× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Voting by machine is not a problem
google_news print-icon

‘মেশিনোত ভোট দিনো, সমস্যা হয় নাই’

মেশিনোত-ভোট-দিনো-সমস্যা-হয়-নাই
রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট দিতে এসেছেন ৮৫ বছর বয়সী মন্টু মিয়া। ছবি: নিউজবাংলা
আকলিকা আকতার বলেন, ‘প্রথমবার ভোট দিচ্ছি। আমি ভাবছিলাম ইভিএমে কোনো সমস্যা হবে, কিন্তু হয় নাই। ঠিকমতো ভোট দিতে পারছি।’

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পছন্দের মেয়র বেছে নিতে ভোট দিতে এসেছেন ৮৫ বছর বয়সী মন্টু মিয়া। কনকনে শীত উপেক্ষা করে প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট দেন তিনি আলমনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

তিনি বলেন, ‘মেশিনোত ভোট দিনো, সমস্যা হয় নাই।’

রংপুর সিটি নির্বাচনে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ভোট দেয়া শুরু হয়েছে, যা চলবে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত।

আলমনগর কলেজ রোড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রথম ভোট দিতে এসেছেন আকলিকা আকতার। তিনি বলেন, ‘প্রথমবার ভোট দিচ্ছি। আমি ভাবছিলাম ইভিএমে কোনো সমস্যা হবে, কিন্তু হয় নাই। ঠিকমতো ভোট দিতে পারছি।’

এই কেন্দ্রের প্রিসাইটিং অফিসার আসাদুজ্জামান বলেন, ‘আমার কেন্দ্রে ১ হাজার ৮১৬ ভোট আছে। আমরা সঠিক সময়ে ভোট শুরু করতে পেরেছি। ইভিএমে কোনো সমস্যা হয়নি। ভোটার এসে ভোট দিচ্ছেন।’

তিনি বলেন, ‘নির্দিষ্ট সময়ের আগেই ভোটাররা এসে লাইনে দাঁড়িয়েছে। লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে তারা ভোট দিচ্ছেন।’

রংপুর সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আবদুল বাতেন বলেন, ‘নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। আমরা আশা করছি, একটি উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ করা হবে।

‘নগরবাসীকে অনুরোধ করব, আপনারা কেন্দ্রে আসুন, নিরাপদে ভোট দিন।’

নির্বাচন ঘিরে নগরীজুড়ে নেয়া হয়েছে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা। নগরীর প্রবেশ পথগুলোতে বসানো হয়েছে তল্লাশি চৌকি।

জাতীয় পার্টির মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা (বর্তমান মেয়র) এবং আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়ার পাশাপাশি আরও ৫ রাজনৈতিক দলের মনোনীত ও দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলিয়ে ৯ জন মেয়র পদে লড়ছেন।

সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩২ ওয়ার্ডে ১৮৩ ও ৩৩ ওয়ার্ডের ১১ সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মহিলা কাউন্সিলর পদে লড়ছেন ৬৮ জন।

২০১২ সালে সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠার পর আজ হচ্ছে তৃতীয়বারের নির্বাচন। এর আগে দুইবার নির্বাচন হলেও ২০১২ সালেরটি হয়েছিল দলীয় প্রতীক ছাড়া।

২০১৭ সালের নির্বাচন হয় দলীয় প্রতীকে। গত দুই নির্বাচনে একবার ক্ষমতা পেয়েছিল আওয়ামী লীগ। দ্বিতীয়বার মেয়র পায় জাতীয় পার্টি।

নির্বাচন কমিশন জানায়, রংপুর সিটিতে ৪ লাখ ২৬ হাজার ৪৭০ ভোটার আছেন। নারী ভোটার ২ লাখ ১৪ হাজার ১৬৬; পুরুষ ২ লাখ ১২ হাজার ৩০৩ জন। ২২৯ কেন্দ্রে মোট ভোটকক্ষের সংখ্যা এক হাজার ৩৪৯টি। ঝুঁকিপূর্ণ ধরা হয়েছে ৮৬টিকে।

