× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
One phase movement from December 10 Fakhrul
hear-news
player
google_news print-icon

১০ ডিসেম্বর থেকে এক দফার আন্দোলন: ফখরুল

১০-ডিসেম্বর-থেকে-এক-দফার-আন্দোলন-ফখরুল
মঙ্গলবার নয়াপল্টনে বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য দেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: নিউজবাংলা
বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সব সীমা ছাড়িয়ে গেছে। তারা দুর্নীতি, অহংকার দিয়ে এ দেশের মানুষকে জিম্মি করে ফেলেছে। তাদের কথা শুনলে মনে হয় তারা হচ্ছে মালিক আর আমরা চাকর-বাকর। জনগণ এই দেশের মালিক। শেখ হাসিনা নন, আওয়ামীও লীগ নয়।’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘দেশটা কারও বাপের রাজত্ব নাকি? ১০ ডিসেম্বর এখানেই (নয়াপল্টন) সমাবেশ হবে। এটা জনগণের ঘোষণা। আর এদিন থেকেই শুরু হবে সরকার পতনে এক দফার আন্দোলন।

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের গুলিতে ছাত্রদল নেতা নয়ন নিহত হওয়ার প্রতিবাদে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে।

সরকারকে উদ্দেশ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘খুব পরিষ্কার করেই বলেছি যে আমরা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করব। আমাদের দাবিও পরিষ্কার- জ্বালানি ও দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ। এখনও তো আসল ঘোষণা দেইনি, আসল ঘোষণা আসবে ১০ তারিখে। সেদিন থেকে শুরু হবে এক দফার আন্দোলন। এক দফা এক দাবি, এখানে কোনো কম্প্রোমাইজ নেই।

‘আপনাদের যেতে হবে.... এবং শান্তিপূর্ণভাবে চলে যান।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘জ্বালানি তেলসহ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ; আমাদের শাওন, নুরে আলম, আব্দুর রহিমের হত্যার প্রতিবাদ; খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আমাদের এই সমাবেশ। এখানে কোনো ছাড় নেই।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সাতটি সমাবেশ করেছি। প্রতিটি সমাবেশে ক্ষমতাসীনরা বাধা দিয়েছে। এরা কতটা ভীরু, কাপুরুষ! গাড়ি বন্ধ করে দেয়, লঞ্চ বন্ধ করে দেয়, লেগুনা বন্ধ করে দেয়। তাতে কি সমাবেশ বন্ধ করতে পেরেছে? তিন ঘণ্টার সমাবেশকে তারা তিন দিন বানিয়েছে।’

ফখরুল বলেন, ‘আমরা কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা চাই না। এটা দেশের জন্য লজ্জাকর। কিন্তু এই লজ্জার জন্য দায়ী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগের সরকার। আমরা চাই না কোন বাহিনী আবার সেই নিষেধাজ্ঞায় পড়ুক।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সব সীমা ছাড়িয়ে গেছে। তারা দুর্নীতি, অহংকার দিয়ে এ দেশের মানুষকে জিম্মি করে ফেলেছে। তাদের কথা শুনলে মনে হয় তারা হচ্ছে মালিক আমরা হচ্ছি চাকর-বাকর। তারা হচ্ছে রাজা, আর দেশের মানুষ সব প্রজা।

‘আমরা পরিষ্কার করে বলতে চাই- কেউ জনগণের প্রতিপক্ষ হবেন না। জনগণকে কখনোই ছোট করে দেখবেন না। জনগণ এই দেশের মালিক। শেখ হাসিনা নন, আওয়ামীও লীগ নয়।’

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম। সঞ্চালনায় ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু এবং উত্তরের সদস্য সচিব আমিনুল হক।

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান, বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য সচিব শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, যুবদলের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, ছাত্রদলের সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ।

আরও পড়ুন:
হাজার মাইল দূরের তারেকের হাঁচিতে গণভবন কাঁপে কেন: আলাল
ছাত্রদল নেতা নিহতের ঘটনায় কুমিল্লায় বিক্ষোভ
বিএনপির সাবেক এমপি নাদিম মোস্তফা গ্রেপ্তার
ঢাকার সমাবেশ হবে নয়াপল্টনেই: ফখরুল
বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি জনগণ প্রতিরোধ করবে: বিএনপি

