তজুমদ্দিনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট বর্জন

তজুমদ্দিনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট বর্জন

চাচড়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াদ হোসেন হান্নান বলেন, ‘নির্বাচন শুরুর আগে বহিরাগতরা আমার সমর্থকদের দেড় শ ঘরে ভাঙচুর ও হামলা চালায়। এতে আমার অন্তত ১০০ কর্মী আহত হয়েছেন।’

ভোলার তজুমদ্দিনে নির্বাচন বর্জন করেছেন চাচড়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াদ হোসেন হান্নান।

ভোটকেন্দ্রে প্রভাব বিস্তার, অনিয়ম ও কর্মী-সমর্থকদের মারধরসহ নানা অভিযোগ তুলে তিনি ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

নিজ বাড়িতে দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ভোট শুরুর পরপরই তার এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেন নৌকাপ্রার্থীর কর্মীরা। যেসব কেন্দ্রে এজেন্ট ছিল, তাদের অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন শুরুর আগে বহিরাগতরা আমার সমর্থকদের দেড় শ ঘরে ভাঙচুর ও হামলা চালায়। এতে আমার অন্তত ১০ কর্মী আহত হয়েছেন। ভোটের পরিবেশ না থাকা এবং নানা অনিয়ম হওয়ায় ভোট থেকে সরে গিয়েছি। বিষয়টি প্রশাসন এবং নির্বাচন কমিশনকেও লিখিতভাবে জানিয়েছি।’

বর্জনের ঘোষণার পর তিনি পুনর্নির্বাচনের দাবিও জানান।

তার অভিযোগ পেয়েছেন, তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আমির খসরু গাজী।

আরও পড়ুন:
ভোলায় নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ১
‘দেখতে পারি না করিয়া কিতা ভোট দিতাম না’
ইউপি নির্বাচন: বাউফলে ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষে আহত ৫
২০৪ ইউপিতে শুরু ভোটের লড়াই
প্রচারে সহিংসতা, সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা

শেয়ার করুন

মন্তব্য