× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Revealing images of black holes in our galaxy
hear-news
player

আমাদের ছায়াপথের কৃষ্ণগহ্বরের ছবি প্রকাশ

আমাদের-ছায়াপথের-কৃষ্ণগহ্বরের-ছবি-প্রকাশ জ্যোতির্বিদদের তোলা আমাদের ছায়াপথের কেন্দ্রের কৃষ্ণগহ্বর স্যাগিটারিয়াস এ*। ছবি: কোয়ান্টাম ম্যাগাজিন
কৃষ্ণগহ্বর থেকে আলো পর্যন্ত বের হতে পারে না। তাই গতানুগতিক ছবি বলতে আমরা যা বুঝি , স্যাগিটারিয়াস এ* কৃষ্ণগহ্বরের ছবি তেমন নয়। এখানে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা রেডিও টেলিস্কোপের নেটওয়ার্ক ইভেন্ট হোরাইজন টেলিস্কোপের (ইএইচটি) থেকে পাওয়া সংগৃহীত তথ্যের আলোকে ছবিটি তৈরি করা হয়েছে। যেখানে বিশ্লেষণের জন্য সংগৃহীত ডাটার পরিমাণ ছিল ৩.৫ পেটাবাইট ডাটা, যা ১০ কোটি টিকটক ভিডিওর ডাটার সমান।

মহাকাশের এক রহস্যের নাম কৃষ্ণগহ্বর। যার মাধ্যাকর্ষণ শক্তি এতই বেশি যে আলো পর্যন্ত সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে পারে না। প্রায় দুই শতক ধরে বিজ্ঞানীরা এই কৃষ্ণগহ্বরের সন্ধান করে আসছেন। এবার এই অনুসন্ধানে আরও একটি সাফল্য অর্জন করেছেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা।

দ্য ভার্জের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রথমবারের মতো জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা এবার আমাদের ছায়াপথের কেন্দ্রে অবস্থিত একটি দৈত্যাকার কৃষ্ণগহ্বরের ছবি তুলতে সক্ষম হয়েছেন। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা রেডিও টেলিস্কোপের নেটওয়ার্ক ইভেন্ট হোরাইজন টেলিস্কোপের (ইএইচটি) সহযোগিতায় এই ছবিটি তৈরি করা হয়েছে।

কৃষ্ণগহ্বর থেকে আলো পর্যন্ত বের হতে পারে না। তাই গতানুগতিক ছবি বলতে আমরা যা বুঝি, এই ছবিটি তেমন নয়। এখানে রেডিও টেলিস্কোপ থেকে পাওয়া সংগৃহীত তথ্যের আলোকে ছবিটি তৈরি করা হয়েছে। যেখানে বিশ্লেষণের জন্য সংগৃহীত ডাটার পরিমাণ ছিল ৩.৫ পেটাবাইট ডাটা, যা ১০ কোটি টিকটক ভিডিওর ডাটার সমান।

১২ মে আমাদের আকাশগঙ্গা ছায়াপথের কেন্দ্রের স্যাগিটারিয়াস এ* কৃষ্ণগহ্বরের ছবি তোলার ঘোষণা দেয়ার সময় অ্যারিজোনা ইউনিভার্সিটির জ্যোতিপদার্থবিদ ফারইয়েল ওজেল বলেন, ছবিটি আমাদের দেখায় কৃষ্ণগহ্বরটি অন্ধকারে একটি উজ্জ্বল বলয়ের মতো।

এই ফলাফলটিই স্পষ্ট করে যে, এই বস্তুটি প্রকৃত অর্থে একটি কৃষ্ণগহ্বর এবং দৈত্যাকার এসব কৃষ্ণগহ্বরের অবস্থান সাধারণত ছায়াপথের কেন্দ্রে হয়। কালো অন্ধকার হওয়ায় তা আমরা দেখতে পারি না। এর মাধ্যাকর্ষণের টানে বাঁকানো আলোই কেবল ছবিতে ধরা পড়েছে। যার আলোকে স্যাগিটারিয়াস এ* কৃষ্ণগহ্বরের আয়তন আমাদের সূর্যের চেয়ে চার মিলিয়ন গুণ বড়।

জ্যোতির্বিদদের মতে কৃষ্ণগহ্বর নক্ষত্রকে গিলে ফেলতে পারে। সৌভাগ্যবশত আমাদের ছায়াপথের কেন্দ্রের কৃষ্ণগহ্বরটি পৃথিবী থেকে ২৬ হাজার আলোকবর্ষ দূরে।

