× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
The flood situation in Netrakona may improve
google_news print-icon

নেত্রকোণার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে

নেত্রকোণার-বন্যা-পরিস্থিতির-উন্নতি-হতে-পারে
নেত্রকোণার কলমাকান্দার বন্যায় প্লাবিত অঞ্চল। ছবি: নিউজবাংলা
নদীর পানি বাড়ার আভাস দিয়ে সারসংক্ষেপে বলা হয়, ‘গঙ্গা, পদ্মা নদ-নদীসমূহের পানি সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা আগামী ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।’

নেত্রকোণা জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে বলে আভাস দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানটি বৃহস্পতিবার বৃষ্টিপাত ও নদ-নদীর অবস্থা নিয়ে সারসংক্ষেপে এমন আভাস দেয়।

সকাল ৯টায় প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি সারসংক্ষেপে বলা হয়, ‘ব্রহ্মপুত্র নদের পানি সমতল স্থিতিশীল আছে। অপরদিকে যমুনা নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।’

নদীর পানি বাড়ার আভাস দিয়ে সারসংক্ষেপে বলা হয়, ‘গঙ্গা, পদ্মা নদ-নদীসমূহের পানি সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা আগামী ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।’

নেত্রকোণার বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে বলা হয়, ‘মনু, খোয়াই ও ধলাই ব্যতীত দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সকল প্রধান নদ-নদীসমূহের পানি সমতল হ্রাস পাচ্ছে, যা আগামী ২৪ ঘণ্টায় স্থিতিশীল থাকতে পারে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় নেত্রকোণা জেলার নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে।’

আরও পড়ুন:
বিপৎসীমার ওপরে দক্ষিণের ৬ নদীর পানি
তিস্তা ধরলা যমুনায় ভাঙন, নদীগর্ভে ২ স্কুলসহ বহু বাড়ি ও আবাদি জমি
দুই জেলায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে
বিপৎসীমার উপরে সুরমা, বন্যার অবনতির শঙ্কা
দুই জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতির শঙ্কা

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Rohingya crisis could deepen Foreign Minister

রোহিঙ্গা সংকট আরও গভীর হতে পারে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা সংকট আরও গভীর হতে পারে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে ওকাব আয়োজিত সেমিনারে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি: নিউজবাংলা
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, রোহিঙ্গাদের পূর্ণ মর্যাদায় তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় ভারত ও চীনকে আরও নিবিড়ভাবে যুক্ত করা গেলে এই সংকটের দ্রুত সমাধান সম্ভব।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার ও উদ্বাস্তু হয়ে বাংলাদেশে আশ্রিত প্রায় ১৩ লাখ রোহিঙ্গার প্রত্যাবাসন ইস্যুটি আঞ্চলিক সংকটে পরিণত হয়েছে। ভবিষ্যতে এই সংকট আরও গভীর হতে পারে। তাই দ্রুততম সময়ে রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে পূর্ণ নাগরিক মর্যাদায় প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করাটা জরুরি এবং এটাই একমাত্র স্থায়ী সমাধান।

একইসঙ্গে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় ভারত ও চীনকে আরও নিবিড়ভাবে যুক্ত করা গেলে সংকট দ্রুত সমাধান সম্ভব বলে মতপ্রকাশ করেন তিনি।

ওভারসিজ করেসপন্ডেন্টস এসোসিয়েশন বাংলাদেশের (ওকাব) ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত ‘রোহিঙ্গা সংকট: ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা কূটনৈতিক পথ অবলম্বন করছি। একইসঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আমরা আন্তর্জাতিক আদালতে গেছি। আমরা গাম্বিয়া ও ওআইসির মাধ্যমে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) মামলা করেছি, সেই মামলায় এখন পর্যন্ত যে আউটকাম এসেছে তা আমাদের পক্ষে।

‘গাম্বিয়া বলেছে, মামলা সঠিক পথে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি, খুব দ্রুত এই মামলার ইতিবাচক আউটকাম আসবে।’

ড. হাছান বলেন, ‘আমরা আশা করছি, আইসিজের মাধ্যমে একটি আন্তর্জাতিক চাপ মিয়ানমারের ওপর পড়বে। আমরা ক্রমাগতভাবে চেষ্টা করেছি, আন্তর্জাতিকভাবে যেসব দেশের প্রভাব মিয়ানমারের ওপর আছে তাদেরকে এ বিষয়ে যুক্ত করার। ক’দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ ঘুরে গেছেন। তার সঙ্গেও রোহিঙ্গা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সেই আলোচনায় সমস্যা সমাধানের জন্য কিছু পরামর্শ তিনি আমাদের দিয়েছেন।

