× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Seven thousand battery powered metro rickshaws are running under the license of Tangail Municipality
google_news print-icon

টাঙ্গাইলে নির্দেশনা অমান্য করে অটোরিকশার লাইসেন্স দেয়ার অভিযোগ

টাঙ্গাইলে-নির্দেশনা-অমান্য-করে-অটোরিকশার-লাইসেন্স-দেয়ার-অভিযোগ
টাঙ্গাইল পৌরসভার লাইসেন্স নিয়ে চলছে বিপুলসংখ্যক অটোরিকশা, যেগুলো শহরের যানজটের অন্যতম কারণ। ছবি: নিউজবাংলা
চালকদের অভিযোগ, এর আগে পৌরসভা নির্ধারিত ১০ হাজার ৫০০ টাকা ফির ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার লাইসেন্স এক থেকে দেড় লাখ টাকায় বিক্রি হয়েছে। বর্তমান পৌর প্রশাসন দায়িত্ব নেয়ার পর এক বছর মেয়াদি পায়ে চালিত রিকশার এক হাজার টাকার লাইসেন্স বিক্রি করেছে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকায়। মেট্রো রিকশার লাইসেন্সের কথা বলে অতিরিক্ত ওই টাকাগুলো নেয়া হয়েছে।

টাঙ্গাইল পৌরসভার লাইসেন্স নিয়ে চলছে সাত সহস্রাধিক ব্যাটারিচালিত মেট্রো রিকশা (ইজিবাইক)।

তৃতীয় দফায় পৌরসভার মেয়র স্বাক্ষরিত রিকশার লাইসেন্সের মেয়াদ বেড়েছে ২০২৩ সাল থেকে ২০২৪ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত।

সারা দেশে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ভ্যান বন্ধে ২০২১ সালে উচ্চ আদালতের নির্দেশনাসহ সড়ক পরিবহনবিষয়ক জাতীয় টাস্কফোর্সের সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই নির্দেশনা ও সিদ্ধান্ত অমান্য করে ব্যাটারিচালিত এসব অটোরিকশার লাইসেন্স দেয়ার অভিযোগ উঠেছে টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র এস.এম সিরাজুল হক আলমগীরের বিরুদ্ধে।

বিপুলসংখ্যক ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করায় শহরে যেমন বেড়েছে যানজট, তেমনি দেখা দিয়েছে বৈদ্যুতিক সমস্যা। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন শহরবাসী।

১৮৮৭ সালের পয়লা জুলাই স্থাপন করা হয় টাঙ্গাইল পৌরসভা, বর্তমানে যার আয়তন ২৯.৪৩ বর্গকিলোমিটার। ১৮টি ওয়ার্ডের প্রথম শ্রেণির এই পৌরসভায় সড়কের সংখ্যা ৫৯০টি।

টাঙ্গাইল পৌরসভার লাইসেন্স বিভাগ জানায়, পৌরসভার লাইসেন্সপ্রাপ্ত অটোরিকশার সংখ্যা সাড়ে চার হাজার। আর পায়ে চালিত রিকশা রয়েছে পাঁচ হাজার।

অটোরিকশার লাইসেন্স ফি ১০ হাজার ৫০০। আর পায়ে চালিত রিকশার লাইসেন্স ফি এক হাজার টাকা।

টাঙ্গাইলে পৌরসভা নির্ধারিত ১০ হাজার ৫০০ টাকা ফির পরিবর্তে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার লাইসেন্স এক থেকে দেড় লাখ টাকায় বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ব্যাটারিচালিত মেট্রো রিকশাগুলোর পেছনে চালকের বসার সিটের নিচে সাঁটানো হয়েছে টাঙ্গাইল পৌরসভার লাইসেন্স। পৌরসভার বর্তমান মেয়র এস.এম সিরাজুল হক আলমগীর স্বাক্ষরিত এক বছর মেয়াদি ওই লাইসেন্সগুলো ২০২২ সালে দ্বিতীয় দফায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

কিছু রিকশার লাইসেন্সের মেয়াদ ২০২২ থেকে ২০২৩ সালের ৩০ জুন। ওই রিকশাগুলোর লাইসেন্সের মেয়াদ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে।

তৃতীয় দফায় স্বাক্ষরিত রিকশা লাইসেন্সের মেয়াদ হয়েছে ২০২৩ সাল থেকে ২০২৪ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত।

এর আগেও তৎকালীন টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র দেন চার হাজার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার লাইসেন্স, যাতে নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগ ছিল। শহরজুড়ে এ সময় লাগামহীন যানজট লেগে থাকায় ওই চার হাজার অটোরিকশা চলাচলে দুই শিফট চালু করা হয়।

