আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা

আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা

শেখ হাসিনা দাবার চ্যাম্পিয়ন ভারতের আন্তর্জাতিক মাস্টার সংকল্প গুপ্ত। ছবি: সাইফুল ইসলাম/নিউজবাংলা

‘জয়তু শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টারস দাবা’ টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে নিয়েছেন ভারতের আন্তর্জাতিক মাস্টার (আইএম) সংকল্প গুপ্ত।শেষ চার রাউন্ড দারুণ খেলে শিরোপা জিতে নেন ১৮ বছর বয়সী এ দাবাড়ু। প্রাইজমানি হিসেবে পেয়েছেন চার হাজার ডলার।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত ‘জয়তু শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টারস দাবা’ টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে নিয়েছেন ভারতের আন্তর্জাতিক মাস্টার (আইএম) সংকল্প গুপ্ত।

নাগপুরের এই তরুণ ২০১৯ সালে আইম নর্ম অর্জন করেন। এবারের আসরের শুরুর দুই রাউন্ডে বেশ খানিকটা পিছিয়ে ছিলেন তিনি।

তবে শেষ চার রাউন্ড দারুণ খেলে শিরোপা জিতে নেন ১৮ বছর বয়সী সংকল্প। প্রাইজমানি হিসেবে পেয়েছেন চার হাজার ডলার।

শিরোপা জেতার পরপরই নিউজিবাংলার সঙ্গে কথা বলেন দাবার এই ভবিষ্যত তারকা। নিউজবাংলার পাঠকদের জন্য তার সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো।

সংকল্প প্রথমেই শুভেচ্ছা টুর্নামেন্ট জেতার জন্য।

অসংখ্য ধন্যবাদ

বাংলাদেশের এই টুর্নামেন্ট সম্বন্ধে কীভাবে জানতে পারলেন?

১০ সেপ্টেম্বর আমার এক বন্ধু কাছ থেকে এই আসরটি সম্পর্কে জানতে পারি। সব কিছু পরিকল্পনা করে ১২ তারিখে আমরা টিকিট কেটে ফেলি বাংলাদেশের।

আপনার দাবা খেলার শুরুটা কীভাবে? কাকে দেখে দাবা খেলার অনুপ্রেরণা পেলেন?

আমি সাড়ে চার বছর বয়সে দাবা খেলা শুরু করি। আমরা একান্নবর্তী পরিবারে থাকি। আমার বড় ভাইদের দাবা শেখাতে আসতেন কোচ সেটা দেখে আমি আগ্রহী হই। ছোটবেলায় ভিশ্বনাথন আনন্দ ও ম্যাগনাস কার্লসেনের মতো দাবাড়ুদের দেখে আরও আগ্রহ পাই।

পড়াশোনার পাশাপাশি দাবার এত ব্যস্ত সূচি কীভাবে মানিয়ে চলেন?

দাবা পড়াশোনায় মনোযোগী হতে সাহায্য করে। আমি ছোটবেলা থেকেই খেলছি তাই আমার কাছে খুব একটা সমস্যা কখনই মনে হয়নি। আমার কলেজ আমাকে খুবই সমর্থন করে। তারা টুর্নামেন্টগুলোর সময় আমাকে সাহায্য করে।

এই টুর্নামেন্টে খেলে কেমন লেগেছে? প্রতিপক্ষ কেমন ছিল?

খেলার আয়োজন খুবই ভালো ছিল। আমার শুরুটা ভালো হয়নি। প্রথম দুটি খেলায় জিততে পারিনি। তবে এরপর থেকে আমার খেলা ভালো হয়েছে। শেষ পর্যন্ত জিততে পেরে আমি খুবই খুশি।

মিত্রভা গুহে ছয় রাউন্ড পর্যন্ত আপনার চেয়ে এগিয়ে ছিল। লড়াইটা কেমন উপভোগ করলেন?