ভোটে ২২৯ প্রিসাইডিং কর্মকর্তা এবং এক হাজার ৩৪৯ সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা থাকবেন। পোলিং অফিসার থাকবেন ২ হাজার ৬৯৮ জন।

আরও পড়ুন:
বাড়িওয়ালা মোস্তফার ভাড়ায় লাফ, পরের টাকায় ভোট
জাপায় নির্ভার মোস্তফা, মুকুট চায় আওয়ামী লীগ
নির্ভয়ে কেন্দ্রে আসুন, রংপুরে সিইসি
আপিলে মনোনয়ন ফিরে পেলেন ২২ কাউন্সিলর প্রার্থী
রংপুর সিটিতে সুন্দর ভোট আয়োজনে কোনো ছাড় দেবে না ইসি

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Munni of the third gender showed surprise
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

চমক দেখালেন তৃতীয় লিঙ্গের মুন্নী

চমক দেখালেন তৃতীয় লিঙ্গের মুন্নী দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুন্নী আক্তার। ছবি: নিউজবাংলা
বিজয়ের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে মুন্নী আক্তার বলেন, ‘আমি মানুষের মৌলিক অধিকার নিয়ে কাজ করব। সমাজের অবহেলিত জনগোষ্ঠীর, বিশেষ করে মা-বোনদের মৌলিক অধিকার আদায়ে কাজ করব।’

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন তৃতীয় লিঙ্গের মুন্নী আক্তার। এই উপজেলায় এবারই প্রথম কোনো তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তি জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলেন।

মঙ্গলবার ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী পাঁচ প্রার্থীকে পরাজিত করে বিজয়ী হন মুন্নী।

নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সেলাই মেশিন প্রতীকে ২৩ হাজার ৭৬৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মুন্নী আক্তার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাজেদা বেগম কলস প্রতীকে ভোট পেয়েছেন ২১ হাজার ১৮৪টি।

বিজয়ের অনুভূতি ও আগামী দিনে কী কী কাজ করবেন- এমন প্রশ্নের জবাবে মুন্নী বলেন, ‘দেওয়ানগঞ্জের মানুষ আমাকে ভালোবেসে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে। এই জন্য আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তবে পুরুষের তুলনায় নারীদের ভোট বেশি পেয়েছি। আমি মানুষের মৌলিক অধিকার নিয়ে কাজ করব। সমাজের অবহেলিত জনগোষ্ঠীর, বিশেষ করে মা-বোনদের মৌলিক অধিকার আদায়ে কাজ করব।’

এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ ৩০ হাজার ২৭৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মো. সোলায়মান হোসেন মোটরসাইকেল প্রতীকে পান ২৫ হাজার ৮৯৮ ভোট।

এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে বই প্রতীক নিয়ে ২৯ হাজার ৭৭৮ ভোটে পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. আরিফ খান।

আরও পড়ুন:
কালীগঞ্জে চাচাকে হারিয়ে এমপিপুত্রের জয়লাভ
সাবেক এমপি জাফরকে হারিয়ে এবারও উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল
জিতেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর শ্যালক, হেরেছেন সাবেক অর্থমন্ত্রীর ভাই
নওগাঁয় যারা ছিলেন চেয়ারে, রইলেন তারাই

মন্তব্য

বাংলাদেশ
MPs son wins by defeating his uncle in Kaliganj
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

কালীগঞ্জে চাচাকে হারিয়ে এমপিপুত্রের জয়লাভ

কালীগঞ্জে চাচাকে হারিয়ে এমপিপুত্রের জয়লাভ কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের বেসরকারিভাবে নির্বাচিত চেয়ারম্যান রাকিবুজ্জামান আহমেদ (ডানে) ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাহবুবুজ্জামান আহমেদ। কোলাজ: নিউজবাংলা
নির্বাচনে আনারস প্রতীকের প্রার্থী রাকিবুজ্জামান আহমেদকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা জহির ঈমাম। তিনি পেয়েছেন ২৪ হাজার ৩০৩ ভোট, অন্যদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী মাহবুবুজ্জামান আহমেদ পেয়েছেন ১৯ হাজার ৩৫০ ভোট।