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Dhaka Metropolitan Chhatra League conference today

ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন আজ

ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন আজ
ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ ছাত্রলীগের মাধ্যমে ছাত্রলীগের সম্মেলনের প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে। পরদিন শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা এবং ৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন।

ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের দুই অংশের সম্মেলন শুক্রবার। সকাল ১০টায় ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই সম্মেলন হবে।

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ ছাত্রলীগের মাধ্যমে ছাত্রলীগের সম্মেলনের প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে। পরদিন শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা এবং ৬ ডিসেম্বর হবে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন।

তবে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ ছাত্রলীগের সম্মেলনের দিন কমিটি ঘোষণা করা হবে না বলে আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সম্মেলনের পর কেন্দ্রীয় সম্মেলনের দিন সব কমিটি একযোগে ঘোষণা করা হবে।

রাজধানী ঢাকার ছাত্র রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ দুই শাখা ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ ছাত্রলীগের সম্মেলন ঘিরে উজ্জীবিত সংগঠনের নেতাকর্মীরা। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ ঘিরে বিরাজ করছে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা। শীর্ষ পদ নিজের অনুকূলে নিশ্চিত করতে মরিয়া পদপ্রত্যাশীরা।

ছাত্রলীগের মহানগর নেতাদের সূত্রে জানা য়ায়, অন্যবারের তুলনায় এবার মহানগর উত্তর ও দক্ষিণে শুধু সভাপতি-সম্পাদক পদে প্রার্থীর সংখ্যা অনেক বেশি। মহানগরের বেশিরভাগ থানা ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদকরাও এবার মহানগরের শীর্ষ পদ পাওয়ার দৌড়ে রয়েছেন।

ঢাকা মহানগর ভাগ হওয়ার পর থেকে নেতৃত্ব বাছাইয়েও নানা পক্ষ তৈরি হয়েছে। মহানগর উত্তরে শীর্ষ নেতৃত্ব বাছাইয়ের ক্ষেত্রে কথিত রয়েছে দুই সিন্ডিকেটের নাম। একটি ‘ধানমণ্ডি বেল্ট’, অন্যটি ‘মিরপুর বেল্ট’।

ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের দ্বারা পরিচালিত হয় কথিত এই দুটি সিন্ডিকেট। উত্তর ছাত্রলীগের শীর্ষ পদে কারা আসবেন তাও দুই সিন্ডিকেট নেতারা বাছাই করতেন। যদিও এবার সেই সুযোগ তারা পাবেন না বলেই মনে করা হচ্ছে। কেননা কমিটি দেবেন অভিভাবক সংগঠন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মহিলা লীগ এবং স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের ধারাবাহিকতায় ছাত্রলীগেও স্বচ্ছ, বিকর্তমুক্ত এবং যোগ্যতমদের দিয়ে কমিটি করা হবে বলে আলোচনা আছে।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণে ছাত্রলীগের শীর্ষ পদের দৌড়ে আলোচনায় রয়েছে বেশকিছু নেতার নাম। তাদের মধ্যে মহানগর উত্তরে রয়েছেন- আদাবর থানার সভাপতি রিয়াজ মাহমুদ, বর্তমান কমিটির প্রচার সম্পাদক জুয়েল পোদ্দার রানা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুজ্জামান নোবেল, সাইফ হোসেন রুমান, আফসান নাদিয়ান, মারুফ হোসেন মিঠু, পলিটেকনিকের সভাপতি মেহেদি হাসান, কাজী মিজান, আসাদুজ্জামান আল গালিব (মিরপুর কলেজ সভাপতি), আকরাম হোসেন, দপ্তর সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক আশিক ইকবাল, উত্তরের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সালমান খান প্রান্ত, ধানমণ্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উত্তর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিবুল ইসলাম বাপ্পি।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণে শীর্ষ পদে আলোচনায় আছেন- বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি ও রমনা থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব হাসান, বারেক হোসাইন আপন, মাজেদুল মোল্লা মিন্টু, সাব্বির আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম মিরাজ, ইয়াসিন আরাফাত, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসিবুল আলম পুলক, রফিকুল ইসলাম রাছেল, সমাজসেবা সম্পাদক সৈয়দ মুক্তাদির সাদ, প্রচার সম্পাদক রিয়াজ মোল্লা, গণশিক্ষা বিষয়ক উপ-সম্পাদক আল-নোমান সরকার অনিক, উপ-সম্পাদক নুরুদীন হাওলাদার ও সবুজবাগ থানা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মেজবাহ উদ্দিন পাভেল।

