× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Simultaneous partners including BNP want to cancel the schedule
google_news print-icon
দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন

তফসিল বাতিল চায় বিএনপিসহ যুগপতের সঙ্গীরা

তফসিল-বাতিল-চায়-বিএনপিসহ-যুগপতের-সঙ্গীরা
রাজধানীর তোপখানা মোড়ের শিশুকল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার বিকেলে দলগুলোর যৌথসভায় বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। ছবি: সংগৃহীত
বিএনপিসহ যুগপৎ আন্দোলনে থাকা দলগুলোর বিবৃতিতে বলা হয়, ‘জনগণের ভোটের গণতান্ত্রিক অধিকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া সমগ্র এই নির্বাচনের তফসিলকে আমরা প্রত্যাখান করছি। আমরা অনতিবিলম্বে ৭ জানুয়ারি ঘোষিত নির্বাচনি তফসিল বাতিলের দাবি জানাচ্ছি। একই সাথে আমরা অবাধ, নিরপেক্ষ, অংশগ্রহণমূলক ও বিশ্বাসযোগ্য জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য অনতিবিলম্বে আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ ও নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ অন্তর্বর্তীকালীন সরকার প্রতিষ্ঠায় কার্যকরী রাজনৈতিক উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানাই।’

আগামী বছরের ৭ জানুয়ারি জাতীয় নির্বাচন আয়োজনে নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল প্রত্যাখ্যান করে তা বাতিলের দাবি জানিয়েছে সরকার পতনের এক দফা দাবিতে বিএনপি ও দলটির সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলনে থাকা দলগুলো।

রাজধানীর তোপখানা মোড়ের শিশুকল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার বিকেলে দলগুলোর যৌথসভায় এমন দাবি জানানো হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিএনপি মিডিয়া সেলের পক্ষে শাকিব আনোয়ারের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আমরা রাজপথে সক্রিয় বিরোধী রাজনৈতিক দলসমূহ দীর্ঘদিন ধরে দেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচনের জন্য আন্দোলন করে আসছি। এ জন্য আমরা দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ, নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ অন্তর্বর্তীকালীন সরকার, জাতীয় সংসদের বিলুপ্তি, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ হয়রানিমূলক রাজনৈতিক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত ও গ্রেপ্তারকৃত সকল রাজবন্দির মুক্তি এবং বিদ্যমান অগণতান্ত্রিক রাষ্ট্র, সরকার ব্যবস্থা ও সংবিধান সংস্কারের দাবিতে যুগপৎ ধারায় এক আন্দোলনে আছি।

‘এই দাবিগুলো ইতিমধ্যে গণদাবিতে পরিণত হয়েছে। গণদাবির এই আন্দোলনে আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পরিকল্পিত সহিংসতা ও নাশকতা ঘটনা ঘটিয়ে সরকার ও সরকারি দল গত ২৮ অক্টোবর, ২০২৩ বিএনপিসহ বিরোধী দলসমূহের মহাসমাবেশ পণ্ড করে দেয়। বিএনপিসহ বিরোধীদের ওপর এই দায় চাপিয়ে গত এক মাস দমন-নিপীড়ন ও গ্রেপ্তারের পথে দেশব্যাপী তারা ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। সরকার ও সরকারি দলের এইসব নৃশংসতায় যারা প্রাণ হারিয়েছেন, তাদের জন্য আমরা গভীর শোক প্রকাশ করি। নিহত, আহত ও কারাবন্দিদের পরিবারের প্রতি আমরা সহমর্মিতা প্রকাশ করছি।’

সরকার একতরফা নির্বাচনের পাঁয়তারা করছে উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা বিস্ময়ের সাথে লক্ষ্য করছি সরকারের পদত্যাগের গণদাবিকে উপেক্ষা করে ২০১৪ ও ২০১৮ সালের মতো আরেকটি একতরফা নীলনকশার নির্বাচনের পাঁয়তারা করছে। সরকারের এই রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে সরকারের সহযোগী হিসেবে নির্বাচন কমিশন আগামী ৭ জানুয়ারি, ২০২৪ দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। পাতানো এই নির্বাচনের অংশ হিসেবে আজ ৩০ নভেম্বর কথিত নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখও নির্ধারণ করেছে।

