× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
The road is like a truck terminal
google_news print-icon

সড়ক যেন ট্রাক টার্মিনাল

সড়ক-যেন-ট্রাক-টার্মিনাল
ট্রাক টার্মিনাল না থাকায় মজুচৌধুরীরহাট সড়কের দুপাশে মালবাহী ট্রাক দাঁড়িয়ে আছে। ছবি: নিউজবাংলা
পৌরসভাকে কর দিয়েও সেবা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেন ট্রাকচালক আবুল হোসেন। তিনি বলেন, ‘টার্মিনাল না থাকায় চালকদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। চালকদের গোসলখানা ও শৌচাগার নেই। গাড়ি ধোয়ার জায়গা নেই, নেই ঘুমানোর ব্যবস্থা। গাড়ি রেখে কোথাও যাওয়া যায় না। অথচ আমরা পৌরসভাকে কর দিয়ে যাচ্ছি।’

লক্ষ্মীপুরে ট্রাক টার্মিনাল না থাকায় ভোগান্তি পোহাচ্ছেন শ্রমিক-চালকসহ সাধারণ মানুষ। গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গা না থাকায় লক্ষ্মীপুর, ভোলার মজুচৌধুরীহাট, ঢাকা ও চট্টগ্রাম আঞ্চলিক মহাসড়কসহ বিভিন্ন সড়কে ট্রাক পার্কিং করা হচ্ছে। এতে করে তৈরি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট, প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা।

স্থানীয়রা জানান, প্রতিদিন পাঁচ হাজারের বেশি ট্রাক লক্ষ্মীপুর থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চলাচল করে। এক যুগের বেশি পুরাতন একটি ছোট বাস টার্মিনাল থাকলেও ট্রাকের জন্য আলাদা কোনো টার্মিনাল নেই। এতে বাধ্য হয়ে মালবাহী বা খালি ট্রাক গাদাগাদি করে বিভিন্ন সড়কের ওপর এবং ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সামনে পার্কিং করে রাখা হচ্ছে। রাস্তার ওপরে ট্রাক রাখতে গিয়ে শ্রমিকদের সঙ্গে পথচারীসহ বিভিন্ন জনের মধ্যে হচ্ছে বাগবিতণ্ডা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, রাস্তার ওপর ট্রাক রাখায় শহরে তৈরি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। ফলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে থাকতে হচ্ছে তাদের।

কবে নাগাদ টার্মিনাল নির্মাণ হবে সেটাও নিশ্চিত নয়। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ শ্রমিক, চালক ও ব্যবসায়ীরা।

এদিকে চন্দ্রগঞ্জ থানা হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জুন থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত সড়কে ট্রাক পার্কিং করতে গিয়ে দুর্ঘটনায় প্রাণ গেছে ১৫ জনের। আহত হয়েছেন অন্তত ২৫ জন।

এর মধ্যে রাস্তায় পার্কিং করতে গিয়ে বেশির ভাগ দুর্ঘটনা হয়েছে বলে দাবি হাইওয়ে পুলিশের।

লক্ষ্মীপুর উত্তর তেমোহনী এলাকার গেটওয়াল সিরামিকের ডিলার মো. রিয়াজ উদ্দিন জানান, টার্মিনাল না থাকায় বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সামনের সড়কে ট্রাক পার্কিং করা হচ্ছে। এতে ট্রাক মালিক ও চালকদের সঙ্গে অনেক সময় হাতাহাতি ও তর্কতে জড়াতে হচ্ছে। দ্রুত ট্রাক টার্মিনাল তৈরি করার দাবি জানান তিনি।

একই অভিযোগ করেছেন জেলা বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ট্রাক টার্মিনালের কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের। এসব বিষয়ে বারবার বলার পরও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

পৌরসভাকে কর দিয়েও সেবা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেন ট্রাকচালক আবুল হোসেন। তিনি বলেন, ‘টার্মিনাল না থাকায় চালকদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। চালকদের গোসলখানা ও শৌচাগার নেই। গাড়ি ধোয়ার জায়গা নেই, নেই ঘুমানোর ব্যবস্থা। গাড়ি রেখে কোথাও যাওয়া যায় না। সব সময় আতঙ্কের মধ্যে থাকতে হয়। অথচ আমরা পৌরসভাকে কর দিয়ে যাচ্ছি।’

