× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Second phase of World Ijtema begins
google_news print-icon

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু

বিশ্ব-ইজতেমার-দ্বিতীয়-পর্ব-শুরু
টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের একাংশ। ছবি: নিউজবাংলা
তাবলিগ জামাতের দুপক্ষের মধ্যে বিরোধের কারণে এবারও বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গত ২ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হয় ৪ ফেব্রুয়ারি।

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের আনুষ্ঠানিকতা।

শুক্রবার বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতা শুরুর রীতি থাকলেও মজমা পরিপূর্ণ হওয়ায় বৃহস্পতিবার বাদ যোহর বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মাওলানা সাদ অনুসারী মুসল্লিদের ইজতেমা।

মাওলানা ইলিয়াস বিন শুক্রবার বাদ ফজর সাদ আম বয়ান করেন। তাৎক্ষণিকভাবে তা বাংলায় তরজমা করেন মাওলানা মনির বিন ইউসুফ।

সকাল ১০টায় ভারতের মাওলানা ইলিয়াস তালিমের মৌজু, জুমার আগে জুমার ফাজায়েলের ওপর ১০ মিনিট বয়ান করবেন মাওলানা মনির বিন ইউসুফ। জুমার পরে বয়ান করবেন শেখ মোফলে (আরবি), তাৎক্ষণিকভাবে তা বাংলায় তরজমা করবেন মাওলানা শেখ আব্দুল্লাহ্ মনসুর। আসরের পর বয়ান করবেন মাওলানা মোশাররফ। মাগরিবের পর বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ, তাৎক্ষণিকভাবে তা বাংলায় তরজমা করবেন মাওলানা জিয়া বিন কাশেম।

এদিকে বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে শুক্রবার বৃহৎ জুমার জামাত অনুষ্ঠিত হবে। দুপুর দেড়টায় জুমার জামাতে ইমামতি করবেন মাওলানা সাদ সাহেবের ছেলে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ।

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়ক মোহাম্মদ সায়েম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এবারের ইজতেমায় ভারতের দিল্লি মারকাজের মাওলানা সাদ কান্ধলভী না আসলেও এসেছেন তার তিন ছেলে। গত বুধবার মাওলানা সাদ কান্ধলভীর বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ, মেজো ছেলে মাওলানা সাঈদ ও ছোট ছেলে মাওলানা ইলিয়াসসহ ভারতের নিজামউদ্দিন মারকাজের ১৪ জনের একটি দল গত বুধবার সন্ধ্যায় টঙ্গীর ইজতেমা ময়দানে পৌঁছান।

বিশ্ব ইজতেমার মিডিয়া সমন্বয়ক মোহাম্মদ সায়েম জানান, বিশ্ব ইজতেমার এবারের দ্বিতীয় পর্বে ১২ থেকে ১৪ হাজার বিদেশি মেহমান যোগ দেয়ার কথা রয়েছে। এরই মধ্যে প্রায় পাঁচ হাজার বিদেশি মেহমান এবং দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে লাখো মানুষ টঙ্গীর ইজতেমা ময়দানে এসে পৌঁছেছেন।

গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. মাহবুব আলম জানান, প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বেও কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে।

তাবলিগ জামাতের দুপক্ষের মধ্যে বিরোধের কারণে এবারও বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গত ২ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হয় ৪ ফেব্রুয়ারি।

আরও পড়ুন:
নেত্রকোনায় ৩ দিনব্যাপী নারী ইজতেমা সমাপ্ত
আখেরি মোনাজাতে মুসলিম উম্মাহর শান্তি সমৃদ্ধি কামনা
ইজতেমায় মুসল্লির মৃত্যু বেড়ে ১০
ইজতেমা ময়দানে চলছে দ্বিতীয় দিনের বয়ান
বিশ্ব ইজতেমায় ৪৭ দেশের ২ হাজার মুসল্লি

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Bangladesh has set an example in religious harmony PM