তখন থেকে প্রতি শিফটে ২ হাজার করে অটোরিকশা চলাচল শুরু করে। বর্তমানে শহরজুড়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার পাশাপাশি চলাচল করছে প্রায় আট হাজার ব্যাটারিচালিত মেট্রো রিকশা। এ ছাড়াও রয়েছে লাইসেন্সপ্রাপ্ত সাড়ে পাঁচ হাজার পায়ে চালিত রিকশা।

টাঙ্গাইল পৌরসভায় অটোরিকশাগুলো দুই শিফট পদ্ধতিতে চলাচল করলেও সাত সহস্রাধিক মেট্রো রিকশা চলছে দিনভর।

এর বাইরে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছোট-বড় ১২৮টি পরিবহন, সরকারি বেসরকারি অফিস, ব্যাংক, বিমা, আদালতের যানবাহন, চিকিৎসক ও ব্যক্তি মালিকানাধীন গাড়ির পাশাপাশি গড়ে প্রতিদিন তিন সহস্রাধিক মোটরসাইকেল চলাচল করছে টাঙ্গাইল শহরে। এর ফলে শহরের প্রধান প্রধান সড়কের বেবীস্ট্যান্ড, শান্তিকুঞ্জ মোড়, মেইন রোড, নিরালা মোড়, পার্কবাজার মোড়, ক্যাপসুল মার্কেট, পুরাতন বাসস্ট্যান্ড, সুপারি বাগান মোড়, কলেজ গেট আর নতুন বাস টার্মিনাল এলাকায় নিয়মিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে যানজট।

যানজট নিরসনে মোড়ে মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করলেও হিমশিম খাচ্ছেন তারা। এতে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন রোগী, শিশু, বৃদ্ধ, নারীসহ নানা বয়সী যাত্রী ও সাধারণ মানুষ।

চালকদের অভিযোগ, এর আগে পৌরসভা নির্ধারিত ১০ হাজার ৫০০ টাকা ফির ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার লাইসেন্স এক থেকে দেড় লাখ টাকায় বিক্রি হয়েছে। বর্তমান পৌর প্রশাসন দায়িত্ব নেয়ার পর এক বছর মেয়াদি পায়ে চালিত রিকশার এক হাজার টাকার লাইসেন্স বিক্রি করেছে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকায়। মেট্রো রিকশার লাইসেন্সের কথা বলে অতিরিক্ত ওই টাকাগুলো নেয়া হয়েছে।

মেট্রো রিকশার চালক মো. পলাশ জানান, তিন বছর ধরে রিকশা চালাচ্ছেন। রিকশা ও গদি আটকে রেখে তাদের লাইসেন্স নিতে বাধ্য করা হয়েছে। লাইসেন্স ছাড়া চালানো যাচ্ছিল না বলেই তিনি বাধ্য হয়ে লাইসেন্সটি নিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকায় পৌরসভা থেকে লাইসেন্স বিক্রি করা হলেও দেড় মাস আগে মুসলিমপাড়ার একজন গ্যারেজ মিস্ত্রির মাধ্যমে ১২ হাজার টাকায় লাইসেন্সটি নিয়েছেন তিনি। সুদের টাকায় রিকশা আর লাইসেন্সটি কিনেছেন তিনি।

মেট্রো রিকশার চালক মো. হযরত জানান, পায়ে চালিত রিকশা লাইসেন্স বইয়ের মধ্যে ‘ইজিবাইক’ লেখা আছে বলেই তিনি লাইসেন্সটি নিয়েছেন ২০ হাজার টাকায়। তার লাইসেন্স নম্বর ৮২৫। টাকাগুলো নিয়েছে পৌরসভার লোকজন।

চালক রবিউল ইসলাম বলেন, ‘পৌরসভা থেকে মেট্রো রিকশা লাইসেন্স আর নম্বর প্লেট বিক্রি করার সুযোগে তারা এই ব্যাটারিচালিত রিকশা চালাচ্ছেন। পৌরসভার লোকজন লাইসেন্স ও প্লেট বিক্রি করেছেন। এ কারণে এই রিকশা বন্ধ হচ্ছে না।

‘এরপরও যদি সরকারিভাবে এই রিকশা চলাচল বন্ধ করে, তাহলে অন্য কাজ করে খাব।’

