× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
The VR headset will smell everything from kisses to sex
hear-news
player
google_news print-icon

চুমু থেকে যৌনতার গন্ধ, সব দেবে ভিআর হেডসেট

চুমু-থেকে-যৌনতার-গন্ধ-সব-দেবে-ভিআর-হেডসেট
বিশেষ এই দুটি ভিআর সেটে চুমু (বাঁয়ে) ও যৌনতার গন্ধ অনুভব করা যাচ্ছে। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
ক্যামসোডার বিশেষ এক ভিআর হেডসেট পরে পর্নোগ্রাফি কন্টেন্ট দেখলে যৌনক্রিয়ায় অংশ নেয়ার সময়কার শারীরিক গন্ধ ঝাপটা দেবে ব্যবহারকারীর নাকে। আর পেনসিলভানিয়ার কার্নেগি মেলন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিউচার ইন্টারফেসেস গ্রুপের একদল গবেষক তৈরি করা আরেক হেডসেট দেবে চুমু খাওয়ার অনুভূতি।

প্রযুক্তির উন্নয়নে দিনে দিনে সহজলভ্য হচ্ছে যৌনতা। এক দশক পরে এটি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে সে ব্যাপারে ধারণা করাও মুশকিল। তবে কিছু ইঙ্গিত এরই মধ্যে দিতে শুরু করেছে অনলাইন ভার্চ্যুয়াল জগৎ।

জনপ্রিয় পর্ন ওয়েবসাইট ক্যামসোডা বাজারে এনেছে বিশেষ এক ভার্চ্যুয়াল রিয়ালিটি (ভিআর) হেডসেট। এটি মাথায় আটকে পর্নোগ্রাফি কন্টেন্ট দেখতে বসলে যৌনক্রিয়ায় অংশ নেয়ার সময়কার শারীরিক গন্ধ ঝাপটা দেবে ব্যবহারকারীর নাকে।

ভার্চ্যুয়াল দুনিয়ায় এমন তৃপ্তি পেতে গুনতে হবে ১০০ ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১০ হাজার টাকার সামান্য বেশি। এই টাকায় কেনা ডিভাইসটিতে থাকবে শরীরসংশ্লিষ্ট ৩০ ধরনের গন্ধ।

চুমু থেকে যৌনতার গন্ধ, সব দেবে ভিআর হেডসেট
এই ভিআর হেডসেট দেবে যৌনতার গন্ধের অনুভূতি

ক্যামসোডা বলছে, ডিভাইসটি অনেকটা গ্যাস মাস্কের মতো কাজ করে। পর্ন দেখার সময় ডিভাইসে যৌনাঙ্গ থেকে শুরু করে অন্তর্বাস এমনকি যৌন উদ্দীপক অ্যাফ্রোডিসিয়াকসের (খাদ্য, পানীয় বা অন্য জিনিস) মতো বিভিন্ন ধরনের গন্ধ ছড়াতে থাকে। ব্যবহারকারী যেদিকে মনোযোগ দিচ্ছেন সেখানকার গন্ধই নাকে এসে আলোড়িত করবে।

এ ধরনের উদ্ভাবন পর্নোপ্রেমীদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই হেডসেটের গন্ধে আরও প্রাণবন্ত হবে ভার্চ্যুয়াল পর্নো-দুনিয়া।

ভিআর হেডসেট ও মাস্কটি একসঙ্গে একটি অ্যাপের মাধ্যমে কাজ করে। এতে ব্যবহারকারীরা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী সুগন্ধগুলোকে বেছে নিতে পারেন।

নতুন এই ভিআর সেট ব্যবহার করে দারুণ আলোড়িত হয়েছেন জেমস বি নামের একজন। তিনি বলেন, ‘আমি অন্তর্বাস, যৌনাঙ্গ এমনকি ত্বকের গন্ধ পর্যন্ত উপভোগ করেছি। এটা এতটাই বাস্তব অভিজ্ঞতা দিয়েছে যে মনে হচ্ছিল, নিজে সরাসরি যৌনক্রিয়ায় যুক্ত হয়েছি।’