বছরের শুরুতে উগান্ডায় মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের কথা জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ওই বৈঠক থেকে আমার কাছে মনে হয়েছে, আন্তর্জাতিক সমালোচনা এড়ানোর জন্য হলেও মিয়ানমার রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে চায়। কিন্তু মিয়ানমারের অভ্যন্তরে রাখাইন প্রদেশে এখন যে পরিস্থিতি, সেখানকার সেনাবাহিনী পালিয়ে আমাদের এখানে আসছে। এটিকে অন্তরায় মনে হলেও গত ৬০-৭০ বছর ধরে মিয়ানমারের পরিস্থিতি কখনোই তেমন শান্ত ছিলো না। তাই এর মধ্যেই আমাদের চেষ্টা এগিয়ে নিতে হবে।’

রোহিঙ্গা সংকটের একমাত্র সমাধান তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবাসন উল্লেখ করে মন্ত্রী হাছান বলেন, ‘বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা তাদের জীবিকা নির্বাহের সুযোগ দিতে বলেছে। ক্যাম্পে তারা কিছু কাজ করছে। কিন্তু তাদের পুরোপুরি জীবিকা নির্বাহের নিশ্চয়তা আমরা কীভাবে দেব? রোহিঙ্গাদের জীবিকা নির্বাহের ব্যবস্থা করা সমাধান নয়। একমাত্র সমাধান হচ্ছে সব অধিকারসহ তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবাসন।’

রোহিঙ্গাদের ক্ষেত্রে মানবিক দিক ও প্রত্যাবর্তনের ওপর জোর দেন সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা সংকট এখনও বিশ্বব্যাপী একটি বড় সমস্যা। এই সংকটের আরও অনেক গভীরে যেতে হবে। যত দিন যাবে এই সমস্যার গভীরতা আরও বাড়বে৷ তাই শান্তিপূর্ণ উপায়ে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তন একটি বড় চ্যালেঞ্জ। এর সমাধানে আঞ্চলিক শক্তিগুলোকে একযোগে উদ্যোগী হতে হবে।’

আরও পড়ুন:
জিএসপি সুবিধা ফিরিয়ে দেয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছেন লু: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
দেশকে এগিয়ে নিতে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
ইসরায়েলি লবির সঙ্গে মিলে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হেড মাঝিকে গুলি করে হত্যা
রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি পাসপোর্ট নবায়ন নিয়ে জানতে চায় সৌদি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Metro Rail in India has no VAT in Bangladesh Why Who?

ভারতে মেট্রোরেলে ভ্যাট নেই, বাংলাদেশে কেন: কাদের

ভারতে মেট্রোরেলে ভ্যাট নেই, বাংলাদেশে কেন: কাদের মেট্রোরেলের রাজধানীর আগারগাঁও স্টেশনের কাউন্টার এলাকায় যাত্রীদের ভিড়। ফাইল ছবি
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের এনবিআর হঠাৎ করেই মেট্রোরেলে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ভারতে কি ভ্যাট আছে? ভ্যাট নেই।’

মেট্রোরেলে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ‘এনবিআরের এই সিদ্ধান্ত ভুল। প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি পুনর্বিবেচনার ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েছেন।’

রাজধানীর একটি হোটেলে মেট্রোরেলের ব্র্যান্ডিং অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান শেষে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের এনবিআর হঠাৎ করেই মেট্রোরেলে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ভারতে কি ভ্যাট আছে? ভ্যাট নেই।

‘তাহলে আমাদের এখানে কেন? এটা হয় না। এতে মেট্রোরেলের সুনামটা নষ্ট হয়। আমি প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছি, তিনি পুনর্বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছেন।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আফ্রিকার ছোট ছোট দেশগুলোর রাজধানীতে যে গাড়ি চলাচল করে তা অনেক সুন্দর। ঢাকায় সর্বশেষ প্রযুক্তির এত সুন্দর কার, জিপ গাড়ি ব্যবহার করা হয়। আর বাসগুলোর কেন এত জরাজীর্ণ চেহারা?

‘মেট্রোরেল আধুনিক গণপরিবহন। এখান থেকে বের হলেই জীর্ণশীর্ণ গরিব চেহারার বাসগুলো দেখলে কেমন লাগে? এতে আমরা লজ্জা পাচ্ছি। মালিক সাহেবরা কি লজ্জা পাচ্ছেন না? এসব গাড়ি সরিয়ে নিতে দুই সিটি মেয়রের সহযোগিতা চাচ্ছি।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দাবি করেন, বিএনপির নেতারা মানসিক ট্রমায় ভুগছেন, যে কারণে আবোল-তাবোল কথা বলছেন।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের লোকজনই ভোট দিতে আসেনি—বিএনপি নেতাদের এমন দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘বিএনপির এ দাবি সত্য নয়। উপজেলা নির্বাচনে প্রথম ধাপে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ ভোট পড়েছে।

‘জাতীয় নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৪২ শতাংশেরও বেশি। তারা কি এ দেশের মানুষ নয়? ৪২ শতাংশ যদি ভোট প্রদান করে, তাহলে ভোটাররা নির্বাচন প্রত্যাহার করল কেমন করে? আসলে বিএনপি নেতারা মানসিক ট্রমায় ভুগছে। যা খুশি তাই বলেন ফ্রি স্টাইলে। এর বাস্তবতা নেই। তারা বাস্তবতা থেকে অনেক দূরে।’