৯৯৫ নম্বর লাইসেন্সপ্রাপ্ত মেট্রো রিকশাচালক রফিক বলেন, ‘৪৩ হাজার টাকায় পুরাতন রিকশাটি কিনেছি। মাসে ১২০০ টাকা ভাড়ায় লাইসেন্সটি নিয়েছি।

‘আদি টাঙ্গাইল এলাকার রিকশা গ্যারেজ ব্যবসায়ী আকবরের কাছ থেকে পৌরসভার লাইসেন্সটি কিনেছিলাম।’

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শিশুদের জন্য ফাউন্ডেশন ও যুবাদের জন্য ফাউন্ডেশনের সভাপতি মুঈদ হাসান তড়িৎ বলেন, ‘উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও পায়ে চালিত রিকশার লাইসেন্স দিয়ে অবৈধ মেট্রো রিকশা বৈধতা দেয়ার ষড়যন্ত্র চালানো হচ্ছে। দ্রুত অবৈধ ব্যাটারিচালিত রিকশাগুলো বন্ধে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের পদক্ষেপ নেয়া উচিত।’

করোনেশন ড্রামাটিক ক্লাব তথা সিডিসির নাট্য সম্পাদক ও শিশুদের জন্য ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা শামসুর রহমান সাম্য বলেন, ‘সড়ক অনুপাতে যানবাহন দ্বিগুণ হওয়ায় শহরজুড়ে বৃদ্ধি পেয়েছে যানজট। যানজটের অন্যতম কারণ হচ্ছে ব্যাটারিচালিত রিকশা। পৌরসভা পায়ে চালিত রিকশা লাইসেন্সের নামে আর মোটা টাকার বিনিময়ে দিয়েছে ব্যাটারিচালিত মেট্রো রিকশার লাইসেন্স।

‘পায়ে চালিত রিকশার লাইসেন্স ১ হাজার থেকে ১ হাজার ২০০ টাকা। সেখানে নেয়া হয়েছে ২২ হাজার থেকে ২৩ হাজার টাকা। গরিবের টাকা অমানবিকভাবে হরিলুট হচ্ছে। এর প্রভাব তীব্র যানজট ভোগ করছেন সাধারণ মানুষ।’

তিনি আরও বলেন, সরকারের মনোনীত মেয়র এই হরিলুটের অন্যতম বলে দাবি করেছেন তিনি। এর ফলে সরকারের প্রতি মানুষের আস্থাহীনতা তৈরি হচ্ছে। ১,২০০ টাকার লাইসেন্স ২২,০০০ থেকে ২৩,০০০ হাজার টাকায় বিক্রির মত বড় একটি অনিয়ম প্রশাসন, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সংস্কৃতিবিদ সকলে জানা সত্ত্বেও এর কোন প্রতিকার নেই বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

রিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আবদুস সবুর বলেন, ‘টাঙ্গাইল পৌরসভা থেকে চলাচলের জন্য ব্যাটারিচালিত মেট্রো রিকশাগুলোকে পায়ে চালিত রিকশা লাইসেন্স দিয়েছে। লাইসেন্স দেয়ার দায়িত্ব তাদের না। পৌরসভার মেয়র পায়ে চালিত রিকশা লাইসেন্স দিয়েছেন মেট্রো রিকশায়।

‘ব্যাটারিচালিত মেট্রো রিকশা আমাদের সংগঠনের অন্তর্ভুক্ত, তবে এই লাইসেন্স দেয়া নিয়ে পৌরসভার মেয়র আমাদের সাথে কোনো মিটিং করেননি।’

ওই সময় ইজিবাইক বন্ধে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অমান্যের বিষয়টি মেয়রের বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র এস.এম. সিরাজুল হক আলমগীরের মোবাইল ফোনে কল দিলে তার ব্যক্তিগত সচিব (পিএস) সাজ্জাদ রিসিভ করে বলেন, ‘এ ব্যাপারে সাক্ষাতে কথা বলা হবে। মেয়র সাহেব ব্যস্ত আছে।’

পরে পৌরসভার কার্যালয়ে যাওয়ার পর মেয়রের পিএস বলেন, ‘কোনো প্রকার বক্তব্য দেয়া হবে না।’

সড়ক পরিবহনবিষয়ক জাতীয় টাস্কফোর্সের ২০২১ সালের ২০ জুনের সভায় দুর্ঘটনা রোধে সারা দেশে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একই বছরের ১৫ ডিসেম্বর সারা দেশে চলা অবৈধ ব্যাটারিচালিত ৪০ লাখ ইজিবাইক বন্ধের নির্দেশসহ আমদানি ও ক্রয়-বিক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা এবং অবৈধ ইজিবাইক আমদানি থেকে বিরত থাকতে কর্তৃপক্ষের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে রুল জারি করে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ।

