× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Vivo Y27 Pre booking underway with attractive gifts
google_news print-icon

ভিভো ওয়াই২৭: চলছে প্রি-বুকিং, রয়েছে আকর্ষণীয় উপহার

ভিভো-ওয়াই২৭-চলছে-প্রি-বুকিং-রয়েছে-আকর্ষণীয়-উপহার
ছবি: নিউজবাংলা
ভিভো ওয়াই২৭ এর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ হাজার ৯৯৯ টাকা।

এলিট ডুয়েল রিং ডিজাইন, স্মার্ট আউটলুক, ৪৪ ওয়াটের সুপার ফাস্ট চার্জিং এবং ৬.৬৪ ইঞ্চি ফুল এইচডিপ্লাস সানলাইট ডিসপ্লে নিয়ে বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করেছে ভিভো ওয়াই২৭। বর্তমানে ফোনটির প্রি-বুকিং চলছে। পাশাপাশি লাকি ড্রয়ে অংশগ্রহণ করলে রয়েছে আকর্ষণীয় উপহার।

চমৎকার রিরো এন১০, ২ বছর ওয়্যারেন্টি বৃদ্ধি করার সুযোগসহ উপহার হিসেবে আরও রয়েছে আকর্ষণীয় ছাতা।

রুচিশীল রঙ ও চমৎকার ডিজাইনের ভিভো ওয়াই২৭ পাওয়া যাচ্ছে বারগেন্ডি ব্ল্যাক এবং সি ব্লু নামক দুইটি সুন্দর কালারে। ব্যাক সাইডের ক্যামেরা মডিউলে চোখে পড়বে ভিন্নতা। নেই বক্স আকারের আলাদা ক্যামেরা সেগমেন্ট। এর পরিবর্তে নজর কাড়বে ক্যামেরা বাইরে সোনালি রিং। ডুয়েল ক্যামেরা মডিউল ডিজাইনের সোনালি রঙ বাড়িয়েছে স্মার্টফোনের সৌন্দর্য্য।

পাঁচ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারির চার্জে রয়েছে ৪৪ ওয়াটের টাইপ-সি ফ্লাশ চার্জার। একবার শতভাগ চার্জে টানা ১৬ ঘণ্টার বেশি ভিডিও দেখা সম্ভব। সারা দিনের কাজে ব্যবহার করলেও এর চার্জ থাকবে প্রায় দেড় দিন পর্যন্ত। পাশাপাশি উন্নত চার্জিং প্রযুক্তি ব্যবহার করায় ভিভো ওয়াই২৭ শতভাগ চার্জ হবে মাত্র এক ঘন্টারও কম সময়ে।

২.৫ডি কার্ভড ডিজাইনের স্কয়ার আকারের স্মার্টফোনটির বডি ডায়মেনশন ১৬৪.০৬x৭৬.১৭x৮.০৭ মিমি। ওজন মাত্র ১৯০ গ্রাম। যা বেশ লাইট গ্রিপ দেয়।

২৩৮৮x১০৮০ রেজুলেশনের ৬.৬৪ ইঞ্চি ফুল এইচডিপ্লাস সানলাইট ডিসপ্লে পাওয়া যাবে স্মার্টফোনটিতে। তাই রোদের আলোতেও ব্যবহার উপযোগী হবে ভিভো ওয়াই২৭ এর মাল্টিটাচ ক্যাপাসিটিভ ডিসপ্লে।

মিডিয়াটেক হেলিও জি৮৫ প্রসেসরের সাথে আপডেটেড ফানটাচ ওএস ১৩ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করায় বেশ স্মুথ অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে। বাড়বে কাজের গতি। অ্যাপ পরিবর্তন এবং অ্যাপ ডেটা সংরক্ষণ হবে সহজ।

ফোনটিতে রয়েছে ৬ জিবি র‍্যাম। তাই স্টোরেজের চিন্তার অবসান হবে নিমিষেই। এক্সটেন্ডড র‍্যাম টেকনোলজি ৩.০-এর জন্য চাইলেই আরও ৬ জিবি র‍্যাম বাড়িয়ে নেওয়া সুবিধা রয়েছে। পাশাপাশি ১২৮ জিবি রম ব্যবহার করা যাবে ভিভো ওয়াই২৭ ফোনে।

ফোনের ৫০ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা ক্লিয়ার ক্যামেরায় তোলা ছবি হবে জীবন্ত। টোনাল কোয়ালিট হবে অথেনটিক, ন্যাচারাল এবং অ্যানার্জেটিক। ফোনটিতে আরও রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা এবং ২ মেগাপিক্সেল বোকেহ। পাশাপাশি পোর্ট্রটে মোড, নাইট মোড, প্যানোরামা, লাইভ ছবি, স্লো-মোশন, টাইম ল্যাপস ইত্যাদি ফিচার তো থাকছেই।

ভিভো ওয়াই২৭ এর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ হাজার ৯৯৯ টাকা।

আরও পড়ুন:
দুর্দান্ত ৫ ফিচারে যাত্রা শুরু করল ভিভো ওয়াই২৭
ভিভোর ঈদ অফারে লাখপতি হওয়ার সুযোগ
দুর্দান্ত গেমিং অভিজ্ঞতা দিতে বাজারে ইনফিনিক্স হট-২০এস

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Internet will lose speed on Saturday
সাবমেরিন কেবল রক্ষণাবেক্ষণ কাজ

ইন্টারনেট গতি হারাবে শনিবার

ইন্টারনেট গতি হারাবে শনিবার
কক্সবাজারে স্থাপিত সাবমেরিন ক্যাবল সিস্টেমের সিঙ্গাপুর প্রান্তে রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য শনিবার সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টা এই ক্যাবলের মাধ্যমে সংযুক্ত সার্কিটগুলো আংশিক বা পুরোপুরি বন্ধ থাকবে।

