× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
14 killed as passenger minibus falls into ditch in Uttarakhand
google_news print-icon

উত্তরাখণ্ডে যাত্রীবাহী মিনিবাস খাদে পড়ে নিহত ১৪

উত্তরাখণ্ডে-যাত্রীবাহী-মিনিবাস-খাদে-পড়ে-নিহত-১৪
উত্তরাখণ্ডের রুদ্রপ্রয়াগে শনিবার সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ছবি: এনডিটিভি
শনিবার উত্তরাখণ্ডের রুদ্রপ্রয়াগ রাইতোলির কাছে ঋষিকেশ-বদরিনাথ মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে এনডিটিভির খবরে জানানো হয়েছে।

ভারতের উত্তরাঞ্চলের পার্বত্য রাজ্য উত্তরাখণ্ডে গভীর খাদে টেম্পো ট্রাভেলারের একটি যাত্রীবাহী মিনিবাস পড়ে অন্তত ১৪ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও বেশ কয়েজন আহত হয়েছেন।

শনিবার উত্তরাখণ্ডের রুদ্রপ্রয়াগ রাইতোলির কাছে ঋষিকেশ-বদরিনাথ মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে এনডিটিভির খবরে জানানো হয়েছে।

রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর কমান্ডান্ট মণিকান্ত মিশ্র জানান, শনিবার সকালে হৃষীকেশ-বদ্রীনাথ জাতীয় সড়ক দিয়ে যাচ্ছিল গাড়িটি। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ রুদ্রপ্রয়াগ শহরের অদূরে পাহাড়ি রাস্তায় বাঁক ঘুরতে গিয়ে ঘটে বিপত্তি। ধারণা করা হচ্ছে, চালক বাসটির নিয়ন্ত্রণ হারালে অলকানন্দা নদীতে পড়ে যায় গাড়িটি।

পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এসময় সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বেশ কয়েকজন আহত হন।

এই ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুষ্করসিংহ ধামি। তিনি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Nepal Prime Minister Pushpa Dahal deposed

নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প দাহাল ক্ষমতাচ্যুত

নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প দাহাল ক্ষমতাচ্যুত পুষ্প কমল দাহাল। ছবি: সংগৃহীত
শুক্রবার পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে জোট সরকার থেকে দেশটির সবচেয়ে বড় দল ইউএমএল নিজেদের সরিয়ে নিলে ক্ষমতা হারাতে হয় প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহালকে। নতুন প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন কমিউনিস্ট পার্টির নেতা খড়গ প্রসাদ অলি।

পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে হেরে ক্ষমতাচ্যুত হলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহাল। শুক্রবার পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে জোট সরকার থেকে দেশটির সবচেয়ে বড় দল নিজেদের গুটিয়ে নিলে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। সূত্র: এপি

প্রধানমন্ত্রী পুষ্প দাহালের জোট সরকারের ওপর থেকে ৩ জুলাই সমর্থন প্রত্যাহার করে নেয় জোটের সবচেয়ে বড় দল ইউএমএল। ফলে সংবিধান অনুযায়ী বাধ্য হয়ে পুষ্পকে সংসদে আস্থা ভোটের আয়োজন করতে হয়।

নেপালের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে ২৭৫টি আসন রয়েছে। কোনো প্রধানমন্ত্রীকে আস্থা ভোটে জিততে কমপক্ষে ১৩৮টি ভোট প্রয়োজন। কিন্তু শুক্রবারের ওই আস্থা ভোটে পুষ্প পেয়েছেন মাত্র ৬৩টি ভোট। ২৫৮ জন আইনপ্রেণেতার মধ্যে তার বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১৯৪ জন।

পুষ্প দাহালের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে ইউএমএল হাত মেলায় দেশটির অন্যতম রাজনৈতিক দল নেপালি কংগ্রেসের সঙ্গে। এই জোট এখন দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কমিউনিস্ট পার্টির নেতা খড়গ প্রসাদ অলিকে নির্বাচিত করবে।

গত বছরের ডিসেম্বরে নেপালে নির্বাচন হয়। এতে পুষ্প কমল দাহালের দল সংসদে তৃতীয় সর্বোচ্চ আসন পেলেও তিনি প্রধানমন্ত্রী হন। তবে ওই সময় থেকেই তার জোটটি নড়বড়ে ছিল। শেষ পর্যন্ত এ বছরের জুলাইয়ে এসে তাকে ক্ষমতা হারাতে হলো। সবমিলিয়ে তিনি মাত্র ১৯ মাস প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