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সাবেক সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও লালমনিরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য নুরুজ্জামান আহমেদের ছেলে রাকিবুজ্জামান আহমেদ আপন চাচা মাহবুবুজ্জামান আহমেদকে হারিয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন। ভোটের লড়াইয়ে ভাতিজার কাছে ৪ হাজার ৯৫৩ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন চাচা মাহবুবুজ্জামান।

নির্বাচনে আনারস প্রতীকের প্রার্থী রাকিবুজ্জামান আহমেদকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা জহির ঈমাম। তিনি পেয়েছেন ২৪ হাজার ৩০৩ ভোট, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী মাহবুবুজ্জামান আহমেদ পেয়েছেন ১৯ হাজার ৩৫০ ভোট।

এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে দেবদাস কুমার রায় বাবুল বৈদ্যুতিক বাল্প প্রতীকে ১২ হাজার ৯৪৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। টিউবওয়েল প্রতীকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবির হোসেন চৌধুরী ১২ হাজার ৯০৫ ভোট পেয়েছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৮ হাজার ৬৪৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন হাঁস প্রতীকের প্রার্থী শিউলি রানি রায়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোছাম্মদ নাজনীন রহমান পেয়েছেন ১২ হাজার ২৭৯ ভোট।

অন্যদিকে, জেলার আদিতমারী উপজেলায় ৩৩ হাজার ১৩৫ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ইমরুল কায়েস ফারুক, ২২ হাজার ৫২৩ ভোট পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন মাইদুল ইসলাম সরকার এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোছা. শামসুন্নাহার মিলি ২৪ হাজার ৬৮৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লালমনিরহাটের আদিতমারী ও কালীগঞ্জ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে দুই উপজেলায় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলে ভোট গ্রহণ। গণনা শেষে রাত ১টার দিকে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা লুৎফর কবির বেসরকারিভাবে এসব ফলাফল ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন:
সাবেক এমপি জাফরকে হারিয়ে এবারও উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল
জিতেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর শ্যালক, হেরেছেন সাবেক অর্থমন্ত্রীর ভাই
নওগাঁয় যারা ছিলেন চেয়ারে, রইলেন তারাই
গাইবান্ধায় এমপি সমর্থিত প্রার্থীকে হারিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন রিংকু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Rinku became upazila chairman after defeating the candidate supported by MP in Gaibandha

গাইবান্ধায় এমপি সমর্থিত প্রার্থীকে হারিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন রিংকু

গাইবান্ধায় এমপি সমর্থিত প্রার্থীকে হারিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন রিংকু গাইবান্ধা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জয়ী দোয়াত-কলম প্রতীকের প্রার্থী আমিনুর জামান রিংকু। ছবি: সংগৃহীত 
আমিনুর জামান রিংকু সদর উপজেলার ঘাগোয়া ইউনিয়নের টানা তিনবারের চেয়ারম্যান।

গাইবান্ধা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) শাহ সারোয়ার কবীর সমর্থিত প্রার্থী ইস্তিকুর রহমান সরকারকে (কাপ-পিরিচ) হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন দোয়াত-কলম প্রতীকের প্রার্থী আমিনুর জামান রিংকু।

নিকটতম প্রার্থীকে পাঁচ হাজার ৮৫২ ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন রিংকু, যিনি পান ৫৪ হাজার ৭৯৬ ভোট।

ভোটের দিন মঙ্গলবার মধ্যরাতে সদর উপজেলা পরিষদের ভোটের ফল সংগ্রহ ও পরিবেশন কেন্দ্র (কনফারেন্স রুম) থেকে বেসরকারিভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

