× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Life imprisonment for four accused in Singire tailors businessman murder case
google_news print-icon

সিংগাইরে টেইলার্স ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় চার আসামির যাবজ্জীবন

সিংগাইরে-টেইলার্স-ব্যবসায়ী-হত্যা-মামলায়-চার-আসামির-যাবজ্জীবন
তিনজন আসামির উপস্থিতিতে যাবজ্জীবনের রায় দেয় আদালত। ছবি: নিউজবাংলা
মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ বিচারকি আদালতের বিচারক সাবিনা ইয়াসমিন সোমবার দুপুরে তিনজন আসামির উপস্থিতিতে এই রায় দেন।

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে টেইলার্স ব্যবসায়ী আলম হোসেন হত্যা মামলায় চার ব্যক্তিকে সশ্রম যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা ও তা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ বিচারকি আদালতের বিচারক সাবিনা ইয়াসমিন সোমবার দুপুরে তিনজন আসামির উপস্থিতিতে এই রায় দেন।

যাবজ্জীবন প্রাপ্তরা হলেন সিংগাইর উপজেলার জ্যাইল্যা এলাকার মো. শাহিনুর রহমান, একই উপজেলার দাশেরহাটি এলাকার লিটন দেওয়ান, রিপন মিয়া ও দক্ষিণ চারিগ্রাম এলাকার উজ্জল হোসেন।

এ ছাড়াও যশোরের ঝিকরগাছার শহিদুল ইসলামকে দুই বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা দেয়া হয়েছে।

মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, ২০০৫ সালের ২ অক্টোবর রাতে দোকান থেকে মোটরসাইকেল বাড়ি ফেরার পথে টেইলার্স ব্যবসায়ী আলম হোসেনের

গতিরোধ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায় আসামী শাহিদুর রহমান, লিটন দেওয়ান, রিপন মিয়া ও উজ্জল হোসেন।

এ ঘটনায় পরেরদিন ততকালীন চারিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেওয়ান মাজহারুল বাদি হয়ে সিংগাইর থানায় অজ্ঞাতনামা একটি হত্যা মামলা করেন। মামলার পর বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এরপর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফারুক হোসেন ২০০৬ সালের ৩১ আগস্ট ৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্শিট দাখিল করেন। মামলায় উভয়পক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শেষে শাহিনুর রহমান, শহিদুল ইসলাম ও লিটন দেওয়ানের উপস্থিতিতে বিচারক রায় ঘোষনা করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি মথুরনাথ সরকার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘মামলার অপর দুই আসামি অপ্রাপ্ত হওয়ায় তাদেরকে গাজীপুরের কিশোর সংশোধনাগারে রাখা হয়েছে। এছাড়াও মামলায় চোরাই মোটরসাইকেল ক্রয় বিক্রয়ের অপরাধে আরেক আসামি শহিদুল ইসলামকে দুই বছর সশ্রম কারাদন্ড এবং পাঁচ হাজার টাকা অনাদায়ে আরও এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।’

তবে রায়ের বিষয়ে আসামিপক্ষের আইনজীবীদের মন্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি।

আরও পড়ুন:
‘পরিকল্পনাকারীদের’ নাম বাদ দিয়েই চার্জশিট জমা
পূর্ব বিরোধের জেরে পাবনায় স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা
মহেশখালীতে প্রতিপক্ষের হামলায় যুবক খুন, আহত ৩
সিরাজগঞ্জে বাড়ি ফেরার পথে দুই বন্ধুকে কুপিয়ে হত্যা
বিদেশফেরত স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা: স্বামী গ্রেপ্তার

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Journalist Ashfaq and his wife acquitted from domestic worker injury case

গৃহকর্মী আহতের মামলা থেকে সাংবাদিক আশফাক ও তার স্ত্রীকে অব্যাহতি

গৃহকর্মী আহতের মামলা থেকে সাংবাদিক আশফাক ও তার স্ত্রীকে অব্যাহতি পুলিশ হেফাজতে সাংবাদিক আশফাকুল হক। ফাইল ছবি
গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকী আল ফারাবীর আদালত এ মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করেন। এর মধ্য দিয়ে তারা এ মামলার দায় থেকে অব্যাহতি পেলেন।