‘জনগণের ভোটের গণতান্ত্রিক অধিকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া সমগ্র এই নির্বাচনের তফসিলকে আমরা প্রত্যাখান করছি। আমরা অনতিবিলম্বে ৭ জানুয়ারি ঘোষিত নির্বাচনি তফসিল বাতিলের দাবি জানাচ্ছি। একই সাথে আমরা অবাধ, নিরপেক্ষ, অংশগ্রহণমূলক ও বিশ্বাসযোগ্য জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য অনতিবিলম্বে আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ ও নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ অন্তর্বর্তীকালীন সরকার প্রতিষ্ঠায় কার্যকরী রাজনৈতিক উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানাই।

‘আমরা পরিষ্কার করে উল্লেখ করতে চাই যে, সরকার যদি জেদ, অহমিকা নিয়ে জবরদস্তি করে নির্বাচনের নামে আরেকটি তামাশা মঞ্চস্থ করতে চায়, তাহলে সরকারের এই অশুভ তৎপরতা প্রতিরোধ করা ছাড়া দেশবাসীর সামনে অন্য কোনো পথ থাকবে না। আমরা সরকার ও সরকারি দলের সকল ধরনের উসকানি, সহিংসতা ও পরিকল্পিত নাশকতা এড়িয়ে শান্তিপূর্ণভাবে চলমান গণআন্দোলন, গণসংগ্রামকে বিজয়ের পথে এগিয়ে নেয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাই। এই আন্দোলনে সকল বিরোধী রাজনৈতিক দল, শ্রেণি-পেশা ও সামাজিক সংগঠনকে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানাই।’

বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তফা জামাল হায়দারের সভাপতিত্বে এই সভায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, গণদলের চেয়ারম্যান এ টি এম গোলাম মাওলা চৌধুরী, জাগপা সভাপতি খন্দকার লুতফর রহমান, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক হাসনাত কাইয়ূম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহাসচিব মুফতি মুহিউদ্দিন ইকরাম, বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান এম এন শাওন সাদেকীসহ অনেকে।

আরও পড়ুন:
জাতীয় নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হওয়ার সম্ভাবনা নেই: টিআইবি
নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে ৩০ দল, মনোনয়নপত্র জমা ২৭৪১
অধিকাংশ প্রার্থীকে চেনেন না ভোটাররা
‘নৌকায় উঠে’ বিএনপি থেকে বহিষ্কার শাহজাহান ওমর
তৃণমূলের মনোনয়ন তালিকায় নাম, ‘জানেন না’ বিএনপি নেতা

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
There will be no gas in Moghbazar Hatirjheel Tejgaon till 12 midnight

মগবাজার হাতিরঝিল তেজগাঁওয়ে গ্যাস থাকবে না রাত ১২টা পর্যন্ত

মগবাজার হাতিরঝিল তেজগাঁওয়ে গ্যাস থাকবে না রাত ১২টা পর্যন্ত ফাইল ছবি
পাইপলাইনের জরুরি স্থানান্তর কাজের জন্য এদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মোট ১৫ ঘণ্টা এসব এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

ঢাকার অন্তত ১০টি এলাকায় বুধবার গ্যাসের সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

পাইপলাইনের জরুরি স্থানান্তর কাজের জন্য এদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মোট ১৫ ঘণ্টা এসব এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে রুট অ্যালাইনমেন্টের মধ্যে ইউটিলিটি প্রতিস্থাপন-অপসারণ প্রকল্পের আওতায় মগবাজার এলাকায় গ্যাস পাইপলাইনের জরুরি স্থানান্তর কাজ করা হবে। এ জন্য বুধবার সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মোট ১৫ ঘণ্টা মগবাজার, নয়াটোলা, মধুবাগ, তেজগাঁও, হাতিরঝিল, মীরেরবাগ, গাবতলা, গ্রিনওয়ে, পেয়ারাবাগ ও ইস্কাটনে (দিলু রোড-সংশ্লিষ্ট এলাকা) সব শ্রেণির গ্রাহকের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

