয়েছে। এখন যদি ডমিঙ্গোকে রাখতেই হয়, সালাহউদ্দিনকে সহকারী কোচ হিসেবে রাখা যেতে পারে, যাতে সে আস্তে আস্তে দায়িত্ব বুঝে নিতে পারে। এ রকম একটা প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে গেলে সেটা আমি মনে করি ভালো হবে।’

নতুন চুক্তিমতে ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত বাংলাদেশের কোচ হিসেবে থাকবেন ডমিঙ্গো। ফলে আরও দুটি বিশ্বকাপ তার অধীনে খেলা লাগবে টিম টাইগার্সের। এখন দেখার বিষয় ডোমিঙ্গো কি পারবেন জাতীয় দলের ভাগ্য ফেরাতে? পারবেন কি তার নামের অভিযোগগুলো মেটাতে? প্রশ্নটা তোলা থাকল।

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ডমিঙ্গোর দোষ খুঁজে পায়নি বিসিবি

ডমিঙ্গোর দোষ খুঁজে পায়নি বিসিবি

বাংলাদেশের অনুশীলনে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে আলোচনায় হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। ফাইল ছবি

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘সমস্যা থাকলে সেগুলো এতো সহজে বের করা যায় না। কিছু বিষয় জানা গেলেও কোচিং স্টাফের ব্যাপারে কিছু পাওয়া যায়নি। খেলোয়াড়রা যদি বলে, না কোচ নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। তাহলে আপনি কী করবেন? আপনার কি কিছু করার আছে?’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভরাডুবির কারণ খুঁজে বের করতে দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিসিবির দুই পরিচালক এনায়েত হোসেন সিরাজ ও মোহাম্মদ জালাল ইউনুসকে গঠিত কমিটি তাদের প্রতিবেদন জমা দেননি এখনও। তবে বিসিবি সভাপতি জানালেন তদন্তে টাইগারদের হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর কোনো দোষ খুঁজে পাননি দুই পরিচালক।

সংবাদমাধ্যমকে শনিবার এমনটাই জানিয়েছেন বোর্ডের প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। তবে ডমিঙ্গোকে এত সহজে নির্দোষের ছাড়পত্র দিতে রাজি নন তিনি।

পাপন বলেন, ‘আমরা একটা কমিটি করেছিলাম। ইনফরমালি আমি জালাল ভাইয়ের কাছ থেকে কিছু তথ্য নেওয়ার চেষ্টা করেছি। বাস্তবতা হচ্ছে, আহামরি তেমন কিছু পাওয়া যায়নি। এটাতে আমি অবাক হইনি। আমি জানতাম এরকমই হবে।’

তিনি যোগ করেন, ‘সমস্যা থাকলে সেগুলো এতো সহজে বের করা যায় না। কিছু বিষয় জানা গেলেও কোচিং স্টাফের ব্যাপারে কিছু পাওয়া যায়নি। খেলোয়াড়রা যদি বলে, না কোচ নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। তাহলে আপনি কী করবেন? আপনার কি কিছু করার আছে?’

তদন্ত কমিটির ওপর সম্পূর্ণ ভরসা রাখছেন না বিসিবি বস। ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাদাভাবে আলোচনায় বসে আসল কারণ তিনি নিজে খুঁজে বের করার চেষ্টা করবেন বলে আশ্বস্ত করেন। তবে সেটি আনুষ্ঠানিক প্রতিবেদন পাওয়ার পর।

পাপন বলেন, ‘এই তদন্ত পর্যাপ্ত না। আমার নিজেরও তদন্ত করা উচিত। ওয়ান-টু-ওয়ান কথা বলা দরকার। কিছু জুনিয়র, কিছু সিনিয়র খেলোয়াড়ের সঙ্গে যারা এবার যাচ্ছে না নিউজিল্যান্ড সিরিজে। মাহমুদউল্লাহসহ বেশ কিছু টি-টোয়েন্টি খেলোয়াড় আছে। উনারা রিপোর্ট যেদিন দেবেন তার পরপর বসতে চাই।’

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ তাদের বাছাইপর্ব শুরু করে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হার দিয়ে। এরপর ওমান ও পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে জয় পেয়ে মূল পর্বে পা রাখলেও লাভ হয়নি। সুপার টুয়েলভে ভাগ্য পরিবর্তন করতে পারেনি ডমিঙ্গো শিষ্যরা।

শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও সাউথ আফ্রকার বিপক্ষে হারকে সঙ্গী করেই মাঠ ছাড়তে হয় রিয়াদ-মুশফিকদের।

