ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন উইলিয়ামস

ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন উইলিয়ামস

শন উইলিয়ামস। ফাইল ছবি

প্রাথমিকভাবে অবসরের ঘোষণা দিলেও দলের প্রয়োজনে ভবিষ্যতে সাদা বলের ক্রিকেটে খেলবেন বলেও জানিয়েছেন উইলিয়ামসন। তবে হুট করে কেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সে বিষয়ে এখনও স্পষ্ট করে কিছু বলেননি বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

আসন্ন আয়ারল্যান্ড সিরিজের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জিম্বাবুয়ের টেস্ট অধিনায়ক শন উইলিয়ামস। ইতোমধ্যে বিষয়টি টিম ম্যানেজমেন্টকে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

প্রাথমিকভাবে অবসরের ঘোষণা দিলেও দলের প্রয়োজনে ভবিষ্যতে সাদা বলের ক্রিকেটে খেলবেন বলেও জানিয়েছেন উইলিয়ামস। তবে হুট করে কেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সে বিষয়ে এখনও স্পষ্ট করে কিছু বলেননি বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

বর্তমানে উইলিয়ামসন জিম্বাবুয়ে জাতীয় দলের সঙ্গে আয়ারল্যান্ডে অবস্থান করছেন। অবশ্য নির্বাচকদের তিনি অনুরোধ করেছিলেন যে শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাওয়া আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষের টি-টোয়েন্টি এবং আসন্ন স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে যেন তাকে বিবেচনা না করা হয়।

বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে মানসিকভাবে সুস্থ থাকতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকে নিজেকে সরিয়ে নেবার প্রস্তাব দিয়েছিলেন উইলিয়ামস।

আয়ারল্যান্ড সিরিজের আগে উইলিয়ামসকে অধিনায়ক করে দল ঘোষণা করে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ড। ক্রিকেট মহলে জোর গুঞ্জন, অধিনায়কত্বের বিষয়টি পছন্দ হচ্ছে না তার। সে কারণেই হয়তো নিজেকে সাদা পোশাকের ক্রিকেট থেকেই সরিয়ে নিচ্ছেন তিনি।

২০২০ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের অধিনায়কত্বে পরিবর্তন এসেছে পাঁচবার। সর্বশেষ অধিনায়ক হিসেবে আয়ারল্যান্ড সিরিজের আগে জিম্বাবুয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন উইলিয়ামসন।

২০০৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষিক্ত হলেও ২০১৩ সালে সাদা পোশাকের ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো মাঠে নেমেছিলেন উইলিয়ামস।

এখন পর্যন্ত খেলেছেন ১৪টি টেস্ট। ২৭ ইনিংসে করেছেন ১ হাজার ৩৪ রান, যেখানে তার ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস অপরাজিত ১৫১ রানের।

আর ২০০৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ১৩৬টি ওয়ানডে খেলে উইলিয়ামসের ব্যাট থেকে এসেছে ৩ হাজার ৯৫৮ রান। আর টি-টোয়েন্টিতে ৪৭ ম্যাচে করেছেন ৯৪৫ রান।

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিকতা শুরু দুই অক্টোবর

বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিকতা শুরু দুই অক্টোবর

অনুশীলনের আগে ক্রিকেটারদের সঙ্গে রাসেল ডমিঙ্গোর আলোচনা। ছবি: এএফপি

বিশ্বকাপের আগে অক্টোবরের দুই তারিখ করোনা পরীক্ষা করানো হবে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের। এর মধ্যে দিয়ে শুরু হবে টাইগারদের বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিকতা।

অক্টোবরের ১৭ তারিখ শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপের মূল পর্বে বাংলাদেশের জায়গা করে নেয়ার লড়াই। স্কটল্যান্ড, ওমান ও পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে পরীক্ষা দিয়ে মূল পর্বে জায়গা করে নিতে হবে সাকিব-মুশফিকদের।