তবে জ্যোতির্বিদদের তোলা এটিই প্রথম কৃষ্ণগহ্বরের ছবি নয়। এর আগে ইএইচটির মাধ্যমে সাড়ে পাঁচ কোটি আলোকবর্ষ দূরে মেসিয়ার-৮৭ ছায়াপথের এম-৮৭* নামের একটি কৃষ্ণগহ্বরের ছবি তোলা হয়। ২০১৯ সালে তোলা এই ছবিটিই ছিল কৃষ্ণগহ্বরের প্রথম কোনো ছবি। এর আকারে আমাদের সূর্যের চেয়ে ৬৫০ কোটি বড়।

আমাদের ছায়াপথের কৃষ্ণগহ্বর স্যাগিটারিয়াস এ* এর আকার মেসিয়ার ছায়াপথের এম-৮৭* কৃষ্ণগহ্বরের থেকে হাজার গুণ ছোট। দুটি কৃষ্ণগহ্বরের আকারে ব্যাপক পার্থক্য হলেও দেখতে দুটি একই রকম। বিজ্ঞানীরা দুটি কৃষ্ণগহ্বরের ছবি তুলতে সক্ষম হওয়ায় এখন তাদের পক্ষে এর বৈসাদৃশ্যগুলোও অনুসন্ধান করা সম্ভব হবে, পাশাপাশি একে ঘিরে থাকা গ্যাসীয় বলয়ের গতিপ্রকৃতি বুঝতেও সাহায্য করবে।

কৃষ্ণগহ্বর কী

সাধারণ আপেক্ষিকতার তত্ত্ব অনুসারে কৃষ্ণগহ্বর হলো মহাকাশের এক অঞ্চল যেখান থেকে কোনো কিছুই বের হতে পারে না। এমনকি আলো পর্যন্ত সেখানে বিলীন হয়ে যায়। এটি তৈরি হয় অল্প স্থানে খুব বেশি পরিমাণে থাকা ভর থেকে। প্রকৃতপক্ষে এই স্থানে সাধারণ মহাকর্ষীয় বলের মান এত বেশি হয়ে যায় যে এটি মহাবিশ্বের অন্য সকল বল এমনকি তড়িৎ চুম্বকীয় বলকেও অতিক্রম করে। সাধারণত এর অবস্থান হয় ছায়াপথগুলোর কেন্দ্রে। যদিও বিজ্ঞানীরা এখনও নিশ্চিত নন, ছায়াপথের জন্ম আগে হয়েছে নাকি কৃষ্ণগহ্বরের।

আরও পড়ুন:
পৃথিবীর প্রত্যেকে হবে বিলিয়নেয়ার!
সৌরজগতে তিন চাঁদের গ্রহাণু
সবচেয়ে বড় ছায়াপথের সন্ধান
ব্ল্যাকহোলের প্রান্তসীমার ছবি তুলবে আফ্রিকার টেলিস্কোপ
সময়ের প্রান্তের দুটি ছায়াপথের সন্ধান

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Perseverance is an important step in the search for life on Mars

মঙ্গলে প্রাণের সন্ধানে গুরুত্বপূর্ণ ধাপে পারসিভারেন্স

মঙ্গলে প্রাণের সন্ধানে গুরুত্বপূর্ণ ধাপে পারসিভারেন্স প্রাচীন প্রাণের সন্ধানে মঙ্গলের শিলায় খননকাজ চালিয়ে আসছে পারসিভারেন্স। ছবি: সংগৃহীত
অতীতে মঙ্গলে কোনো প্রাণ ছিল কি না তা যাচাইয়ের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো শিলা পরীক্ষা করে দেখা। অ্যানসিয়েন্ট ডেল্টার শিলা শুধু পর্যবেক্ষণ করবে না, ভবিষ্যতে বিস্তারিত গবেষণার জন্য শিলা সংগ্রহ করবে পারসিভারেন্স। নাসার লক্ষ্য হলো ২০৩০-এর দশকে বিস্তারিত গবেষণার জন্য এই শিলাগুলোকে পৃথিবীতে নিয়ে আসা।

মঙ্গল নিয়ে জ্যোতির্বিজ্ঞানী থেকে শুরু করে মহাকাশ উদ্যোক্তাদের আগ্রহের শেষ নেই। বিশ্বের শীর্ষধনী ইলন মাস্ক তো মঙ্গলগ্রহে মানব বসতিই স্থাপন করতে চান। শুধু ইলনই নয়, নাসাও জানতে চায় মঙ্গল সম্পর্কে। মঙ্গলকে কী মানব বসতির জন্য উপযোগী করা যাবে, সেখানে কি কখনো প্রাণের অস্তিত্ব ছিল। এগুলো মঙ্গল সম্পর্কে খুব মৌলিক প্রশ্ন। যার উত্তর খোঁজার চেষ্টা করছে নাসা।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলে প্রাণের সন্ধান ও জীবনধারণ নিয়ে গবেষণার জন্য পাঠানো নাসার পারসিভারেন্স রোভার তার মিশনের একটি বড় মুহূর্তে পৌঁছেছে।

