স্কটিশদের তুলোধুনো করে টিকে রইল ভারত

স্কটিশদের তুলোধুনো করে টিকে রইল ভারত

ভারতের জয়ের দুই নায়ক রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুল। ছবি: এএফপি

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষের ম্যাচের আগে ভারতের রান রেট ছিল ০.০৭৩। আর ম্যাচের পর সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১.৬১৯ এ। যা কিনা টেবিলের দুইয়ে থাকা নিউজিল্যান্ডের চেয়ে ০.৩৪২ বেশি।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের প্রথম দুই ম্যাচে পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে সেমি ফাইনাল খেলার স্বপ্নটা বেশ ম্লান হয়ে গিয়েছিল ভারতের। কিন্তু পরের ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত এক জয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দেয় ভিরাট কোহলির দল।

শুক্রবার নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ উইকেটের বড় জয়ে সেমিতে খেলার লড়াইয়ে ভালোভাবে ফিরল সাবেক চ্যাম্পিয়নরা।

স্কটল্যান্ডের দেয়া ৮৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৮১ বল অক্ষত রেখেই ৮ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ভারত।

যার সুবাদে ভারত অনেকটাই কাটিয়ে উঠল রানরেটের বিপত্তিকে।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষের ম্যাচের আগে ভারতের রান রেট ছিল ০.০৭৩। আর ম্যাচের পর সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১.৬১৯ এ। যা কিনা টেবিলের দুইয়ে থাকা নিউজিল্যান্ডের চেয়ে ০.৩৪২ বেশি।

সেই পরিসংখ্যানে ভারত নিজেদের শেষ ম্যাচে নামিবিয়ার বিপক্ষে জয় পেলে গ্রুপ রানার আপ অবস্থানে চলে আসবে। তবে সেখানেও আছে যদি-কিন্তুর মারপ্যাঁচ। ভারতের শেষ ম্যাচে জয়ের সঙ্গে প্রার্থনা করতে হবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের পরাজয়।

নিউজিল্যান্ড যদি তাদের নিজেদের শেষ ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে জয় পায় তাহলে তাদের পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়াবে আট। আর ভারত নামিবিয়ার বিপক্ষে জয় পেলে তাদের পয়েন্ট হবে ৬। ফলে দুই পয়েন্টে পিছিয়ে থাকায় টেবিলের তিনে থেকে বিশ্বকাপ মিশনের সমাপ্তি টানতে হবে কোহলিদের।

অপরদিকে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হেরে গেলে তিনে নেমে যাবে নিউজিল্যান্ড। যার ফলে কপাল খুলে যাবে ভারতের।

সহজ লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের ব্যাটিং তাণ্ডবে ৫ ওভারেই ৭০ রান তোলে ভারত। ১৬ বলে ৩০ করে রোহিত ফিরলেও স্কটিশ বোলারদের তুলোধুনো করতে থাকেন রাহুল।

দলীয় ৮২ ও ব্যক্তিগত ১৯ বলে ৫০ রানের ইনিংস খেলে রাহুল যখন বিদায় নেন দল তখন দল জয়ের একেবারে কাছে। বাকি কাজটা সারেন কোহলি ও সুরিয়াকুমার ইয়াদভ মিলে।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রভিন্দ্র জাডেজা ও মোহাম্মদ শামির বোলিং তোপের সামনে শুরু থেকে ধুঁকতে থাকে স্কটিশ ব্যাটাররা।

ওপেনার জর্জ মানসি করেন ২৪। ক্যালাম ম্যাকলয়েড করেন ১৬। মাইকেল লিস্কের ব্যাট থেকে আসে ২১। আর মার্ক ওয়াট করেন ১৪।

১৭.৪ ওভারে মাত্র ৮৫ রানে থামে স্কটল্যান্ডের ইনিংসের চাকা।

ভারতের হয়ে তিনটি করে উইকেট শিকার করেন রভিন্দ্র জাডেজা ও মোহাম্মদ শামি। পাশাপাশি জাসপ্রিত বুমরাহ নেন দুটি ও রভিচন্দ্রন আশউইন নেন একটি উইকেট।

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ভারতের বিপক্ষে টাইগার ‍যুবাদের বড় জয়

ভারতের বিপক্ষে টাইগার ‍যুবাদের বড় জয়

ফাইল ছবি।

ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ বি-দলের বিপক্ষে বিশাল জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশের যুবারা। ১১৩ রানে জয় পেয়েছে জুনিয়র টাইগাররা। অনবদ্য সেঞ্চুরি উপহার দেন বাংলাদেশের নওরোজ প্রান্তিক।