সাবমেরিন ক্যাবল রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য শনিবার (২ মার্চ) ইন্টারনেট সেবা বিঘ্নিত হতে পারে। এদিন ইন্টারনেটের গতি কম পাওয়াসহ থেকে থেকে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার মতো ঘটনার সম্মুখীন হতে পারেন ব্যবহারকারীরা।

বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কক্সবাজারে স্থাপিত দেশের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল (সি-এমই-ডব্লিউই-৪) সিস্টেমের সিঙ্গাপুর প্রান্তে রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য ২ মার্চ বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় ইন্টারনেট সেবা সাময়িক ব্যাহত হবে। এদিন সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টা এই ক্যাবলের মাধ্যমে সংযুক্ত সার্কিটগুলো আংশিক বা পুরোপুরি বন্ধ থাকবে।

তবে কুয়াকাটায় স্থাপিত দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন (সি-এমই-ডব্লিউই-৫) ক্যাবলের মাধ্যমে সংযুক্ত সার্কিটগুলো যথারীতি চালু থাকবে।

আরও পড়ুন:
মোবাইল ইন্টারনেটের গতিতে বাংলাদেশ ১১৯তম
নিজের ইন্টারনেট প্ল্যান নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন গ্রামীণফোন গ্রাহকরা
দেশে ইন্টারনেট গ্রাহক সাড়ে ১২ কোটি, সিম ১৮ কোটি
উপকূলে মোবাইল ফোন-ইন্টারনেট সেবা ফিরবে ধীরে ধীরে
ইন্টারনেট ব্যবসার দখল নিতে হাঙ্গামা

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
New York Times claims OpenAI hacked ChatGPT

চ্যাটজিপিটি ‘হ্যাক’ করেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস, দাবি ওপেনএআইয়ের

চ্যাটজিপিটি ‘হ্যাক’ করেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস, দাবি ওপেনএআইয়ের ওপেনএআইয়ের লোগো। ছবি: সংগৃহীত
চ্যাটজিপিটি তাদের ব্যবহারকারীদের তথ্য সরবরাহ করার জন্য চ্যাটবটকে প্রশিক্ষণ দিতে অনুমতি ছাড়াই নিউ ইয়র্ক টাইমসের আর্টিকেল ব্যবহার করেছে বলে অভিযোগ এনে গত ডিসেম্বরে ওপেনএআই ও এর বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফটের বিরুদ্ধে মামলা করে যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমটি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি খাতের আলোচিত প্রতিষ্ঠান ওপেনএআই আদালতে তাদের বিরুদ্ধে করা নিউ ইয়র্ক টাইমসের কপিরাইট বা মেধাস্বত্ব লঙ্ঘনের মামলাটি খারিজ করতে বলেছে। ওপেনএআইয়ের দাবি, মামলার জন্য বিভ্রান্তিকর প্রমাণ তৈরি করতে সংবাদমাধ্যমটি চ্যাটবট চ্যাটজিপিটি এবং অন্য কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সিস্টেম ‘হ্যাক’ করেছে।

ওপেনএআই সোমবার ম্যানহাটন ফেডারেল আদালতে এ দাবি করে বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়।

চ্যাটজিপিটি তাদের ব্যবহারকারীদের তথ্য সরবরাহ করার জন্য চ্যাটবটকে প্রশিক্ষণ দিতে অনুমতি ছাড়াই নিউ ইয়র্ক টাইমসের আর্টিকেল ব্যবহার করেছে বলে অভিযোগ এনে গত ডিসেম্বরে ওপেনএআই ও এর বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফটের বিরুদ্ধে মামলা করে যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমটি।

মামলায় বলা হয়, শতকোটি ডলারের বেশি ক্ষতির জন্য ওপেনএআই ও মাইক্রোসফটকে দায়ী করা উচিত। চ্যাটজিপিটির এ কাজের জন্য পাঠকরা অর্থ প্রদান ছাড়াই নিউ ইয়র্ক টাইমসের আর্টিকেল পেয়ে যেতে পারেন। অর্থাৎ, নিউ ইয়র্ক টাইমস সাবস্ক্রিপশনের পাশাপাশি বিজ্ঞাপনে পাঠকের ক্লিক থেকে আয় হারাচ্ছে।

ওপেনএআই ম্যানহাটন ফেডারেল আদালতে বলেছে, টাইমসের এ অভিযোগ তাদের সাংবাদিকতার মানদণ্ড পরিপন্থি। এ ক্ষেত্রে যে সত্যটি বেরিয়ে আসবে, তা হলো টাইমস চ্যাটজিপিটি হ্যাক করার জন্য কাউকে অর্থ প্রদান করেছে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিনিধিরা এ বিষয়ে এখনও কোনো সাড়া দেননি।

টাইমস এর আগেও অনেক টেক কোম্পানির বিরুদ্ধে কপিরাইট লঙ্ঘনের মামলা করেছে। এ ছাড়াও এ তালিকায় রয়েছে লেখক, ভিজ্যুয়াল শিল্পী এবং সঙ্গীত প্রকাশকদের গ্রুপ।

আরও পড়ুন:
চাকরি ফিরে পেয়েছেন চ্যাটজিপিটির উদ্ভাবক স্যাম
চ্যাটজিপিটির নামে মামলা ‘গেম অফ থ্রোনস’ লেখকের

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Ants cannot fly due to lack of money

টাকার অভাবে চলতে পারছে না ‘পিপীলিকা’

