× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Infinix smartphone with latest technology
hear-news
player
print-icon

সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে ইনফিনিক্স স্মার্টফোন

সর্বাধুনিক-প্রযুক্তির-সঙ্গে-ইনফিনিক্স-স্মার্টফোন
‘নোট ১২ জি৮৮’ ডিভাইসটিতে রয়েছে ৬.৭ ইঞ্চির এফএইচডি+ ট্রু কালার অ্যামোলয়েড ডিসপ্লে। হেলিও জি৮৮ আল্ট্রা গেমিং প্রসেসর এবং ৩৩ ওয়াট ফ্ল্যাশ চার্জ সুবিধাযুক্ত ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং ১১ জিবি (৬জিবি+৫জিবি) পর্যন্ত বর্ধিত র‌্যাম সুবিধা।

স্মার্টফোন প্রতিষ্ঠান ইনফিনিক্স নিত্যনতুন, অভিনব ও যুগোপযোগী মোবাইল বাজারে আনার মাধ্যমে প্রযুক্তি দুনিয়ায় প্রভাব ফেলেছে। শক্তিশালী প্রসেসরের ইনফিনিক্সের ডিভাইস দিয়ে এরই মধ্যে দেশে জনপ্রিয় ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছে।

ইনফিনিক্স ‘হট ১২’ এবং ‘নোট ১২’ সিরিজের ডিভাইস দিয়ে দেশে অনেকটা আলোড়ন তুলেছে। অত্যাধুনিক ফিচার ও প্রযুক্তির এই স্মার্টফোনগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের জন্য ভিডিও, ছবি, হাই-রেজ্যুলেশনের স্ট্রিমিং এবং ভিডিও গেমিংয়ের জন্য অন্যতম।

ইনফিনিক্স হট ১২

ফোনটি বাজারে এসেছে গেমিং স্মার্টফোনের তকমা নিয়ে। ১৬ হাজার টাকারও কম মূল্যের ডিভাইসটি স্মার্টফোনপ্রেমীরা হাতে পান চলতি বছরের মে মাসে। ডিভাইসে রয়েছে হেলিও জি৮৫ প্রসেসর, ৯০ হার্টজের ৬.৮২ ইঞ্চি ‘প্রো-লেভেল পাঞ্চ হোল’ ডিসপ্লে, ১১ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি রম এবং ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সুবিধার ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি।

ফোনের সামনে ৮ মেগাপিক্সেল এআই ক্যামেরা ও পেছনে ১৩ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা। ফোনটির ৪+১২৮ জিবি ভ্যারিয়েন্টের দাম ১৬ হাজার ২৯৯ টাকা ও ৬+১২৮ জিবি ভ্যারিয়েন্টের দাম ১৮ হাজার ২৯৯ টাকা।

ইনফিনিক্স নোট ১২ সিরিজ

নোট ১২ সিরিজের দুটি ভার্সন ‘নোট ১২ জি৯৬’ ও ‘নোট ১২ জি৮৮’ গ্রাহকের প্রত্যাশা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে। গত জুনে বাজারে আসা ‘নোট ১২ জি৯৬’ ফোনের দাম ২২ হাজার ৯৯৯ টাকা।

স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ফেসিয়াল, ফিঙ্গারপ্রিন্ট আনলক, মনস্টার গেম কিট ফিচারসহ অত্যাধুনিক নানান ফিচার। মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৬ ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর, ৬.৭ ইঞ্চি এফএইচডি+ অ্যামোলেড ডিসপ্লে এবং ১৩ জিবি বর্ধিত র‌্যাম সুবিধা।

এপ্রিলে বাজারে আসা ‘নোট ১২ জি৮৮’ ডিভাইসটিতে রয়েছে ৬.৭ ইঞ্চির এফএইচডি+ ট্রু কালার অ্যামোলয়েড ডিসপ্লে। হেলিও জি৮৮ আল্ট্রা গেমিং প্রসেসর এবং ৩৩ ওয়াট ফ্ল্যাশ চার্জ সুবিধাযুক্ত ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং ১১ জিবি (৬জিবি+৫জিবি) পর্যন্ত বর্ধিত র‌্যাম সুবিধা।

ফোনটির দাম ২০ হাজার ৪৯৯ টাকা।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Emore Family Guard to prevent online scams

অনলাইন স্ক্যাম রোধে ইমোর ‘ফ্যামিলি গার্ড’