চুমুর অনুভূতিও দিচ্ছে ভিআর হেডসেট

পেনসিলভানিয়ার কার্নেগি মেলন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিউচার ইন্টারফেসেস গ্রুপের একদল গবেষক তৈরি করেছেন আরেক বিশেষ ভিআর হেডসেট। এটি আপনাকে দেবে চুমু খাওয়ার অনুভূতি

চুমু থেকে যৌনতার গন্ধ, সব দেবে ভিআর হেডসেট
এই ভিআর হেডসেট দেবে চুমু খাওয়ার অনুভূতি

গবেষক দল তাদের উদ্ভাবিত ওকুলাস কোয়েস্ট-২ হেডসেটে হ্যাপটিক প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে। এই প্রযুক্তি শরীরের বিভিন্ন অংশে বলপ্রয়োগ, কম্পন এমনকি নড়াচড়ার অনুভূতি তৈরিতে সক্ষম।

হেডসেটের নিচের অংশে একত্রিত ট্রান্সডুসারগুলোর পাতলা অ্যারেটি (ডেটা স্ট্রাকচার) ব্যবহারকারীর নাকের ঠিক ওপর থেকে মুখের বিভিন্ন অংশে আল্ট্রাসাউন্ড শক্তি উৎপাদন করে।

উদ্ভাবনটি হ্যাপটিক ফিডব্যাকের একটি চমৎকার উদাহরণ। সাধারণত ভিডিও গেমের সঙ্গে ব্যবহারকারীর অনুভূতির সংমিশ্রণ ঘটাতে এই প্রযুক্তি ব্যবহার হয়ে থাকে। যেমন, ফুটবল পোস্টে আঘাত করার কম্পন অনুভব করা যায় ফিফা গেমিং কন্ট্রোলারের সাহায্যে।

উদ্ভাবকরা বলছেন, তাদের ভিআর হেডসেট চুমুর অনুভূতির পাশাপাশি ভার্চ্যুয়াল দুনিয়ায় দাঁত ব্রাশ, ফোয়ারা থেকে পানি পান করা কিংবা সিগারেট টানার অনুভূতি পেতেও ব্যবহার করা যাবে।

আরও পড়ুন:
বেগুনে ক্ষতিকর ধাতু, মাটিদূষণে অন্য সবজি নিয়েও শঙ্কা
৭ মাস কোমায় থাকা সাফিয়ার সন্তান প্রসব
যে বাবল ফাটবে না এক বছরেও
গর্ভে শিশুর হৃদযন্ত্রে ত্রুটি সারানো কতটা সম্ভব?
নাক দিয়েও দেখতে পায় কুকুর

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
When will Apples folding iPhone?

কবে আসবে ফোল্ডিং আইফোন?

কবে আসবে ফোল্ডিং আইফোন? অ্যাপল ফ্লিপের কাল্পনিক ছবি। ছবি: সংগৃহীত
অ্যাপল বিশ্লেষক মিং-চি কুও জানিয়েছেন, আইফোন ফ্লিপ নামের এই ফোল্ডিং আইফোনটি ২০২৪ সালে বাজারে আসতে পারে।

অনেক আগেই ফোল্ডিং স্মার্টফোন বাজারে এনেছে স্যামসং। বলতে গেলে ফোল্ডিং মোবাইল ফোনের রাজ্যে স্যামসংই রাজা।

অ্যাপল অনেক আগে থেকেই কাজ করছে ফোল্ডিং আইফোন নিয়ে। নাম আগেই রাখা হয়ে গেছে। অ্যাপল বিশ্লেষক মিং-চি কুও জানিয়েছেন, আইফোন ফ্লিপ নামের এই ফোল্ডিং আইফোনটি ২০২৪ সালে বাজারে আসতে পারে। অনেকে বলছেন, এর নাম হবে আইফোন এয়ার। যদিও অ্যাপল এখনও এই বিষয়ে কিছু বলেনি। তবে নেট দুনিয়ায় নিয়মিত ফাঁস হচ্ছে নানা রকম তথ্য। আইফোন ফ্লিপ নিয়ে তেমনই কিছু তথ্য থাকছে আজ।