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন

কোচের বিষয়ে জানুয়ারিতে সিদ্ধান্ত নেবে বিসিবি

কোচের বিষয়ে জানুয়ারিতে সিদ্ধান্ত নেবে বিসিবি

রাসেল ডমিঙ্গো। ছবি: এএফপি

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মাঝপথে আনুষ্ঠানিকভাবে ডমিঙ্গোর সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যা নিয়ে বোর্ডকে কঠোর সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছে।

কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে খুব একটা সুনাম কামাতে পারেননি রাসেল ডমিঙ্গো। ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সের অবনতি, দলীয় কোন্দল, ব্যর্থতা সব মিলিয়ে তার বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই।

তারপরও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মাঝপথে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রোটিয়া এই কোচের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

জাতীয় দলের কোচিং প্যানেলে ‘পরিবর্তন’ নিয়ে বিশ্বকাপের পর থেকে জোর গুঞ্জন চলতে থাকে ক্রিকেট পাড়ায়। শোনা যেতে থাকে পদ হারাতে যাচ্ছেন হেড কোচসহ কোচিং স্টাফের বড় একটি অংশ।

এ বিষয়ে শনিবার মুখ খুললেন খোদ বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি জানান, জানুয়ারিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে কোচিং প্যানেলের পরিবর্তন আসবে কি না সেই বিষয়ে।

পাপন বলেন, ‘কোচের সঙ্গে দূরত্ব, মনোমালিন্য আপনারা যেমন জানেন, আমিও তেমন জানি। এটা আসল জায়গা থেকে বলতে হবে। তা না হলে লাভ নেই। শোনা যায় অনেক কিছু। কিন্তু আসল জায়গা থেকে যদি না বের হয় তাহলে কোন লাভ নেই।’

‘অধৈর্য্য হওয়ার কিছু নেই। আমাদের হাতে জানুয়ারি মাসটা আছে। এই মাস পর আমরা যা সিদ্ধান্ত নেয়ার তা নেব,’ তিনি যোগ করেন।

এখন প্রশ্ন জাগতে পারে এতো কিছু জানার পরও কেন চুক্তি নবায়ন করা হল ডমিঙ্গোর সঙ্গে? উত্তরে বিসিবি বস জানালেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত অন্য কোনো কোচের স্লট খালি না থাকায় বাধ্য হয়েই চুক্তি নবায়ন করেছে বোর্ড।

পাপন বলেন, ‘বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগ মুহূর্তে রাসেল ডমিঙ্গো আমাদের কাছে লিখিতভাবে জানায় যে তার একটা ভালো প্রস্তাব আছে। যদি আমরা তাকে নতুন চুক্তির আওতায় নিয়ে আসি তাহলে সে থাকবে। আর যদি না করি তবে সে ঐ ঝুঁকির মধ্যে থাকবে না।’

জোর গুঞ্জন, নিউজিল্যান্ড সিরিজের পরই শেষ হতে যাচ্ছে রাসেল ডমিঙ্গো অধ্যায়ের।

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন

দ্রুত ১০ উইকেট তুলে নিতে চান মিরাজ

দ্রুত ১০ উইকেট তুলে নিতে চান মিরাজ

আবদুল্লাহ শফিককে ফিরিয়ে তাইজুলের উল্লাস। ছবি: এএফপি

প্রথম দিন বোলিং ইউনিট থেকে খুব একটা সমর্থন না পেলেও দ্বিতীয় দিনে বোলাররা পারফর্ম করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন জাতীয় দলের স্পিনার মেহেদি মিরাজ। একই সঙ্গে বোলারদের সম্মিলিত পারফরম্যান্সের মাধ্যমে দ্রুত প্রতিপক্ষকে অলআউট করতে চান তিনি।

সিরিজের প্রথম টেস্টে হেরে ঢাকা টেস্টে জয়ে ফিরতে মরিয়া বাংলাদেশ। অধরা এক জয়ের লক্ষ্যে সিরিজের শেষ টেস্টে টসে হেরে বোলিং করছে টাইগাররা।

প্রথম দিনের খেলায় পাকিস্তানের মাত্র দুই উইকেট তুলে নিতে সক্ষম হয়েছে স্বাগতিক বোলাররা। আলোকস্বল্পতার কারণে ৩৩ ওভার ও এক সেশন আগে শেষ করা হয় দিনের খেলা।

প্রথম দিন বোলিং ইউনিট থেকে খুব একটা সমর্থন না পেলেও দ্বিতীয় দিনে বোলাররা পারফর্ম করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন জাতীয় দলের স্পিনার মেহেদি মিরাজ। একই সঙ্গে বোলারদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দ্রুত প্রতিপক্ষকে অল আউট করতে চান তিনি।

