20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
ডিসেম্বরে হকি প্রিমিয়ার লিগ

ডিসেম্বরে হকি প্রিমিয়ার লিগ

মঙ্গলবার ফেডারেশনের নির্বাহী কমিটি সভায় এই আশ্বাস দেয়া হয়েছে। এছাড়া সভায় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুর মধ্যে অন্যতম ছিল মোহামেডান ও মেরিনার্সের চার কর্মকর্তার শাস্তি প্রত্যাহার এবং ঊষা ক্রীড়া চক্রের প্রিমিয়ার লিগ খেলার বিষয়টি।

দুই বছর মাঠে নেই হকি প্রিমিয়ার লিগ। ক্যাসিনো কাণ্ডে ঝিমিয়ে পড়া বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন (বাহফে) লিগ গড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে অবশেষে। ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে লিগ আয়োজন করতে চায় ফেডারেশন।

মঙ্গলবার ফেডারেশনের নির্বাহী কমিটি সভায় এই আশ্বাস দেয়া হয়েছে। এছাড়া সভায় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুর মধ্যে অন্যতম ছিল মোহামেডান ও মেরিনার্সের চার কর্মকর্তার শাস্তি প্রত্যাহার এবং ঊষা ক্রীড়া চক্রের প্রিমিয়ার লিগ খেলার বিষয়টি।

২০১৮ সালে লিগের শেষ ম্যাচে অসদাচরণের কারণে মোহামেডানের আরিফুল হক প্রিন্স, আসাদুজ্জামান চন্দন ও মেরিনার্সের হাসানউল্লাহ খান রানাকে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ এবং এক লাখ করে টাকা জরিমানা করা হয়েছিল। মেরিনার্সের আরেক কর্মকর্তা নজরুল ইসলামকে তিন বছরের নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি ৫০ হাজার টাকা জরিমানার করা হয়।

টেকনিক্যাল কর্মকর্তা নাজিউর রহমানকে ফেডারেশনের সব দায়িত্ব থেকে তিন বছরের জন্য অব্যাহতি দেয়া হয়। প্রিমিয়ার লিগে অংশ না নেয়ায় ঊষা ক্রীড়া চক্রকে অবনমনের শাস্তি দেওয়া হয়।

সভায় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড ও মেরিনার ইয়াংস ক্লাবের চার কর্মকর্তার শাস্তি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।
হকি_মেরিনার

সভা শেষে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সভাপতি বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাশিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত বলেছেন, ‘সবাই খেলতে চায়। লিগ মাঠে গড়াতে চায়। তাই শর্ত সাপেক্ষে প্রত্যাহার করা হয়েছে।’

রেলিগেশন থেকে প্রিমিয়ার ডিভিশনে উষার অংশ নেওয়ার বিষয়ে আলোচনা হলেও শেষ পর্যন্ত সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসেনি সভায়। ঊষার বিষয়ে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে উল্লেখ করে সভাপতি বলেন, ‘ঊষার বিষয়টি গঠনতন্ত্রের মধ্যে থেকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। উষার ব্যাপারে অনেক কথা হয়েছে। আমরা একটা জিনিস চাই সবাই যেন খেলতে আসে। গঠনতন্ত্রের সঙ্গে কম্প্রোমাইজও করতে চাই না।

‘ঊষাকে প্রিমিয়ার লিগে রাখতে হলে বাইলজে পরিবর্তন আনতে হবে। যদি এখতিয়ারের মধ্যে থাকে সেটা করতে পারি এই স্বার্থে যে, সবাই খেলবে। লিগ অনেক দিন হয় না। আগামী ৫-৭ দিনের মধ্যে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। উষার আবেদন ও সব কিছু বিবেচনা করে দেখেছি। কিছু বিষয় আছে, যে কারণে সিদ্ধান্ত নেইনি। তারা বলছে, সময় দেয়া হয়নি। পূর্বে যারা ছিলেন, বিষয়টি নিয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে।’

শেয়ার করুন

মন্তব্য