অনলাইন স্ক্যাম রোধে ইমোর ‘ফ্যামিলি গার্ড’
ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তার প্রয়োজনীয়তাকে বিবেচনা করে, ইমো শীঘ্রই ‘ডিজঅ্যাপিয়ারিং মেসেজ’ নামে আরেকটি ফিচার নিয়ে আসবে, যা ব্যবহারকারীদের অন্যদের সাথে চ্যাট করার ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত বার্তা নির্দিষ্ট সময় পর মুছে ফেলার সুযোগ করে দেবে।

ব্যবহারকারীদের নিরাপদ ও সুরক্ষিত উপায়ে ডিজিটাল কানেক্টিভিটি সেবা দিতে ‘ফ্যামিলি গার্ড’ নামে ফিচার উন্মোচন করেছে ইমো।

ফিচারটির মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা ও গোপনীয়তা সম্পর্কিত বিষয়গুলো আরও মজবুত করল প্ল্যাটফর্মটি।

এ ফিচারের ফলে ব্যবহারকারীরা তাদের কাছের মানুষদের সুরক্ষা সংশ্লিষ্ট ঝুঁকি এবং হুমকি থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন। সুরক্ষিত কোনো অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে যদি অস্বাভাবিক কোনো কর্মকাণ্ড দেখা যায় সেক্ষেত্রে অভিভাবকরা সেফটি অ্যালার্ট পাবেন। এর মাধ্যমে অভিভাবকরা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টকে সুরক্ষিত রাখতে সহায়তা করতে পারবেন।

বাংলাদেশে বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিদের মধ্যে সাইবার নিরাপত্তা নিয়েও সচেতনতার অভাব রয়েছে। পাশাপাশি, অনেকেই ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহারের ব্যাপারে অতোটা দক্ষ নন। যখন কোনো সুরক্ষিত অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে অস্বাভাবিক ঘটনা; যেমন: লগ-ইন করার চেষ্টা, ফোন নম্বর পরিবর্তন এবং অপরিচিত ডিভাইস বা লোকেশন থেকে অ্যাকাউন্ট ডিলিটের চেষ্টার মতো অপ্রত্যাশিত কোনো প্রচেষ্টা দেখা যাবে, তখনই সম্ভ্যাব্য এসব ঝুঁকি থেকে অ্যাকাউন্টের সুরক্ষায় অভিভাবকরা সেফটি অ্যালার্ট পাবেন।

সিকিউরিটি অ্যালার্ট পাওয়া মাত্রই ‘রিমাইন্ড ফ্রেন্ড’ বাটনে ক্লিক করতে পারবেন। এতে ওই ব্যবহারকারীর কাছে তাৎক্ষণিক বার্তা চলে যাবে। এ ছাড়া অ্যাকাউন্টের সুরক্ষায় অভিভাবক ওই অ্যাকাউন্টের ব্যবহারকারীর সাথে প্রাইভেটলি যোগাযোগ করতে পারবেন। এ ফিচার ব্যবহার করে, ইমো ব্যবহারকারীরা সাইবার হামলা ও অনলাইন স্ক্যাম থেকে স্বাচ্ছন্দ্যদায়কভাবে ও সহজে তাদের কাছের মানুষদের সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তার প্রয়োজনীয়তাকে বিবেচনা করে, ইমো শীঘ্রই ‘ডিজঅ্যাপিয়ারিং মেসেজ’ নামে আরেকটি ফিচার নিয়ে আসবে, যা ব্যবহারকারীদের অন্যদের সাথে চ্যাট করার ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত বার্তা নির্দিষ্ট সময় পর মুছে ফেলার সুযোগ করে দেবে।

আরও পড়ুন:
সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা উপকরণ দিল ইমো
ইমো চ্যানেলে আন্তর্জাতিক রিক্রুটিং এজেন্সির ব্যবসার প্রবৃদ্ধি
বন্যাদুর্গতদের ফ্রি ডাটা দিচ্ছে ইমো
লালপুর থেকে ৫ ‘ইমো হ্যাকার’ আটক
লাভ ইমোজিতে সাবধান!

