× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Two day information fair begins at Nilphamari
google_news print-icon

নীলফামারীতে দুই দিনব্যাপী তথ্য মেলা শুরু

নীলফামারীতে-দুই-দিনব্যাপী-তথ্য-মেলা-শুরু
সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান নূর মঙ্গলবার দুপুরে নীলফামারী শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে বেলুন উড়িয়ে দুই দিনব্যাপী তথ্য মেলা উদ্বোধন করেন।ছবি: নিউজবাংলা
সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান নূর মঙ্গলবার দুপুরে নীলফামারী শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে বেলুন উড়িয়ে দুই দিনব্যাপী তথ্য মেলা উদ্বোধন করেন।

‘তথ্যই শক্তি, জানব জানাব, দুর্নীতি রুখব’ স্লোগানে নীলফামারীতে শুরু হয়েছে দুই দিনব্যাপী তথ্য মেলা।

সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান নূর মঙ্গলবার দুপুরে নীলফামারী শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে বেলুন উড়িয়ে এর উদ্বোধন করেন। পরে তিনি স্টল পরিদর্শন করেন।

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মমতাজুল হক, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও নীলফামারী পৌরসভার মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন নাহার উদ্বোধনী আলোচনায় বক্তব্য দেন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সাইফুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য দেন সনাক সভাপতি তাহমিনুল হক ববি।

নীলফামারী শিল্পকলা একাডেমির সংগীত প্রশিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন ইমুর সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তথ্য মেলার আয়োজন নিয়ে বক্তব্য দেন টিআইবির সমন্বয়কারী আতিকুর রহমান।

সনাক সভাপতি তাহমিনুল হক ববি জানান, জেলা প্রশাসন ও সচেতন নাগরিক কমিটি নীলফামারীর যৌথ আয়োজনে সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তর ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা নিয়ে ৪০টি স্টল অংশ নিয়েছে মেলায়।

আরও পড়ুন:
জেলহত্যার প্রধান কুশীলব জিয়া: তথ্যমন্ত্রী
বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থার অর্থ পেয়েছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী
এবার তথ্যসচিব হলেন ইসির হুমায়ুন কবীর
বাংলাদেশের আত্মিক উন্নয়ন সব দেশ অনুসরণ করবে: তথ্যমন্ত্রী
রিজার্ভ এখনও বিএনপি আমলের ১২ গুণ: তথ্যমন্ত্রী

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Today is the first day of Agnijhra March

অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম দিন আজ

অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম দিন আজ
‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’- বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এই পঙক্তি বাঙালি জাতিকে ইস্পাত কঠিন দৃঢ়তায় বলীয়ান করে তোলে। এই মার্চেই বাঙালি বিদায় জানায় পাকিস্তানকে।

অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম দিন আজ শুক্রবার। বাঙালির জীবনে নানা কারণে মার্চ মাস অন্তর্নিহিত শক্তির উৎস। এ মাসেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’- বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টার এই পঙক্তি বাঙালি জাতিকে ইস্পাত কঠিন দৃঢ়তায় বলীয়ান করে তোলে। এই মার্চেই বাঙালি বিদায় জানায় পাকিস্তানকে।

১৯৭১-এর ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওর্য়াদী উদ্যান) এই ঐতিহাসিক ভাষণের সময় মুহুর্মুহু গর্জনে উত্তাল ছিল জনসমুদ্র। লাখো কণ্ঠের একই আওয়াজ উচ্চারিত হতে থাকে দেশের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে। ঢাকাসহ গোটা দেশে পত্‌ পত্‌ করে উড়তে থাকে সবুজ জমিনের ওপর লাল সূর্যের পতাকা।

১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষার দাবিতে যে আগুন জ্বলে উঠেছিল সেই আগুন যেন ছড়িয়ে পড়ে বাংলার সর্বত্র। এরপর যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ৬২-এর শিক্ষা আন্দোলন, ৬৬-এর ছয় দফা এবং ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের সিঁড়ি বেয়ে একাত্তরের মার্চ বাঙালির জীবনে নিয়ে আসে নতুন বারতা।

একাত্তরের ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু ঘোষণা করেন বাংলাদেশের স্বাধীনতা। এর আগে ২৫ মার্চ রাত ১টার অল্প পর বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তানি সৈন্যরা গ্রেপ্তার করে তার বাড়ি থেকে।