মিত্রভা আমার ভালো বন্ধু। ও যখন টানা পাঁচ খেলা জিতেছিল আর আমি পাঁচ ম্যাচের চারটি জিতেছিলাম। আমার আর ওর খেলাটাই টুর্নামেন্টের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আমি ভালো প্রস্তুতি নিয়েছিলাম আর ভাগ্য ভালো ছিল যে কালো ঘুঁটি নিয়ে খেলেছি। আমি আমার পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পেরেছি।

আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা
শিরোপা জেতার পর প্রাইজমানি গ্রহণ করছেন সংকল্প গুপ্ত। ছবি: সাইফুল ইসলাম/নিউজবাংলা

বাংলাদেশে খেলে কেমন লাগল? আবারও আসবেন কিনা দাবা খেলতে?

এখানে খেলার অভিজ্ঞতা খুবই ভালো ছিল। সবাই খুব বন্ধুসুলভ। আমি নিরামিষভোজী। হোটেল আমার জন্য বিশেষ ভাবে নিরামিষ রান্না করেছে। সুযোগ পেলে আবার আসব।

বাংলাদেশের দাবা সম্বন্ধে খোঁজ খবর রাখেন? এখানকার দাবাড়ুদের কেমন মনে হয়েছে?

আমি বাংলাদেশের দাবাড়ুদের সম্বন্ধে জানি। ২০১৯ সালে গোয়ায় আমি গ্র্যান্ডমাস্টার জিয়াউর রহমানের বিপক্ষে খেলেছি। ব্যক্তিগত ভাবে আমি কাউকে চিনি না। কিন্তু গ্র্যান্ডমাস্টার নিয়াজ মোর্শেদের খেলা আমি ফলো করি।

আন্তর্জাতিক মাস্টার থেকে গ্র্যান্ডমাস্টার হওয়ার প্রস্তুতি কীভাবে নিচ্ছেন?

বেশি বেশি টুর্নামেন্ট খেলব। ভুল ত্রুটি গুলো কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করব। এই টুর্নামেন্টে কী কী ভুল করেছি সেটা নিয়ে কাজ করতে হবে ও সেগুলো ঠিক করতে হবে। এভাবেই চেষ্টা করতে থাকব।

আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা
নিউজবাংলার সঙ্গে কথা বলছেন আন্তর্জাতিক মাস্টার সংকল্প গুপ্ত। ছবি: নিউজবাংলা

আপনার প্রিয় দাবা খেলোয়াড় হিসেবে আনন্দ ও কার্লসেনের কথা বলেছেন, ওদের খেলার কোন দিকগুলো আপনার ভালো লাগে?

কার্লসেন যেভাবে খেলাটা শেষ করে সেটা আমার খুব ভালো লাগে। যেভাবে সে প্রতিপক্ষের একেবারে ছোট ভুলগুলোও ধরতে পারে সেটা অসাধারণ। আর ভিশি (আনন্দ) ভারতে অনেক বড় নাম। সে খুব ভালো হিসেব করে খেলে। আর তার ওপেনিংটা খুবই দারুণ। তাকে আমি দেখেছি কয়েকবার। কিন্তু কখনও কথা হয়নি।

ধন্যবাদ আপনাকে সময় দেয়ার জন্য

নিউজবাংলাকেও ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের সময় সংঘর্ষ, ঝালকাঠিতে আহত ৩

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের সময় সংঘর্ষ, ঝালকাঠিতে আহত ৩

ঝালকাঠির রাজাপুরে ভারত ও পাকিস্তানের ক্রিকেট খেলা দেখার সময় সমর্থকদের সংঘর্ষে ৩ জন আহত হন। ছবি: নিউজবাংলা

প্রত্যক্ষদর্শী হাসনাত মৃধা জানান, আলীম স্টোরে সবাই ভারত-পাকিস্তানের খেলা দেখছিলেন। ভারতের প্রথম উইকেট পতন হলে পকিস্তানের সমর্থক মো. আলমাস ‘জয় পাকিস্তান’ বলে স্লোগান দেন। এ সময় ভারত সমর্থক সুমন মৃধা এ স্লোগানের প্রতিবাদ করলে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত ও পাকিস্তানের ম্যাচ চলাকালে ঝালকাঠির রাজাপুরে সংঘর্ষে তিনজন আহত হয়েছেন।

