× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Suffering from transport strike in Rajshahi
hear-news
player
google_news print-icon

রাজশাহীতে পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তি

রাজশাহীতে-পরিবহন-ধর্মঘটে-ভোগান্তি
রাজশাহীতে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। ছবি: নিউজবাংলা
বাস চলাচল বন্ধ থাকায় সকাল থেকে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। অটোরিকশা বা ছোট বাহনে করে মানুষ গন্তব্যে যাচ্ছেন। এজন্য তাদের বাড়তি ভাড়াও গুনতে হচ্ছে।

রাজশাহীতে শুরু হয়েছে পরিবহন ধর্মঘট। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজশাহী থেকে কোনো রুটে বাস ছেড়ে যায়নি। অন্য জেলা থেকে কোনো বাস রাজশাহীতে প্রবেশ করেনি।

রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ শুরু হবে আগামী ৩ ডিসেম্বর দুপুরে। তার আগেই সেখানে শুরু হয়েছে পরিবহন ধর্মঘট।

বাস চলাচল বন্ধ থাকায় সকাল থেকে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। অটোরিকশা বা ছোট বাহনে করে মানুষ গন্তব্যে যাচ্ছেন। এজন্য তাদের বাড়তি ভাড়াও গুনতে হচ্ছে।

এদিকে সমাবেশকে ঘিরে বিএনপির নেতা-কর্মীরা এরই মধ্যে রাজশাহী আসতে শুরু করেছেন।

রাজশাহীতে পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তি
রাজশাহী থেকে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি

বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে দূর-দূরান্ত থেকে সমাবেশস্থল মাদ্রাসা মাঠে আসতে শুরু করেন। তারা সমাবেশস্থলের লাগোয়া রাজশাহী কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে অবস্থান নিতে শুরু করেন। রাত ১২টার দিকে বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী অবস্থান নেন সেখানে।

সমাবেশস্থলে মঞ্চ তৈরির প্রস্তুতিসহ পুলিশি নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও কড়াকড়ি থাকায় পাশের ঈদগাহ মাঠে অবস্থান নিয়েছেন তারা।

বুধবার দুপুরে আট শর্তে সমাবেশের অনুমতি পায় বিএনপি। আর সন্ধ্যার পর থেকে মাদ্রাসা মাঠের দিকে আসতে শুরু করেন নেতা-কর্মীরা। তাদের অনেকে জানিয়েছেন, যেহেতু বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পরিবহন ধর্মঘট শুরু হবে সে কারণে তারা আগের দিনই সমাবেশ স্থলে চলে এসেছেন।

আরও পড়ুন:
‘গায়েবি’ মামলা বন্ধে আইজিপির কাছে বিএনপি
সমাবেশে সরকারকে লাল কার্ড দেখাল জনগণ: সেলিমা
পরিবহন ধর্মঘটের আগেই রাজশাহীর সমাবেশে নেতা-কর্মীরা
সকাল থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট
নাশকতা মামলা: মানিকগঞ্জে বিএনপির ২ নেতা গ্রেপ্তার

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Mongla EPZ fire under control after 8 hours

মোংলা ইপিজেডের আগুন ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে

মোংলা ইপিজেডের আগুন ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে দীর্ঘ ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে এসেছে মোংলা ইপিজেডের আগুন। ছবি: নিউজবাংলা
খুলনা ফায়ার সার্ভিসের বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. মামুন মাহমুদ বলেন, ‘বিকেল সাড়ে ৩টার সময় আগুনের খবর পেয়ে নৌবাহিনীসহ ফায়ার সার্ভিসের ১১টি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজে অংশ নেয়। ফ্যাক্টরিতে ফ্যাব্রিক্স, পলিথিন, ফ্যাব্রিকেটেড পণ্য রয়েছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও বিচ্ছিন্নভাবে কোথাও কোথাও আগুন জ্বলছে।’

দীর্ঘ ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্এণ এসেছে মোংলা রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলের (ইপিজেড) ভিআইপি-ব্যাগ কারখানার আগুন। ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

মোংলা ইপিজেডের নির্বাহী পরিচালক মো. মাহাবুব আহম্মেদ সিদ্দিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় আগুন লাগার পর নৌবাহিনী, খুলনা, বাগেরহাট ও মোংলা ফায়ার সার্ভিসের ১১টি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজে অংশ নেয়।

বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও বিচ্ছিন্ন স্থানে আগুন জ্বলছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