বিএনপির আবারও আন্দোলনের প্রস্তুতি নিয়ে কাদের বলেন, ‘রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপির আন্দোলন করার অধিকার আছে। আন্দোলন শান্তিপূর্ণ হলে আমরা রাজনৈতিকভাবেই মোকাবিলা করব।

‘আর যদি আন্দোলন রূপ নেয় আগুন সন্ত্রাসে, যে চেহারা তারা অতীতে দেখিয়েছে, তাহলে সরকার উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ব্যবস্থা নেবে। রাজনৈতিকভাবেও আমরা মোকাবিলা করব।’

রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে এ সেমিনারের আয়োজন করে পরিচালনাকারী সংস্থা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড তথা ডিএমটিসিএল। এতে ওবায়দুল কাদের যানজট নিরসনে আধুনিক এ গণপরিবহনের ভূমিকা তুলে ধরেন।

সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এবিএম আমিনুল্লাহ নূরীর সভাপতিত্বে সেমিনারে আরও বক্তব্য দেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইয়োমা কিমিনুরি, জাইকা বাংলাদেশ অফিসের মুখ্য প্রতিনিধি ইচিগুচি তমোহিদে ও ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএএন সিদ্দিক।

আরও পড়ুন:
সাংবাদিকরা বাংলাদেশ ব্যাংকে ঢুকবেন কেন, প্রশ্ন কাদেরের
সরকারের ধারাবাহিকতায় এত উন্নয়ন: কাদের
শেখ হাসিনা বদলে যাওয়া বাংলাদেশের রূপকার: ওবায়দুল কাদের
যুক্তরাষ্ট্র আগের অবস্থানে আছে, ফখরুল কী করে জানলেন: কাদের
নো হেলমেট, নো ফুয়েল: কাদের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Upazila election 457 platoon BGB deployment in the second phase

উপজেলা নির্বাচন: দ্বিতীয় ধাপে ৪৫৭ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

উপজেলা নির্বাচন: দ্বিতীয় ধাপে ৪৫৭ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন টহল দায়িত্বে বিজিবি সদস্যরা। ফাইল ছবি
বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফুল ইসলাম রোববার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, ‘আগামী ২১ মে, ২০২৪ তারিখে অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে স্থানীয় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তার নিমিত্তে In Aid to the Civil Power-এর আওতায় অদ্য ১৯ মে থেকে আগামী ২৩ মে ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত নির্বাচনি এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার্থে বিজিবি মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে।’

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপ অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সারা দেশে ৪৫৭ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফুল ইসলাম রোববার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আগামী ২১ মে, ২০২৪ তারিখে অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে স্থানীয় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তার নিমিত্তে In Aid to the Civil Power-এর আওতায় অদ্য ১৯ মে থেকে আগামী ২৩ মে, ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত নির্বাচনি এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার্থে বিজিবি মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে।’

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ভোটগ্রহণ হচ্ছে ২১ মে, মঙ্গলবার। রোববার মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে এ ধাপের প্রচার।

সুষ্ঠুভাবে ভোট সম্পন্ন করতে ১৫৭ উপজেলায় একই দিন মাঠে নামছে বিজিবি, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ভোটের আগে-পরে পাঁচ দিনের জন্য তারা দায়িত্ব পালন করবে।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপসচিব আতিয়ার রহমান শনিবার জানান, বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যরা পাঁচ দিনের জন্য মাঠে নিয়োজিত থাকবেন। এ নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে পরিপত্র জারি করেছে।

আরও পড়ুন:
প্রার্থিতা বাতিল বহাল, সেলিম প্রধানকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা
কুমিল্লা ও কুড়িগ্রামে বিএনপির ৮ নেতা বহিষ্কার
ভোটের আড়াই বছর পর পরাজিত প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা
প্রকাশ্যে ভোট: ক্ষমা চাওয়ায় এমপি হাফিজকে দায়মুক্তি ইসির
বিধি ভেঙে উপজেলা চেয়ারম্যান পদের প্রার্থিতা হারালেন শ্রীপুরের জামিল

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The Prime Minister urges to build environment friendly industries

পরিবেশবান্ধব শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

পরিবেশবান্ধব শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রোববার সকালে জাতীয় এসএমই পণ্যমেলা-২০২৪-এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: ইয়াসিন কবির জয়/ফোকাস বাংলা
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের শিল্প গড়তে হবে। একই সঙ্গে শিল্প বর্জ্য ব্যবস্থাপনাও করতে হবে। শিল্প প্রতিষ্ঠান হবে পরিকল্পিত, পরিবেশবান্ধব এবং স্বাস্থ্যসম্মত।’

শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোকে পরিবেশবান্ধব করে গড়ে তোলার তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘আমাদের শিল্প গড়তে হবে। একই সঙ্গে শিল্প বর্জ্য ব্যবস্থাপনাও করতে হবে। শিল্প প্রতিষ্ঠান হবে পরিকল্পিত, পরিবেশবান্ধব এবং স্বাস্থ্যসম্মত।’

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রোববার সকালে জাতীয় এসএমই পণ্যমেলা-২০২৪-এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শিল্প খাত একান্তভাবে পরিবেশবান্ধব হওয়া উচিত। যারা যেখানে শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলবেন, অবশ্যই লক্ষ রাখবেন যেন শিল্পের বর্জ্য নদীতে না পড়ে। আমাদের পানি যেন কোনো রকম দূষিত না হয়। আমাদের দেশ ভৌগোলিক সীমারেখায় অত্যন্ত ছোট, কিন্তু জনসংখ্যার দিক থেকে বড়।

‘সে ক্ষেত্রে আমাদের দেশের পরিবেশ এবং সবকিছু পরিকল্পিতভাবে হওয়া উচিত। স্বাস্থ্যসম্মত হওয়া উচিত। শিল্প আমাদের গড়ে তুলতে হবে। শিল্প বর্জ্য ব্যবস্থাপনা অবশ্যই সকলকে করতে হবে। সামান্য একটু কেমিক্যালের পয়সা বাঁচাতে গিয়ে দেশের সর্বনাশ এবং নিজের সর্বনাশ করবেন না।’

শেখ হাসিনা শিল্প মালিকদের উদ্দেশে বলেন, ‘শ্রমিকদের কর্মপরিবেশ সৃষ্টি এবং জীবনমান নিশ্চিত করতে হবে। তাহলে তাদের আস্থা-বিশ্বাস অর্জন করে আরও বেশি কাজ আদায় করে নিতে পারবেন।’

সরকারপ্রধান আক্ষেপ করে বলেন, ‘ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ এবং মহামারি করোনার কারণে সমস্ত কাজ বন্ধ, রপ্তানি বন্ধ, আমদানি বন্ধ সারা বিশ্বের অর্থনীতিতে মূল্যস্ফীতি এবং নানা রকম সমস্যার সৃষ্টি করেছে। বাংলাদেশেও এ ধাক্কাটা এসে পড়েছে। এর সাথে যুক্ত আছে ফিলিস্তিনে ইহুদিদের যুদ্ধ।

‘বিদেশ থেকে যে পণ্যগুলো আমদানি করতে হয়, তার প্রত্যেকটার দাম বেড়েছে, যার একটা প্রভাব আমাদের দেশে পড়ছে। মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধি পেয়েছে।’

সরকার এটাকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা শুধু তখনই করতে পারব, যখন আমরা নিজস্ব উৎপাদন বাড়াতে পারব।’

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘১৯৭৪ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সমুদ্রসীমা আইন করে যান। যারা পঁচাত্তরের পর ক্ষমতায় এসেছিল—জিয়াউর রহমান, এরশাদ, খালেদা জিয়া, আমাদের যে সমুদ্রসীমা অধিকার আছে, তা তাদের মুখে কোনোদিনই উচ্চারণ হয়নি। তা শুনি নাই। প্রথমবার এসেই উদ্যোগ নিয়েছিলাম।’

বক্তব্য শেষে প্রধানমন্ত্রী একাদশ জাতীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) পণ্যমেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

সাত দিনব্যাপী এ মেলা চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ক্রেতা-বিক্রেতা ও দর্শনার্থীদের জন্য মেলা উন্মুক্ত থাকবে।

শুধু দেশীয় উদ্যোক্তাদের তৈরি করা পণ্য নিয়ে শিল্প মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় এসএমই ফাউন্ডেশন মেলার আয়োজন করেছে। এতে ৩৫০টির বেশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পপ্রতিষ্ঠান অংশ নেবে, যার ৬০ শতাংশ নারী উদ্যোক্তাদের।

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাকিয়া সুলতানা, বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি মো. মাহবুবুল আলম, এসএমই ফাউন্ডেশনের নতুন চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুর রহমানসহ সংশ্লিষ্টরা।

আরও পড়ুন:
ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে আওয়ামী লীগ দেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী
দেশের মাটি ও মানুষের কথা বিবেচনা করে পরিকল্পনা করুন: অর্থনীতিবিদদের প্রধানমন্ত্রী
স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রীর প্রাণহানির চেষ্টার নিন্দা শেখ হাসিনার
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন
শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Rain may fall in many places of 6 divisions including Dhaka

ঢাকাসহ ৬ বিভাগের অনেক জায়গায় ঝরতে পারে বৃষ্টি

ঢাকাসহ ৬ বিভাগের অনেক জায়গায় ঝরতে পারে বৃষ্টি দেশজুড়ে বৃষ্টির আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। ফাইল ছবি
বৃষ্টিপাতের বিষয়ে পূর্বাভাসে বলা হয়, রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গা এবং রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে।