বাঙালির কণ্ঠ চিরতরে স্তব্ধ করে দিতে ২৫ মার্চের কালরাতে পাকিস্তানিরা ‘অপারশেন সার্চলাইট’ নামে শুরু করে বাঙালি নিধন। ঢাকার রাস্তায় বেরিয়ে সৈন্যরা নির্বিচারে হাজার হাজার লোককে হত্যা করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ছাত্র-শিক্ষককে হত্যা করে।

এর পরের ঘটনাপ্রবাহ প্রতিরোধের ইতিহাস। বঙ্গবন্ধুর আহবানে ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোলা হয়। আবালবৃদ্ধবনিতা যোগ দেন মহান মুক্তিযুদ্ধে। দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী সশস্ত্র যুদ্ধের পর ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জনের মধ্যদিয়ে জাতি লাভ করে স্বাধীনতা।

এ মাসেই জাতি পালন করবে মহান স্বাধীনতার ৫৪ বছর। এ উপলক্ষে মাসের প্রথম দিন থেকেই শুরু হবে সভা-সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। নানা আয়োজনে মুখর থাকবে গোটা দেশ।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The cabinet is being sworn in on Friday

মন্ত্রিসভা বড় হচ্ছে, শপথ শুক্রবার

মন্ত্রিসভা বড় হচ্ছে, শপথ শুক্রবার
বর্তমান মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রীর বাইরে পূর্ণ মন্ত্রী রয়েছেন ২৫ জন এবং প্রতিমন্ত্রী ১১ জন। ৩৭ সদস্যের এই মন্ত্রিসভায় কোনো উপমন্ত্রী নেই। এর মধ্যে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে বর্তমানে আলাদা মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী নেই। কয়েকটি মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী থাকলেও পূর্ণ মন্ত্রী নেই। আবার পূর্ণ মন্ত্রী থাকলেও প্রতিমন্ত্রী নেই।

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন দ্বাদশ জাতীয় সংসদের মন্ত্রিসভার আকার বাড়ছে। মন্ত্রিসভায় নতুন করে যারা যুক্ত হচ্ছেন তাদের শপথ হতে পারে শুক্রবার।

সরকার-সংশ্লিষ্ট উচ্চ পর্যায়ের সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বর্তমান মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রীর বাইরে পূর্ণ মন্ত্রী রয়েছেন ২৫ জন এবং প্রতিমন্ত্রী ১১ জন। ৩৭ সদস্যের এই মন্ত্রিসভায় কোনো উপমন্ত্রী নেই। এর মধ্যে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে বর্তমানে আলাদা মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী নেই। এগুলোর দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রীর হাতে রয়েছে।

কয়েকটি মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী থাকলেও পূর্ণ মন্ত্রী নেই। আবার পূর্ণ মন্ত্রী থাকলেও প্রতিমন্ত্রী নেই। মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণে এই বিষয়গুলো বিবেচনায় আসতে পারে বলে আলোচনা আছে।

সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচনের পর মন্ত্রিসভার আকার বাড়বে- এমন একটি আলোচনা সরকার শপথ গ্রহণের পর থেকেই ছিল। এ বিষয়ে সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচনের পর বর্তমান মন্ত্রিসভার পরিধি বাড়তে পারে বলে কিছুদিন আগে সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত সংরক্ষিত নারী আসনের ৫০ জন সংসদ সদস্যের শপথ হয়েছে বুধবার। এরপর থেকে মন্ত্রিসভার আকার বাড়ানোর বিষয়টি নেতাকর্মীদের মুখে মুখে আলোচিত হতে থাকে।

প্রসঙ্গত, ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর ১১ জানুয়ারি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে টানা চতুর্থবারের মতো সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ। ওইদিন প্রধানমন্ত্রীসহ ৩৭ জন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী শপথ নেন।

আরও পড়ুন:
সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচনের পর মন্ত্রিসভার আকার বাড়বে: কাদের
জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা মন্ত্রিসভার সদস্যদের
ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রিসভার সদস্যদের
বাজিমাত করলেন আরাফাত
পররাষ্ট্রের গুরুদায়িত্বে হাছান মাহমুদ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A fire broke out at Kacchi Bhai Restaurant on Bailey Road

বেইলি রোডে কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে আগুন, আটকা অনেকে