প্রথম ম্যাচে জয়ের পর ট্রায়াঙ্গুলার সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ বি-দলের বিপক্ষে বিশাল জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশের যুবারা। ১১৩ রানে জয় পেয়েছে জুনিয়র টাইগাররা।

অনবদ্য সেঞ্চুরি উপহার দেন বাংলাদেশের নওরোজ প্রান্তিক।

আগামী বছরের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে মাঠে নামার আগে প্রস্তুতি সারছে বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে আফগানিস্তান সিরিজ শেষে এখন ত্রিদেশীয় সিরিজ।

কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু করে বাংলাদেশ।

ওপেনার ইফতেখার হোসেইনের ৫৭, প্রান্তিকের ১০১ রানের অনবদ্য ইনিংস আর মেহেরব হাসানের ৭০ রানের অপরাজিত ফিফটিতে ছয় উইকেটে ৩০৫ রান তোলে বাংলাদেশ।

পাহাড়সম টার্গেটে নেমে ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারাতে থাকে ভারত। দলের সর্বোচ্চ ইনিংস আসে কুশল তাম্বের ব্যাট থেকে। তার ৪২ ছাড়া কেউই বাংলাদেশের বোলারদের দাপটের সামনে ব্যাট হাতে দাঁড়িয়ে থাকতে পারেনি।

দলীয় ১৯২ রানে অলআউট হয়ে যায় ভারত। একাই চার উইকেট তুলে নেন বাংলাদেমের আরিফুল ইসলাম। দুটি উইকেট পান নয়ন। একটি করে উইকেট তুলে নেন আশিক, সাকিব, মেহেরব ও অধিনায়ক রাকিব।

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন

২৪ ধাপ উন্নতি লিটনের, সেরা ২০-এ মুশফিক

২৪ ধাপ উন্নতি লিটনের, সেরা ২০-এ মুশফিক

বাংলাদেশের হয়ে উইকেটে লিটন-মুশফিক জুটি। ছবি: এএফপি

চট্টগ্রামে প্রথম ইনিংসে ক্যারিয়ার সেরা ১১৪ রানের ইনিংস খেলার পর দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৯ রান করেন তিনি। অনবদ্য এ পারফরম্যান্সের পুরস্কারও পেয়েছেন লিটন। এ উইকেটকিপার ব্যাটার ২৪ ধাপ এগিয়ে আছেন ৩১ নম্বরে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশ হারলেও ব্যক্তিগত নৈপূণ্যের স্বীকৃতি পেয়েছেন টাইগারদের সেরা তিন পারফরমার। লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম ও তাইজুল ইসলামের উন্নতি হয়েছে আইসিসি টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে।

আইসিসির বুধবার প্রকাশিত হালনাগাদ করা র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশি ব্যাটারদের মধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে মুশফিকুর রহিম। পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৯১ রান করা এ অভিজ্ঞ তারকা আছেন ১৯ নম্বরে। আগের অবস্থানের চেয়ে তিন ধাপ এগিয়েছেন তিনি।

সবচেয়ে উন্নতি হয়েছে লিটন দাসের। চট্টগ্রামে প্রথম ইনিংসে ক্যারিয়ার সেরা ১১৪ রানের ইনিংস খেলার পর দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৯ রান করেন তিনি। অনবদ্য এ পারফরম্যান্সের পুরস্কারও পেয়েছেন লিটন। এ উইকেটকিপার ব্যাটার ২৪ ধাপ এগিয়ে আছেন ৩১ নম্বরে।

আর বোলারদের মধ্যে বাংলাদেশে সবার ওপরে আছেন তাইজুল ইসলাম। চট্টগ্রাম টেস্টের দুই ইনিংসে ৮ উইকেট নেয়া এ স্পিনার তিন ধাপ এগিয়ে আছেন ২৩ নম্বরে।

আর বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হওয়া আবিদ আলি উন্নতি করেছেন ২৮ ধাপ। ২০ নম্বরে আছেন এ পাকিস্তানি ওপেনার।

আইসিসি টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ের ব্যাটিং, বোলিং ও অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ের সেরা তিন অবস্থানে আছেন জো রুট, প্যাট কামিন্স ও জেসন হোল্ডার।

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন

টাইফয়েড আক্রান্ত সাইফ হাসান

টাইফয়েড আক্রান্ত সাইফ হাসান

বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে নাজমুল শান্তর সঙ্গে সাইফ হাসান (ডানে)। ছবি: এএফপি

টাইফয়েড ধরা পড়েছে সাইফের। ফলে ঢাকায় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে খেলা হচ্ছে না ২৩ বছর বয়সী এ ব্যাটারের। বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।