বাংলাদেশ ধর্মীয় সম্প্রীতিতে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে: প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ ধর্মীয় সম্প্রীতিতে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে: প্রধানমন্ত্রী শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে শনিবার গণভবনে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ধর্মীয় গুরু ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: পিআইডি
শেখ হাসিনা বলেন, ‘অনেকেই চেষ্টা করে বাংলাদেশকে ভিন্ন পথে নিতে। কিন্তু সেটা নিতে পারবে না। আমাদের মন-মানসিকতা, বাংলাদেশের মানুষের মন খুব উদার। সবাই একসঙ্গে চলতেই আমরা পছন্দ করি। সেভাবেই আমরা চলব।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ উদার এবং তাদের চিন্তা-চেতনা অসাম্প্রদায়িক। ধর্মীয় সম্প্রীতির ক্ষেত্রে সারা বিশ্বে আমরা একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পেরেছি।’

শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে শনিবার গণভবনে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ধর্মীয় গুরু ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের দেশটাকে আমরা গড়ে তুলতে চাই। এখানে ধর্ম-বর্ণ বলে কোনো কথা নেই। আমরা মানুষের জন্য কাজ করি। মানুষের সার্বিক উন্নয়নে, তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আমরা কাজ করি।

‘আমরা চাই আমাদের দেশটা এগিয়ে যাক। বাংলাদেশটাতে সব সময় বিভিন্ন ধর্মের মানুষ নিয়েই আমাদের চলা। সে ক্ষেত্রে আমি মনে করি সারা বিশ্বে আমরা একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পেরেছি অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশকে গড়ে তোলায়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এখানে অনেকেই আবার চেষ্টা করে বাংলাদেশকে ভিন্ন পথে নিতে। কিন্তু সেটা নিতে পারবে না। আমাদের মন-মানসিকতা, বাংলাদেশের মানুষের মন খুব উদার। সবাই একসঙ্গে চলতেই আমরা পছন্দ করি। সেভাবেই আমরা চলব।

‘প্রত্যেক ধর্মেরই মূল কথা যেটা গৌতম বুদ্ধও বলে গেছেন- মানব কল্যাণ, জগতের সব প্রাণী সুখী হোক। আমাদেরও সেই কথা- সবাই সুখে থাকবে, সুন্দর জীবনযাপন করবে।’

আরও পড়ুন:
রিকশাচালক দিনমজুররাও ফ্ল্যাটে থাকবেন: প্রধানমন্ত্রী
বঙ্গবাজারে ঢাদসিকের চার প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন প্রধানমন্ত্রীর
বঙ্গবাজার বিপণি বিতান ও সোহরাওয়ার্দী শিশু উদ্যানসহ ৪ প্রকল্প উদ্বোধন শনিবার
বিমান ঘাঁটির বিনিময়ে ক্ষমতায় ফেরার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী
এমপি আনারের নিহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক

মন্তব্য

বাংলাদেশ
7 lakh 35 thousand animals are ready for sacrifice in Bogra

বগুড়ায় কোরবানির জন্য প্রস্তুত ৭ লাখ ৩৫ হাজার পশু

বগুড়ায় কোরবানির জন্য প্রস্তুত ৭ লাখ ৩৫ হাজার পশু বগুড়ায় খামারগুলোতে কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে পশু। বগুড়া সদরের দোবাড়িয়া গ্রাম থেকে তোলা। ছবি: নিউজবাংলা
কোরবানিযোগ্য পশুর মধ্যে ২ লাখ ৭০ হাজার ৪১টি গরু, ৪ লাখ ২২ হাজার ৬৫৭টি ছাগল, ৩৯ হাজার ৮৫১টি ভেড়া ও গাড়ল এবং ২ হাজার ২৬৬টি মহিষ রয়েছে।

ঈদুল আজহা সামনে রেখে বগুড়া জেলায় কোরবানির জন্য ৭ লাখ ৩৫ হাজার পশু প্রস্তুত রয়েছে, যা গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি। ফলে জেলার চাহিদা মিটিয়ে অন্য জেলাতে বিক্রি হতে পারে এসব পশু। গত বছরের চেয়ে এ বছর বেড়েছে খামারির সংখ্যাও। ঈদকে ঘিরে খামারিরা এখন লাভের আশায় দিন গুনছেন।

বগুড়া জেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলার ১২টি উপজেলায় ৪৮ হাজার ৪৫৩ জন খামারিসহ ব্যক্তি পর্যায়ে এসব পশু পালন করা হচ্ছে। গত বছর বগুড়ায় ৪৪ হাজার ৩২৯ জন খামারি ছিলেন, যারা ৭ লাখ ২৬ হাজার ৫৯৭টি কোরবানিযোগ্য পশু পালন করেন।

