ফিরেই দারুণ সাকিব

ফিরেই দারুণ সাকিব

সতীর্থদের সংগে অভিষেক শর্মার উইকেট উদযাপন করছেন সাকিব আল হাসান। ছবি: কেকেআর

সাকিব চার ওভার বল করেছেন। ২০ রান দিয়ে নিয়েছেন অভিষেক শর্মার উইকেট। ডট বল করেছেন ১০টি। বাউন্ডারি হজম করেছেন মাত্র একটি।

প্রথম চার ম্যাচে দর্শক হয়ে ছিলেন। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দ্বিতীয় পর্বের শুরুতে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে প্রয়োজন পড়েনি তার ফ্র্যাঞ্চাইজি কলকাতা নাইট রাইডার্সের (কেকেআর)।

এমন এক দিনে মাঠে নামলেন সাকিব আল হাসান যেদিন আইপিলের ভেন্যু থেকে বহুদূরে পারিবারিক ঝামেলায় আছেন কেকেআরের মালিক।

মুম্বাই পুলিশ রোববার সকালে মাদক লেনদেরনের অভিযোগে জিজ্ঞাসাবাদ করে কেকেআরের মালিক শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানকে।

বলিউড সুপারস্টারের এমন বিপর্যয়ের দিনে, সাকিবের পারফরম্যান্স নিশ্চিত ভাবেই হাসি ফুটিয়ছে ম্যানেজমেন্ট ও কেকেআর সমর্থকদের মনে।

দুবাইয়ে টস জিতে ব্যাট করতে নামা সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে সুযোগ পেয়ে বল হাতে জ্বলে ওঠেন সাকিব।

চার ওভার বল করেছেন। ২০ রান দিয়ে নিয়েছেন অভিষেক শর্মার উইকেট। ডট বল করেছেন ১০টি। বাউন্ডারি হজম করেছেন মাত্র একটি।

সাকিবের সঙ্গে সুনিল নারাইন ও টিম সাউদিদের কিপ্টে বোলিংয়ে ২০ ওভারে আট উইকেট হারিয়ে ১১৫ এর বেশি করতে পারেনি সানরাইজার্স।

জবাবে ধীর গতিতে খেললেও, শেষ পর্যন্ত শুভমান গিলের হাফ সেঞ্চুরিতে দুই বল ও ছয় উইকেট অক্ষত রেখে চার উইকেটের জয় পায় কেকেআর।

এই জয়ে প্লে-অফে খেলার সম্ভাবনা ভালো ভাবেই বাঁচিয়ে রাখল কেকেআর।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন

মন্তব্য

অনেক নাটকের পর বাংলাদেশের স্বস্তির জয়

অনেক নাটকের পর বাংলাদেশের স্বস্তির জয়

সোহানের সংগে উইকেট উদযাপন করছেন সাকিব। ছবি: টুইটার।

বাংলাদেশের দেয়া ১৫৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৯ উইকেটের খরচায় ১২৭ রানে থেমে যায় স্বাগতিকদের ইনিংস। আর সেই সুবাদে বাংলাদেশ পায় ২৬ রানের দুর্দান্ত এক জয়।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হারের পর মূল পর্বে জায়গা করে নেয়ার ক্ষেত্রে শঙ্কা জাগে বাংলাদেশের। খাদের একদম কিনারায় দাঁড়িয়ে মাহমুদুল্লাহ বাহিনী দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামের ওমানের বিপক্ষে।

সেই ম্যাচে দুর্দান্ত জয় বাগিয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার আশা জিইয়ে রাখল লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।

বাংলাদেশের দেয়া ১৫৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৯ উইকেটের খরচায় ১২৭ রানে থেমে যায় স্বাগতিকদের ইনিংস। আর সেই সুবাদে বাংলাদেশ পায় ২৬ রানের দুর্দান্ত এক জয়।

বাংলাদেশের করা ১৫৩ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা ভালো হয়নি ওমানের। দলীয় ১৩ রানে ওপেনার আকিব ইলিয়াসের বিদায়ের পর হাল ধরেন জাতিন্দর সিং।

উইকেটের অপরপ্রান্তে আসা যাওয়ার মিছিল চলতে থাকলেও জাতিন্দর সচল রাখেন দলের রানের চাকা। ১০ ওভারে দুই উইকেটে ৭০ রান করে বেশ ভালোমতো তখনও ম্যাচে টিকে ওমান।