ব্যাট হাতে সময়টা ভালো যাচ্ছে না সাইফ হাসানের। পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম দুই টি-টোয়েন্টিতে ০ ও ১ রান করার পর টেস্ট ম্যাচেও রান পাননি।

চট্টগ্রাম টেস্টের দুই ইনিংসে ১৪ ও ১৮ রান করেন এই তরুণ ওপেনার। ঢাকা টেস্টের আগে আরেকটি দুঃসংবাদ পেলেন সাইফ।

টাইফয়েড ধরা পড়েছে তার। ফলে ঢাকায় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে খেলা হচ্ছে না ২৩ বছর বয়সী এ ব্যাটারের।

তার টাইফয়েড ধরা পড়ার বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। চট্টগ্রামে সাইফের জ্বর থাকায় তার পরীক্ষা করা হয়। বুধবার তার পরীক্ষার ফলে জানা যায়, টাইফয়েড আক্রান্ত তিনি।

দেবাশীষ বলেন, ‘সাইফের পরীক্ষার ফল এসেছে আমাদের হাতে। তার টাইফয়েড হয়েছে। ফলে ঢাকা টেস্টে তার থাকার সম্ভাবনা নেই।’

ঢাকা টেস্টের জন্য মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ২০ জনের স্কোয়াড ঘোষণা করে বিসিবি। তাতে জায়গা পান সাইফ। তবে তখনও তার পরীক্ষার ফল মেডিক্যাল টিমের কাছে পৌঁছায়নি।

সাইফ না খেললেও, দলে ওপেনার হিসেবে বাড়তি যুক্ত করা হয়েছে নাঈম শেখকে। প্রথমবারের মতো টেস্ট দলে ডাক পেয়েছেন তিনি।

এ ছাড়া সাদমান ইসলাম ও নাজমুল শান্তও রয়েছেন স্কোয়াডে।

বাংলাদেশ স্কোয়াড : মুমিনুল হক, সাদমান ইসলাম, সাইফ হাসান, নাজমুল শান্ত, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, ইয়াসির রাব্বি, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, এবাদত হোসেন, আবু জায়েদ, নাইম হাসান, মাহমুদুল হাসান, রেজাউর রহমান, খালেদ মাহমুদ, শহিদুল ইসলাম ও নাঈম শেখ।

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন

সাকিব, মুস্তাফিজ, রাশিদদের ধরে রাখল না দল

সাকিব, মুস্তাফিজ, রাশিদদের ধরে রাখল না দল

বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে সাকিব ও মুস্তাফিজ। ছবি: এএফপি

আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী আগের মৌসুমের চারজন খেলোয়াড়কে ধরে রাখতে পারবে কোনো দল। যার কারণে দল ছাড়া হয়েছে সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান ও রাশিদ খানের মতো সেরা তারকারা।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) নতুন মৌসুমের আগে রিটেইনার তালিকা প্রকাশ করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। তালিকায় আটটি বর্তমান দল জানিয়েছে তারা কোনো কোনো পুরোনো খেলোয়াড়কে ধরে রাখতে চায়।

আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী আগের মৌসুমের চারজন খেলোয়াড়কে ধরে রাখতে পারবে কোনো দল। যার কারণে দল ছাড়া হয়েছে সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান ও রাশিদ খানের মতো সেরা তারকারা।

গত মৌসুমে কলকাতা নাইট রাইডার্সে (কেকেআর) খেলেন সাকিব। মুস্তাফিজ খেলেন রাজস্থান রয়্যালসে। আর রাশিদ খান খেলেছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদে।

একই সঙ্গে কেএল রাহুল ও হার্দিক পান্ডিয়ার মতো তারকারাও দল ছাড়া হয়েছেন। যারা রিটেইনার তালিকায় নেই তাদের আবার নিলামের মাধ্যমে দলগুলো স্কোয়াকে অন্তর্ভুক্ত করতে পারে।

যাদের রেখে দিয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো:

কেকেআর- আন্ড্রে রাসেল, ভারুন চক্রবর্তি, ভেঙ্কটেশ আইয়ার, সুনিল নারিন

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স- রোহিত শর্মা, জাসপ্রিত বুমরাহ, সুরিয়াকুমার ইয়াদভ, কাইরন পোলার্ড

চেন্নাই সুপার কিংস- রভিন্দ্র জাডেজা, এমএস ধোনি, রুতুরাজ গায়েকোয়াড়, মইন আলি

দিল্লি ক্যাপিটালস- রিশাভ পান্ট, আক্সার পাটেল, পৃথভি শ, আনরিখ নরটিয়া

রাজস্থান রয়্যালস- সাঞ্জু স্যামসন, জস বাটলার, ইয়াসশভি জেইসওয়াল

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর- ভিরাট কোহলি, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মোহাম্মদ সিরাজ