টাকার অভাবে চলতে পারছে না ‘পিপীলিকা’ বাংলা ভাষায় বিশ্বের প্রথম সার্চ ইঞ্জিন পিপীলিকার লোগো। ছবি: পিপীলিকা
অর্থ সংকটে ধুঁকছে শাবির সাড়া জাগানো চার উদ্ভাবন। তিন বছর ধরে বন্ধ রয়েছে বিশ্বের একমাত্র বাংলা সার্চ ইঞ্জিন ‘পিপীলিকা’। প্লে-স্টোরে থাকলেও নিস্ক্রিয় কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন ‘একুশে বাংলা কি-বোর্ড’। ফান্ডিং সংকটে আটকে গেছে দ্রুত ক্যানসার শনাক্তের ‘ননলিনিয়ার অপটিকস’ ডিভাইসটিও। অর্থ ও জনবলের অভাবে এগোতে পারেনি বাংলায় কথা বলা রোবট ‘রিবো’।

২০১৩ সালে বিশ্বের প্রথম বাংলা সার্চ ইঞ্জিন তৈরি করে সাড়া ফেলে দেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। এই সার্চ ইঞ্জিনের নাম দেয়া হয় ‘পিপীলিকা’। তবে গত তিন বছর ধরে থমকে আছে এর কার্যক্রম। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অর্থ সংকটে সার্চ ইঞ্জিনটির কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

কেবল সার্চ ইঞ্জিন ‘পিপীলিকা’ই নয়, একই অবস্থা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন ‘একুশে বাংলা কি-বোর্ড’-এরও। প্লে-স্টোরে অ্যাপটি থাকলেও তা একপ্রকার নিস্ক্রিয়। দ্রুত ক্যানসার শনাক্তের সম্ভাবনাময় ‘ননলিনিয়ার অপটিকস’ ডিভাইসটিও অর্থ সংকটে আটকে গেছে। করোনা মহামারি এবং অর্থ ও জনবলের অভাবে এগোতে পারেনি বাংলায় কথা বলতে পারা রোবট ‘রিবো’।

দেশের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে তেত্রিশ বছর আগে সিলেটে প্রতিষ্ঠিত হয় শাহজালা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের কিছু উদ্ভাবন সকলের প্রশংসা কুড়ায়। উদ্ভাবনী কার্যক্রমের মাধ্যমে দ্রুত দেশের অন্যতম সেরা বিদ্যাপীঠে পরিণত হয় এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তবে গত কয়েক বছর ধরেই নেই নতুন কোনো উদ্ভাবন। এমনকি পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে থমকে আছে পুরনোগুলোও।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রশাসন শিক্ষার্থীদের ওপর অ্যাকাডেমিক চাপ অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। ফলে তারা গবেষণা, উদ্ভাবনসহ সৃজনশীল কাজে যুক্ত হতে পারছেন না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকেও এ ব্যাপারে এখন কোনো উৎসাহ দেয়া হয় না।

পিপীলিকা

২০১৩ সালের ১৩ এপ্রিল ১১ জন ডেভেলপার মিলে তৈরি করেন বিশ্বের প্রথম এবং এখন পর্যন্ত একমাত্র বাংলা সার্চ ইঞ্জিন পিপীলিকা। পিপীলিকার প্রকল্প পরিচালনায় ছিলেন এই বিশ্ববিদ্যালয়েরই কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের তৎকালীন অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। মুখ্য গবেষক ও টিম লিডার হিসেবে কাজ করেন মো. রুহুল আমীন সজীব।

শাবির আইআইসিটি বিভাগ জানায়, বাংলা সার্চ ইঞ্জিন ‘পিপীলিকা’ সংক্রান্ত কিছু সার্ভিস গ্রহণের বিনিময়ে সরকারের এটুআই (অ্যাক্সেস টু ইনফরমেশন) প্রোগ্রাম থেকে ২০১৭ সালের জুলাই থেকে ২০২০ সালের অক্টোবর পর্যন্ত ৮ কিস্তিতে মোট ১ কোটি ৭১ লাখ ৫৫ হাজার ৩৬৬ টাকা দেয়া হয়। শেষ কিস্তির (৯ম কিস্তি) ২১ লাখ ৭৪ হাজার ৬৫৩ টাকা পিপীলিকাকে পরিশোধের আগেই সরকারের এটুআই প্রোগ্রামের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। এরপর থেকেই অর্থ সংকটে পিপীলিকা বন্ধ রয়েছে।

আগের মতো ৫-৬ জন পূর্ণকালীন আইটি/সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার নিয়োগের মাধ্যমে কাজ করানোর জন্য মাসিক ৩-৪ লাখ টাকা অনুদান পেলে পিপীলিকার উন্নয়ন কাজ চলমান রাখা যাবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এই প্রজেক্টটির বর্তমান অবস্থা জানতে চাইলে টিম লিডার মো. রুহুল আমীন সজীব বলেন, ‘আমি এখন এই প্রকল্পের সঙ্গে সংযুক্ত নই।’

শাবির আইআইসিটির পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘এই প্রজেক্টের ফান্ডিং আসত সরকারের কাছে থেকে। ২০২০ সাল থেকে আমাদের প্রজেক্ট সংশ্লিষ্ট সবকিছু সঠিক সময়ে পাঠালেও কোনো অর্থ পাইনি। সর্বশেষ আমাদের প্রায় ২২ লাখ টাকা আটকে আছে।’

তিনি বলেন, ‘টাকা ছাড়া তো আমরা গবেষক ও কর্মচারীদের কাজ করাতে পারি না। আমরা যতটুকু সম্ভব দিয়েছি। তবুও তাদের বেশ কিছু টাকা বকেয়া রয়েছে। কোনো কারণ ছাড়াই আমাদের আর টাকা দেয়া হয়নি। আবার মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকেও কিছু বলা হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আর্থিক সাপোর্ট না পাওয়ায় কারণে বর্তমানে তা বন্ধ আছে। বিষয়টি নিয়ে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী, সচিব ও এটুআইয়ের পিডিসহ সকলের দ্বারে দ্বারে গিয়েছি, কিন্তু কাজ হয়নি। আমাদের সব রিসোর্স আছে। সরকারের কাছে থেকে আবার সাপোর্ট পেলে আমরা তা সচল করতে পারব।’