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Employees should be moderate in using social media

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারে সতর্ক করল প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারে সতর্ক করল প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ‘সরকারি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার নির্দেশিকা’ উদ্ধৃত করে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পোস্ট, ছবি, অডিও-ভিডিও আপলোড, কমেন্ট, লাইক, শেয়ার করার ব্যাপারে সতর্ক থাকার নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজ একাউন্টে ক্ষতিকর কন্টেন্টের জন্য ব্যক্তিগতভাবে দায়ী হবেন। এর জন্য তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ‘সরকারি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার নির্দেশিকা’ উদ্ধৃত করে এমন নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সব পরিচালক/প্রকল্প পরিচালক, সব উপ-পরিচালক/বিভাগীয় উপ-পরিচালক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা/সুপারিনটেনডেন্ট, পিটিআই, সব উপজেলা/থানা শিক্ষা কর্মকর্তা/ইনস্ট্রাক্টর, ইউআরসিকে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশিকায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সরকারি প্রতিষ্ঠান ও কর্মচারীদের করণীয় নির্ধারণ করা এবং এ ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা নিশ্চিত করার বিষয়ে বলা হয়েছে। এছাড়াও নির্দেশিকায় সামাজিক মাধ্যমে দাপ্তরিক ও ব্যক্ষিগত একাউন্ট তৈরি করা এবং এতে পরিহারযোগ্য বিষয়াদি উল্লেখ রয়েছে।

যেসব নির্দেশনা

চিঠিতে বলা হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে সরকার বা রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় এমন কোনো পোস্ট, ছবি, অডিও বা ভিডিও আপলোড, কমেন্ট, লাইক, শেয়ার করা থেকে বিরত থাকতে হবে। জাতীয় ঐক্য ও চেতনা পরিপন্থী তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

কোনো সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগতে পারে এমন বা ধর্মনিরপেক্ষতা নীতির পরিপন্থী কোনো তথ্য প্রকাশ করা যাবে না। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট বা আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটতে পারে এমন কোনো পোস্ট, ছবি, অডিও বা ভিডিও আপলোড, কমেন্ট, লাইক, শেয়ার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে কোনো ‘কন্টেন্ট’ বা ‘ফ্রেন্ড’ সিলেকশনে সবাইকে সতর্কতা অবলম্বন এবং অপ্রয়োজনীয় ট্যাগ, রেফারেন্স বা শেয়ার করা পরিহার করতে হবে।

এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার বা নিজ অ্যাকাউন্টে ক্ষতিকারক কন্টেন্টের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মচারী ব্যক্তিগতভাবে দায়ী হবেন এবং সেজন্য তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা অন্য কোনো সার্ভিস বা পেশাকে হেয়প্রতিপন্ন করে এমন কোনো পোস্ট দেয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। লিঙ্গ বৈষম্য বা এ সংক্রান্ত বিতর্কমূলক কোনো তথ্য প্রকাশ করা যাবে না।

জনমনে অসন্তোষ বা অপ্রীতিকর মনোভাব সৃষ্টি করতে পারে এমন কোনো বিষয়ে লেখা, অডিও বা ভিডিও প্রকাশ বা শেয়ার করা যাবে না। ভিত্তিহীন, অসত্য ও অশ্লীল তথ্য প্রচার থেকে বিরত থাকতে হবে।

কোনো রাষ্ট্র বা রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য সংবলিত কোনো পোস্ট, ছবি, অডিও বা ভিডিও আপলোড, কমেন্ট, লাইক, শেয়ার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Operators instructed to refund call drops

কল ড্রপের টাকা ফেরত দিতে অপারেটরদের নির্দেশ

কল ড্রপের টাকা ফেরত দিতে অপারেটরদের নির্দেশ
জব্বার বলেন, ‘গ্রাহকের কল ড্রপের ভোগান্তিতে টাকা ফেরত দিলেই ক্ষতিপূরণ হবে তা ঠিক নয়, বরং যে সেবার জন্য গ্রাহক তার অর্থ পরিশোধ করছে অপারেটরগুলো তা দিতে না পারায় তাকে তার টাকা ফেরত দিচ্ছে, এটা গ্রাহকের অধিকার এবং বিষয়টি একটি মাইলফলক সিদ্ধান্ত।’

কল ড্রপের টাকা গ্রাহকদের ফেরত দিতে মোবাইল ফোন অপারেটরদের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। আগামী ১ অক্টোবর থেকে এ নির্দেশ কার্যকর করতে হবে।

রাজধানীর রমনায় বিটিআরসি মিলনায়তনে মোবাইলে কল ড্রপ, কল ড্রপসংক্রান্ত তথ‌্যাদি এবং গ্রাহককে টকটাইম ফেরতের মাধ‌্যমে ক্ষতিপূরণ দেয়ার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