কবে আসবে বাজারে

আগেই বলেছি, অ্যাপল বিশ্লেষক মিং-চি কুও জানিয়েছেন, আইফোন ফ্লিপ আসবে ২০২৪ সালে। তবে সম্প্রতি ফাঁস হওয়া এক রিপোর্ট জানাচ্ছে, আইফোন ১৫ সিরিজের সঙ্গেই বাজারে আসতে পারে আইফোন ফ্লিপ। যদিও এসব প্রশ্নে নিরব টেক জায়ান্ট অ্যাপল।

ডিসপ্লে ধরন

ফোল্ডেবল ডিসপ্লে ব্যবহার হবে আইফোন ফ্লিপে। এলসিডি অথবা ওএলইডি ভিত্তিক ডিসপ্লে হতে পারে সেটি। ডিসপ্লের আকার সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি। এ দিকে আইপ্যাড মিনির ডিসপ্লে সমান অর্থাৎ চার ইঞ্চি আকারের আরেকটি ছোট ফোল্ডেবল আইফোনও বাজারে আনতে পারে অ্যাপল।

দেখতে কেমন হবে

আইফোন ফ্লিপ দেখতে কেমন হবে সম্পর্কে অ্যাপল কোন তথ্য প্রকাশ করেনি। তবে অনেকেই কল্পনা থেকে আইফোন ফ্লিপ এর ডিজাইন প্রকাশ করছেন নেট দুনিয়ায়। তেমনই দুইটি ডিজাইন দেখে নিন।

কবে আসবে ফোল্ডিং আইফোন?

কবে আসবে ফোল্ডিং আইফোন?

দাম কত হবে

আইফোনের দাম অন্যসব ফোনের চেয়ে ঢেড় বেশি। আইফোন ফ্লিপ এর ক্ষেত্রেও সেই ধারা বজায় থাকবে বলেই মনে হয়। গবেষকরা বলছেন, কমপক্ষে ২ হাজার আমেরিকান ডলারে বিক্রি হতে পারে এক একটি আইফোন ফ্লিপ। বাংলাদেশী মুদ্রায় যা প্রায় ২ লক্ষ টাকার সমান।

আরও পড়ুন:
আইফোন ১৩ নিয়ে এলো গ্রামীণফোন
পুরোনো ডিজাইনে নতুন আইফোন ১৩ উন্মোচন
আইফোনে স্টোরেজ ১ টেরাবাইট!
বিমান থেকে পড়েও অক্ষত আইফোন
ফাইভজি স্পিডে আসছে আইফোন ১২

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Be careful online campaign to keep young people safe online

তরুণদের অনলাইনে নিরাপদ রাখতে টিকটকের ক্যাম্পেইন ‘সাবধানে অনলাইনে’

তরুণদের অনলাইনে নিরাপদ রাখতে টিকটকের ক্যাম্পেইন ‘সাবধানে অনলাইনে’
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হয়রানি, কেলেঙ্কারি, জালিয়াতিসহ সাইবার অপরাধের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা এবং অনলাইন নিরাপত্তা সম্পর্কে তরুণদের আরও বেশি জানাতে, টিকটক ও জাগো ফাউন্ডেশন রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ১৬ জেলায় স্থানীয় সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার ও তরুণদের নিয়ে দিনব্যাপী কর্মশালা আয়োজন করবে।

শীর্ষস্থানীয় শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটক বাংলাদেশের তরুণদের মধ্যে অনলাইনে নিরাপত্তা নিশ্চিতের লক্ষ্যে জাগো ফাউন্ডেশনের সঙ্গে ‘সাবধানে অনলাইনে’ নামে নতুন ক্যাম্পেইন চালু করেছে। ছয় মাসব্যাপী এই ক্যাম্পেইনের লক্ষ্য দেশের তরুণদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করা এবং প্ল্যাটফর্মটির দায়িত্বশীল ব্যবহার নিশ্চিত করা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হয়রানি, কেলেঙ্কারি, জালিয়াতিসহ সাইবার অপরাধের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা এবং অনলাইন নিরাপত্তা সম্পর্কে তরুণদের আরও বেশি জানাতে, টিকটক ও জাগো ফাউন্ডেশন রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ১৬ জেলায় স্থানীয় সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার ও তরুণদের নিয়ে দিনব্যাপী কর্মশালা আয়োজন করবে।