সঙ্গে যোগ হয় টাইগার বোলারদের অগোছাল বোলিং। লাইন-লেংথের ঘাটতির সঙ্গে ছিল প্রতি ওভারে একাধিক বাউন্ডারি বল। তার ভরপুর ফায়দা নেন জাতিন্দর।

৩৩ বলে ৪০ করে সাকিবের বলে লিটনের তালুবন্দি হয়ে জাতিন্দর বিদায় নেয়ার পর ভেঙ্গে পড়ে ওমানের ব্যাটিং লাইন আপ।

বিশেষ করে সাকিব আল হাসানের স্পিনের কোনো জবাব ছিল না আইসিসি সহযোগী দলটির কাছে। ১৭ তম ওভারে পরপর দুই বলে দুই রান নিয়ে স্বাগতিকদের ম্যাচ থেকে ছিটকে দেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

শেষ পর্যন্ত ১২৭ রানেই থামতে হয় ওমানকে। আর সে সুবাদে বাংলাদেশ পায় ২৬ রানের দুর্দান্ত এক জয়।

বাংলাদেশের হয়ে ৪টি উইকেট নেন মুস্তাফিজুর রহমান। সাকিব ঝুলিতে পুরেন তিনটি উইকেট। আর সাইফউদ্দিন ও মাহেদী নেন একটি করে উইকেট।

এর আগে ওমানের এমিরেতস স্টেডিয়ামে টসে হেরে বল করতে নেমে শুরু থেকে ওমান শিবিরে চলছিল ক্যাচ মিসের মহড়া। দলীয় ১১ রানে লিটন দাস সাজঘরে ফেরার আগে তিনটি ক্যাচ ছাড়েন স্বাগতিক ফিল্ডাররা। এর দুটি লিটনের, একটি নাঈম শেখের।

ব্যক্তিগত ৬ রান করে লিটন দাস ফেরার পর শূন্য রানে মাঠ ছাড়েন মাহেদী হাসান।

ধুঁকতে থাকা বাংলাদেশের ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন সাকিব আল হাসান। নাঈমকে সঙ্গে নিয়ে ৮০ রানের দুর্দান্ত এক পার্টানারশিপ গড়ে দলকে নিয়ে যান সুবিধাজনক অবস্থানে।

১৪ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রানআউট হন সাকিব। ২৯ বলে ৪২ রান করেন তিনি।

ব্যাটিং লাইন আপে পরিবর্তন এনে মুশফিকের পরিবর্তে নামানো হয় নুরুল হাসান সোহানকে। রান পাননি তিনি। চার বলে তিন করে মাঠ ছাড়েন।

বড় স্কোর আসেনি আফিফ হোসেনের ব্যাট থেকেও। পাঁচ বলে এক রান করে আউট হন এই ড্যাশার। বড় শট খেলতে গিয়ে আয়ান খানের তালুবন্দি হয়ে বাংলাদেশের হয়ে চলতি বিশ্বকাপের প্রথম অর্ধশতক করে মাঠ ছাড়েন নাঈম।

৫০ বলে ৬৪ রান করেন এই ওপেনার। তার ইনিংসে ছিল চারটি ছক্কা ও তিনটি চার।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মুশফিক উইকেটের পেছনে ধরা দিয়ে ফেরেন ৬ রানে। পরের বলে রানের খাতা খোলার আগে সাজঘরে ফিরতে হয় সাইফউদ্দিনকে।

এরপর বাকি কাজটা সারেন দলপতি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং সাইফউদ্দিন মিলে। শেষ পর্যন্ত সবগুলো উইকেটের খরচায় ১৫৩ রান তুলে মাঠ ছাড়ে ডমিঙ্গো শিষ্যরা।

১০ বলে ১৭ রান করেন মাহমুদুল্লাহ। ওমানের পক্ষে বিলাল খান ও ফাইয়াজ বাট তিনটি করে উইকেট নেন।

ব্যাট বলে অনবদ্য ভূমিকা রাখায় ম্যাচসেরা হয়েছেন সাকিব আল হাসান। বাছাইপর্বে বাংলাদেশের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ বৃহস্পিতিবার পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন

অভিষেকেই নাঈমের ফিফটি

অভিষেকেই নাঈমের ফিফটি

বাংলাদেশের হয়ে উইকেটে সাকিব ও নাঈম। ছবি: টুইটার

পরপর দুই উইকেট হারিয়ে দল যখন বিপর্যস্ত সে সময় সাকিব আল হাসানের সঙ্গে মিলে দুর্দান্ত ৮০ রানের এক জুটি গড়ে নাঈম সুবিধাজনক অবস্থানে নিয়ে যান বাংলাদেশকে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে ওমানকে ১৫৪ রানের লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে বিশ্বকাপে অভিষেক হয়েছে জাতীয় দলের ওপেনার নাঈম শেখের।