ছাত্রলীগের সমন্বয়কের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘সাংগঠনিক দক্ষতাসম্পন্ন, সৎচরিত্র, ছাত্রসমাজের মাঝে গ্রহণযোগ্য ও পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সংশ্লিষ্ট- এমন নেতাই সম্মেলনের মাধ্যমে বাছাই করা হবে। বয়সের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক অভিভাবক আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।’

আরও পড়ুন:
ছাত্রলীগের মোটরসাইকেল বহরে ককটেল হামলা
এমপির ছেলের সভায় ককটেল বিস্ফোরণ
ঢাবি ছাত্রলীগের সম্মেলন ৩ ডিসেম্বর, দুই মহানগরের ২ ডিসেম্বর
পিছিয়ে গেল ছাত্রলীগের সম্মেলন
ছাত্রলীগে ‘কাগুজে’ কমিটি আর নয়

মন্তব্য

বাংলাদেশ
City residents are angry at the A League rally blocking the road

সড়কে আ.লীগের মঞ্চ, ক্ষোভ নগরবাসীর

সড়কে আ.লীগের মঞ্চ, ক্ষোভ নগরবাসীর
ঘুরে যেতে রিকশাওয়ালাকে বাড়তি টাকা দিতে হয়েছে জানিয়ে বাধ রোড এলাকার হুমায়রা বেগম বলেন, ‘আমাদের মেয়র কেন তার নগরবাসীর জন্য ভোগান্তির সৃষ্টি করলেন বুঝতে পারলাম না। এই স্টেজ তো কোনো মাঠেও করা যেত।’

বরিশাল নগরীতে নগর ভবনের সামনের রাস্তা আটকে পার্বত্য শান্তি চুক্তি দিবস উদযাপনের জন্য মঞ্চ তৈরি করা হয়েছে। জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত এই সমাবেশ হবে শুক্রবার বিকেলে। এ জন্য রাস্তার উপর মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু হয় বুধবার রাত থেকে।

গুরুত্বপূর্ণ সড়ক আটকে এই আয়োজনের কারণে বিকল্প পথ ব্যবহারে ভোগান্তি হচ্ছে জানিয়ে ক্ষুব্ধ নগরবাসী।

ঘটনাস্থলে বৃহস্পতিবার সন্ধ‌্যায় গিয়ে দেখা গেছে, পার্বত‌্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ শেষ পর্যায়ে। প্রশস্ত সড়কটি আটকে মঞ্চ তৈরি করায় যান চলাচল বন্ধ করা হয়েছে।

অটোরিকশাচালক মাইনুল হোসেন বলেন, ‘মানুষের তো কমন সেন্স থাকে ভাই। পুরো রাস্তা আটকে মঞ্চ করছে। যাত্রীরা তো অনেক ঝামেলায় পড়ে গেছে। পুলিশ অন‌্য পথ দিয়ে যেতে বলে। অনেক ঘোরা লাগে।

‘যেখানে মঞ্চ করেছে, সেখান থেকে লঞ্চ ঘাট ৩ মিনিটের পথ। কিন্তু ঘুরে অন‌্য পথ দিয়ে যেতে অনেক সময় লাগে। যাত্রীরা ঘুরতে চায় না।’

সড়কে আ.লীগের মঞ্চ, ক্ষোভ নগরবাসীর

ওষুধ বিক্রেতা ইমদাদুল হক মাসুম বলেন, ‘মোটরসাইকেল নিয়ে বিআরটিএ অফিস যাচ্ছিলাম। সিটি করপোরেশনের সামনে এসে দেখি রাস্তা বন্ধ। স্টেজ করছে। তারপর ঘুরে বরিশাল ক্লাবের সামনে দিয়ে বিআরটিএ অফিসে গেছি।

‘এমনভাবে স্টেজ করেছে যে একটা মোটরসাইকেলও যেতে পারে না। আওয়ামী লীগের নেতাদের এ কেমন চিন্তা ভাবনা বুঝি না।’

কলেজ শিক্ষক মোশাররেফ হোসেন বলেন, ‘এই সড়কটাতে ফায়ার সার্ভিস আছে। কোনো ধরণের দুর্ঘটনা যদি ঘটে তাহলে তো এই সড়ক হয়েই বের হতে হবে। এখন কি তারা বাইপাস সড়ক দিয়ে ঘুরে বের হবে?