দিনশেষে সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানান মিরাজ।

মিরাজ বলেন, ‘যেহেতু বোলিং করছি, তাই আমাদের বোলিংয়ের দিকে ফোকাস করা উচিত। আমাদের এখন ১০ উইকেট নিতে হবে। ১০ উইকেট নেয়ার পর যত রান হয় তখন ব্যাটসম্যানরা পরিকল্পনা করব কিভাবে সেটি করতে হবে।’

প্রথম টেস্টে বোলাররা দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখালেও দলকে সাপোর্ট দিতে ব্যর্থ হন ব্যাটসম্যানরা। দ্বিতীয় টেস্টে এসে দুই ইউনিটের যৌথ প্রয়াসের মাধ্যমে পাকিস্তানকে হারিয়ে পরাজয়ের বৃত্ত ভাঙবে বাংলাদেশ, এমনটাই আশাবাদ মিরাজের।

মিরাজ বলেন, ‘দেখেন টেস্ট ম্যাচে খেলতে হলে ২০ উইকেটও নিতে হবে। দিন শেষে রানও করতে হবে। দুইটাই খুব গুরুত্বপূর্ণ। যদি টেস্ট ম্যাচ জিততে হয় তাহলে আমাদের বোলারদেরও উইকেট নিতে হবে এবং ব্যাটসম্যানদেরও রান করতে হবে।’

তিনি যোগ করেন, ‘দুই ইউনিটের ভালো কো-অপারেশনে আমরা ম্যাচটা জিততে পারব। বোলাররা যেভাবে তাদের দায়িত্বটা পআলন করছে, ব্যাটসম্যানরা যদি সেভাবে রান করতে পারি তাহলে বিষয়টা সহজ হবে।’

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন

ছুটি চাওয়ার পরও নিউজিল্যান্ড সিরিজের দলে সাকিব

ছুটি চাওয়ার পরও নিউজিল্যান্ড সিরিজের দলে সাকিব

অনুশীলনে সাকিব আল হাসান। ছবি: এএফপি

নিউজিল্যান্ড সিরিজ থেকে ছুটি চেয়ে রেখেছিলেন অনেক আগে। কিন্তু তারপরও সাকিবকে রেখে শনিবার নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য ১৮ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

পাকিস্তান সিরিজ শেষ করে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে উড়াল দেবে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। সবকিছু ঠিক থাকলে ৯ ডিসেম্বর নিউজিল্যান্ডের বিমানে উঠবে বাংলাদেশ।

সিরিজের প্রথম টেস্ট মাঠে গড়াবে ১ জানুয়ারি ।

বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এই সিরিজ থেকে ছুটি চেয়ে রেখেছিলেন অনেক আগে।

তারপরও সাকিবকে রেখে শনিবার নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য ১৮ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

ছুটি চাওয়ার পরও কেন তিনি দলে সে প্রশ্নের উত্তরটা দিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। জানালেন আনুুুষ্ঠানিভাবে ছুটির কথা জানালে বিষয়টি আমলে নেবে বোর্ড।

পাপন বলেন, ‘আনুষ্ঠানিকভাবে সে কিছু বলেনি, অনানুষ্ঠানিক ভাবে আমাকে খবর দিয়েছে (নিউজিল্যান্ড না যাওয়ার ব্যাপারে)। আমি বলেছি না, আনুষ্ঠানিকভাবে জানাতে হবে, তারপরে দেখব। দেখি কি ব্যাখ্যা, কারণ তো একটা দিতে হবে।’

বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, সাকিব শনিবার দিনের খেলা শেষ হওয়ার পর বিসিবির কাছে লিখিতভাবে ছুটি চেয়েছেন। কিন্তু বিসিবি এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কিছু জানায়নি।

আনুষ্ঠানিকভাবে জানালেও সাকিবের ছুটি পাওয়ার সম্ভাবনা অনিশ্চিত। যার আভাস মিলল বিসিবি বসের কথায়।

পাপন বলেন, ‘সাকিব থাকলে হয় ব্যাটিং বা বোলিং অবদান রাখতে পারত। দলের ভারসাম্য থাকত। আর সাকিবের তো বিকল্প নেই এটা সব সময় বলে এসেছি আপনাদের। এই মুহূর্তে তার বিকল্প নাই।’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ চলাকালীন হ্যামস্ট্রিংয়ের ইনজুরিতে পড়েছিলেন সাকিব। সেই ইনজুরি তাকে ছিটকে দিয়েছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকেও।