এ সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘মোবাইলের কল ড্রপ বন্ধসহ নিরবচ্ছিন্ন মোবাইল সেবা নিশ্চিত করতে সরকার বন্ধপরিকর। গ্রাহকরা অর্থের বিনিময়ে যে সেবা গ্রহণ করেন, তার পুরোটা পাওয়ার অধিকার তাদের আছে। অন‌্যদিকে কল ড্রপের ক্ষতিপূরণ যাতে অপারেটরদের দিতে না হয়, সে জন‌্য অবশ‌্যই অবকাঠামোর যথাযথ উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘বিদ‌্যমান হাজার হাজার বিটিএস সাইটে ধারণক্ষমতার বেশি গ্রাহক বৃদ্ধির প্রবণতা বন্ধ করে অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ‌্যমে সুস্থ ব‌্যবসায়িক প্রতিযোগিতায় মোবাইল অপারেটরসমূহকে এগিয়ে আসতে হবে।’

জব্বার বলেন, ‘গ্রাহকের কল ড্রপের ভোগান্তির টাকা ফেরত দিলেই ক্ষতিপূরণ হবে তা ঠিক নয়, বরং যে সেবার জন‌্য গ্রাহক তার অর্থ পরিশোধ করছে অপারেটরগুলো তা দিতে না পারায় তাকে তার টাকা ফেরত দিচ্ছে, এটা গ্রাহকের অধিকার এবং বিষয়টি একটি মাইলফলক সিদ্ধান্ত।’

এ ছাড়া মোবাইলের ইন্টারনেট ডেটার দাম নির্ধারণের কাজ শুরু হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী। বলেন, ‘একদেশ একরেট পদ্ধতিতে আমরা ব্রডব‌্যান্ড ইন্টারনেটের ডেটারেট নির্ধারণ করেছি। মোবাইল ডেটা রেট নির্ধারণের লক্ষ‌্যে আমরা কাজ শুরু করেছি। তথ‌্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে আমরা ডেটা ড্রপের বিষয়টিও ক্ষতিপূরণের আওতায় আনব।’

টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা (অপারেটর) অবকাঠামো উন্নত করলে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে না। ক্ষতিপূরণ যাতে দিতে না হয় অবশ‌্যই আপনাদের সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে- সেবার গুণগতমান বাড়াতেই হবে।

‘কল ড্রপের জন‌্য টাকা ফেরত চাই না, ভালো সেবা দিন, ক্ষতিপূরণ দিতে হবে না।’

আরও পড়ুন:
অনিবন্ধিত ১৭৮ নিউজসাইট বন্ধ করল বিটিআরসি
বিটিআরসিকে পৌনে ১৪ কোটি টাকা পরিশোধ করল বিটিসিএল
সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণে অসহায় বিটিআরসি: জব্বার
অব্যবহৃত মোবাইল ডাটা ফেরত কত দূর
বিটিআরসিতে শতাধিক অবৈধ নিয়োগ-পদোন্নতি

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
What is Elon Musks role in the Iran protests?

উত্তাল ইরানে ইলন মাস্কের ভূমিকা কী

উত্তাল ইরানে ইলন মাস্কের ভূমিকা কী ইরানে স্টারলিংক সক্রিয় করতে যাচ্ছেন ইলন মাস্ক। ছবি: সংগৃহীত
নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে কুর্দি নারী মাহসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় উত্তাল ইরানে বিক্ষোভ দমনে ইন্টারনেট সেবা সীমিত করেছে দেশটির সরকার। এমন পরিস্থিতিতে আমেরিকার সরকারের সবুজ সংকেত পেয়ে বিক্ষোভকারীদের জন্য ইন্টারনেট সেবা সচল রাখতে এগিয়ে এসেছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক। তবে এবারই প্রথম নয়, এর আগে কিয়েভের আহ্বানে সারা দিয়ে ইউক্রেনেও ইন্টারনেট সেবা সরবরাহ করেছিলেন তিনি।

চলমান বিক্ষোভের মুখে ইন্টারনেট সেবা সীমিত করেছে ইরান সরকার। এমন পরিস্থিতিতে বিক্ষোভ চাঙ্গা রাখতে আমেরিকার বেসরকারি মহাকাশ গবেষণা সংস্থা স্পেসএক্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিলিয়নেয়ার ইলন মাস্ক সেখানে স্টারলিংক সক্রিয় করার বিষয়টি জানিয়েছেন।

ইরানে নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে ২২ বছর বয়সী কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর ইরানে শুরু হয় বিক্ষোভ। এই বিক্ষোভ দমনে ইরানের কর্তৃপক্ষ দেশটিতে ইন্টারনেট সেবা সীমিত করে দিয়েছে, ব্লক করে দিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রাম।

