জাত ফুটবলার থেকে দেশসেরা স্প্রিন্টার জহির

শেরপুর জেলা স্টেডিয়ামে অনুশীলনে জহির। ছবি: নিউজবাংলা

জাত ফুটবলার থেকে দেশসেরা স্প্রিন্টার জহির

প্রথমে বাবা মা বকাবকি করলেও শেষ পর্যন্ত তাকে ফুটবল অনুশীলন করার জন্য ভর্তি করায় ‘ফর ফুটবল শেরপুর’ এর কোচ সাধান বসাকের কাছে। সেখানে সে ভালো ফুটবলার হিসেবে নিজেকে মেলে ধরতে সক্ষম হয়। এখান থেকেই জন্ম হয় দেশসেরা স্প্রিন্টার জহিরের।

জহিরের জীবন সিনেমা থেকে কোনো অংশে কম নয়। ছিলেন প্রচণ্ড ডানপিটে। ভীষণ খেলা পাগল ছেলে। পড়াশুনায় একেবারে অমনোযোগী। স্কুলে অনিয়মিত এই ছেলেটা একসময় হতে চেয়েছিলেন ফুটবলার।

তেমনটা হয়নি। ফুটবলার হতে না পারলেও ক্রীড়ার আরেক ক্ষেত্রে সুনাম কুড়িয়েছেন জহির। শেরপুরের ফুটবল জগত ছেড়ে হয়ে গেছেন দেশসেরা স্প্রিন্টার। আঞ্চলিক থেকে জাতীয় পর্যায়ে শুধু স্বর্ণই জেতেননি ভেঙে গড়েছেন নতুন রেকর্ডও।

গল্পের শুরুটা প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে।

নিজ পুত্র সন্তানদের ভালোভাবে লেখাপড়া করানোর জন্য স্কুল শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক শেরপুর সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের দীঘলদি গ্রামের বাড়ী ছেড়ে বসবাস শুরু করেন শেরপুর জেলা শহরের বাইরে পাড়া মহল্লায়।

শহরের একটি বেসরকারি স্কুলে ভর্তি করান বড় ছেলে রাসেল ও দ্বিতীয় পুত্র জহির রায়হানকে। বড় ছেলে রাসেল নিয়মিত স্কুল করলেও ৩য় শ্রেণীতে ওঠার পর খেলা-ধুলার প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠে জহির রায়হান। স্কুলেও উপস্থিত থাকত অনিয়মিত।

প্রথমে বাবা মা বকাবকি করলেও শেষ পর্যন্ত তাকে ফুটবল অনুশীলন করার জন্য ভর্তি করায় ‘ফর ফুটবল শেরপুর’ এর কোচ সাধান বসাকের কাছে। সেখানে সে ভালো ফুটবলার হিসেবে নিজেকে মেলে ধরতে সক্ষম হয়।

পরবর্তীতে বিকেএসপি প্রতিভা অন্বেষণ টিম আসে শেরপুরে খেলোয়াড় বাছাই করার জন্য। প্রথম বার বিকেএসপিতে জায়গা না করতে পারলেও পরেরবার ২০১২ সালে অ্যাথলেটিকসে বিকেএসপিতে সুযোগ করে নেন জহির।

প্রথমে একমাস প্রশিক্ষণ করে বাছাইয়ে টিকে যান। পরে পাঁচ দিনের প্রশিক্ষণ নিয়ে বিকেএসপিতে ৭ম শ্রেণীতে ভর্তির সুযোগ পান জহির। এর পর থেকেই তার সামনে চলা।

জহির রায়হান দেশের বড়বড় আসরে অনেক পুরস্কার জিতেছেন। ৪০০ মিটারে ৪৬.৮৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে দেশীয় আসরে ৩২ বছরের রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়েছেন তিনি।

এছাড়া ওয়ার্ল্ড ২০১৭ সালের কেনিয়ার ইয়ুথ অ্যাথলেটিকস ও থাইল্যান্ডের এশিয়ান ইয়ুথ অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপে ৪০০মিটার ইভেন্টে অংশগ্রহণ করে হিটে উত্তীর্ণ হয়ে সেমিফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জন করেন।