লক্ষ্মীপুর বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) সহকারী পরিচালক মো. এনায়েত হোসেন মন্টু বলেন, ছোট-বড় মিলে প্রায়ই ৫ হাজার ট্রাক চলাচল করছে। অথচ একটি টার্মিনাল নেই। অনেক সময় ট্রাক পার্কিং করতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হতে হয়। দ্রুত ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ হলে যানজট কমার পাশাপাশি দুর্ঘটনা প্রতিরোধও সম্ভব।

লক্ষ্মীপুর পৌর মেয়র মোজাম্মেল হায়দর মাসুম ভূইয়া বলেন, ‘আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসহ একটি পৌর মডেল ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে পৌর শহরের মিয়ার রাস্তার মাথা এলাকায় ৬০ শতক জমি নেয়া হয়েছে। অর্থসংকটের কারণে নির্মাণকাজ শুরু করতে পারছে না পৌরসভা। তবে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
এটি একটি বাস টার্মিনাল
চট্টগ্রাম বন্দরে বে-টার্মিনাল: নকশা প্রণয়নে চুক্তি সই
জায়গা স্বল্পতায় ট্রাক টার্মিনাল হবে বাস টার্মিনাল
সড়ক নয়, যেন বাস টার্মিনাল

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Barisal Bhola traffic stopped in truck canal due to broken bridge

ব্রিজ ভেঙ্গে ট্রাক খালে, বরিশাল-ভোলা যান চলাচল বন্ধ

ব্রিজ ভেঙ্গে ট্রাক খালে, বরিশাল-ভোলা যান চলাচল বন্ধ শনিবার রাত আড়াইটার দিকে ট্রাকটি ব্রিজ ভেঙে খালে পড়ে যায়। ছবি: নিউজবাংলা
স্থানীয়দের অভিযোগ, যেনতেনভাবে মাত্র এক মাস আগে ব্রিজটি তৈরি করেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। বেশকিছু দিন ধরে একাধিকবার বলা হলেও ব্রিজ মেরামতে উদ্যোগ নেয়া হয়নি বলে ক্ষোভ রয়েছে তাদের।

বরিশাল-ভোলা মহাসড়কের টুঙ্গিবাড়িয়া এলাকায় একটি বেইলি ব্রিজ ভেঙ্গে পড়েছে। এতে গুরুতর কোনো হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও দীর্ঘ ১২ ঘণ্টার বেশি সময় ওই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছে থানা পুলিশ।

শনিবার রাত আড়াইটার দিকে লোহার কুচি ভর্তি ট্রাক ব্রিজের ওপর উঠলে সেটি ভেঙে খালে পড়ে যায়।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের বন্দর থানার ওসি আব্দুর রহমান মুকুল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ব্রিজের ওপর উঠলে বরিশাল থেকে ভোলাগামী ট্রাকটি খালে পড়ে যায়। এতে ট্রাকের ভেতরে থাকা চালক ও হেলপার আহত হলেও তাদের কারও অবস্থা গুরুতর নয়।

ওসি বলেন, ‘রোববার সকালে সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। তারা ব্রিজটি মেরামতের পাশাপাশি বিকল্প সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা সচল করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। বিকল্প ব্যবস্থা না হওয়া পর্যন্ত বরিশাল-ভোলা রুটে যান চলচল বন্ধ থাকবে।’

স্থানীয়রা জানান, যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সড়কের উভয়প্রান্তে প্রায় এক কিলোমিটার জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ব্রিজটি ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে পণ্য ও যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ হয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। মানুষকে পায়ে হেঁটে বিকল্প পথে খালটি পার হয়ে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে।

ট্রাকের চালক ও হেলপার জানান, বেনাপোল থেকে বরিশাল-ভোলা হয়ে চট্টগ্রাম যাওয়ার কথা ছিল ট্রাকটির, কিন্তু শনিবার রাত আড়াইটার দিকে টুঙ্গিবাড়িয়ার স্লুইজ গেট এলাকার বেইলি ব্রিজে উঠলে ব্রিজটি ভেঙে পড়ে। রড তৈরির কাঁচামালের ২৫ টন লোহার কুঁচিভর্তি করে ট্রাকটি ওই ব্রিজ পার হচ্ছিল।

