× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
A womans body was found in the cemetery
hear-news
player
print-icon

কবরস্থানে মিলল নারীর মরদেহ

কবরস্থানে-মিলল-নারীর-মরদেহ
প্রতীকী ছবি
নিহতের পরিচয় জানার জন্য চেষ্টা চলছে। কীভাবে তিনি মারা গেছেন তা জানতে ময়নাতদন্ত করা হবে বলে জানান ওসি।

মোহাম্মদপুরে বুদ্ধিজীবী কবরস্থানের ভেতর নারীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার দুপুরে মরদেহটি পাওয়া গেছে।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ।

তিনি বলেন, বুদ্ধিজীবী কবরস্থানের ভেতর জঙ্গলের মধ্যে লাশটি অর্ধগলিত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

নিহতের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। কীভাবে তিনি মারা গেছেন তা জানতে ময়নাতদন্ত করা হবে বলে জানান ওসি।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Gang involved in more than five hundred thefts arrested

পাঁচ শতাধিক চুরিতে জড়িত চক্র গ্রেপ্তার

পাঁচ শতাধিক চুরিতে জড়িত চক্র গ্রেপ্তার
তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার এইচ এম আজিমুল হক জানান, চোর চক্রটি গত ৮-৯ বছরে ঢাকার হাতিরঝিল, রামপুরা, তেজগাঁও, কলাবাগান, ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, রূপনগর, কাফরুল; চটগ্রাম, সিলেট ও বরিশাল এলাকায় পাঁচ শতাধিক চুরির সঙ্গে জড়িত।

রাজধানীর অন্তত নয়টি এলাকাসহ চট্টগ্রাম, সিলেট ও বরিশালে পাঁচ শতাধিক চুরির সঙ্গে জড়িত চক্রের প্রধানসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে হাতিরঝিল থানা পুলিশ।

বুধবার রাতে তাদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি জানিয়েছেন ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার এইচ এম আজিমুল হক।

তিনি জানান, চোর চক্রটি গত ৮-৯ বছরে ঢাকার হাতিরঝিল, রামপুরা, তেজগাঁও, কলাবাগান, ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, রূপনগর, কাফরুল; চটগ্রাম, সিলেট ও বরিশাল এলাকায় পাঁচ শতাধিক চুরির সঙ্গে জড়িত।

নিউ ইস্কাটনের একটি চুরি মামলা তদন্ত করতে গিয়ে চক্রটির সন্ধান পায় হাতিরঝিল পুলিশ।

গ্রেপ্তার চক্রটির বিষয়ে আগামীকাল নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Coca Cola will pay for waste recycling

বর্জ্য রিসাইক্লিংয়ে অর্থ দেবে কোকা-কোলা

বর্জ্য রিসাইক্লিংয়ে অর্থ দেবে কোকা-কোলা রাজধানীতে একটি কারখানায় পুরোনো প্লাস্টিক থেকে সুতা তৈরি করছেন কর্মীরা। ফাইল ছবি/নিউজবাংলা
প্রতি মাসে ৫০ টন প্লাস্টিক বর্জ্য নিরসনের জন্য ‘কর্ডএইড বাংলাদেশের রিসাইক্লিং ফর দ্য এনভায়রনমেন্ট বাই স্ট্রেংদেনিং ইনকাম অ্যান্ড লাইভলিহুড অফ এন্টারপ্রেনারস– রেজিলিয়েন্ট’ নামক নতুন একটি প্রকল্পে অর্থায়ন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের বর্জ্য রিসাইকেল করার লক্ষ্যে অর্থ সহায়তা দেবে দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন।

প্রতি মাসে ৫০ টন প্লাস্টিক বর্জ্য নিরসনের জন্য ‘কর্ডএইড বাংলাদেশের রিসাইক্লিং ফর দ্য এনভায়রনমেন্ট বাই স্ট্রেংদেনিং ইনকাম অ্যান্ড লাইভলিহুড অফ এন্টারপ্রেনারস– রেজিলিয়েন্ট’ নামক নতুন একটি প্রকল্পে অর্থায়ন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বুধবার এ তথ্য জানায় দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন। এই প্রকল্পের লক্ষ্য হলো, একটি কার্যকর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি গড়ে তোলা এবং স্থানীয় বায়ু, পানি ও ভূমি দূষণ কমিয়ে আনা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রিসাইক্লিংয়ের জন্য নিরাপদ ও দক্ষতার সঙ্গে প্লাস্টিক বর্জ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কল্যাণ নিয়ে কাজ করাই প্রকল্পটির উদ্দেশ্য। এ প্রকল্প ইকোসিস্টেম থেকে প্লাস্টিক বর্জ্য অপসারণের মাধ্যমে টেকসই জীবিকা নির্বাহের জন্য উদ্যোক্তা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করবে।

দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট সাদিয়া ম্যাডসবার্গ বলেন, বাংলাদেশে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় অনানুষ্ঠানিক খাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। মূল্যবান সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে ব্যবসায়িক মডেল, জ্ঞান ও সক্ষমতার উন্নতি ঘটিয়ে প্রকল্পটি এই খাতের উন্নতি ঘটাতে সাহায্য করে।

প্রকল্পের সময়কাল এক বছর। এতে রেজিলিয়েন্ট ৪২০ জন সুবিধাভোগীর জীবনে ইতিবাচক প্রভাব রাখবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে আছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৪০০ জন পরিচ্ছন্নতাকর্মী এবং ২০ জন বর্জ্য সংগ্রহকারী।

প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান কর্ডএইডের প্রতিনিধি বলেন, ‘প্যাকেজড পণ্যের চাহিদা যতদিন থাকবে, বর্জ্য সমস্যাও ততদিন থাকবে। বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও এই সমস্যা কমিয়ে আনতে বিকল্প উপায় খুঁজে বের করা আমাদের নাগরিক দায়িত্ব। রিসাইক্লিং বা সার্কুলার ইকোনমি বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে কার্যকর সমাধান হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে।’

সম্প্রতি, এসআর এশিয়ার ‘ইন্টিগ্রেটেড ম্যানেজমেন্ট অফ প্লাস্টিক অ্যাসর্টমেন্ট অ্য্যন্ড কনট্রিবিউশন টুওয়ার্ডস গ্রিন ইকোনমি (ইমপ্যাক্ট-জিই)’ নামক প্রকল্পে তহবিল প্রদান করেছে ফাউন্ডেশনটি।

এর আগে ব্র্যাককে ‘বন্ধন’ ক্যাম্পেইনে সহায়তা করেছে দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন। যার লক্ষ্য ছিল ঢাকা শহরের ১৩টি নিম্ন আয়ের এলাকায় পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের জন্য একটি নিরাপদ জীবন ও জীবিকার মডেল গড়ে তোলা।

১৯৮৪ সালে দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠিত হয়। পরিবেশ সুরক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন এবং মানুষ ও কমিউনিটির সুস্থতা নিশ্চিত করার জন্য এ পর্যন্ত তারা বিশ্বজুড়ে ১ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলারের বেশি বিনিয়োগ করেছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Dhaka is no more a city of waste Mayor Tapas

ঢাকা এখন আর বর্জ্যের শহর নয়: মেয়র তাপস

ঢাকা এখন আর বর্জ্যের শহর নয়: মেয়র তাপস অনুষ্ঠানে মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। ছবি: নিউজবাংলা
মেয়র তাপস বলেন, ‘ঢাকা শহরে আগে যত্রতত্র ৯০ শতাংশ বর্জ্য উন্মুক্ত অবস্থায় পড়ে থাকত। বর্তমানে এটা কমিয়ে তা মাত্র ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে। বর্জ্য সংগ্রহ বাড়াতে বাকি অন্তর্বর্তীকালীন বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রগুলো নির্মাণ করতে আমাদের কাজ চলমান রয়েছে।’

রাজধানী ঢাকায় আগে যত্রতত্র ও উন্মুক্ত স্থানে যে পরিমাণ বর্জ্য পড়ে থাকত, এখন তা অনেক কমেছে জানিয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছে, এই শহর এখন আর বর্জ্যের শহর নয়।

বুধবার খিলগাঁও এলাকায় দক্ষিণ সিটির ২ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্বর্তীকালীন বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রের (এসটিএস) উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন তিনি।

মেয়র তাপস বলেন, ‘ঢাকা শহরে আগে যত্রতত্র ৯০ শতাংশ বর্জ্য উন্মুক্ত অবস্থায় পড়ে থাকত। বর্তমানে এটা কমিয়ে তা মাত্র ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে। বর্জ্য সংগ্রহ বাড়াতে বাকি অন্তর্বর্তীকালীন বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রগুলো নির্মাণ করতে আমাদের কাজ চলমান রয়েছে।’

ঢাকা এখন আর বর্জ্যের শহর নয় উল্লেখ করে তাপস বলেন, ‘ঢাকা শহরে আগে ৯০ ভাগ বর্জ্য উন্মুক্ত অবস্থায় পড়ে থাকত। ৫০ বছরে মাত্র ২৪টি বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে। আর আমরা এই দুই বছরে ৩৫টি বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্র নির্মাণ করেছি। বাকি ওয়ার্ডগুলোতেও বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রের নির্মাণ কার্যক্রম চলমান আছে। সুতরাং ঢাকা শহর এখন আর বর্জ্যের ঢাকা শহর নয়।’