বিজ্ঞানীরা ধারণা করে আসছেন, মঙ্গলে আদিমকালের প্রাণের অস্তিত্বের প্রমাণ পাওয়া যেতে পারে গ্রহটির অ্যানসিয়েন্ট ডেল্টা এলাকায়। আর মঙ্গলবারই ছয় চাকার রোবটটি এনসিয়েন্ট ডেল্টাতে উঠতে শুরু করবে। বলা হয়ে থাকে, এখন পর্যন্ত যতগুলো মিশন ভিন্ন গ্রহে পাঠানো হয়েছে তার মধ্যে বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য পারসিভারেন্সের সক্ষমতা সবচেয়ে বেশি।

নাসার পাঠানো এই রোবটটি এরই মধ্যে মঙ্গলে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছে। প্রথমবারের মতো পারসিভারেন্স রোভারই মঙ্গলে অক্সিজেন উৎপাদন করেছে। হাইটেক এই রোবট ড্রোন হেলিকপ্টারও মঙ্গলের আকাশে উড়িয়েছে।

অতীতে মঙ্গলে কোনো প্রাণ ছিল কি না তা যাচাইয়ের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো শিলা পরীক্ষা করে দেখা। পারসিভারেন্স শুধু শিলা পরীক্ষা করেই দেখে না। শিলা সংগ্রহ করে অ্যানসিয়েন্ট ডেল্টার নিচে এনে সে শিলাগুলোকে জড়ো করবে। নাসার লক্ষ্য হলো ২০৩০-এর দশকে বিস্তারিত গবেষণার জন্য এই শিলাগুলোকে পৃথিবীতে নিয়ে আসা।

পারসিভারেন্স রোভারকে মঙ্গলে মিশনে পাঠানো হয়েছে প্রাণের অনুসন্ধানের জন্য। তাকে যেখানে নামানো হয় সেই স্থানটির নাম জেজেরো ক্রেটার। ধারণা করা হয়। সেখানে একসময় হ্রদ ছিল। ফলে সেখানে একসময় অণুজীবের মতো প্রাণের অস্তিত্ব থাকা অস্বাভাবিক নয়।

পরবর্তী সময়ে বিজ্ঞানীরা জেজেরো ক্রেটারের কাছেই অ্যানসিয়েন্ট ডেল্টা সন্ধান পায়। এর আকৃতিতে গবেষকদের ধারণা এর পাশে নদীর মতো প্রবাহ ছিল। ফলে একসময় সেখানে প্রাণ থাকা খুবই সম্ভব। তাই পারসিভারেন্সের অ্যানসিয়েন্ট ডেল্টার যাত্রায় উচ্ছ্বসিত মহাকাশ বিজ্ঞানীরা।

অ্যানসিয়েন্ট ডেল্টা প্রকৃত অর্থে এমন একটি কাঠামো, যা নদীর বয়ে আনা পলি দিয়ে তৈরি হয়। যেখানে থাকে জীবন ধারণের উপাদান, ফলে একসময় সেখানে অণুজীবের জীবন ধারণ অস্বাভাবিক কিছু নয়।

আরও পড়ুন:
চিকিৎসক, সাইক্লিস্ট যাবেন মহাকাশে
চার মাস পর চাঁদে নাসার ক্রুবিহীন ফ্লাইট
সৌরজগতের উৎপত্তি জানতে মহাকাশযান পাঠাল নাসা
মঙ্গল থেকে শিলার নমুনা সংগ্রহ করল রোবট
নাসার প্রধান বিল নেলসন

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
160 crore views on Tiktaks Ramadan campaign

টিকটকের রমজান ক্যাম্পেইনে ১৭০ কোটি ভিউ

টিকটকের রমজান ক্যাম্পেইনে ১৭০ কোটি ভিউ
ক্যাম্পেইনটিতে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, প্রখ্যাত মেকআপ শিল্পী সুমাইয়া মীম, জনপ্রিয় টিকটক কনটেন্ট নির্মাতা শাহাত বিন সেলিম এবং সুনেহরা তাসনিম।

ছোট ভিডিও-শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম টিকটক সম্প্রতি বাংলাদেশে তাদের #StitchKindness শীর্ষক রমজান ক্যাম্পেইন শেষ ঘোষণা দিয়েছে।