উপজেলার সাংগর মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন আলীম স্টোরে টেলিভিশনে খেলা দেখার সময় রোববার রাত পৌনে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহত তিনজন হলেন কাশেম মৃধা, কামাল মৃধা ও সুমন মৃধা। তাদের মধ্যে কাশেম ও কামাল সহোদর। সুমন তাদের ফুপাতো ভাই।

প্রত্যক্ষদর্শী হাসনাত মৃধা জানান, আলীম স্টোরে সবাই ভারত-পাকিস্তানের খেলা দেখছিলেন। ভারতের প্রথম উইকেট পতন হলে পকিস্তানের সমর্থক মো. আলমাস ‘জয় পাকিস্তান’ বলে স্লোগান দেন। এ সময় ভারত সমর্থক সুমন মৃধা এ স্লোগানের প্রতিবাদ করলে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়।

একপর্যায়ে আলমাস, জাকির ও জুয়েল উঠে গিয়ে ভারতের সমর্থকদের ওপর হামলা চালান। এতে কাশেম, কামাল ও সুমন আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কাশেমকে ভর্তি রেখে বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

এ বিষয়ে জানতে মো. জুয়েলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি হামলার কথা অস্বীকার করেন।

তিনি জানান, তার ফুপাতো ভাই আলমাস খেলা দেখার সময় ‘জয় পাকিস্তান’ বলায় সুমন মৃধা তাকে গালাগাল করে মারধর করেন।

রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছে, তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন

ক্রীড়ামোদীদের জেগে থাকার রাত

ক্রীড়ামোদীদের জেগে থাকার রাত

বেশ কয়েকটি ম্যাচ হবে আজ রাতে। ছবি: সংগৃহীত

ক্রীড়ামোদীরা শেষ কবে এমন ব্যস্ত দিন পার করেছেন, সেটি সহজে মনে পড়ার কথা নয়। বাস্তবিক অর্থেই তাদের আজ জমে থাকতে হবে টিভি স্ক্রিনের সামনে।

একদিকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচ, অন্যদিকে এল ক্লাসিকোতে রিয়াল মাদ্রিদ-বার্সেলোনার খেলা। এর পাশাপাশি রয়েছে আরও চার ম্যাচ।

এক কথায় বিশেষ এক দিন ২৪ অক্টোবর। আরও খোলাসা করে বলতে গেলে, ২৪ অক্টোবর রাতটা ক্রীড়ামোদীদের।

শুরুতেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। শনিবার থেকে শুরু হওয়া বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের আজ দ্বিতীয় দিন। এ দিন বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় শুরু হবে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচটি।

দিনের দ্বিতীয় খেলায় মাঠে নামবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তান। দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রাত ৮টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

ফুটবলেও রয়েছে বড় ম্যাচের পসরা। ভারত-পাকিস্তান যখন দুবাইয়ে লড়বে, সে সময় ন্যু ক্যাম্পে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে মাঠে নামছে মেসিবিহীন বার্সেলোনা।

এখানেই হয়তো শেষ হতে পারত। কিন্তু তা হয়নি; বরং বেড়েছে আরও রোমাঞ্চ।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে রাত সাড়ে ৯টায় দেখা যাবে লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের দ্বৈরথ। আর ইতালিয়ান সেরি আয় রাত ১০টায় নাপোলির বিপক্ষে নামছে জোসে মরিনিয়োর রোমা।

সে ম্যাচ শেষ হতে না হতে বেলা পৌনে ১টায় মাঠে নামতে যাচ্ছে ইন্টার মিলান ও ইউভেন্তাস। একই সময়ে মাঠে গড়াবে ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে লিওনেল মেসির প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি) ও মার্সেইয়ের মধ্যকার ‘ল্য ক্লাসিক’ খ্যাত ম্যাচ।