নিজের অভিষেকটা দুর্দান্ত রাঙিয়েছেন নাঈম। দলের বিপর্যয়ে দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ের পরিচয় দিয়ে তুলে নিয়েছেন টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের তৃতীয় অর্ধশতক।

একই সঙ্গে এটি নাঈমের বিশ্বকাপে প্রথম অর্ধশতক। চলতি বিশ্বকাপের কোনো বাংলাদেশি ক্রিকেটারের এটি প্রথম অর্ধশতক।

দল যখন পরপর দুই উইকেট হারিয়ে দল যখন বিপর্যস্ত সে সময় সাকিব আল হাসানের সঙ্গে মিলে দুর্দান্ত ৮০ রানের এক জুটি গড়ে নাঈম সুবিধাজনক অবস্থানে নিয়ে যান বাংলাদেশকে।

সাকিবের আউটের পর অপরপ্রান্তে আসা যাওয়ার মিছিল চলতে থাকলেও উইকেট কামড়ে ধরে বসে থাকেন নাঈম। তুলে নেন ব্যক্তিগত অর্ধশতক।

শেষ পর্যন্ত ৫০ বলে ৬৪ করে থামেন তিনি। বড় শট খেলতে গিয়ে খেই হারিয়ে ফেলে আয়ান খানের তালুবন্দি হয়ে কালিমুল্লহের বলে সাজঘরে ফেরেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন

সাকিব-নাঈমের ব্যাটে চ্যালেঞ্জিং স্কোর বাংলাদেশের

সাকিব-নাঈমের ব্যাটে চ্যালেঞ্জিং স্কোর বাংলাদেশের

বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের একটি মুহূর্ত। ছবি: ‍আইসিসি

স্বাগতিক ওমানকে ১৫৪ রানের লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রানের পুঁজি পেয়েছে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। নাঈম ৬৪ ও সাকিব ৪২ রান করেন।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের টিকিয়ে রাখার ম্যাচে স্বাগতিক ওমানকে ১৫৪ রানের লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রানের পুঁজি পেয়েছে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।

ওমানের এমিরেতস স্টেডিয়ামে টসে হেরে বল করতে নেমে শুরু থেকে ওমান শিবিরে চলছিল ক্যাচ মিসের মহড়া। দলীয় ১১ রানে লিটন দাস সাজঘরে ফেরার আগে তিনটি ক্যাচ ছাড়েন স্বাগতিক ফিল্ডাররা। এর দুটি লিটনের একটি নাঈম শেখের।

ব্যক্তিগত ৬ রান করে লিটন দাস ফেরার পর শূণ্য রানে মাঠ ছাড়েন মাহেদী হাসান।

ধুঁকতে থাকা বাংলাদেশের ইনিংস মেরামতের গুরুভার কাঁধে তুলে নেন সাকিব আল হাসান। নাঈমকে সঙ্গে নিয়ে ৮০ রানের দুর্দান্ত এক পার্টানারশিপ গড়ে দলকে নিয়ে যান সুবধাজনক অবস্থানে।

১৪ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রানআউট হন সাকিব। ২৯ বলে ৪২ রান করেন তিনি।

ব্যাটিং লাইন আপে পরিবর্তন এনে মুশফিকের পরিবর্তে নামানো হয় নুরুল হাসান সোহানকে। রান পাননি তিনি। চার বলে তিন করে মাঠ ছাড়েন।

বড় স্কোর আসেনি আফিফ হোসেনের ব্যাট থেকেও। পাঁচ বলে এক রান করে আউট হন এই ড্যাশার। বড় শট খেলতে গিয়ে আয়ান খানের তালুবন্দি হয়ে বাংলাদেশের হয়ে চলতি বিশ্বকাপের প্রথম অর্ধশতক করে মাঠ ছাড়েন নাঈম।

৫০ বলে ৬৪ রান করেন এই ওপেনার। তার ইনিংসে ছিল চারটি ছক্কা ও তিনটি চার।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মুশফিক উইকেটের পেছনে ধরা দিয়ে ফেরেন ৬ রানে। পরের বলে রানের খাতা খোলার আগে সাজঘরে ফিরতে হয় সাইফউদ্দিনকে।

