× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
5 families want to return to their homes
google_news print-icon

বসতভিটায় ফিরতে চায় হামলা-মামলায় বাস্তুহারা ৫ পরিবার

বসতভিটায়-ফিরতে-চায়-হামলা-মামলায়-বাস্তুহারা-৫-পরিবার
নিজ বসতভিটায় ফেরার দাবিতে শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে পাঁচ পরিবার। ছবি: নিউজবাংলা
জমি-সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ২০২২ সালের ৩০ আগস্ট হারুন শেখ পক্ষের সঙ্গে ফুপাতো ভাইদের মারামারি হয়। মারামারিতে আহত মোহাম্মদ শেখের মৃত্যু হলে হারুন শেখ পক্ষের পাঁচ পরিবারের বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দেন প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনার পর পাল্টা হামলার ভয়ে পরিবারগুলো পালিয়ে বেড়াচ্ছে বলে দাবি হারুন শেখের।

প্রায় দুই বছর ধরে নিজ বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ হয়ে যাযাবরের জীবনযাপন করছেন ফরিদপুর সদর উপজেলার মাচ্চর ইউনিয়নের দয়ারামপুর গ্রামের ৫টি পরিবারের শিশুসহ ২৫ জন সদস্য। তাদের অভিযোগ, মিথ্যা মামলা দিয়ে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে লুটপাট করা হয় তাদের ঘরবাড়ি; ঘরের টিন, বেড়া, জানালা, দরজা, আসবাবপত্রসহ প্রায় ২ কোটি টাকার সম্পত্তি লুটপাট করেছে তাদেরই আত্মীয়রা।

নিজ বসতভিটায় বসবাসের অধিকার ফিরে পেতে শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করেন ওই পরিবারগুলোর সদস্যরা। ভুক্তভোগী দাবি করা পাঁচ পরিবারের কর্তা হলেন- মো. হারুন শেখ, শহিদ শেখ, লিয়াকত শেখ, জাহিদ শেখ এবং সাছু মৃধা। সাছু মৃধা সম্পর্কে চার শেখের ভাগ্নে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হারুন শেখের মেয়ে নাছরিন আক্তার।

তিনি বলেন- ‘দয়ারামপুর গ্রামের আক্কাছ শেখ, সাখাওয়াত শেখ, ওহাব শেখ, সালাম শেখ, মঞ্জু শেখ, নুরুল ইসলাম টুলু, আনোয়ার খান, আবুল কালাম, কাউছার মোল্যা এবং অজ্ঞাতনামা আরও ১০/১৫ জন আমার পিতা হারুন শেখ ও আমিসহ আরও ৪টি পরিবারের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলা করে। এরপর দলবল নিয়ে হামলা চালিয়ে আমাদের প্রাণনাশের চেষ্টা করে।

‘জীবন বাঁচাতে আমরা পাঁচ পরিবারের ২৫ সদস্য বাড়ি থেকে পালিয়ে আত্মীয়দের বাড়িতে আশ্রয় নেই। এই সুযোগে রাতের আঁধারে প্রতিপক্ষরা আমাদের বসতভিটায় থাকা বাড়িঘর ভাঙচুর করে সব মালামাল, এমনকি ঘরের টিনও লুট করে নিয়ে যায়।’

এ সময় প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে তিনি প্রায় দুই কোটি টাকার মালামাল লুট ও কয়েকটি ঘরে আগুন লাগানোর অভিযোগ করেন।

বসতভিটায় ফিরতে চায় হামলা-মামলায় বাস্তুহারা ৫ পরিবার

নাছরিন আক্তার বলেন, ‘বিবাদীদের ভয়ে আমরা নিজ ভিটায় প্রায় দুই বছর ধরে বসবাস করিতে পারছি না। ৫টি পরিবারের লোকগুলো ফেরারি অবস্থায় অনাহারে-অর্ধাহারে দিনাতিপাত করছি। নিজেদের জমি চাষাবাদ করতে পারছি না। কিছু জমি তারা জোরপূর্বক দখলও করে রেখেছে।’

‘আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। নিজ নিজ বসতভিটায় নতুন করে ঘর তুলে আমরা যাতে শান্তিতে বসবাস করতে পারি এবং নিজেদের জমিতে চাষাবাদ করে ফসলাদি ভোগ করতে পারি সেজন্য প্রশাসনের কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি।’