এবার আমেরিকার সরকারের পক্ষ থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পর বিক্ষোভকারীদের সহযোগিতার জন্য ইরানে স্যাটেলাইট নির্ভর মহাকাশভিত্তিক ইন্টারনেট সেবা চালু করার বিষয়টি আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টোনি ব্লিঙ্কেনের এক টুইটের জবাবে এমনটাই জানিয়েছেন মাস্ক।

তবে এ বিষয়ে মাস্কের আনুষ্ঠানিক কোনো মন্তব্য জানা যায়নি বা কোন পথে বিক্ষোভকারীদের হাতে রিসিভার এন্টেনা পৌঁছাবে, তাও জানা যায়নি। ইরানিদের হাতে ইন্টারনেট সেবা সরঞ্জাম সরবরাহ করার ক্ষেত্রে কোনো নিয়মতান্ত্রিক জটিলতায় পড়তে হবে না মাস্ককে।

কারণ পরমাণু ইস্যুতে ইরানে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার পরও যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগ ইরানি জনগণের জন্য ইন্টারনেট সেবা সম্প্রসারণের নির্দেশিকা জারি করেছে।

উত্তাল ইরানে ইলন মাস্কের ভূমিকা কী
স্পেসএক্সের রকেটে মহাকাশে স্টারলিংক স্যাটেলাইট

এর আগে বৈশ্বিক ইন্টারনেট পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা নেটব্লক্স জানিয়েছিল, ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে পশ্চিম ইরানের কুর্দিস্তান প্রদেশের কিছু অংশে শুরুতে ইন্টারনেট সেবা প্রায় বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। বিক্ষোভ শুরুর পর তেহরান ও অন্যান্য শহরেও ইন্টারনেট সেবায় বিঘ্ন ঘটছে।

তেহরান ও দক্ষিণ ইরানের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, তারা হোয়াটসঅ্যাপে টেক্সট পাঠাতে পারলেও কোনো ছবি পাঠাতে পারছেন না। ইনস্টাগ্রাম সম্পূর্ণরূপে বন্ধ রয়েছে।

চলমান উত্তাল পরিস্থিতিতে ইরানে ইন্টারনেটের গতিও কমিয়ে দেয়ার খবর পাওয়া গেছে। একটি বড় মোবাইল ফোন অপারেটরের নেটওয়ার্ক ব্যাহত হওয়ার কারণে লাখ লাখ গ্রাহকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

ইন্টারনেট সেবা নিয়ে ইরানি কর্তৃপক্ষের এখনও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। দেশটিতে ইন্টারনেটে হস্তক্ষেপ নতুন ঘটনা নয়। এর আগে ২০১৯ সালে সরকারবিরোধী বিক্ষোভের সময়েও প্রায় সপ্তাহখানেক ইন্টারনেট বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ।

তবে ইন্টারনেট সেবা ব্যাহত হওয়ার ক্ষেত্রে জরুরি ভিত্তিতে ইলন মাস্কের স্টারলিংকের ইন্টারনেট সরবরাহ নতুন কিছু নয়।

এর আগে ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স স্টারলিংকের হাজার হাজার এন্টেনা পাঠিয়েছে ইউক্রেনে, যাতে রুশ হামলার মধ্যে দেশটির বিপর্যস্ত ইন্টারনেট সেবা সচল থাকে।

ইউক্রেনে রাশিয়া হামলা শুরু করলে ইউক্রেনের পক্ষ থেকে ইলন মাস্কের কাছে সহায়তা চাওয়া হয়। ইলন মাস্ক সে আহ্বানে সাড়া দিয়ে স্টারলিংক স্যাটেলাইট ইউক্রেনের জন্য সচল করেন।

স্পেসএক্সের সহপ্রতিষ্ঠান স্টারলিংক পৃথিবীর দ্রুত বিকাশমান বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি, যাদের লক্ষ্য পৃথিবীর লো-অরবিটে থাকা স্যাটেলাইট থেকে বিশ্বব্যাপী লো লেটেন্সির ব্রডব্র্যান্ড ইন্টারনেট সেবা প্রদান করা। স্টারলিংক তার বিনিয়োগকারীদের জানিয়েছে, খুব শিগগিরই প্রতিষ্ঠানটি ১ ট্রিলিয়ন ডলারের বাজার তৈরিতে সক্ষম হবে।