বাসা থেকে পড়ে গৃহকর্মী ফেরদৌসি আহতের ঘটনায় করা মামলায় ডেইলি স্টারের নির্বাহী সম্পাদক আশফাকুল হক ও তার স্ত্রী তানিয়া খন্দকারকে অব্যাহতি দিয়েছে আদালত।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকী আল ফারাবীর আদালত এ মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করেন। এর মধ্য দিয়ে তারা এ মামলার দায় থেকে অব্যাহতি পেলেন।

বৃহস্পতিবার আদালতের মোহাম্মদপুর থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। খবর বাসসের

ছয় মাস আগে বাসা থেকে ফেরদৌসি পড়ে আহত হওয়ার ঘটনায় শিশুটির মা জোছনা বেগম মোহাম্মদপুর থানায় একটি মামলা করেছিলেন। ওই মামলাতেও সৈয়দ আশফাকুল হক, তার স্ত্রী তানিয়া খন্দকার ও আসমা আক্তার শিল্পী নামে এক নারীকে আসামি করা হয়েছিল। এই মামলায় পুলিশ তদন্ত শেষে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে।

এদিকে গত ৬ ফেব্রুয়ারি ওই একই বাসা থেকে পড়ে যায় এই দম্পতির আরেক গৃহকর্মী। ওই মামলায় আশফাক ও তার স্ত্রী রিমান্ড শেষে এখন কারাগারে আছেন।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
5 killed in bus truck collision on Bangabandhu Expressway

মাদারীপুরে এক্সপ্রেসওয়েতে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৪

মাদারীপুরে এক্সপ্রেসওয়েতে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৪ দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি। ছবি: নিউজবাংলা
মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক শফিকুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘উদ্ধার অভিযান শেষ হয়েছে, আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে দুজন মারা যায়, বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতালে মারা যায় বলে শুনেছি। তবে নিহতদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করা যায়নি।’

মাদারীপুরের শিবচরে বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কয়েকজন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শিবচর উপজেলার সূর্যনগর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে পুলিশ জানায়, সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা হানিফ পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়ের শিবচর উপজেলার সূর্যনগর এলাকায় পৌঁছালে পেছন থেকে একটি ট্রাক বাসটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বাসের ২ যাত্রী নিহত হন। আর শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে মারা যায় আরো ২ যাত্রী। এছাড়া আহত হন বেশ কয়েকজন।

খবর পেয়ে শিবচর হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক শফিকুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘উদ্ধার অভিযান শেষ হয়েছে, আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে দুজন মারা যায়, বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতালে মারা যায় বলে শুনেছি। তবে নিহতদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করা যায়নি।’

শিবচর হাইওয়ে থানার ওসি মো. শাকিল বলেন, ‘যাত্রীবাহী হানিফ পরিবহনকে পেছন থেকে ট্রাকটি ধাক্কা দেয়। এতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে নিকটস্থ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The drug case against Parimoni will continue

পরীমনির বিরুদ্ধে মাদকের মামলা চলবে

পরীমনির বিরুদ্ধে মাদকের মামলা চলবে চিত্রনায়িকা পরীমনি। ফাইল ছবি
২০২২ সালের ৫ জানুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১০-এর বিচারক নজরুল ইসলাম পরীমনিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদেশ দেন। পরে মামলা বাতিলে হাইকোর্টে আবেদন করেন পরীমনি।

চিত্রনায়িকা পরীমনি ওরফে শামসুন্নাহার স্মৃতির বিরুদ্ধে করা মাদক মামলা বাতিল প্রশ্নে জারি করা রুল পর্যবেক্ষণসহ নিষ্পত্তি করে দিয়েছে হাইকোর্ট। এর ফলে পরীমনির বিরুদ্ধে বিচারিক আদালতে মামলা চলতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। খবর বাসস

বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ রায় দেয়।

আদালতে পরীমনির পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না ও শাহ মনজুরুল হক।

পরীমনির বাসা থেকে এলএসডিসহ নানা ধরনের মাদক জব্দ করা হয়েছিল, পাওয়া যায় অ্যালকোহলও। তবে অ্যালকোহল সেবনের লাইসেন্স ছিল এই চিত্রনায়িকার।

বৃহস্পতিবারের রায়ে বলা হয়েছে, এলএসডিসহ জব্দ অন্য মাদকের বিচার চলবে। আর অ্যালকোহল সম্পর্কে মামলার পূর্ণাঙ্গ রায়ে উল্লেখ করা হবে।