সানরাইজার্স হায়দরবাদ- কেইন উইলিয়ামসন, আবদুল সামাদ, উমরান মালিক

পাঞ্জাব কিংস- মায়াংক আগারওয়াল, আর্শদিপ সিং

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন

দেশে ফিরেছে নারী দল

দেশে ফিরেছে নারী দল

দেশের ফেরার পর বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। ছবি: সংগৃহীত

জিম্বাবুয়ে থেকে নামিবিয়া ও ওমান হয়ে প্রায় তিন দিনের যাত্রা শেষে দেশে ফিরেছে বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো সুযোগ করে নেয়া নারী দল। সাউথ আফ্রিকায় ভ্রমণে বিধিনিষেধের কারণে জোহানেসবার্গ হয়ে ফিরতে পারেননি সালমা-রুমানারা।

ওয়ানডে বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব থেকে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। বুধবার সকাল ৯টায় ঢাকায় ফেরে নিগার সুলতানার স্কোয়াড।

জিম্বাবুয়ে থেকে নামিবিয়া ও ওমান হয়ে প্রায় তিন দিনের যাত্রা শেষে দেশে ফিরেছে বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো সুযোগ করে নেয়া নারী দল। সাউথ আফ্রিকায় ভ্রমণে বিধিনিষেধের কারণে জোহানেসবার্গ হয়ে ফিরতে পারেননি সালমা-রুমানারা।

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের সংক্রমণের কারণে বাতিল করা হয় জিম্বাবুয়েতে আইসিসি নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব। র‍্যাঙ্কিং অনুযায়ী মূল পর্বে সুযোগ পেয়েছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

টুর্নামেন্টের বি-গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ছিল বাংলাদেশ। যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানকে হারায় নিগার সুলতানার দল। হেরে যায় থাইল্যান্ডের কাছে।

তাতে সমস্যায় পড়তে হয়নি রুমানা-সালমাদের। আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকায় প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলবে বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দল।

২০২২ সালের মার্চে নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে নিউজিল্যান্ডে। এরই মধ্যে কোয়ালিফাই করেছে নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, সাউথ আফ্রিকা ও ভারত। তাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছে বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান।

সাউথ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, লেসুটুর মতো দেশগুলোর নাগরিকের ওপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো।

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন

হারের পরও উইকেটের প্রশংসায় মুমিনুল

হারের পরও উইকেটের প্রশংসায় মুমিনুল

হারের পর দলকে নিয়ে মাঠ ছাড়ছেন মুমিনুল হক। ছবি: এএফপি

দলের পেইসার ও ব্যাটাররা এ উইকেটে ব্যর্থ হলেও উইকেটের প্রশংসায় পঞ্চমুখ অধিনায়ক মুমিনুল হক। এমন উইকেট নিয়মিত চান বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

চট্টগ্রাম টেস্টের শুরু থেকে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়তে হয় বাংলাদেশকে। যা বজায় ছিল দ্বিতীয় ইনিংসেও। একমাত্র লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম ছাড়া হাসেনি কারও ব্যাট। পুরো উল্টো চিত্র পাকিস্তান শিবিরে। উইকেট আগলে ব্যাটিং করে গেছেন পাকিস্তানি ব্যাটাররা।

অপরদিকে সাগরিকার ফ্ল্যাট উইকেটে প্রথম ইনিংস থেকে তাণ্ডব চালান শাহিন-হাসান আলিরা। দুই ইনিংস মিলিয়ে বাংলাদেশের ১৬টি উইকেট গেছে পাকিস্তানি পেইসারদের ঝুলিতে।

বাংলাদেশের বোলারদের বলার মতো অর্জন তাইজুলের সাত উইকেট। পেইসাররা ছিলেন এই উইকেটে ছন্নছাড়া।

দলের পেইসার ও ব্যাটাররা এ উইকেটে ব্যর্থ হলেও উইকেটের প্রশংসায় পঞ্চমুখ অধিনায়ক মুমিনুল হক। এমন উইকেট নিয়মিত চান বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুল বলেন, ‘এরকম উইকেট আমার পছন্দ। পুরোপুরি ফ্ল্যাট উইকেট ছিল। ব্যাটারদের জন্য সহায়ক ও পেইস বোলারদের জন্য কঠিন ছিল। তার মানে উইকেট ভালো ছিলো।’

মুমিনুলের দাবি অনুযায়ী উইকেটে ভাল করার কথা ছিল বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। সেই সঙ্গে আধিপত্য বিস্তার করে খেলার কথা ছিল রাহি-এদাবতদের।