আরও পড়ুন:
ইরানের রাস্তায় এবার হিজাবপন্থিরা
ইরানে পোশাকের স্বাধীনতার বিক্ষোভে মৃত বেড়ে ২৬
হিজাবে রাজি হননি সিএনএনের আমানপোর, ইরানি প্রেসিডেন্টের সাক্ষাৎকার বাতিল
ইরানি সেনারা জনতার পক্ষ নিন: সাবেক ফুটবল তারকা
নারীর পোশাকের স্বাধীনতার বিক্ষোভে ইরানে নিহত ১৭

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Medium sized businesses are more vulnerable to cyber attacks

মাঝারি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলার ঝুঁকি বেশি

মাঝারি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলার ঝুঁকি বেশি বৃহস্পতিবার মতিঝিলে এফবিসিসিআই কার্যালয়ে স্ট্যান্ডিং কমিটি অন ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন্স টেকনোলজি (আইসিটি) অ্যান্ড ডিজিটাইজেশন অফ ট্রেড বডিজের সভা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: নিউজবাংলা
‘বিশ্বের ৬৬ শতাংশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান অন্তত একবার সাইবার হামলার শিকার হয়েছে। ২০০২ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে এ ধরনের হামলার হার ৮০ শতাংশ বেড়েছে। হামলাগুলোর ৯৩ শতাংশই ঘটেছে ফিশিং ই-মেইলের মাধ্যমে। এ ছাড়া সোশ্যাল মিডিয়া ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার ঘটনা বাড়ছে।’

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ব্যবসা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাইবার হামলার ঝুঁকি বাড়ছে। এর মধ্যে মাঝারি আকারের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলো সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে। এসব হামলা মোকাবিলায় তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষতা ও সচেতনতা বাড়ানো জরুরি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর মতিঝিলে এফবিসিসিআই কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত স্ট্যান্ডিং কমিটি অন ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন্স টেকনোলজি (আইসিটি) অ্যান্ড ডিজিটাইজেশন অফ ট্রেড বডিজের সভায় বক্তারা এ কথা বলেছেন।

বক্তারা বলেন, মাঝারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাইবার হামলা মোকাবিলায় পর্যাপ্ত কারিগরি সক্ষমতা ও কর্মীদের সচেতনতার অভাব রয়েছে।

স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যরা জানান, বিশ্বের ৬৬ শতাংশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান অন্তত একবার সাইবার হামলার শিকার হয়েছে। ২০০২ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে এ ধরনের হামলার হার ৮০ শতাংশ বেড়েছে।

হামলাগুলোর ৯৩ শতাংশই ঘটেছে ফিশিং ই-মেইলের মাধ্যমে। এ ছাড়া সোশ্যাল মিডিয়া ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার ঘটনা বাড়ছে। সাইবার হামলা প্রতিরোধে নিরাপত্তামূলক সফটওয়্যারের বাজার বছরে সাড়ে ১৪ শতাংশ হারে বাড়ছে। বর্তমানে এই বাজারের বৈশ্বিক আকার ১৫৬ বিলিয়ন ডলার।

ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতিয়ে নেয়া প্রতিরোধ করতে কর্মীদের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষতা ও সচেতনতা বাড়ানো জরুরি বলে মন্তব্য করেন এই খাতের উদ্যোক্তারা।

সভায় স্ট্যান্ডিং কমিটির ডিরেক্টর ইন-চার্জ সৈয়দ আলমাস কবীর জানান, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলোর তথ্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এফবিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে সচেতনতামূলক কার্যক্রম হাতে নেয়া হবে। এ জন্য একাধিক সেমিনারের আয়োজন ও সচেতনতামূলক পোস্টার করা হবে।

বৈঠকে ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন, বেশির ভাগ সরকারি অনলাইন সার্ভিস কার্যকর নয়। বিশেষ করে অনলাইনে সনদ গ্রহণ করতে গিয়ে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু।

দেশের সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্ট্যান্ডিং কমিটিকে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

‘তথ্যপ্রযুক্তি একটি ব্যাপক সম্ভাবনাময় খাত উল্লেখ করে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ খাতের রপ্তানি বাড়াতে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণে কমিটির প্রতি আহ্বান জানান।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির চেয়ার‌ম্যান শহিদ-উল মুনীর। সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কমিটির সদস্যদের একযোগে কাজ করার কথা বলেন তিনি।

এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন কমিটির কো-চেয়ারম্যান মো. নাজমুল করিম বিশ্বাস কাজল, মো. মোতাহার হোসেন খান, অন্যান্য সদস্য ও এফবিসিসিআইয়ের মহাসচিব মোহাম্মদ মাহফুজুল হক।

