× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
The death of the young man while putting out the fire is a back and forth chase
google_news print-icon

আগুন নেভাতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু, পাল্টাপাল্টি ধাওয়া

আগুন-নেভাতে-গিয়ে-যুবকের-মৃত্যু-পাল্টাপাল্টি-ধাওয়া
রংপুর নগরীর খামার পাড়া এলাকায় সোমবার স্থানীয়দের সঙ্গে পুলিশের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া হয়। ছবি: নিউজবাংলা
কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজার রহমান বলেন, আগুন নেভাতে একসঙ্গে অনেকেই একটি বাড়ির ছাদে উঠেছিল। সেখান থেকে নূর আলম নামের এক যুবক পড়ে গিয়ে মারা গেছেন।

রংপুর নগরীর খামার পাড়া এলাকায় একটি বাড়িতে আগুন নেভাতে গিয়ে ছাদ থেকে পড়ে নুর আলম নামে এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় স্থানীয়দের সঙ্গে পুলিশের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশ সদস্যসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হন।

সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, খামাড়পাড়ায় তাবলিগ মসজিদের পাশে ফকির চান নামের এক ব্যক্তির টিনশেড বাড়িতে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিস আসার আগেই পাশের মাজেদ মিয়ার একতলা বাড়ির ছাদে উঠে এলাকাবাসী পানি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। এরই মধ্যে নূর আলম নামের এক যুবক ছাদ থেকে পড়ে গুরুতর আহত হন। তাক রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট প্রায় এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এরই মধ্যে নূর আলমের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী মাজেদ মিয়ার বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালান। পুলিশ তাদের থামাতে গেলে পুলিশের সঙ্গেও তাদের সংঘর্ষ বাধে। এ সময় দুই পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ১০ জন আহত হন।

রংপুর কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজার রহমান বলেন, আগুন নেভাতে একসঙ্গে অনেকেই একটি বাড়ির ছাদে উঠেছিল। সেখান থেকে নূর আলম নামের এক যুবক পড়ে গিয়ে মারা গেছেন। তবে কীভাবে ছাদ থেকে পড়েছে বা কেউ তাকে ধাক্কা দিয়েছে কি না, তা এখনো আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি।

বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

আরও পড়ুন:
প্রধানমন্ত্রী চাহিদা অনুযায়ী বরাদ্দ দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন: রংপুর সিটি মেয়র
রংপুরের দারুণ জয়, টানা তিন হার খুলনার
দ্বিতীয় ম্যাচে রংপুরের মুখোমুখি হচ্ছে চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা
ইভিএম কী জিনিস, টের পেয়েছে রংপুর: নজরুল
রংপুরে আমাদের জাতীয় পার্টি শক্ত অবস্থানে, তাই নৌকার পরাজয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
After three hours of efforts the fire at Jhoot warehouse in Gazipur was brought under control

তিন ঘণ্টার চেষ্টায় গাজীপুরের ঝুট গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

তিন ঘণ্টার চেষ্টায় গাজীপুরের ঝুট গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে ছবি: নিউজবাংলা
বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে আগুন লাগে এবং তা সন্ধ্যা ৬টা ১৮ মিনিটে নিয়ন্ত্রণে আসে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

গাজীপুরের কোনাবাড়িতে ঝুটের গুদামে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসে ছয়টি ইউনিট প্রায় তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে আগুন লাগে এবং তা সন্ধ্যা ৬টা ১৮ মিনিটে নিয়ন্ত্রণে আসে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

আগুনে কয়েকটি ঝুটের গুদাম ও বসতবাড়ির কয়েকটি কক্ষ পুড়ে গেছে।

স্থানীয়রা জানান, বিকেলে নগরীর কোনাবাড়ি আমবাগ এলাকার শরিফের ঝুটের গুদাম থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তেই আগুন পাশের মোহাম্মদ জমির উদ্দিন, মো. লালন খানসহ পার্শ্ববর্তী মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর টিনশেড বসতবাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে ওই বসতবাড়িগুলোর বেশ কয়েকটি কক্ষ পুড়ে যায়।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মো. আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, ‘আগুন লাগার খবর পেয়ে প্রথমে কোনাবাড়ী এবং পরে সারাবো কাশিমপুর এবং জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিসের মোট ৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে।’

তিনি বলেন, ‘ঘিঞ্জি আবাসিক এলাকা হওয়ায় ও অনেক ঝুট গুদাম থাকায় আমরা যথেষ্ট পরিমাণ পানি পাইনি। যে কারণে আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয়েছে।