আরও পড়ুন:
নেপালের নতুন প্রেসিডেন্ট রাম চন্দ্র পাওদেল
নাগরিকত্ব নিয়ে ঝামেলায় মন্ত্রিত্ব হারালেন নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
62 passengers of two buses are missing in a landslide in Nepal

নেপালে ভূমিধসে দুই বাসের ৬২ যাত্রী নিখোঁজ

নেপালে ভূমিধসে দুই বাসের ৬২ যাত্রী নিখোঁজ নারায়ণঘাট-মুগলিং সড়ক সেকশনের সিমালতাল এলাকায় দুর্ঘটনার শিকার হয় বাস দুটি। ছবি: দ্য কাঠমান্ডু পোস্ট
পুলিশ জানায়, কাঠমান্ডুগামী বাসটিতে ২৪ জন যাত্রী ছিলেন। অপর বাসটিতে যাত্রী ছিলেন ৪১ জন।

নেপালে ভূমিধসে দুটি বাসের ৬২ জন যাত্রী নিখোঁজ হয়েছে বলে জানিয়েছে দ্য কাঠমান্ডু পোস্ট।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, নারায়ণঘাট-মুগলিং সড়ক সেকশনের সিমালতাল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

চিতওয়ানের মুখ্য জেলা কর্মকর্তা (সিডিও) ইন্দ্রদেব যাদব বলেন, নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুগামী অ্যাঞ্জেল ডিলাক্স পরিবহন এবং কাঠমান্ডু থেকে গৌড় অভিমুখী জ্ঞানপতি ডিলাক্স পরিবহনের দুটি বাস বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে দুর্ঘটনার শিকার হয়।

পুলিশ জানায়, কাঠমান্ডুগামী বাসটিতে ২৪ জন যাত্রী ছিলেন। অপর বাসটিতে যাত্রী ছিলেন ৪১ জন।

দুর্ঘটনার পর জ্ঞানপতি ডিলাক্স নামের বাসের তিন যাত্রী লাফ দিয়ে প্রাণে বাঁচেন।

দুর্ঘটনায় নিখোঁজ ব্যক্তিদের উদ্ধারে ঘটনাস্থলে গেছেন নেপাল পুলিশ ও আর্মড পুলিশ ফোর্স সদস্যরা।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহাল দুর্ঘটনায় শোক প্রকাশ করে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোকে তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে ভূমিধসের ফলে নারায়ণঘাট-মুগলিং সড়ক সেকশনে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

ভারতপুর সড়ক বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, সড়কপথে যান চলাচল স্বাভাবিক হতে চার ঘণ্টা সময় লাগবে। যান চলাচল স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন:
ঈশ্বরগঞ্জে ইজিবাইকে ট্রাকের ধাক্কা, নিহত ৩
রথযাত্রায় পাঁচজনের মৃত্যু তদন্তে কমিটি
নরসিংদীতে ট্রেনে কাটা পড়ে পাঁচজন নিহত
ডাক্তার দেখিয়ে বাড়ি ফেরা হলো না ভাই-বোনের 
দিনাজপুরে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Death toll rises to 121 in Uttar Pradesh stampede

উত্তর প্রদেশে পদদলিত হয়ে নিহত বেড়ে ১২১

উত্তর প্রদেশে পদদলিত হয়ে নিহত বেড়ে ১২১ ভারতের উত্তর প্রদেশের হাথরাসে মঙ্গলবার ধর্মীয় অনুষ্ঠান শেষে বের হওয়ার পথে প্রাণহানি হয় শতাধিক মানুষের। ছবি: বাসস
পদদলিত হয়ে নিহত লোকজনের বড় অংশ নারী। কিছু শিশুরও প্রাণহানি হয়। এখনও শনাক্ত করা হচ্ছে নিহত লোকজনের পরিচয়।

ভারতের উত্তর প্রদেশের হাথরাস জেলায় মঙ্গলবার ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পদদলিত হয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে কমপক্ষে ১২১ জনে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

ঘটনার পরের দিন বুধবার বিষয়টি জানিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রাণহানির ঘটনাটি ঘটে হিন্দুদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান সাতসঙ্গে।

পদদলিত হয়ে নিহত লোকজনের বড় অংশ নারী। কিছু শিশুরও প্রাণহানি হয়। এখনও শনাক্ত করা হচ্ছে নিহত লোকজনের পরিচয়।