কর্মশালার পাশাপাশি অনলাইন নিরাপত্তা সেশনের মাধ্যমে স্থানীয় যুব সম্প্রদায়কে তথ্যও দেওয়া হবে। এই ইন্টারেক্টিভ সেশনে ইন্টারনেটের নিরাপদ ব্যবহার, সোশ্যাল মিডিয়ার নানামুখী ব্যবহার, সাইবার বুলিং থেকে কীভাবে নিরাপদ থাকা যায় এবং যুব উন্নয়নে ইতিবাচক কনটেন্ট তৈরির গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করা হবে। সেসব জেলায় অনলাইন নিরাপত্তা সেশনের অংশ হিসেবে, অংশগ্রহণকারীদের তাদের সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল থেকে ভিডিও কনটেন্ট তৈরি এবং শেয়ার করার দায়িত্ব দেওয়া হবে। মূলত এর মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ার ইতিবাচক নিরাপদ ব্যবহারের প্রতি উৎসাহিত করা হবে।

এই কর্মশালায় অংশ নিতে নিবন্ধন করতে ভিজিট করুন এই ওয়েবসাইটে। ক্যাম্পেইনটি ১৬ জেলা থেকে কয়েক শ তরুণ সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার এবং কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের ক্ষমতায়ন করবে; সেই সঙ্গে প্রকল্পটির মাধ্যমে তাদের বৃহৎ পরিসরে সেগুলো প্রচার করবে।

টিকটকের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার তার ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করা। বাংলাদেশের কমিউনিটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কোম্পানিটি সম্পূর্ণভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, কারণ টিকটক তার প্ল্যাটফর্মে অনুপযুক্ত কনটেন্ট শেয়ার করার প্রচেষ্টাকে সক্রিয়ভাবে চিহ্নিত করতে এবং প্রতিরোধ করার জন্য নীতি ও প্রটোকল বাস্তবায়ন অব্যাহত রেখেছে। টিকটকের কমিউনিটি গাইডলাইন লঙ্ঘন করে এমন কনটেন্ট থেকে ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা দিতে ক্রমাগত তার ফিচার উন্নত ও শক্তিশালী করছে। জাগো ফাউন্ডেশনের সঙ্গে টিকটকের এই অংশীদারত্ব ডিজিটালি নিরাপদ বাংলাদেশের জন্য সঠিক পথে আরেকটি পদক্ষেপ।

আরও পড়ুন:
নতুন প্রজন্মের প্রিয় বিনোদন মাধ্যম এখন টিকটক
টিকটক বানিয়ে শাস্তির মুখে ১৩ পুলিশ
নীতিমালা লঙ্ঘন: বাংলাদেশ থেকে ৫০ লাখ ভিডিও সরাল টিকটক
ক্যারিয়ার প্রস্তুতি নিয়ে সিইউবির কর্মশালা
টিকটকের ফ্যামিলি পেয়ারিং ফিচারে শক্তিশালী নিরাপত্তা

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Human brain chip implant trial within 6 months

নিউরালিংকের চিপ মস্তিষ্কে বসবে ৬ মাসের মধ্যে

নিউরালিংকের চিপ মস্তিষ্কে বসবে ৬ মাসের মধ্যে নিউরালিংকের চিপ। ছবি: সংগৃহীত
চলাফেরা কিংবা যোগাযোগে অক্ষম বা দুর্বল ব্যক্তিদের জন্য কিছু করার চেষ্টা অনেক আগে থেকেই চালিয়ে যাচ্ছিলেন ইলন মাস্ক। অবশেষে বুধবার সুখবর জানালেন তিনি।

শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধীদের জন্য দারুণ খবর দিল বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান নিউরালিংক। প্রতিষ্ঠানটি এমন একটি চিপ তৈরি করেছে, যেটির সাহায্যে অনেকটাই স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবেন তারা।

চলাফেরা কিংবা যোগাযোগে অক্ষম বা দুর্বল ব্যক্তিদের জন্য কিছু করার চেষ্টা অনেক আগে থেকেই চালিয়ে যাচ্ছিলেন ইলন মাস্ক। অবশেষে বুধবার সুখবর জানালেন মাস্ক।

