20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
তারেকের জন্মদিন: ফখরুলের কথা শুনল না কেউ

তারেক রহমানের জন্মদিনে কেক না কাটার সিদ্ধান্ত হলেও কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হয়েছে জমকালো আয়োজন। ছবি: নিউজবাংলা

তারেকের জন্মদিন: ফখরুলের কথা শুনল না কেউ

করোনাকালে কেক না কাটার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন বিএনপি মহাসচিব। তবে গায়েশ্বর চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে নেতারা ৫৬ পাউন্ডের কেক কেটেছেন। বলেছেন, আবেগের কাছে নির্দেশ নিষেধ মানে না।

মহামারিকালে তারেক রহমানের জন্মদিনে কেক না কাটার সিদ্ধান্ত ছিল বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের। তবে ‘আবেগের কাছে হেরে’ শেষমেশ কেক কেটে জন্মদিন পালন করল মূল দল ও সংগঠন।

লন্ডনে অবস্থানকারী দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ৫৬ বছরে পড়লেন শুক্রবার। নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে মিলাদ শেষে কাটা হয় ৫৬ পাউন্ড ওজনের কেক।

কেক কাটের বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। ছিলেন দলের অন্য নেতারাও।

অথচ আগের দিন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, করোনা মহামারি চলাকালে কেক কাটার আয়োজন থাকবে না বিএনপির।

দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করার বিষয়ে গয়েশ্বর বলেন, ‘আমাদের নিষেধ আছে- যার জন্মদিন পালন করছি স্বয়ং তার পক্ষ থেকেও আহবান আছে যে, কেক কাটা নয়। দোয়া এবং পারলে গরিবদের মাঝে কিছু সাহায্য সামগ্রী দেয়া। কিন্তু আবেগ তো এই নিষেধ মানে না।
তারেকের জন্মদিন: ফখরুলের কথা শুনল না কেউ

‘আজকে কম হলেও ১০ হাজার কেক কাটা হবে। কারণ আবেগের জায়গায় কিন্তু বাস্তবতা পরাজিত হয়।’

২০০৭ সালে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে গ্রেফতার তারেক রহমান চিকিৎসার জন্য প্যারোলে মুক্তি পেয়ে পরের বছর যুক্তরাজ্যে যান। জামিনের মেয়াদ শেষ হলেও আর ফেরেননি। দুর্নীতির দুই মামলা আর একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সাজা হয়েছে তার।

২০১৮ সালে বেগম খালেদা জিয়ার সাজা হলে প্রবাসী নেতাকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন করে বিএনপি। খালেদা জিয়া বিশেষ বিবেচনায় কারামুক্তি হলেও তারেক দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসনের দায়িত্বই পালন করছেন।

বিএনপিতে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে ঘিরে দুটি বলয় তৈরির তথ্যও পাওয়া যাচ্ছে। খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের মধ্যে মতের ভিন্নতা নিয়ে গণমাধ্যমে খবরও আসছে।
তারেকের জন্মদিন: ফখরুলের কথা শুনল না কেউ

তারেক রহমানের জন্মদিনে সরকার পতনের আশার কথাও বলেন গয়েশ্বর। তিনি বলেন, ‘তারা (বিএনপি) শুধু একটা সুযোগ, একটা পরিবেশের অপেক্ষায় আছে। একটি গণজাগরণের মধ্যে এই সরকারকে বিদায় দিয়ে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গঠনে একাত্তরের যে স্বপ্ন, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে আমরা বদ্ধপরিকর।’

বিএনপি নেতা বলেন, ‘খালেদা জিয়া আজকে জেলবন্দি থেকে তিনি আজকে গৃহবন্দি। আর জাতীয়তাবাদের একমাত্র ঠিকানা তারেক রহমান।’
তারেকের জন্মদিন: ফখরুলের কথা শুনল না কেউ

বিএনপির দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, শামসুজ্জামান দুদু, হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সারোয়ার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেলসহ কয়েকশ নেতা-কর্মী এতে অংশ নেয়।

কেক কেটেছে ছাত্রদলও

এর আগে কেক কাটে ছাত্রদল। শুক্রবার রাত ১২ টা ১ মিনিটে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে ছাত্র সংগঠনের উদ্যোগে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনুকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিনসহ কেন্দ্রীয় ও বিভিন্ন ইউনিটের ছাত্রদলের কয়েক শতাধিক নেতাকর্মী এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য