সংবাদ সম্মেলনে জাহিদ শেখের স্ত্রী আকলিমা বেগম বলেন, ‘তিল তিল করে গড়ে তোলা আমার ঘরের একটা টিনও তারা রাখে নাই, সব লুটে নিয়ে গেছে। টিভি, ফ্রিজ, পেঁয়াজ, টিন, দরজা-জানালা সব নিয়ে গেছে। গাছগুলো কেটে রেখে গেছে। আমি এর সঠিক বিচার চাই। আমরা আমাদের ক্ষতিপূরণ চাই।’

সংবাদ সম্মেলনে মামলা ও হামলার অভিযোগের বিষয়ে হারুন শেখ জানান, পারিবারিক জমি-সংক্রান্ত বিষয়ে ফুপাতো ভাইদের সঙ্গে তাদের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে দফায় দফায় সালিশ মামলাও হয়েছে।

সবশেষ ২০২২ সালের ৩০ আগস্ট হারুন শেখের ফুপাতো ভাই মোহাম্মদ শেখ, ভাতিজা আক্কাস শেখ ও সাখাওয়াত শেখদের সঙ্গে তাদের মারমারি হয়। মারামারি চলাকালে লাঠির আঘাতে মোহাম্মদ শেখ আহত হলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিন দিন পর তিনি মারা যান। তবে মোহাম্মদ শেখ পক্ষের ভাড়াটে গুন্ডার লাঠির আঘাতেই তার মৃত্যু হয় বলে জানান তিনি।

বসতভিটায় ফিরতে চায় হামলা-মামলায় বাস্তুহারা ৫ পরিবার

এ মামলায় আত্মসমর্পণ করে স্থায়ী জামিনে আছেন জানিয়ে হারুন শেখ বলেন, ‘মারামারির সময় আমি বা আমার পরিবারের কেউ ঘটনাস্থলে ছিল না। তবুও আমাদের মামলার আসামি করা হয়েছে। সে সময় আক্কাস, সাখাওয়াত ও ওহাব শেখরা আমাদের বাড়িতে হামলা চালায়, আমাদের মারধর করে। জীবন বাঁচাতে আমরা বাড়ি থেকে পালিয়ে গেলে প্রতিপক্ষরা ৫ পরিবারের বসতবাড়িতে লুটপাট চালায়।’

তিনি বলেন, ‘আমি নির্দোষ, তাই আত্মসমর্পণ করেছি। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল; আইন আমাকে যে শাস্তি দেবে তা মাথা পেতে নেব। কিন্তু আমরা আমাদের নিজ নিজ বসতভিটায় শান্তিতে বসবাসের অধিকার চাই। নিজেদের জমিতে চাষাবাদের সুযোগ চাই।’

এ সময় ওই ৫ পরিবারের সব সদস্য ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
বনের জমি উদ্ধারে গিয়ে হামলায় কর্মকর্তা হাসপাতালে

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Law and order forces are entering the field in 157 upazilas on Sunday
দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচন

১৫৭ উপজেলায় রোববার মাঠে নামছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী

১৫৭ উপজেলায় রোববার মাঠে নামছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ফাইল ছবি।
ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২১ মে। রোববার মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে এই ধাপের প্রচারণা। একই সময় থেকে নির্বাচনি এলাকায় সীমিত করা হবে যানবাহন চলাচল।

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২১ মে। রোববার মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে এই ধাপের প্রচারণা। আর সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানে ১৫৭ উপজেলায় একই দিন মাঠে নামছে বিজিবি, র‌্যাবসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ভোটের আগে-পরে মোট পাঁচদিনের জন্য তারা দায়িত্ব পালন করবেন।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান শনিবার জানিয়েছেন, বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যরা পাঁচদিনের জন্য মাঠে নিয়োজিত থাকবেন। এ নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে পরিপত্র জারি করেছে।

পরিপত্র অনুযায়ী, সমতলে সাধারণ ভোটকেন্দ্রের প্রতিটিতে পুলিশ, আনসার ও গ্রামপুলিশের ১৭ জন করে এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৯ জনের ফোর্স মোতায়েন থাকবে। দুর্গম ও পার্বত্য এলাকায় সাধারণ কেন্দ্রে ১৯ জন ও ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ২১ জনের ফোর্স মোতায়েন থাকবে।