মাস্কের বিশ্বাস, আগামী ছয় মাসের মধ্যে মানব মস্তিষ্কে চিপ লাগানোর ট্রায়াল শুরু হবে। শারীরিক প্রতিবন্ধীদের মস্তিষ্কে স্থাপন করা হবে এটি; এতে তারা চলাফেরা এবং যোগাযোগে সক্ষম হবে।

এর আগে শূকর ও বানরের মস্তিষ্কে নিউরালিংক ডিভাইস সফলতার সঙ্গে স্থাপন করা হয়। প্রতিষ্ঠানটি দাবি করছে, ডিভাইসটি স্থাপন ও অপসারণ একেবারেই নিরাপদ।

মাস্ক টুইটে বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে এগোতে চাই। নিশ্চিত হতে চাই এটি ভালোভাবে কাজ করবে। আমরা চিপ-সংক্রান্ত বেশির ভাগ কাগজপত্র যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনে (এফডিএ) জমা দিয়েছি। সম্ভবত ছয় মাসের মধ্যে আমরা নিউরালিংক চিপ লাগানোর ট্রায়াল শুরু করতে পারব।’

২০২১ সালের এপ্রিলে মানব মস্তিষ্কে চিপ বসানোর বিষয়ে সর্বশেষ প্রেজেন্টেশন দিয়েছিল নিউরালিংক। ওই সময় চিপ লাগানো একটি বানরকে তার মস্তিষ্ক ব্যবহার করে গেম খেলতে দেখা যায়।

মানব মস্তিষ্কের জন্য চিপ তৈরির লক্ষ্যে ২০১৬ সালে নিউরালিংক প্রতিষ্ঠা করেন মাস্ক। তার আশা, এই চিপ পার্কিনসন, ডিমেনশিয়া এবং আলঝেইমার রোগীদের চিকিৎসায় সহায়তা করবে।

গত বছরের শেষে মাস্ক জানান, ২০২২ সালের কোনো একসময়ে নিউরালিংক মানবদেহে চিপ স্থাপন করবে।

এদিকে সিঙ্ক্রোন নামের আরেকটি প্রতিষ্ঠানও মাইক্রোচিপ তৈরির কাজ করছে। তাদের এই চিপ পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগীদের যোগাযোগে সাহায্য করবে। গত বছরের জুলাইয়ে এটি এফডিএর অনুমোদন পায়। ইতোমধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে এই চিপ যুক্তরাষ্ট্রের এক নাগরিক এবং অস্ট্রেলিয়ার চারজনের মস্তিষ্কে বসানো হয়েছে।

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
iPhone 15 series has a Sony camera

আইফোন ১৫ সিরিজে থাকছে সনি ক্যামেরা

আইফোন ১৫ সিরিজে থাকছে সনি ক্যামেরা ছবি: সংগৃহীত
আইফোন ১৫ তে থাকবে বিশ্বখ্যাত জাপানি প্রতিষ্ঠান সনির তৈরি ক্যামেরা। সনির নাগাসাকি কারখানায় তৈরি হবে ক্যামেরাগুলো।

২০২৩ সালে আইফোন ১৫ বাজারে আনতে কাজ শুরু করেছে অ্যাপল। ক্যামেরার দিকে আগের চেয়ে বেশি মনোযোগ দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। জানা গেছে, আইফোন ১৫ তে থাকবে বিশ্বখ্যাত জাপানি প্রতিষ্ঠান সনির তৈরি ক্যামেরা। সনির নাগাসাকি কারখানায় তৈরি হবে ক্যামেরাগুলো।

এই ক্যামেরায় থাকবে অ্যাডভান্সড সেন্সর। সেন্সরের প্রতিটি পিক্সেলে সাধারণ সেন্সরের তুলনায় দ্বিগুণ স্যাচুরেশন সিগন্যাল লেভেল থাকবে। ফলে ছবিতে ওভার এক্সপোজ অথবা আন্ডারএক্সপোজ হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে আসবে। ফলে আলোর বিপরীতে দাঁড়িয়ে ছবি তুললেও মুখের সবকিছু স্পষ্ট বোঝা যাবে।