ক্রীড়ামোদীরা শেষ কবে এমন ব্যস্ত দিন পার করেছেন, সেটি সহজে মনে পড়ার কথা নয়। বাস্তবিক অর্থেই তাদের আজ জমে থাকতে হবে টিভি স্ক্রিনের সামনে।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন

ঝিনাইদহে শুরু ভাষা সৈনিক মুসা মিয়া দাবা

ঝিনাইদহে শুরু ভাষা সৈনিক মুসা মিয়া দাবা

ঝিনাইদহে বুধবার থেকে শুরু হওয়া প্রতিযোগিতা চলবে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত। ছবি: নিউজবাংলা

বুধবার থেকে শুরু হওয়া এ প্রতিযোগিতা চলবে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত। তিন দিনের এই আসরে ঝিনাইদহ জেলার ১২টি দাবা দলের প্রায় ৭২ জন নবীন ও প্রবীণ দাবাড়ু অংশ গ্রহণ করছেন।

ঝিনাইদহে শুরু হয়েছে ভাষা সৈনিক মুসা মিয়া দাবা লিগ। জাহেদী ফাউন্ডেশনের সহযোগিতা, জেলা পুলিশ ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে বুধবার সকালে শহরের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে লিগের উদ্বোধন করা হয়।

বুধবার থেকে শুরু হওয়া এ প্রতিযোগিতা চলবে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত প্রথম রাউন্ড ও দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৫টা থেকে দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলা অনুষ্ঠিত হবে। তিন দিনের এই আসরে ঝিনাইদহ জেলার ১২টি দাবা দলের প্রায় ৭২ জন নবীন ও প্রবীণ দাবাড়ু অংশ গ্রহণ করছেন।

লিগের উদ্বোধণ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম শাহীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান।

বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলাম, জাহেদী ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সদস্য কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন

আবাহনীকে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তুলল মেরিনার্স

আবাহনীকে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তুলল মেরিনার্স

মেরিনার্সের খেলোয়াড়দের জয়োল্লাস। ছবি: হকি ফেডারেশন

২০১৮ সালে এই আবাহনীর কাছেই ১-০ গোলে হেরে শিরোপার স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল মেরিনার্সের। প্রায় সাড়ে তিন বছর বিরতির পর অনুষ্ঠিত হওয়া ক্লাব হকির টুর্নামেন্টে সেই আবাহনীকে হারিয়েই শিরোপা ঘরে তুলল দলটি।

এসআইবিএল ক্লাব কাপ হকির ফাইনালে আবাহনী লিমিটেডকে ৩-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপার স্বাদ পেল মেরিনার ইয়াংস ক্লাব। শিরোপার মাধ্যমে প্রায় তিন বছর আগের প্রতিশোধ নিল মেরিনার্স।

২০১৮ সালে এই আবাহনীর কাছেই ১-০ গোলে হেরে শিরোপার স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল মেরিনার্সের। প্রায় সাড়ে তিন বছর বিরতির পর অনুষ্ঠিত হওয়া ক্লাব হকির টুর্নামেন্টে সেই আবাহনীকে হারিয়েই শিরোপা ঘরে তুলল দলটি।

মাওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে ম্যাচের ২০ মিনিটেই সোহানুরের ফিল্ড গোলে এগিয়ে যায় মেরিনার্স।

পিছিয়ে পড়ে পাল্টা আক্রমণ শুরু করে আবাহনী। ৫৩ মিনিটে সমতায় ফিরতে পারত তারা। কিন্তু বেলিমাগার হিট জালে ঢুকলেও রেফারির সিদ্ধান্তে সেটি বাতিল ঘোষণা করা হয়।

এরপর প্রায় ২০ মিনিট বন্ধ থাকে খেলা। ভিআরের মাধ্যমেও সিদ্ধান্ত নিতে পারছিলেন না রেফারি। যার ফলে গোল বাতিল করে ফের খেলা শুরু করা হয়।

বিরতির পর যেন তেজ বেড়ে যায় মেরিনারের। ম্যাচের ৫৫ মিনিতে দুর্দান্ত এক রিভার্সে ব্যবধান বাড়ান অভিষেক কুমার।