আরও পড়ুন:
টাঙ্গাইলের শাড়িতে ভারতের জিআই স্বত্ব মানা যায় না 
মানিকগঞ্জে অটোরিকশায় ট্রাকের ধাক্কা, শিশুসহ নিহত ৩
রাজধানীতে সাশ্রয়ী মূল্যে অটোরিকশায় যাতায়াত করতে চান?
টাঙ্গাইলে সাংবাদিককে ‘হত্যার হুমকি’, থানায় অভিযোগ 
টাঙ্গাইলে সংকুচিত হয়ে আসছে খেলার মাঠ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Ex policeman killed in Nephews case

ভাতিজার দায়ের কোপে সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত

ভাতিজার দায়ের কোপে সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত প্রতীকী ছবি
হত্যার পেছনে পূর্বশত্রুতা বা অন‌্য কোনো কারণ আছে কি না, এমন প্রশ্নের উত্ত‌রে দুমকি থানার ওসি তারেক মো. আবদুল হান্নান বলেন, ‘খুঁ‌টিনা‌টি সব‌কিছু আমরা খুঁজে দেখ‌ছি। সব তথ‌্য-উপাত্ত যাচাই-বাচাই কর‌‌ছি।’

পটুয়াখালীর দুমকিতে ভাতিজার দায়ের কোপে সাবেক এক পুলিশ নিহত হয়েছেন।

উপজেলার লেবুখালী ইউনিয়নের আঠারগাছিয়া গ্রামে শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

কোপে প্রাণ হারানো সাবেক পুলিশ সদস্যের নাম আবদুল আজিজ সিকদার, যার বয়স ৭০ বছর।

স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, দুপুরে আঠারগাছিয়া গ্রামের আলতাফ সিকদারের সৌদিফেরত ছেলে শহিদ শিকদার (২৮) হঠাৎ উত্তেজিত হয়ে তিন থেকে চারজন প্রতিবেশীর ঘরের দরজা- জানালা পিটিয়ে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করেন। একপর্যা‌য়ে চাচা আবদুল আজিজ সিকদারের হাতে থাকা ধারালো দা কেড়ে নিয়ে তাকেই উপর্যুপরি কুপিয়ে গুরুতর জখম করেন এ যুবক।

পরে স্থানীয় লোকজন এক‌ত্রিত হ‌য়ে শহিদকে ধ‌রে পুলিশে সোপর্দ করেন। অন্যদি‌কে গুরুতর আহত অবস্থায় আবদুল আজিজকে উদ্ধার করে তাৎক্ষ‌ণিকভা‌বে বরিশালের শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখা‌নে বেলা আড়াইটার দি‌কে তার মৃত্যু হয়।

শহিদ সিকদারের ভাই সবুজ সিকদার দাবি ক‌রেন, সৌদি আরব থে‌কে ফি‌রে এসে শহিদ সিকদার বেশ কিছু দিন ধরে একাকিত্বে থেকে অসংলগ্ন আচরণ করছিলেন। কারও সঙ্গে পূর্ব বিরোধ না থাকলেও মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন তি‌নি।

দুমকি থানার ওসি তারেক মো. আবদুল হান্নান জানান, নিহত আবদুল আজিজ সিকদা‌রের মরদেহ বরিশালের শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়।

হত্যার পেছনে পূর্বশত্রুতা বা অন‌্য কোনো কারণ আছে কি না, এমন প্রশ্নের উত্ত‌রে ওসি বলেন, ‘খুঁ‌টিনা‌টি সব‌কিছু আমরা খুঁজে দেখ‌ছি। সব তথ‌্য-উপাত্ত যাচাই-বাচাই কর‌‌ছি।’

আরও পড়ুন:
পঞ্চগড়ে প্রেমিকের হাতে নারী খুন
পরিত্যক্ত সেপটিক ট্যাংকে মিলল নিখোঁজ মাদ্রাসাছাত্রের মরদেহ
ঈদে বাড়ি যেতে দেরি হওয়ায় স্বামীর সঙ্গে অভিমানে গৃহবধূর আত্মহত্যা
কুমিল্লায় অপহরণের পর যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, সাবেক চেয়ারম্যান আটক
সর্বহারা নেতা রাজ্জাক হত্যার রহস্য উদঘাটন, গ্রেপ্তার ৫

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A youth was killed in a clash between the A League parties in Munshiganj