‘দেড়/দুই কিলোমিটার দূর থেকে পানি এনে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করি। এক পর্যায়ে সন্ধ্যা ৬টা ১৮টা মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।’

আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত সাপেক্ষে জানা যাবে বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
গাজীপুরে জ্বলছে ঝুটের গুদাম

মন্তব্য

বাংলাদেশ
5 killed in bus truck collision on Bangabandhu Expressway

মাদারীপুরে এক্সপ্রেসওয়েতে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৪

মাদারীপুরে এক্সপ্রেসওয়েতে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৪ দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি। ছবি: নিউজবাংলা
মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক শফিকুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘উদ্ধার অভিযান শেষ হয়েছে, আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে দুজন মারা যায়, বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতালে মারা যায় বলে শুনেছি। তবে নিহতদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করা যায়নি।’

মাদারীপুরের শিবচরে বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কয়েকজন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শিবচর উপজেলার সূর্যনগর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে পুলিশ জানায়, সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা হানিফ পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়ের শিবচর উপজেলার সূর্যনগর এলাকায় পৌঁছালে পেছন থেকে একটি ট্রাক বাসটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বাসের ২ যাত্রী নিহত হন। আর শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে মারা যায় আরো ২ যাত্রী। এছাড়া আহত হন বেশ কয়েকজন।

খবর পেয়ে শিবচর হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক শফিকুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘উদ্ধার অভিযান শেষ হয়েছে, আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে দুজন মারা যায়, বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতালে মারা যায় বলে শুনেছি। তবে নিহতদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করা যায়নি।’

শিবচর হাইওয়ে থানার ওসি মো. শাকিল বলেন, ‘যাত্রীবাহী হানিফ পরিবহনকে পেছন থেকে ট্রাকটি ধাক্কা দেয়। এতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে নিকটস্থ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

মন্তব্য

বাংলাদেশ
There is a shortage of free contraceptives including condoms in Mehepur

কনডমসহ বিনা মূল্যের জন্মনিরোধক সামগ্রীর সংকট মেহেরপুরে

কনডমসহ বিনা মূল্যের জন্মনিরোধক সামগ্রীর সংকট মেহেরপুরে মেরেপুরের তিন উপজেলায় পাওয়া যাচ্ছে না জন্মনিরোধক সামগ্রী। ছবি: নিউজবাংলা
মাঠ পর্যায়ে কর্মরতরা বলছেন, গত ছয় মাসের বেশি সময় ধরেই তাদের কাছে এসব সামগ্রীর সংকট রয়েছে।

মেহেরপুরের তিন উপজেলায় কোনো পরিবার পরিকল্পনা অফিসেই দুই মাস ধরে নেই জন্মনিরোধক সামগ্রী কনডম,বড়ি ও ইনজেক্টেবল।
অবশ্য ইমপ্লান্ট, আইইউডি ও ডিডিএস খুব অল্প সংখ্যাক রয়েছে এসব উপজেলায়, যা দিয়ে চলবে মাস খানেকের মত।

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনার কর্মকর্তঅরা নিউজবাংলাকে এসব তথ্য জানিয়েছেন। তবে কবে এই সমস্যার সমাধান হবে তা জানেন না তা তারা।

মাঠ পর্যায়ে কর্মরতরা বলছেন, গত ছয় মাসের বেশি সময় ধরেই তাদের কাছে এসব সামগ্রীর সংকট রয়েছে।

জেলার প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলের অনেক ওষুধের দোকানিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিক্রি নিষিদ্ধ পরিবার পরিকল্পনার এ সব সেবা সামগ্রী কিছুদিন আগেও তারা গোপনে বিক্রি করেছেন। তবে এখন সংকট চলায় তা আর পাওয়া যাচ্ছে না।

গাংনী উপজেলার স্থানীয় জামেলা খাতুন বলেন, আমি বামন্দী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ইনজেকশনের জন্য এসেছিলাম। তারা বললো, তাদের নাকি স্টক শেষ হয়ে গেছে। কবে নাগাদ আসবে তাও বলতে পারছে না।

গৃহিণী সামসুন্নাহার বলেন, আমি প্রায় ১০বছর ধরে সুখী বড়ি সেবন করি। অথচ আজ তিন মাস হবে, ডাক্তার আপা আমাকে তা দিতে পারছে না।