নির্বাচনী আচরণ বিধি প্রতিপালনে প্রতি ইউনিয়নে থাকবেন একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এছাড়াও মোবাইল/স্ট্রাইকিং ফোর্সের সঙ্গে বিশেষ করে বিজিবির প্রতিটি মোবাইল টিমের সঙ্গে একজন করে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন।

এদিকে নির্বাচনী অপরাধ আমলে নিয়ে বিচার করার জন্য উপজেলায় থাকবেন একজন করে বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট।

সরকারি জরুরি সেবা ৯৯৯-এ থাকবে বিশেষ টিম। ওই টিম নির্বাচন সংক্রান্ত প্রাপ্ত অভিযোগ/তথ্যের বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরাসরি এলাকাভিত্তিক আইন-শৃঙ্খলা সমন্বয় সেলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে।

রোববার রাতে ভোটের প্রচার বন্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নির্বাচনি এলাকায় সীমিত করা হবে যানবাহন চলাচল।

আরও পড়ুন:
সামনের নির্বাচনগুলো আরও স্বচ্ছ হবে: ইসি
৬১৫ কেন্দ্রে ব্যালট যাবে আগের দিন, বাকিগুলোতে ভোটের সকালে
দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা ভোটের মাঠে ১৫৭ ম্যাজিস্ট্রেট
প্রার্থিতা বাতিল বহাল, সেলিম প্রধানকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা
কুমিল্লা ও কুড়িগ্রামে বিএনপির ৮ নেতা বহিষ্কার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Accused of killing niece by slitting her throat in dispute over land

জমি নিয়ে বিরোধে ভাতিজিকে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ

জমি নিয়ে বিরোধে ভাতিজিকে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ গাইবান্ধার পলাশবাড়িতে ভাতিজিকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ উঠেছে চাচার বিরুদ্ধে। ছবি: নিউজবাংলা
স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি বলেন, ‘বাড়ির পাশের একটি জমি নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। আজ শনিবার সকালে ওই বিরোধপূর্ণ জমিতে গাছ রোপণ করতে যান চাচা দুলা মিয়া। এতে বাধা দেন পাপিয়াসহ তার পরিবারের লোকজন। এ সময় উভয়ের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।’

গাইবান্ধার পলাশবাড়িতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ভাতিজিকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ উঠেছে চাচার বিরুদ্ধে।

উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের বিরামেরভিটা গ্রামে শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

প্রাণ হারানো পাপিয়া আক্তার (৪৫) ওই এলাকার প্রয়াত নুরুল ইসলাম মাস্টারের মেয়ে এবং শরিফুল ইসলামের স্ত্রী। বিয়ের পর থেকে স্বামীসহ পাপিয়া বাবার বাড়িতেই থাকতেন।

অভিযুক্ত দুলা মিয়া একই গ্রামের বাসিন্দা।

পলাশবাড়ি থানার ওসি কেএম আজমিরুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি বলেন, ‘বাড়ির পাশের একটি জমি নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। আজ শনিবার সকালে ওই বিরোধপূর্ণ জমিতে গাছ রোপণ করতে যান চাচা দুলা মিয়া। এতে বাধা দেন পাপিয়াসহ তার পরিবারের লোকজন। এ সময় উভয়ের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। পরে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে চাচা দুলা মিয়া তার হাতে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে ভাতিজি পাপিয়ার গলায় আঘাত করে।’

তিনি জানান, এ ঘটনায় পাপিয়া রক্তাক্ত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে স্বজনরা গুরুতর আহত পাপিয়াকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়ার পথেই তার মৃত্য হয়।

ওসি আরও জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে পারভিন নামে এক নারীকে আটক করা হয়েছে।

নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে এজাহার দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এজাহার পেলে মামলা করা হবে।

আরও পড়ুন:
লংগদুতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই কর্মী নিহত: ইউপিডিএফ
জমি নিয়ে বিরোধের জেরে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ
মাদ্রাসাছাত্র হত্যা: ১১ মাস পর প্রধান আসামি গ্রেপ্তার
যাত্রীবেশে চালকের গলা কেটে অটোরিকশা ছিনতাই, গ্রেপ্তার ৩
ফেরিওয়ালাকে হত্যায় নারীর মৃত্যুদণ্ড, স্বামীর জেল