আরও পড়ুন:
শাটডাউনে ব্যাংকে সাইবার হামলার আশঙ্কায় সতর্কতা
যুক্তরাষ্ট্রের ২০০ প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা
যুক্তরাষ্ট্রের ৩০ হাজার প্রতিষ্ঠানে চীনের সাইবার হামলা
সাইবার হামলা: রাশিয়াকে দুষতে নারাজ ট্রাম্প
অলিম্পিকের সাইট হ্যাক রাশিয়ার: যুক্তরাজ্য

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Kiselects new calling smartwatch in the country

দেশে কিসিলেক্টের নতুন কলিং স্মার্টওয়াচ

দেশে কিসিলেক্টের নতুন কলিং স্মার্টওয়াচ দেশের বাজারে কিসিলেক্টের নতুন স্মার্টওয়াচ। ছবি: সংগৃহীত
দেশব্যাপী মোশন ভিউয়ের সকল আউটলেট, অনুমোদিত রিটেইল পয়েন্টে ও অনলাইনে স্মার্টওয়াচটি পাওয়া যাচ্ছে। স্মার্টওয়াচটির দাম ৬ হাজার ৭৮০ টাকা। এ ছাড়া ৪ হাজার ৬০০ টাকায় পাওয়া যাবে এটির রেগুলার মডেল কিসিলেক্ট কেআর।

দেশের বাজারে কলিং ফিচার সমৃদ্ধ স্মার্টওয়াচ নিয়ে এসেছে গ্যাজেট বিপনণকারী প্রতিষ্ঠান মোশন ভিউ লিমিটেড।

কিসিলেক্ট ব্রান্ডের কেআর প্রো কলিং স্মার্টওয়াচটি কেনায় ১ বছরের বিক্রোত্তর সেবা বা ওয়ারেন্টি সুবিধা মিলবে। ১ বছরের মধ্যে ফিজিক্যাল ড্যামেজ ছাড়া অন্য যেকোনো সমস্যা হলে তা বিনামূল্যে সারিয়ে কিংবা পরিবর্তন করে দেবে প্রতিষ্ঠানটি।

গোলাকার আকৃতির স্মার্টওয়াচটিতে রয়েছে ১.৪৩ ইঞ্চি আকারের অ্যামোলেড ডিসপ্লে, যাতে রয়েছে অলওয়েজ-অন-ডিসপ্লে (এওডি) ফিচার। এতে থাকা ২৮০ এমএএইচ ব্যাটারি ফুল চার্জ হতে ২ ঘণ্টার মত সময় নেয়। আর একবার ফুল চার্জে সাধারণ ব্যবহারে তিন দিন, ভারী ব্যবহারে দুই দিনের ব্যাকআপ মিলবে। যারা ফিটনেস সচেতন, তাদের কথা মাথায় রেখে এতে প্রায় ৭০টি ভিন্ন ওয়ার্কআউট ফিচার যুক্ত করা হয়েছে।

ঘড়িটির বিশেষত্ব হলো, স্মার্টফোনে ব্লুটুথের মাধ্যমে যুক্ত থাকা অবস্থায় এটি থেকে সরাসরি কল করা যাবে, কিংবা ফোনে আসা কল রিসিভ করেও কথা বলা যাবে। এজন্য ঘড়িটিতে যুক্ত আছে বিল্ট-ইন স্পিকার ও মাইক্রোফোন। এ ছাড়া এটিতে রয়েছে বিল্ট-ইন মিউজিক প্লেয়ার ফিচার।

স্মার্ট ওয়াচটিতে আইপি-৬৮ গ্রেডের ওয়াটার রেসিস্ট্যান্স থাকার এটি হাতে থাকা অবস্থায় সাঁতার কাটা যাবে।

দেশব্যাপী মোশন ভিউয়ের সকল আউটলেট, অনুমোদিত রিটেইল পয়েন্টে ও অনলাইনে স্মার্টওয়াচটি পাওয়া যাচ্ছে। স্মার্টওয়াচটির দাম ৬ হাজার ৭৮০ টাকা। এ ছাড়া ৪ হাজার ৬০০ টাকায় পাওয়া যাবে এটির রেগুলার মডেল কিসিলেক্ট কেআর।

দেশব্যাপী মোশন ভিউ দেশের সেরা দামে স্মার্ট গ্যাজেট, স্মার্টফোন নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়াও গ্রাহকের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করতে সেরা বিক্রয়োত্তর সেবা দিয়ে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।