ঢাকাসহ দেশের ছয়টি বিভাগের অনেক জায়গায় বৃষ্টি ঝরতে পারে জানিয়ে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর বলেছে, কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে হতে পারে শিলা বৃষ্টি।

রাষ্ট্রীয় সংস্থাটি রোববার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এমন বার্তা দিয়েছে।

পূর্বাভাসে সিনপটিক অবস্থা নিয়ে বলা হয়, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত।

বৃষ্টিপাতের বিষয়ে বলা হয়, রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গা এবং রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে।

তাপপ্রবাহ নিয়ে অধিদপ্তর জানায়, গোপালগঞ্জ, রাজশাহী, নোয়াখালী, কক্সবাজার, খুলনা, বাগেরহাট, যশোর, সাতক্ষীরা, পটুয়াখালী ও ভোলা জেলার ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা প্রশমিত হতে পারে।

তাপমাত্রার বিষয়ে বলা হয়, দেশের পূর্বাঞ্চলের দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে এবং দেশের অন্যান্য জায়গায় তা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে।

আরও পড়ুন:
তাপপ্রবাহ কমে ঝড়-বৃষ্টির আভাস
পাঁচ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় হতে পারে বৃষ্টি
আরও ৪৮ ঘণ্টা অব্যাহত থাকতে পারে ঢাকাসহ চার বিভাগের তাপপ্রবাহ
তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে
সব বিভাগে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Another Bangladeshi Babar Ali won Everest after 11 years

১১ বছর পর এভারেস্ট জয় আরেক বাংলাদেশি বাবর আলীর

১১ বছর পর এভারেস্ট জয় আরেক বাংলাদেশি বাবর আলীর ১১ বছর পর এভারেস্ট জয় করা বাংলাদেশি বাবর আলী। ছবি: ভার্টিক্যাল ড্রিমার্স
বাবর আলীকে ট্যাগ করে ‘ভার্টিক্যাল ড্রিমার’ নামের সংগঠনের ফেসবুক পেজে দেয়া স্ট্যাটাসে লেখা হয়, ‘অবশেষে!! পৃথিবীর শীর্ষ এভারেস্ট ছুঁয়েছি আমরা!!! ১১ বছর প্রতীক্ষার পর আজ তৃতীয় মেরুতে উড়েছে লাল-সবুজ!!’

পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ এভারেস্ট জয় করেছেন চট্টগ্রামের বাবর আলী।

তার এ সাফল্যের মধ্য দিয়ে ১১ বছর পর ফের এভারেস্ট বিজয় হলো বাংলাদেশের।

স্থানীয় সময় রোববার সকাল সাড়ে আটটায় (বাংলাদেশের সময় পৌনে ৯টা) বাবর এভারেস্টের চূড়ায় পৌঁছান বলে জানায় ‘ভার্টিক্যাল ড্রিমার’ নামের সংগঠন।

বাবর আলীকে ট্যাগ করে তাদের ফেসবুক পেজে দেয়া স্ট্যাটাসে লেখা হয়, ‘অবশেষে!! পৃথিবীর শীর্ষ এভারেস্ট ছুঁয়েছি আমরা!!! ১১ বছর প্রতীক্ষার পর আজ তৃতীয় মেরুতে উড়েছে লাল-সবুজ!!

‘ঠিক শুনছেন। আমাদের স্বপ্নসারথি বাবর আলী আজ সকাল স্থানীয় সময় ০৮:৩০ (বাংলাদেশের সময় ০৮:৪৫ -এ) আকাশ ছুঁয়েছে।’

পোস্টে আরও বলা হয়, ‘সৃষ্টিকর্তার কৃপায় এবং লাখো শুভাকাঙ্ক্ষীদের দোয়ায় প্রকৃতিমাতা বাবরকে ক্ষণিকের জন্য স্থান দিয়েছেন নিজের চূড়ায়। খানিক আগে বেজ ক্যাম্প ম্যানেজার এবং আউটফিট মালিক আমাদের এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।’

বাবর এখন ক্যাম্প-৪-এ নামার পথে আছেন উল্লেখ করে পোস্টে বলা হয়, ‘ওই ডেথ জোনে যোগাযোগ সম্ভব নয়। তাই অভিযানের ছবি পেতে সময় লাগবে। আমরা ভীষণ আনন্দিত, কিন্তু ভুলে গেলে চলবে না আমাদের মূল লক্ষ্য কিন্তু শুধু এভারেস্ট নয়, লোৎসেও। তাই দোয়াতে থাকুক বাবর আলী।’

১১ বছর পর এভারেস্ট জয় আরেক বাংলাদেশি বাবর আলীর
ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

এদিকে ভার্টিক্যাল ড্রিমার্সের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাবর আলীর এভারেস্ট জয়ের বিস্তারিত তুলে ধরা হয়।

এতে বলা হয়, ‘পৃথিবীর সর্বোচ্চ শিখর মাউন্ট এভারেস্টে প্রথম অভিযান পরিচালিত হয় আজ থেকে শতাধিক বছর আগে। ১৯২১ সালে মাউন্ট এভারেস্টে সাফল্য-ব্যর্থতার গল্পগাথার শুরু, তবে পৃথিবীর এই শীর্ষবিন্দুতে বাংলাদেশি পর্বতারোহীদের এভারেস্ট অভিযান হয়েছে আরও পরে একবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে।