এরপর বাকি কাজটা সারেন দলপতি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং সাইফউদ্দিন মিলে। শেষ পর্যন্ত সবগুলো উইকেটের খরচায় ১৫৩ রান তুলে মাঠ ছাড়ে ডমিঙ্গো শিষ্যরা।

১০ বলে ১৭ রান করেন মাহমুদুল্লাহ। ওমানের পক্ষে বিলাল খান ও ফাইয়াজ বাট তিনটি করে উইকেট নেন।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন

ওমানের বিপক্ষে ঘাম ঝরানো জয় বাংলাদেশের

ওমানের বিপক্ষে ঘাম ঝরানো জয় বাংলাদেশের

জিশান মাকসুদের ক্যাচ নেয়ার পর মুস্তাফিজকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন সতীর্থরা। ছবি: টুইটার

ওমানকে ২৬ রানে হারিয়ে স্বস্তির জয় পেয়েছে টাইগাররা। ১৫৪ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভারে নয় উইকেটে ১২৭ রানের বেশি করতে পারেনি ওমান।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টিকে থাকল বাংলাদেশ। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ওমানকে ২৬ রানে হারিয়ে স্বস্তির জয় পেয়েছে টাইগাররা। ১৫৪ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভারে নয় উইকেটে ১২৭ রানের বেশি করতে পারেনি ওমান।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন

ডু-অর-ডাই ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

ডু-অর-ডাই ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

ম্যাচের আগে টসে দুই দলের অধিনায়ক। ছবি: টুইটার

বাঁচা মরার এই ম্যাচে এক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। জায়গা হারিয়েছেন সৌম্য সরকার। তার পরিবর্তে দলে ঢুকেছেন নাঈম শেখ।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্বে জায়গা করে নেয়ার জন্যে ডু-অর-ডাই ম্যাচে ওমানের বিপক্ষে টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৬ রানে হেরে মূল পর্বে ওঠার সমীকরণটা জটিল করে তুলেছে বাংলাদেশ।

সুপার টুয়েলভে জায়গা করে নিতে ওমান এবং পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে জয় ছাড়া আর রাস্তা নেই তাদের সামনে।

বাঁচা মরার এই ম্যাচে এক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। জায়গা হারিয়েছেন সৌম্য সরকার। তার পরিবর্তে দলে ঢুকেছেন নাঈম শেখ।

অপরদিকে অপরিবর্তিত স্কোয়াড নিয়ে নামছে ওমান।

বাংলাদেশ একাদশ: নাঈম শেখ, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান, সাইফউদ্দিন, মাহেদী হাসান, তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন

পিএনজিকে হারিয়ে মূলপর্বের কাছাকাছি স্কটল্যান্ড

পিএনজিকে হারিয়ে মূলপর্বের  কাছাকাছি স্কটল্যান্ড

বি-গ্রুপ থেকে প্রথম দল হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্বের নিশ্চিত করার একেবারে কাছাকাছি রয়েছে স্কটল্যান্ড। স্কটিশদের দেয়া ১৬৫ রানের জবাবে সবগুলো উইকেটের খরচায় ১৪৮ রান থামে নিউগিনির ইনিংস।

বাছাইপর্বে পাপুয়া নিউগিনিকে (পিএনজি) ১৭ রানে হারিয়ে বি-গ্রুপ থেকে প্রথম দল হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্বের নিশ্চিত করার একেবারে কাছাকাছি রয়েছে স্কটল্যান্ড। স্কটিশদের দেয়া ১৬৫ রানের জবাবে সবগুলো উইকেটের খরচায় ১৪৮ রান থামে নিউগিনির ইনিংস।

ওমানের আল এমিরাত স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে দুই ওপেনারকে হারায় স্কটল্যান্ড।

২৬ রানে ২ উইকেট হারিয়ে খেই হারিয়ে ফেলা দলের হাল ধরেন ম্যাথু ক্রস ও রিচি বেরিংটন। দুজনে মিলে ৯২ রানের জুটি গড়ে দলকে নিয়ে যান সুবিধাজনক অবস্থানে।

আতাইয়ের বলে ৪৫ রান করে ক্রস আউট হলে ভাঙে সেই জুটি। সেই ওভারেই পরপর ফিরে যান ম্যাকলয়েড ও বেরিংটন। তবে উইকেট কামড়ে দলের হয়ে চলতি বিশ্বকাপে প্রথম অর্ধশতক বাগিয়ে নেন বেরিংটন।