দেশব্যাপী ৬৪ জেলায় মোশন ভিউয়ের বিপণন চালু আছে। নিজস্ব ২২ টি ব্র্যান্ড আউটলেট, ২ হাজারের অধিক রিটেইল ও অনলাইনে তাদের পণ্য পাওয়া যায়। বিভিন্ন ধরনের ব্র্যান্ডের অরিজিনাল স্মার্ট গ্যাজেট, যেমন- স্মার্ট ওয়াচ, ইয়ারফোন, স্মার্ট টিভি, পাওয়ার ব্যাংক, , স্মার্ট হোম অ্যাপ্লায়েন্স ইত্যাদি গ্রাহকের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে এবং সেগুলোর ক্ষেত্রে পূর্ণ বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিতে কাজ করে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন:
সারা দেশে প্রযুক্তিপণ্য পৌঁছে দিতে মোশন ভিউয়ের পার্টনার মিট
ধানমন্ডিতে মোশন ভিউয়ের নতুন আউটলেট চালু
মোশন ভিউয়ে পাওয়া যাবে ইনফিনিক্স মোবাইল

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
In Iran Instagram photos are not available on WhatsApp

ইরানে বন্ধ ইনস্টাগ্রাম, ছবি যাচ্ছে না হোয়াটসঅ্যাপে

ইরানে বন্ধ ইনস্টাগ্রাম, ছবি যাচ্ছে না হোয়াটসঅ্যাপে ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপের মতো সামাজিক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক প্রায় বন্ধ আছে ইরানে। ছবি: সংগৃহীত
ইরানে নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে তুমুল আন্দোলনের মধ্যে দেশটিতে ইন্টারনেট সেবা বিঘ্নিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ইনস্টাগ্রাম কাজ করছে না। হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো যাচ্ছে না ছবি।

‘সঠিক নিয়মে’ হিজাব না পরার অভিযোগে গ্রেপ্তারের পর ২২ বছরের মাহসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় ইরানে চলমান বিক্ষোভ সামাল দিতে ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপের মতো সামাজিক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক ব্লক করেছে দেশটির সরকার।

বৈশ্বিক ইন্টারনেট পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা নেটব্লক্সের বরাতে এমনটাই জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

নেটব্লক্স বলছে, সোমবার থেকে পশ্চিম ইরানের কুর্দিস্তান প্রদেশের কিছু অংশে শুরুতে ইন্টারনেট সেবা প্রায় বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। বিক্ষোভ শুরুর পর তেহরান ও অন্যান্য শহরেও ইন্টারনেট সেবায় বিঘ্ন ঘটছে।

তেহরান ও দক্ষিণ ইরানের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, তারা হোয়াটসঅ্যাপে টেক্সট পাঠাতে পারলেও কোনো ছবি পাঠাতে পারছেন না। ইনস্টাগ্রাম সম্পূর্ণরূপে বন্ধ রয়েছে।

চলমান উত্তাল পরিস্থিতিতে ইরানে ইন্টারনেটের গতিও কমিয়ে দেয়ার খবর পাওয়া গেছে। একটি বড় মোবাইল ফোন অপারেটরের নেটওয়ার্ক ব্যাহত হওয়ার কারণে লাখ লাখ গ্রাহকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

ইন্টারনেট সেবা নিয়ে ইরানি কর্তৃপক্ষ এখনও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। দেশটিতে ইন্টারনেটে হস্তক্ষেপ নতুন ঘটনা নয়। এর আগে ২০১৯ সালে সরকারবিরোধী বিক্ষোভের সময়েও প্রায় সপ্তাহখানেক ইন্টারনেট বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ।

পুলিশি হেফাজতে মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে দেশটিতে প্রবল বিক্ষোভ চলছে। অনেক নারী এই বিক্ষোভে সমর্থন জানাতে হিজাব আগুনে পুড়িয়ে দেয়ার ছবি ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করছিলেন।

আরও পড়ুন:
‘প্রয়োজনে মরব, তবু আগের ইরান ফিরিয়ে আনব’
হিজাবে অনিচ্ছুক নারীদের হয়রানি বন্ধ করুন: জাতিসংঘ
নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে উত্তাল ইরান, নিহত ৫
বিশ্ববিদ্যালয়ে বোরকাকে ফরমাল ড্রেস করার দাবি
ঢাবিতে এবার পোশাকের স্বাধীনতার পক্ষে অবস্থান

মন্তব্য

p
উপরে