মন্তব্য

বাংলাদেশ
4 arrested including one from Myanmar while going to India through Benapole

বেনাপোল দিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় মিয়ানমারের একজনসহ আটক ৪

বেনাপোল দিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় মিয়ানমারের একজনসহ আটক ৪ বেনাপোল ঘিবা সীমান্ত দিয়ে পাসপোর্ট ও ভিসা ছাড়া ভারতে যাওয়ার সময় চারজনকে আটক করেছে বিজিবি। ছবি: নিউজবাংলা
বিজিবি ঘিবা ক্যাম্প কমান্ডার হাবিলদার আবদুস সামাদ জানান, আটক বাংলাদেশি নাগরিকদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা চিকিৎসার জন্য ভারতে যাচ্ছিলেন এবং মিয়ানমারের ওই ব্যক্তি ভারতে কাজের উদ্দেশে যাচ্ছিলেন।

যশোরের বেনাপোল ঘিবা সীমান্ত দিয়ে পাসপোর্ট ও ভিসা ছাড়া ভারতে যাওয়ার সময় মিয়ানমারের এক নাগরিকসহ চারজনকে আটক করেছে বিজিবি।

ঘিবা মাঠ নামক স্থানে থেকে শুক্রবার রাতে অবৈধভাবে বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাওয়ার সময় যশোর ব্যাটালিয়নের (৪৯ বিজিবি) অধীন ঘিবা বিওপির একটি টহল দল বাংলাদেশি তিনজন ও এবং মিয়ানমারের একজনে আটক করে।

আটক চারজন হলেন ঢাকার খিলগাঁওয়ের কৃষ্ট ধর মন্ডল, মুন্সিগঞ্জ সদরের আশা রানি বাছার, নড়াইলের কালিয়া থানার মোছা. শিউলি খাতুন ও মিয়ানমারের নাগরিক মো. হোসেন।

বিজিবি ঘিবা ক্যাম্প কমান্ডার হাবিলদার আবদুস সামাদ জানান, আটক বাংলাদেশি নাগরিকদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা চিকিৎসার জন্য ভারতে যাচ্ছিলেন এবং মিয়ানমারের ওই ব্যক্তি ভারতে কাজের উদ্দেশে যাচ্ছিলেন।

তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী আটক, প্রায় ২৩ লাখ টাকা জব্দ
ভয়ঙ্কর প্রতারক চক্রের ব্ল্যাকমেইলিংয়ের ফাঁদ, অবশেষে ধরা
‘ঘুষের’ টাকাসহ পাউবোর দুই প্রকৌশলী আটক
সেনাবাহিনীতে চাকরির ভুয়া নিয়োগপত্র, টাকা আত্মসাতের অভিযোগে একজন আটক 
মহেশপুর সীমান্ত থেকে ৪০টি স্বর্ণের বারসহ আটক ২

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Two workers killed in terrorist firing in Longdu UPDF

লংগদুতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই কর্মী নিহত: ইউপিডিএফ

লংগদুতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই কর্মী নিহত: ইউপিডিএফ রাঙ্গামাটির লংগদু থানা ভবন। ছবি: সংগৃহীত
লংগদু থানার ওসি হারুন অর রশিদ দুপুর একটার দিকে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এ রকম ঘটনা শুনছি। আমরা ঘটনাস্থলের দিকে যাচ্ছি। এখনও পৌঁছাই নাই। ঘটনাস্থলে যাওয়ার পরে জানা যাবে।’

রাঙ্গামাটির লংগদুতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই কর্মী নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)।

পার্বত্য চট্টগ্রামভিত্তিক দলটির প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগ শনিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমন দাবি করে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আজ সকাল সাড়ে আটটার সময় লংগদুর বড়হাড়িকাবার ভালেদি ঘাটের পার্শ্ববর্তী স্থানে (পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি তথা জেএসএস) সন্তু গ্রুপের সাতজনের একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী এসে সেখানে সাংগঠনিক কাজে নিয়োজিত ইউপিডিএফ কর্মীদের ওপর হামলা চালায়। এ হামলায় ইউপিডিএফ সদস্য বিদ্যা ধন চাকমা ওরফে তিলক (৪৫) ও সমর্থক ধন্য মনি চাকমা (৩৫) ঘটনাস্থলে নিহত হন।’

