উইম্বলডন থেকে সেরিনার কান্নাভেজা বিদায়

উইম্বলডন থেকে সেরিনার কান্নাভেজা বিদায়

আহত অবসর নেওয়ার পর অশ্রুসজল সেরিনা উলিয়ামস। ছবি: টুইটার

সপ্তম গেমে আবারও বেইজলাইন থেকে ফোরহ্যান্ড খেলতে গিয়ে আবারও পড়ে যান তিনি। চিকিৎসা নেবার জন্য মেডিক্যাল টাইমআউটে কোর্ট ছেড়ে যান সেরিনা। চিকিৎসক দলের পরামর্শে ম্যাচ চালিয়ে যাননি এই চ্যাম্পিয়ন।

মার্গারেট কোর্টের ২৪ গ্র্যান্ড স্ল্যামের রেকর্ড স্পর্শ করতে এবারের উইম্বলডনে অংশ নেন সেরিনা উইলিয়ামস। কিন্ত দুর্ভাগ্যজনকভাবে প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়ে হয়েছে এই আমেরিকান গ্রেটকে।

বেলারুশের অবাছাই খেলোয়াড় আলিয়াকসান্ড্রা সাসনোভিচের বিপক্ষে প্রথম রাউন্ডে নামেন সেরিনা। সাতবারের চ্যাম্পিয়ন তারকা ৩-৩ গেমে সমতায় ছিলেন প্রথম সেটে।

ম্যাচ চলাকালীন পঞ্চম গেমে ঘটে দূর্ঘটনা। পা হড়কে কোর্টে পড়ে যান সেরিনা। ঊরুতে চোট পান। মেডিক্যাল টেপ লাগিয়ে খেলা চালিয়ে যেতে থাকেন।

সপ্তম গেমে আবারও বেইজলাইন থেকে ফোরহ্যান্ড খেলতে গিয়ে আবারও পড়ে যান তিনি। চিকিৎসা নেবার জন্য মেডিক্যাল টাইমআউটে কোর্ট ছেড়ে যান সেরিনা। চিকিৎসক দলের পরামর্শে ম্যাচ চালিয়ে যাননি এই চ্যাম্পিয়ন।

কোর্টে ফিরে অশ্রুসজল চোখে ম্যাচ থেকে আহত অবসর নেন। সেন্টার কোর্টে উপস্থিত হাজার দশেক দর্শক তাকে করতালি দিয়ে সান্ত্বনা জানান। সেরিনা অবসরে যাওয়ায় ওয়াকওভার পেয়ে পরের রাউন্ডে চলে যান সাসনোভিচ।

ম্যাচের পর এক বিবৃতিতে ৩৯ বছর বয়সী সেরিনা জানান চোটের টুর্নামেন্ট থেকে সরে দাঁড়ানোর অত্যন্ত ব্যাথিত তিনি।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘নাম প্রত্যাহার করে নেয়ায় আমার মন ভেঙ্গে গেছে। কোর্ট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় দর্শক যে অসাধারণ সমর্থন আমাকে জানিয়েছেন সেটার উষ্ণতা আমি টের পেয়েছি। আমার জন্য সেটা খুবই জরুরী ছিল ওই সময়।’

৩৯ বছর বয়সী সেরিনা জানাননি এটি তার শেষ উইম্বলডন কিনা। তবে তার প্রতিপক্ষ সাসনোভিচের আশা আবারও গ্রাস কোর্টের গ্র্যান্ড স্ল্যামে ফিরবেন তিনি।

ম্যাচ শেষে সংবাদমাধ্যমকে বেলারুশের তারকা জানান, ‘আমি সেরিনার জন্য দুঃখিত। সে দারুণ এক চ্যাম্পিয়ন। টেনিসে এমনটা হয়। তার ফিরে আসার জন্য আমার শুভকামনা রইল।’

আরও পড়ুন:
মিয়ামি ওপেন খেলছেন না সেরিনা
সরাসরি সেটের জয়ে চতুর্থ রাউন্ডে ওসাকা ও সেরিনা

শেয়ার করুন

মন্তব্য