আইফোন ১৪ প্রো মডেলে সেভেন পি লেন্স ব্যবহার করা হলেও আইফোন ১৫ প্রোতে থাকবে এইট পি লেন্স। অন্যদিকে আইফোন ১৫ আল্ট্রা মডেলে থাকবে ১০এক্স টেলিফটো ক্যামেরা। সেখানে পেরিস্কোপ লেন্স ব্যবহার করার সম্ভাবনা আছে।

আরও পড়ুন:
আইফোন ১৩ নিয়ে এলো গ্রামীণফোন
পুরোনো ডিজাইনে নতুন আইফোন ১৩ উন্মোচন
আইফোনে স্টোরেজ ১ টেরাবাইট!
বিমান থেকে পড়েও অক্ষত আইফোন
ফাইভজি স্পিডে আসছে আইফোন ১২

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Saudi Aqua will produce solar power

সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন করবে সৌদি অ্যাকোয়া

সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন করবে সৌদি অ্যাকোয়া ময়মনসিংহ গৌরীপুরের সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প। ফাইল ছবি/নিউজবাংলা
‘সৌদি কোম্পানি অ্যাকোয়া পাওয়ারের এক হাজার মেগাওয়াট পর্যন্ত সৌরবিদ্যুৎ স্থাপনের আগ্রহ প্রশংসার যোগ্য। বাংলাদেশ নানাভাবে নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রসারকে উৎসাহিত করছে।’

বাংলাদেশে নবায়নযোগ্য ১০০০ মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন করবে সৌদি আরবের কোম্পানি অ্যাকোয়া পাওয়ার (এসিডব্লিউএ)।

একটি সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিবি) সঙ্গে এ লক্ষ্যে সোমবার নন-বাইন্ডিং সমঝোতা স্মারক সই করেছে কোম্পানিটি।

এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, সৌদি আরবের এসিডব্লিউএর বিনিয়োগ ও প্রযুক্তিগত সহায়তা বাংলাদেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে ক্লিন এনার্জি অর্জনে সহায়তা করবে।

‘সরকার নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রসারে সমন্বিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (স্রেডা) প্রয়োজনীয় কারিগরি সহায়তা ও পরামর্শ দিচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘সৌদি কোম্পানি অ্যাকোয়া পাওয়ারের এক হাজার মেগাওয়াট পর্যন্ত সৌরবিদ্যুৎ স্থাপনের আগ্রহ প্রশংসার যোগ্য। বাংলাদেশ নানাভাবে নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রসারকে উৎসাহিত করছে।’

সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সচিব মোহাম্মদ সেলিম রেজা ও অ্যাকোয়া পাওয়ারের ব্যবসা উন্নয়ন বিভাগের নির্বাহী পরিচালক আয়াদ আল আমরি সই করেন।

দশটি আর্টিক্যাল-সংবলিত নন বাইন্ডিং এই সমঝোতা স্মারকে অ্যাকোয়া পাওয়ার বাংলাদেশে সৌরবিদ্যুৎ স্থাপনে প্রযুক্তিগত ও আর্থিক সহযোগিতা করবে এবং পিডিবি প্রশাসনিক সহযোগিতা করবে।

অনুষ্ঠানে পিডিবির চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বিদ্যুৎসচিব মো. হাবিবুর রহমান ও বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত ইসা বিন ইউসেফ আল দুহাইলান বক্তব্য রাখেন।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের সৌর বিদ্যুৎ সাফল্য নিয়ে বিশ্বব্যাংকের বই

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Information of 48 million WhatsApp users leaked

বাংলাদেশিসহ সাড়ে ৪৮ কোটি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস

বাংলাদেশিসহ সাড়ে ৪৮ কোটি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস ছবি: সংগৃহীত
বাংলাদেশ ছাড়াও মিসর, ইতালি, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া ও ভারতের লাখ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্যও ফাঁস হয়েছে, যা অনলাইনে বিক্রি করার জন্য রাখা হয়েছে।

৪৮ কোটি ৭০ লাখ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস করা হয়েছে বলে দাবি করেছে সাইবার নিউজ। এক প্রতিবেদনে তারা বলেছে, বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৮৪টি দেশের সক্রিয় হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর তথ্য রয়েছে সেখানে।