আবাহনীর কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন শাহানুর ৫৭ মিনিটের মাথায়। তার এই গোলের সুবাদে ৩-০ ব্যবধানের বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মেরিনার্স।

টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পান মেরিনার্সের অভিষেক কুমার। আর ৬টি গোল দিয়ে আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা নির্বাচিত হন একই ক্লাবের মো. মিলন।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন

নিয়াজ মোর্শেদের কাছে ১২ মিনিটও টিকলেন না পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিয়াজ মোর্শেদের কাছে ১২ মিনিটও টিকলেন না পররাষ্ট্রমন্ত্রী

গ্র্যান্ড মাস্টার নিয়াজ মোর্শেদের সঙ্গে শনিবার দাবা খেলায় অংশ নেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। ছবি: নিউজবাংলা

খেলা শুরুর দেড় মিনিটের মধ্যেই মন্ত্রী খোয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এরপর হাতি, ঘোড়া, নৌকাসহ বেশ কিছু সৈন্য হারিয়ে রাজাকে রক্ষায় বিপাকে পড়ে যান তিনি।

রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে শনিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘শেখ রাসেল মেমোরিয়াল র‌্যাপিড চেজ টুর্নামেন্টে ২০২১’ উদ্বোধন শেষে একটি প্রদর্শনী ম্যাচ হয়। তাতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে অংশ নেন গ্র্যান্ড মাস্টার নিয়াজ মোর্শেদ।

খেলা শুরুর দেড় মিনিটের মধ্যেই মন্ত্রী খোয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এরপর হাতি, ঘোড়া, নৌকাসহ বেশ কিছু সৈন্য হারিয়ে রাজাকে রক্ষায় বিপাকে পড়ে যান তিনি। খেলার ১২ মিনিটের মধ্যেই আন্তর্জাতিক দাবাড়ু নিয়াজ মোর্শেদের চালে আটকে যায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর রাজা। সব শেষ মন্ত্রী ছাড়া রাজাকে রক্ষা করা যে কঠিন, সেটি বলে হাসতে হাসতে খেলা শেষ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ওই সময় নিয়াজ মোর্শেদ বলেন, ‘দীর্ঘদিন পর হলেও আপনি বেশ ভালো খেলেছেন।’ পরে উপস্থিত সবাই মন্ত্রীকে উৎসাহ দেন।

এর আগে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দাবা বুদ্ধির খেলা, মজার খেলা। যারা এটা খেলতে পারে, তারা কিন্তু কৌশল নির্ণয়ে ভালো হয়। এটা খুবই প্রয়োজন।

‘বিশেষ করে আমাদের যারা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আছেন, আমি তাদের অনুরোধ করব।’

নিজের দাবা খেলার অভিজ্ঞতা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি যখন ছাত্র ছিলাম তখন দাবা খেলতাম। ১৯৭১ সালে যুদ্ধের সময় আমি শেষ দাবা খেলেছি। ১৯৭১ সালে আমরা যখন শহর থেকে পালিয়ে গ্রামে যাই, আশ্রয় নিই বিভিন্ন জায়গায়, তখন আমরা সময় কাটাতাম দাবা খেলে।

‘আমার ধারণা যারা দাবা খেলে, তাদের আইকিউ (বুদ্ধিমত্তা) খুব শার্প। আমি শুনেছিলাম, দাবা চ্যাম্পিয়ন গ্যারি কাসপারভের নাকি আইকিউ ছিল ১৫০ প্লাস। বিজ্ঞানী আইনস্টাইনের পরেই নাকি তার অবস্থান। আইনস্টাইনের আইকিউ ছিল ২০৫।’