এটুআই প্রোগ্রামের তৎকালীন প্রকল্প পরিচালক (পিডি) ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর বলেন, “যতটুকু মনে পড়ে ‘পিপীলিকা’ সার্চ ইঞ্জিনটা যেমন প্রত্যাশা করা হয়েছিল, সেই মানের হয়নি। এজন্য ফান্ডিং বন্ধ করা হয়। এ বিষয়ে বর্তমান পিডি ভালো বলতে পারবেন।’

বর্তমান পিডি (যুগ্মসচিব) মো. মামুনুর রশীদ ভূঁইয়া বলেন, ‘এটি আমার জানা নাই। এটা আসলে কী অবস্থায় আছে, খোঁজ নিয়ে জানার চেষ্টা করব।’

একুশে বাংলা কি-বোর্ড

কি-বোর্ড নিজেই বুঝে ফেলবে ব্যবহারকারী কী লিখতে চাইছেন- ২০১৮ সালে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন এমন কি-বোর্ড কি-বোর্ড উদ্ভাবন করেন শাবি শিক্ষার্থীরা। এর নাম দেয়া হয় ‘একুশে বাংলা কিবোর্ড’।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সংযোজনের পাশাপাশি দ্রুত টাইপিং ও স্পর্শ করে লেখার ব্যবস্থা রয়েছে এ কি-বোর্ডে। ফলে টাইপ না জানলেও যে কেউ সহজেই বাংলা টাইপিং শিখতে পারে এর মাধ্যমে।

২০২০ সালে কি-বোর্ডটির উদ্ভাবক তৎকালীন শাবির সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী বিদেশে চলে গেলে সেটির কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। প্লে-স্টোরে অ্যাপটি থাকলেও নিস্ক্রিয় অবস্থায় রয়েছে।

প্রজেক্টটির বর্তমান অবস্থা জানতে চাইলে বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী বলেন, ‘দুর্ভাগ্যবশত আমাদের কাছে এই প্রজেক্টের কোনো আপডেট নেই। আমি দেশের বাইরে চলে যাওয়ার পর এ ব্যাপারে আর কোনো কাজ করা হয়নি।’

ননলিনিয়ার অপটিকস

রক্তের নমুনা পরীক্ষা করার মাধ্যমে ক্যানসার শনাক্তকরণ পদ্ধতি উদ্ভাবনেও রয়েছে শাবিপ্রবির সাফল্য। অল্প খরচে ও কম সময়ে ‘ননলিনিয়ার অপটিকস’ নামের উদ্ভাবিত এ পদ্ধতিতে রক্তের একটি পরীক্ষার মাধ্যমে মাত্র ১০ থেকে ২০ মিনিটেই ক্যানসার শনাক্ত করা সম্ভব হবে বলে দাবি ছিল উদ্ভাবকদের।

হায়ার এডুকেশন কোয়ালিটি এনহ্যান্সমেন্ট প্রজেক্টের (হেকেপ) আওতায় শাবির পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সেসময়কার অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন হকের নেতৃত্বে একদল গবেষক ক্যানসার শনাক্তকরণের এ সাশ্রয়ী প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেন।

গবেষক দলের অন্য সদস্যরা হলেন- অধ্যাপক ড. শরীফ মো. শরাফ উদ্দিন, মনজ কান্তি বিশ্বাস ও এনামুল হক।

প্রজেক্টটির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. শরীফ মো. শরাফ উদ্দিন বলেন, ‘ফান্ডিংসহ অনেক সমস্যা আছে। মূলত ফান্ডিংয়ের জন্য আমরা আটকে গেছি। বিশ্বব্যাংকের একটি প্রজেক্ট শিগগিরিই চালু হবে। সম্ভবত পিডি নিয়োগ হয়ে গেছে। ওটা হলেই আমরাও ফান্ড পেয়ে যাব।

‘বর্তমানে আপগ্রেডের কাজ চলছে। ফান্ডিং পেলে আমরা ক্লিনিক্যালি ব্যবহারের উপযুক্ত করে তুলব।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য ছিল, কোনো ডিভাইসের মাধ্যমে এটাকে সর্বসাধারণের ব্যবহাপযোগী করে তোলা। হেকাপের আওতায় কাজটি চলছিল, পরে হিট আসার কথা ছিল। সেভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছি আমরা। পরবর্তী প্রজেক্ট পেলে আমরা বাকি কাজ করে ফেলতে পারব।’

প্রকল্পটি একেবারে বন্ধ হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কাজ আমাদের মতো করে চলছে।’

রোবট রিবো

২০১১ সাল থেকে শাবির তৎকালীন অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও শিক্ষার্থী নওশাদ সজীব উদ্যোগে ১১ জনের একটি দল রোবট নিয়ে কাজ শুরু করে।

২০১৫ সালে বার্ষিক সায়েন্স ফিকশন ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শনের জন্য বাংলাদেশ সায়েন্স ফিকশন সোসাইটি রোবোসাস্টকে মানবসদৃশ রোবট তৈরির করতে ১ লাখ টাকা অনুদান দেয়। দলটি বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো মানবসদৃশ রোবট তৈরি করে, যার নাম দেয়া হয় ‘রিবো’।

রোবটটি ২৪ ডিগ্রি কোণে স্বাধীনভাবে ঘুরতে, নাচতে, মুখের অঙ্গভঙ্গির প্রকাশ, হ্যান্ডশেক, হাত উপর-নিচে তোলা, বাংলায় কথা বলা, এমনকি নিজের নামও বলতে পারত। বাংলাদেশ ও মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যে কোনো প্রশ্নের উত্তর দিতে পারত।