তারা জানান, ব্রিজটি ভেঙ্গে পড়ায় ট্রাকটি উল্টে খালে পড়ে যায়। এতে অল্পের জন্যে প্রাণে বেঁচে যান তারা। তবে স্থানীয়রা তাৎক্ষনিক তাদের উদ্ধার করে।

টুঙ্গিবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান নাদিরা রহমান বলেন, ‘বেইলি ব্রিজটি ভেঙে পড়ায় বরিশাল-ভোলা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। শত শত মানুষসহ এ পথ দিয়ে স্বল্প সময়ে সড়কপথে ভোলা, নোয়াখালী, ফেনীসহ চট্টগ্রামে যাতায়াত করেন যাত্রীরা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, যেনতেনভাবে মাত্র এক মাস আগে ব্রিজটি তৈরি করেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। বেশকিছু দিন ধরে একাধিকবার বলা হলেও ব্রিজ মেরামতে উদ্যোগ নেয়া হয়নি বলে ক্ষোভ রয়েছে তাদের।

একই কথা জানিয়েছেন ওই রুটে চলাচলকারী ট্রাক, বাস ও ট্যাংক লরির চালক-হেলপাররাও। তাদের দাবি, সেতুটি দিয়ে কী পরিমাণ ওজনের যানবাহন চলাচল করতে পারবে, তারও নির্দেশনা দেয়া ছিল না; থাকলেও হয়ত ট্রাকটি ঝুকি নিত না।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সড়ক ও জনপদ বিভাগ বরিশালের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ মাহমুদ সুমন দাবি করেছেন, ২০ টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন বেইলি ব্রিজটিতে অতিরিক্ত পণ্য ওঠাতেই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে।

এদিকে সড়কটিতে যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থা দ্রুত করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক ও জনপদ বিভাগ বরিশাল অঞ্চলের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী একেএম আজাদ রহমান।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, কর্মকর্তারা পরিদর্শনের পর ব্রিজটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তবে সেটিতে সময় লাগায় এখন বিকল্প অস্থায়ী সড়ক নির্মাণের কথা জানিয়েছেন তারা।

আর যারা ব্রিজটি সংস্কারের কাজে নিয়জিত তারা বলছেন, কমপক্ষে দুদিন লাগবে ব্রীজটি ঠিক করতে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Three SSC examinees expelled for cheating in Ghoraghat six teachers exempted

নকলের দায়ে এসএসসির ৩ পরীক্ষার্থী বহিষ্কার, ৬ শিক্ষককে অব্যাহতি

নকলের দায়ে এসএসসির ৩ পরীক্ষার্থী বহিষ্কার, ৬ শিক্ষককে অব্যাহতি
ঘোড়াঘাট উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসান বলেন, ‘অসদুপায় অবলম্বন করা তিন পরীক্ষার্থী কিন্ডার গার্টেন (কেজি) স্কুলের শিক্ষকের কাছ থেকে উত্তরপত্রের ফটোকপি পেয়েছে। ওই শিক্ষকদের বিষয়ে আমরা অনুসন্ধান করছি। তাদেরকে নজরদারীতে রাখা হয়েছে।’ 

দিনাজপুর ঘোড়াঘাটে চলমান মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন করায় তিন পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

উপজেলার রাণীগঞ্জ দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের রোববার বেলা ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এদের মধ্যে দুজন ছাত্রী এবং একজন ছাত্র। এ ছাড়াও পরীক্ষা কেন্দ্রের ছয়জন কক্ষ পরিদর্শককে তাদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

জানা যায়, কেন্দ্রের পৃথক তিনটি কক্ষের তিনজন পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে প্রশ্নপত্রের সঙ্গে হুবহু মিল পাওয়া যায় উত্তরপত্রের।