শতকের দিকে ছুটতে থাকা বেরিংটনকে থামান সোপার। ৭০ করে তাকে ফেরান আমিনির তালুবন্দি করে। শেষদিকে আর কেউই বড় স্কোর করতে পারেননি। যার ফলে ৯ উইকেটের খরচায় ১৬৫ রানের পুঁজি পায় স্কটল্যান্ড।

পাপুয়া নিউ গিনির হয়ে কাবুয়া মোরিয়া নেন চারটি উইকেট। অপরদিকে চাদ সোপার নেন তিনটি আর সাইমন মোরিয়া নেন একটি উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে নিউগিনি। দলীয় ৩৫ রানেই হারিয়ে বসে তাদের পাঁচ ব্যাটারকে।

দলের বিপর্যয়ে উইকেট কামড়ে ধরে রানের চাকা সচল রাখেন নরম্যান ভানুয়া। কিন্তু অপরপ্রান্ত থেকে খুব একটা সাহায্য না আসায় খুব একটা কার্যকর হয়নি তার ৪৭ রানের ইনিংসটি।

শেষতক ৩ বল বাকি থাকতেই ১৪৮ রানে থেমে যায় পাপুয়া নিউগিনির ইনিংস।

স্কটল্যান্ডের হয়ে চার উইকেট নেন জশ ডেভি। একটি করে উইকেট নেন ব্র্যাড হুইল, এলেসডেইর ইভান্স, মার্ক ওয়াট ও ক্রিস গ্রিভস।

মঙ্গলবারের দ্বিতীয় ম্যাচে যদি ওমান বাংলাদেশকে হারায় তাহলে সরাসরি মূল পর্বে খেলবে স্কটল্যান্ড। আর বাংলাদেশ যদি জেতে তাহলে তিন দলেরই সুযোগ থাকবে মূল পর্বে যাওয়ার।

সেক্ষেত্রে রানরেটে নির্ধারিত হবে চূড়ান্ত অবস্থান।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন

সিলেটকে হারিয়ে এনসিএলে ঢাকার শুভসূচনা

সিলেটকে হারিয়ে এনসিএলে ঢাকার  শুভসূচনা

ঢাকা বনাম সিলেটের ম্যাচের মধ্যকার একটি মুহূর্ত। ছবি: বিসিবি

ম্যাচে ৪৬ রানের খরচায় ১০ উইকেট পেয়েছেন ঢাকা বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। এটি তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার।

জাতীয় লিগের ২৩তম আসরের প্রথম রাউন্ডে সিলেট বিভাগকে ৭ উইকেটে হারিয়ে দুর্দান্ত সূচনা করল ঢাকা বিভাগ।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের অ্যাকাডেমি মাঠে ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট দেখায় ঢাকা বিভাগ। নাজমুল অপুর স্পিন ঘূর্ণিতে সিলেটকে প্রথম ইনিংসে মাত্র ৬৭ রানেই গুটিয়ে দেয় ঢাকা।

জবাবে ঢাকাও খুব একটা ভালো করতে পারেনি। ১৭৬ রান তুলেই থমকে যায় ঢাকা।

দ্বিতীয় ইনিংসেও সিলেটের ব্যাটসম্যানরা ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। ১৭৪ রানেই থেমে যায় তাদের রানের চাকা।

সিলেটকে হারিয়ে এনসিএলে ঢাকার  শুভসূচনা
ম্যাচে ১০ উইকেট পাওয়ার পর উচ্ছ্বসিত ঢাকার স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। ছবি: বিসিবি

ফলে জয়ের জন্য ঢাকার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৬৬ রানের। আর সেই লক্ষ্যে ব্যাট করেতে নেমে ৩ উইকেট হারিয়ে তারা জয় তুলে নেয়।

ম্যাচে ৪৬ রানের খরচায় ১০ উইকেট পেয়েছেন ঢাকা বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। এটি তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার।

শুভাগত হোম দুই ইনিংসে নিয়েছেন ৬টি উইকেট। পাশাপাশি ব্যাটিংয়ে ৫০ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলে অলরাউন্ড নৈপুণ্যে হয়েছেন ম্যাচসেরা।

আরও পড়ুন:
আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব
সাকিবের আইপিএল দলে নেই গেইল-এবিডি
টি-টোয়েন্টি বোলিংয়ে সেরা দশে ফিরলেন সাকিব

শেয়ার করুন