আমিনুর জামান রিংকু সদর উপজেলার ঘাগোয়া ইউনিয়নের টানা তিনবারের চেয়ারম্যান।

এর আগে সকাল আটটায় শুরু হওয়া ভোট বিরতিহীনভাবে চলে বিকেল চারটা পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৩টি ইউনিয়নের ১৬৩টি ভোটকেন্দ্রে ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৫৯৯ জন ভোটারের মধ্যে ১ লাখ ৪৭ হাজার ৪৫১ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

ভোটে আমিনুর জামান রিংকু দোয়াত-কলম প্রতীকে পান ৫৪ হাজার ৭৯৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ইস্তিকুর রহমান (কাপ-পিরিচ) পেয়েছেন ৪৮ হাজার ৯৪৪ ভোট।

এ ছাড়া ৩৭ হাজার ৩৭১ ভোট পেয়ে সাধারণ ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে নির্বাচিত হন রফিকুল ইসলাম মিলন (চশমা)। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শরিফুল ইসলাম সঞ্জু পেয়েছেন ২৮ হাজার ৩৪২ ভোট।

অপরদিকে ৯৯ হাজার ৮৭ ভোট পেয়ে সংরক্ষিত আসনের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মোর্শেদা বেগম (পদ্মফুল)। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শিল্পী খাতুন (প্রজাপতি) পান ১৫ হাজার ২৯৪ ভোট।

এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সাতজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আটজন এবং সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় দফায় দেশের ১৫৬টি উপজেলার সঙ্গে গাইবান্ধার সদর, পলাশবাড়ী ও গোবিন্দগঞ্জে ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

আরও পড়ুন:
কুড়িগ্রামে জাল ভোট দিতে গিয়ে রিকশাচালক আটক
প্রতিপক্ষের এজেন্টকে মারধর, আ.লীগ নেতার কারাদণ্ড
চার ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ১৭ শতাংশ: ইসি
দুই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ৭-৮ শতাংশ: ইসি
লাঠিতে ভর করে সকাল সকাল ভোটকেন্দ্রে শতবর্ষী সোলেমান

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Rickshaw driver arrested while casting fake vote in Kurigram

কুড়িগ্রামে জাল ভোট দিতে গিয়ে রিকশাচালক আটক

কুড়িগ্রামে জাল ভোট দিতে গিয়ে রিকশাচালক আটক আটক আবুল কালাম। ছবি: নিউজবাংলা
প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আবুল কালাম একবার এসে ভোট দিয়ে গেছেন। পরে আরও একবার ভোট দিতে আসলে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে আটক করে। পরে তাকে ১৫ দিনের জেল দেয়া হয়েছে।’

কুড়িগ্রামে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে জাল ভোট দিতে যাওয়া এক রিকশা চালককে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার থেতরাই ইউনিয়নের থেতরাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে মঙ্গলবার দুপুরে তাকে আটক করা হয়।

আটক আবুল কালাম (৩৫) ওই ইউনিয়নের কুমার পাড়া এলাকার বাসিন্দা।

থেতরাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আবুল কালাম একবার এসে ভোট দিয়ে গেছেন। পরে আরও একবার ভোট দিতে আসলে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে আটক করে। পরে তাকে ১৫ দিনের জেল দেয়া হয়েছে।’

এ ছাড়াও ওই উপজেলার দলদলিয়া ইউনিয়নের দলদলিয়া আদর্শ হাইস্কুল কেন্দ্রে দলদলিয়া গ্রামের ফেরদৌস হাসান (১৮) নামে একজনকে আটক করার কথা নিশ্চিত করেন প্রিজাইডিং অফিসার শামসুল আলম।

তিনি বলেন, ‘যুবককে আটকিয়ে রাখা হয়েছে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এদিকে বজরা ইউনিয়নের খামার বজরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে তাসরিফ আলম আমিন নামে একজন জাল ভোট দিতে গিয়ে আটক হয়েছেন। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান প্রিজাইডিং অফিসার সালগিরা।