পরে ফটোকপি জব্দ করেন পরীক্ষা কেন্দ্রটির ট্যাগ অফিসার উপজেলা রিসোর্স ইন্সট্রাক্টর শহিদুল ইসলাম। এরপর তিনি কর্তৃপক্ষকে এ বিষয় জানালে ওই কেন্দ্রে উপস্থিত হয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রফিকুল ইসলাম এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুল হাসান।

পরে এই কর্মকর্তাদের কাছে ওই তিন পরীক্ষার্থী বলেন, ‘আমরা গৃহশিক্ষকের কাছ থেকে এই উত্তরপত্রগুলো পেয়েছি।’

এ ঘটনায় ওই তিন পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার এবং কেন্দ্রটির ভিন্ন এই তিনটি কক্ষের দায়িত্বে থাকা ছয়জন কক্ষ পরিদর্শককে তাদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

ইউএনও রফিকুল ইসলাম বলেন, বহিষ্কৃত এই তিন পরীক্ষার্থীকে আগামী বছর নতুন করে পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে হবে। অব্যাহতি পাওয়া ছয় কক্ষ পরিদর্শক এই বছরে পরীক্ষা কেন্দ্রে তাদের দায়িত্বপালন করতে পারবেন না।

পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন করা এই তিন শিক্ষার্থীর মধ্যে দুজন কুলানন্দপুর উচ্চ বিদ্যালয় এবং একজন রাণীগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এই বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছিল। তাদের রোল নাম্বার ২৬২৬৬৪, ২৬২৭০৫, ২৬২৮০৬।

ঘোড়াঘাট উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসান বলেন, ‘অসদুপায় অবলম্বন করা তিন পরীক্ষার্থী কিন্ডার গার্টেন (কেজি) স্কুলের শিক্ষকের কাছ থেকে উত্তরপত্রের ফটোকপি পেয়েছে। ওই শিক্ষকদের বিষয়ে আমরা অনুসন্ধান করছি। তাদেরকে নজরদারীতে রাখা হয়েছে।’

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Constable killed in bus accident in Sylhet

সিলেটে বাসচাপায় কনস্টেবল নিহত

সিলেটে বাসচাপায় কনস্টেবল নিহত প্রতীকী ছবি
গোলাপগঞ্জ মডেল থানার এসআই দেলোয়ার আহমদ জানান, আবুল হোসেন হবিগঞ্জের বাহুবল থানায় কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সকালে তিনি বাইকে করে নিজ বাড়ি থেকে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন। হিলালপুর এলাকায় একটি বাস তার বাইককে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

সিলেটের গোলাপগঞ্জে বাসচাপায় এক পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন।

উপজেলার সিলেট-জকিগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের হিলালপুর নামক স্থানে রোববার বেলা ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রাণ হারানো মোটরসাইকেল আরোহী ২৭ বছর বয়সী আবুল হোসেন জকিগঞ্জ উপজেলার চাঁদ শ্রীকোনার শেখপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

দুর্ঘটনার তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার এসআই দেলোয়ার আহমদ জানান, আবুল হোসেন হবিগঞ্জের বাহুবল থানায় কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সকালে তিনি বাইকে করে নিজ বাড়ি থেকে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন। হিলালপুর এলাকায় একটি বাস তার বাইককে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই আবুল মারা যান।

নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এসআই দেলোয়ার।

আরও পড়ুন:
ভৈরবে চলন্ত ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে যাত্রী নিহত
নওগাঁয় সড়কের পাশ থেকে মরদেহ উদ্ধার
নারায়ণগঞ্জে নারীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা, দুজন আটক
রাতে মেসের খাবারের টাকা নিয়ে দ্বন্দ্ব, সকালে নারীর মরদেহ
সড়কের পাশে কার্টনে ছিল নবজাতকের মরদেহ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Two passengers were killed in a CNG autorickshaw hit by a truck in Habiganj

হবিগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশার দুই যাত্রী নিহত

হবিগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশার দুই যাত্রী নিহত দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত অটোরিকশা। ফাইল ছবি
মৌলভীবাজারের শেরপুর হাইওয়ে থানার ওসি পরিমল চন্দ্র দেব বলেন, ‘সিএনজিচালিত অটোরিকশাতে মৌলভীবাজার থেকে নবীগঞ্জ যাচ্ছিলেন আকিব মিয়াসহ পাঁচজন। এ সময় আউশকান্দি মিঠাপুরে পৌঁছানোর পর বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাকের ধাক্কা লাগে অটোরিকশায়। এতে গুরুতর আহত হয়ে ঘটনাস্থলেই দুইজন নিহত হন।’

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার দুই যাত্রী নিহত ও তিনজন আহত হয়েছেন।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে উপজেলার আউশকান্দি এলাকার মিঠাপুরে রোববার দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানো ‍দুজন হলেন কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলার কাকুয়া গ্রামের ৬০ বছর বয়সী আকিব মিয়া ও চর কাটকাল গ্রামের লাল মিয়ার ৩৫ বছর বয়সী মেয়ে সুরচাঁন বেগম।

মৌলভীবাজারের শেরপুর হাইওয়ে থানার ওসি পরিমল চন্দ্র দেব বলেন, ‘সিএনজিচালিত অটোরিকশাতে মৌলভীবাজার থেকে নবীগঞ্জ যাচ্ছিলেন আকিব মিয়াসহ পাঁচজন। এ সময় আউশকান্দি মিঠাপুরে পৌঁছানোর পর বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাকের ধাক্কা লাগে অটোরিকশায়। এতে গুরুতর আহত হয়ে ঘটনাস্থলেই দুইজন নিহত হন।

‘এ ঘটনায় আহত হন আরও তিনজন। তাদের উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।’

পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান, দুর্ঘটনার পর ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রশাসনের হস্তক্ষেপে এক ঘণ্টা পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Gas will not be available in areas of three districts on Monday

তিন জেলার যেসব এলাকায় সোমবার থাকবে না গ্যাস

তিন জেলার যেসব এলাকায় সোমবার থাকবে না গ্যাস প্রতীকী ছবি
এ সময়ের মধ্যে সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে তিতাস জানিয়েছে, ফতুল্লা থানা, মুন্সীগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জ শহরের আওতাধীন এলাকায় গ্যাস সরবরাহে বিঘ্ন বা নিম্নচাপ দেখা দিতে পারে।

জরুরি গ্যাস পাইপলাইন মেরামত কাজের জন্য সোমবার সকাল ৮টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জের বেশ কয়েকটি এলাকা এবং ঢাকা ও মুন্সীগঞ্জের কিছু অংশে ১৬ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের এক গণবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবর ইউএনবির

যেসব এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে সেগুলো হলো গোদনাইল, এনায়েতনগর, বৌ বাজার, লাকী বাজার, হাজীগঞ্জ, ওয়াবদাপুল, কাইয়ুমপুর, ফতুল্লা, সস্তাপুর, জেলখানা সড়ক, হাজীগঞ্জ মোড় থেকে শিবু মার্কেট হয়ে পোস্ট অফিস রোড, পঞ্চবটি, মাইজদাইর, ইজদাইর, চাষাঢ়া, খানপুর, কিল্লারপুল, তল্লা, কুতুবাইল, ধর্মগঞ্জ, তক্কারমাঠ, পাগলা, চিতাশাল, দেলপাড়া, জালকুড়ি, নয়ামাটি, দাপা ইদ্রাকপুর, ভুঁইগড়, কুতুবপুর ইউনিয়ন, ঢাকা ম্যাচ, সেনপুর, মোক্তারপুর।

নারায়ণগঞ্জ বিসিক এলাকা, কাশিপুর ইউনিয়ন থেকে পঞ্চবটি হয়ে মোক্তারপুর পর্যন্ত এলাকা, ধর্মগঞ্জ, শাসনগাঁও, সিদ্ধিরগঞ্জ, আদমজী, সাহেবপাড়া, মিজমিজি হতে চিটাগাং রোড, সিদ্ধিরগঞ্জ ও ফতুল্লা।

এই সময়ের মধ্যে সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে তিতাস জানিয়েছে, ফতুল্লা থানা, মুন্সীগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জ শহরের আওতাধীন এলাকায় গ্যাস সরবরাহে বিঘ্ন বা নিম্নচাপ দেখা দিতে পারে।