মুন্সীগঞ্জে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে যুবক নিহত

মুন্সীগঞ্জে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে যুবক নিহত সংঘর্ষের পর ওই গ্রাম থেকে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ। কোলাজ: নিউজবাংলা
ঘটনার পর পুলিশের অভিযানে একটি পাইপ গান, ৭ রাউন্ড কার্তুজ, একটি বুলেট প্রুফ জ্যাকেট ও ৭টি হকিস্টিক উদ্ধার করা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ সদরের ছোট মোল্লাকান্দি গ্রামে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর পুলিশি অভিযানে আগ্নেয়াস্ত্র, কার্তুজ ও বুলেট প্রুফ জ্যাকেট উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার দুপুর ১টার দিকে পুলিশ গ্রামটিতে অভিযান চালায়।

এর আগে এদিন ভোরে মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মো. ফয়সালের বিপ্লবের অনুসারী আহম্মেদ আলী ও সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাসের অনুসারী মো. মামুনের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ ও গুলির ঘটনা ঘটে।

এতে পারভেজ খান নামের ২০ বছর বয়সী এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থান্দার খায়রুল হাসান জানান, পুলিশের অভিযানে একটি পাইপ গান, ৭ রাউন্ড কার্তুজ, একটি বুলেট প্রুফ জ্যাকেট ও ৭টি হকিস্টিক উদ্ধার করা হয়েছে।

পরিত্যক্ত অবস্থায় ওইসব আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজ উদ্ধার করা হয় বলে জানান তিনি।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Fugitive accused in Natore rape case arrested

নাটোরে ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেপ্তার

নাটোরে ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেপ্তার গ্রেপ্তারকৃত সাজিদ আলী। ছবি: র‌্যাব
র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ২০২৩ সালের ১০ অক্টোবর বিকেলে প্রতিবেশী সাজিদ আলী ভুক্তভোগীকে কৌশলে নিজের ঘরে নিয়ে যান। পরে ঘরের দরোজা আটকে তাকে ধর্ষণ করেন তিনি।

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় সাজিদ আলী নামের ধর্ষণ মামলার এক পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। শনিবার সকালে র‌্যাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

২১ বছর বয়সী সাজিদ উপজেলার ডাকারমারিয়া এলাকার বাসিন্দা।

নাটোর র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক আবদুল্লাহ মওদুদ স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ২০২৩ সালের ১০ অক্টোবর বিকেলে প্রতিবেশী সাজিদ আলী ভুক্তভোগীকে কৌশলে নিজের ঘরে নিয়ে যান। পরে ঘরের দরোজা আটকে তাকে ধর্ষণ করেন তিনি। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর মা বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা করলে আসামি সাজিদ আত্মগোপনে চলে যান।

পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামি গ্রেপ্তারের জন্য র‌্যাবের সহযোগিতা চান। এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাব সদস্যরা গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধিসহ তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে সাজিদ আলীর অবস্থান শনাক্ত করেন।

শেষ পর্যন্ত শুক্রবার বিকেলে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার মাল্লাপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় র‌্যাব। পরে গ্রেপ্তারকৃত সাজিদকে বাগাতিপাড়া থানায় হস্তান্তর করা হয়।

আরও পড়ুন:
কিশোর গ্যাংয়ের হাত থেকে ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে আহত সেই বাবা মারা গেছেন
মাদারীপুরে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁস চক্রের সদস্য গ্রেপ্তার
সর্বহারা নেতা রাজ্জাক হত্যার রহস্য উদঘাটন, গ্রেপ্তার ৫
বন কর্মকর্তা হত্যা মামলার প্রধান আসামি চট্টগ্রামে গ্রেপ্তার
বান্দরবানে কেএনএফের তিন সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৪

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Hard stone Vishnu idol recovered in Munshiganj

মুন্সীগঞ্জে কষ্টিপাথরের বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার

মুন্সীগঞ্জে কষ্টিপাথরের বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার ছবি: নিউজবাংলা
শনিবার সকাল দশটার দিকে রামপালের খানকা দালালপাড়া এলাকায় ফসলি জমির পাশে রাস্তা থেকে মূর্তিটি উদ্ধার করা হয়।

মুন্সীগঞ্জ সদরের রামপালে এক কৃষকের কাছ থেকে প্রায় ৩৭ কেজি ওজনের কষ্টিপাথরের একটি বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ। মূর্তিটির আনুমানিক বাজারমূল্য ১৫ কোটি টাকা।

শনিবার সকাল দশটার দিকে রামপালের খানকা দালালপাড়া এলাকায় ফসলি জমির পাশে রাস্তা থেকে মূর্তিটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, তিনদিন আগে ফসলি জমি থেকে মূর্তিটি পাওয়া গেলেও বিষয়টি গোপন করার চেষ্টা করেন ওই কৃষক।