মোমেন বলেন, ‘আমি যেটা শুনেছি এই দাবা খেলা আমাদের এই ভারতবর্ষে সপ্তম শতাব্দীতে শুরু হয়। তারপর আরব-পার্সিরা যখন এখানে আসে, তারা খেলাটি শেখে। এরপর দাবা খেলা চলে যায় আরব দেশে। সেখান থেকে চলে যায় দক্ষিণ ইউরোপে। প্রাতিষ্ঠানিকভাবে সম্ভবত ১৫০০ বা ১৬০০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে শুরু হয়। এরপর ১৮৮৬ সালে প্রথম এটি গেম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়।’

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন, চেজ ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শাহাবুদ্দিন শামীম, গ্র্যান্ড মাস্টার নিয়াজ মোর্শেদ ও জিয়াউর রহমান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে দাবা খেলায় ৩০ জন অফিসার অংশ নেন।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন

হবিগঞ্জ মোহামেডানে দ্বন্দ্ব, ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন স্থগিত

হবিগঞ্জ মোহামেডানে দ্বন্দ্ব, ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন স্থগিত

ছবি: সংগৃহীত

সম্প্রতি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচনী তফসিল ঘোষিত হলে ক্লাবটির প্রতিনিধিত্ব নিয়ে এ দ্বন্দ্ব প্রকট আকার ধারণ করে। গঠিত হয় আখলাক হোসেন মানু-জয়নাল আবেদীন ও সালাউদ্দিন আহমেদ ও টিটু সালাউদ্দিনের নেতৃত্বে পৃথক দুটি কমিটি।

নেতৃত্বের দ্বন্দ্বে আটকে গেছে হবিগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন। খসড়া ভোটার তালিকা নিয়ে আপিল-আপত্তির কারণে তফসিল স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

সংবাদ বিজ্ঞতির মাধ্যমে বৃহস্পতিবার রাতে তফসিল স্থগিত করেন সহকারী কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনার শামছুদ্দিন মো. রেজা।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, হবিগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার ২০২১-২০২৫ মেয়াদে কার্যনির্বাহী পরিষদ গঠনের লক্ষ্যে গত ৪ অক্টোবর নির্বাচনি তফসিল ঘোষণা করা হয়। এরপর প্রকাশিত হয় খসড়া ভোটার তালিকা। শহরের মোহামেডান স্পোটিং ক্লাবের প্রতিনিধি হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হন সদ্য ঘোষিত কমিটির (একাংশের) সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন। এতে আপত্তি জানান একই ক্লাবের অপর কমিটির প্রতিনিধি দাবিদার আব্দুল মোতালিব মমরাজ।

আপত্তি শুনানির সময় উভয় ব্যক্তির ভোটাধিকার (প্রতিনিধিত্ব) বাতিল করে নির্বাচন কমিশন। এতে সন্তুষ্ট হননি কেউই। আপিল করা হয় সিলেট বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে। বিষয়টি বর্তমানে শুনানীর অপেক্ষায় রয়েছে। এ অবস্থায় স্বাভাবিক কারণে ঘোষিত তফসিল স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন।

অনুসন্ধানে নিউজবাংলা জানতে পারে, মোহামেডান স্পোটিং ক্লাবের ১৯ সদস্যের কার্যকরী কমিটির সাধারণ সম্পাদক, যুগ্ম-সম্পাদকসহ চার জন দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসে। নিস্ক্রিয় আছেন আরও দুই সদস্য। মৃত্যুবরণ করেছেন সভাপতি তকাম্মুল হোসেন কামাল। এ সুযোগে কার্যকরী কমিটিতে শুরু হয় নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব।