জাত ফুটবলার থেকে দেশসেরা স্প্রিন্টার জহির
শেরপুর জেলা স্টেডিয়ামে অনুশীলন করছেন জহির। ছবি: নিউজবাংলা

এছাড়া ২০১৮ সালে শ্রীলঙ্কায় সাউথ এশিয়ান জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপ, ২০১৯ সালে কাতারে ওয়ার্ল্ড অ্যাথলেটিকস, ২৩তম এশিয়ান অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপ এবং নেপালে ১৩তম সাউথ এশিয়ান গেমসে অংশগ্রহণ করেছেন জহির। তার এ সাফল্য দেখে বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে তাকে পেটি অফিসার হিসেবে চাকুরী দেয়া হয়। এতে খুশি জহির ও তার পরিবার।

গত সপ্তাহে স্বপ্নপূরণ হয় এই স্প্রিন্টারের। ওয়াইল্ড কার্ডে অলিম্পিকে খেলার সুযোগ পান। ফুটবলার থেকে স্প্রিন্টার হওয়ার গল্পটা নিজের মুখেই নিউজবাংলাকে জানালেন শেরপুরের এই কৃতি অ্যাথলেট।

বলেন, ‘আমি ছোট থেকেই খেলা পাগল ছিলাম। প্রথমে আমার বাবা মা আমাকে লেখা পড়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করলেও পরবর্তীতে সহযোগিতা করেছেন। প্রথমে ফুটবল দিয়ে শুরু করলেও পরবর্তীতে বাবার ইচ্ছেতে অ্যাথলেটিকসে বিকেএসপিতে ভর্তি হতে সক্ষম হই।’

অলিম্পিকে সুযোগ পাওয়ার মাধ্যমে বাবা-মার স্বপ্নও পূরণ হয়েছে বলে জানান জহির, ‘আমার বাবা-মার আশা পুরণ করতে পেরেছি। এ জন্য আমার কোচ স্যারসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। আর সবার কাছে দোয়া চাই আমি যেন টোকিও অলিম্পিকে দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনতে পারি।’

ছেলের সাফল্যে খুশি তারা বাবা আব্দুর রাজ্জাক ও মা শিখা বেগম। বাবা আব্দুর রাজ্জাক জানান, আমার ছেলেকে স্কুলে ভর্তি করালেও তার খেলার প্রতি টান ছিলো বেশী। তাই আমার বড় ছেলের পরামর্শে আমি তাকে খেলাধুলার চর্চা করাতে আগ্রহী হয়ে ওঠি।

জাত ফুটবলার থেকে দেশসেরা স্প্রিন্টার জহির
জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে উপহার নিচ্ছেন অ্যাথলেট জহির। ছবি: নিউজবাংলা

পরিবারের দ্বিতীয় পুত্র জহির। ছেলের জন্য দোয়া চাইলেন তার মা শিখা বেগম, ‘আমার ছেলে যাতে আরো সাফল্য অর্জন করতে পারে এ জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।’

জহির রায়হানের প্রথম কোচ সাধন বসাক জানান, 'জহির প্রথমে আমার কাছে অনুশীলন করে। তাকে অনুশীলন দেখে প্রথম থেকেই আমি ভেবেছি সে একদিন বড় কিছু করতে পারবে। আজ সেটাই বাস্তবে পরিণত হয়েছে। এতে আমি খুবই খুশি।’

শেরপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার অতিরিক্ত সম্পাদক মানিক দত্ত জানান, ‘শেরপুরের ক্রীড়াপ্রেমিসহ সর্বস্তরের মানুষ খুশি জহিরের এ কৃতিত্বের জন্যে। এ জন্য তাকে শেরপুর জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন স্থানে সংবর্ধনাও দেয়া হচ্ছে। জেলা ক্রীড়া সংস্থাও টোকিও অলিম্পিকে জহির ভালো করবে এ প্রত্যাশা করছে।’