রোবটটি তৈরিতে নেতৃত্ব দেয়া শাবির সিএসই বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী নওশাদ সজীব বর্তমানে বিদেশে রয়েছেন।

দলের সদস্য মেহেদী হাসান রূপক বলেন, ‘আমরা ঢাকায় প্রোগ্রাম করেছিলাম। সেখানে আইসিটি প্রতিমন্ত্রীও ছিলেন। তিনি বলেছিলেন ফান্ডিং করবেন। আমরা তখন উনাকে একটা আবেদনপত্রও দিয়েছিলাম। পরে করোনা ও জনবল সংকটে আর এগোতে পারিনি। এর মধ্যে আমাদেরও পড়ালেখা শেষ হয়ে যায়।’

সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. কবির হোসেন বলেন, ‘এই উদ্ভাবনগুলোর বর্তমান অবস্থার বিষয়ে আমি খোঁজখবর নেব। প্রয়োজনে সরকারের উচ্চ পর্যায়েও আমরা কথা বলব।’

উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলে দ্রুত কর্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Infinix laptops are different for those three reasons

যে তিন কারণে আলাদা ইনফিনিক্স ল্যাপটপ

যে তিন কারণে আলাদা ইনফিনিক্স ল্যাপটপ ইনফিনিক্স ল্যাপটপের সঙ্গে থাকছে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি। ছবি: সংগৃহীত
স্পেসিফিকেশনস এবং ওয়ারেন্টি সুবিধার পাশাপাশি ইনফিনিক্স ল্যাপটপের দাম বাজেট-বান্ধব। এক্স২ ডিভাইসটির দাম ৬১ হাজার ৯৯০ টাকা এবং ওয়াই২ প্লাস-এর দাম ৫৮ হাজার ৯৯০ টাকা। 

বর্তমান তরুণদের জীবন অনেকাংশেই যোগাযোগ নির্ভর এবং এর প্রযুক্তিও নিয়ত পরিবর্তনশীল। ফলে তাদের ডিভাইসগুলোকে হতে হয় আপ-টু-ডেট। এমন প্রেক্ষাপটে সম্প্রতি ইনবুক সিরিজের নতুন ল্যাপটপ নিয়ে এসেছে তরুণদের প্রিয় প্রযুক্তি ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স।

তবে নানা ধরনের ও নানা ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ এখন বাজারে আছে। তাই প্রশ্ন আসতেই পারে- এই ভিড়ে ইনফিনিক্স ল্যাপটপ কীভাবে আলাদা?

ইনবুক সিরিজের এক্স২ এবং ওয়াই২ প্লাস মডেল দুটি ইতোমধ্যেই বাজারে সাড়া ফেলেছে। মূলত তিনটি ব্যতিক্রমী বৈশিষ্ট্য এই সিরিজের ল্যাপটপগুলোকে অনন্য করে তুলেছে। এই বৈশিষ্ট্যগুলোর মধ্যে রয়েছে আধুনিক জীবনের প্রয়োজন মেটাতে পারে এমন সব স্পেসিফিকেশন, রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি এবং বাজারমূল্য।

প্রথমত, নজরকাড়া মেটালিক ফিনিশে তৈরি এক্স২ এবং ওয়াই২ প্লাস মডেল দুটিতে আছে ১১ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই৫ প্রসেসর। ফলে স্বচ্ছন্দেই করা যাবে মাল্টিটাস্কিং, রয়েছে প্রি-ইনস্টলড উইন্ডোজ ১১ হোম অপারেটিং সিস্টেম। কুলিং সিস্টেম হিসেবে ইনবুক সিরিজের ল্যাপটপে আছে আইস স্টর্ম ১.০। এই কুলিং সিস্টেমেরে বিশেষত্ব হচ্ছে, এটি ডিভাইসের প্রসেসরকে দ্রুত ঠান্ডা করতে পারে। তাই আর পোর্টেবল কুলিং ফ্যানের ঝামেলা পোহাতে হয় না।

এ ছাড়াও ইনফিনিক্স ল্যাপটপে আছে ৮ জিবি র‍্যাম এবং ৫১২ জিবি এনভিএমই এসএসডি। ফলে ব্যাটারি লাইফ উন্নত হওয়ার পাশাপাশি পারফর্ম্যান্স আরও ভালো পাওয়া যায়। এই সমন্বয়ের ফলে কোনো ঝামেলা ছাড়াই ব্যবহারকারীরা একইসঙ্গে বেশ কয়েকটি অ্যাপ্লিকেশন, ট্যাব ও প্রোগ্রাম ওপেন করে কাজ করতে পারবেন।

একটানা দীর্ঘসময় ধরে কাজ করার নিশ্চয়তা দিতে ল্যাপটপগুলোতে আছে ৫০ ওয়াট-আওয়ার ব্যাটারি এবং ৪৫ ওয়াট সি-টাইপ চার্জার। যার ফলে ডিভাইসগুলো সহজে ও নিশ্চিন্তে বহনযোগ্য।

ইনবুক সিরিজের দুটি ল্যাপটপেই আছে দারুণ, প্রাণবন্ত ও উজ্জ্বল ডিসপ্লে। ইনবুক এক্স২ মডেলটিতে আছে চিকন বেজেলের ১৪ ইঞ্চি ফুল এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে। ঘরে ও বাইরে কাজ করতে হয় এমন চাকুরিজীবীদের জন্য ১ দশমিক ২৪ কেজি ওজনের এই হালকা ল্যাপটপটি মানানসই হবে।

আর ইনবুক ওয়াই২ প্লাস ল্যাপটপে আছে ১৫.৬ ইঞ্চির এফএইচডি প্লাস ডিসপ্লে। বড় স্ক্রিনের এই মডেলটি শিক্ষার্থী ও নতুন কর্পোরেট এক্সিকিউটিভদের প্রয়োজন মেটাতে সক্ষম হবে।