তবে কারখানায় কর্মরত শ্রমিক এমাদুল শেখ বলেন, ‘কারখানায় ঝালাইয়ের কাজ চলছিল। এ সময় আগুনের ফুলকি এসে পড়ে ফোমের ওপর। সঙ্গে সঙ্গে কক্ষটি ধোঁয়ায় আচ্ছন হয়ে পড়ে এবং আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে।’

খুলনা ফায়ার সার্ভিসের বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. মামুন মাহমুদ বলেন, ‘বিকেল সাড়ে ৩টার সময় আগুনের খবর পেয়ে নৌবাহিনীসহ ফায়ার সার্ভিসের ১১টি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজে অংশ নেয়। ফ্যাক্টরিতে ফ্যাব্রিক্স, পলিথিন, ফ্যাব্রিকেটেড পণ্য রয়েছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও বিচ্ছিন্নভাবে কোথাও কোথাও আগুন জ্বলছে।

‘এখন পর্যন্ত কেউ হতাহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। ফায়ার ফাইটাররাও আহত বা নিহত কাউকে পাননি। তবে আগুন পুরোপুরি নেভানোর পর আমরা পুরো ফ্যাক্টরি তল্লাশি করব। তখন বোঝা যাবে যে আসলে কেউ হতাহত হয়েছে কি না।’

মোংলা ইপিজেডের নির্বাহী পরিচালক মো. মাহাবুব আহম্মেদ সিদ্দিক বলেন, ‘কারখানায় কোম্পানিটির ফোম ও ব্যাগ ছিল। অগ্নিকাণ্ডের সময় দ্রুত সেখানে কর্মরত শ্রমিকেরা বেরিয়ে আসেন। এ ঘটনায় ৪ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ এখনই নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন:
মোংলা ইপিজেডে কারখানায় আগুন
বাসে হঠাৎ আগুন, পুড়ে ছাই যাত্রীদের মালামাল
চট্টগ্রামে নূপুর মার্কেটে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৮ ইউনিট
নিকুঞ্জে কলেজ হোস্টেলের আগুন নিয়ন্ত্রণে
নারায়ণগঞ্জে আগুনে পুড়ল ৬ দোকান

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Kidnapped and raped 2 young men for life

অপহরণের পর কিশোরীকে ধর্ষণ, ২ যুবকের যাবজ্জীবন

অপহরণের পর কিশোরীকে ধর্ষণ, ২ যুবকের যাবজ্জীবন নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালত। ফাইল ছবি
আদালত পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানান, ২০১২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর রূপগঞ্জের পূবেরগাঁও এলাকা থেকে ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক অপহরণ করে ধর্ষণ করেন আসামিরা। এরপর কিশোরীর পরিবারের কাছে মুক্তিপণ হিসেবে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে তারা। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা রূপগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় কিশোরীকে অপহরণের পর ধর্ষণের দায়ে দুই যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক নাজমুল হক শ্যামল মঙ্গলবার দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- জাফর ইসলাম রিজভী (৩৬) ও সজিব ভূঁইয়া বাবু (৩৬), তবে রায় ঘোষণার সময়ে আদালতে তারা অনুপস্থিত ছিলেন।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানান, ২০১২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর রূপগঞ্জের পূবেরগাঁও এলাকা থেকে ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক অপহরণ করে ধর্ষণ করেন আসামিরা। এরপর কিশোরীর পরিবারের কাছে মুক্তিপণ হিসেবে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেন তারা। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা রূপগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রকিবউদ্দিন আহমেদ বলেন, তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ পাঁচজন সাক্ষীর সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত এ রায় ঘোষণা করেছেন। আসামিরা পলাতক থাকায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
নারায়ণগঞ্জের এসপিসহ ৪২ জনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন রিজভীর
বিএনপির বিরুদ্ধে মামলা ‘লিখে দিয়েছে পুলিশ’, লাপাত্তা শাওনের ভাই
দেশে ফিরে গ্রেপ্তার ‘নারায়ণগঞ্জের ত্রাস’ জাকির খান
শাওন যুবদলের নন, আ.লীগ নেতার ভাতিজা: তথ্যমন্ত্রী
হাসপাতাল নেই, বেতন নিচ্ছেন ৭ চিকিৎসক  