এবার রয়েছে ৭ লাখ ৩৪ হাজার ৪১৫টি গবাদিপশু। কোরবানিযোগ্য পশুর মধ্যে ২ লাখ ৭০ হাজার ৪১টি গরু, ৪ লাখ ২২ হাজার ৬৫৭টি ছাগল, ৩৯ হাজার ৮৫১টি ভেড়া ও গাড়ল এবং ২ হাজার ২৬৬টি মহিষ রয়েছে।

প্রস্তুতকৃত পশুর সঙ্গে এবার বেড়েছে চাহিদাও। গত বছর পশুর চাহিদা ছিল ৭ লাখ ৪ হাজার ৪৬০টি। চলতি বছর জেলায় কোরবানি পশুর চাহিদার বিপরীতে প্রস্তুতকৃত পশু উদ্বৃত্ত রয়েছে ২৯ হাজার ১৫৫টি।

জানা যায়, ওষুধ ও গো-খাদ্যের অতিরিক্ত দামের কারণে প্রস্তুতকৃত পশুর প্রত্যাশিত দাম নিয়ে শঙ্কায় আছেন খামারিরা। এদিকে কুরবানির পশুর দাম অতিরিক্ত বেড়ে গেলে সংকটে পড়বেন মধ্যবিত্ত কোরবানিরদাতারাও। সবমিলিয়ে চলতি বছরের কোরবানির পশু প্রস্তুতকারী খামারি ও কোরবানি দিতে আগ্রহী ব্যক্তিরা বাজার নিয়ন্ত্রণ ও ন্যায্য মূল্যের আশা করছেন।

বগুড়া জেলায় প্রাকৃতিক খাদ্য দিয়েই অস্ট্রেলিয়ার ফ্রিজিয়ান, আমেরিকার ব্রাহমা ক্রস, ভারতীয় শাহীওয়াল, নেপালের গীরসহ দেশীয় জাতের গরু-ছাগল পালন করে এখন ভালো দামের প্রত্যাশা করছেন খামারিরা। প্রতিবছরই ঈদ এলে গরু বিক্রি করে বাড়তি আয় করেন তারা। ছোট-বড় খামারের পাশাপাশি ঈদকে সামনে রেখে ৪ মাস ধরে অনেকেই গরু মোটাতাজা করে থাকেন।

খামারিরা বলছেন, চলতি বছর পশুখাদ্যের দাম ও শ্রমিকের মজুরিসহ অন্যান্য খরচ বেড়ে যাওয়ায় পশুপালন খরচও বেড়েছে কয়েক গুণ। এতে করে কোরবানির পশুর দাম গত বছরের চেয়ে বেশি হবে।

বগুড়ায় কোরবানির জন্য প্রস্তুত ৭ লাখ ৩৫ হাজার পশু

বগুড়া সদর উপজেলার দোবাড়িয়া গ্রামের খামারি ফারুক আহম্মেদ জানান, ২০১৭ সালে ৪টি গরু ও ৬টি ছাগল দিয়ে খামার শুরু করেন তিনি। এরপর প্রতি বছর তার খামারে গবাদিপশু বাড়তে থাকে। বর্তমানে তার খামারে কোরবানিযোগ্য গরুর সংখ্যা ৪৫টি ও ছাগলের সংখ্যা ৬২টি ।

কোরবানির জন্য তিনি ফ্রিজিয়ান, শাহীওয়াল, নেপালি গীর ও দেশি ষাঁড় প্রস্তুত করেছেন। খামারে সর্বোচ্চ ৪ লাখ টাকা থেকে সর্বনিম্ন দেড় লাখ টাকা মূল্যের গরু রয়েছে।

ছাগলের মধ্যে রয়েছে যমুনা পরী, তোতা পরী, হরিয়ানা ও দেশি ব্ল্যাক বেঙ্গল, প্রকারভেদে যার মূল্য ১ লাখ ২০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়া দেশি জাতের ছাগলও কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে, যেগুলোর মূল্য ২০ হাজার টাকা করে।

কোরবানির পশু ছাড়াও তার খামারে রয়েছে ৪টি দুধেল গাভী, যেগুলো থেকে প্রতিদিন গড়ে ৪০ লিটার দুধ পান তিনি। ছয়জন শ্রমিক তার খামার দেখাশুনা করেন। প্রতি মাসে খামারের পেছনে তার সব মিলিয়ে খরচ হয় প্রায় ৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা। বছর শেষে তিনি আয় করেন ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা।

বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোছা. নাছরিন পারভীন জানান, গত বছরের চেয়ে এবছর বগুড়ায় প্রস্তুতকৃত পশুর সংখ্যা বেড়েছে। এবার জেলায় যে পরিমাণ কোরবানির পশুর চাহিদা রয়েছে, তার চেয়ে প্রস্তুতকৃত কোরবানির পশুর উদ্বৃত্ত রয়েছে ২৯ হাজার ১৫৫টি।

তিনি জানান, আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে বগুড়ায় পশু প্রতিপালনের হার বেড়েছে। তাই কোরবানির পশুর কোনো সংকট হবে না এ জেলায়।

এছাড়া বগুড়ায় গবাদিপশু মোটাতাজাকরণে খামারি ও ব্যক্তি পর্যায়ে কেউ যেন ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্যাদি ব্যবহার না করেন, সেজন্য প্রচার চালানো হচ্ছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
কোরবানির চাহিদার চেয়েও প্রায় ২৩ লাখ বেশি গবাদিপশু প্রস্তুত
ঈদ-পরবর্তী সাতদিন বাইরের চামড়া ঢাকায় ঢুকতে পারবে না
দেশে পশু চিকিৎসায় প্রথমবারের মতো ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
34 741 Hajj pilgrims from Bangladesh arrived in Saudi

বাংলাদেশ থেকে ৩৪,৭৪১ হজযাত্রী সৌদি পৌঁছেছেন

বাংলাদেশ থেকে ৩৪,৭৪১ হজযাত্রী সৌদি পৌঁছেছেন ছবি: সংগৃহীত
হজ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় চার হাজার ৫৬২ ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৮০ হাজার ৬৮৫ জন হজযাত্রী সৌদি আরব যাবেন। এর মধ্যে ৮৪ হাজার ২৪ জনের নামে ভিসা ইস্যু হয়েছে। ১০ জুন পর্যন্ত হজ ফ্লাইট পরিচালিত হবে।

পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ থেকে ৮৭টি ফ্লাইটে ৩৪ হাজার ৭৪১ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন।

বুধবার এক হজ বুলেটিনে এই তথ্য জানিয়ে বলা হয়, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পরিচালিত ৩৯টি, সৌদি এয়ারলাইন্স পরিচালিত ২৮টি ও ফ্লাইনাস এয়ারলাইন্স পরিচালিত ২০টি হজ ফ্লাইটে মোট ৩৪ হাজার ৭৪১ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। তাদের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় তিন হাজার ৭৪৭ ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩০ হাজার ৯৯৪ জন হজযাত্রী সৌদি গেছেন।

হজ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় চার হাজার ৫৬২ ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৮০ হাজার ৬৮৫ জন হজযাত্রী সৌদি আরব যাবেন। এর মধ্যে ৮৪ হাজার ২৪ জনের নামে ভিসা ইস্যু হয়েছে।

বাংলাদেশ হজ অফিস মক্কার কনফারেন্স কক্ষে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এবং প্রশাসনিক প্রথম দলের দলনেতা আবদুল আউয়াল হাওলাদারের সভাপতিত্বে হজ প্রশাসনিক দলের এক নিয়মিত সমন্বয় সভা হয়েছে।

অপরদিকে হজ চিকিৎসক দলের উপ-দলনেতা এবং হজ আইটি দলের দলনেতা মক্কায় অবস্থিত হাসপাতালগুলো পরিদর্শন করেন এবং বাংলাদেশ থেকে আগত ভর্তিকৃত হজযাত্রীদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে খোঁজ-খবর নেন।

চলতি হজ মৌসুমে এ পর্যন্ত মোট তিনজন হজযাত্রী সৌদি আরবে ইন্তেকাল করেছেন। তাদের মধ্যে মক্কায় দুজন ও মদিনায় একজন হজযাত্রী ইন্তেকাল করেন। সৌদি আরবের চিকিৎসা কেন্দ্র থেকে চার হাজার ৩৮৯ জন চিকিৎসা নিয়েছেন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এ বছর ১৬ জুন পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। ১০ জুন পর্যন্ত হজ ফ্লাইট পরিচালিত হবে। ৯ মে প্রথম হজ ফ্লাইট শুরু হয়। ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২০ জুন।