‘এই সড়ক হয়ে লঞ্চঘাট, পোস্ট অফিস, সিটি করপোরেশন, ডিসি অফিস, বিআরটিএ অফিস, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসসহ গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোতে সপ্তাহের শেষ দিনে যেতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। যেমন আমারই ডিসি অফিসে কাজ ছিল। রিকশা নিয়ে প্রথমে নগর ভবনের সামনের সড়কে গেলেও, পরে ঘুরে যেতে হয়েছে।’

সড়কে আ.লীগের মঞ্চ, ক্ষোভ নগরবাসীর

ঘুরে যেতে রিকশাওয়ালাকে বাড়তি টাকা দিতে হয়েছে জানিয়ে বাধ রোড এলাকার হুমায়রা বেগম বলেন, ‘আমাদের মেয়র কেন তার নগরবাসীর জন‌্য ভোগান্তির সৃষ্টি করলেন বুঝতে পারলাম না। এই স্টেজ তো কোনো মাঠেও করা যেত।’

এ বিষয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বরিশাল জেলা পরিষদ চেয়ারম‌্যান একেএম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘হাজী মোহাম্মদ মহসিন মার্কেটের নাম যে পাল্টেছে তা চোখে পড়ে না। আর রাস্তাটা যে একটু আটকেছে তা চোখে পড়েছে?’

সড়ক আটকে সমাবেশের অনুমতির বিষয়ে জানতে বরিশাল মহানগর পুলিশের দক্ষিণ জোনের উপ কমিশনার আলী আশরাফ ভূঞা জানান, তিনি অনুমতির বিষয়ে অবগত নন।

তবে পুলিশ কমিশনার সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘অনুমতির জন‌্য চিঠি দেয়া হয়েছিল। অনুমতি দেয়া হয়েছে নগর ভবনের সামনের সড়কে সমাবেশ করার জন‌্য।’

আরও পড়ুন:
রাজশাহীতে পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তি
পরিবহন ধর্মঘটের আগেই রাজশাহীর সমাবেশে নেতা-কর্মীরা
সকাল থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট
ষড়যন্ত্র রুখতে ঐক্যবদ্ধের ডাক শেখ সেলিমের
শিক্ষককে লাঞ্ছনার মামলায় আ.লীগ নেতা কারাগারে

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Cocktail injured police from BNP procession

বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল, আহত পুলিশ

বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল, আহত পুলিশ
উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব হাফিজুল ইসলাম খান বলেন, ‘এ ঘটনা সম্পর্কে আমাদের জানা নেই। এ ঘটনা মিথ্যা ও গুজব।’

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে ঢাকা-দোহার বাইপাস সড়কে দুর্বৃত্তদের মারধরে আহত হয়েছেন থানার এসআই মো. সাইফুল। এসময় রাস্তায় ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে, আগুন দেয়া হয়েছে একটি মোটরসাইকেলে।

পুলিশ বলছে, বিএনপি নেতা-কর্মীরা এই হামলা চালিয়েছে।

শ্রীনগরের কুশরীপাড়া গ্রামের বাইপাস সড়ক মোড়ে বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

আহত এসআই সাইফুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শ্রীনগর থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম জানান, কারাবন্দি দলীয় নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবিতে রাতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে স্থানীয় বিএনপি। মিছিলটি ঢাকা-দোহার বাইপাস সড়কের মোড়ে পৌঁছলে বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। মিছিলে থাকা লোকজন একটি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়, দুটি অটো ভাঙচুর করা হয়।

ওসি আরও জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গেলে এসআই সাইফুলকে মারধর করে হামলাকারীরা।