মন্তব্য

বাংলাদেশ
BNP is walking in Dum Furnoi Information Minister

দম ফুরনোয় হাঁটছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

দম ফুরনোয় হাঁটছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি: নিউজবাংলা
হাছান মাহমুদ বলেন, ‘ বিএনপিতো আগে মিছিল করত। এখন মিছিলের পরিবর্তে হাঁটা শুরু করেছে। দম ফুরিয়ে গেছে সম্ভবত।’

দম ফুরিয়ে যাওয়ায় বিএনপি হাঁটা শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

চট্টগ্রামে আরবান ট্রান্সপোর্টেশন মহাপরিকল্পনা প্রণয়ন এবং মেট্রোরেলের প্রাক-সম্ভাব্যতা যাচাই কার্যক্রম শুরুর অনুষ্ঠানে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘ বিএনপিতো আগে মিছিল করত। এখন মিছিলের পরিবর্তে হাঁটা শুরু করেছে। দম ফুরিয়ে গেছে সম্ভবত।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি যে পদযাত্রা শুরু করেছে, কারও কাছ থেকে নকল করছে সম্ভবত। আপনারা চোখ মেলে দেখুন, কারও কাছ থেকে নকল করছে কি না। তবে পদযাত্রা করুক আর যে যাত্রাই করুক, তাদের এই যাত্রায় তাদের কর্মীরাও নাই। জনগণ তো দূরের কথা, সাধারণ কর্মীরাও এই যাত্রায় শামিল হননি।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে মানুষের ওপর পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করেছে, জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে, মানুষের মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। আবার জনগণের কাছে যদি যেতে হয়, তাহলে সেগুলোর জন্য মানুষের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।’

বিএনপির নির্বাচনে না আসলে এতে কোনো প্রভাব পড়বে কি না জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘আমি আশা করি, তারা (বিএনপি) নির্বাচনে অংশ নেবে। আমরা চাই বিএনপিসহ সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ সুন্দর ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের মানুষ আগামী দিনের সরকার পছন্দ করুক, সেটি আমরা চাই।’

আরও পড়ুন:
বিএনপির আন্দোলন পুরোনো গাড়ি স্টার্ট নেয়ার মতো: তথ্যমন্ত্রী
গুজব রোধে ডিসিদের তাৎক্ষণিক ব্যবস্থার নির্দেশ তথ্যমন্ত্রীর
বিএনপি আওয়ামী লীগকে দেখে ভয় পাচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী
জামায়াত ও হেফাজতের সঙ্গে সমঝোতার প্রশ্ন অবান্তর: তথ্যমন্ত্রী
ভোটে জনপ্রিয়তা যাচাইয়ে বিএনপিকে পরামর্শ তথ্যমন্ত্রীর

মন্তব্য

বাংলাদেশ
240 digit suffering in rural electricity recharge card

পল্লী বিদ্যুৎ রিচার্জ কার্ডে ২৪০ ডিজিট, ভোগান্তি

পল্লী বিদ্যুৎ রিচার্জ কার্ডে ২৪০ ডিজিট, ভোগান্তি প্রি-পেইড মিটার রিচার্জ কার্ডে ২৪০ ডিজিট নিয়ে ভোগান্তিতে গ্রাহকরা। ছবি: নিউজবাংলা
মাহমুদুল হাসান নামের এক শিক্ষক বলেন, প্রি-পেইড মিটার রিচার্জের সময় সংখ্যাগুলো কেবল একবারই প্রবেশ করাতে হবে। আরও সহজ সিস্টেম হলে প্রি-পেইড মিটার ব্যবহারে গ্রাহকদের আগ্রহ বাড়ত।

পল্লী বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার রিচার্জ কার্ডে ২৪০ ডিজিট নিয়ে গ্রাহকদের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। ভোগান্তি থেকে রেহাই পেতে নরসিংদীতে দফায় দফায় প্রতিবাদ সভাসহ মানববন্ধন করা হলেও কোনো সুফল পাননি গ্রাহকরা।

সদর উপজেলার মেহেরপাড়া গ্রামের আহসান হাবীব রোমান সম্প্রতি বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটারে এক হাজার টাকা রিচার্জ করতে গেলে ভুল করেন দুইবার। শেষ পর্যন্ত আধা ঘণ্টার চেষ্টায় সফল হন তিনি।

নিউজবাংলাকে রোমান বলেন, ২৪০টি নম্বর চাপতে চাপতে আমি ক্লান্ত। ভুল হয়েছে দুবার , সময় লেগেছে আধা ঘন্টার ওপরে। এর মানেটা কী? এটা কেমন ডিজিটাল বাংলাদেশরে বাবা ?