আদালত জানায়, তার ঘর থেকেই এই মাদক উদ্ধার করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

এ বিষয়ে পরীমনির আইনজীবী বলেন, ‘মামলা বাতিল প্রশ্নে জারিকৃত রুল পর্যবেক্ষণসহকারে নিষ্পত্তি করে এ রায় দিয়েছে উচ্চ আদালত। পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হলে বিস্তারিত বোঝা যাবে।’

২০২১ সালের ৪ আগস্ট বিকেলে রাজধানীর বনানীর ১২ নম্বর সড়কে পরীমনির বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় ওই বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় আনা মামলায় কারাবরণ করে জামিনে মুক্তি পান এই নায়িকা। মামলায় অপর দুই আসামি হলেন-পরীমনির সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দিপু ও মো. কবীর হাওলাদার।

একই বছরের ৪ অক্টোবর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক কাজী গোলাম মোস্তফা পরীমনিসহ তিনজনের নামে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার জিআর শাখায় চার্জশিট জমা দেন। মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তুত হওয়ায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠানো হয়।

২০২২ সালের ৫ জানুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১০-এর বিচারক নজরুল ইসলাম তিনজনের অভিযোগ গঠন করে আদেশ দেন। পরে মামলা বাতিলে হাইকোর্টে আবেদন করেন পরীমনি।

গত বছরের ১ মার্চ আবেদনের শুনানি নিয়ে মামলা কেন বাতিল করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট। পাশাপাশি মামলার কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ দেয় উচ্চ আদালত।

আরও পড়ুন:
এর চেয়ে বড় শোক আর আসবে না: পরীমনি
দোয়া চেয়েছেন পরীমনি
পরীমনি অভিনীত ‘পাফ ড্যাডি’ বন্ধে আইনি নোটিশ 
যে ৪ কারণে রাজকে ডিভোর্স দিলেন পরীমনি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Four passengers were detained in Shahjalal along with 2 kg 104 grams of gold

শাহজালালে ২ কেজি ১০৪ গ্রাম স্বর্ণসহ চার যাত্রী আটক

শাহজালালে ২ কেজি ১০৪ গ্রাম স্বর্ণসহ চার যাত্রী আটক
বৃহস্পতিবার সকালে এনএসআই, কাস্টমস ও এপিবিএনের এই অভিযানে চার যাত্রীকে আটক করা হয়।

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যৌথ অভিযানে দুই কেজি ১০৪ গ্রাম স্বর্ণবার এবং স্বর্ণের অলঙ্কার উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে এনএসআই, কাস্টমস ও এপিবিএনের এই অভিযানে চার যাত্রীকে আটক করা হয়।

তারা হলেন-আব্দুল কাদির (৪১), মো. জুয়েল হোসেন (৩৪), ইব্রাহিম খলিল (৪০) ও খোরশেদ আলম । প্রত্যেকেই ইউএস বাংলার বিএস ৩৪২ ফ্লাইটের যাত্রী।

এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার ভোর ৪টা ৫৫ মিনিটে ইউএস বাংলার একটি দুবাই ফ্লাইট ঢাকায় অবতরণ করে। এ সময় এনএসআই, এপিবিএন ও কাস্টমসের একটি যৌথ অভিযান টিম গ্রীন চ্যানেল এবং এর বাইরে অপেক্ষমাণ ছিল। আনুমানিক সকাল ৬টার দিকে ফ্লাইটের সব যাত্রী বের হয়ে যেতে থাকেন।

জিয়াউল হক বলেন, এ সময় গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ৪ যাত্রীকে তল্লাশি করলে তাদের পোশাকে বিশেষ কায়দায় লুকানো অবস্থায় প্রত্যেকের কাছ থেকে ৩১৬ গ্রাম করে ভেজা স্বর্ণের পাউডার, একটি করে গোল্ডবার ১১৬ গ্রাম এবং ৯৪ গ্রাম করে স্বর্ণের অলঙ্কার পাওয়া যায়। প্রত্যেকের কাছেই ৫২৬ গ্রাম করে স্বর্ণ পাওয়া যায়।

তিনি জানান, আটক যাত্রীদের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Retirement of private teachers employees within 6 months High Court

বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের অবসরভাতা ৬ মাসের মধ্যেই: হাইকোর্ট

বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের অবসরভাতা ৬ মাসের মধ্যেই: হাইকোর্ট
আদালত বলেছে, শিক্ষকদের রিটায়ারমেন্ট বেনিফিট (অবসরকালীন সুবিধা) পেতে বছরের পর বছর ঘুরতে হয়। এই হয়রানি থেকে তারা কোনোভাবেই পার পান না। একজন প্রাথমিকের শিক্ষক কত টাকা বেতন পান, সেটাও বিবেচনায় নিতে হবে। এ জন্য তাদের অবসরভাতা ৬ মাসের মধ্যে দিতে হবে। এই অবসরভাতা পাওয়ার জন্য শিক্ষকরা বছরের পর বছর দ্বারে দ্বারে ঘুরতে পারেন না বলেও মন্তব্য করে আদালত।

মান্থলি পে অর্ডার বা এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ৫ লাখের বেশি শিক্ষক ও কর্মচারীকে অবসরের ৬ মাসের মধ্যে অবসরকালীন সুবিধা দেয়ার নির্দেশ দিয়ে রায় দিয়েছে হাইকোর্ট।

বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজি জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয়। খবর বাসসের

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ছিদ্দিক উল্যাহ মিয়া, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল অমিত দাশগুপ্ত।

আদালত বলেছে, শিক্ষকদের রিটায়ারমেন্ট বেনিফিট (অবসরকালীন সুবিধা) পেতে বছরের পর বছর ঘুরতে হয়। এই হয়রানি থেকে তারা কোনোভাবেই পার পান না। একজন প্রাথমিকের শিক্ষক কত টাকা বেতন পান, সেটাও বিবেচনায় নিতে হবে। এ জন্য তাদের অবসরভাতা ৬ মাসের মধ্যে দিতে হবে। এই অবসরভাতা পাওয়ার জন্য শিক্ষকরা বছরের পর বছর দ্বারে দ্বারে ঘুরতে পারেন না বলেও মন্তব্য করে আদালত।

আইনজীবী ছিদ্দিক উল্যাহ মিয়া বলেন, সারা দেশে এমপিওভুক্ত স্কুলকলেজ ও মাদ্রাসায় ৫ লাখের বেশি শিক্ষক কর্মচারী অবসরকালীন সুবিধা পেতে ২০১৯ সালে একটি রিট দায়ের করেছিলাম। রিটে বলা হয়, ২০১৭ সাল পর্যন্ত এই শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন থেকে ৬ শতাংশ কেটে নেয়া হতো। সেই কর্তনকৃত টাকাসহ সুবিধা অবসরের পর দেয়া হতো। এই অবস্থায় ২০১৭ সালে শিক্ষা মন্ত্রণালয় নতুন করে ১০ শতাংশ কেটে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। ১০ শতাংশ কেটে নেয়া হলেও ৬ শতাংশের যে সুবিধা দেয়া হতো সেটাই বহাল রাখা হয়। যে কারণে আমরা রিট দায়ের করে বলেছি, যাতে ১০ শতাংশের সুবিধা দেয়া হয়। এরপর এই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট রুল জারি করে। সেই রুলের শুনানি শেষে রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ের আদালত বলেছে, ১০ শতাংশ কেটে নেয়া হলেও তাদের যেন বাড়তি সুবিধা দেয়া হয়। একইসঙ্গে অবসরের ছয় মাসের মধ্যে যেন অবসরকালীন সুবিধা দেয়া হয়।

ছিদ্দিক উল্যাহ মিয়া বলেন, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট প্রবিধানমালা, ১৯৯৯ এর প্রবিধান-৬ এবং বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী অবসর সুবিধা প্রবিধানমালা, ২০০৫ এর প্রবিধান-৮ অনুযায়ী শিক্ষক ও কর্মচারীদের মূল বেতনের ২ শতাংশ এবং ৪ শতাংশ কাটার বিধান ছিল। যার বিপরীতে শিক্ষকদের ট্রাস্টের তহবিল থেকে শিক্ষক ও কর্মচারীদের কিছু আর্থিক সুবিধা দেয়া হতো। কিন্তু ২০১৭ সালের ১৯ এপ্রিল উল্লিখিত প্রবিধানমালাগুলোর শিক্ষক ও কর্মচারীদের মূল বেতনের ২ শতাংশ এবং ৪ শতাংশ কাটার বিধানগুলো সংশোধনপূর্বক ৪ শতাংশ এবং ৬ শতাংশ করে দুটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