আরও পড়ুন:
চট্টগ্রাম থেকে বিমানের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন
হজযাত্রীদের থেকে কোরবানির টাকা নিতে পারবে না এজেন্সি
হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব
সৌদিতে কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Happy Buddha Purnima today

শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা আজ

শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা আজ
রাজধানীসহ দেশজুড়ে বৌদ্ধ বিহারগুলোতে বুদ্ধ পূজা, প্রদীপ প্রজ্বলন, শান্তি শোভাযাত্রা, ধর্মীয় আলোচনা সভা, প্রভাত ফেরি, সমবেত প্রার্থনা, আলোচনা সভা, ধ্যান ও বুদ্ধ পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়াও মানব জাতির সর্বাঙ্গীন শান্তি ও মঙ্গল কামনায় বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে।

বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বুদ্ধ পূর্ণিমা আজ বুধবার। যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সারা দেশে এই উৎসব উদযাপন করবেন বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা।

এ উপলক্ষে রাজধানীসহ দেশজুড়ে বৌদ্ধ বিহারগুলোতে বুদ্ধ পূজা, প্রদীপ প্রজ্বলন, শান্তি শোভাযাত্রা, ধর্মীয় আলোচনা সভা, প্রভাত ফেরি, সমবেত প্রার্থনা, আলোচনা সভা, ধ্যান ও বুদ্ধ পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়াও মানব জাতির সর্বাঙ্গীন শান্তি ও মঙ্গল কামনায় বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। এ দিবস উপলক্ষে সরকারি ছুটি উপভোগ করছে দেশ।

বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বঙ্গভবনের ক্রেডেনশিয়াল হলে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সংবর্ধনা দেবেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন।

মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন জানিয়েছেন, বুধবার বিকেল ৪টায় বৌদ্ধ নেতাদের সংবর্ধনা শুরু হবে। রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন গণমাধ্যমের মাধ্যমে সারা দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মানুষের উদ্দেশে ভাষণ দেবেন।

বাংলাদেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষে বৌদ্ধ নেতাদের শুভেচ্ছাও জানাবেন রাষ্ট্রপতি ও তার সহধর্মিণী ড. রেবেকা সুলতানা। বৌদ্ধ ধর্মীয় নেতারাও বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতিকে ফুলের তোড়া উপহার দেবেন।

আট শতাধিক অতিথিসহ এক হাজারেরও বেশি ব্যক্তি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান, পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নেতারা ও বঙ্গভবনের সংশ্লিষ্ট সচিবগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন।

এ উপলক্ষে টেলিভিশনে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার এবং জাতীয় পত্রিকাসমূহে বিশেষ ক্রোড়পত্র ও নিবন্ধ প্রকাশিত হবে।

শুভেচ্ছা বাণীতে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বলেন, ‘একটি সৌহার্দ্য ও শান্তিপূর্ণ বিশ্ব প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মহামতি গৌতম বুদ্ধ আজীবন সাম্য ও মৈত্রীর বাণী প্রচার করে গেছেন। সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ‘অহিংস পরম ধর্ম’- বুদ্ধের এই অমিয় বাণী আজও সমভাবে প্রযোজ্য।

‘আজকের এই অশান্ত ও অসহিষ্ণু বিশ্বে মূল্যবোধের অবক্ষয় রোধ, যুদ্ধ-বিগ্রহ, ধর্ম-বর্ণ-জাতিগত হানাহানি রোধসহ সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় মহামতি বুদ্ধের দর্শন ও জীবনাদর্শ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।’

শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মৈত্রীময় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব। মহামতি গৌতম বুদ্ধের শুভ জন্ম, বোধিজ্ঞান লাভ ও মহাপরিনির্বাণ এ উৎসবের সঙ্গে গভীরভাবে সম্পৃক্ত।’

শুভেচ্ছা বাণীতে দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায়সহ সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে সমুন্নত রাখতে বদ্ধপরিকর। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রণীত আমাদের সংবিধানে সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমঅধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, “আমরা বিশ্বাস করি- ‘ধর্ম যার যার, উৎসব সবার’। সকল শ্রেণি-পেশা ও সম্প্রদায়ের জনগণের উন্নয়নই আমাদের প্রধান লক্ষ্য।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মহামতি গৌতম বুদ্ধ লোভ, দ্বেষ, লালসাকে অতিক্রম করে জীবন ও কর্মের মাধ্যমে মানবজগতকে আলোকিত করেছেন। তিনি ছিলেন সত্য ও সুন্দরের আদর্শে উজ্জীবিত।’