আমিনুল নামের আরেক গ্রাহক বলেন, মিটার রিচার্জ করতে ঝামেলা হয়। পরে অফিসে গিয়ে অবগত করা হলে লোক এসে তা রিচার্জ করে দেয়। আমাদের ভোগান্তি দূর করতে রিচার্জ ব্যবস্থা আরও সহজ হওয়া দরকার।

মাহমুদুল হাসান নামের এক শিক্ষক বলেন, প্রি-পেইড মিটার রিচার্জের সময় সংখ্যাগুলো কেবল একবারই প্রবেশ করাতে হবে। আরও সহজ সিস্টেম হলে প্রি-পেইড মিটার ব্যবহারে গ্রাহকদের আগ্রহ বাড়ত।

প্রি-পেইড মিটারের রিচার্জ ভোগান্তির বিষয়ে নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার মো. সোহেল পারভেজ নিউজবাংলাকে বলেন, প্রি-পেইড মিটারের বাটন চেপে এতগুলো ডিজিট প্রবেশ করানো কঠিন কাজ। গ্রাহকদের অভিযোগের বিষয়টি বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডকে জানানো হয়েছে। তারা বলেছে যে, প্রি-পেইড মিটার রিচার্জ অফলাইন হওয়ায় বিকল্প আর কোনো উপায় নেই ।

আরও পড়ুন:
পল্লী বিদ্যুতের শ্রমিককে কুপিয়ে আহত
পল্লী বিদ্যুতের ১৩৯টি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Factory fire in Mongla EPZ

মোংলা ইপিজেডে কারখানায় আগুন

মোংলা ইপিজেডে কারখানায় আগুন মোংলা ইপিজেডে মঙ্গলবার বিকেলে ভিআইপি-১ কারখানায় আগুন লাগে। ছবি: নিউজবাংলা
মোংলা ইপিজেডের নির্বাহী পরিচালক মো. মাহাবুব আহম্মেদ সিদ্দিক বলেন, ‘ইপিজেডে ভিআইপি প্রতিষ্ঠানের ১ নম্বর কারখানায় বিকেলের দিকে আগুন লাগে। এ কারখানায় কোম্পানিটির ফেব্রিক্স ছিল। তবে অগ্নিকাণ্ডের সময় কর্মরত শ্রমিকরা দ্রুত বাইরে বেরিয়ে আসেন। কীভাবে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

মোংলা ইপিজেডে ভিআইপি-১ কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট কাজ করছে। তাৎক্ষণিকভাবে কেউ হতাহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

মোংলা ইপিজেডের নির্বাহী পরিচালক মো. মাহাবুব আহম্মেদ সিদ্দিক বলেন, ‘ইপিজেডে ভিআইপি প্রতিষ্ঠানের ১ নম্বর কারখানায় বিকেলের দিকে আগুন লাগে। এ কারখানায় কোম্পানিটির ফেব্রিক্স ছিল। তবে অগ্নিকাণ্ডের সময় সেখানে কর্মরত শ্রমিকরা দ্রুত বাইরে বেরিয়ে আসেন। কীভাবে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করা হবে বলে জানান তিনি।

মোংলা বন্দর ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. আরবেশ আলী বলেন, ‘বিকেল সাড়ে ৩টায় অগ্নিকাণ্ডের খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমাদের তিনটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করেছে। শর্ট সার্কিট থেকে এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইপিজেডের ভিআইপি কোম্পানির কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘আগুনের ঘটনায় কোম্পানির কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। কেউ হতাহত হওয়ার ঘটনা ঘটেনি।’

কারখানাটিতে অগ্নিকাণ্ডের সময় কতজন শ্রমিক কর্মরত ছিলেন তা তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেননি তিনি।

আরও পড়ুন:
বাসে হঠাৎ আগুন, পুড়ে ছাই যাত্রীদের মালামাল
চট্টগ্রামে নূপুর মার্কেটে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৮ ইউনিট
নিকুঞ্জে কলেজ হোস্টেলের আগুন নিয়ন্ত্রণে
নারায়ণগঞ্জে আগুনে পুড়ল ৬ দোকান
সেই বিভীষিকার রাত: কেউ সাজা পায়নি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Waiting to see the end of Sattas surprise

