২৯০ শতাংশ মৃত্যু কম দেখিয়েছে মধ্যপ্রদেশ

২৯০ শতাংশ মৃত্যু কম দেখিয়েছে মধ্যপ্রদেশ

ভারতের মধ্যপ্রদেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা আরও বেশি বলে দাবি করা হচ্ছে। ছবি: এএফপি

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে চলতি বছরের এপ্রিল ও মে এই দুই মাসে মধ্যপ্রদেশে মারা গেছে দুই লাখ ৩০ হাজার মানুষ। এই মৃত্যু স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে ২৯০ শতাংশ বেশি।

ভারতের মধ্যপ্রদেশে করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় যত মানুষ মারা যাওয়ার হিসাব দিয়েছে দেশটির সরকার, সেই সংখ্যা নিয়ে এবার প্রশ্ন উঠেছে। মহামারির আগের সময় ও চলতি বছরের সময়ে মৃত্যুর তুলনা করে এই দাবি করা হচ্ছে।

এ ছাড়া করোনায় মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে একটি অনুসন্ধান করেছে সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। তারাও মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভূপাল জেলায় গত এপ্রিলে যে মৃত্যুর সংখ্যা পেয়েছে সেটি সরকারের দেয়া সংখ্যার চেয়ে ঢের বেশি।

মধ্যপ্রদেশে গত কয়েক মাসে যে পরিমাণ মানুষ মারা গেছে তা করোনার আগে মারা যাওয়া মানুষের চেয়ে অন্তত তিন গুণ বেশি বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে জানান হচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, সরকারি পরিসংখ্যান থেকে করোনায় মৃত্যুর একটা অংশ মাত্র জানা যাচ্ছে। কিন্তু প্রকৃত সংখ্যা ঢের বেশি।

সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমের তথ্য অনুসারে, প্রথমবারের মতো সাংবাদিক রুক্মিনি এস মধ্যপ্রদেশে ২০১৮ ও ২০১৯ সালের মৃত্যুর সংখ্যা প্রকাশ করেছেন। সেই দুই বছরের এপ্রিল ও মে দুই মাসে মধ্যপ্রদেশে মৃত্যুর সংখ্যা ছিল গড়ে ৫৯ হাজার।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে চলতি বছরের এপ্রিল ও মে এই দুই মাসে মধ্যপ্রদেশে মারা গেছে দুই লাখ ৩০ হাজার মানুষ। এই মৃত্যু স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে ২৯০ শতাংশ বেশি।

সবচেয়ে বেশি মৃত্যু অর্থাৎ ১ লাখ ৭৪ হাজার রেকর্ড হয়েছে শুধু মে মাসে। এপ্রিলে এই মৃত্যু ছিল এক লাখ ৫৬ হাজার।

মধ্যপ্রদেশের সরকার গত এপ্রিল ও মে মাসে রাজ্যটিতে করোনায় মোট চার হাজার ১০০ মানুষের মৃত্যুর খবর দিয়েছে।

এমন হিসাব সামনে আসার পর মধ্যপ্রদেশে করোনায় মৃত্যু নিয়ে আবারও জোরালো প্রশ্ন উঠেছে।

রাজ্যটিতে করোনায় মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তোলার বিষয়টি এটাই প্রথম নয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি মধ্যপ্রদেশের ভূপাল জেলার শ্মশান ও কবরস্থানে খোঁজ করে চলতি বছরের এপ্রিলে করোনায় ৩ হাজার ৮১১ জনের মৃত্যুর তথ্য পেয়েছে।

কিন্তু সরকারি তথ্য বলছে, এপ্রিলে জেলায় মাত্র ১০৪ জন করোনায় মারা গেছেন।

বিষয়টি নিয়ে এনডিটিভি রাজ্য সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও মন্তব্য করতে রাজি হননি কোনো কর্মকর্তা।

গত বৃহস্পতিবার বিহার রাজ্য সরকার মহামারিতে প্রাণহানির সংশোধিত তালিকা প্রকাশের ফলে এক দিনে মৃত্যুর রেকর্ড হয় ভারতে। সেদিন মৃত্যুর হিসাব দেয়া হয় ৬ হাজার ১৪৮ জনের। যা এক দিনে সর্বোচ্চ।

এ ছাড়া মহারাষ্ট্রেও করোনায় মৃত্যুর সংখ্যার সংশোধিত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

ভারতে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মারা গেছে তিন লাখ ৬৭ হাজারের বেশি মানুষ।

আরও পড়ুন:
‘করোনা দেবীর’ কাছে প্রার্থনা গ্রামবাসীর
নারী পরিচালকের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা বিজেপির
শিশুদের রেমডেসিভির দেয়া যাবে না: ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়
মোদিকে দাড়ি কাটতে ১০০ টাকা পাঠালেন চা বিক্রেতা
ভারতে করোনা আক্রান্ত শিশুদের রেমডিসিভির প্রয়োগে মানা

শেয়ার করুন

মন্তব্য