হাথরাসের ফুলরাই গ্রামের ওই ঘটনাটির বর্ণনা দিয়েছেন বেঁচে আসা লোকজন।

দুর্ঘটনাটি কীভাবে ঘটল, তা এখনও পরিষ্কার নয়, তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, অনুষ্ঠানস্থল থেকে বের হওয়ার পথটি ছিল অতি সংকীর্ণ। বের হওয়ার সময় প্রবল ধূলিঝড়ে সংশয়গ্রস্ত ও আতঙ্কিত হয়ে পড়েন অনেকে, যার ফলে তারা পদদলিত হন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রত্যক্ষদর্শী বিবিসিকে জানান, সবকিছু ঠিকঠাক চলছিল। হঠাৎ তিনি আর্তনাদের শব্দ শোনেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই একজনের ওপর আরেকজন পড়ে যাচ্ছিল।

তিনি আরও জানান, অনেকে চাপা পড়েন। তিনি সৌভাগ্যবানদের একজন, যার প্রাণ রক্ষা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
ঘুরে দাঁড়িয়ে প্রোটিয়াদের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দিল ভারত
শিরোপার লড়াইয়ে ব্যাটিংয়ে ভারত
চীন সীমান্তে নদীতে পাঁচ ভারতীয় সেনার মৃত্যু
গঙ্গা চুক্তি নিয়ে মমতার দাবি ঠিক নয়: ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়
দিল্লি বিমানবন্দরের টার্মিনালের ছাদ ধসে একজন নিহত, আহত ৬

মন্তব্য

বাংলাদেশ
107 people including women and children were killed in a religious ceremony in India

ভারতে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পদদলিত হয়ে নারী-শিশুসহ নিহত ১০৭

ভারতে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পদদলিত হয়ে নারী-শিশুসহ নিহত ১০৭ ভারতের উত্তর প্রদেশে হাতরাস জেলার সিকান্দ্রারাউ এলাকায় মঙ্গলবার সৎসঙ্গে জমায়েত হয় বিপুলসংখ্যক মানুষ। ছবি: এনডিটিভি
হিন্দুস্তান টাইমস মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে জানায়, একজন ধর্মীয় প্রচারক হাতরাস জেলার সিকান্দ্রারাউ এলাকার রতিভানপুর গ্রামে তাঁবু টানিয়ে আয়োজিত ‘সৎসঙ্গে’ অনুসারীদের উদ্দেশে বক্তব্য দেয়ার সময় ‌এই পদদলনের ঘটনা ঘটে।

ভারতের উত্তর প্রদেশে একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পদদলিত হয়ে নারী-শিশুসহ কমপক্ষে ১০৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

হিন্দুস্তান টাইমস মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে জানায়, একজন ধর্মীয় প্রচারক হাতরাস জেলার সিকান্দ্রারাউ এলাকার রতিভানপুর গ্রামে তাঁবু টানিয়ে আয়োজিত ‘সৎসঙ্গে’ অনুসারীদের উদ্দেশে বক্তব্য দেয়ার সময় ‌এই পদদলনের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ধারণা করছে, আয়োজনটি যে সময়ে চলছিল তখন প্রচণ্ড গরম ছিল। অনুষ্ঠানস্থলে অনেক মানুষ থাকায় একপর্যায়ে শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। এরপর অনেক মানুষ একসঙ্গে সেখান থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করলে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়।

ইন্সপেক্টর জেনারেল (আলীগড় রেঞ্জ) শলভ মাথুর বলেন, ‘এটি ছিল ধর্ম প্রচারক ভোলে বাবার সৎসঙ্গ সভা।’

অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া কয়েকজন জানিয়েছেন, সৎসঙ্গ শেষ হওয়ার পর সবাই একসঙ্গে বের হওয়ার জন্য তাড়াহুড়ো করায় এই দুর্ঘটনা ঘটনা ঘটেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, পদদলনের ঘটনা ঘটে হাথরসের একটি প্রার্থনা সভায়। স্থানীয় কমিউনিটি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ধারণ করা ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বাস এবং ট্যাম্পুতে করে অনেকের নিথর দেহ নিয়ে আসা হয়েছে। ওই সময় তাদের আত্মীয়-স্বজনরা কান্নাকাটি করছিলেন।

উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে এ ঘটনা সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে এবং কীভাবে ভয়াবহ এই পদদলনের ঘটনা ঘটল তার কারণ খুঁজে বের করতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ওই অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া এক নারী জানান, প্রার্থনা সভাটি আয়োজন করা হয়েছিল স্থানীয় এক ধর্মীয় গুরুর সম্মানে। অনুষ্ঠান শেষে যখন মানুষ বের হয়ে যাচ্ছিলেন তখন পদদলনের ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Crocodiles on roads in Maharashtra after heavy rains