টোকিও অলিম্পিকে খেলার সুযোগ পাওয়ায় জাতীয় ৪০০ মিটার চ্যাম্পিয়ন স্প্রিন্টার জহিরকে সংবর্ধনা দিয়েছে শেরপুর জেলা প্রশাসন।

গত মঙ্গলবার দুপুরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব। ওই সময় ক্রীড়া সরঞ্জামাদি কেনার জন্য জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে ৫০ হাজার টাকা নগদ অনুদান দেয়া হয়।

জেলার প্রশাসক আনার কলি মাহবুব বলেন, ‘জহির আমাদের অহঙ্কার। সে শুধু শেরপুর নয় সারাদেশের ভাবমূর্তিকে উজ্জ্বল করছে। আমরা আশা করবো, টোকিও অলিম্পিকে সে দেশের জন্য আরও বড় গৌরব বয়ে আনবে।’

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন

মন্তব্য

আজকের খেলা

আজকের খেলা

ছবি: বাফুফে

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে আজ রাতে নিজেদের শেষ ম্যাচে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। ওমানের বিপক্ষে দোহায় রাত ১১টায় শুরু হচ্ছে ম্যাচ। ইউরোতেও রাত ১টায় লড়বে দুই হেভিওয়েট জার্মানি ও ফ্রান্স। তার আগে রাত ১০টায় চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল মুখোমুখি হচ্ছে হাঙ্গেরির।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব (এশিয়া)

বাংলাদেশ বনাম ওমান – রাত ১১টা

ইউরো ২০২০

পর্তুগাল বনাম হাঙ্গেরি – রাত ১০টা

জার্মানি বনাম ফ্রান্স – রাত ১টা

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন

টিকা নিলেন দেশসেরা জহির-সানা-মাবিয়ারা

টিকা নিলেন দেশসেরা জহির-সানা-মাবিয়ারা

ছবি: সংগৃহীত

টিকা নেওয়া অ্যাথলিটদের মধ্যে ছিলেন টোকিও অলিম্পিকে সরাসরি খেলার সুযোগ নিশ্চিত করা দেশসেরা আর্চার রোমান সানা, ওয়াইল্ড কার্ডে একই অলিম্পিকে অংশের সুযোগ পাওয়া দেশের চার শ মিটারে রেকর্ডধারী চ্যাম্পিয়ন জহির রায়হান ও দেশসেরা ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত।

করোনাভাইরাসের টিকা নিয়েছেন ক্রীড়াঙ্গনের দেশসেরা অ্যাথলিটরা।

বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের আওতায় সোমবার ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন তারা।

টিকা নেওয়া অ্যাথলিটদের মধ্যে ছিলেন টোকিও অলিম্পিকে সরাসরি খেলার সুযোগ নিশ্চিত করা দেশসেরা আর্চার রোমান সানা, ওয়াইল্ড কার্ডে একই অলিম্পিকে অংশের সুযোগ পাওয়া দেশের চার শ মিটারে রেকর্ডধারী চ্যাম্পিয়ন জহির রায়হান ও দেশসেরা ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত।

দেশ ও নিজের নিরাপত্তার জন্য সাধারণ জনগণকে টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন স্প্রিন্টার জহির।

জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে ৩২ বছরের রেকর্ড ভাঙা এই অ্যাথলেট বলেন, ‘নিজেদের নিরাপত্তার খাতিরে এই ভ্যাকসিন নেয়া দরকার। সরকার এই সুযোগ করে যেহেতু করে দিচ্ছে, জনগণের উচিৎ ভ্যাকসিন নিয়ে নিরাপত্তা বাড়ানো। দেশের এমন পরিস্থিতিতে একটু হলেও প্রতিরোধ গড়তে ভ্যাকসিন নেয়া দরকার।’

দেশে গত ৭ ফেব্রুয়ারি জাতীয়ভাবে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলছে।