একই কারণে উল্লিখিত সময়ে আশপাশের এলাকায় গ্যাসের স্বল্প চাপ বিরাজ করতে পারে। সাময়িক এই অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Residents are at serious health risk due to air pollution at its peak today

বায়ুদূষণে আজ শীর্ষে ঢাকা, মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে বাসিন্দারা

বায়ুদূষণে আজ শীর্ষে ঢাকা, মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে বাসিন্দারা ফাইল ছবি
দীর্ঘদিন ধরে বায়ু দূষণে ভুগছে ঢাকা। এর বাতাসের গুণমান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়।

সারা বিশ্বে বায়ুদূষণের তালিকায় বুধবার সকালে শীর্ষে উঠে এসেছে রাজধানী ঢাকা।

সকাল ৯টায় একিউআই স্কোর ২৭৪ নিয়ে বিশ্বের ‘সবচেয়ে অস্বাস্থ্যকর’ বাতাসের শহরের তালিকায় উঠে আসে জনবহুল এ শহর। খবর ইউএনবির

এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে বলা হয়েছে, ঢাকার বাতাসকে অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর শ্রেণিবদ্ধ করা হয়েছে, যা বাসিন্দাদের জন্য মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করছে।

চীনের শেনইয়াং, কিরগিজস্তানের বিশকেক এবং চীনের উহান যথাক্রমে ১৯৪, ১৭৬ এবং ১৬৯ একিউআই স্কোর নিয়ে তালিকার দ্বিতীয়, তৃতীয় এবং চতুর্থ স্থানে রয়েছে।

২০১ থেকে ৩০০ এর মধ্যে খুব অস্বাস্থ্যকর বলা হয়, ৩০১+ একিউআই স্কোরকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের ৫টি বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে। সেগুলো হলো- বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ ও ওজোন (ও৩)।

দীর্ঘদিন ধরে বায়ুদূষণে ভুগছে ঢাকা। এর বাতাসের গুণমান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে পরিবেশ অধিদপ্তর ও বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ঢাকার বায়ু দূষণের তিনটি প্রধান উৎস হলো- ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলো।

আরও পড়ুন:
ঢাকার বাতাস অস্বাস্থ্যকর, নিম্ন মানে নবম
ছুটির দিনেও অস্বাস্থ্যকর ঢাকার বাতাস, তালিকায় পঞ্চম
তালিকায় উন্নতি, তবু অস্বাস্থ্যকর ঢাকার বাতাস

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Gas leakage in Shahjahanpur burnt 7

শাহজাহানপুরে গ্যাস লিকেজ থেকে আগুনে দগ্ধ ৭

শাহজাহানপুরে গ্যাস লিকেজ থেকে আগুনে দগ্ধ ৭ শাহজাহানপুরে দগ্ধদের বার্ন ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ছবি: নিউজবাংলা
রাজধানীর শাহজাহানপুরের ঝিলপাড়ে পাঁচ তলাবিশিষ্ট ভবনের নিচতলার বাসায় গ্যাস লিকেজ থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা ও সন্ধ্যা ৬টার দিকে দু’দফায় আগুনের ঘটনা ঘটে। দগ্ধদের মধ্যে ছয়জনকে বার্ন ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

রাজধানীর শাহজাহানপুরে এক বাসায় গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে সৃষ্ট আগুনে ৭ জন দগ্ধ হয়েছেন। তাদেরকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে অবজারভেশনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

শাহজাহানপুর ঝিলপাড়ের ওই বাসায় মঙ্গলবার সকাল ৮টা ও সন্ধ্যা ৬টার দিকে দু’দফায় এই আগুনের ঘটনা ঘটে।

দগ্ধরা হলেন- মিন্টু হাওলাদার, তার মেয়ে মারিয়া ইশরাত, স্যানেটারি মিস্ত্রি মনির হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, আলী আকবর, বাচ্চু মিয়া ও সিরাজ শেখ।