হ্যাক করা তথ্য বিক্রির জন্য অনলাইনে তোলা হয়ছেন। সাইবার নিউজের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শুধু আমেরিকান নাগরিকদের ডেটাবেজটি কিনতে চাইলে হ্যাকারকে সাত হাজার ডলার দিতে হবে। অন্যদিকে ব্রিটেনের ডেটাসেটের দাম হাঁকা হয়েছে ২৫০০ ডলার।

প্রতিবেদন অনুযায়ী ৩৮ লাখ ১৬ হাজার ৩৩৯ জন বাংলাদেশি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর তথ্য হ্যাকারের হাতে রয়েছে। এগুলো কত দামে বিক্রি করা হবে, সেটা জানা যায়নি।

তথ্য বিক্রিকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা প্রমাণ হিসেবে ১০৯৭টি নম্বর শেয়ার করেছে। সাইবার নিউজ নম্বরগুলো পরীক্ষা করে দেখেছে, সেগুলো সবই হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের।

এটাই এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে বড় তথ্য চুরির ঘটনা।

বাংলাদেশ ছাড়াও মিসর, ইতালি, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া ও ভারতের লাখ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস হয়েছে, যা অনলাইনে বিক্রি করার জন্য রাখা হয়েছে।

স্প্যামিং, ফিশিং, আইডেন্টিটি থেফট এবং অন্যান্য সাইবার অপরাধ কার্যকলাপের জন্য এই ডেটাবেজ ব্যবহার করতে পারে হ্যাকাররা।

নিজের নম্বর হ্যাকারের লিস্টে আছে কি না, সেটা জানার কোনো উপায় আপাতত নেই।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মূল প্রতিষ্ঠান মেটার অন্যতম প্রতিষ্ঠান হোয়াটসঅ্যাপ। এর আগেও একবার হোয়াটসঅ্যাপের তথ্য ফাঁস হওয়ার ঘটনা ঘটে। সেবার ফাঁস হওয়া তথ্যের মধ্যে ছিল ফোন নম্বর, ব্যবহারকারীর নাম, অবস্থানসহ অন্যান্য তথ্য।

আরও পড়ুন:
ইমো হ্যাকার চক্রের ১২ সদস্য গ্রেপ্তার
অন্যের পণ্য ‘লোভনীয় ছাড়ে’ বিক্রি করছে হ্যাকাররা!
ভারতে মুঠোফোন হ্যাক, অস্বীকার করল কেন্দ্র
মেয়েদের ফেসবুক আইডি হ্যাক যে কৌশলে
নারীর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে যুবক আটক

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Ransomware is one of the most common cybercrime threats

সাইবার ক্রাইম হুমকির মধ্যে অন্যতম র‍্যানসামওয়্যার

সাইবার ক্রাইম হুমকির মধ্যে অন্যতম র‍্যানসামওয়্যার
গত দশকে, র‍্যানসামওয়্যারের ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তার সঙ্গে সঙ্গে এটি সম্পূর্ণভাবে ‘র‍্যানসামওয়্যার অ্যাস-এ-সার্ভিস’ হিসেবে অর্থনীতিতে আবির্ভূত হয়েছে।

পরবর্তী প্রজন্মের উদ্ভাবন ও সাইবার নিরাপত্তার গ্লোবাল লিডার সফোস আজ তাদের ২০২৩ সালের থ্রেট রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, কীভাবে সাইবার হুমকি একটা ল্যান্ডস্কেপে পৌঁছে নতুন করে এটি বাণিজ্যিকীকরণ এবং হামলাকারীদের সঙ্গে কম্প্রোমাইজ করে ফেলছে। অপরাধ করার উদ্দেশ্যে ‘সাইবার ক্রাইম অ্যাস-এ-সার্ভিস’ হিসেবে সম্প্রসারণের মাধ্যমে এতে প্রবেশে করার ক্ষেত্রে সব ধরনের বাধা সরিয়ে দিচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কীভাবে র‍্যানসামওয়্যার অপারেটররা তাদের চাঁদাবাজির নতুন কৌশল বের করছে, যা প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য সবচেয়ে বড় সাইবার অপরাধের হুমকিগুলোর মধ্যে একটি।