ক্যাম্পেইনটি রমজানের চেতনাকে ধারণ এবং ব্যবহারকারীদের মধ্যে দয়া ও দানের বার্তা ছড়িয়ে দিয়েছে। রোজা ও ঈদ উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রচারিত পাঁচটি হ্যাসট্যাগের ক্যাম্পেইনটি এরইমধ্যে ১৭০ কোটির বেশিবার দেখা হয়েছে।

ক্যাম্পেইনটিতে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, প্রখ্যাত মেকআপ শিল্পী সুমাইয়া মীম, জনপ্রিয় টিকটক কনটেন্ট নির্মাতা শাহাত বিন সেলিম এবং সুনেহরা তাসনিম।

টিকটকের বিজ্ঞাপনটি প্রতীকী হলেও ব্যাপকভাবে প্রসংশিত হয়। বিনোদনের একটি মাধ্যম হলেও এর মাধ্যমে টিকটকের কমিউনিটির উন্নতি এবং বাংলাদেশিদের একত্রিত করার মনোভাব ফুটে উঠেছিল।

#StitchKindness হ্যাশট্যাগটি প্রায় ১০০ কোটিবার দেখা হয়েছে। ভিডিওগুলোতে তুলে ধরা হয়েছে নিঃস্বার্থ ও পরিশ্রমী মানুষদের, যারা রোজার সময় অন্যদের সাহায্য করেছেন এবং কঠিন পরিস্থিতিতেও তাদের দায়িত্ব পালন করে গেছেন।

সারা দেশের কনটেন্ট নির্মাতারা এই ক্যাম্পেইন উপলক্ষ্যে টিকটক বিজ্ঞাপনের সাথে তাদের ভিডিওগুলো স্টিচ করে একটি চেইন অব কাইন্ডনেস তৈরি করেছেন। ক্যাম্পেইনটি রমজান মাসে ‘আনসান হিরোদের’ প্রচেষ্টাকে সম্মানিত করেছে।

আরেকটি হ্যাশট্যাগ, #MaheRamadan যা ৩ কোটি ১৯ লাখের বেশিবার দেখা হয়েছে। টিকটক কমিউনিটির মধ্যে রজমান মাসের সারমর্ম ও চেতনা ছড়িয়ে দিতে ক্যাম্পেইনটি কাজ করেছে। এ ছাড়া #RojarDin উদ্যোগ টিকটক ব্যবহারকারীদের সেহরি এবং ইফতারের সময় স্বাস্থ্য সচেতনতা ও নিজের যত্ন সম্পর্কে জানান দিয়েছে। প্ল্যাটফর্মটিতে এটি ৩১৯.৯ মিলিয়নবার দেখা হয়েছে। ব্যবহারকারীরা #RamadanRecipe হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে রমজানের প্রিয় খাবারের ভিডিওগুলোও শেয়ার করেছেন, যা ৮৫.৮ মিলিয়নেরও বেশি দেখা হয়েছে।

ক্যাম্পেইনটি শেষ হয়েছে দেশের অন্যতম বড় উৎসব- ঈদ-উল-ফিতর উদযাপনের মধ্য দিয়ে। আনন্দময় এই উৎসবকে উদযাপন করতে টিকটক কমিউনিটি #KhushirEid হ্যাসট্যাগটি ব্যবহার করে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিয়েছে। হ্যাসট্যাগটি ও প্রায় ১৮৭.৩ মিলিয়নবার দেখা হয়েছে। এ ছাড়া ঈদ উপলক্ষ্যে এক্সক্লুসিভ কিছু ফিল্টার ও ইন অ্যাপ ইফেক্ট চালু করেছিল টিকটক।

রমজান মাস সবসময়ই আত্মিক উন্নয়ন, উদযাপন ও জমায়েতের মাস হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে, তা অনলাইনে হোক বা অফলাইনে। এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে টিকটক পবিত্র রমজান মাসের চেতনা সারাবিশ্বের সকল কমিউনিটির সাথে উদযাপন করেছে। এ ছাড়া এর লক্ষ্য ছিল সৃজনশীলতাকে অনুপ্রাণিত করা এবং বিশ্বব্যাপী টিকটকের ক্রমবর্ধমান কমিউনিটির জন্য আনন্দ বয়ে আনা।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের ভিডিও টিকটকে, রাতারাতি তারকা তরুণী
কমিউনিটি গাইডলাইনস লঙ্ঘন: ৯ কোটির বেশি ভিডিও সরিয়েছে টিকটক
টিকটক বানাতে গিয়ে ‘ধর্ষণ’: ৩ কিশোর গ্রেপ্তার
নিরাপদ ইন্টারনেট ব্যবহার উৎসাহিত করতে টিকটকের উদ্যোগ
গুগলকেও ছাড়িয়ে গেল টিকটক