ইনজুরি কাটিয়ে ফিরলেও বিসিবির সবুজ সংকেত না মেলায় খেলা হয়নি পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছেন দেশের ক্রিকেটের এই পোস্টারবয়।

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন

আজাজের রেকর্ডের পরও এগিয়ে ভারত

আজাজের রেকর্ডের পরও এগিয়ে ভারত

সতীর্থদের সঙ্গে উইকেট উদযাপন করছেন ভারতের স্পিনার আশউইন। ছবি: আইসিসি

আজাজ প্যাটেলের ইনিংসে ১০ উইকেটের সুবাদে ভারতকে ৩২৫ রানে অলআউট করে দেয় নিউজিল্যান্ড। এরপর নিজেরা ৬২ রানে গুটিয়ে যায়। দিনশেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৬৯।

মুম্বাই টেস্টে দ্বিতীয় দিনের শুরুটা নিজের করে নেন নিউজিল্যান্ডের স্পিনার আজাজ প্যাটেল। ভারতের প্রথম ইনিংসে ১০ উইকেটের সবগুলো শিকার করে নাম লেখান রেকর্ড বইয়ে।

৪৭.৫ ওভার বল করে ১১৯ রানে ১০ উইকেট নেন আজাজ। ইংল্যান্ডের জিম লেকার ও ভারতের অনিল কুম্বলের পর টেস্ট ইতিহাসের তৃতীয় বোলার হিসেবে এই কীর্তি গড়েন তিনি।

ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টেস্টের প্রথম দিন চার উইকেট নিয়েছিলেন প্যাটেল। দ্বিতীয় দিন নেন বাকি ছয়টি। ২২১ রানে দিন শুরু করে ৩২৫ রানে গুটিয়ে যায় ভারত।

এরপর শুরু হয় আরেক চমক। ভারতের বোলিং আক্রমণের সামনে তাসের ঘরের মতো ভেঙ্গে পড়ে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং। ২১ ওভারে ৬২ রানে গুটিয়ে যায় ব্ল্যাকক্যাপস।

ভারতের হয়ে রভিচন্দ্রন আশউইন ৮ রানে ৪টি ও মোহাম্মদ সিরাজ ১৯ রানে ৩টি উইকেট নিয়ে ধসিয়ে দেন সফরকারীদের লাইনআপ।

ফলে ২৬৩ রানের লিড পায় ভারত। নিউজিল্যান্ডকে ফলোঅনে না পাঠিয়ে অধিনায়ক ভিরাট কোহলি দ্বিতীয়বার ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন।

দ্বিতীয়বার ব্যাট করতে নেমে দিনশেষে কোনো উইকেট না হারিয়ে বোর্ডে ৬৯ রান তুলেছে স্বাগতিক দল।

ভারতের লিড দাঁড়িয়েছে ৩৩২ রানের।

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন

নিউজিল্যান্ড সফরের দল থেকে বাদ সাইফ

নিউজিল্যান্ড সফরের দল থেকে বাদ সাইফ

টাইফয়েড আক্রান্ত হয়ে দল থেকে বাদ সাইফ হাসান (ডানে)। ফাইল ছবি

দুই টেস্টের দল থেকে বাদ পড়েছেন টাইফয়েড আক্রান্ত ওপেনার সাইফ হাসান। রাখা হয়েছে পাকিস্তান সিরিজে দলে প্রথম ডাক পাওয়া ইয়াসির রাব্বি, মাহমুদুল হাসান জয় ও অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা নাঈম শেখকে।

পাকিস্তানের সঙ্গে সিরিজ শেষ করেই নিউজিল্যান্ড সফরের বিমানে চাপছে বাংলাদেশ দল। ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিন সফরের দুই টেস্টের জন্য মুমিনুল হকের নেতৃত্বে ১৮ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

দুই টেস্টের দল থেকে বাদ পড়েছেন টাইফয়েড আক্রান্ত ওপেনার সাইফ হাসান। রাখা হয়েছে পাকিস্তান সিরিজে দলে প্রথম ডাক পাওয়া ইয়াসির রাব্বি, মাহমুদুল হাসান জয় ও অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা নাঈম শেখকে।

অভিজ্ঞ সাকিব আল হাসানও আছেন স্কোয়াডে। চোট কাটিয়ে ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশ দলে ফিরেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

চোট থেকে সেরে মাঠে ফেরার অপেক্ষায় থাকা তাসকিন আহমেদও দলের সঙ্গে যাচ্ছেন নিউজিল্যান্ড।

৯ ডিসেম্বর নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশে রওনা হচ্ছে বাংলাদেশ দল। ১ জানুয়ারি থেকে মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের বে ওভালে শুরু হচ্ছে প্রথম টেস্ট।

দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে ৯ জানুয়ারি।

নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক রুম কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা থাকলেও সেটিতে শিথিলতা এনেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। ১৪ দিনের জায়গায় টাইগারদের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে তিন থেকে চার দিন।

বাংলাদেশ দল: মুমিনুল হক, সাদমান ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, নুরুল হাসান সোহান, ইয়াসির রাব্বি, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, আবু জায়েদ রাহি, এবাদত হোসেন, শরিফুল ইসলাম, খালেদ আহমেদ, শহীদুল ইসলাম, মাহমুদুল হাসান জয় ও নাঈম শেখ।

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন

মাঠে আসেননি বাংলাদেশি পাকিস্তান সমর্থকরা

মাঠে আসেননি বাংলাদেশি পাকিস্তান সমর্থকরা

শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের বাইরে বাংলাদেশি পাকিস্তানি সমর্থক প্রতিহতের ডাক দেয় ‘পাকিস্তানি দালাল রুখবে তারুণ্য’। ছবি: নিউজবাংলা

তবে পাকিস্তানের কোনো নাগরিক তার নিজ দেশের সমর্থনে মাঠে এলে কোনো ধরনের বাধা দেবেন না বলে জানিয়েছে ‘পাকিস্তানি দালাল রুখবে তারুণ্য’।

‘হোম অফ ক্রিকেট’ নামে পরিচিত শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-পাকিস্তান চলমান সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনে দেখা যায়নি কোনো বাংলাদেশি পাকিস্তানি সমর্থককে।

এদিন বাংলাদেশের কেউ পাকিস্তানি পতাকা নিয়ে এলে বা জার্সি পরলে প্রতিরোধের ঘোষণা দিয়েছিল ‘পাকিস্তানি দালাল রুখবে তারুণ্য’ নামের একটি সংগঠন। এর আগেও তারা ঢাকায় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ ও চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত প্রথম টেস্টে অবস্থান নিয়েছিল।

সংগঠনটির আহ্বায়ক হামজা রহমান অন্তরের নেতৃত্বে শনিবার সকাল ১০টা থেকে জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের বাইরে অবস্থান নেয় তারা। ব্যানার হাতে অবস্থান নিয়ে মুক্তিযুদ্ধে নারকীয় গণহত্যার জন্য পাকিস্তানকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানায়।

হামজা রহমান অন্তর জানান, তারা বিকেল ৫টা পর্যন্ত মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অবস্থান নিয়ে পাকিস্তানি জার্সি ও পতাকাবাহীদের প্রতিহত করবেন।

অন্তর নিউজবাংলাকে বলেন, ‘তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ও প্রথম টেস্টে সফল কর্মসূচির পর আজ মিরপুর মাঠে একজন বাংলাদেশি পাকিস্তান সমর্থকও পাকিস্তানের জার্সি-পতাকা নিয়ে আসেনি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, মহান বিজয়ের মাসে এটি একটি অর্জন। যেহেতু আমাদের বার্তাটা তাদের কাছে পৌঁছাতে পেরেছি।’

তাদের আহ্বানে সাড়া দেয়ায় সবার প্রতি শুভেচ্ছাও জানিয়েছে তারা।

তবে পাকিস্তানের কোনো নাগরিক তার নিজ দেশের সমর্থনে মাঠে আসলে কোনো ধরনের বাধা দেবেন না বলে জানিয়েছে ‘পাকিস্তানি দালাল রুখবে তারুণ্য’।

অন্তর বলেন, ‘বাংলাদেশে এসে অবশ্যই তারা তাদের নিজ পতাকা, জার্সি পরতে পারে। আমরা শুধু বাংলাদেশের নাগরিকদের পাকিস্তানের পক্ষাবলম্বনের নামে রাষ্ট্রদ্রোহ অপরাধের বিপক্ষে।’

মাঠের চিত্র দেখে আপাতত কর্মসূচি স্থগিত করেছেন সংগঠনটি। তবে গ্যালারিতে নজর রাখবে তারা।

হামজা বলেন, ‘যদি পাকিস্তানের বাংলাদেশি সমর্থকদের আস্ফালন চোখে পড়ে তবে আমরা আবার মাঠে ফিরে আসব।’

আরও পড়ুন:
সকালে ঢাকায় আসছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল
বিসিএল হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে
লঙ্কান প্রিমিয়ারে লিগে তাসকিনসহ ৫ বাংলাদেশি
জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের
দেশের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ানের মৃত্যু

শেয়ার করুন