শাহজাহানপুরে গ্যাস লিকেজ থেকে আগুনে দগ্ধ ৭

দগ্ধ আলী আকবর জানান, পাঁচ তলাবিশিষ্ট ভবনের নিচতলার বাসার রান্নাঘরে প্রায় সময়ই গ্যাসের গন্ধ পাওয়া যেত। মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে রান্না ঘরের পাশে হঠাৎ আগুন ধরে যায়। এ সময় মৃদু বিস্ফোরণের মতো শব্দ শোনা যায়। আগুনে বাচ্চু মিয়াসহ বাসার সবাই দগ্ধ হন। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে বার্ন ইনস্টিটিউটে নিয়ে আসা হয়।

বার্ন ইনস্টিটিউটের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জানান, গ্যাস লিকেজ থেকে সৃষ্ট আগুনে দগ্ধ হয়ে এখানে ছয়জন এসেছে। তাদের মধ‍্য মিন্টু হাওলাদারের শরীরের ৪০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। বাকিদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় দগ্ধ হয়েছে। সবাইকে অবজারভেশনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন:
শেরপুরে আগুনে পুড়ে দাদি-নাতির মৃত্যু
ভাসানচরে আগুন: দগ্ধ আরও এক রোহিঙ্গা শিশুর মৃত্যু
আগুন নিঃস্ব করল নিঃসঙ্গ বৃদ্ধ চা শ্রমিককে
বরিশালে রেস্তোরাঁয় আগুন, বিএম কলেজছাত্রী আহত
ভাসানচরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, ছয় শিশুসহ দগ্ধ ৯

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The last book fair has accumulated

জমে উঠেছে শেষ সময়ের বইমেলা

জমে উঠেছে শেষ সময়ের বইমেলা শেষ সময়ে জমে উঠেছে বইমেলা। ছবি: নিউজবাংলা
শেষ সময়ে এসে বইপ্রেমীদের মনে বিদায়ের সুর বাজতে শুরু করেছে। এই সময়ে ক্রেতাদের ভিড়ে মেলা প্রাঙ্গণ জমজমাট হয়ে উঠেছে।

মাসব্যাপী চলছে বাঙালির প্রাণের মেলা অমর একুশে বইমেলা। দেখতে দেখতে এ বছরের মেলা প্রায় শেষের পথে। আর মাত্র দুদিন পরই পর্দা নামবে অমর একুশে বইমেলার।

শেষ সময়ে এসে বইপ্রেমীদের মনে বিদায়ের সুর বাজতে শুরু করেছে। এই সময়ে ক্রেতাদের ভিড়ে মেলা প্রাঙ্গণ জমজমাট হয়ে উঠেছে।

রাজধানীর বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পহেলা ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয় ঐতিহ্যবাহী অমর একুশে বইমেলার। তবে বইয়ের দোকান সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বেশি হওয়ায় এই অংশেই দর্শনার্থীদের বেশি ভিড় দেখা যায়।

মঙ্গলবার বিকেলে মেলায় বেশ ভিড় লক্ষ্য করা যায়। মেলায় ক্রেতারা আসছেন, দেখছেন, বই কিনছেন। তবে অনেক দর্শনার্থীদের মেলা প্রাঙ্গণে আড্ডায় মেতে থাকতে দেখা যায়। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামতেই মেলায় বইপ্রেমীদের উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়।

এদিন লোকে লোকারণ্য হয়ে ওঠে মেলা প্রাঙ্গণ। বিভিন্ন বয়সের মানুষের হাতেই ছিল বইয়ের ব্যাগ। অন্যান্য দিনের মতো বেশি ভিড় দেখা যায় মেলার শিশু কর্ণার ও স্টলগুলোতে।