বেইলি রোডে কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে আগুন, আটকা অনেকে রাজধানীর বেইলি রোডে গ্রিন কোজি কটেজ নামের ভবন থেকে বের হচ্ছে আগুনের শিখা (বাঁয়ে); আটকে পড়াদের উদ্ধার করছে ফায়ার সার্ভিস। কোলাজ: নিউজবাংলা
ফায়ার সার্ভিসের কেন্দ্রীয় মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘বেইলি রোডে কাচ্চি ভাই রেস্তোঁরায় আগুন লাগার খবর পেয়েছি আমরা। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট কাজ করছে।’

রাজধানীর বেইলি রোডে আট তলাবিশিষ্ট একটি ভবনে আগুন লেগেছে। এই ভবনে ‘কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্ট’সহ একাধিক রেস্তোরাঁ ও দোকান রয়েছে।

গ্রিন কোজি কটেজ নামের ভবনটির দোতলায় বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট রাত ৯টা ৫৬ মিনিটে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভানোর তৎপরতা শুরু করে। পরে একে একে আরও ছয়টি ইউনিট তাদের সঙ্গে যোগ দেয়।

ফায়ার সার্ভিসের মোট ১২টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টার করছে। তবে রাত ১১টা ২৫ মিনিটেও আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। এদিকে আগুন ক্রমশ উপরের দিকে ছড়িয়ে পড়ায় ভবনটির উপরের তলাগুলোর বাসিন্দাদের অনেকে আটকা পড়েছেন। রাত ১১টা পর্যন্ত ১৫ জনকে উদ্ধার করে মইয়ের সাহায্যে নিচে নামিয়ে এনেছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

বেইলি রোডে কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে আগুন, আটকা অনেকে
আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস। ছবি: নিউজবাংলা

ফায়ার সার্ভিসের কেন্দ্রীয় মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘বেইলি রোডে কাচ্চি ভাই রেস্তোঁরায় আগুন লাগার খবর পেয়েছি আমরা। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট কাজ করছে।’

ঘটনাস্থলে উপস্থিত বেশ কয়েকজন জানান, ভবনটিতে কাচ্চি ভাই, ইলিয়েনসহ বেশ কয়েকটি দোকান আছে। ভবনটি থেকে দাউ দাউ করে আগুনের শিখা বের হচ্ছে। সঙ্গে ধোঁয়ার কুণ্ডলি। বাইরে রাস্তায় প্রচুর মানুষ ভিড় জমিয়েছে।

আট তলাবিশিষ্ট ভবনটির দ্বিতীয় তলায় কাচ্চি ভাই রেস্তোরাঁ। উপরের তলাগুলো আবাসিক।

পুলিশের রমনা জোনের সহকারী মোহাম্মদ সালমান ফার্সী জানান, বহুতল ওই ভবনের উপরের তলাগুলোর বাসিন্দারা আটকা পড়েছেন। তাদেরকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, আগুন দ্বিতীয় তলায় লাগলেও তা উপরের দিকে ছড়িয়ে পড়ে। ভবনের অনেক বাসিন্দা আটকা পড়েছেন। ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ক্রেনের সাহায্যে তিন দফায় উপরের তলাগুলো থেকে নারী ও শিশুসহ অন্তত ১৫ জনকে নামিয়ে এনেছেন। আরও বেশ কয়েকজন আটকা পড়ে আছেন। তাদের নামিয়ে আনার চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন:
বরিশালে রেস্তোরাঁয় আগুন, বিএম কলেজছাত্রী আহত
ভাসানচরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, ছয় শিশুসহ দগ্ধ ৯
তিন ঘণ্টার চেষ্টায় গাজীপুরের ঝুট গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে
গাজীপুরে জ্বলছে ঝুটের গুদাম
ডেমরায় পাটের সুতার কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Job student Khadija was acquitted from two cases

জবি শিক্ষার্থী খাদিজাকে দুই মামলা থেকেই অব্যাহতি

জবি শিক্ষার্থী খাদিজাকে দুই মামলা থেকেই অব্যাহতি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী খাদিজাতুল কুবরা। ছবি: সংগৃহীত
২০২০ সালের অক্টোবরে খাদিজা ও মেজর (অব.) দেলোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে কলাবাগান ও নিউমার্কেট থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুটি মামলা করে পুলিশ। ২০২২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর খাদিজাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত বছরের ২০ নভেম্বর জামিন পেয়ে কারাগার থেকে বেরিয়ে আসেন খাদিজা।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থী খাদিজাতুল কুবরাকে নিউমার্কেট থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের (ডিএসএ) আরেক মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছে আদালত। তবে মামলার অপর আসামি অবসরপ্রাপ্ত মেজর দেলোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ পুনঃতদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