এসব সত্য নয় জানিয়ে উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব হাফিজুল ইসলাম খান বলেন, ‘এ ঘটনা সম্পর্কে আমাদের জানা নেই। এ ঘটনা মিথ্যা ও গুজব।’

আরও পড়ুন:
সমাবেশ ঘিরে অপরাজনীতি হলে রাজপথেই জবাব: মেয়র লিটন
জামিন পেলেন বিএনপি নেতা সাবেক এমপি নাদিম
‘ধর্মঘটে মিডিয়ায় বাড়তি প্রচার পাচ্ছে বিএনপি’
কুমিল্লায় বিএনপির সমাবেশে ৪ ধর্মগ্রন্থ, রাজশাহীতে কী?
সমাবেশ কোথায় হবে তা সময়ই বলে দেবে: আব্বাস

মন্তব্য

বাংলাদেশ
There is no use calling for the fall of the government Obaidul Quader

সরকার পতনের হাঁকডাক দিয়ে লাভ নেই: ওবায়দুল কাদের

সরকার পতনের হাঁকডাক দিয়ে লাভ নেই: ওবায়দুল কাদের বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে বক্তব্য দেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি: নিউজবাংলা
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি বিএনপিকে আবারও বলতে চাই, নির্বাচনে আসুন। ফখরুল সরকারকে বলেছেন- নিরাপদ প্রস্থান নিতে। আমি বলতে চাই, নিরাপদ প্রস্থানের একমাত্র পথ নির্বাচন। নির্বাচনেই প্রমাণ হবে, কারা বিজয়ী আর কাদের পতন হবে। সরকার পতনের হাঁকডাক দিয়ে কোনো লাভ নেই।’

বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সরকার পতনের হাঁকডাক দিয়ে কোনো লাভ নেই। নির্বাচনেই প্রমাণ হবে, কারা জয়ী আর কাদের পতন হবে।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি বিএনপিকে আবারও বলতে চাই, নির্বাচনে আসুন। ফখরুল সরকারকে বলেছেন- নিরাপদ প্রস্থান নিতে। আমি বলতে চাই, নিরাপদ প্রস্থানের একমাত্র পথ নির্বাচন। নির্বাচনেই প্রমাণ হবে, কারা বিজয়ী আর কাদের পতন হবে। সরকার পতনের হাঁকডাক দিয়ে কোনো লাভ নেই।’

বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘অপেক্ষা করুন, নির্বাচনে খেলা হবে। ডিসেম্বরেই খেলা হবে। বিএনপির আগুন আর লাঠির বিরুদ্ধে খেলা হবে। আগুন আর লাঠি নিয়ে এলে খেলা হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে, ভোট চুরির বিরুদ্ধে, ভুয়া ভোটার তালিকার বিরুদ্ধে খেলা হবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল এখন নাটক শুরু করছেন। নাটক কি? কোথাও সমাবেশ দিলে ৭ দিন আগে থেকে মিথ্যাচার করেন,বাধা দেয়া হচ্ছে। সরকার বাধা দিচ্ছে। আর কাঁথা-বালিশ, হাঁড়ি-পাতিলের পর চালের বস্তা সঙ্গে টাকার বস্তা আর মশার কয়েল নিয়ে সমাবেশস্থলে আসে। কুমিল্লাতে তো কেউ বাধা দেয়নি।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়েছে। উনারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাচ্ছন্দবোধ করছেন না। মুখে মধু আর অন্তরে বিষ- এরই নাম ফখরুল। ফখরুল সাহেব, অনুমতি দেয়া হয়েছে, আপনাদের মিটিংয়ে কেউ বাধা দেবে না। আমরা রাজশাহীতেও বলে দিয়েছি, সেখানে যেন পরিবহন ধর্মঘট না করে। ঢাকায়ও পরিবহন ধর্মঘট হবে না, নেত্রী বলে দিয়েছেন।’

সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘সমাবেশের অনুমতি দেয়ার পরও যদি বাড়াবাড়ি করেন, লাফালাফি করেন, আগুন নিয়ে নামেন, লাঠির সঙ্গে জাতীয় পতাকা লাগিয়ে মাঠে নামেন তাহলে খবর আছে। আমরা পাল্টাপাল্টি করবো না। আমরা শান্তি চাই। ক্ষমতায় থেকে আমরা অশান্তি কেন করবো। আমরা মানুষকে শান্তিতে রাখতে চাই। আমরা ক্ষমতায় আছি অশান্তি হলে তো সেখানে মাথা ঘামাতে হবে।’