আরও পড়ুন:
রাজধানীর যেসব এলাকায় মঙ্গলবার ৩ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না
ফতুল্লায় পোশাক কারখানায় গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণ, দগ্ধ ১৪
শহরে গ্যাসের চুলার কিছু বিকল্প
নদী খননে পাইপলাইন লিকেজ, নেত্রকোণায় বন্ধ গ্যাস সরবরাহ
নাইরোবির বিস্ফোরণে আরও এক প্রাণহানি, বাড়ল আহতের সংখ্যাও

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A passenger died while getting down from a moving train in Bhairab

ভৈরবে চলন্ত ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে যাত্রী নিহত

ভৈরবে চলন্ত ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে  যাত্রী নিহত কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেলওয়ে থানার ফটক। ছবি: নিউজবাংলা
ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি আলিম হোসেন শিকদার প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বলেন, কালনী আন্তনগর এক্সপ্রেস ট্রেনটির ভৈরবে বিরতি ছিল না, কিন্তু যখন ভৈরব স্টেশন অতিক্রম করছিল, তখন ওই ব্যক্তি চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দেন। এতে ঘটনাস্থলেই ট্রেনের চাকায় পিষ্ট হয়ে নিহত হন তিনি।

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে চলন্ত ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে নিহত হয়েছেন এক যাত্রী।

ঢাকা-সিলেট রুটে চলাচলকারী কালনী আন্তনগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি শনিবার বিকেল চারটার দিকে ভৈরব রেলওয়ে স্টেশন অতিক্রমকালে এ ঘটনা ঘটে।

প্রাণ হারানো ব্যক্তির নাম ও পরিচয় জানা যায়নি। তার বয়স ৩৫ বছর হতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি আলিম হোসেন শিকদার এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, কালনী আন্তনগর এক্সপ্রেস ট্রেনটির ভৈরবে বিরতি ছিল না, কিন্তু যখন ভৈরব স্টেশন অতিক্রম করছিল, তখন ওই ব্যক্তি চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দেন। এতে ঘটনাস্থলেই ট্রেনের চাকায় পিষ্ট হয়ে নিহত হন তিনি।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে। এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Customs officers wife and child dead on the way to Coxs Bazar
বেইলি রোডের আগুন

কক্সবাজারের পথে কাস্টমস কর্মকর্তা, স্ত্রী ও সন্তানের মরদেহ

কক্সবাজারের পথে কাস্টমস কর্মকর্তা, স্ত্রী ও সন্তানের মরদেহ বেইলি রোডে আগুনের ঘটনায় প্রাণ হারানো তিনজন। ছবি: সংগৃহীত
বাড়ির একটু দূরে পশ্চিম মরিচ্যা জামে মসজিদের পাশে পারিবারিক কবরস্থানে তৈরি করা হচ্ছে তিনটি কবর। যেখানে শাণিত করা হবে বীর মুক্তিযোদ্ধার ছেলে, স্ত্রী ও সন্তানকে। যারা রাজধানীর বেইলি রোডের ‘গ্রিনফ কোজি কটেজ’ ভবনে লাগা আগুনে মারা গেছেন।

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের পশ্চিম মরিচ্যা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাশেমের বাড়িটিকে বিরাজ করছে সুনসান নীরবতা।

শনিবার সকাল ৮টার দিকে বাড়ির সামনে বসা ছিলেন বয়োবৃদ্ধ এ বীর মুক্তিযোদ্ধা। বাড়ির উঠানে সারিবদ্ধ বসানো চেয়ার। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়িটিতে ভিড় জমতে শুরু করেছে আত্মীয়-স্বজন আর স্থানীয়দের।

বাড়ির একটু দূরে পশ্চিম মরিচ্যা জামে মসজিদের পাশে পারিবারিক কবরস্থানে তৈরি করা হচ্ছে ৩টি কবর। যেখানে শাণিত করা হবে বীর মুক্তিযোদ্ধার ছেলে, স্ত্রী ও সন্তানকে। যারা রাজধানীর বেইলি রোডের ‘গ্রিনফ কোজি কটেজ’ ভবনে লাগা আগুনে মারা গেছেন।