বিশ্বকাপের আগে অক্টোবরের দুই তারিখ করোনা পরীক্ষা করানো হবে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের। এর মধ্যে দিয়ে শুরু হবে টাইগারদের বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিকতা।

মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

করোনা পরীক্ষা করানোর পর জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। এরপর ৩ তারিখ রাত পৌনে ১১টায় ওমানের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে টাইগাররা।

এ নিয়ে জাতীয় দলের প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘দুই তারিখ ওদের করোনা পরীক্ষা করানো হবে। এরপর তারা নিজ বাসায় অবস্থান করবে। সেখান থেকে পরদিন ওমানের উদ্দেশে রওয়ানা দেবে।’

৪ অক্টোবর বাংলাদেশ সময় বেলা একটায় ওমানের মাসকটে পৌঁছানোর কথা ডমিঙ্গো শিষ্যদের। এয়ারপোর্ট থেকে তারা সরাসরি চলে যাবেন কোয়ারেন্টিনে।

৫ অক্টোবর থেকে ৮ অক্টোবর থাকছে টাইগারদের অনুশীলনের সুযোগ। ৯ তারিখ আরব আমিরাত যাবে স্কোয়াড।

সেখানে একদিনের কোয়ারেন্টিনে থেকে ১২ ও ১৪ তারিখ শ্রীলঙ্কা ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে মাহমুদুল্লাহ বাহিনী।

১৫ তারিখ ফের ওমানে ফিরে আসবে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। এরপর ১৭, ১৯ এবং ২১ তারিখ স্কটল্যান্ড, ওমান এবং পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষের বাছাইপর্বের খেলায় অংশ নেবে টাইগাররা।

বাছাইপর্বে উৎরে গেলে ২২ তারিখ আরব আমিরাতের বিমানে চাপবে বাংলাদেশ। ২৩ তারিখ কোয়ারেন্টিনে থেকে ২৪ তারিখ থেকে অনুশীলনের সুযোগ পাবে রিয়াদের দল।

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন

আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা

আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা

শেখ হাসিনা দাবার চ্যাম্পিয়ন ভারতের আন্তর্জাতিক মাস্টার সংকল্প গুপ্ত। ছবি: সাইফুল ইসলাম/নিউজবাংলা

‘জয়তু শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টারস দাবা’ টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে নিয়েছেন ভারতের আন্তর্জাতিক মাস্টার (আইএম) সংকল্প গুপ্ত।শেষ চার রাউন্ড দারুণ খেলে শিরোপা জিতে নেন ১৮ বছর বয়সী এ দাবাড়ু। প্রাইজমানি হিসেবে পেয়েছেন চার হাজার ডলার।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত ‘জয়তু শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ডমাস্টারস দাবা’ টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে নিয়েছেন ভারতের আন্তর্জাতিক মাস্টার (আইএম) সংকল্প গুপ্ত।

নাগপুরের এই তরুণ ২০১৯ সালে আইম নর্ম অর্জন করেন। এবারের আসরের শুরুর দুই রাউন্ডে বেশ খানিকটা পিছিয়ে ছিলেন তিনি।

তবে শেষ চার রাউন্ড দারুণ খেলে শিরোপা জিতে নেন ১৮ বছর বয়সী সংকল্প। প্রাইজমানি হিসেবে পেয়েছেন চার হাজার ডলার।

শিরোপা জেতার পরপরই নিউজিবাংলার সঙ্গে কথা বলেন দাবার এই ভবিষ্যত তারকা। নিউজবাংলার পাঠকদের জন্য তার সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো।

সংকল্প প্রথমেই শুভেচ্ছা টুর্নামেন্ট জেতার জন্য।

অসংখ্য ধন্যবাদ

বাংলাদেশের এই টুর্নামেন্ট সম্বন্ধে কীভাবে জানতে পারলেন?

১০ সেপ্টেম্বর আমার এক বন্ধু কাছ থেকে এই আসরটি সম্পর্কে জানতে পারি। সব কিছু পরিকল্পনা করে ১২ তারিখে আমরা টিকিট কেটে ফেলি বাংলাদেশের।

আপনার দাবা খেলার শুরুটা কীভাবে? কাকে দেখে দাবা খেলার অনুপ্রেরণা পেলেন?