জেনেসিসের মতো অপরাধমূলক আন্ডারগ্রাউন্ড মার্কেটপ্লেসগুলো দীর্ঘদিন ধরে ম্যালওয়্যার এবং ম্যালওয়্যার স্থাপনের পরিষেবা (ম্যালওয়্যার-অ্যাস-এ-সার্ভিস) কিনছে, পাশাপাশি চুরি হওয়া ক্রেডেনশিয়াল এবং অন্য সব ডেটা প্রচুর পরিমাণে বিক্রিও করেছে।

গত দশকে, র‍্যানসামওয়্যারের ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তার সঙ্গে সঙ্গে এটি সম্পূর্ণভাবে ‘র‍্যানসামওয়্যার অ্যাস-এ-সার্ভিস’ হিসেবে অর্থনীতিতে আবির্ভূত হয়েছে।

২০২২ সালে এসে এই ‘পরিষেবা হিসাবে’ মডেলটি প্রসারিত হয়েছে এবং সেই সঙ্গে প্রাথমিক সংক্রমণ থেকে শনাক্তকরণ এড়ানোর উপায়গুলোসহ সাইবার ক্রাইম টুলকিটের প্রায় প্রতিটি দিক খুব সহজলভ্য হয়েছে।

‘পরিষেবা হিসাবে’ অর্থনীতির বিস্তৃতির সঙ্গে, আন্ডারগ্রাউন্ড সাইবার অপরাধী বাজারগুলো ক্রমবর্ধমান একটি পণ্য হয়ে উঠছে এবং সেটি মূলধারার ব্যবসার মতোই কাজ করছে৷ সাইবার অপরাধ ‘বিক্রেতারা’ কেবল তাদের পরিষেবার বিজ্ঞাপনই দিচ্ছে না বরং স্বতন্ত্র দক্ষের আক্রমণকারীদের চাকরিতে নিয়োগের অফারও করছে৷ সাইবার ক্রাইম অবকাঠামো যেমন বিস্তৃত হয়েছে, তেমনি করে র‍্যানসামওয়্যার অত্যন্ত জনপ্রিয় ও লাভজনক হয়ে উঠেছে।

গত এক বছর, র‍্যানসমওয়্যার অপারেটররা উইন্ডোজ ছাড়া অন্য প্ল্যাটফর্মগুলোকে লক্ষ্য করে তাদের সম্ভাব্য আক্রমণ পরিষেবা বাড়াতে কাজ করছে।

এমনকি এসব ক্ষেত্রে তাদের যেন শনাক্ত করা না যায় সে জন্য রাস্ট এবং গো-এর মতো নতুন ভাষাগুলোর সঙ্গে এটি মানিয়ে নেয়া শুরু করেছে। কিছু গ্রুপ, বিশেষ করে লকবিট ৩.০ তাদের ক্রিয়াকলাপগুলোকে বৈচিত্র্যময় করে তুলেছে এবং ক্ষতিগ্রস্তদের চাঁদাবাজির জন্য আরও ‘উদ্ভাবনী’ উপায় তৈরি করছে।

আন্ডারগ্রাউন্ডের ক্রমবর্ধমান অর্থনীতি শুধুমাত্র র‍্যানসমওয়্যার এবং ‘পরিষেবা হিসাবে’ এটি শিল্পের বৃদ্ধিকেই উৎসাহিত করেনি বরং ক্রেডেনশিয়াল চুরির চাহিদাও বাড়িয়ে দিয়েছে। নতুন বা অনভিজ্ঞ অপরাধীদের আন্ডারগ্রাউন্ড মার্কেটপ্লেসগুলোতে অ্যাক্সেস পেতে এবং তাদের ‘ক্যারিয়ার’ শুরু করতে ক্রেডেনশিয়াল চুরি একটি অন্যতম সহজ উপায় হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন:
সাইবার নিরাপত্তা সম্পর্কে জানলেন ঢাবির সামসুন নাহার হলের শিক্ষার্থীরা
যত বেশি ডেটাবেজের ব্যবহার তত বেশি ঝুঁকি: আইজিপি
আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিতের নির্দেশ
সাইবার স্পেসে নারীর নিরাপত্তায় নারী পুলিশ

মন্তব্য

p
উপরে