‘২০১০ থেকে ২০১৩ সালের মধ্যে চার বছরে পাঁচজন বাংলাদেশি ছয়বার মাউন্ট এভারেস্ট সামিট করেন, কিন্তু এরপরই এভারেস্ট অভিযানে নেমে আসে খরা। দীর্ঘ সময় ধরে কোনো বাংলাদেশি সফল অভিযান হয়নি পৃথিবীর তৃতীয় মেরুতে। আজ ১১ বছরের সেই খরা কাটিয়ে সকাল নেপালের স্থানীয় সময় সাড়ে আটটায় মাউন্ট এভারেস্টের চূড়ায় বাংলাদেশের লাল-সবুজ পতাকা উড়িয়েছেন বাবর আলী। আজ ভোরে বেজ ক্যাম্প টিমের বরাতে আমাদের এই তথ্য নিশ্চিত করেন অভিযানের প্রধান সমন্বয়ক ফরহান জামান।’

বাবরের এভারেস্ট যাত্রা

ভার্টিক্যাল ড্রিমার্সের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ থেকে বাবর আলী নেপালের উদ্দেশে রওনা হন গত ১ এপ্রিল। প্রস্তুতিমূলক কাজ শেষ করে তিন দিন পরই (৪ এপ্রিল) নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু থেকে তিনি উড়ে যান পৃথিবীর অন্যতম বিপজ্জনক বিমানবন্দর লুকলাতে। সেই লুকলা থেকে পথচলা শুরু করে ১০ এপ্রিল বাবর পৌঁছে যান এভারেস্টের বেজ ক্যাম্পে।

এভারেস্ট অভিযানের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হলো একাধিকবার উচ্চতায় ওঠানামা করে উচ্চতার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়া, কিন্তু কয়েক দিন অপেক্ষার পরও নেপালের দায়িত্বরত দল পথ তৈরি করতে পারেনি। তাই বাবর বিকল্প বেছে নেন। তিনি ১৬ এপ্রিল সামিট করেন ২০ হাজার ৭৫ ফুট উচ্চতার লবুচে ইস্ট পর্বত।

১১ বছর পর এভারেস্ট জয় আরেক বাংলাদেশি বাবর আলীর
ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

পরে আবারও বেজ ক্যাম্পে ফিরে পর্বতের নিচ অংশের পথ খুলে গেলে ২৬ এপ্রিল বেজ ক্যাম্প থেকে যাত্রা শুরু করে ক্যাম্প-২ পর্যন্ত ঘুরে এসে শেষ করেন উচ্চতার সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার পর্ব। এরপর শুরু হয় দীর্ঘ অপেক্ষা।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ‘শুভাকাঙ্ক্ষী আবহাওয়াবিদ মোস্তফা কামাল পলাশের কাছ থেকে পাওয়া গেল ১৯ থেকে ২১ এপ্রিল থাকবে চূড়ার পরিবেশ কিছুটা শান্ত। এরপরই ১৪ এপ্রিল মাঝরাতে বেজ ক্যাম্প থেকে শুরু হয় বাবরের স্বপ্নের পথে যাত্রা। প্রথম দিনেই সরাসরি উঠে আসে ক্যাম্প-২-এ, যার উচ্চতা ২১ হাজার ৩০০ ফুট। পরিকল্পনা অনুসারে সেখানে দুই রাত কাটিয়ে বাবর ১৮ মে উঠে আসেন ২৪ হাজার ৫০০ ফুট উচ্চতার ক্যাম্প-৩-এ এবং ১৯ মে আসেন ক্যাম্প-৪-এ।

‘২৬ হাজার ফুট উচ্চতার এ ক্যাম্পের ওপরের অংশকে বলা হয় ডেথ জোন। অবশেষে ১৮ মে মাঝ রাতে আবারও শুরু হয় বাবরের যাত্রা এবং ভোরের প্রথম কিরণে ২৯ হাজার ৩১ ফুট উচ্চতার মাউন্ট এভারেস্ট শীর্ষে উড়িয়ে দেয় বাংলাদেশের পতাকা।’

বাবরের লক্ষ্যের বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘তবে অভিযান কিন্তু এখনও শেষ নয়! বাবরের আসল লক্ষ্য শুধু এভারেস্ট নয়, সাথে লাগোয়া পৃথিবীর চতুর্থ শীর্ষ পর্বত লোৎসেও। আজ ক্যাম্প-৪-এ নেমে মাঝরাতে আবারও শুরু করবেন দ্বিতীয় লক্ষ্যের পথে যাত্রা এবং সব অনুকূলে থাকলে ভোরে পৌঁছে যাবেন এর চূড়ায়।