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
The Changemakers team exchanged views with e cab members in Chittagong

চট্টগ্রামের ই-ক্যাব সদস্যদের সঙ্গে দ্য চেঞ্জমেকার্সের মতবিনিময়

চট্টগ্রামের ই-ক্যাব সদস্যদের সঙ্গে দ্য চেঞ্জমেকার্সের মতবিনিময় চট্টগ্রামে ই-ক্যাব সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময়ে দ্য চেঞ্জমেকার্স টিম।
টিমের সদস্য জিসান কিংশুক হক বলেন, 'চট্টগ্রামে আমরা ই-ক্যাবের একটি বিভাগীয় অফিস করতে চাই। সদস্য বান্ধব বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে এই শিল্প নগরীতে ই-ক্যাবকে আরও বিকশিত করাই আমাদের মূল লক্ষ্য।'

ইকমার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর চট্টগ্রাম বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছে কমার্স ইন্ডাস্ট্রিতে ইতিবাচক পরিবর্তনের ডাক দিয়ে যাত্রা শুরু দ্য চেঞ্জমেকার্স টিম।

ই-ক্যাবের স্থানীয় সদস্য রাফসান কমিউনিকেশনের স্বত্ত্বাধিকারী জহিরুল আলম, ব্যাচেলর ডটকমের সঞ্জয় চৌধুরীসহ চট্টগ্রামের ই-ক্যাব সদস্যরা এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

দ্য চেঞ্জমেকার্স টিমের সদস্য ওয়াসিম আলিম (বাংলামেডস), জিয়া আশরাফ (চালডাল), তাসদীখ হাবীব (ক্লিন ফোর্স লিমিটেড), জিসান কিংশুক হক (আরটিএস এন্টারপ্রাইজ), ফাতিমা বেগম (আদি বিডি), মোজাম্মেল হক মৃধা (কিনলে ডট কম), আবু সুফিয়ান নিলাভ (নিজল ক্রিয়েটিভ), বিপ্লব ঘোষ রাহুল (ই-কুরিয়ার) প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

টিমের সদস্য জিসান কিংশুক হক বলেন, 'চট্টগ্রামে আমরা ই-ক্যাবের একটি বিভাগীয় অফিস করতে চাই। সদস্য বান্ধব বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে এই শিল্প নগরীতে ই-ক্যাবকে আরও বিকশিত করাই আমাদের মূল লক্ষ্য।'

তিনি বলেন, 'আমাদের পরকিল্পনা আছে পর্যায়ক্রমে সারা দেশের ইক্যাব সদস্যদের সাথে মতবিনিময় করার।'

এসব মতবিনিময় সভা থেকে উঠে আসা বিভিন্ন সুপারিশ ভবিষ্যতে তারা সদস্যদের কল্যাণে বাস্তবায়ন করতে চান বলেও জানান।

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Realmy is bringing two new smartphones

নতুন দুটি স্মার্টফোন আনছে রিয়েলমি

নতুন দুটি স্মার্টফোন আনছে রিয়েলমি
রিয়েলমি সি৩৫ ফোনের ক্ষেত্রে ডিজাইন ও ফিচার দুটি বিষয়ের ওপরই গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। এতে রয়েছে ফ্লোটিং গ্লোয়িং ডিজাইন, যা এন্ট্রি লেভেলের ডিভাইসে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

দেশের বাজারে নতুন দুটি স্মার্টফোন উন্মোচন করতে যাচ্ছে রিয়েলমি। আগামী ২২ মে ব্র্যান্ডটি দেশে ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার ফ্ল্যাগশিপ রিয়েলমি ৯ ফোরজি এবং রিয়েলমি সি৩৫ উন্মোচন করবে।

এক বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, উদ্ভাবনী ডিজাইনের এন্ট্রি-লেভেলের রিয়েলমি সি৩৫ ডিভাইসটির ডিজাইন নজরকাড়া। অধিকাংশ এন্ট্রি-লেভেলের ডিভাইসে ফিচারে দেয়া হয়েছে গুরুত্ব।

রিয়েলমি সি৩৫ ফোনের ক্ষেত্রে ডিজাইন ও ফিচার দুটি বিষয়ের ওপরই গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। এতে রয়েছে ফ্লোটিং গ্লোয়িং ডিজাইন, যা এন্ট্রি লেভেলের ডিভাইসে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

চমৎকার ফটোগ্রাফি অভিজ্ঞতা পেতে এ ডিভাইসটিতে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল ক্যামেরা, ৬.৬ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাসের ডিসপ্লে।