কাদের আরও বলেন, ‘তারেক লন্ডনে বসে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে, মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তাই তারেকের হাওয়া ভবনের অর্থ পাচারের বিরুদ্ধে খেলা হবে। সারা বাংলাদেশ থেকে কত টাকা পাচার করা হয়েছে শেখ হাসিনা তা খতিয়ে দেখছেন। সব টাকা উদ্ধার করা হবে। টাকা পাচারকারী তারেকসহ প্রত্যেকের টাকা উদ্ধার করা হবে।’

সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি কোন রাজনৈতিক দল নয়। এ দলের সৃষ্টি ক্যান্টনমেন্টে। দলটির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান সংবিধানকে হত্যা করেছেন। জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের জেল থেকে মুক্তি দিয়ে হত্যার রাজনীতি শুরু করেছিলেন।

‘বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য পাগল হয়ে গেছে। বেশি পাগলামী করলে পাবনায় পাগলা গারদে অথবা পাকিস্তানে পাঠিয়ে দেয়া হবে।’

সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মুহাম্মদ ফারুক খান, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, এস.এম কামাল হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, নার্গিস রহমান।

সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে মাহাবুব আলী খানকে সভাপতি ও জিএম সাহাব উদ্দিন আজমকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করেন শেখ সেলিম।

এ সময় তিনি কাজী লিয়াকত আলী লেকুকে সভাপতি ও আবু সিদ্দিক সিকদারকে সাধারণ সম্পাদক করে সদর উপজেলা কমিটি এবং গোলাম কবিরকে সভাপতি ও আলীমুজ্জামান বিটুকে সাধারণ সম্পাদক করে পৌর আওয়ামী লীগের কমিটিও ঘোষণা দেন।

আরও পড়ুন:
ডিসেম্বরকে কেন্দ্র করে অপশক্তি মাঠে নেমেছে: ওবায়দুল কাদের
খেলার নিয়ম ভঙ্গ করলে বিএনপির খবর আছে: কাদের
১০ ডিসেম্বর নিয়ে এখন ডিফেন্সিভ কেন: বিএনপিকে কাদের
বিএনপি সন্ত্রাসের পথে ফিরে যাবে: কাদের
টাকার বস্তা খালি, গলার জোর কমে ডিফেন্সিভ মুডে ফখরুল: কাদের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
If there is apathy around the rally the answer is on the streets Mayor Lytton

সমাবেশ ঘিরে অপরাজনীতি হলে রাজপথেই জবাব: মেয়র লিটন

সমাবেশ ঘিরে অপরাজনীতি হলে রাজপথেই জবাব: মেয়র লিটন
সিটি মেয়র লিটন বলেন, ‘রাজশাহীর সমাবেশকে ঘিরে বিএনপি যদি এ রকম কোনো অশুভ তৎপরতা ও অপরাজনীতি করতে চায়, তাহলে রাজপথে থেকে রাজনৈতিকভাবে এর সমুচিত জবাব দেয়া হবে।’

রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে রাষ্ট্র ও সরকারবিরোধী কর্মকাণ্ড ঘটলে রাজপথেই জবাব দেয়া হবে বলে বিএনপির উদ্দেশ্য হুশিঁয়ারি দিয়েছেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এই সদস্য বৃহস্পতিবার দুপুরে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেছেন।

রাজশাহীতে শনিবার হতে যাচ্ছে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ। এর দুই দিন আগে বৃহস্পতিবার বিএনপির কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে দলীয় কার্যালয়ে কথা বলেন সিটি মেয়র।

তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক কর্মসূচি ও সমাবেশের নামে রাষ্ট্র ও সরকারবিরোধী কোনো কর্মকাণ্ড তথা বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে নিয়ে কোনো অশোভন মন্তব্য এবং রাজশাহীর জনগণের জানমালের ক্ষতিসাধন করলে তা বরদাশত করা হবে না।