বামন্দী ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন বাসিন্দা দিনমজুর রফাত আলী বলেন, আমার বাড়ির পাশেই হাসপাতাল অথচ এ হাসপাতালে কনডমের জন্য এক মাসে দুবার এসে ঘুরে গেলাম। তারা দিতে পারলো না। আমি বাইরে থেকে কিনলাম। কবে নাগাদ আসবে তা বলতে পারছে না তারা।

বামন্দী ইউনিয়ন পরিবার পরিকল্পনার পরিদর্শক স্বপন আলী বলেন, গত চার পাঁচ মাস ধরেই ইউনিয়ন জুড়ে ইনজেকশন, বড়ি ও কনডমের সংকট রয়েছে। তার পরও সেবা কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি সর্বদা অবগত করে আসছি। তবে এখনো সংকট কাটেনি। সেবা প্রত্যাশী অনেকেই সেবা নিতে আমাদের কাছে এসে ঘুরে যাচ্ছে।

নাম প্রকাশ করতে না চাওয়া বামন্দী ইউনিয়ন পরিবার পরিকল্পনার এক অফিস সহকারী বলেন, আমরা গ্রামের বসবাসকারী মানুষের সেবা প্রদান করে থাকি। আমাদের কাছে যদি বড়ি, কনডম আর ইনজেকশন না থাকে। তাহলে আসলে আমাদের সেবা দেয়ার আর তেমন কিছুই থাকে না। প্রতিদিন অনেক সেবা প্রত্যাশী এসে সেবা বঞ্চিত হয়ে ফিরে যাচ্ছে।

পল্লী চিকিৎসক শিহাবুল বলেন, আমরা এক সময় খুব কম দামে নিরাপদ কনডম ও সুখী বড়ি গোপনে কিনতে পেতাম। আমরা নামমাত্র লাভে বিক্রিও করেছি। কেননা গ্রামের অনেক মা বোন আছে যারা এগুলো বাদে অন্য কিছু ব্যাবহারে সাথে অভ্যস্ত নয়। তাই সরকারি পণ্য বিক্রি অপরাধ জেনেও কাস্টমার ধরে রাখতে এগুলো বিক্রি করেছি। তবে আজ মাস তিনেক হবে এগুলো কেও আমাদের কাছে বিক্রি করতে আসে না। আবার সরকারি হাসপাতালেও এগুলো পাওয়া যাচ্ছে না।

মেহেরপুর সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘কনডম এবং ইনজেক্টেবুল বড়ি আমাদেরও এই পদ্ধতি মাঠ পর্যায়ে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। আশা করি সেন্ট্রাল থেকে প্রসিউর হবে। আমরা ওয়ার হাউজের মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ে অসলে আসার সাথে সাথে সেটা মাঠ পর্যায়ে বিতরণ করব। তাহলে আগের মতই সেবা পরিচালিত করতে পারব।’

একই কথা বলেন গাংনী উপজেলা ও মুজিব নগর উপজেলার পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আব্দুস সাত্তার ও সানজিদা আক্তার।

আরও পড়ুন:
জন্মের দুই ঘণ্টায় নিবন্ধন সনদ পেল শিশু
ক্যানভাসের আয়োজনে এস এম সুলতানের জন্মশতবার্ষিকী পালন
জন্ম নিবন্ধন যেন জন্মগ্রহণের চেয়ে কঠিন

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Jhoot warehouse is burning in Gazipur

গাজীপুরে জ্বলছে ঝুটের গুদাম

গাজীপুরে জ্বলছে ঝুটের গুদাম ছবি: নিউজবাংলা
প্রথমে আমবাগ এলাকার শরিফ নামের এক ব্যক্তির ঝুট গুদাম থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়। পরে তা ছড়িয়ে পড়ে পাশের আরও একটি ঝুট গুদামে।

গাজীপুরের কোনাবাড়িতে একটি ঝুটের গুদামে আগুন লেগেছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করেছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে কোনাবাড়ির আমবাগ এলাকায় আগুনের এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, আমবাগ এলাকার শরিফ নামের এক ব্যক্তির ঝুট গুদাম থেকে আগুনের সূত্রপাত। পরে তা ছড়িয়ে পড়ে পাশের আরও একটি ঝুট গুদামে। গুদামের আশপাশে বসতবাড়ি থাকায় আতঙ্কে অনেকেই বাসাবাড়ির মালামাল সরিয়ে নিচ্ছেন।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, ‘আগুনের খবর পেয়ে প্রথমে কোনাবাড়ি মর্ডান ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজে শুরু করে। বাতাসে আগুন ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনায় কাশিমপুর ডিবিএল ফায়ার সার্ভিসের আরও দুটি ইউনিট যোগ দেয় এবং আরেকটি ইউনিট নিয়ে আমি ঘটনাস্থলে যাচ্ছি।’