তিনি বলেন, প্রজ্ঞাপনে শিক্ষক ও কর্মচারীদের মূল বেতনের ২ শতাংশ এবং ৪ শতাংশ কাটার পরিবর্তে ৪ শতাংশ এবং ৬ শতাংশ কাটার বিধান করা হলেও উক্ত অতিরিক্ত অর্থ কাটার বিপরীতে শিক্ষক ও কর্মচারীদের কোনো বাড়তি আর্থিক সুবিধার বিধান করা হয়নি। পরে ২০১৯ সালের ১৫ এপ্রিল মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ, শিক্ষা মন্ত্রণালয় একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারীদের এপ্রিল-২০১৯ মাসের বেতন থেকে ৬ শতাংশ এবং ৪ শতাংশ টাকা অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টে জমা দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেন। ফলে অতিরিক্ত অর্থ কাটার বিপরীতে কোনো আর্থিক সুবিধা বৃদ্ধি না করেই শিক্ষক ও কর্মচারীদের মূল বেতনের ৬ শতাংশ এবং ৪ শতাংশ টাকা কাটার আদেশের কারণে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ৫ লাখ শিক্ষক ও কর্মচারীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা থেকে ক্ষুব্ধ হয়ে বিভিন্ন সময়ে অতিরিক্ত অর্থ কাটার আদেশ বাতিল করার জন্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। শিক্ষক ও কর্মচারীরা ২০১৯ সালের ১৫ এপ্রিল মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের জারি করা প্রজ্ঞাপনটি চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করেন।

আরও পড়ুন:
খতনা করাতে গিয়ে আয়ানের মৃত্যুর কারণ নিয়ে নতুন কমিটি
রেজিস্ট্রেশনযোগ্য জিআই পণ্যের তালিকা দাখিলে হাইকোর্টের নির্দেশ
জাপানি দুই শিশু থাকবে মায়ের কাছে, একজনকে পাবেন বাবা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
GK Shamims bail upheld in arms case

অস্ত্র মামলায় জি কে শামীমের জামিন বহাল

অস্ত্র মামলায় জি কে শামীমের জামিন বহাল গোলাম কিবরিয়া শামীম। ফাইল ছবি
অস্ত্র মামলার বিচার শেষে ২০২২ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক শেখ ছামিদুল ইসলাম অস্ত্র মামলায় এসএম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম এবং তার সাত দেহরক্ষীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

ক্যাসিনোকাণ্ডে আলোচিত যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীমকে অস্ত্র আইনের মামলায় হাইকোর্টের দেয়া জামিন বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

জামিন স্থগিত চেয়ে করা আবেদন খারিজ করে বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। খবর ইউএনবির

একই সঙ্গে দুই মাসের মধ্যে বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চকে তার আপিল মামলাটি নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছে।

এ সময় যারা ব্যক্তিগতভাবে অস্ত্র ও গানম্যান নিয়ে ঘোরেন তাদের বিষয়ে নীতিমালা করা উচিত বলে জানায় আপিল বিভাগ।

এর আগে হাইকোর্ট ১৩ ডিসেম্বর বিচারপতি এস এম আবদুল মোবিন ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ জি কে শামীমকে ছয় মাসের জামিন দেয়। পরে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের আদালত ১৯ ডিসেম্বর ওই জামিন আদেশ স্থগিত করে।

২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত করে বিষয়টি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠানো হয়। সে অনুযায়ী আজ শুনানি হয়।

আইনজীবী কুমার দেবুল দে আপিল বিভাগের আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আদালতে আজ জি কে শামীমের পক্ষে শুনানি করেন জ্যৈষ্ঠ আইনজীবী সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ফিদা এম কামাল ও জ্যৈষ্ঠ আইনজীবী এসএম শাহজাহান। তাদের সহযোগিতা করেন বি এম ইলিয়াস কচি, কুমার দেবুল দে। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সুজিত চ্যাটার্জি বাপ্পী।

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের মধ্যে ২০১৯ সালের ২০ সেপ্টেম্বর গুলশানের নিকেতনে শামীমের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায় র‍্যাব। অভিযানে ওই ভবন থেকে নগদ প্রায় দুই কোটি টাকা, পৌনে ২০০ কোটি টাকার এফডিআর, আগ্নেয়াস্ত্র ও মদ পাওয়ার কথা জানানো হয়।