বাংলাদেশের দুই পেইসারের পারফরম্যান্স বিবেচনায় দেখা যায় দুই ইনিংসে এবাদত দুটি উইকেট ঝুলিতে পুরলেও শূন্যহাতে থাকতে হয়েছে রাহিকে।

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন

সাকলায়েনের নজর কেড়েছেন তাইজুল

সাকলায়েনের নজর কেড়েছেন তাইজুল

আবিদ আলির উইকেট উদযাপন করছেন তাইজুল ইসলাম। ছবি: এএফপি

ফ্ল্যাট উইকেটে তাইজুলের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স নজর কেড়েছে পাকিস্তানি স্পিন গ্রেট সাকলায়েন মুশতাকের। টেস্টের পর ব্রডকাস্টারদের সঙ্গে আলাপচারিতায় অকপটে তাইজুলকে নিয়ে প্রশংসা করেন সাবেক এ অফস্পিনার।

চট্টগ্রাম টেস্টের পাকিস্তানের প্রথম ইনিংসটা শুরুতে পাকিস্তানের পক্ষে থাকলেও একাই সেটি ছিনিয়ে বাংলাদেশের কোর্টে নিয়ে আসেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। স্পিন ঘূর্ণিতে তছনছ করে দেন পাকিস্তানের ব্যাটিং ইউনিটকে।

প্রথম ইনিংসে সফরকারীরা সুবিধাজনক অবস্থানে থাকার পরও শেষ পর্যন্ত লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে বাংলাদেশ। আর ১১৬ রানের খরচায় ৭ উইকেট নিয়ে এর মূল নায়ক তাইজুল ইসলাম।

ফ্ল্যাট উইকেটে তার এই দুর্দান্ত পারফরম্যান্স নজর কেড়েছে পাকিস্তানি স্পিন গ্রেট সাকলায়েন মুশতাকের। টেস্টের পর ব্রডকাস্টারদের সঙ্গে আলাপচারিতায় অকপটে তাইজুলকে নিয়ে প্রশংসা করেন সাবেক এ অফস্পিনার।

সাকলায়েন বলেন, ‘তাইজুলকে অনেক ভালো মনে হয়েছে। যে জায়গায় আক্রমণ করেছে সেখানে ব্যাটারদের সুযোগ দেয়নি। আলগা বল তো দূরে থাক, সিঙ্গেলও দেয়নি। ওর নিয়ন্ত্রণটা সত্যিই দারুণ মনে হয়েছে।’

প্রশংসার পাশপাশি তাইজুলের বোলিংয়ে উন্নতির জন্য তাকে টোটকাও দিয়েছেন সাবেক এই গ্রেট। ধৈর্য রেখে বোলিংয়ের পাশাপাশি ডেলিভারিতে বৈচিত্র্য আনার পরামর্শ সাকলায়েনের।

পাকিস্তানি এই গ্রেট বলেন, ‘তার আরেকটু ভ্যারিয়েশন আনতে হবে। সেটা তাকে বাড়তি শক্তি দেবে। বাড়তি ওভারস্পিন তাকে অনেক সহায়তা করতে পারে। তবে তার টেম্পারমেন্ট ও ধৈর্য আমার খুব ভালো লেগেছে। নিয়ন্ত্রণটা তাইজুলের মূল শক্তি।’

তাইজুলকে নিয়ে উচ্ছ্বাস ছিল বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের কণ্ঠেও। ম্যাচে বাংলাদেশের সেরা প্রাপ্তি হিসেবে তাইজুলের স্পেলকে ধরছেন অধিনায়ক।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি বলব যে ম্যাচে আমাদের ২-৩টা প্রাপ্তির মধ্যে তাইজুলেরটাই সেরা। এমন ফ্ল্যাট পিচে ৭ উইকেট নেয়া এত সহজ না। ও যে কাজটা করেছে সেটা দুর্দান্ত। গত এক-দেড় বছরে নিজের উন্নতি করতে সে যে কাজ করেছে তা অবশ্যই অন্যদের জন্য অনুপ্রেরণার।’

সাগরিকা টেস্টে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়েও আট উইকেটে হেরেছে ডোমিঙ্গো শিষ্যরা। সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টটি মাঠে গড়াবে ৪ ডিসেম্বর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

আরও পড়ুন:
তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে সাকিব
বড় জয়ে সেমির পথে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড
বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরলেন ক্রিকেটারদের একাংশ
ক্রিকেটারদের বলির পাঁঠা বানাবেন না: মাশরাফি
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ব্রাভোর বিদায়

শেয়ার করুন