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন

দারুণ কামব্যাকে ফ্রেঞ্চ ওপেন জকোভিচের

দারুণ কামব্যাকে ফ্রেঞ্চ ওপেন জকোভিচের

ফ্রেঞ্চ ওপেনের শিরোপা হাতে জোকোভিচ। ছবি: টুইটার

গ্রিসের সিসিপাসের বিপক্ষে ৬-৭, ২-৬, ৬-৩, ৬-২ ও ৬-৪ গেমে ম্যাচ জিতে ক্যারিয়ারের ১৯তম গ্রান্ড স্ল্যাম জিতে নিলেন জোকোভিচ। একইসঙ্গে ২০ গ্রান্ড স্ল্যাম নিয়ে শীর্ষে থাকা দুই কিংবদন্তি  ফেডেরার ও নাদালের আরও কাছাকাছি চলে এলেন এই ওয়ার্ল্ড নাম্বার ওয়ান।

নোভাক জকোভিচ এবারের রোলাঁ গারোঁয় এসেছিলেন বিগ থ্রির অন্য দুই গ্রেট রজার ফেডেরার ও রাফায়েল নাদালের সঙ্গে গ্র্যান্ড স্ল্যামের ব্যবধান কমাতে। ১৮ স্ল্যাম নিয়ে শুরু করা জকোভিচের চোখে ছিল ওই দুইজনের ২০টি টাইটেল।

সে লক্ষ্যে ফাইনালেও পৌঁছে যান তিনি। আর ফাইনালেই মুখোমুখি হলেন সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের।

ফাইনালে প্রথম দুই সেটে হেরে যাওয়ায় পর মনে হচ্ছিল জোকোভিচের ফাইনাল জেতা অসম্ভব। স্টেফানোস সিসিপাসের নামের পাশে প্রথম গ্রান্ড স্ল্যামের শিরোপাও দেখে ফেলেছিলেন অনেকেই। কিন্তু নামটা যে নোভাক জোকোভিচ।

পরের তিন সেটে জিতে দুর্দান্ত কামব্যাকে ফাইনাল জিতে নেন সার্বিয়ান টেনিস মহাতারকা।

গ্রিসের সিসিপাসের বিপক্ষে ৬-৭, ২-৬, ৬-৩, ৬-২ ও ৬-৪ গেমে ম্যাচ জিতে ক্যারিয়ারের ১৯তম গ্রান্ড স্ল্যাম জিতে নিলেন জোকোভিচ। একইসঙ্গে ২০ গ্রান্ড স্ল্যাম নিয়ে শীর্ষে থাকা দুই কিংবদন্তি ফেডেরার ও নাদালের আরও কাছাকাছি চলে এলেন এই ওয়ার্ল্ড নাম্বার ওয়ান।

ফ্রেঞ্চ ওপেনের সেমিফাইনালে ক্লে কোর্টের রাজা রাফায়েল নাদালের দুর্গ জয় করে জোকোভিচ প্রমাণ করে দেন কেন তিনি র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর। তবে ফাইনালে প্রথম দুই সেট খুইয়ে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যান দ্য জোকার।

প্রথম দুই সেটে নিজেকে খুঁজে না পাওয়া জোকোভিচ জান বাঁচানো তৃতীয় সেটে দারুণ ভাবে প্রত্যাবর্তন করে ৬-৩ গেমে জিতে নেন। চতুর্থ সেট জিতে ম্যাচে সমতায় ফেরেন। পঞ্চম ও ম্যাচ নির্ধারণী সেটে জিতে শেষ পর্যন্ত ক্লে কোর্টে নিজের জয় লিখেই কোর্ট ছাড়েন এই টেনিস খেলোয়াড়।

নিজের যোগ্যতার ওপরে ভরসা ছিল বলে দুর্দান্ত কামব্যাক সম্ভব হয়েছে বলে জানান জোকোভিচ, ‘এটা দারুণ একটা পরিবেশ ছিল। আমার কোচ ও ফিজিওকে ধন্যবাদ জানাব। একই সঙ্গে সবাইকে যারা এই ভ্রমণে আমার পাশে ছিলেন।’