তিনি বলেন, “আমরা সকল সম্প্রদায়ের মানুষের মর্যাদাপূর্ণ ও নিরাপদ জীবনযাপন নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীগণ যুগ যুগ ধরে বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সমানভাবে অংশগ্রহণ করে আসছেন। আমি আশা করি, গৌতম বুদ্ধের আদর্শ ধারণ ও লালন করে সকলে বাংলাদেশকে শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখবেন।”

গৌতম বুদ্ধের শুভ জন্ম, বোধিজ্ঞান ও নির্বাণ লাভ- এই ত্রিস্মৃতি বিজড়িত বৈশাখী পূর্ণিমা বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব।

বিশ্বের সকল বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের কাছে এটি ‘বুদ্ধ পূর্ণিমা’ নামে পরিচিত।

বৌদ্ধ ধর্মমতে, আড়াই হাজার বছর আগে এই দিনে মহামতি গৌতম বুদ্ধের আবির্ভাব হয়েছিল। তার জন্ম, বোধিলাভ ও মহাপ্রয়াণ বৈশাখী পূর্ণিমার দিনে হয়েছিল বলে এর অপর নাম দেয়া হয় ‘বুদ্ধ পূর্ণিমা’।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Kubi student temporarily expelled for insulting religion

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে কুবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে কুবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ফাইল ছবি
এ ঘটনায় স্বপ্নীলকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার স্কাউট থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি ও ইসলাম ধর্ম অবমাননার দায়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ২০২১-২২ বর্ষের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল মুখার্জিকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এর আগে তার কাছে ধর্ম অবমাননার কারণ ব্যাখ্যা চেয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত স্বপ্নীলকে সাময়িক বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো. আমিরুল হক চৌধুরী। রেজিস্ট্রারের স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তিতে নিউজবাংলার হাতে এসেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল মুখার্জীকে গত ১৫ মে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইসলাম ধর্মের অবমাননা ও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে কটুক্তি করার বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয়। কিন্তু নোটিশের জবাব প্রদান না করায় কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর থেকে বিভিন্ন সময়ে স্বপ্নীলের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তির অভিযোগ উঠেছে। প্রথমে বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার সহপাঠী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ ঝাড়েন। পরে এ নিয়ে গত বুধবার শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে প্রক্টর বরাবর তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের আবেদন জানান।

স্বপ্নীলের বাড়ি যশোর জেলার কেশবপুরে। সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ, বাংলাদেশের কার্যনির্বাহী সংসদ ২০২৩-২৪ এর প্রচার সম্পাদক তিনি।

এ ঘটনায় তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার স্কাউট থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The agency will not be able to collect the Qurbani money from the pilgrims

হজযাত্রীদের থেকে কোরবানির টাকা নিতে পারবে না এজেন্সি

হজযাত্রীদের থেকে কোরবানির টাকা নিতে পারবে না এজেন্সি
হজ এজেন্সিগুলোকে হজ ফ্লাইট ডাটা যথাসময়ে এন্ট্রি করতে হবে। এছাড়া হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টন না পাঠানোসহ আরও কিছু বিষয়ে হজ এজেন্সিগুলোকে হুঁশিয়ার করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

হজযাত্রীদের কাছ থেকে কোরবানির অর্থ না নেয়ার জন্য হজ এজেন্সিগুলোকে সতর্ক করে দিয়েছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। একইসঙ্গে হজ ফ্লাইট ডাটা যথাসময়ে এন্ট্রি করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টন না পাঠানোসহ আরও কিছু বিষয়ে হজ এজেন্সিগুলোকে হুঁশিয়ার করেছে মন্ত্রণালয়।

রোববার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জুম প্লাটফর্মে সৌদি হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের জেদ্দা এয়ারপোর্ট সার্ভিসের মহাপরিচালক আব্দুর রহমান ঘ্যানামের সঙ্গে সভা শেষে এসব নির্দেশনা জারি করে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

ওই সভায় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ছাড়াও বাংলাদেশ হজ অফিস, মক্কা ও জেদ্দার কর্মকর্তা এবং হজ এজেন্সির মালিকরা অংশ নেন।