দ্বিতীয়ত, ইনফিনিক্স ল্যাপটপের সঙ্গে থাকছে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি এবং দুই বছরের প্রোডাক্ট ওয়ারেন্টি। ডিভাইস কেনার প্রথম ১০০ দিনের মধ্যে কোনো সমস্যা দেখা দিলে বাড়তি কোনো খরচ ছাড়াই ব্যবহারকারীরা সেই ডিভাইসটি পাল্টাতে পারবেন।

স্পেসিফিকেশনস এবং ওয়ারেন্টি সুবিধার পাশাপাশি ইনফিনিক্স ল্যাপটপের দাম বাজেট-বান্ধব। এক্স২ ডিভাইসটির দাম ৬১ হাজার ৯৯০ টাকা এবং ওয়াই২ প্লাস-এর দাম ৫৮ হাজার ৯৯০ টাকা।

রুপালি ও ধূসর রঙে এবং সম্পূর্ণ মেটাল বডি ডিজাইনে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে এক্স২ এবং ওয়াই২ প্লাস ল্যাপটপ দুটি। এমন বাজেটে বর্তমান বাজারে এই দুটি ল্যাপটপই সবচেয়ে আকর্ষণীয়। ইনবুক এক্স২ এবং ইনবুক ওয়াই২ প্লাস ল্যাপটপ দুটি পাওয়া যাচ্ছে স্টারটেক ও রায়ানস-এর মতো ইনফিনিক্সের অনুমোদিত রিটেইলার এবং দেশের বৃহত্তম অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজে।

আরও পড়ুন:
বাজারে এলো ইনফিনিক্সের গেমিং স্মার্টফোন হট ৪০ প্রো
ফ্ল্যাশ লাইট বনাম রিং লাইট: কোনটি বেশি উপযোগী
দেশের বাজারে ইনফিনিক্সের ইনবুক সিরিজের দুই ল্যাপটপ
সিইএস ২০২৪: স্মার্ট ডিভাইস চার্জ হবে ৮ ইঞ্চি দূর থেকেই
নতুন গেমিং ফোন নিয়ে এলো ইনফিনিক্স

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Dictionary of Sign Language Education Launched by UNDP
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

‘ইশারায় ভাষা শিক্ষার অভিধান’ চালু ইউএনডিপির

‘ইশারায় ভাষা শিক্ষার অভিধান’ চালু ইউএনডিপির ওয়েবসাইটের স্ক্রিনশট
ই-অভিধান, ইশারার ভাষার একটি বিস্তৃত শব্দভান্ডার সরবরাহ করে, নিচের লিংকে সরাসরি প্রবেশ করা যেতে পারে- https://ishara.sonket.org/। এছাড়া গুগল প্লে স্টোর থেকেও এটি ডাউনলোড করা যাবে।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২৪ উপলক্ষে একটি উদ্ভাবনী ‘সাইন ল্যাংগুয়েজ ই-ডিকশনারি’ বা ‘ইশারার ভাষা শিক্ষার অভিধান’ চালু করেছে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি)।

অভিধানটি ব্যক্তিদের ইশারার ভাষা শিখতে এবং শ্রবণ ও বাকপ্রতিবন্ধীদের সঙ্গে কার্যকরভাবে যোগাযোগ করতে সক্ষম করে তোলার লক্ষ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে। খবর ইউএনবির

ই-অভিধান, ইশারার ভাষার একটি বিস্তৃত শব্দভান্ডার সরবরাহ করে, নিচের লিংকে সরাসরি প্রবেশ করা যেতে পারে-

https://ishara.sonket.org/। এছাড়া গুগল প্লে স্টোর থেকেও এটি ডাউনলোড করা যাবে।

এই উদ্যোগটি সমস্ত দিক থেকে বৈচিত্র্য, সমতা এবং প্রবেশযোগ্যতা তুলে ধরার জন্য ইউএনডিপির চলমান প্রতিশ্রুতিতে জোর দেয়।

ইশারার ভাষায় ই-ডিকশনারি উন্মোচনে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশে ইউএনডিপির আবাসিক প্রতিনিধি স্টেফান লিলার।

তিনি বলেন, শ্রবণ ও বাক প্রতিবন্ধীদের মধ্যে যোগাযোগ ও বোঝাপড়া বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইউএনডিপি বাংলাদেশ একটি অসাধারণ ‘ইশারায় ভাষা শিক্ষার অভিধান’ উন্মোচন করেছে।

তিনি আরও বলেন, ‘এই উদ্ভাবনী উদ্যোগটি কেবল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের চেতনার সঙ্গেই সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বরং আমাদের কাজের সমস্ত ক্ষেত্রে বৈচিত্র্য, সমতা এবং প্রবেশযোগ্যতা প্রচারের জন্য আমাদের চলমান প্রচেষ্টাকেও প্রতিফলিত করে। ইশারায় ভাষা শিক্ষার অভিধান একটি শক্তিশালী হাতিয়ার যা সাধারণ ব্যক্তিদের আরও অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং বোধগম্যতার সমাজ গঠনে শিখতে এবং অবদান রাখতে দেয়।

ইউএনডিপি ব্যক্তি, সম্প্রদায় এবং সংস্থাকে ইশারা ভাষা ই-অভিধান অন্বেষণ এবং ব্যবহার করতে, অন্তর্ভুক্তির সংস্কৃতি লালন করতে এবং যোগাযোগের বাধাগুলো ভেঙে ফেলতে উৎসাহিত করে।

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Infinixs gaming smartphone Hot 40 Pro has hit the market