‘উল্লেখ্য যে, এই লোৎসেতে ইতোপূর্বে কোনো বাংলাদেশি সামিট করেননি এবং কোনো বাংলাদেশি একই অভিযানে দুইটি আট হাজারী শৃঙ্গ চড়েননি। তাই লক্ষ্য পূরণ হলে বাবর আলী করবেন এই বিপজ্জনক খেলায় বাংলাদেশের ইতিহাসের এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা।’

নেপালের ‘স্নোয়ি হরাইজন’ নামক প্রতিষ্ঠানের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত অভিযানে এই সামিটে বাবরের সঙ্গে ছিলেন তাঁর দীর্ঘদিনের বন্ধু এবং পর্বতারোহণ গাইড বীর বাহাদুর তামাং।

১১ বছর পর এভারেস্ট জয় আরেক বাংলাদেশি বাবর আলীর
ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

বাবরের ক্লাব ভার্টিক্যাল ড্রিমার্সের পক্ষ থেকে প্রধান অভিযান সমন্বয়ক ফরহান জামান সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাবর আলীর এই সাফল্য শুধু তার ব্যক্তিগত অর্জন নয়, বরং এটি পুরো বাংলাদেশের জন্য এক গর্বের বিষয়। এটি আমাদের দেশের তরুণদের আরও বড় স্বপ্ন দেখার এবং সেগুলি পূরণ করার জন্য অনুপ্রাণিত করবে।

‘এই অভিযানের পেছনে ছিল অসংখ্য মানুষের অবদান এবং স্বপ্ন। আমরা তাদের সকলকে ধন্যবাদ জানাই।’

অধ্যাবসায়ের শুরু যখন থেকে

ভার্টিক্যাল ড্রিমার্সের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘কাগজে-কলমে বাবর আলীর এই অভিযান আজ থেকে দেড় মাস আগে শুরু হলেও তার কঠিন অধ্যাবসায় শুরু হয়েছিল ১০ বছর আগে। ২০১৪ সালে পর্বতারোহণ ক্লাব ভার্টিক্যাল ড্রিমার্স প্রতিষ্ঠার পর হতেই ক্লাব সতীর্থদের নিয়ে নেপাল এবং ভারতের বহু পর্বতে অভিযান করেছেন তিনি। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে তিনি সামিট করেছেন নেপালের আমা দাবলাম পর্বত। পর্বতারোহণ তার নেশা হলেও সাইক্লিং, ম্যারাথন, স্কুবা ডাইভিংয়ের মতো অ্যাডভেঞ্চার অ্যাকটিভিটিতেও নিয়মিত জড়িত ছিলেন। অ্যাডভেঞ্চারের তাড়নায় হেঁটে ঘুরেছেন দেশের ৬৪ জেলা, সাইকেলে পাড়ি দিয়েছেন ভারতের কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারীর পথ।

‘বান্দরবান থেকে হিমালয়, সুন্দরবন থেকে দক্ষিণ ভারত, যে জনপদেই তিনি গেছেন, সাক্ষী হয়েছেন অভূতপূর্ব কিছু মুহূর্তের। প্রকৃতির প্রতি তার এই ভালোবাসা এবং বিস্ময় প্রতিনিয়তই মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। সেই সূত্র ধরেই অবশেষে পৃথিবীর সর্বোচ্চ চূড়া থেকে পৃথিবী দেখার স্বপ্নও সার্থক করেছেন এই তরুণ পর্বতারোহী।’

১১ বছর পর এভারেস্ট জয় আরেক বাংলাদেশি বাবর আলীর
ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

কে এই বাবর আলী

নানাবিধ দুঃসাহসী কর্মকাণ্ডের কারণে মূলত পরিচিতি হলেও বাবর পেশায় মূলত চিকিৎসক। চট্টগ্রামের হাটহাজারীর বুড়িশ্চর এলাকার লেয়াকত আলী এবং লুৎফুন্নাহার বেগমের দ্বিতীয় সন্তান বাবর।

তিনি চট্টগ্রামের গভর্নমেন্ট মুসলিম হাই স্কুল থেকে মাধ্যমিক এবং ইস্পাহানী পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজে (চমেক) ভর্তি হন।

চমেকের ৫১তম ব্যাচের এ ছাত্র কিছুদিন জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করলেও আগের অভিযানের সময় ছুটি না মেলাতে ত্যাগ করেন চাকরির মোহ।

১১ বছর পর এভারেস্ট জয় আরেক বাংলাদেশি বাবর আলীর
ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

অভিযানে খরচ কত

ভার্টিক্যাল ড্রিমার্সের ভাষ্য, বাবর আলীর এভারেস্ট অভিযানের মোট খরচ ৪৫ লাখ টাকা, যাতে মূল পৃষ্ঠপোষক হিসেবে আছে ভিজ্যুয়াল নীটওয়্যার লিমিটেড। এ ছাড়া সহপৃষ্ঠপোষক ছিল এভারেস্ট ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ঢাকা ডাইভার্স ক্লাব, বীকন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ব্লু জে, চন্দ্রবিন্দু প্রকাশনী, গিরি, ভার্টিক্যাল ড্রিমার্স।