আমি সাড়ে চার বছর বয়সে দাবা খেলা শুরু করি। আমরা একান্নবর্তী পরিবারে থাকি। আমার বড় ভাইদের দাবা শেখাতে আসতেন কোচ সেটা দেখে আমি আগ্রহী হই। ছোটবেলায় ভিশ্বনাথন আনন্দ ও ম্যাগনাস কার্লসেনের মতো দাবাড়ুদের দেখে আরও আগ্রহ পাই।

পড়াশোনার পাশাপাশি দাবার এত ব্যস্ত সূচি কীভাবে মানিয়ে চলেন?

দাবা পড়াশোনায় মনোযোগী হতে সাহায্য করে। আমি ছোটবেলা থেকেই খেলছি তাই আমার কাছে খুব একটা সমস্যা কখনই মনে হয়নি। আমার কলেজ আমাকে খুবই সমর্থন করে। তারা টুর্নামেন্টগুলোর সময় আমাকে সাহায্য করে।

এই টুর্নামেন্টে খেলে কেমন লেগেছে? প্রতিপক্ষ কেমন ছিল?

খেলার আয়োজন খুবই ভালো ছিল। আমার শুরুটা ভালো হয়নি। প্রথম দুটি খেলায় জিততে পারিনি। তবে এরপর থেকে আমার খেলা ভালো হয়েছে। শেষ পর্যন্ত জিততে পেরে আমি খুবই খুশি।

মিত্রভা গুহে ছয় রাউন্ড পর্যন্ত আপনার চেয়ে এগিয়ে ছিল। লড়াইটা কেমন উপভোগ করলেন?

মিত্রভা আমার ভালো বন্ধু। ও যখন টানা পাঁচ খেলা জিতেছিল আর আমি পাঁচ ম্যাচের চারটি জিতেছিলাম। আমার আর ওর খেলাটাই টুর্নামেন্টের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আমি ভালো প্রস্তুতি নিয়েছিলাম আর ভাগ্য ভালো ছিল যে কালো ঘুঁটি নিয়ে খেলেছি। আমি আমার পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পেরেছি।

আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা
শিরোপা জেতার পর প্রাইজমানি গ্রহণ করছেন সংকল্প গুপ্ত। ছবি: সাইফুল ইসলাম/নিউজবাংলা

বাংলাদেশে খেলে কেমন লাগল? আবারও আসবেন কিনা দাবা খেলতে?

এখানে খেলার অভিজ্ঞতা খুবই ভালো ছিল। সবাই খুব বন্ধুসুলভ। আমি নিরামিষভোজী। হোটেল আমার জন্য বিশেষ ভাবে নিরামিষ রান্না করেছে। সুযোগ পেলে আবার আসব।

বাংলাদেশের দাবা সম্বন্ধে খোঁজ খবর রাখেন? এখানকার দাবাড়ুদের কেমন মনে হয়েছে?

আমি বাংলাদেশের দাবাড়ুদের সম্বন্ধে জানি। ২০১৯ সালে গোয়ায় আমি গ্র্যান্ডমাস্টার জিয়াউর রহমানের বিপক্ষে খেলেছি। ব্যক্তিগত ভাবে আমি কাউকে চিনি না। কিন্তু গ্র্যান্ডমাস্টার নিয়াজ মোর্শেদের খেলা আমি ফলো করি।

আন্তর্জাতিক মাস্টার থেকে গ্র্যান্ডমাস্টার হওয়ার প্রস্তুতি কীভাবে নিচ্ছেন?