বইমেলার বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন বয়সী ক্রেতাদের ভিড়। তবে ক্রেতার থেকে দর্শনার্থীদের সংখ্যাই মেলায় বেশি। বিক্রিও হচ্ছে দেদারসে।
বইমেলা প্রাঙ্গণে এদিন যেন তিল ধারণের জায়গা নেই। সব বয়সের মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয় মেলা। লোকসমাগমে জমজমাট হয়ে ওঠে বইমেলা। স্টলগুলোতে বিক্রি বাড়ায় খুশি বইয়ের দোকানিরাও।

বাতিঘর, মাওলা ব্রাদার্স, কথা প্রকাশ, ঐতিহ্য, অন্যপ্রকাশ, আগামী প্রকাশনীসহ অধিকাংশ স্টল ও প্যাভিলিয়নে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় ছিল এদিন। ছোট প্রকাশনীগুলোতেও ছিল প্রচুর মানুষের সমাগম।

মঙ্গলবারের মেলায় তরুণ-তরুণীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এসেছেন তরুণ-তরুণীরা। কেউ এসেছেন পরিবার নিয়ে, বন্ধু-বান্ধবীর সঙ্গে, আবার কেউ এসেছেন প্রিয়জনকে সঙ্গে নিয়ে।

প্রকাশকরা বলছেন, মেলার শেষ সময়ে পছন্দের বই কিনতে ক্রেতাদের উপস্থিতি বাড়ছে। নানা শ্রেণি-পেশা ও বয়সী মানুষের পদচারণায় মুখরিত মেলা। এতে ব্যস্ত সময় পার করছেন স্টলের বিক্রয়কর্মীরা। অন্যদিকে লেখক-পাঠক আড্ডায় বইমেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান পরিণত হয়েছে মিলন মেলায়।

মেলার দর্শনার্থীরা বলছেন, দুই দিন পরে শেষ হয়ে যাবে মেলা। ফলে যারা নানা ব্যস্ততার কারণে এতোদিন মেলায় আসতে পারেননি, তারাও শেষ সময় এসে নিজেদের পছন্দের লেখকের বই কিনছেন।

মেলার বিভিন্ন স্টলের দায়িত্বরতদের সাথে কথা বলে জানা যায়, শেষ সময়ে এসে বেচাবিক্রি বেড়েছে, কমবেশি সবাই বই কিনছেন। তবে ক্রেতারা তাদের বাছাই করা তালিকা ধরেই পছন্দের লেখকের বই ক্রয় করছেন।

তাম্রলিপি প্রকাশনীতে তাশফিকালের লেখা সামিনব্বই দশকের ভালোবাসা বইটি কিনছিলেন ফৌজিয়া আফিয়া। তিনি বলেন, প্রথম বইমেলায় এসেছি। যদিও শেষ সময় তবুও ইচ্ছা আছে বেশ কয়েকটা বই কেনার।

শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ছোট গল্পের বই বিক্রি করা হচ্ছে ভাষাপ্রকাশ প্রকাশনীতে। বইটি কিনছিলেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী রাহি বুশরা। তিনি বলেন, ছোট ভাইকে উপহার দেবার জন্যই বইটি কিনলাম।

অনন্যা প্রকাশনের সর্বাধিক বিক্রিত বই হুমায়ুন আহমেদের হিমু সমগ্র। স্মিতা দেবনাথ নামে এক চাকরিজীবী কেনেন বইটি। তিনি বলেন, হুমায়ুন আহমেদ স্যার চির যৌবনা। স্যারের বই সংগ্রহে রাখার জন্যই কেনা।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে বন্ধুদের সঙ্গে মেলায় এসেছেন রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের শিক্ষার্থী জুবায়ের হোসেন শান্ত। তিনি বলেন, এবার মেলায় এর আগে দুই দিন এসেছি। তবে খুব বেশি বই কেনা হয়নি। আমরা এবার সব বন্ধুরা একসঙ্গে মেলায় এসেছি। সবাই-সবাইকে একটি করে বই উপহার দিয়েছি। এছাড়া সবাই নিজেদের পছন্দের বইগুলোও কিনেছি।

