টানা আন্দোলন চান গয়েশ্বর

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপি নেতা কর্মীদের বিক্ষোভ। বক্তব্য দিচ্ছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। ছবি: নিউজবাংলা

টানা আন্দোলন চান গয়েশ্বর

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘এক দুইটা আন্দোলন করে শেষ করে দিলে হবে না, একটি সমাবেশের মাধ্যমে আন্দোলন শেষ করলে হবে না। জনগণ প্রস্তুত আছে। এই মুহূর্ত থেকে আমাদেরও প্রস্তুতি নেয়া উচিত বলে আমি মনে করি।’

বর্তমান সরকারকে চলতি বছরের মধ্যেই বিদায় করতে বৃহত্তর আন্দোলনের জন্য নেতা কর্মীদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন বিএনপির নেতারা। টানা আন্দোলনে নামার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার প্রতিবাদে বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে এসব কথা বলেন বিএনপির নেতারা।

গণতন্ত্র উদ্ধার ও শেখ হাসিনা সরকারকে বিদায় করতে টানা আন্দোলনের আহ্বান জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘এক দুইটা আন্দোলন করে শেষ করে দিলে হবে না, একটি সমাবেশের মাধ্যমে আন্দোলন শেষ করলে হবে না।

‘জনগণ প্রস্তুত আছে। এই মুহুর্ত থেকে আমাদেরও প্রস্তুতি নেয়া উচিত বলে আমি মনে করি৷ আমাদের এক দফা এক দাবি, হাসিনা তুই কবে যাবি।’

গণতন্ত্র উদ্ধার করতে পারলে নেতা কর্মীদের ওপর হামলা মামলা কিছুই থাকবে না বলে মনে করেন গয়েশ্বর। তা করতে হলে শেখ হাসিনাকে বিদায় করা ছাড়া কোনো পথ নেই বলে মত তার।

গয়েশ্বর বলেন, ‘আমাদের গণতন্ত্র উদ্ধার করতে হবে। আমরা যদি গণতন্ত্র উদ্ধার করতে চাই, যার হাতে গণতন্ত্র গুম হয়েছে তাকে বিতাড়িত করতে হবে।

‘আদালত, বিচার বিভাগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বলেন, সব একজনের হাতের মুঠোয়৷ আগের মত দেশটাকে তলাবিহীন ঝুড়ি বানানো হচ্ছে।’

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে পারলেই গণতন্ত্রের মুক্তির পথ প্রশস্ত হবে বলে মনে করেন বিএনপির এ জ্যেষ্ঠ নেতা। তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার দরজা ভেঙে বের করে তাকে জনগণের কাতারে দাঁড় করাতে হবে। খালেদা জিয়া জনগণের কাতারে দাঁড়ালেই সেদিন গণতন্ত্র মুক্তি পাবে। তারেক রহমানও নিজের দেশে আসতে পারবে।’

শেখ হাসিনাকে বিছানাপত্র গোছাতে বলেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু।

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা কিন্তু আর ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। দিন তারিখ দিব না। কিন্তু এই বছরের মধ্যে আপনি বিছানাপত্র গুছাইতে পারেন।’

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে জোরাল আন্দোলন গড়ে তুলতে আহ্বান জানালেন এই নেতা।

‘আপনাদেরকে পার্টি যখন ডাকবে। যে যেখানেই থাকেন না কেন, যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে রাস্তায় নেমে আসবেন৷ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে ছাড়ব।’

সমাবেশে বিএনপির অন্যান্য নেতাদের মধ্যে ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হাসান, ডাকসুর সাবেক ভিপি আমানুল্লাহ আমানসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে কর্মসূচি পেছাল বিএনপি
টিকা নিয়ে বিকল্প উৎস খুঁজতে বলল বিএনপি
সারা দেশে কালো পতাকা উত্তোলন বিএনপির
‘৩০ লাখে বিক্রি’: সেই প্রার্থীকে ধানের শীষ দেয়ার নির্দেশ

শেয়ার করুন

মন্তব্য