জমির মালিক মো. রিপন জানান, গত ১০ এপ্রিল খানকা দালালপাড়া এলাকায় তাদের ফসলি জমিতে মাটি কাটার সময় কৃষক খোরশেদ ৬ ইঞ্চি গভীর থেকে মূর্তিটি দেখতে পেয়ে বাসায় নিয়ে যান। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ভয়ে নিজেই পুলিশকে খবর দেন তিনি।

খোরশেদকে জমিটি বাৎসরিক ফিসের বিনিময়ে চাষাবাদের জন্য দেয়া হয়েছিলো বলেও জানান তিনি।

হাতিমারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক এনামুল হক জানান, মূর্তিটি পুলিশি হেফাজতে রয়েছে। প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের কাছে মূর্তিটি হস্তান্তর করা হবে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Schoolboy dies after falling from brick laden tractor

ইটবোঝাই ট্রাক্টর থেকে পড়ে যাওয়া স্কুলছাত্রের মৃত্যু

ইটবোঝাই ট্রাক্টর থেকে পড়ে যাওয়া স্কুলছাত্রের মৃত্যু ছবি: সংগৃহীত
নিহতের দুলাভাই বিজয় অভিযোগ করে বলেন, ‘প্রতিবেশি হাবিবুল্লাহ টাকার লোভ দেখিয়ে বাড়ি থেকে তাকে একপ্রকার জোর করে ডেকে নিয়ে যায়। বুধবার সকাল ৮টায় দুর্ঘটনা ঘটলেও হেদায়েত উল্লাহ বিষয়টি লুকিয়ে রাখেন।’

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে ইটবোঝাই ট্রাক থেকে পড়ে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। নিহত শিক্ষার্থী ভৈরব উপজেলার কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের পশ্চিমপাড়া এলাকার প্রবাসী মোহাম্মাদ আলীর ১৪ বছরের ছেলে মেহেদী হাসান মৃদুল।

বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।

স্থানীয় ও মৃদুলের স্বজনরা জানান, সে কালিকাপ্রসাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। গত ১০ এপ্রিল প্রতিবেশি ট্রাক্টর মালিক হাবিবুল্লাহর ভাই হেদায়েত উল্লাহ নামের এক ব্যক্তি মৃদুলকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান। পরে জেলার কুলিয়ারচর উসমানপুর এলাকায় ট্রাক্টর থেকে পড়ে গিয়ে গুরুত্বর আহত হয় সে। এ সময় স্থানীয়রা তাকে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢামেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

নিহতের দুলাভাই বিজয় অভিযোগ করে বলেন, ‘প্রতিবেশি হাবিবুল্লাহ টাকার লোভ দেখিয়ে বাড়ি থেকে তাকে একপ্রকার জোর করে ডেকে নিয়ে যায়। বুধবার সকাল ৮টায় দুর্ঘটনা ঘটলেও হেদায়েত উল্লাহ বিষয়টি লুকিয়ে রাখেন। এরপর বেলা ১২টায় অন্য মাধ্যমে খবর পেয়ে আমরা বাজিতপুর হাসপাতালে যাই। সেখান থেকে ডাক্তার তাকে ঢাকায় প্রেরণ করে। পরে বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে সেখানে তার মৃত্যু হয়।’

এ বিষয়ে কুলিয়ারচর থানা ওসি মো. সারোয়ার জাহান বলেন, ‘নিহতের মরদেহ ময়তদন্ত শেষে ভৈরবে আনতে বলা হয়েছে। এই বিষয়ে নিহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আরও পড়ুন:
টেকনাফে পিটুনিতে আহত ব্যবসায়ীর মৃত্যু
নওগাঁয় অতিরিক্ত মদ পানে তিন বন্ধুর মৃত্যু: চিকিৎসক
গুলশানে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় ইউনাইটেড হাসপাতালের কর্মী নিহত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Woman killed by lover in Panchgarh

পঞ্চগড়ে প্রেমিকের হাতে নারী খুন

পঞ্চগড়ে প্রেমিকের হাতে নারী খুন ফাইল ছবি
শাহনাজের স্বামী মজিদ গার্মেন্টসসহ বিভিন্ন স্থানে কাজ করার সুবাদে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় থাকতেন। বছর দুয়েক আগে প্রতিবেশী রাজুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন শাহনাজ। একসময় অজানা কারণে তাদের প্রেম ভেঙ্গে যায়।