অন্যদিকে, ফ্ল্যাগশিপ ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেটআপ নিয়ে আসছে রিয়েলমি ৯ ফোরজি; যাতে থাকছে আইসোসেল এইচএম সিক্স সেন্সর। ফলে লো-লাইটেও চমৎকার ও ঝকঝকে ছবি তোলা যাবে ফোনটি দিয়ে।

ডিভাইসটিতে ৯০ হার্টজ সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লেসহ পাওয়ার অ্যাফিশিয়েন্ট অত্যাধুনিক ৬ ন্যানোমিটারের স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে।

চমৎকার অভিজ্ঞতা দিতে এতে রিয়েলমি ইউআই ৩.০ ও অ্যান্ড্রয়েড ১২ ফিচার রয়েছে। এই ডিভাইটি খুবই স্লিম মাত্র ৭.৯ মিলিমিটার এবং এতে রয়েছে দেশের প্রথম দুর্দান্ত রিপল হলোগ্রাফিক ডিজাইন।

আরও পড়ুন:
বাজারে আসছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের রিয়েলমি নাইন
রিয়েলমির জিটি মাস্টার এডিশনে অফার
নাম্বার ও সি সিরিজের ফোন আনছে রিয়েলমি
সারা দেশে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি নারজো ৫০ ও সি৩১
ঈদে রিয়েলমি ফোন কিনে বালি ভ্রমণ, বাইক জেতার সুযোগ

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Elon Musks Starlink orders started from Bangladesh

বাংলাদেশ থেকে ইলন মাস্কের স্টারলিংকের অর্ডার নেয়া শুরু

বাংলাদেশ থেকে ইলন মাস্কের স্টারলিংকের অর্ডার নেয়া শুরু স্পেসএক্সের রকেটে মহাকাশে স্টারলিংক স্যাটেলাইট। ছবি: সংগৃহীত
মহাকাশ থেকে লো লেটেন্সির ইন্টারনেট সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ইলন মাস্কের স্টারলিংক। প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশকে তার সেবার আওতায় আনতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে বাংলাদেশ থেকে এন্টেনাযুক্ত রাউটারের প্রি-অর্ডার নেয়া শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

মহাকাশ থেকে ইন্টারনেট সেবা সরবরাহের প্রতিষ্ঠান ইলন মাস্কের স্টারলিংক। বিশ্বের অনেক দেশের গ্রাহক এরই মধ্যে স্টারলিংকের রাউটারের ব্যবহার শুরু করেছে। গ্রাহকসংখ্যা এরই মধ্যে ১ লাখ ছাড়িয়েছে।

এবার স্টারলিংকের রাউটার কেনার জন্য আগাম অর্ডার করা যাবে বাংলাদেশ থেকেও। সম্প্রতি স্টারলিংকের ওয়েবসাইটে বাংলাদেশ থেকে ডিভাইসের অর্ডার নেয়া হচ্ছে। ৯৯ ডলার ডিপোজিট করে যে কেউ অর্ডার করতে পারবে।

বাংলাদেশ থেকে ইলন মাস্কের স্টারলিংকের অর্ডার নেয়া শুরু
বাংলাদেশ থেকেই অর্ডার করা যাচ্ছে স্টারলিংক রাউটার

বাংলাদেশে সার্ভিস দেয়ার ক্ষেত্রে স্টারলিংক আশা করছে ২০২৩ সালেই এখানে তারা সেবা চালু করতে পারবে। তবে যেহেতু বাংলাদেশে অনুমোদনের কিছু বিষয় আছে, সে ক্ষেত্রে তারা যদি সেবা চালু করতে না পরে তবে স্টারলিংকের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে ডিপোজিটের পুরো অর্থই গ্রাহক ফেরত পাবেন।

স্পেসএক্সের সহপ্রতিষ্ঠান স্টারলিংক পৃথিবীর দ্রুত বিকাশমান বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি, যাদের লক্ষ্য পৃথিবীর লো-অরবিটে থাকা স্যাটেলাইট থেকে বিশ্বব্যাপী লো লেটেন্সির ব্রডব্র্যান্ড ইন্টারনেট সেবা প্রদান করা। স্টারলিংক তার বিনিয়োগকারীদের জানিয়েছে, খুব শিগগিরই প্রতিষ্ঠানটি ১ ট্রিলিয়ন ডলারের বাজার তৈরিতে সক্ষম হবে।

ইউক্রেনে চলমান রুশ অভিযানে দেশটির ইন্টারনেট ব্যবস্থা মুখ থুবড়ে পড়লে দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী মাইখাইলো ফ্রেডরক ইলন মাস্কের কাছে সাহায্য চান। তার এই আহ্বানে সাড়া দিয়ে ইউক্রেনের ইন্টারনেট সেবাকে নিরবচ্ছিন্ন রাখতে তিনি স্টারলিংক স্যাটেলাইট সক্রিয় করেন।