ঢাকা কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলাম এবছর প্রথমবারের মতো মেলায় এসেছেন। তিনি বলেন, দিনের বেশিভাগ সময় টিউশনি করে সময় পার হয়ে যায়। ফলে এবারের মেলায় আসা হয়নি। এজন্য সকালে একটি টিউশনি করার পর বাকি দুইটি থেকে ছুটি নিয়ে মেলায় এসেছি।
মাওলা ব্রাদার্সের বিক্রয়কর্মী রুহুল সরকার বলেন, মেলা প্রায় শেষের দিকে। বেশ কয়েক দিন ধরে মেলায় মানুষের উপস্থিতি আগের তুলনায় অনেক বেড়েছে। এ কারণে আমাদের বিক্রিও বেড়েছে।

অন্যপ্রকাশের বিক্রয়কর্মী আশিক মাহমুদ বলেন, আমাদের প্রকাশনী থেকে নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের বেশিরভাগ বই ছাপানো হয়। এজন্য আমাদের স্টলে হুমায়ূনপ্রেমীদের ভীড় সবসময় একটু বেশিই থাকে, বিক্রিও হয় অনেক।

পাঞ্জেরী প্রকাশনীর বিক্রেতা অনামিকা শিকদার জানান, আমাদের এখানে প্রতিদিন প্রায় ৩০০ বই বিক্রি হচ্ছে। আগে যেখানে পঞ্চাশ হাজার টাকার বই বিক্রি হতো, সেখানে এখন লাখ ছুঁই ছুঁই অবস্থা। বিক্রি বেশ ভালো চলছে।

অনুপম প্রকাশনীর প্রকাশক মিলন কান্তি নাথ বলেন, শেষ সময়ে ক্রেতা বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। সবসময় এমনটাই হয়ে আসছে। বিক্রি নিয়ে আমাদের সন্তুষ্টির কিছু নেই। কেননা বইয়ের বিক্রি সংখ্যা কিন্তু তেমন নয়। আমরা যতটা আশা করছি বা সবাই যা ভাবছে বাস্তবে তা হচ্ছে না।

শব্দশৈলীর প্রকাশক ইফতেখার আমীন বলেন, সারা বছর যে বই আমরা বিক্রি করি তার একটা বড় অংশই মেলায় বিক্রি হয়। আর সেই বিক্রিটাই হয় মেলার শেষ সময়ে। স্বভাবতই আমরা খুব ব্যস্ত সময় পার করছি। তবে আমরা এতোটাও সন্তুষ্ট হতে পারিনি। আশা করছি শেষ দুই দিন বেচাকেনা ভালো হবে।

অমর একুশে বইমেলার ২৭তম দিন মঙ্গলবার মেলা শুরু হয় বিকেল তিনটায় এবং চলে রাত নয়টা পর্যন্ত। এদিন নতুন বই এসেছে ৯৫টি। বিকেল চারটায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় স্মরণ: সেলিম আল দীন শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন লুৎফর রহমান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন রশীদ হারুন এবং জাহিদ রিপন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নাট্যজন নাসিরউদ্দিন ইউসুফ।

প্রাবন্ধিক বলেন, বাংলা নাটকের ইতিহাসে সেলিম আল দীনের অবদান অবিস্মরণীয়। তিনি সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় অস্থির পরিস্থিতিতে প্রকৃত বাস্তবকে বিশ্বস্ততার সঙ্গে উপস্থাপন করাকেই তার কর্তব্য বলে মনে করেছেন। স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক-রাজনৈতিক চিত্র তার নাটকে মূর্তরূপ লাভ করেছে। নাটক রচনাকালে তার চেতনার ভূগোল তৈরি হয়েছে সমগ্র প্রকৃতি, মানুষ, জনপদ, জীবন এবং গ্রামীণ ও নাগরিক সমাজের বিদ্যমান দ্বন্দ্বের প্রেক্ষাপটে।