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। আগুন লাগার কারণ তদন্তের পর জানা যাবে বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
157 farmers got loans of more than crore rupees

১৫২ কৃষক পেলেন কোটি টাকার বেশি ঋণ

১৫২ কৃষক পেলেন কোটি টাকার বেশি ঋণ দিনাজপুরে ১৫২ কৃষক পেলেন এক কোটি ১৬ লাখ টাকার ঋণ। ছবি: নিউজবাংলা
সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক পিএলসির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ হাবীবুর রহমান বলেন, ‘দিনাজপুর একটি কৃষি প্রধান জেলা। এই জেলার বিভিন্ন ধরনের খাদ্যশস্য উৎপাদন করা হয়। পাশাপাশি এই জেলার মাটি ভুট্টা আবাদের জন্য খুবই উপযোগী। তাই এই জেলার কৃষকদের পাশে আমরা দাঁড়িয়েছি।’

দিনাজপুরের খানসামায় ১৫২ জন ভুট্টা চাষিকে প্রায় এক কোটি ১৬ লাখ টাকার ঋণ দিয়েছে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক।

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার গোয়ালডিহি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ভুট্টা চাষি ও কৃষি উদ্যোক্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে খানসামা উপজেলার ১৫২ জন কৃষকের মাঝে এক কোটি ১৬ লাখ ৭০ হাজার টাকার ঋণ বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক পিএলসির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ হাবীবুর রহমান বলেন, ‘দিনাজপুর একটি কৃষি প্রধান জেলা। এই জেলার বিভিন্ন ধরনের খাদ্যশস্য উৎপাদন করা হয়। পাশাপাশি এই জেলার মাটি ভুট্টা আবাদের জন্য খুবই উপযোগী। তাই এই জেলার কৃষকদের পাশে আমরা দাঁড়িয়েছি।

‘ভুট্টা চাষ করার জন্য স্বল্প সুদে কৃষকদের মাঝে ঋণ বিতরণ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে আমরা এই এলাকার কৃষকদের মাঝে ঋণ বিতরণ করেছি। ঋণগ্রহিতারা সময়মতো ঋণের টাকা ফেরত দিয়েছে। তাই আমরা এবার আরও বেশি ঋণ প্রদান করছি।’

তিনি জানান, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক গ্রামের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য কাজ করছে। ঋণ বিতরণ কার্যক্রম ভবিষ্যতে আরও বাড়ানো হবে।

আরও পড়ুন:
কৃষিকাজের ফাঁকে ইংরেজি চর্চা মুন্ডা সম্প্রদায়ের কৃষকের
নওগাঁয় সেচমূল্য নিয়েও পানি না দেয়ার অভিযোগ কৃষকদের
বিশ্বব্যাংক থেকে ঋণ মিলবে ১১০ কোটি ডলার, ৫ চুক্তি
শেরপুরে অসময়ে তরমুজ চাষ, কৃষকের ভাগ্য বদলের আশা
মহাসড়কে সবজি ঢেলে প্রতিবাদ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A robber who dressed as a police officer was arrested after setting up a check post

চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের পোশাক পরে ডাকাতি, একজন আটক

চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের পোশাক পরে ডাকাতি, একজন আটক ডাকাত দলের সদস্যের কাছে উদ্ধারকৃত পুলিশের পোশাক। ছবি: নিউজবাংলা
টঙ্গিবাড়ী থানার এসআই আল মামুন বলেন, রাস্তায় চলাচলরত গাড়ি থামিয়ে পুলিশের পোশাক পরে চেক পোস্ট বসিয়ে ডাকাতি করছিলেন সাতজন। পরে পুলিশের টহলরত গাড়ি ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাতরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ওই সময় পথচারীদের সহায়তায় একজনকে আটক করে পুলিশ, যিনি ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য।

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের পোশাক পরে ডাকাতির সময় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের সিদ্ধেশ্বরী জোড়া ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা থেকে বুধবার রাতে তাকে আটক করা হয়।