এতে বলা হয়, নিহত ইউপিডিএফ সদস্য বিদ্যা ধন চাকমার বাড়ি লংগদুর কুকিছড়া গ্রামে। আর ধন্য মনি চাকমার বাড়ি উপজেলার ধুধুকছড়া গ্রামে।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, হামলায় নেতৃত্ব দেন পোয়া চাকমা ওরফে আপন (৩২), যার বাড়ি বড় হাড়িকাবার পাশে কুট্টছড়ি গ্রামে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লংগদু থানার ওসি হারুন অর রশিদ দুপুর একটার দিকে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এ রকম ঘটনা শুনছি। আমরা ঘটনাস্থলের দিকে যাচ্ছি।

‘এখনও পৌঁছাই নাই। ঘটনাস্থলে যাওয়ার পরে জানা যাবে।’

পুলিশ হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে নিশ্চিত কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘না, এখনও নিশ্চিত না।’

ইউপিডিএফের দাবির বিষয়ে জেএসএসের কোনো বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

আরও পড়ুন:
প্রেমে ব্যর্থ হয়ে ২ বন্ধুর আত্মহত্যা
টেকনাফে পিটুনিতে একজন নিহত
যাত্রীবেশে চালকের গলা কেটে অটোরিকশা ছিনতাই
মাদারীপুরে মা হত্যার বিচার চাইল দুই শিশু
কুমিল্লায় যুবলীগ নেতা হত্যায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৯ জনের যাবজ্জীবন

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Legislation to deal with adverse effects of AI Minister of State for Telecom

এআইয়ের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় আইন হচ্ছে

এআইয়ের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় আইন হচ্ছে শুক্রবার জাতীয় পর্যায়ে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস-২০২৪ উদযাপন করে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ। ছবি: সংগৃহীত
ইন্টারনেটের ২০ এমবিপিএস গতিকে ব্রডব্যান্ড হিসেবে সংজ্ঞায়িত করতে এবং ইন্টারনেট সুলভ ও সহজলভ্য করতে ২০২৪ সালের মধ্যেই নতুন ব্রডব্যান্ড নীতিমালা প্রণয়ণ করা হবে বলে জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের (এআই) বিরূপ প্রভাব সামলাতে সরকার আইন প্রণয়ন করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শুক্রবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। জাতীয় পর্যায়ে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস-২০২৪ উদযাপনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে এই অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। খবর ইউএনবি

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় পলক বলেন, ‘এআই মানুষের জীবনধারা যেমন সহজ করবে, ঠিক তেমনি এটি সভ্যতার জন্য একটি বড় ঝুঁকি। প্রযুক্তির এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায়, বিশেষ করে এআইর বিরূপ প্রভাব সামলাতে সরকার আইন প্রণয়ণ করতে যাচ্ছে।’

এ ছাড়াও ইন্টারনেটের ২০ এমবিপিএস গতিকে ব্রডব্যান্ড হিসেবে সংজ্ঞায়িত করতে এবং ইন্টারনেট সুলভ ও সহজলভ্য করতে ২০২৪ সালের মধ্যেই নতুন ব্রডব্যান্ড নীতিমালা প্রণয়ণ করা হবে বলে জানান তিনি।

বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উদযাপনের তাৎপর্য তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ১৯৭৩ সালে আইটিইউর সদস্যপদ অর্জন করেন এবং যুদ্ধের ধ্বংস্তূপের ওপর দাঁড়িয়েও বেতবুনিয়ায় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বিশ্ব তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দুনিয়ায় বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্ত করেন।

‘আর ভিস্যাটের মাধ্যমে দেশে ইন্টারনেট সংযোগ, তিনটি মোবাইল কোম্পানিকে লাইসেন্স দেয়ার মাধ্যমে মোবাইল ফোন সাধারণের নাগালে পৌঁছে দেয়া এবং ১৯৯৮-৯৯ অর্থবছরে কম্পিউটারের ওপর থেকে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহার করে কম্পিউটার সাধারণের জন্য সহজলভ্য করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বেরই ফসল।’

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিগত বছরগুলোর সফলতা ডিজিটাল দুনিয়ায় বাংলাদেশকে নেতৃত্বদানকারী দেশের কাতারে সামিল করেছে বলে জানান তিনি।