ভারি বৃষ্টির পর মহারাষ্ট্রের সড়কে কুমির

ভারি বৃষ্টির পর মহারাষ্ট্রের সড়কে কুমির এক যাত্রী গাড়িতে বসে সড়কে থাকা কুমিরের ভিডিওটি ধারণ করেন। ছবি: এনডিটিভি
কুমিরটিকে দেখা যায় চিপলুন এলাকার সড়কে। ধারণা করা হচ্ছে পার্শ্ববর্তী শিবা নদী থেকে সড়কে উঠে আসে সরীসৃপটি। অনেক কুমিরের বাস নদীটিতে।

ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের উপকূলীয় জেলা রত্নাগিরি। কুমিরের জন্য এ জেলার রয়েছে বিশেষ পরিচিতি। অঞ্চলটিতে ভারি বর্ষণের পর সড়কে হঠাৎ দেখা মিলেছে বিশালাকার কুমিরের, যা দেখে চমকে গেছেন স্থানীয়রা।

এনডিটিভি সোমবার জানায়, এক যাত্রী গাড়িতে বসে সড়কে থাকা কুমিরের ভিডিওটি ধারণ করেন।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, কুমিরটিকে দেখা যায় চিপলুন এলাকার সড়কে। ধারণা করা হচ্ছে পার্শ্ববর্তী শিবা নদী থেকে সড়কে উঠে আসে সরীসৃপটি। অনেক কুমিরের বাস নদীটিতে।

গত কয়েক দিন ধরে রত্নাগিরির চিপলুনসহ বিভিন্ন স্থানে বিরামহীন বৃষ্টি হচ্ছে। এতে করে জেলার নদীগুলোর পানি বেড়েছে।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার পর্যন্ত বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে রত্নাগিরি জেলায়।

আরও পড়ুন:
দিল্লি বিমানবন্দরের টার্মিনালের ছাদ ধসে একজন নিহত, আহত ৬
ইংল্যান্ডকে সহজে হারিয়ে ফাইনালে ভারত
টস হেরে ব্যাটিংয়ে ভারত
বৃষ্টির কারণে টসে দেরি, ম্যাচ পণ্ড হলেই ফাইনালে ভারত
রোহিতের তাণ্ডবে রান পাহাড়ে ভারত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Mamatas claim on Ganga Treaty is not correct Indias Ministry of External Affairs

গঙ্গা চুক্তি নিয়ে মমতার দাবি ঠিক নয়: ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

গঙ্গা চুক্তি নিয়ে মমতার দাবি ঠিক নয়: ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঙ্গা চুক্তি পুনর্নবায়নের বিষয়ে কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকারের সঙ্গে পরামর্শ করেনি বলে সম্প্রতি জানান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা মন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী সম্প্রতি বলেন, গঙ্গা চুক্তি পুনঃনবায়নের বিষয়ে কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকারের সঙ্গে পরামর্শ করেনি। শুক্রবার সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, মমতার এই দাবির সঙ্গে বাস্তবতা মিলছে না।

বাংলাদেশের সঙ্গে গঙ্গার পানিবণ্টন চুক্তি পুনঃনবায়নের বিষয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্যের সত্যতা নেই। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রণধীর জয়সওয়াল একথা বলেছেন।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী সম্প্রতি বলেন, গঙ্গা চুক্তি পুনর্নবায়নের বিষয়ে কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকারের সঙ্গে পরামর্শ করেনি।

শুক্রবার সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, মমতার এই দাবির সঙ্গে বাস্তবতা মিলছে না।

জয়সওয়াল বলেন, ‘আমাদের কাছে যে তথ্য আছে তা তার (মমতার) বক্তব্যকে সমর্থন করে না। সব অংশীদারের সমন্বয়ে গঠিত (বাংলাদেশের সঙ্গে গঙ্গার পানিবণ্টন চুক্তি সংক্রান্ত) অভ্যন্তরীণ কমিটির সব বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রতিনিধি অংশ নিয়েছেন।

‘এমনকি চলতি বছরের ৬ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার এটাও জানিয়েছে যে ২০২৬ সালে চুক্তি শেষ হয়ে গেলেও তাদের সুপেয় পানি ও শিল্পের জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ২৪ জুন লেখা মমতার চিঠি নিয়ে প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এসব মন্তব্য করেন।

জয়সওয়াল বলেন, ‘গঙ্গার পানিবণ্টন চুক্তি নবায়নের বিষয়ে ভারতের অভ্যন্তরীণ কমিটি তাদের চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।’

অবশ্য প্রতিবেদনের বিষয়বস্তু সম্পর্কে তিনি কিছু জানাননি।

১৯৯৬ সালে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ৩০ বছর মেয়াদি গঙ্গার পানিবণ্টন চুক্তি সই হয়। চুক্তিটি ২০২৬ সালে শেষ হওয়ার কথা। তবে পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে।