বাজারে এলো ইনফিনিক্সের গেমিং স্মার্টফোন হট ৪০ প্রো

বাজারে এলো ইনফিনিক্সের গেমিং স্মার্টফোন হট ৪০ প্রো ডিভাইসটির সামনে থাকা ৩২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা দিয়ে সুন্দর সেলফি তুলতে পারবেন তরুণরা। ছবি: ইনফিনিক্স
ফটোগ্রাফির জন্য ডিভাইসটিতে আছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরা। এ হাই-রেজ্যুলুশন লেন্সের সঙ্গে আছে দুই মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স। পাশাপাশি এতে আছে একটি এইচএমএস সেন্সর, যা সুন্দর ও স্পষ্ট ছবি তুলতে ব্যবহারকারীদের সাহায্য করবে।

স্মার্টফোন গেমারদের জন্য বাংলাদেশের বাজারে নতুন গেমিং ফোন ‘হট ৪০ প্রো’ নিয়ে এলো তরুণদের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স।

তরুণ গেমারদের সেরা গেমিং অভিজ্ঞতা দিতে শক্তিশালী ও উন্নত ফিচারে আনা হয়েছে ফোনটি। ডিভাইসটিতে উন্নত পারফরম্যান্স নিশ্চিত করতে জোর দেয়া হয়েছে খুঁটিনাটি প্রতিটি বিষয়ের ওপর।

হট ৪০ প্রো ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৬ ন্যানোমিটারের মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৯ আল্ট্রা-স্পিড প্রসেসের। ফলে কম শক্তি খরচেই পাওয়া যাবে কার্যকর পারফরম্যান্স। এ প্রসেসরকে আরও শক্তিশালী করেছে ইনফিনিক্সের তৈরি এক্স-বুস্ট গেমিং ইঞ্জিন। এ সমন্বয়টি তরুণদের গেমিং চাহিদা পূরণের পাশাপাশি নিশ্চিত করবে স্বাচ্ছন্দ্যময় অভিজ্ঞতা।

দিনব্যাপী নিরবচ্ছিন্ন পারফরম্যান্স নিশ্চিত করতে সাশ্রয়ী মূল্যের গেমিং ফোনটিতে আছে ৫০০০ এমএএইচের ব্যাটারি এবং ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার। এ চার্জার দিয়ে ৩৫ মিনিটেই ফোনটির চার্জের পরিমাণ ২০ শতাংশ থেকে ৭৫ শতাংশ করা যায়। এ ছাড়া চার্জিংয়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ফোনটিতে আছে রিয়েল-টাইম টেম্পারেচার মনিটরিং ফিচার।

উন্নত গেমিং পারফরম্যান্সের জন্য হট ৪০ প্রো ফোনটিতে আছে ৮ জিবি র‍্যাম, যা ১৬ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যায়। ১২৮ জিবি ধারণক্ষমতার স্মার্টফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক এক্সওএস ১৩.৫ অপারেটিং সিস্টেমে চলে। ফোনটির সাইড-মাউন্টেড ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর ব্যবহারকারীদের তথ্যের নিরাপত্তা আরও বাড়াবে।

গেমারদের ভিজ্যুয়াল অভিজ্ঞতা উন্নত করতে ডিভাইসটিতে আছে ম্যাজিক রিং ফিচারসহ ৬.৭৮ ইঞ্চির ফুল এইচডি+ আইপিএস ডিসপ্লে। জুতসই টাচ ও স্ক্রলিংয়ের জন্য ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট দেয়া হয়েছে ডিভাইসটিতে।

গেমিংয়ের সময় সর্বোত্তম স্বচ্ছতা ও দেখার স্বাচ্ছন্দ্য নিশ্চিত করতে ৯০.৭ শতাংশ স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও এবং ৫০০ নিটস ব্রাইটনেস থাকছে এতে। এর মাল্টিফাংশনাল এনএফসির মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা ডেটা শেয়ার অথবা ক্রেডিট কার্ড দিয়ে পেমেন্ট করতে পারবেন সহজেই।

হট ৪০ প্রোতে নতুন মেটাম্যাটেরিয়াল অ্যান্টেনা নিয়ে এসেছে ইনফিনিক্স। অ্যান্টেনাটি চলে মেটাম্যাটেরিয়াল গেমিং নেটওয়ার্ক প্রযুক্তির মাধ্যমে। এ প্রযুক্তি তিন গুণ বেশি অ্যান্টেনা এরিয়া কাভার করতে পারে। ফলে গেমিংয়ের সময় নেটওয়ার্ক সিগন্যাল নিয়ে বাড়তি দুঃশ্চিন্তা করতে হয় না।

ফটোগ্রাফির জন্য ডিভাইসটিতে আছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরা। এ হাই-রেজ্যুলুশন লেন্সের সঙ্গে আছে দুই মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স। পাশাপাশি এতে আছে একটি এইচএমএস সেন্সর, যা সুন্দর ও স্পষ্ট ছবি তুলতে ব্যবহারকারীদের সাহায্য করবে।

ডিভাইসটির সামনে থাকা ৩২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা দিয়ে সুন্দর সেলফি তুলতে পারবেন তরুণরা।

উদ্ভাবনী ফিচারযুক্ত ইনফিনিক্স হট ৪০ প্রো পাওয়া যাচ্ছে চমৎকার এমএলবিবি-কাস্টমাইজড বক্সে। পাম ব্লু, হরাইজন গোল্ড ও স্টারলিট ব্ল্যাক—এ তিনটি রঙে বাজারে এসেছে ফোনটি।

১৯ হাজার ৯৯৯ টাকা মূল্যের ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে ইনফিনিক্সের অনুমোদিত শপ ও দেশের বৃহত্তম অনলাইন শপিংপ্লেস দারাজে।

আরও পড়ুন:
ফ্ল্যাশ লাইট বনাম রিং লাইট: কোনটি বেশি উপযোগী
দেশের বাজারে ইনফিনিক্সের ইনবুক সিরিজের দুই ল্যাপটপ
সিইএস ২০২৪: স্মার্ট ডিভাইস চার্জ হবে ৮ ইঞ্চি দূর থেকেই
নতুন গেমিং ফোন নিয়ে এলো ইনফিনিক্স
বাংলাদেশের বাজারে ল্যাপটপ আনল ইনফিনিক্স