অভিযোগ গঠনের মতো কোনো উপাদান না পাওয়ায় বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয় ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ এম জুলফিকার হায়াতের আদালত।

এর আগে ২৮ জানুয়ারি রাজধানীর কলাবাগান থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা থেকে খাদিজাতুল কুবরাকে অব্যাহতি দেয়া হয়। ১৪ মাস পর গত বছরের নভেম্বরে কাশিমপুর মহিলা কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

‘সরকারবিরোধী প্রচারণা ও বাংলাদেশের সুনাম ক্ষুণ্ন করার’ অভিযোগে ২০২০ সালের অক্টোবরে খাদিজা ও অবসরপ্রাপ্ত মেজর দেলোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে কলাবাগান ও নিউমার্কেট থানায় দুটি মামলা করে পুলিশ। ২০২২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর খাদিজাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

অবশেষে ২০২৩ সালের ২০ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট থেকে জামিন পেয়ে কারাগার থেকে বেরিয়ে আসেন খাদিজা।

মামলার এজাহারে বলা হয়, খাদিজা ও দেলোয়ার দেশের বৈধ প্রশাসনকে উৎখাত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী, বিভিন্ন সরকারি সংস্থা ও ঊর্ধ্বতন রাষ্ট্রীয় কর্মকর্তাদের সম্পর্কে মিথ্যা, বানোয়াট ও মানহানিকর প্রচারণা চালানোর ষড়যন্ত্র করেছেন। বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, বিদ্বেষ ও বিভেদ সৃষ্টি করে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চান তারা।

২০২০ সালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাগুলো করার সময় খাদিজার বয়স ছিল ১৭ বছর। কিন্তু তাকে প্রাপ্তবয়স্ক দেখিয়ে মামলা করা হয় বলে তার আইনজীবী জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন:
জবি শিক্ষার্থী খাদিজাকে এক মামলায় অব্যাহতি
কারামুক্তির পর কেমন আছেন খাদিজা
কারামুক্ত হয়েই পরীক্ষার হলে জবি শিক্ষার্থী খাদিজা
বিনা দোষে প্রায় ১৫ মাস জেল খাটলাম: খাদিজা
জামিনে কারামুক্ত জবি শিক্ষার্থী খাদিজাতুল কুবরা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Chairman Mujibul sacked for threatening Ambassador Haas

রাষ্ট্রদূত হাসকে হুমকি দেয়া চেয়ারম্যান মুজিবুল বরখাস্ত

রাষ্ট্রদূত হাসকে হুমকি দেয়া চেয়ারম্যান মুজিবুল বরখাস্ত ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত
বিভিন্ন সময়ে নানা বিতর্কিত বক্তব্য ও কার্যক্রমে ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবু হক ব্যাপকভাবে আলোচিত-সমালোচিত। আর এসব কারণে ইউপি চেয়ারম্যান হয়েও বেশ কয়েকবার জাতীয় গণমাধ্যমে শিরোনাম হয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্টদূত পিটার হাসকে হুমকি দেয়া চট্টগ্রামের বাঁশখালীর সেই ইউপি চেয়ারম্যান অবশেষে বরখাস্ত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব পুরবী গোলদার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বাঁশখালী উপজেলার চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বিভিন্ন সময়ে নানা বিতর্কিত বক্তব্য ও কার্যক্রমে ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবু হক ব্যাপকভাবে আলোচিত-সমালোচিত। আর এসব কারণে ইউপি চেয়ারম্যান হয়েও বেশ কয়েকবার জাতীয় গণমাধ্যমে শিরোনাম হয়েছেন তিনি।

করোনা মহামারির সময়ে বয়সের চেয়ে বড় স্থানীয় খেটেখাওয়া লোকজনকে ঘরের বাইরে বের হওয়ার অজুহাতে পিটিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছেন মুজিবুল হক। বিগত ইউপি নির্বাচনে জনসভায় প্রকাশ্যে নিজের লোক দিয়ে ভোট নেয়ার হুমকি দিলে সে সময় চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। পরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপরও তিনি লাগামহীন কথাবার্তা বলে গেছেন।

সবশেষ গত বছরের নভেম্বর মাসে হরতালবিরোধী মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাসকে পেটানোর হুমকি দিয়ে ফের আলোচনায় আসেন।