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে প্রেমিকের হাতে শাহনাজ পারভীন নামে এক নারী খুন হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। দুই সন্তানের মা ওই নারীকে হত্যার পর ওই যুবক পলাতক রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার ঈদের সকালে দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের মতিয়ারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

২৫ বছর বয়সী শহনাজ পরভীন ওই এলাকার আব্দুল মজিদের স্ত্রী। এ দম্পতির ঘরে ৬ বছরের একটি মেয়ে ও একটি ৪ মাস বয়সী এক সন্তান রয়েছে।

স্থানীয়দের বরাতে পুলিশ জানিয়েছে, শাহনাজের স্বামী মজিদ গার্মেন্টসসহ বিভিন্ন স্থানে কাজ করার সুবাদে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় থাকতেন। বছর দুয়েক আগে প্রতিবেশী রাজুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন শাহনাজ। একসময় অজানা কারণে তাদের প্রেম ভেঙ্গে যায়।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে স্বামীসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা ঈদের নামাজ পড়তে ঈদগাহে গেলে আগে থেকে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঁৎ পেতে থাকা রাজু শাহনাজের বাড়িতে যান। সেখানে শাহনাজের বড় মেয়ের সামনেই শয়নকক্ষে প্রবেশ করে তাকে ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় গলা কেটে শুহনাজের মৃত্যু হয়।

এদিকে শিশুটির কান্না ও চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে গিয়ে শাহনাজের গলাকাটা মরদেহ দেখতে পান। পরে তারা পুলিশে খবর দেন।

দেবীগঞ্জ থানার ওসি সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম বলেন, ‘মরদেহের পাশ থেকে একটি রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। পলাকত রাজুকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে একইসঙ্গে আইনগত বিষয়ও প্রক্রিয়াধীন।’

আরও পড়ুন:
পরিত্যক্ত সেপটিক ট্যাংকে মিলল নিখোঁজ মাদ্রাসাছাত্রের মরদেহ
ঈদে বাড়ি যেতে দেরি হওয়ায় স্বামীর সঙ্গে অভিমানে গৃহবধূর আত্মহত্যা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Case in Sadarghat 5 deaths

সদরঘাটে ৫ প্রাণহানির ঘটনায় মামলা

সদরঘাটে ৫ প্রাণহানির ঘটনায় মামলা সদরঘাট টার্মিনালের পন্টুনে দুই লঞ্চের মধ্যে ধাক্কা লেগে রশি ছিঁড়ে পাঁচ যাত্রীর মৃত্যু হয়। ছবি: নিউজবাংলা
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের যুগ্মপরিচালক ইসমাইল হোসেন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে এ মামলা করেছেন।

রাজধানীর সদরঘাট টার্মিনালের পন্টুনে দুই লঞ্চের মধ্যে ধাক্কা লেগে রশি ছিঁড়ে পাঁচ যাত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের যুগ্মপরিচালক ইসমাইল হোসেন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে এ মামলা করেছেন।

নিউজবাংলাকে বিষয়টি জানিয়েছেন দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মামুন অর-রশিদ।
তিনি জানান, দুই লঞ্চের মাষ্টার ও ম্যানেজারসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। মামলায় অবহেলাজনিত বেপরোয়া গতিতে লঞ্চ চালানোর কারণে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ আনা হয়েছে।

ওসি জানান, এর আগে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এই পাঁচজনকে আটক করা হয়। এই মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন- এমভি ফারহান-৬ লঞ্চের প্রথম শ্রেণির মাষ্টার (চালক) আব্দুর রউফ হাওলাদার (৫৪), দ্বিতীয় শ্রেণির মাষ্টার (চালক) সেলিম হাওলাদার (৫৪), ম্যানেজার ফারুক খান (৭০), এমভি তাসরিফ-৪ লঞ্চের প্রথম শ্রেণির মাষ্টার (চালক) মিজানুর রহমান (৪৮), দ্বিতীয় শ্রেণির মাষ্টার (চালক) মনিরুজ্জামান (২৮)।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ডিউটি অফিসার এসআই মোদাচ্ছের হোসেন বলেন, বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে এ ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। ঢাকা নদী বন্দরের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের যুগ্ম পরিচালক ইসমাইল হোসাইন বাদী হয়ে মামলা করেন।