এর আগে, প্রতিমন্ত্রী বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করেন এবং এই দিবস উপলক্ষে আয়োজিত রচনা ও বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।

বাংলাদেশে এ বছর প্রথমবারের মতো ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগসহ টেলিযোগাযোগ এবং আইসিটি খাতের সরকারি ও বেসরকারি খাতের অংশীজনদের নিয়ে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উদযাপনের আয়োজন করা হয়।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব মো. সামসুল আরেফিন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এ কে এম, আমিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানির চেয়ারম্যান ও সিইও ড. শাহজাহান মাহমুদ এবং বিটিআরসির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. মহিউদ্দিন আহমেদ।

পরে প্রতিমন্ত্রীর উপস্থিতিতে মোবাইল অপারেটর রবি ও বাংলালিংকের মধ্যে নেটওয়ার্ক স্মারক সই হয়।

আরও পড়ুন:
এআইকে স্বাগত, তবে অপব্যবহার রোধে পদক্ষেপ প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী
৪০% চাকরিকে প্রভাবিত করবে এআই: আইএমএফ
অনলাইন সাংবাদিকতার চ্যালেঞ্জ বিষয়ে এআইইউবিতে সেমিনার
কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ‘বিপজ্জনক’, সতর্ক করে গুগল ছাড়লেন এআই গডফাদার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
There were 21 lakh eggs and 24 thousand kg of sweets in the potato freezer

আলুর হিমাগারে ছিল ২১ লাখ ডিম, ২৪ হাজার কেজি মিষ্টি

আলুর হিমাগারে ছিল ২১ লাখ ডিম, ২৪ হাজার কেজি মিষ্টি আলুর হিমাগারে ২১ লাখ ডিম পান নির্বাহী ম‌্যা‌জি‌স্ট্রেট। ছবি: নিউজবাংলা
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কুমিল্লার সহকারী পরিচালক মো. আছাদুল ইসলাম বলেন, ‘এটি একটি আলুর কোল্ড স্টোরেজ। এখানে এমন বিপুল পরিমাণ ডিম ও মিষ্টি মজুত করার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে কর্তৃপক্ষ কোনো সদেুত্তর দিতে পারেনি। এমনকি কোল্ড স্টোরেজ পরিচালনায় কৃষি বিপণন অধিদপ্তর থেকে কৃষিপণ‌্য মজুতের লাইসেন্স প্রয়োজন হলেও কর্তৃপক্ষ সেটি দেখাতেও ব‌্যর্থ হয়।’

কুমিল্লায় লালমাই উপ‌জেলার বরল-বাগমারা এলাকায় আলু রাখার হিমাগারে অ‌বৈধভা‌বে রাখা ২১ লাখ ডিম ও ২৪ হাজার কেজি মিষ্টি ও মিষ্টি তৈরির সিরকা জব্দ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ডিম ও মি‌ষ্টি মজু‌তের বিরু‌দ্ধে মোবাইল কোর্ট প‌রিচালনা ক‌রেন কু‌মিল্লা জেলা প্রশাস‌নের নির্বাহী ম‌্যা‌জি‌স্ট্রেট মে‌হেদী হ‌াসান শাওন। অ‌ভিযা‌নে জাতীয় ভোক্তা অ‌ধিকার সংরক্ষণ অ‌ধিদপ্ত‌র কু‌মিল্লার সহকারী প‌রিচালক মো. আছাদুল ইসলাম উপ‌স্থিত ছি‌লেন।

আছাদুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মেঘনা কোল্ড স্টো‌রে‌জে অভিযান চালিয়ে দেখা যায়, সেখানে ২১ লাখ ডিম ও ৮০০ ড্রাম বা প্রায় ২৪ হাজার কে‌জি মি‌ষ্টি ও মি‌ষ্টির সিরকা মজুত ক‌রে রাখা হয়েছে।