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Rancon Motors and Genex Infrastructure contract to set up EQ charging stations

ইকিউ চার্জিং স্টেশন স্থাপনে র‍্যানকন মোটরস ও জেনেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচারের চুক্তি

ইকিউ চার্জিং স্টেশন স্থাপনে র‍্যানকন মোটরস ও জেনেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচারের চুক্তি

দেশব্যাপী ইকিউ চার্জিং স্টেশন স্থাপনে র‍্যানকন মোটরস (মার্সিডিজ বেঞ্জ পরিবেশক) ও জেনেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচারের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

মার্সিডিজ-বেঞ্জ ঢাকা চলতি বছরের এপ্রিলের মধ্যে ৫টি ভিন্ন মডেলের ইকিউ লাইন-আপ চালু করার পরিকল্পনা করছে। নিরবচ্ছিন্ন সেবা এবং গ্রাহকদের সহজলভ্য ও সর্বোচ্চ সুবিধা নিশ্চিতের লক্ষ্যে জেনেক্স এবং র‍্যানকন ইকিউ যান চালুর আগে দেশব্যাপী চার্জিং স্টেশন স্থাপন করবে। প্রাথমিকভাবে ঢাকায় ৭টি এবং দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে ১৪টি ইকিউ চার্জিং স্টেশন স্থাপন করা হবে।

সম্প্রতি তেজগাঁও শিল্প এলাকার র‌্যাংগস ব্যাবিলোনিয়া টাওয়ারের মার্সিডিজ-বেঞ্জ শোরুমে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।

র‍্যানকন মোটরসের প্রতিনিধি হিসেবে জনাব ইমরান জামান খান, বিভাগীয় পরিচালক; রেদওয়ানুল জিয়া, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা; চৌধুরী মো. নাবিল হাসান, হেড অব মার্কেটিং এবং জেনেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেডের পক্ষে জনাব সৈয়দ শফিকুল হাসান, সিওও; মাহমুদুল হাসান লরেন্স, উপ-মহাব্যবস্থাপক (অর্থ); পল্লব কুমার পাল, সিনিয়র ম্যানেজার (সল্যুশন এবং গবেষণা ও উন্নয়ন) ও গালিব মোহাম্মদ করিম, সহকারী ব্যবস্থাপক বিজনেস এনগেজমেন্ট; অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

দেশে স্বাভাবিক সড়কপথ ৩০০ কিলোমিটারের বেশি নয়। তাই বাংলাদেশ ইভি বা বৈদ্যুতিক গাড়ির (ইলেকট্রিক ভেহিকেল) জন্য একটি আদর্শ দেশ। মার্সিডিজের সকল ইকিউ লাইন-আপ বিজ্ঞাপনের পরিসীমা ৪৫০ থেকে ৬৫০ কিলোমিটারের বেশি। এজন্য মার্সিডিজ-বেঞ্জ এবং জেনেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড দেশব্যাপী প্রিমিয়াম হোটেল, পর্যটন গন্তব্য, হাইওয়ে রেস্তোরাঁ, শপিং মল এবং গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক এলাকাগুলোতে মোট ২১টি ইকিউ চার্জিং স্টেশন স্থাপন করবে।

এই পদক্ষেপের মাধ্যমে র‍্যানকন মোটরস তাদের পরিবেশগত দায়বদ্ধতা সুচারুরূপে পালন করে দেশের বিচক্ষণ গ্রাহকদের কাছে আধুনিক বৈদ্যুতিক গতিশীলতা নিয়ে আসছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, টেকসই পরিবহন ক্ষেত্রে বৈদ্যুতিক যানবাহনকে ব্যাপকভাবে প্রতিশ্রুতিশীল প্রযুক্তি হিসেবে গণ্য করা হয়। পাশাপাশি কম আমদানি শুল্ক এবং কম জ্বালানি খরচের জন্য গ্রাহকদেরও বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রতি আগ্রহ তৈরি করছে।

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশে চার্জিং স্টেশনের বিস্তৃত নেটওয়ার্ক স্থাপনের জন্য একটি কাঠামো প্রদানের জন্য ‘ইলেকট্রিক ভেহিকেল চার্জিং গাইডলাইন’ প্রস্তুত করা হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারও ভবিষ্যতের স্বয়ংচালিত রূপান্তরের জন্য একে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। ফলে র‍্যানকন মোটরস লিমিটেডের এই উদ্যোগ সরকারের লক্ষ্য অর্জনে সহায়ক হতে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে র‍্যানকন মোটরস লিমিটেডের ডিভিশনাল ডিরেক্টর ইমরান জামান খান বলেন, ‘আমরা স্মার্ট বাংলাদেশের লক্ষ্য অর্জনে কাজ করছি। আমাদের লক্ষ্য, বাংলাদেশে বৈদ্যুতিক গাড়ির অনুপ্রবেশ বাড়ানোর লক্ষ্যে কাজ করা এবং চার্জিং স্টেশনের মাধ্যমে গ্রাহকদের জন্য নির্বিঘ্ন এবং সর্বোচ্চ সুবিধা নিশ্চিত করা।’

জেনেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেডের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মাহমুদুল হাসান লরেন্স বলেন, ‘মানুষ যত বেশি বৈদ্যুতিক গাড়ি ব্যবহার করা শুরু করবে, চার্জিং স্টেশনের চাহিদা বাড়বে। আমাদের দক্ষ এবং নিবেদিত ইপিসি দল নির্বিঘ্ন গ্রাহক সেবা নিশ্চিতের লক্ষে প্রকল্পটি সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে প্রস্তুত।’

মন্তব্য

p
উপরে