‘রাজশাহীর সমাবেশকে ঘিরে বিএনপি যদি এ রকম কোনো অশুভ তৎপরতা ও অপরাজনীতি করতে চায়, তাহলে রাজপথে থেকে রাজনৈতিকভাবে এর সমুচিত জবাব দেয়া হবে।’

মেয়র বলেন, ‘আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির সমাবেশ ঘিরে তারা ইতোমধ্যেই সরকারের বিরুদ্ধে নানা রকম ষড়যন্ত্র, চক্রান্ত ও অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে। আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ করছি যে যখনই বাংলাদেশে নির্বাচন এগিয়ে আসে ঠিক তখনই বিএনপি নামক সংগঠনটি সরকারের বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়।

‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হওয়ার সুযোগ নেই। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। বিএনপি নির্বাচনে এলে ভালো। না এলে বিএনপির জন্য নির্বাচন থেমে থাকবে না।’

আরও পড়ুন:
‘গায়েবি’ মামলা বন্ধে আইজিপির কাছে বিএনপি
সমাবেশে সরকারকে লাল কার্ড দেখাল জনগণ: সেলিমা
পরিবহন ধর্মঘটে তিন জেলায় ভোগান্তি
রাজশাহীতে পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তি
পরিবহন ধর্মঘটের আগেই রাজশাহীর সমাবেশে নেতা-কর্মীরা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Suffering in Sirajganj due to transport strike

পরিবহন ধর্মঘটে সিরাজগঞ্জে দুর্ভোগ

পরিবহন ধর্মঘটে সিরাজগঞ্জে দুর্ভোগ সিরাজগঞ্জের এম এ মতিন বাসস্ট্যান্ড থেকে রাজশাহী রুটের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা
সিরাজগঞ্জ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সুলতান তালুকদার বলেন, ১০ দফা দাবি আদায়ে পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী ধর্মঘট পালন করা হচ্ছে। দাবি মানা না হলে এ আন্দোলন চলমান থাকবে।

রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় ১০ দফা দাবিতে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটে অচল হয়ে পড়েছে সিরাজগঞ্জ। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় সীমাহীন দুর্ভোগ পড়েছেন যাত্রীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে সিরাজগঞ্জের সব রুটে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সকালে সিরাজগঞ্জ এম এ মতিন বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা যায়, রাজশাহী রুটের বাস বন্ধ। জেলার অভ্যন্তরীণ রুটের বাসও চলছে না। শুধু ঢাকাগামী বাস চলাচল করছে। সকাল থেকে শ্রমিকরা দাবি আদায়ে কর্মসূচি পালন করছেন।

সিরাজগঞ্জ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সুলতান তালুকদার বলেন, ১০ দফা দাবি আদায়ে পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী ধর্মঘট পালন করা হচ্ছে। দাবি মানা না হলে এ আন্দোলন চলমান থাকবে।

বাস বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। এম এ মতিন বাসস্ট্যান্ডে যাত্রীরা বাস না পেয়ে ফিরে যাচ্ছেন।

আনোয়ার হোসেন নামের যাত্রী বলেন, ‘আমি পরিবার নিয়ে পাবনা যাবার জন্য বাসা থেকে বের হয়েছি। এসে দেখছি গাড়ি চলছে না। এখন কী করব বুঝতে পারছি না।’

আরেক যাত্রী জমসের জানান, ‘চিকিৎসা নিতে এনায়েতপুরে এসেছিলাম, এখন রংপুরে যাব, কিন্তু গাড়ি নেই। বাধ্য হয়ে আবার হোটেলে ফিরে যাচ্ছি।’

আরও পড়ুন:
পরিবহন শ্রমিকদের নিয়োগপত্র-বেতন-কর্মঘণ্টা নির্ধারণের দাবি
পরিবহনসহ অত্যাবশ্যকীয় সেবায় ধর্মঘট ডাকলে সাজা
সিলেটে পণ্য পরিবহন ধর্মঘট শুরু আজ
বাস মালিকরা স্বাধীন, আমাদের কিছু করার নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
পরিবহন শ্রমিক আছেই বলেই দেশের চাক্কা ঘুরছে: শাহাজান খান

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Sajeda Putra is welcomed by postponing school exams