‘গত ৪৮ ঘণ্টায় প্রায় নয় ঘণ্টা খেলতে হয়েছে আমাকে। দুই জন গ্রেট চ্যাম্পিয়নের বিপক্ষে খেলতে হয়েছে। তিন দিনে দুই ম্যাচ খেলা শারীরিকভাবে অনেক কঠিন। কিন্তু আমি আমার যোগ্যতার উপর ভরসা রেখেছি। জানতাম আমি ঘুরে দাঁড়াতে পারব।’

২০১৬ সালের পর দ্বিতীয়বার ফ্রেঞ্চ ওপেন শিরোপা জিতলেন জোকোভিচ।

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন

ফ্রেঞ্চ ওপেনের নতুন নারী চ্যাম্পিয়ন ক্রেইচিকোভা

ফ্রেঞ্চ ওপেনের নতুন নারী চ্যাম্পিয়ন ক্রেইচিকোভা

ফাইনাল জেতার পর ট্রফিতে চুমু খাচ্ছেন ক্রেইচিকোভা। ছবি: টুইটার

প্রথম সেটে ৬-১ ব্যবধানের সহজ জয়ে শুরু করেও দ্বিতীয় সেট একই ব্যবধানে হারেন বারবোরা ক্রেইচিকোভা। তবে তৃতীয় সেটে ঘুরে দাঁড়িয়ে ৬-৪ ব্যবধানে জেতেন ডাবলসের সাবেক এক নম্বর টেনিস খেলোয়াড়।

রোলাঁ গারোঁয় একটা ইতিহাসই হলো বলা যায়। ক্যারিয়ারে যে নারী টেনিস খেলোয়াড় সিঙ্গেলসের কোনো মেজর টুর্নামেন্টে চতুর্থ রাউন্ড পেরোতে ব্যর্থ হয়েছেন, পঞ্চমবারে এসে শুধু ফাইনাল নয়, গ্র‍্যান্ডস্ল্যামই জিতে গেলেন। তাতে ফ্রেঞ্চ ওপেনও পেল নতুন নারী চ্যাম্পিয়ন।

টুর্নামেন্টের অবাছাই টেনিস খেলোয়াড় চেক রিপাবলিকের বারবোরা ক্রেইচিকোভা হারিয়ে দেন ৩১ নম্বর বাছাই রাশিয়ার আনাসতাসিয়া পাভলুচেনকোভাকে।

তিন সেটের দুই সেট জিতে প্রথমবার গ্র‍্যান্ডস্ল্যামের খেতাব অর্জন করেছেন ক্রেইচিকোভা। প্রথম সেটে ৬-১ ব্যবধানের সহজ জয়ে শুরু করেও দ্বিতীয় সেট একই ব্যবধানে হারেন তিনি। তবে তৃতীয় সেটে ঘুরে দাঁড়িয়ে ৬-৪ ব্যবধানে জেতেন ডাবলসের সাবেক এক নম্বর টেনিস খেলোয়াড়।

রোববার আরেকটা খেতাব জেতার সুযোগ রয়েছে ক্রেইচিকোভার। ডাবলসের ফাইনালে কেটেরিনা সিনিয়াকোভার সঙ্গে জুটি বেঁধে গ্র‍্যান্ডস্ল্যাম জেতার সুযোগ রয়েছে তার।

চ্যাম্পিয়ন হলে ২১ বছরে প্রথম নারী খেলোয়াড় হিসেবে সিঙ্গেলস ও ডাবলসে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করবেন ক্রেইচিকোভা। এর আগে ২০০০ সালে এই বিরল কীর্তি গড়েছিলেন ফ্রান্সের মেরি পিয়ার্স।

ক্যারিয়ারে প্রথমবার গ্রান্ডস্ল্যাম জেতার পর উচ্ছ্বসিত এই চেক তারকা বলেন, ‘এটা শব্দে প্রকাশ করা কঠিন, কারণ আমি বিশ্বাস করতে পারছি না এটা হয়েছে। আমি বিশ্বাস করতে পারছি না যে আমি গ্র‍্যান্ডস্ল্যাম জিতেছি।’