আরও পড়ুন:
টাইম ‘বর্ষসেরা’ হলেন ইলন মাস্ক
প্রথম ট্রিলিয়নিয়ার হবেন ইলন মাস্ক
মস্তিষ্কে চিপ: ভিডিও গেম খেলছে বানর
ইলন মাস্কের বিরুদ্ধে টেসলার শেয়ারহোল্ডারের মামলা
কার্বন ক্যাপচার উদ্ভাবনে ১০ কোটি ডলার দেবেন ইলন মাস্ক

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Success in omega 3 fatty acid rich chicken meat eggs

ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডসমৃদ্ধ মুরগির মাংস-ডিমে ‘সাফল্য’

ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডসমৃদ্ধ মুরগির মাংস-ডিমে ‘সাফল্য’ ব্রয়লার মুরগির মাংসে ও লেয়ার মুরগির ডিমে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধকরণে এ সাফল্য পাওয়ার দাবি। ছবি: নিউজবাংলা
কৃষিবিদ মো. আহসান হাবীব বলেন, ‘গবেষণায় লেয়ার মুরগির ডিমের ক্ষেত্রে প্রতি ১০০ গ্রামে ৩৭৪ দশমিক ২৯ মিলিগ্রাম ও ব্রয়লার মুরগির মাংসের ক্ষেত্রে প্রতি ১০০ গ্রামে ১৮৭ দশমিক ১৫ মিলিগ্রাম ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড পাওয়া গেছে, যা ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় মাত্রা থেকে বেশি।’

ব্রয়লার মুরগির মাংস ও লেয়ার মুরগির ডিমে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধকরণে সাফল্য পাওয়ার দাবি করেছে একটি প্রতিষ্ঠান।

বাকৃবি সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন আপিজ সেইফ ফুড এগ্রো লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিকরুল হাকিম।

তিনি জানান, ২০১৬ সালে বাকৃবির চারজন তরুণ শিক্ষার্থীর উদ্যোগে আপিজ সেইফ ফুড এগ্রো লিমিটেড যাত্রা শুরু করে। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান কৃষিবিদ মোহাম্মদ আহসান হাবিব ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সমন্বয়ে গঠিত ‘রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট টিম’ মুরগির মাংস ও ডিমকে ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ করার গবেষণাটি শুরু করে। ২০২২ সালের এপ্রিলে গবেষণা শেষ হয়।

প্রকল্পটিতে মূলত মুরগির খাদ্যাভ্যাস ও খাদ্য গ্রহণে পরিবর্তন আনা হয়। মুরগিকে প্রতিদিনের খাদ্যের সঙ্গে কড লিভার অয়েল, ফ্ল্যাক্স সিড অয়েল, ফিশ অয়েল ইত্যাদি ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ উপাদান সরবরাহ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

প্রতিষ্ঠানটি দেশে প্রথম ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডসমৃদ্ধ মুরগির মাংস উৎপাদন করতে পেরেছে দাবি করে তিনি আরও বলেন, ‘‘নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবারের জোগান দেয়া এবং দেশের মেধাবী ও পরিশ্রমী জনশক্তিকে কাজে লাগিয়ে কৃষিক্ষেত্রে সমৃদ্ধি আনা আমাদের অন্যতম লক্ষ্য।

‘‘ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডসমৃদ্ধ ‘সেইফ ওমেগা-৩ ব্রয়লার’ ও ‘সেইফ ওমেগা-৩ এগ’ শিগগিরই বাজারজাত করবে বেসরকারি এ প্রতিষ্ঠানটি।’’

দাম সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘সাধারণ ব্রয়লার মুরগির মাংসের দাম কেজিপ্রতি ২৮০-২৯০ টাকা হলেও ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ ব্রয়লার মুরগির মাংসের দাম হবে কেজিপ্রতি ৫৯০ টাকা।

‘সাধারণ লেয়ার মুরগির ডিমের দাম প্রতি ডজন ১২০ টাকা হলেও ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ ডিমের দাম হবে প্রতি ডজন ২২৫ টাকা। আগামী সপ্তাহ থেকেই ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন সুপারশপে পণ্যগুলো কিনতে পাওয়া যাবে।’

প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক কৃষিবিদ মো. আহসান হাবীব বলেন, ‘গবেষণায় লেয়ার মুরগির ডিমের ক্ষেত্রে প্রতি ১০০ গ্রামে ৩৭৪ দশমিক ২৯ মিলিগ্রাম ও ব্রয়লার মুরগির মাংসের ক্ষেত্রে প্রতি ১০০ গ্রামে ১৮৭ দশমিক ১৫ মিলিগ্রাম ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড পাওয়া গেছে, যা ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় মাত্রা থেকে বেশি।’