মন্ত্রণালয় সোমবার এ বিষয়ে একটি নির্দেশনা পত্র জারি করেছে।

ওই সভায় সৌদি আরবের পক্ষ থেকে বলা হয়, হজ প্যাকেজে উল্লেখ থাকা সত্ত্বেও অনেক এজেন্সি হজযাত্রীদের কাছ থেকে হজে যাওয়ার আগে কুরবানি বাবদ অর্থ নিচ্ছে। হজযাত্রী তার ইচ্ছামাফিক সৌদি সরকারের ব্যাংকের কুপন কিনে বা তার নিজের ব্যবস্থাপনায় কুরবানি সম্পন্ন করবেন।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্দেশনায় বলেছে, এজেন্সি কোনোভাবেই কুরবানির টাকা নিতে পারবে না। এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট এজেন্সির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হজ এজেন্সি কর্তৃক ফ্লাইট ডাটা সঠিকভাবে ও নিয়মিত সৌদি ই-হজ সিস্টেমে এন্ট্রি না দেয়ায় সভায় অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়। এতে বলা হয়, হজ ফ্লাইট ডাটা এন্ট্রি না দেয়ার কারণে মদিনা ও জেদ্দা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ হজযাত্রীদের প্রয়োজনীয় তথ্য জানতে পারছে না। ফলে কোন ফ্লাইটে কতজন হজযাত্রী আসছে, তারা কোন মোয়াল্লেমের হজযাত্রী এবং কোন হোটেল বা বাড়িতে তাদের আবাসন ইত্যাদি বিষয়ে সমস্যা হচ্ছে।

এছাড়া হজযাত্রী ও তাদের লাগেজ পরিবহনের ক্ষেত্রেও সমস্যা হচ্ছে। মোয়াল্লেমের প্রতিনিধিও হোটেল বা বাড়িতে সার্ভিস দেয়ার জন্য উপস্থিত থাকছে না। এ কারণে হজযাত্রীদের কাঙ্ক্ষিত সেবা দেয়া যাচ্ছে না এবং রুট-টু-মক্কার সুবিধা থেকে হজযাত্রীরা বঞ্চিত হচ্ছেন।

সভায় হজ ফ্লাইট যাত্রা শুরুর আগেই সঠিকভাবে ফ্লাইট ডাটা সৌদি ই-হজ সিস্টেমে এন্ট্রি করার অনুরোধ করা হয়। অন্যথায় সংশ্লিষ্ট এজেন্সির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় হজ এজেন্সিগুলোকে আরও কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি সম্পর্কে সতর্ক করেছে। বলা হয়েছে, কিছু এজেন্সি তাদের হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টন পাঠিয়েছে, যা জেদ্দা বিমান বন্দরে আটক হয়েছে। এতে দেশের সম্মান নষ্ট হচ্ছে। অনেক এজেন্সি হজযাত্রীদের সঙ্গে হজ গাইড বা প্রতিনিধি না পাঠানোর কারণে হজযাত্রীরা বিড়ম্বনায় পড়ছেন।

আরও পড়ুন:
হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব
সৌদিতে কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা
ভিসা ছাড়াই ওমরাহ করতে পারবেন ২৯ দেশের নাগরিক

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Inauguration of Bimans Hajj flight from Chittagong

চট্টগ্রাম থেকে বিমানের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন

চট্টগ্রাম থেকে বিমানের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন ছবি: সংগৃহীত
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইটে ৩৯৮ জন যাত্রী মদিনার পথে যাত্রা করেন।

চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন হয়েছে মঙ্গলবার। এদিন সকালে বিমানের ডেডিকেটেড হজ ফ্লাইটটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে হজযাত্রীদের নিয়ে সৌদি আরবের উদ্দেশে যাত্রা করে।

ফ্লাইটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইটে ৩৯৮ জন যাত্রী মদিনার পথে যাত্রা করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পরিচালক (বিপণন ও বিক্রয়) মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তাসলিম আহমেদ ও বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) বোসরা ইসলাম।

আরও পড়ুন:
হজযাত্রীদের থেকে কোরবানির টাকা নিতে পারবে না এজেন্সি
হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব
সৌদিতে কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা
ভিসা ছাড়াই ওমরাহ করতে পারবেন ২৯ দেশের নাগরিক

মন্তব্য

p
উপরে