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন

চার ঘণ্টার ক্ল্যাসিকে ফাইনালে জকোভিচ, নাদালের বিদায়

চার ঘণ্টার ক্ল্যাসিকে ফাইনালে জকোভিচ, নাদালের বিদায়

সেমি ফাইনালে রাফায়েল নাদালকে হারানোর পর উচ্ছ্বসিত নোভাক জকোভিচ। ছবি: এএফপি

শেষ চারের ম্যারাথন লড়াইয়ে নাদালকে ৩-১ সেটে হারান শীর্ষ বাছাই নোভাক জকোভিচ। তৃতীয় বাছাই স্প্যানিয়ার্ডকে ৩-৬, ৬-৩, ৭-৬ (৭-৪), ৬-২ গেমে হারান জকোভিচ।

ফ্রেঞ্চ ওপেনের ১৪তম শিরোপা আপাতত জেতা হচ্ছে না রাফায়েল নাদালের। ক্লে-কোর্টের রাজা এবারের আসরের সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছেন। শেষ চারের ম্যারাথন লড়াইয়ে নাদালকে ৩-১ সেটে হারান শীর্ষ বাছাই নোভাক জকোভিচ।

তৃতীয় বাছাই স্প্যানিয়ার্ডকে ৩-৬, ৬-৩, ৭-৬ (৭-৪), ৬-২ গেমে হারান জকোভিচ। চার ঘণ্টার লড়াইয়ে ফ্রেঞ্চ ওপেনের ১০৮ নম্বর ম্যাচে মাত্র তৃতীয় পরাজয়ের স্বাদ পান নাদাল। টানা চার বছর শিরোপা জেতার পর, এই প্রথম হারলেন ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী আধুনিক গ্রেট।

আধুনিক টেনিসের বিগ থ্রির দুইজনের লড়াইটা যে ক্ল্যাসিক কিছু একটা হতে যাচ্ছে, তার ধারণা পাওয়া যায় তৃতীয় সেটে। প্রথম দুই সেটে একটিতে নাদাল ও একটিতে জকোভিচ জেতায় তৃতীয় সেটেই সুযোগ ছিল এগিয়ে যাওয়ার।

সেই সুযোগ লুফে নেন জকোভিচ। টাইব্রেকে সেট জিতে ম্যাচে লিড নিয়ে নেন তিনি।

ক্লে-কোর্টের কিংবদন্তি নাদাল অবশ্য দমে যাননি তাতে। চতুর্থ সেটের জকোভিচকে ব্রেক করে ২-০ তে এগিয়ে যান তিনি। রোলাঁ গারোঁর ফিলিপ শাতিয়েঁ কোর্টে খেলা দেখারত অনুমতি পাওয়া হাজার পাঁচেক দর্শক যখন অপেক্ষায় পঞ্চম সেটের, তখনই কামব্যাক করেন জকোভিচ।

২-০ গেমে পিছিয়ে থাকার পর টানা ছয়টি গেম জিতে প্রমাণ দেন কেন তিনি ওয়ার্ল্ড নাম্বার ওয়ান। প্রিয় বন্ধু রাফায়েল নাদালের বিপক্ষে খেলা ৫৮ ম্যাচে এটি ছিল জকোভিচের ৩০তম জয়।

ম্যাচ শেষে এই সার্বিয়ান জানান, এটি তার ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা ম্যাচ ছিল। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘এটা এমন একটা ম্যাচ যেটা আমার সারা জীবন মনে থাকবে। আমার ক্যারিয়ারের সেরা তিন ম্যাচের একটি।‘

ক্লে-কোর্টের রাজাকে ফ্রেঞ্চ ওপেনে হারাতে নিজের সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলতে হবে মন্তব্য করেন জকোভিচ। বলেন, ‘এই কোর্টে রাফাকে হারাতে হলে সেরা খেলাটাই খেলতে হবে। আর আজ রাতে আমি সেটাই করেছি।