আরও পড়ুন:
সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ শিক্ষিকার
‘ভোটের টাকা’ বিলি করতে গিয়ে পিটুনি খেলেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান
আ.লীগ নেতার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও ভাইরাল; শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন
বেনাপোল দিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় মিয়ানমারের একজনসহ আটক ৪
৬১৫ কেন্দ্রে ব্যালট যাবে আগের দিন, বাকিগুলোতে ভোটের সকালে

মন্তব্য

বাংলাদেশ
17 percent turnout in four hours EC

চার ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ১৭ শতাংশ: ইসি

চার ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ১৭ শতাংশ: ইসি

জামালপুরের একটি উপজেলায় ভোট চলছে। ছবি: নিউজবাংলা
মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. জাহাংগীর আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

ষষ্ঠ উপজেলার পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপের ভোটে আধাবেলায় ভোট পড়েছে ১৭ শতাংশ।

মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. জাহাংগীর আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, বেলা ১২টা পর্যন্ত ১৫৬ উপজেলায় ভোট পড়েছে গড়ে ১৬ দশমিক ৯৪ শতাংশ। বড় ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তবে ১৮টি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে।

ইসি সচিব বলেন, সাধারণত আমাদের দেশে দুপুরের পর ভোটার উপস্থিতি বাড়ে। আশা করি প্রথম ধাপের চেয়ে ভোটের হার বাড়বে।

এই ধাপে ২৪টি উপজেলায় ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। বাকিগুলোতে সরাসরি ব্যালটে ভোট নেয়া হচ্ছে।

এ নির্বাচনে প্রতিনিধি বাছাইয়ে মত দেবেন তিন কোটি ৫২ লাখের বেশি ভোটার। ভোট উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

দ্বিতীয় ধাপে ১৫৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণের কথা থাকলেও রোববার রাতে আদালতের নির্দেশে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ফলে এই ধাপে ১৫৬ উপজেলায় ভোটগ্রহণ হচ্ছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
7 8 percent vote in two hours EC

দুই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ৭-৮ শতাংশ: ইসি

দুই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ৭-৮ শতাংশ: ইসি ভোট চলছে জামালপুরের একটি উপজেলায়। ছবি: নিউজবাংলা
অতিরিক্ত সচিব বলেন, এই ধাপের ১৫৬ উপজেলায় সকাল ৮টায় সুষ্ঠুভাবে ভোট শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার ঘটনা ঘটেনি। তবে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় এক আনসার সদস্য শারীরিক অসুস্থতায় হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন।

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপের ভোট চলছে ১৫৬টি উপজেলায়।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ভোটের কার্যক্রম শুরু হয়েছে, যা নিরবচ্ছিন্নভাবে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ভোট শুরুর প্রথম দুই ঘণ্টায় অর্থ্যাৎ সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত অঞ্চলভিত্তিক ৭-৮ শতাংশ ভোট পড়েছে।

সকাল ১১টার দিকে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, এই ধাপের ১৫৬ উপজেলায় সকাল ৮টায় সুষ্ঠুভাবে ভোট শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার ঘটনা ঘটেনি। তবে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় এক আনসার সদস্য শারীরিক অসুস্থতায় হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন।

অশোক কুমার আরও বলেন, ভোট শুরু হয়েছে মাত্র দুই ঘণ্টা হয়েছে। বিভিন্ন জেলার প্রাপ্ত তথ্যে একেক অঞ্চলে বিভিন্ন হারে ভোট পড়ছে। কোথাও বেশি কোথাও কম। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে এই হার আরও বাড়বে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Voting is going on in 156 upazilas

ভোট চলছে ১৫৬ উপজেলায়

ভোট চলছে ১৫৬ উপজেলায় ভোট চলছে মুন্সীগঞ্জের একটি উপজেলায়। ছবি: নিউজবাংলা
২৪টি উপজেলায় ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। বাকিগুলোতে সরাসরি ব্যালটে ভোট নেয়া হচ্ছে। 

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ১৫৬ উপজেলায় ভোট হচ্ছে মঙ্গলবার।

সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে, চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

২৪টি উপজেলায় ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। বাকিগুলোতে সরাসরি ব্যালটে ভোট নেয়া হচ্ছে।