গবেষণায় পাওয়া ফল বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ (বিসিএসআইআর) পরীক্ষা করেছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
মুরগি-ডিমের দাম বৃদ্ধির যত কারণ
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছেন প্রধানমন্ত্রী
হরেক রকম ডিম
যে আমের কেজি হাজার টাকা
যে কারণে বাড়ছে ডিমের দাম

মন্তব্য

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
Mask is not buying Twitter at the moment

আপাতত টুইটার কিনছেন না মাস্ক

আপাতত টুইটার কিনছেন না মাস্ক ইলন মাস্ক
মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারের স্প্যাম এবং ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে সর্বশেষ তথ্যের নির্ভরযোগ্যতা যাচাইয়ের জন্য অপেক্ষা করবেন মাস্ক। 

টানা তিন সপ্তাহের নাটকীয়তার পর ৪৪ বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে টুইটার কেনার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, আপাতত তা স্থগিত করেছেন টেসলা সিইও ও স্পেসএক্সের প্রধান প্রকৌশলী ইলন মাস্ক।

শুক্রবার এক টুইট বার্তায় তিনি নিজেই এ ঘোষণা দেন বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারের স্প্যাম এবং ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে সর্বশেষ তথ্যের নির্ভরযোগ্যতা যাচাইয়ের জন্য অপেক্ষা করবেন মাস্ক।

এ সংক্রান্ত রয়টার্সের একটি প্রতিবেদন শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, টুইটার কেনা চুক্তি আপাতত স্থগিত করা হলো।

এরই মধ্যে শেয়ার বাজারে টুইটারের দাম পড়ে গেছে ২০ শতাংশ।

তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দেয়নি টুইটার কর্তৃপক্ষ। মাস্কের পক্ষ থেকেও বিস্তারিত বক্তব্য আসেনি।

বেশ কিছু দিন ধরে ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে ঝুঁকির মুখে আছে বলে এর আগে জানিয়েছিল টুইটার।

গত ৪ এপ্রিল জানা যায়, টুইটারের প্রায় ৯.২ শতাংশ শেয়ারের মালিক ইলন মাস্ক। যার জন্য তিনি খরচ করেছেন ২.৪ বিলিয়ন ডলার। সে সময় একক মালিক হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির সবচেয়ে বেশি শেয়ারের মালিক হলেও ১০ এপ্রিল টুইটার বোর্ডের মিটিংয়ে যোগ দিতে অস্বীকার করেন তিনি।

পরে ইলন মাস্ক তার পরিকল্পনা স্পষ্ট করেন যে, তিনি আসলে পুরো টুইটারই চান। ১৪ এপ্রিল ইলন মাস্ক টুইটারের বাকি শেয়ারগুলোর প্রতিটি ৫৪.২০ ডলারে কিনে নেয়ার প্রস্তাব দেন, যা আগের কেনা ৯.২ শতাংশ শেয়ারের থেকে ৩৮ শতাংশ বেশি।

ইলন মাস্কের বক্তব্য ছিল, কার্যকর গণতন্ত্রের জন্য বাকস্বাধীনতা একটি সামাজিক বাধ্যবাধকতা। বর্তমান কাঠামোতে টুইটার তা দিতে পারবে না। পরে তিনি ‘সেরা ও চূড়ান্ত’ প্রস্তাব হিসেবে ৪৪ বিলিয়ন ডলারে কোম্পানিটিকে ব্যক্তিগতভাবে কিনে ফেলার প্রস্তাব দেন।

এর আগে কানাডার ভ্যাঙ্কুভারে টেডের এক সাক্ষাৎকারে দেয়া বক্তব্যে মাস্ক জানান, টুইটার থেকে আয়ের কোনো লক্ষ্য নেই তার।বিশ্বব্যাপী সর্বজনীন বাকস্বাধীনতাই তার লক্ষ্য। এমনকি টুইটারের অভ্যন্তরীণ সব কিছু একজন ব্যবহারকারী যাতে জানতে পারে, তার জন্য টুইটারের অ্যালগরিদমও উন্মুক্ত করে দিতে চান তিনি।

আরও পড়ুন:
টুইটারের মালিক হচ্ছেন ইলন মাস্ক!  
ফেসবুক-টুইটারকে দমাতে এলো ট্রাম্পের ‘ট্রুথ সোশ্যাল’
টুইটার ছাড়ছেন ডরসি, দায়িত্বে ভারতীয় বংশোদ্ভূত পরাগ

মন্তব্য

উপরে