‘বলে বোঝাতে পারব না কেমন লাগছে। নিজেকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে কোনো চাপ নেই। কিন্তু চাপ ছিল। তবে এমন ম্যাচে চাপ একটা সুবিধা। কারণ এতে খেলোয়াড় হিসেবে আমার ও আমার দক্ষতার পরীক্ষা হয়।’

জকোভিচের সামনে সুযোগ থাকছে ১৯ নম্বর গ্র্যান্ড স্ল্যাম জেতার। রোববারের ফাইনালে গ্রিসের স্টেফানোস সিসিপাসের মুখোমুখি হচ্ছেন তিনি।

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন

কোরিয়ায় দুই রৌপ্য ও এক ব্রোঞ্জ পেল বাংলাদেশের আর্চাররা

কোরিয়ায় দুই রৌপ্য ও এক ব্রোঞ্জ পেল বাংলাদেশের আর্চাররা

কম্পাউন্ড মিশ্র দল। ছবি: সংগৃহীত

৭ হতে ১১ জুন পর্যন্ত পাঁচ দিনের এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ আর্চারি দল (বিকেএসপি) অংশগ্রহণ করে। টুর্নামেন্টজুড়ে বাংলাদেশের অর্জন দুটি রৌপ্য ও একটি ব্রোঞ্জ মেডেল।

দক্ষিণ কোরিয়ার গুয়াংজুতে চলছে আর্চারির এশিয়া কাপ ওয়ার্ল্ড র‌্যাঙ্কিং টুর্নামেন্টের স্টেজ-১ এর আসর। পাঁচ দিনের টুর্নামেন্ট শেষে দুই ফাইনালে হেরে একটুর জন্য স্বর্ণ জেতা হয়নি বাংলাদেশের যুব আর্চারদের।

টুর্নামেন্টজুড়ে বাংলাদেশের অর্জন দুটি রৌপ্য ও একটি ব্রোঞ্জ মেডেল।

৭ হতে ১১ জুন পর্যন্ত পাঁচ দিনের এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ আর্চারি দল (বিকেএসপি) অংশগ্রহণ করে।

শেষ দিনে কম্পাউন্ড মিশ্র দলগত ইভেন্টে ফাইনালে ১৪৬-১৫৫ স্কোরের ব্যবধানে কোরিয়ার কিম জঙ্গো ও এসও চাইওন জুটির কাছে হেরে রৌপ্য পদক অর্জন করে বাংলাদেশর শেখ সজিব ও পুস্পিতা জামান জুটি।

কম্পাউন্ড পুরুষ দলগত ইভেন্টে ফাইনালে রুপা জেতে বাংলাদেশ।

শেখ সজিব, হিমু বাছাড় ও মো. আসিফ মাহমুদ এই তিনজনের জুটি ২০৫-২৩৫ স্কোরের ব্যবধানে কোরিয়ার চই ইয়ঙ্গী, ক্যাঙ ডংইয়ং ও কিম জঙ্গো জুটির কাছে হেরে যায়।

কোরিয়ায় দুই রৌপ্য ও এক ব্রোঞ্জ পেল বাংলাদেশের আর্চাররা
কম্পাউন্ড পুরুষ দলগত ইভেন্টে ফাইনালে রুপা জেতে বাংলাদেশ

অন্যদিকে রিকার্ভ মিশ্র দলগত ইভেন্টে বাংলাদেশের প্রদীপ্ত চাকমা ও রজনী আক্তার জুটি ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করে।

আগামী ১৩ জুন রাত ১০টা ৪০ মিনিটে আর্চারি দলের দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন

সাক্কারির কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন স্ফিয়নটেকের বিদায়

সাক্কারির কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন স্ফিয়নটেকের বিদায়

ম্যাচ শেষে সাক্কারিকে (বাঁয়ে) অভিনন্দন জানাচ্ছেন স্ফিয়নটেক। ছবি: এএফপি

৬-৪, ৬-৪ গেমে ম্যাচ জিতে সাক্কারি নিশ্চিত করেন ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম সেমিফাইনাল।