জানা যায়, স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইনে জেলা প্রশাসক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেন। অভিযোগপত্রে এসব বিষয় উঠে আসে। মুজিবুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে উল্লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনা যুক্তিযুক্ত নয় মর্মে সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে মূলত তাকে বরখাস্ত করা হয়।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The explosion was not caused by the gas released from the cylinder

বিস্ফোরণ নয়, সিলিন্ডারের ছেড়ে দেয়া গ্যাসে ভাসানচরে অগ্নিকাণ্ড

বিস্ফোরণ নয়, সিলিন্ডারের ছেড়ে দেয়া গ্যাসে ভাসানচরে অগ্নিকাণ্ড নোয়াখালীর ভাসানচরে রোহিঙ্গা ক্যাম্প। ফাইল ছবি
ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জ মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ভাসানচরের রোহিঙ্গাদের মাঝে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিতরণের তারিখ ছিল। নতুন সিলিন্ডার নিতে সফি আলম তার আগের সিলিন্ডারের তলানিতে থেকে যাওয়া গ্যাস ইচ্ছাকৃতভাবে ছেড়ে দেন। সেসময় পাশের কক্ষের আবদুস শুক্কুরের স্ত্রী আমিনা খাতুন এবং অপর কক্ষে আব্দুল হাকিমের মেয়ে রোমানা গ্যাসের চুলা জ্বালাতে দিয়াশলাই জ্বালালে ওই ছেড়ে দেয়া গ্যাস বাতাসে মিশে আগুন ধরে যায়।’

নোয়াখালীর ভাসানচরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ পাঁচ শিশুরই মৃত্যু হয়েছে। শনিবার ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটলেও এর কারণ ছিল এতদিন অজানা। তবে পাঁচদিন পর অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানা গেছে।

সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কারণে নয়, ইচ্ছাকৃতভাবে সিলিন্ডারের গ্যাস ছেড়ে দেয়ায় এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জ মো. রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বৃহস্পতিবার সকালে তিনি বলেন, ‘শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ভাসানচরের রোহিঙ্গাদের মাঝে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিতরণের তারিখ ছিল। এর আগের দিন সকালে ৮১ নম্বর ক্লাস্টারের ২৪ বছর বয়সী সফি আলম নতুন সিলিন্ডার নিতে তার ব্যবহৃত সিলিন্ডারের তলানিতে থেকে যাওয়া গ্যাস ইচ্ছাকৃতভাবে ছেড়ে দেন। সেসময় পাশের কক্ষের আবদুস শুক্কুরের স্ত্রী আমিনা খাতুন এবং অপর কক্ষে আব্দুল হাকিমের মেয়ে রোমানা গ্যাসের চুলা জ্বালাতে দিয়াশলাই জ্বালালে ওই ছেড়ে দেয়া গ্যাস বাতাসে মিশে ৩, ৫, ৬, ৭ ও ৮ নম্বর কক্ষসহ বারান্দায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে পাঁচ শিশুসহ মোট নয়জন দগ্ধ হন।

তাদের উদ্ধার করে ভাসানচর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর মধ্যে গুরুতর সাতজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অগ্নিদগ্ধ পাঁচ শিশু ৫ বছরের রবি আলম, সোহেল, ৪ বছরের রাসেল এবং তিন বছরের মুবাশিরা ও রোমানার মৃত্যু হয়।

নোয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) মোহাম্মদ ইব্রাহীম বলেন, ‘সাবধানতা অবলম্বন না করে অবহেলা করে সিলিন্ডার থেকে গ্যাস ছেড়ে দেয়ায় আগুনের সুত্রপাত হয়। এ ঘটনায় ৮১ নম্বর ক্লাস্টারের সফি আলমের বিরুদ্ধে ভাসানচর থানায় বুধবার রাতে মামলা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মামলার একমাত্র অভিযুক্ত সফি আলমের দুই শিশু সন্তানও এ ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে।

‘তিনি নিজেও অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। তাকে ভাসানচর হাসপাতালে পুলিশ পাহারায় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। সুস্থ হলে এ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে।’

প্রসঙ্গত, শনিবার সকালে হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ৮১ নম্বর ক্লাস্টারের একটি কক্ষে রান্নার চুলার গ্যাস সিলিন্ডার থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ৫ শিশুসহ ৯ জন দগ্ধ হন।