আলোচকরা বলেন, সচেতন নাট্যকার হিসেবে সেলিম আল দীন সামাজিক ও রাজনৈতিক বাস্তবতাকে উপেক্ষা করতে পারেননি। তার নাটকের ভেতর সমকালীন বাস্তবতার চিত্র উন্মোচিত হয়েছে। সমাজ-চেতনা এবং পরিবেশ-পরিস্থিতির পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে সেলিম আল দীনের নাটকেও বিবর্তন এসেছে। তিনি এ অঞ্চলের শিল্পরীতি ও শিল্পদর্শনকে সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যের দিকে চালিত করেছেন এবং বাঙালির নাট্য- সংস্কৃতি ও নাট্যযাত্রার পথকে সুগম করার জন্যে আজীবন কাজ করে গেছেন।

সভাপতির বক্তব্যে নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বলেন, সেলিম আল দীন রাজনীতি ও মানুষকে একীভূত করে তার নাট্যভূমি নির্মাণ করেছেন। কোনো নির্দিষ্ট রাজনৈতিক মতবাদের পক্ষাবলম্বন না করে শিল্পীর নির্মোহ অবস্থান থেকে তিনি নাট্যচর্চা করেছেন।

বইমেলায় হুমায়ুন আজাদকে স্মরণ

বহুমাত্রিক লেখক হুমায়ুন আজাদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার বার্ষিকীতে এদিন বিকেল পাঁচটার দিকে হুমায়ুন আজাদ দিবস পালন উপলক্ষে লেখক-পাঠক ফোরামের উদ্যোগে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বইমেলার তথ্যকেন্দ্রের সামনে এক স্মরণসভার আয়োজন করা হয়।

বিশিষ্ট প্রকাশক ওসমান গনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। বক্তৃতা প্রদান করেন কবি মোহন রায়হান, কবি আসলাম সানী, প্রকাশক মাজহারুল ইসলাম প্রমুখ।

আরও পড়ুন:
বইমেলা ২ দিন বাড়ল
ক্যাটালগ দেখে ‘পছন্দের’ বই সংগ্রহে বইপ্রেমীরা
প্রাণের বইমেলায় বিদায়ের সুর

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The book fair extended by 2 days

বইমেলা ২ দিন বাড়ল

বইমেলা ২ দিন বাড়ল
এর আগে মেলার শেষ দিন ২৯ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার নির্ধারিত থাকায় মেলা আরও দুইদিন বাড়িয়ে শুক্রবার এবং শনিবারও চালু রাখার দাবি জানিয়ে উঠেছিল। বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশনা সমিতির নেতারা ও বিভিন্ন প্রকাশনীর প্রকাশকেরা এ দাবি জানান।

দুইদিন বাড়ল অমর একুশে বইমেলার সময়। আগামী ২ মার্চ শেষ হবে এবারের বইমেলা।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক মুহম্মদ নূরুল হুদা নিউজবাংলাকে মঙ্গলবার রাতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনক্রমে বইমেলার সময় দুদিন বাড়ানো হয়েছে। আমরা এটি মঙ্গলবার মাইকে ঘোষণা করে দিয়েছি। বুধবার চিঠি ইস্যু করা হবে।

এর আগে মেলার শেষ দিন ২৯ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার নির্ধারিত থাকায় মেলা আরও দুইদিন বাড়িয়ে শুক্রবার এবং শনিবারও চালু রাখার দাবি জানিয়ে উঠেছিল। বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশনা সমিতির নেতারা ও বিভিন্ন প্রকাশনীর প্রকাশকেরা এ দাবি জানান।

অন্বেষা প্রকাশনীর প্রকাশক শাহাদাত হোসেন বলেছিলেন, পাঠকরা বিভিন্ন পেশায় জড়িত থাকায় সরকারি ছুটির দিনগুলোতে মেলায় উনারা আসার একটু বেশি সুযোগ পান। এবার যেহেতু বৃহস্পতিবারেই মেলা শেষ হচ্ছে তাই দুইদিন বাড়িয়ে শুক্রবার আর শনিবারও যদি মেলা থাকে তাহলে পাঠকরা আসার সুযোগ পেতেন। আমাদেরও একটু বেশি ভালো বিক্রি হতো। তাই আমরা চাই যেন আর দুইটি দিন বইমেলা বাড়ানো হোক।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Death of prison guard due to electrocution