বেশি বেশি টুর্নামেন্ট খেলব। ভুল ত্রুটি গুলো কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করব। এই টুর্নামেন্টে কী কী ভুল করেছি সেটা নিয়ে কাজ করতে হবে ও সেগুলো ঠিক করতে হবে। এভাবেই চেষ্টা করতে থাকব।

আনন্দ ও কার্লসেন সংকল্পের অনুপ্রেরণা
নিউজবাংলার সঙ্গে কথা বলছেন আন্তর্জাতিক মাস্টার সংকল্প গুপ্ত। ছবি: নিউজবাংলা

আপনার প্রিয় দাবা খেলোয়াড় হিসেবে আনন্দ ও কার্লসেনের কথা বলেছেন, ওদের খেলার কোন দিকগুলো আপনার ভালো লাগে?

কার্লসেন যেভাবে খেলাটা শেষ করে সেটা আমার খুব ভালো লাগে। যেভাবে সে প্রতিপক্ষের একেবারে ছোট ভুলগুলোও ধরতে পারে সেটা অসাধারণ। আর ভিশি (আনন্দ) ভারতে অনেক বড় নাম। সে খুব ভালো হিসেব করে খেলে। আর তার ওপেনিংটা খুবই দারুণ। তাকে আমি দেখেছি কয়েকবার। কিন্তু কখনও কথা হয়নি।

ধন্যবাদ আপনাকে সময় দেয়ার জন্য

নিউজবাংলাকেও ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন

এশিয়ার সেরা একাদশে বাংলাদেশের তিন ক্রিকেটার

এশিয়ার সেরা একাদশে বাংলাদেশের তিন ক্রিকেটার

ফাইল ছবি

উইজডেন একাদশে জায়গা করে নেয়া তিন ক্রিকেটার হলেন, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম এবং মুস্তাফিজুর রহমান। সেরা একাদশে ভারতের রয়েছেন তিন ক্রিকেটার। একই সঙ্গে জায়গা মিলেছে তিন পাকিস্তানি ও দুই আফগান ক্রিকেটারের।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিং বিবেচনা করে এশিয়ার সেরা একাদশ প্রকাশ করেছে উইজডেন ইন্ডিয়া। সেরা ১১ ক্রিকেটারের ভেতর ঠাঁই পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের তিন ক্রিকেটার।

উইজডেন একাদশে জায়গা করে নেয়া তিন ক্রিকেটার হলেন, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও মুস্তাফিজুর রহমান।

সেরা একাদশে ভারতের রয়েছেন তিন ক্রিকেটার। একই সঙ্গে জায়গা মিলেছে তিন পাকিস্তানি ও দুই আফগান ক্রিকেটারের।

উইজডেনের এই একাদশে ঠাঁই হয়নি শ্রীলঙ্কার কোনো ক্রিকেটারের।

ভারতের তিন ক্রিকেটার হলেন- রোহিত শর্মা, ভিরাট কোহলি ও জাসপ্রিত বুমরাহ। পাকিস্তান থেকে জায়গা করে নিয়েছেন ফখর জামান, বাবর আজম ও শাহিন আফ্রিদি। আর আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নাবি ও মুজিব উর রহমান জায়গা পেয়েছেন এই একাদশে।

আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে ১০ নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজের জায়গা ধরে রেখেছেন মুশফিকুর রহিম।

অপর দিকে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ওয়ানডের অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ে রয়েছেন শীর্ষে। আর বোলার হিসেবে র‍্যাঙ্কিংয়ের ৯ নম্বর বোলার তিনি।

কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে রয়েছেন ১১তম অবস্থানে।

উইজডেন ইন্ডিয়ার বাছাইকৃত এশিয়ার সেরা ওয়ানডে একাদশ : ফখর জামান, রোহিত শর্মা, বাবর আজম, ভিরাট কোহলি, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ নাবি, শাহিন আফ্রিদি, মুজিব উর রহমান, জাসপ্রিত বুমরাহ ও মুস্তাফিজুর রহমান।

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে মাশরাফি-সাকিবদের শুভেচ্ছা

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে মাশরাফি-সাকিবদের শুভেচ্ছা

ছবি: সাকিব আল হাসানের ফেসবুক পেইজ

বিশেষ দিনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তামিম-মাশরাফি-সাকিব-রিয়াদরা।

মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ কন্যা, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মবার্ষিকী। এই বিশেষ দিনে প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন দেশের সর্বস্তরের মানুষ।

বাদ যাচ্ছেন না জাতীয় দলের ক্রিকেটাররাও। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তামিম-মাশরাফি-সাকিব-রিয়াদরা।

জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি মোর্ত্তুজা ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করে লেখেন, ‘শুভ জন্মদিন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। আপনার সুদক্ষ, সাহসী ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে তার কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যে। আপনি দীর্ঘজীবী হোন।’

নিজের ভেরিফায়েড পেইজে টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম লিখেছেন, ‘আপনার নেতৃত্ব, দূরদর্শিতা ও একনিষ্ঠতা আমাদের সবাইকে অনুপ্রাণিত করে চলেছে। আপনার নেতৃত্বে দেশ আরও এগিয়ে যাবে, সবার মতো এটাও আমার বিশ্বাস। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে জানাচ্ছি জন্মদিনের শুভেচ্ছা।’

শুভেচ্ছা জানিয়ে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান লিখেন, ‘আপনার এই বিশেষ দিনে পৃথিবীর সকল সুখ আপনার হোক। মাতৃভূমির প্রতি আপনার অকৃত্রিম ভালোবাসা ও অকুতোভয় নেতৃত্ব অনুপ্রেরণা যোগায় আমাদের। দেশের সর্বোপরি উন্নয়নের চাকা সচল রাখায় আমরা আপনার প্রতি চিরকৃতজ্ঞ। আপনার সুস্বাস্থ্য এবং মঙ্গল কামনা করি।

শুভ জন্মদিন আমাদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনা!’

জাতীয় দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আপনার হাত ধরে বাংলাদেশ এগিয়ে যাক আরও বহুদূর। আপনার সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করি।’

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন

এবার কোচদের ‘কোচ’ সালাউদ্দিন

এবার কোচদের ‘কোচ’ সালাউদ্দিন

কোচ সালাউদ্দিন। ফাইল ছবি

অক্টোবরের মাঝামাঝি বিসিবি শুরু করতে যাচ্ছে স্থানীয় কোচদের লেভেল ওয়ান কোচিং প্রোগ্রাম। আর সেখানে প্রধান নির্দেশকের দায়িত্ব পেতে যাচ্ছেন সাকিব-তামিমদের গুরু সালাউদ্দিন।

কোচ হিসেবে মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের নামডাক রয়েছে তারকা তৈরির কারিগর হিসেবে। সাকিব-তামিমদের মতো খেলোয়াড় গড়ে তোলার কারিগর এই কোচকে বোর্ডের সঙ্গে যুক্ত করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

অক্টোবরের মাঝামাঝি বিসিবি শুরু করতে যাচ্ছে স্থানীয় কোচদের লেভেল ওয়ান কোচিং প্রোগ্রাম। আর সেখানে প্রধান নির্দেশকের দায়িত্ব পেতে যাচ্ছেন সাকিব-তামিমদের এই গুরু।

সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন।

সুজন বলেন, ‘আমাদের লেভেল ওয়ান কোচিং প্রোগ্রামে প্রধান নির্দেশকের ভূমিকায় থাকবে সালাউদ্দিন। সে অনেক অভিজ্ঞ একজন কোচ। সে তার অভিজ্ঞতা কোচদের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিতে পারবে।’

সাবেক এই পেইসার জানান, জেলা পর্যায় থেকে বাছাই করে ২৪ জন কোচকে এই প্রোগ্রামের আওতায় আনা হবে।

সুজন বলেন, ‘আমরা ২৪ জন কোচকে মনোনীত করব। দেশের বিভিন্ন জায়গায় কোচের প্রয়োজনীয়তা মাথায় রেখে তাদের আমরা বাছাই করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেক জেলা আছে, যেখানে লেভেল ওয়ান ডিগ্রিধারী কোনো কোচ নেই। আমরা চাই সেসব জেলার খেলোয়াড়রাও যেন লেভেল ওয়ান কোচের অধীনের নিজেদের অনুশীলন চালিয়ে নিতে পারে।’