আহতদের প্রথমে নোয়াখালীর নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ৭ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে পাঠান।

আরও পড়ুন:
ভাসানচরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিস্ফোরণ: দগ্ধ পাঁচ শিশুরই মৃত্যু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Power price hiked for Awami Syndicates profit Rizvi

আওয়ামী সিন্ডিকেটের মুনাফার জন্য বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে: রিজভী

আওয়ামী সিন্ডিকেটের মুনাফার জন্য বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে: রিজভী বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ফাইল ছবি
বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘যখনই সরকারের টাকায় টান পড়ছে তখনই গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির দাম বাড়িয়ে জনগণের পকেট কাটছে। লুটেরা ডামি সরকার আর্থিকভাবে দেউলিয়া হয়ে সাধারণ মানুষের পকেট শূন্য করার নীতি গ্রহণ করেছে।’

আওয়ামী সিন্ডিকেটের মুনাফার জন্য সরকার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, ‘সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস অবস্থার কথা বিবেচনা না করে আওয়ামী ডামি সরকার আবার‌ও বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করেছে।’

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের ক্ষমতা খর্ব করে যখন ইচ্ছা বিদ্যুতের দাম বাড়াতে পারবে সরকার- এই স্বেচ্ছাচারী আইন অনুমোদন করিয়ে জনগণকে নিপীড়ন ও ফতুর করার নীতি নিয়েছে সিন্ডিকেট সরকার।

‘গণমানুষ, ভোক্তা অধিকার কিংবা ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর যুক্তি ও অনুরোধের তোয়াক্কা না করে যখনই লুটেরা সরকারের টাকায় টান পড়ছে তখনই গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির দাম বাড়িয়ে জনগণের পকেট কাটছে। লুটেরা ডামি সরকার আর্থিকভাবে দেউলিয়া হয়ে সাধারণ মানুষের পকেট শূন্য করার নীতি গ্রহণ করেছে।’

তিনি বলেন, ‘কানাডা, অস্ট্রেলিয়ার বেগমপাড়ায় দামি বাড়ি-গাড়ির জন্য টাকা দরকার। এজন্যই নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বৃদ্ধি। বেগমপাড়া হয়ে উঠেছে আওয়ামী ধনাঢ্য ব্যক্তিদের অবৈধ স্বর্গ বানানোর প্রতীক।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আওয়ামী আগ্রাসী সিন্ডিকেটের মুনাফার জন্য সরকার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করেছে। গ্যাস সংকট জিইয়ে রেখে এলএনজি ব্যবসার দুয়ার খোলা হয়েছে। সরকার-ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীরা বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ব্যবসার মাধ্যমে নিজেদের পকেট ভরছেন। এটা স্পষ্ট যে, বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতের লোকসান আসলে সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠান ও দায়িত্বশীলদের অব্যবস্থাপনা, অবহেলা আর দুর্নীতির ফল। আর এর দায় মেটাতে হচ্ছে জনগণকে।’

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সংসদে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন যে মিথ্যা তথ্য ও মিথ্যা খবর দিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি বন্ধে সংসদে আইন আনা হবে। তিনি আরও বলেছেন, অলরেডি একটি আইন আছে যেটা হচ্ছে সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্ট। আরও কিছু আইন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে এই সংসদে আসবে।

‘অর্থাৎ নাগরিকদের ওপর নজরদারি আরও তীব্র হবে। এটি পুরো জাতিকে পর্যবেক্ষণে রাখার এক নতুন কালো আইন প্রণয়নের আলামত। মূলত সরকারের দুঃশাসন, লুটপাট ও বাজার সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কেউ যাতে কোনো কথা বলতে না পারে সেজন্যই একের পর এক ড্রাকোনিয়ান আইন তৈরি করছে সরকার।’

আরও পড়ুন:
বিডিআর বিদ্রোহের পেছনে আওয়ামী লীগ সরকার: রিজভী
জনগণের ওপর প্রতিশোধ নিতে বিদ্যুৎ জ্বালানির দাম বাড়াচ্ছে সরকার: রিজভী
ক্ষমতা দখল করে জনগণকে ঔদ্ধত্য দেখাচ্ছে আ. লীগ সরকার: রিজভী
কারা হেফাজতে বিএনপি নেতাদের মৃত্যু পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড: রিজভী
বিএনপি ও আওয়ামী লীগের পার্থক্য কোথায়, জানালেন রিজভী

মন্তব্য

p
উপরে