এই নির্বাচনে প্রতিনিধি বাছাইয়ে মত দেবেন তিন কোটি ৫২ লাখের বেশি ভোটার। ভোট উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

দ্বিতীয় ধাপে ১৫৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণের কথা থাকলেও রোববার রাতে আদালতের নির্দেশে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ফলে এই ধাপে ১৫৬ উপজেলায় ভোটগ্রহণ হচ্ছে।

নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

দুর্গম ও উপকূলীয় অঞ্চল বিবেচনায় ৩০টি উপজেলার ৬৮৫ কেন্দ্রে সোমবারই ব্যালট পাঠানো হয়েছে। বাকি ১২ হাজার ৩৩১টি কেন্দ্রে ব্যালট পৌঁছেছে মঙ্গলবার সকালে। মোট ১৩ হাজার ১৬টি কেন্দ্রে ভোট কক্ষ ৯১ হাজার ৫৮৯টি।

সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে মাঠে নেমেছে পুলিশ, বিজিবি, র‍্যাবসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য। সমতলে সাধারণ ভোটকেন্দ্রে ১৭ জন এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে মোতায়েন থাকছে ১৯ জনের ফোর্স। দুর্গম ও পার্বত্য এলাকায় এই সংখ্যা আরও বেশি।

এ ছাড়া নির্বাচনি আচরণবিধি নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রতি ইউনিয়নে থাকবেন একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

ইসি সূত্র জানায়, সোমবার থেকেই সংশ্লিষ্ট প্রতিটি উপজেলায় একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন। ভোটের আগে-পরে মোট পাঁচদিনের জন্য তারা দায়িত্ব পালন করছেন।

এ ছাড়া মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্সের সঙ্গে বিশেষ করে বিজিবির প্রতিটি মোবাইল টিমের সঙ্গে একজন করে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকছেন।

নির্বাচন কমিশন ২ এপ্রিল দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। তফসিল অনুযায়ী ৩০ এপ্রিল প্রার্থিতা প্রত্যাহারের নির্ধারিত সময় শেষে চূড়ান্ত হয় এক হাজার ৮২৪ জন প্রার্থী। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৬০৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬৯৩ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫২৮ জন। ২ মে প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই নির্বাচনের প্রচার শুরু করেন প্রার্থীরা।

তবে এরই মধ্যে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ২২ জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে সাতজন চেয়ারম্যান, আট জন ভাইস চেয়ারম্যান ও সাতজন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রয়েছেন।

এই ধাপের ভোটে প্রচার-প্রচারণার সময় আচরণবিধি লঙ্ঘনের প্রায় ছয়শ’ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে ইসি। প্রচারণায় নেমে সংঘাত, হুমকি এবং প্রার্থীর পক্ষে জনপ্রতিনিধিদের প্রভাব বিস্তারের অভিযোগও রয়েছে। ইতোমধ্যে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিয়েছে ইসি।

তবে বিএনপি ও সমমনা রাজনৈতিক দলগুলো উপজেলা নির্বাচন বর্জনের পর ভোটের লড়াই চলছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যেই। ইতোমধ্যে ভোটের প্রচারণায় নেমে ১০টির বেশি উপজেলায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বিভিন্ন উপজেলায় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় নামায় চারজন সংসদ সদস্যসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিদের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে।

নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ সম্প্রতি গণমাধ্যমকে জানান, সুষ্ঠু ভোট আয়োজনে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পর্যাপ্তসংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। আচরণবিধি প্রতিপালনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে ১৫৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রসঙ্গত, ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী দ্বিতীয় ধাপে ১৫৬ উপজেলায় ২১ মে, তৃতীয় ধাপে ১১২ উপজেলায় ২৯ মে ও চতুর্থ ধাপে ৫৫ উপজেলায় ৫ জুন ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আর প্রথম ধাপে ১৩৯টি উপজেলায় নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে ৮ মে।

মন্তব্য

p
উপরে