ফ্রেঞ্চ ওপেনের নারী এককের কোয়ার্টার ফাইনালে সর্বোচ্চ র‍্যাঙ্কিংধারী ছিলেন আট নম্বর বাছাই ইগা স্ফিয়নটেক। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন এই পোলিশ তারকা টানা দ্বিতীয় ফ্রেঞ্চ ওপেন শিরোপা জয়ে ছিলেন ফেভারিট।

কিন্তু নিজের সেই ফেভারিট তকমা ধরে রাখতে পারেননি স্ফিয়নটেক। কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে ২০২০ এর চ্যাম্পিয়নকে। তাকে সরাসরি সেটে হারিয়ে সেমিফাইনালে পৌঁছে গেছেন গ্রিসের মারিয়া সাক্কারি।

১৭ তম বাছাই সাক্কারি প্রথম সেটে ব্রেক নেন দুটি। ৬-৪ গেমে সেট জিতে ম্যাচে লিড নিয়ে নেন তিনি।

দ্বিতীয় সেটের শুরুতেই তাকে ব্রেক করেন স্ফিয়নটেক। তবে ২-১ গেমে পিছিয়ে থাকা অবস্থা থেকে কামব্যাক করেন গ্রিক তারকা। ৬-৪ গেমে দ্বিতীয় সেট জিতে নিশ্চিত করেন ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম সেমি ফাইনাল। এমন অর্জনে নিজেই অবাক সাক্কারি। ম্যাচ শেষে বলেন, ‘আমি জানি না কী বলব। স্বপ্ন সত্যি হলো। দারুণ একটা অনুভূতি।’

শেষ চারে তার প্রতিপক্ষ চেকরিপাবলিকের বারবোরা ক্রেইচিকোভা। কোয়ার্টার ফাইনালে আমেরিকার কোকো গফগকে সরাসরি ৭-০ (৮-৬), ৬-৩ গেমে হারান অবাছাই ক্রেইচিকোভা। এটি এই চেক খেলোয়াড়েরও প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম সেমিফাইনাল।

পুরুষ এককে ছিল না কোনো অঘটন। প্রত্যাশিত ভাবেই জয় পেয়েছেন দুই সেরা তারকা রাফায়েল নাদাল ও নোভাক জকোভিচ।
রোলাঁ গারোঁর শেষ আটে আর্জেন্টিনার ডিয়েগো শোয়ার্টজমানের বিপক্ষে এক সেট হারতে হয়েছে নাদালকে। শেষ পর্যন্ত ৬-৩, ৪-৬, ৬-৪, ৬-০ গেমে ম্যাচ জিতে সেমি নিশ্চিত করেন ১৩ বার ফ্রেঞ্চ ওপেন জয়ী নাদাল।

আরেক কোয়ার্টার ফাইনালে শীর্ষ বাছাই নোভাক জকোভিচকেও খেলতে হয়েছে চার সেট। ইতালির মাত্তেও বেরেত্তিনিকে ৬-৩, ৬-২, ৬-৭ (৫-৭), ৭-৫ গেমে হারান সার্বিয়ান গ্রেট।

শীর্ষ বাছাই জকোভিচ ও তৃতীয় বাছাই নাদালের মধ্যে একজনই পৌঁছাতে পারবেন ফাইনালে। সেমিতেই মুখোমুখি হচ্ছে দুই বন্ধু।

পুরুষ এককের আরেক সেমিতে লড়বেন ষষ্ঠ বাছাই জার্মানির আলেক্সান্ডার এসফেরেফ ও পঞ্চম বাছাই গ্রিসের স্তেফানোস সিসিপাস।

আরও পড়ুন:
অলিম্পিকে পদকজয়ী খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার
অলিম্পিকে যাচ্ছেন স্প্রিন্টার জহির
বিশ্বকাপ আর্চারিতে বাজে শুরু বাংলাদেশের
অলিম্পিকস বাতিলের দাবি টোকিওর চিকিৎসকদের
বিশ্বকাপ রূপকথার অপেক্ষায় রোমানরা

শেয়ার করুন