অভিযানের জন্য গণতহবিল সংগ্রহে অংশ নিয়েছেন দেশে-বিদেশে নানা সামাজিক ও ক্রীড়া সংগঠন এবং অগণিত শুভাকাঙ্ক্ষী। অভিযানের সার্বিক সমন্বয় করেছে বাবর আলীর নিজের ক্লাব ভার্টিক্যাল ড্রিমার্স।

এভারেস্ট জয় করা বাংলাদেশিরা

বাবর আলীর আগে এভারেস্টের চূড়ায় উঠেছেন আরও পাঁচ বাংলাদেশি। তাদের মধ্যে মুসা ইব্রাহিম ২০১০ সালের ২৩ মে, এম এ মুহিত ২০১১ সালের ২১ মে এবং ২০১২ সালের ১৯ মে, নিশাত মজুমদার ২০১২ সালের ১৯ মে, ওয়াসফিয়া নাজরীন ২০১২ সালের ২৬ মে এবং খালেদ হোসাইন ওরফে সজল খালেদ ২০১৩ সালের ২০ মে বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ জয় করেন।

সজল খালেদ সামিট শেষে নেমে আসার পথে মৃত্যুবরণ করেন।

আরও পড়ুন:
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসবেন তাই সরলো বাবরের সেই গাড়ি
শোয়েব লঙ্কার জন্য পেইসারদের টিপস দিয়েছেন: বাবর
অক্সিজেন ছাড়াই এভারেস্ট জয়
মায়ের বানানো বিশেষ পতাকা নিয়ে এভারেস্টের চূড়ায়
আরেক বাঙালির এভারেস্ট জয়

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Bangladesh Bank clarified the issue of journalist entry

সাংবাদিক প্রবেশের বিষয়টি স্পষ্ট করল বাংলাদেশ ব্যাংক

সাংবাদিক প্রবেশের বিষয়টি স্পষ্ট করল বাংলাদেশ ব্যাংক
জাতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক দেশের জনগণের কাছে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহের বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করে বলে এক স্পষ্টীকরণ বার্তায় জানায় সংস্থাটি।

সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার ও তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে অবস্থান স্পষ্ট করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

গত বুধবার সংস্থাটি এক স্পষ্টীকরণ বার্তায় জানায়, সাংবাদিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা মর্মে গণমাধ্যমে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রকাশিত হচ্ছে।

জাতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেশের জনগণের কাছে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহের বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করে বলে ওই বার্তায় জানায় তারা। খবর বাসস

ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ ব্যাংক গণমাধ্যমকর্মীদের মাধ্যমে দেশের জনসাধারণের নিকট সকল প্রদানযোগ্য তথ্য প্রদানে বদ্ধপরিকর। তাই গণমাধ্যমকর্মীদের প্রয়োজনীয় প্রদানযোগ্য সকল তথ্য সংগ্রহ ও পরিবেশেনে কতিপয় পদ্ধতি অনুসরণ করছে তারা। যেমন: বাংলাদেশ ব্যাংক সম্পর্কিত গণমাধ্যমে প্রদানযোগ্য তথ্য প্রদান, তার ব্যাখ্যা ও সম্পূরক তথ্যাদি প্রদানে নির্বাহী পরিচালক পর্যায়ের একজন কর্মকর্তা মুখপাত্র হিসেবে ও পরিচালক পর্যায়ের দুইজন কর্মকর্তা সহকারী মুখপাত্র হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন। যেকোনো সংবাদকর্মী অফিস চলাকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল ভবনে প্রবেশ করে এই কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তথ্য সংগ্রহ ও বক্তব্য গ্রহণ করতে পারেন।

এছাড়া কোনো বিশেষ প্রয়োজনে কোনো নির্দিষ্ট কর্মকর্তার কাছ থেকে প্রবেশ পাস গ্রহণ করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার নিকট সংবাদকর্মীরা প্রয়োজনীয় তথ্যাদির ব্যাখ্যা গ্রহণ করতে পারেন বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

বিজ্ঞিপ্তিতে আরও জানানো হয়, বাংলাদেশ ব্যাংক সময়ে সময়ে প্রেস কনফারেন্স, প্রেস রিলিজ ও অন্যান্য মাধ্যমে সংবাদকর্মীদের প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করছে।

এ ছাড়াও অবাধ তথ্যপ্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক তার সংরক্ষিত সকল অর্থনৈতিক তথ্য ও উপাত্ত ওয়েবসাইটে নিয়মিতভাবে প্রকাশ করে আসছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ ব্যাংক মেরুদণ্ড সোজা রেখে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারছে না: সিপিডি
পঞ্চগড়ে যা বললেন ডেপুটি গভর্নর খুরশিদ আলম
সাংবাদিক প্রবেশে কড়াকড়ি ইস্যুতে যা জানাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক
বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার নিশ্চিতের দাবি

মন্তব্য

p
উপরে