বোর্ডের দেয়া দায়িত্ব পেয়ে বেশ খুশি কোচ সালাউদ্দিন। ক্যারিয়ারের লম্বা সময় তিনি কাটিয়েছেন ডেভ হোয়াটমোর, জেমি সিডন্সের মতো অভিজ্ঞ কোচদের সঙ্গে। সেখান থেকে অর্জিত শিক্ষা তিনি বিলিয়ে দিতে চান তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করে।

এ প্রসঙ্গে সালাউদ্দিন বলেন, ‘এটি আমার জন্য অনেক বড় একটা সুযোগ। আমি এর জন্য অপেক্ষায় আছি। আমি যদি নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করার মাধ্যমে তাদের আরও ভালো কোচ বানাতে পারি, তাহলে এটা আমার জন্য বড় অর্জন হবে। কারণ তারা সবাই তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করবে।’

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন

মেসি-দিবালাকে নিয়ে বাছাইপর্বের দল ঘোষণা আর্জেন্টিনার

মেসি-দিবালাকে নিয়ে বাছাইপর্বের দল ঘোষণা আর্জেন্টিনার

লিওনেল মেসি এবং পাওলো দিবালা। ফাইল ছবি

বাছাইপর্বে আগামী ৮ অক্টোবর প্যারাগুয়ে আতিথ্য দেবে আর্জেন্টিনাকে। বাকি দুই ম্যাচে ঘরের মাঠে মেসিরা লড়বে উরুগুয়ে ও পেরুর বিপক্ষে।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে অক্টোবরের আট তারিখ থেকে আর্জেন্টিনা লড়বে প্যারাগুয়ে, উরুগুয়ে এবং পেরুর বিপক্ষে। এই তিন ম্যাচকে সামনে রেখে ৩০ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন।

৩০ সদস্যের এই দলে রয়েছেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা তিন ফুটবলার।

কোপা আমেরিকায় দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখানো গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেস থাকছেন আসন্ন বাছাইপর্বের এই ম্যাচগুলোতে। একইসঙ্গে রয়েছেন টটেনহ্যামে খেলা মিডফিল্ডার জিওভানি লো সেলসো ও ডিফেন্ডার ক্রিস্টিয়ান রোমেরো।

বাছাইপর্বে আগামী ৮ অক্টোবর প্যারাগুয়ে আতিথ্য দেবে আর্জেন্টিনাকে। বাকি দুই ম্যাচে ঘরের মাঠে মেসিরা লড়বে উরুগুয়ে ও পেরুর বিপক্ষে।

ইনিজুরিতে থকা লিওনেল মেসি এবং পাওলো দিবালাও ঠাই পেয়েছেন স্কালোনির ৩০ সদস্যের সেই দলে। হাঁটুর ইনজুরিতে ইতোমধ্যেই পিএসজির হয়ে তিন ম্যাচের জন্য ছিটকে গিয়েছেন মেসি।

অপরদিকে পেশির চোটে ভুগছেন দিবালা। ইনজুরিতে থাকলেও বাছাইপর্বের ম্যাচের আগে তাদের দুইজনকেই পেতে বেশ আশাবাদী আর্জেন্টিনা কোচ লিওনেল স্কালোনি।

বাছাইপর্বে উত্তর আমেরিকার দলগুলোর ভেতর বাছাই পর্বে এখন পর্যন্ত আট ম্যাচের সব কটি জিতে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে রয়েছে ব্রাজিল। আর ১৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে আর্জেন্টিনা।

আর্জেন্টিনা বাছাইপর্বের দল:

গোলরক্ষক: ফ্রাঙ্কো আরমানি, হুয়ান মুসো, এস্তেবান আনদ্রাদা, এমিলিয়ানো মার্তিনেস।

ডিফেন্ডার: গনসালো মন্তিয়েল, নেহুয়েল মলিনা, হুয়ান ফয়েথ, লুকাস মার্তিনেস, হেরমান পেসেলা, নিকোলাস ওটামেন্ডি, ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো, লিসান্দ্রো মার্তিনেজ, নিকোলাস তালিয়াফিকো, মার্কোস আকুনা।

মিডফিল্ডার: লিয়ান্দ্রো পারেদেস, গিদো রদ্রিগেস, নিকোলাস ডমিঙ্গেস, জিওভানি লো সেলসো, এজেকিয়েল পালাসিওস, রদ্রিগো ডি পল, পাপু গোমেজ, নিকোলো গঞ্জালেস।

ফরোয়ার্ড: আনহেল দি মারিয়া, লিওনেল মেসি, লুকাস আলারিও, পাওলো দিবালা, লাউতারো মার্টিনেস, হোয়াকিন কোরেয়া, আনহেল কোরেয়া, হুলিয়ান আলভারেস।

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ইনজামাম

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ইনজামাম

ইনজামাম উল হক। ফাইল ছবি

কিছুদিন ধরেই বুকের ব্যথায় ভুগছিলেন ইনজামাম। ব্যথা বেড়ে যাওয়ায় সোমবার তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আর পরীক্ষা করার পর তার হৃদযন্ত্রে একটি ব্লক ধরা পড়ে।

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সাবেক পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ইনজামাম উল হক। বুকে ব্যথা ওঠার কারণে সোমবার তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ইতিমধ্যে ইনজামামের এনজিওপ্লাস্টি করানো হয়েছে।

কিছুদিন ধরেই বুকের ব্যথায় ভুগছিলেন ইনজামাম। ব্যথা বেড়ে যাওয়ায় সোমবার তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আর পরীক্ষা করার পর তার হৃদযন্ত্রে একটি ব্লক ধরা পড়ে।

ইতিমধ্যেই হার্ট অ্যাটাকও হয়েছে ইনজামামের, যার কারণেই দ্রুত অস্ত্রোপচার করতে হয়েছে কর্তব্যরত চিকিৎসকদের।

ইনজামামের এজেন্টের বরাত দিয়ে জানা যায়, হার্ট অ্যাটাক করলেও বর্তমানে চিন্তার কিছু নেই। তিনি এখন সুস্থ আছেন।

সুস্থ থাকলেও এখনই হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পাচ্ছেন না ৫১ বছর বয়সি সাবেক এই ক্রিকেটার। আরও কিছুদিন চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে থাকার পর তারা সিদ্ধান্ত নেবেন ছাড়পত্র দেবেন কি না।

১৯৯১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অভিষিক্ত হয়ে জাতীয় দলের হয়ে ১৬ বছর খেলেছেন সাবেক এই ব্যাটসম্যান।

২০০৭ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থকে অবসর নেয়ার আগে ৩৭৫ ম্যাচে ১১ হাজার ৭০১ রান তুলেছিলেন ইনজামাম। আর টেস্টে ১১৯ ম্যাচ খেলে ৮ হাজার ৮২৯ রান করেছেন সাবেক এই অধিনায়ক।

খেলা থেকে অবসর নেয়ার পরও ক্রিকেট ছাড়েননি ‘ইনজি’। যুক্ত হন ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কাজে। ছিলেন পাকিস্তান দলের ব্যাটিং পরামর্শক, আফগানিস্তানের প্রধান কোচ ও পাকিস্তান ক্রিকেটের প্রধান নির্বাচকও।

আরও পড়ুন:
অ্যান্ডারসন-ওভারটনে লিডসে প্রথম দিন ইংল্যান্ডের
লর্ডসের চেয়ে ঢাকার সেঞ্চুরি প্রিয় তামিমের
বিসিবির বার্ষিক সভা বৃহস্পতিবার
সাকিবের কোয়ারেন্টিন শুরু
‘বাংলাদেশ জয় করে ফিরেছি বলতে চাই’

শেয়ার করুন