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কারারক্ষীর মৃত্যু

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কারারক্ষীর মৃত্যু
সোমবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে আহত হন তিনি। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত সাড়ে দশটার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে পানির মোটর চালু করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক কারারক্ষী মারা গেছেন।

সোমবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে আহত হন তিনি। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত সাড়ে দশটার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

৪০ বছর বয়সী আমজাদ হোসেন কাশিমপুর কারাগারে কারারক্ষী হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

আমজাদকে হাসপাতালে নিয়ে আসা তার ভায়রা মো. নুরুল ইসলাম বলেন, আমার ভায়রা আমজাদ কাশিমপুর কারাগারে কারারক্ষী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ছুটিতে বাড়িতে আসেন।

তিনি বলেন, নিজের জমির বাউন্ডারি ওয়ালের গাঁথুনিতে পুকুর থেকে পানি দেয়ার জন্য মোটরের সুইচে চাপ দিলে বিদ্যুস্পৃষ্ট হয়ে তিনি পুকুর পাড়ে লুটিয়ে পড়েন, পরে অচেতন অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে ঘোষণা করেন।

আমজাদের গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও থানার নোয়াকান্দি গ্রামে। তিনি আবদুর রশিদের ছেলে, তাদের বর্তমান ঠিকানা নানাখী উত্তরপাড়া গ্রাম, সোনারগাঁও, নারায়ণগঞ্জ। এক ছেলে এক মেয়ের জনক ছিলেন আমজাদ।

ঢামেক পুলিশ ক‍্যাম্পের ইনচার্জ মোহাম্মদ বাচ্চু মিয়া বলেন, কারারক্ষী আমজাদের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার দিকে গ্রামের বাড়ি সোনারগাঁও নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিষয়টি সোনারগাঁও থানায় জানানো হয়েছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Areas of Dhaka where there will be no gas for 15 hours on Wednesday

ঢাকার যেসব এলাকায় বুধবার ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না

ঢাকার যেসব এলাকায় বুধবার ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না
বুধবার সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মোট ১৫ ঘণ্টা মগবাজার, নয়াটোলা, মধুবাগ, তেজগাঁও, হাতিরঝিল, মীরেরবাগ, গাবতলা, গ্রিনওয়ে, পেয়ারাবাগ ও ইস্কাটনে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

ঢাকার অন্তত ১০টি এলাকায় বুধবার গ্যাসের সরবরাহ থাকবে না। পাইপলাইনের জরুরি স্থানান্তর কাজের জন্য এদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মোট ১৫ ঘণ্টা এসব এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে রুট অ্যালাইনমেন্টের মধ্যে ইউটিলিটি প্রতিস্থাপন-অপসারণ প্রকল্পের আওতায় মগবাজার এলাকায় গ্যাস পাইপলাইনের জরুরি স্থানান্তর কাজ করা হবে। এ জন্য বুধবার সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মোট ১৫ ঘণ্টা মগবাজার, নয়াটোলা, মধুবাগ, তেজগাঁও, হাতিরঝিল, মীরেরবাগ, গাবতলা, গ্রিনওয়ে, পেয়ারাবাগ ও ইস্কাটনে (দিলু রোড-সংশ্লিষ্ট এলাকা) সব শ্রেণির গ্রাহকের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

একই কারণে উল্লিখিত সময়ে আশপাশের এলাকায় গ্যাসের স্বল্প চাপ বিরাজ করতে পারে। সাময়িক এই অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন:
সিলেটে তিন মাসে তিন কূপে মিলল গ্যাস
নারায়ণগঞ্জে গ্যাসের লাইনে বিস্ফোরণ, নারী-শিশুসহ দগ্ধ ৬
নারায়ণগঞ্জে গ্যাস সংকট সমাধান না হলে আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি
চট্টগ্রামে গ্যাস সংকট: গণপরিবহন নিয়ে ভোগান্তি
দুই-একদিনের মধ্যে গ্যাস সরবরাহে আরও উন্নতি: প্রতিমন্ত্রী

মন্তব্য

p
উপরে