আলুর হিমাগারে ছিল ২১ লাখ ডিম, ২৪ হাজার কেজি মিষ্টি

তিনি বলেন, ‘এটি এক‌টি আলুর কোল্ড স্টো‌রে‌জ। এখানে এমন বিপুল পরিমাণ ডিম ও মি‌ষ্টি মজুত করার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে কর্তৃপক্ষ কোনো সদেুত্তর দি‌তে পা‌রে‌নি। এমনকি কোল্ড স্টোরেজ প‌রিচালনায় কৃ‌ষি বিপণন অ‌ধিদপ্তর থে‌কে কৃ‌ষিপণ‌্য মজুতের লাই‌সেন্স প্রয়োজন হলেও কর্তৃপক্ষ সে‌টি দেখাতেও ব‌্যর্থ হয়।

‘পরে কৃ‌ষি বিপণনের লাই‌সেন্স না নি‌য়ে ‌কোল্ড স্টোরেজ প‌রিচালনা করা এবং অ‌বৈধভাবে বিপুল সংখ‌্যক ডিম ও মিষ্টি মজুত করায় কোল্ড স্টোরেজ কর্তৃপক্ষ‌কে মোবাইল কোর্টের মাধ‌্যমে কৃ‌ষি বিপণন আই‌ন ২০১৮ এর দু‌টি ধারায় ২ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেন নির্বাহী ম‌্যা‌জি‌স্ট্রেট। একইসঙ্গে আগামী ৪৮ ঘণ্টার ম‌ধ্যে এসব পণ‌্য বাজারজাত কর‌তে লি‌খিত অঙ্গীকারনামা রাখা হয় এবং কৃ‌ষি বিপণন কর্মকর্তা‌কে ম‌নিট‌রিং করে বিষয়‌টি নি‌শ্চিত ক‌রে প্রতি‌বেদন দা‌খিলের নির্দেশনা দেয়া হয়।’

অ‌ভিযানে লালমাই স‌্যা‌নিটা‌রি ইন্স‌পেক্টর মঞ্জুর হোসেন, সদর স‌্যা‌নিটা‌রি ইন্স‌পেক্টর এ‌কে আজাদ ও জেলা পু‌লি‌শের এক‌টি দল উপ‌স্থিত থেকে সা‌র্বিক সহযো‌গিতা ক‌রেন।

আরও পড়ুন:
হিমাগারে মজুদ ৬ লাখ ডিম, এক দিনে বিক্রির নির্দেশ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The teacher was allegedly beaten to death due to a dispute over land

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ফাইল ছবি
ফুলপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘শুক্রবার সকালে নিজেদের পুকুর থেকে সেচপাম্পের সাহায্যে জমিতে পানি দেয়ার সময় তার ভাতিজা ও ভাইয়ের স্ত্রী বাধা দেন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তার শরীরে আঘাত করা হলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এ সময় তার গলা টিপে ধরা হয়।’

ময়মনসিংহের ফুলপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এক শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মামলা হলে পুলিশে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার বওলা ইউনিয়নের পরানগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

৫৫ বছর বয়সী নিহত সাজ্জাত হোসেন কামাল ওই গ্রামের ছালাম ফকিরের ছেলে। তিনি ধোবাউড়া উপজেলার গোয়াতলা রঘুরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ফুলপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘কয়েকদিন ধরে জমি নিয়ে সাজ্জাত হোসেনের সঙ্গে তার চাচা আবুল খায়ের এবং চাচাতো ভাই জাকারিয়া ও মহিবুল্লার বিরোধ চলছিল।

‘শুক্রবার সকালে নিজেদের পুকুর থেকে সেচপাম্পের সাহায্যে জমিতে পানি দেয়ার সময় তার ভাতিজা ও ভাইয়ের স্ত্রী বাধা দেন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তার শরীরে আঘাত করা হলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এ সময় তার গলা টিপে ধরা হয়। পরে স্বজনরা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’

ওসি বলেন, ‘এ ঘটনায় সাজ্জাত হোসেনের বাবা বাদী হয়ে সাতজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন। মামলার পর পুলিশ জাকারিয়া, মহিবুল্লাহ ও তাদের মাকে গ্রেপ্তার করেছে।’

মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘বাকি আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

আরও পড়ুন:
মাদ্রাসাছাত্র হত্যা: ১১ মাস পর প্রধান আসামি গ্রেপ্তার
পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে লাঠির আঘাতে হত্যার অভিযোগ
প্রেমে ব্যর্থ হয়ে ২ বন্ধুর আত্মহত্যা
টেকনাফে পিটুনিতে একজন নিহত

মন্তব্য

p
উপরে