সাত্তার চমকের শেষটা দেখার অপেক্ষা

সাত্তার চমকের শেষটা দেখার অপেক্ষা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঞা ও আবু আসিফ। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
আওয়ামী লীগের সমর্থক প্রার্থীরা সরে দাঁড়ানোয় উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঞার জয়ের বিষয়টি এক প্রকার নিশ্চিতই হয়ে যায়। তবে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে আছেন লাঙ্গল প্রতীকের আব্দুল হামিদ ভাসানী, গোলাপফুল মার্কা পাওয়া জহিরুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত নেতা আবু আসিফ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের উপনির্বাচনে ভোট বুধবার। একই দিনে হচ্ছে আরও ৫টি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন। তবে এর মধ্যে দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচনায় রয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসন। এর মূল কারণ সংসদ থেকে পদত্যাগ করা ও বিএনপির দলছুট নেতা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঞা স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়া।

তফসিল ঘোষণার পর মনোনয়ন সংগ্রহ থেকে শুরু করে সোমবার দুপুর ১২টা প্রচারণার শেষ সময় পর্যন্ত সাত্তার নির্বাচন করাকে কেন্দ্র করে নানা চমক দেখেছে সাধারণ ভোটাররা। বিএনপির সাবেক এই নেতার পক্ষে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা মরিয়া হয়ে মাঠে নেমে প্রকাশ্যে ভোট চাওয়ায় ভোটারদের মনে জেগেছে নানা প্রশ্ন।

আওয়ামী লীগ আসনটিতে নৌকার প্রার্থী দেয়নি। তবে দলটি সমর্থিত তিন নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছিলেন। কিন্তু বিএনপির সাবেক এই নেতাকে জেতাতে সেই তিন প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন। আবার প্রত্যাহার না করেও সাবেক সাংসদ জিয়াউল হক মৃধা এক বিবৃতিতে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।

হেভিওয়েট প্রতিদ্বন্দ্বীরা সরে দাঁড়ানোয় উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঞার জয়ের বিষয়টি এক প্রকার নিশ্চিতই হয়ে যায়। তবে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে আছেন লাঙ্গল প্রতীকের আব্দুল হামিদ ভাসানী, গোলাপফুল মার্কা পাওয়া জহিরুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত নেতা আবু আসিফ।

নির্বাচনী সমীকরণ মিলিয়ে যখন ভোটাররা সাত্তারের বিপক্ষে কোনো হেভিওয়েট প্রার্থী পাচ্ছিলেন না তখনই প্রচার ও প্রসারে আলোচনায় আসেন আবু আসিফ। সাত্তারের সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতারা প্রচারণা চালালেও বিএনপির সাবেক নেতা আবু আসিফের প্রচারণায় দলের কোনো প্রভাবশালী নেতা ছিলেন না। তবে অনুসারীদের নিয়ে প্রচারণা চালিয়ে সাত্তারের বিপক্ষে হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আসেন তিনি।

তবে সেখানে আরেক চমক। হঠাৎই নিখোঁজ হয়ে গেলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ। নির্বাচনে দায়িত্বরত কর্তৃপক্ষসহ স্বজনরাও জানেন না তিনি কোথায় আছেন। তবে প্রথমে কোনো অভিযোগ না দিলেও মঙ্গলবার জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর একটি অভিযোগ দেন আবু আসিফের স্ত্রী মেহেরুন্নিছা মেহরিন। এ ঘটনায় নতুন করে বিরূপ আলোচনার ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে।

আবু আসিফ নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টিকে ক্ষমতাসীন দলের ষড়যন্ত্র হিসেবে দেখছে বিএনপি। তারা বলছে, উকিল সাত্তারের জয় নিশ্চিতে আসিফের ওপর চাপ ছিলো। তাই আসিফকে সরিয়ে ফেলে সাত্তারের পথ পরিষ্কার করতে চেয়েছে আওয়ামী লীগ।

এদিকে আবু আসিফ স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে গেছেন-এমন প্রচারও আছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসিফের স্ত্রী ও বাসার দারোয়ানের একটি অডিও কথোপকথন ছড়িয়ে পড়েছে, যা এমন প্রচারের পক্ষে হাওয়া দিচ্ছে। যদিও ওই অডিও টেপের বক্তাদের পরিচয় নিয়ে পুলিশও পুরোপুরি নিশ্চিত নয়।

একাধিক সূত্রে জানা যায়, দলছুট নেতা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঞাকে জেতাতে আওয়ামী লীগের এমন মরিয়া হওয়ার কারণ বিএনপি ও ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। বিএনপিকে জনগণের কাছে বিতর্কিত করতে আওয়ামী লীগের এমন প্রয়াস বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির একাধিক নেতাকর্মী। তাছাড়া ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানাকে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রেখেই সাত্তারের পক্ষে মরিয়া হয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মাঠে নেমেছেন।