প্রাণ হারানো তিনজন হলেন কাস্টমস ইন্সপেক্টর শাহজালাল উদ্দিন, তার স্ত্রী মেহেরুন নেসা হেলালী এবং তাদের চার বছর বয়সী মেয়ে ফাইরুজ কাশেম জামিলা।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গ থেকে শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মরদেহ তিনটি গ্রহণ করেন শাহজালাল উদ্দিনের বড় ভাই শাহজাহান সাজু।

উখিয়া উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান সাজু জানান, মরদেহবাহী গাড়ি নিয়ে তিনি ঢাকা থেকে মরিচ্যার গ্রামের বাড়ির উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছেন।

সন্তান হারিয়ে অনেকটা নির্বাক মুক্তিযোদ্ধা ও চিকিৎসক পিতা। তারপরও পাথরচাপা কষ্টে কথা বলেন সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে।

বাবা আবুল হাশেম বলেন, পাঁচ ভাই এক বোনের মধ্যে শাহজালাল উদ্দিন তৃতীয়। তিনি ২০১৭ সালে কাস্টমসের চাকরিতে যোগ দেন। নারায়ণগঞ্জ জেলার পানগাঁও কাস্টমস অফিসে কর্মরত ছিলেন তিনি। প্রতিদিন বাবার সঙ্গে তিন থেকে চারবার ফোনে কথা বলতেন। বৃদ্ধ বাবার চিকিৎসা ও ওষুধের জন্য তাড়া দিতেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার পর বাবার সঙ্গে সর্বশেষ কথা বলেছিলেন শাহজালাল উদ্দিন।

বাবা বলেন, ‘ছেলে আমাকে জানিয়েছিল, টানা তিন দিন ছুটি পাওয়ায় বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা থেকে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে খাগড়াছড়ি ভ্রমণে যাচ্ছে। এরপর থেকে আর কোনো ফোন পাইনি। আমি ধারণা করেছিলাম, ছেলেটা বউ ও নাতনিকে নিয়ে খাগড়াছড়ি গেছে।’

এই কথাগুলোই বলেন প্রাণ হারানো শাহজালালের ছোট ভাই হাশেম বিন লিংকন।

হাশেম বলেন, ‘বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডের ২৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হওয়ার পর কক্সবাজার কাস্টমস অফিসের ভাইয়ের এক সহকর্মী ফোন করে জানান ফেসবুকে অজ্ঞাত পরিচয়ে যে কয়েকজনের মরদেহ দেখা যাচ্ছে সেগুলোর মধ্যে তার ভাবী ও মেয়ের ছবি আছে। ভাইয়ের বিষয়টি জানেন না। তারপর থেকে পরিবারের পক্ষে যোগাযোগ করার পর শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ভাবীর বাবা মোক্তার হোসেন হেলালী ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে গিয়ে তিনজনের মরদেহ শনাক্ত করেন।’

শাহজালালের একমাত্র বোন তসলিমা আকতার বলেন, ভাইদের মধ্যে অনেকটা বাবার ভূমিকা পালন করতেন শাহজালাল। প্রতিনিয়ত ফোন করে খোঁজ খবর নিতেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়ও ফোন করে কিছু লাগবে কিনা জানতে চেয়েছিলেন। এখন ভাই আর নেই।

মামাত ভাই স্কুল শিক্ষক জামাল উদ্দিন জানান, পশ্চিম মরিচ্যা জামে মসজিদ সংলগ্ন পারিবারিক কবরস্থানে কবর তৈরি কাজ চলছে।

আরও পড়ুন:
আগুন কেড়ে নিল পাঁচ সদস্যের পরিবারকে
বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ড: পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠান বাতিল
বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডে আহতদের কেউই শঙ্কামুক্ত নন
বেইলি রোডের আগুন কেড়ে নিল দুই বুয়েট শিক্ষার্থীর প্রাণ
বেইলি রোডের আগুনে প্রাণ গেল ২ ড্যাফোডিল শিক্ষার্থীর

মন্তব্য

p
উপরে