মামলার এজহারে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার ২টা ৫৫ মিনিটে সদরঘাট টার্মিনালের ১১ নম্বর পল্টুনে এমভি তাসরিফ-৪ নোঙর করে থাকা অবস্থায় এমভি ফারহান-৬ এর চালক বেপরোয়া গতিতে লঞ্চ চালিয়ে ১১ নম্বর পন্টুনে ঢোকার সময় তাসরিফ লঞ্চকে ধাক্কা দেয়। এতে তাসরিফ লঞ্চের রশি ছিঁড়ে যায়। সেটি দ্রুত গতিতে এসে পন্টুনে অপেক্ষমাণ যাত্রীদের আঘাত করলে তারা নদীতে পড়ে যায়। এতে এক পরিবারের তিনজনসহ ৫ যাত্রীর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ফারহান এবং তাসরিফ লঞ্চের দায়িত্ব অবহেলা আছে।

মিডফোর্ড হাসপাতালে লাশের সুরতহালের দায়িত্বে থাকা সদরঘাট নৌ থানার এসআই কুমারেশ ঘোষ জানান, এক লঞ্চকে আরেক লঞ্চ ধাক্কা দেয়। ওই ধাক্কায় লঞ্চের মোটা রশি ছিঁড়ে মানুষের গায়ে ধাক্কা লেগেছে। আর এতেই হতাহতের ঘটনা ঘটে। মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

ঢাকা নদীবন্দর সদরঘাটে দায়িত্বে থাকা বিআইডব্লিউটিএ এর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মুহাম্মদ ইসমাইল হোসেন বলেন, ফারহান-৬ লঞ্চটি জোরে পার্কিং করতে যাওয়ায় তাসরিফের রশি ছিঁড়ে গেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হবে। এ দুর্ঘটনার পর এমভি ফারহান ও এমভি টিপুর যাত্রা বাতিল করেছে বিআইডব্লিউটিএ। এ ঘটনায় আমরা মামলা করেছি।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালের ১১ নম্বর পন্টুনের সামনে ঢাকা থেকে ভোলাগামী এমভি তাশরিফ-৪ ও এমভি টিপু-১৩ নামে দুটি লঞ্চ রশি দিয়ে পন্টুনে নোঙর করা ছিল। লঞ্চ দুটির মাঝখান দিয়ে ফারহান নামের আরেকটি লঞ্চ প্রবেশের চেষ্টা চালায়। এ সময় এম ভি ফারহান-৬ লঞ্চটি এম ভি টিপু-১৩ কে সজোরে ধাক্কা দেয়। পরবর্তীতে এম ভি টিপু-১৩ ধাক্কা দেয় এম ভি তাসরিফ-৪-কে। এ সময় এমভি তাসরিফ-৪ লঞ্চের রশি ছিঁড়ে যায়।

ছিঁড়ে যাওয়া সেই দড়িটিই পন্টুনের আশপাশে থাকা পাঁচজনকে সজোরে আঘাত করে। সেখানে গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে মিডফোর্ড হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানকার জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতরা হলেন- পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া থানার মাটিচোরা গ্রামের মৃত আব্দুল মালেকের ছেলে বিল্লাল (৩০), তার স্ত্রী মুক্তা (২৬), তাদের মেয়ে সাইমা (৩)। তারা তিনজন একই পরিবারের সদস্য। বাকি দুজন হলেন পটুয়াখালী সদরের জয়নাল আবেদিনের ছেলে রিপন হাওলাদার (৩৮) এবং ঠাকুরগাঁও সদরের নিশ্চিতপুর এলাকার আব্দুল্লাহ কাফীর ছেলে রবিউল (১৯)।

এ ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ। বিআইডব্লিউটিএর ক্রয় ও সংরক্ষণ পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম কমিটির আহ্বায়ক, নৌ সংরক্ষণ ও পরিচালন বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মো. আজগর আলী এবং বন্দর শাখার যুগ্ম পরিচালক মো. কবীর হোসেন কমিটির সদস্য।

কমিটি আগামী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে বিআইডব্লিউটিএ'র চেয়ারম্যানের কাছে প্রতিবেদন পেশ করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়াও বিআইডব্লিউটিএর পক্ষ হতে প্রতি মৃত ব্যক্তির নমিনির কাছে দাফন-কাফন বাবদ ২৫ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মোটরসাইকেলে ঘুরতে বের হওয়া ৪ কিশোরের প্রাণ গেল সড়কে
সদরঘাটে দুর্ঘটনা: দুই লঞ্চের মাস্টার ম্যানেজারসহ পাঁচজন আটক
সদরঘাটে লঞ্চ দুর্ঘটনা তদন্তে কমিটি, দুই লঞ্চের রুট পারমিট বাতিল

মন্তব্য

p
উপরে