আটক জহিরুল ইসলাম ওরফে কানা জহির মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার কালিরচর এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয়দের ভাষ্য, বুধবার রাত সোয়া ১০টার দিকে টঙ্গিবাড়ী-হাসাইল সংযোগ সড়কের সিদ্ধেশ্বরী জোড়া ব্রিজ এলাকায় পুলিশের পোশাক পরে চেকপোস্ট বসিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশা থামিয়ে যাত্রীদের দেহ তল্লাশি করেছিলেন ছদ্মবেশী সাত ডাকাত। ওই সময় পুলিশের টহল গাড়ি ওই স্থান দিয়ে যাচ্ছিল। অনেক লোকজনের সমাগম দেখে প্রকৃত পুলিশ সদস্যরা তাদের টহল গাড়ি ওই স্থানের পাশে থামালে ডাকাত সদস্যরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

ওই সময় পথচারীদের সহায়তায় এক ডাকাত সদস্যকে আটক করে পুলিশ। ডাকাত দলের বাকি ছয় সদস্য পালিয়ে যান।

এ বিষয়ে টঙ্গিবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আল মামুন বলেন, রাস্তায় চলাচলরত গাড়ি থামিয়ে পুলিশের পোশাক পরে চেক পোস্ট বসিয়ে ডাকাতি করছিলেন সাতজন। পরে পুলিশের টহলরত গাড়ি ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাতরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ওই সময় পথচারীদের সহায়তায় একজনকে আটক করে পুলিশ, যিনি ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য।

আরও পড়ুন:
গজারিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত
হিজলায় সরকারি চালবাহী কার্গোতে ডাকাতির অভিযোগ
নওগাঁয় হাঁস ও ডিম ডাকাতি, ঢাকায় ধরা
আশুলিয়ায় ডাকাতদের গুলিতে কারখানার নিরাপত্তাকর্মী নিহত
মুন্সীগঞ্জে নির্বাচনি ক্যাম্পে গুলি, নৌকার কর্মী নিহত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Pabna CNG Private car hit 1 dead 5 injured

প্রাইভেট কারের ধাক্কায় অটোরিকশার চালক নিহত

প্রাইভেট কারের ধাক্কায় অটোরিকশার চালক নিহত ঈশ্বরদী থানা এলাকায় বুধবার রাতে দুর্ঘটনায় আহত পাঁচজনকে শুরুতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ছবি: নিউজবাংলা
ঈশ্বরদী থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, পাকশীর রূপপুর থেকে পাঁচ আরোহী নিয়ে রাত ১২টায় আওতাপাড়া যাচ্ছিল অটোরিকশাটি। পথে একটি ভ্যানকে ধাক্কা দিয়ে সড়কের মাঝে চলে আসে অটোরিকশাটি। ওই সময় আওতাপাড়া থেকে রূপপুরের দিকে আসা প্রাইভেট কার ধাক্কা দেয় অটোরিকশাটিকে। এতে ঘটনাস্থলেই অটোরিকশার চালক নিহত হন।

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় সিএনজিচালিত অটোরিকশায় প্রাইভেট কারের ধাক্কায় একজন নিহত ও পাঁচজন আহত হয়েছেন।

পাবনা-পাকশী আঞ্চলিক সড়কে উপজেলার সাহাপুর মসজিদ মোড়ে বুধবার রাত ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রাণ হারানো অটোরিকশার চালক মো. শরীফ ঈশ্বরদীর সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়া গ্রামের জামাল মিয়ার ছেলে।

এ দুর্ঘটনায় আহত পাঁচজনের মধ্যে একজন প্রাইভেট কারের যাত্রী। বাকিরা অটোরিকশার যাত্রী।

ঈশ্বরদী থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, পাকশীর রূপপুর থেকে পাঁচ আরোহী নিয়ে রাত ১২টায় আওতাপাড়া যাচ্ছিল অটোরিকশাটি। পথে একটি ভ্যানকে ধাক্কা দিয়ে সড়কের মাঝে চলে আসে অটোরিকশাটি। ওই সময় আওতাপাড়া থেকে রূপপুরের দিকে আসা প্রাইভেট কার ধাক্কা দেয় অটোরিকশাটিকে। এতে ঘটনাস্থলেই অটোরিকশার চালক নিহত হন।

তিনি জানান, দুর্ঘটনায় আহত পাঁচজনকে শুরুতে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও জানান, দুর্ঘটনার শিকার গাড়ি দুটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

মন্তব্য

p
উপরে