সম্প্রতি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচনী তফসিল ঘোষিত হলে ক্লাবটির প্রতিনিধিত্ব নিয়ে এ দ্বন্দ্ব প্রকট আকার ধারণ করে। গঠিত হয় আখলাক হোসেন মানু-জয়নাল আবেদীন ও সালাউদ্দিন আহমেদ ও টিটু সালাউদ্দিনের নেতৃত্বে পৃথক দুটি কমিটি। ক্লাবটির প্রতিনিধিত্ব করার জন্য ‘মানু-জয়নাল’ গ্রুপ থেকে জয়নাল আবেদীন ও ‘টিটু-সালাউদ্দিন’ গ্রুপ থেকে আব্দুল মোতালিব মমরাজের নাম পাঠানো হয় নির্বাচন কমিশনে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ‘মানু-জয়নাল’ গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘গঠনতন্ত্র মেনে আমরা নয় সদস্যের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে কমিটি গঠন করেছি। খসড়া ভোটার তালিকায় আমার নাম অন্তর্ভূক্ত ছিল। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে শুনানীতে আমাকে না ডেকে ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। বিষয়টি মাননীয় সিলেট বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে আপিল করেছি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমাদের কমিটি বৈধ ও আমিই মোহামেডানের প্রতিনিধিত্ব করার যোগ্য দাবিদার।’

‘টিটু-সালাউদ্দিন’ গ্রুপের প্রতিনিধি দাবিদার সাবেক পৌর কমিশনার আব্দুল মোতালিব মমরাজ বলেন, ‘আমাদের আপত্তিতে উভয়ের ভোটাধিকার বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন। আমরা বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে আপিল করেছি। বিষয়টি এখন শুনানীর অপেক্ষায়। গঠনতন্ত্র মেনে কমিটি গঠন করা হয়েছে ও আমাকে ক্লাবের প্রতিনিধিত্ব করার সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন

মোহামেডানের ওয়াকওভার, ফাইনালে মেরিনার্স

মোহামেডানের ওয়াকওভার, ফাইনালে মেরিনার্স

ছবি: সংগৃহীত

প্রথম সেমিতে মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে সোনালী ব্যাংককে ৬-২ ব্যবধানে হারিয়েছে ঢাকা আবাহনী। দিনের দ্বিতীয় সেমি নাটকে রূপ নেয়। মেরিনার্সের বিপক্ষে ওয়াকওভার দিয়ে দেয় মোহামেডান। ফলে বাই লজ অনুযায়ী মেরিনার্সকে ২-০ গোলে জয়ী ঘোষণা করে কাপ কমিটি।

এসআইবিএল ক্লাব হকি প্রতিযোগিতার সেমিফাইনালে সোনালী ব্যাংককে বড় ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে পা রাখে ঢাকা আবাহনী। আর দ্বিতীয় সেমিতে ওয়াকওভার দিয়েছে মোহামেডান। ফলে ফাইনালে আবাহনীর সঙ্গী মেরিনার ইয়াংস ক্লাব।

দিনের প্রথম সেমিতে মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে সোনালী ব্যাংককে ৬-২ ব্যবধানে হারিয়েছে ঢাকা আবাহনী।

আবাহনীর পক্ষে হ্যাটট্রিক করেন বেলিমাগ্গা বাহারান। তিনটি গোলই ফিল্ড থেকে করেছেন বাহারান। দলের বাকী তিন গোল আসে পুস্কর ক্ষিসা মিমো, নাইম উদ্দিন ও খোরশেদের স্টিক থেকে।

সোনালী ব্যাংকের হয়ে সান্ত্বনাসূচক দুটি গোল আসে রকির স্টিক থেকে।

দিনের দ্বিতীয় সেমি নাটকে রূপ নেয়। মেরিনার্সের বিপক্ষে ওয়াকওভার দিয়ে দেয় মোহামেডান। ফলে বাই লজ অনুযায়ী মেরিনার্সকে ২-০ গোলে জয়ী ঘোষণা করে কাপ কমিটি।

১৬ অক্টোবর আবাহনী ও মেরিনার্সের মধ্যকার ফাইনালটি আয়োজন করা হবে একই ভেন্যুতে।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা দাবায় চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংকল্প গুপ্ত
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবার বর্ণাঢ্য সমাপনী
শেখ হাসিনা দাবায় শীর্ষে ফিরলেন মিত্রভা, তিনে জিয়া
শেখ হাসিনা দাবায় এককভাবে শীর্ষে সংকল্প, তিনেই আছেন জিয়া
শেখ হাসিনা দাবার শীর্ষে সংকল্প, তিনে জিয়া

শেয়ার করুন