স্কুলের পরীক্ষা স্থগিত করে সাজেদা-পুত্রকে সংবর্ধনা

স্কুলের পরীক্ষা স্থগিত করে সাজেদা-পুত্রকে সংবর্ধনা
বুধবার বিকেলে ওই বিদ্যালয়ের মাঠে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য শাহদাব আকবর চৌধুরীকে সংবর্ধনা দেয় উপজেলা আওয়ামী লীগ। এ কারণে দুপুরে ষষ্ঠ ও অষ্টম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা স্থগিত করে নতুন সময়সূচি নির্ধারণ করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় একটি সরকারি বিদ্যালয়ের দুটি বিষয়ের বার্ষিক পরীক্ষা স্থগিত করে ফরিদপুর-২ (নগরকান্দা ও সালথা) আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য সাজেদা-পুত্র শাহদাব আকবর চৌধুরী লাবুকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে।

উপজেলা সদরে সরকারি মহেন্দ্র নারায়ণ একাডেমিতে বুধবার এ ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার বিকেলে ওই বিদ্যালয়ের মাঠে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য শাহদাব আকবর চৌধুরীকে সংবর্ধনা দেয় উপজেলা আওয়ামী লীগ। এ কারণে দুপুরে ষষ্ঠ ও অষ্টম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা স্থগিত করে নতুন সময়সূচি নির্ধারণ করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আগের দিন মঙ্গলবার এক নোটিশে পরীক্ষা স্থগিত ও নতুন সময়সূচি জানানো হয়। ওই নোটিশের সবশেষে শুধু ‘প্রধান শিক্ষক’ লেখা ছিল। তবে প্রধান শিক্ষকের নাম ও স্বাক্ষর ছিল না।

নোটিশে লেখা ছিল, ‘ষষ্ঠ ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অবগত করা যাচ্ছে যে অনিবার্য কারণবশত আগামীকাল ৩০ নভেম্বর বুধবারের অষ্টম শ্রেণির বাংলা (১০১) এবং ষষ্ঠ শ্রেণির ইংরেজি প্রথম পত্র (১০৭) পরীক্ষা স্থগিত করা হলো। স্থগিতকৃত অষ্টম শ্রেণির বাংলা পরীক্ষা ১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ৩০ মিনিট এবং ষষ্ঠ শ্রেণির ইংরেজি প্রথম পত্রের পরীক্ষা ৬ ডিসেম্বর মঙ্গলবার দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে অনুষ্ঠিত হবে।’

সরকারি মহেন্দ্র নারায়ণ একাডেমির প্রধান শিক্ষক বেলায়েত হোসেন একইসঙ্গে নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, ‘বিদ্যালয় ও মাঠ পাশাপাশি অবস্থিত। চারপাশে মাইক ছিল। পরিবেশ না থাকায় পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। তাছাড়া এটি কোনো পাবলিক পরীক্ষা নয়, নিজস্ব ব্যবস্থাপনার পরীক্ষা। আমরা পরীক্ষার পরিবর্তিত তারিখও জানিয়ে দিয়েছি। নির্দিষ্ট সময়ে পরীক্ষাগুলো শেষ করা যাবে। কোনো সমস্যা হবে না।’

এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বিষ্ণুপদ ঘোষাল। তিনি বলেন, ‘এমনটি করতে হলে স্কুল কর্তৃপক্ষ মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানাবে। মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে উপজেলা প্রশাসন এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। তারা এ প্রক্রিয়া অনুসরণ করেছে কি না তা সাংবাদিক হিসেবে আপনারা খতিয়ে দেখতে পারেন।’

আরও পড়ুন:
বনানীতে শেষ শয্যায় সাজেদা চৌধুরী
বাংলাদেশের ইতিহাসের বড় অধ্যায়জুড়ে আছেন সাজেদা চৌধুরী: কাদের
মুরুব্বি সাজেদাকে বিএনপির শামার শ্রদ্ধা
সাজেদা চৌধুরী ছিলেন মুক্তিযুদ্ধে একমাত্র নারী নেত্রী: জাফরুল্লাহ
‘একজন সত্যিকার অভিভাবক হারালাম’

মন্তব্য

p
উপরে