সম্প্রতি নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী দ্বিপাক্ষিক আলোচনা শেষে জানান, চুক্তিটি পুনঃনবায়নের জন্য দুই দেশ টেকনিক্যাল পর্যায়ে আলোচনা শুরু করবে।

এরপর মোদিকে লেখা চিঠিতে মমতা দাবি করেন, বাংলাদেশের সঙ্গে গঙ্গার পানিবণ্টন চুক্তি পুনঃনবায়নের আলোচনা শুরুর সিদ্ধান্ত একতরফা। তিনি পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে না নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে এ বিষয়ে কোনো আলোচনা না করার অনুরোধ জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে দুদেশের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে ভারতের রেল পরিচালনার বিষয়ে আলোচনার পর সমঝোতা স্মারক সই হয়। রেল পরিচালনায় কোনো চার্জ ধরা হয়েছে কিনা কিংবা নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে জয়সওয়াল বলেন, ‘এগুলো টেকনিক্যাল বিষয়। বিশেষজ্ঞরা এসব নিয়ে আলোচনার পর তা জানানো হবে।’

আরও পড়ুন:
মমতার বৈঠকে এমপি আনার হত্যা প্রসঙ্গ
রাজ্য সরকারের মত ছাড়া গঙ্গা-তিস্তার পানি বণ্টনের আলোচনা কাম্য নয়: মমতা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
MP Annas murder is discussed in Mamatas meeting

মমতার বৈঠকে এমপি আনার হত্যা প্রসঙ্গ

মমতার বৈঠকে এমপি আনার হত্যা প্রসঙ্গ পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: সংগৃহীত
মমতার দাবি, বাইরের লোক অর্থ দিয়ে কলকাতাসহ রাজ্যের যত্রতত্র বসে যাওয়ার কারণে একদিকে যেমন গাড়ি চলাচল করতে পারছে না, দুর্ঘটনা ঘটছে, শহরের গতি কমছে, সেইসঙ্গে রাজ্যের ভাবমূর্তিও নষ্ট হচ্ছে। ফলে কে জেনুইন লোক, সেটা ধরা যাচ্ছে না। এর ফলে রাজ্যের নিরাপত্তা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা থাকছে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি বৈঠকে এবার উঠে এসেছে বাংলাদেশের ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এমপি আনায়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি।

হকার সমস্যা নিরসনে বৃহস্পতিবার রাজ্যের সচিবালয় নবান্ন ভবনে মমতার ডাকা একটি বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গের সেফটি ও সিকিউরিটি প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি আনারের প্রসঙ্গটি তোলেন।

মমতার দাবি, বাইরের লোক অর্থ দিয়ে কলকাতাসহ রাজ্যের যত্রতত্র বসে যাওয়ার কারণে একদিকে যেমন গাড়ি চলাচল করতে পারছে না, দুর্ঘটনা ঘটছে, শহরের গতি কমছে, সেইসঙ্গে রাজ্যের ভাবমূর্তিও নষ্ট হচ্ছে। ফলে কে জেনুইন লোক, সেটা ধরা যাচ্ছে না। এর ফলে রাজ্যের নিরাপত্তা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা থাকছে।

এ সময় তিনি বলেন, ‘এই তো দেখলেন কিছুদিন আগে বাংলাদেশের একজন এমপি, কীভাবে তাকে নিয়ে এসে প্ল্যান করে খুন করল।’

এদিন রাজ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাকে রাজ্যের প্রশাসনিকপ্রধান হিসেবে তার একমাত্র লক্ষ্য বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বৈঠক উপস্থিত ছিলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমসহ রাজ্যের একাধিক মন্ত্রী, কলকাতা পুলিশ কমিশনার, প্রতিটি জেলার জেলাশাসক, পুলিশ সুপার, নিউমার্কেটসহ কলকাতার বিভিন্ন হকার্স অ্যাসোসিয়েশন এবং বাজার কমিটির কর্মকর্তারা।

গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে ভারতে যান এমপি আনার। সেখানে তিনি ওঠেন বরাহনগর থানার মণ্ডলপাড়া লেনে গোপাল বিশ্বাস নামে এক বন্ধুর বাড়িতে। পরদিন ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন তিনি।

২২ মে হঠাৎ খবর ছড়ায়, কলকাতার পার্শ্ববর্তী নিউটাউন এলাকায় সঞ্জীবা গার্ডেনস নামের একটি আবাসিক ভবনের বিইউ ৫৬ নম্বর রুমে আনোয়ারুল আজীম খুন হয়েছেন।

মন্তব্য

p
উপরে