এদিকে সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জয়ের প্রতাশা করছেন জাতীয় পার্টির মনোনীয়ত প্রার্থী আব্দুল হামিদ ভাসানী ও জাকের পার্টির জহিরুল ইসলাম ভূঞা। তারা বলছেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তারা জয়ী হবেন।

এসব চমকের সমাপ্তি ঘটছে বুধবার। তবে নির্বাচনটি একতরফা হিসেবেই দেখছেন ভোটাররা। নিজের ভোট নিজে না দিতে পারার শঙ্কাও প্রকাশ করছেন অনেকে।

সাত্তার চমকের শেষটা দেখার অপেক্ষা
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণের জন্য মঙ্গলবার বেলা ২টা থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয় ইভিএমসহ ভোটের সরঞ্জামাদি। ছবি: নিউজবাংলা

ভোটগ্রহণের প্রস্তুতি সম্পন্ন

অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে প্রশাসন। মঙ্গলবার বেলা ২টা থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে ইভিএমসহ ভোটের সরঞ্জামাদি। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, দুই উপজেলায় রয়েছে ১৭টি ইউনিয়ন। এর মধ্যে সরাইল উপজেলায় ৯টি ও আশুগঞ্জ উপজেলায় ৮টি ইউনিয়ন। মোট ভোট কেন্দ্র ১৩২টি। মোট ভোটার ৩ লাখ ৭৩ হাজার ৩১৩ জন। এর মধ্যে সরাইলে ২ লাখ ৪১ হাজার ৭৯ ও আশুগঞ্জে ১ লাখ ৩২ হাজার।

ভোটে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় ১১ শ’ পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হচ্ছে। এছাড়াও থাকছে ৪ প্লাটুন বিজিবি সদস্য, র‌্যাবের ৯টি টিম, পুলিশের ৯টি মোবাইল টিম ও ৪টি স্ট্রাইকিং টিম। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রের নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করবে ৩জন পুলিশ, অস্ত্রধারী ২জন আনসার, লাঠিধারী ১০জন আনসার ও ২জন গ্রামপুলিশ।

১৭টি ইউনিয়নে ১৭ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ২ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

পুলিশ সুপার মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘উপনির্বাচন উপলক্ষে আমরা ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়েছি। কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা সহ্য করা হবে না। কেউ বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
আশুগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩০
আওয়ামী লীগের ৩ সমর্থকের মনোনয়ন প্রত্যাহারে কপাল খুলছে সাত্তারের
বিচারককে গালির ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবি নারী বিচারকদের
চাঁপাইয়ে আওয়ামী লীগের ‘ঘরের শত্রু বিভীষণ’
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে সাত্তার-চমকের কী প্রভাব

মন্তব্য

বাংলাদেশ
18 cocktails in Ambagan

আমবাগানে ১৮ ককটেল

আমবাগানে ১৮ ককটেল একটি আমবাগান থেকে অবিস্ফোরিত ১৮টি ককটেল উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা
মান্দা থানার এসআই ফজলে এলাহী জানান, ভোরে উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া ডিবি উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন ভুট্টুর আমবাগানে একটি ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। ককটেলগুলো পানিতে ভিজিয়ে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

নওগাঁর মান্দায় একটি আমবাগান থেকে অবিস্ফোরিত ১৮টি ককটেল উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের আমবাগান থেকে মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ককটেলগুলো উদ্ধার করা হয়।

মান্দা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফজলে এলাহী নিউজবাংলাকে এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, ভোরে উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া ডিবি উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন ভুট্টুর আমবাগানে একটি ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। ককটেলগুলো পানিতে ভিজিয়ে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান কামরুল বলেন, ‘পুলিশ ওয়ারেন্টভুক্ত আসামিকে আটকের জন্য আগে থেকেই ওই এলাকায় ছিল। আমবাগানে ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ ব্যাগ থেকে ককটেলগুলো উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।’

আরও পড়ুন:
ককটেল ফাটিয়ে কৃষক লীগের সম্মেলন পণ্ড
নয়াপল্টনে ককটেল বিস্ফোরণ
বিসিক এলাকায় ককটেলসহ গ্রেপ্তার ৪
বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল, আহত পুলিশ
বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল হামলার অভিযোগ

মন্তব্য

p
উপরে