ওই অভিযানে শামীম এবং তার সাত দেহরক্ষীকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরদিন ২১ সেপ্টেম্বর তাদের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় তিনটি মামলা করে র‍্যাব। এর মধ্যে অস্ত্র ও মুদ্রা পাচার মামলায় সবাইকে আসামি করা হলেও মাদক আইনের মামলায় শুধু শামীমকে আসামি দেখানো হয়।

প্রতিটি মামলাতেই তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

মামলার এক মাসের মাথায় ২০১৯ সালের ২৬ অক্টোবর অস্ত্র আইনের মামলায় শামীম এবং তার দেহরক্ষীদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা র‍্যাব-১ এর উপপরিদর্শক (এসআই) শেখর চন্দ্র মল্লিক।

অস্ত্র মামলার বিচার শেষে ২০২২ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক শেখ ছামিদুল ইসলাম অস্ত্র মামলায় এসএম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম এবং তার সাত দেহরক্ষীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

আরও পড়ুন:
ফের পেছাল সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার রায়
চট্টগ্রামের এমপি মহিউদ্দিন বাচ্চুর জামিন
মির্জা ফখরুল ও আমীর খসরুর জামিন, মুক্তিতে বাধা নেই
ভালোবাসা দিবসে নওগাঁর আদালতে প্রেম সংক্রান্ত ৩৬ মামলার শুনানি
মুন্সীগঞ্জে অটোচালক হত্যা মামলায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A robber who dressed as a police officer was arrested after setting up a check post

চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের পোশাক পরে ডাকাতি, একজন আটক

চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের পোশাক পরে ডাকাতি, একজন আটক ডাকাত দলের সদস্যের কাছে উদ্ধারকৃত পুলিশের পোশাক। ছবি: নিউজবাংলা
টঙ্গিবাড়ী থানার এসআই আল মামুন বলেন, রাস্তায় চলাচলরত গাড়ি থামিয়ে পুলিশের পোশাক পরে চেক পোস্ট বসিয়ে ডাকাতি করছিলেন সাতজন। পরে পুলিশের টহলরত গাড়ি ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাতরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ওই সময় পথচারীদের সহায়তায় একজনকে আটক করে পুলিশ, যিনি ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য।

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের পোশাক পরে ডাকাতির সময় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের সিদ্ধেশ্বরী জোড়া ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা থেকে বুধবার রাতে তাকে আটক করা হয়।

আটক জহিরুল ইসলাম ওরফে কানা জহির মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার কালিরচর এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয়দের ভাষ্য, বুধবার রাত সোয়া ১০টার দিকে টঙ্গিবাড়ী-হাসাইল সংযোগ সড়কের সিদ্ধেশ্বরী জোড়া ব্রিজ এলাকায় পুলিশের পোশাক পরে চেকপোস্ট বসিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশা থামিয়ে যাত্রীদের দেহ তল্লাশি করেছিলেন ছদ্মবেশী সাত ডাকাত। ওই সময় পুলিশের টহল গাড়ি ওই স্থান দিয়ে যাচ্ছিল। অনেক লোকজনের সমাগম দেখে প্রকৃত পুলিশ সদস্যরা তাদের টহল গাড়ি ওই স্থানের পাশে থামালে ডাকাত সদস্যরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

ওই সময় পথচারীদের সহায়তায় এক ডাকাত সদস্যকে আটক করে পুলিশ। ডাকাত দলের বাকি ছয় সদস্য পালিয়ে যান।

এ বিষয়ে টঙ্গিবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আল মামুন বলেন, রাস্তায় চলাচলরত গাড়ি থামিয়ে পুলিশের পোশাক পরে চেক পোস্ট বসিয়ে ডাকাতি করছিলেন সাতজন। পরে পুলিশের টহলরত গাড়ি ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাতরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ওই সময় পথচারীদের সহায়তায় একজনকে আটক করে পুলিশ, যিনি ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য।

আরও পড়ুন:
গজারিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত
হিজলায় সরকারি চালবাহী কার্গোতে ডাকাতির অভিযোগ
নওগাঁয় হাঁস ও ডিম ডাকাতি, ঢাকায় ধরা
আশুলিয়ায় ডাকাতদের গুলিতে কারখানার নিরাপত্তাকর্মী নিহত
মুন্সীগঞ্জে নির্বাচনি ক্যাম্পে গুলি, নৌকার কর্মী নিহত

মন্তব্য

p
উপরে