এ সময় জন্মদিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করে মেয়র বলেন, ‘বাংলাদেশের উন্নয়নের কারিগর, বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অধিকারী এবং অসহায়, গরিব-দুঃখী মানুষের আশ্রয়স্থল সফল রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন আজ। জন্মদিন উপলক্ষে দেশব্যাপী উৎসবমুখর পরিবেশে নানা কর্মসূচি পালন করছে।

‘এই দিনে আমরা প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘ হায়াত কামনা করি। বাংলাদেশ আজ অনেক এগিয়ে গেছে, আমরা কামনা করি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরেই যেন আমরা উন্নত বাংলাদেশ গড়তে পারি।’

এর আগে মেয়ার তাপস ভূইয়ার মাঠে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটেন এবং পরবর্তীতে বাইতুল মোকাররম মসজিদের পূর্ব ফটক ও ডিআইটি অ্যাভিনিউ সড়কের সংযোগ রাস্তা এবং আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেলের চলমান খনন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

এ সময় অন্যদের মধ্যে করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, সচিব আকরামুজ্জামানসহ বেশ কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
মেয়র তাপসের নামে মামলা: ফের পেছাল তদন্ত প্রতিবেদন
ফার্মেসি খোলা ২৪ ঘণ্টা, তাপসের নির্দেশ নাকচ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর
রাত ২টার পর ওষুধের দোকানের দরকার নেই: তাপস

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Garment owners blackmail women

গার্মেন্টস মালিক পরিচয় দিয়ে ‘নারীদের ব্ল্যাকমেইল’

গার্মেন্টস মালিক পরিচয় দিয়ে ‘নারীদের ব্ল্যাকমেইল’ ব্ল্যাকমেইলের অভিযোগে রামকৃষ্ণ দেবনাথ ওরফে ইমনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা
উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ইমন একটি ছোট দোকানে মোবাইল রিচার্জের ব্যবসা করতেন। তার দোকানে রিচার্জ করতে আসা মেয়েদের নম্বর রেখে পরবর্তী সময়ে যোগাযোগ করতেন। তখন নিজেকে পরিচয় দিতেন নারায়ণগঞ্জের দুটি গার্মেন্টসের মালিক।’

পোশাক কারখানার মালিক পরিচয় দিয়ে ফাঁদে ফেলে নারীদের কাছে অর্থ আদায়ের অভিযোগে রামকৃষ্ণ দেবনাথ ওরফে ইমন নামের মোবাইল রিচার্জ ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ মঙ্গলবার কুমিল্লার বরুড়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ইমন একটি ছোট দোকানে মোবাইল রিচার্জের ব্যবসা করতেন। তার দোকানে রিচার্জ করতে আসা মেয়েদের নম্বর রেখে পরবর্তী সময়ে যোগাযোগ করতেন। তখন নিজেকে পরিচয় দিতেন নারায়ণগঞ্জের দুটি গার্মেন্টসের মালিক। তিনি ফেসবুকে বিভিন্ন আইডির মাধ্যমে মেয়েদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলতেন; আদায় করে নিতেন মেয়েদের ব্যক্তিগত ছবি।

‘এসব ছবি পরবর্তী সময় ব্ল্যাকমেইলের কাজে ব্যবহার করতেন। তার চাহিদা অনুযায়ী টাকা না দিলে বিভিন্ন মাধ্যমে ছবিগুলো ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে অর্থ আদায় করতেন।’

পুলিশের ভাষ্য, ‘মন আমার উড়ন্ত পাখি’ নামের ফেসবুক আইডির মাধ্যমে রাজধানীর একটি কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন ইমন। তার কাছ থেকে আদায় করে নেন ব্যক্তিগত ছবি। পরে সেই ছবি দেখিয়ে ছাত্রীর কাছে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেন তিনি। না দিলে ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকিও দেন তিনি।

পরে ওই ছাত্রী থানায় অভিযোগ করলে ইমনকে কুমিল্লা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি জানান, ছেলেদের জন্য ‘ফারজানা আক্তার’ এবং মেয়েদের জন্য ‘মন আমার উড়ন্ত পাখি’র মতো বেশ কয়েকটি ফেসবুক আইডি চালাতেন ইমন। কোনো আইডি দিয়ে প্রতারণা শেষ হলে সেটি বন্ধ করে দিতেন। সর্বশেষ তার পাঁচটি আইডি সচল হিসেবে শনাক্ত করা হয়। সেগুলো হলো ‘মন আমার উড়ন্ত পাখি’, ‘মেঘলা আক্তার’, ‘ফারজানা আক্তার’, ‘ঢাকাইয়া পোলা’ ও ‘হঠাৎ বৃষ্টি’।

তিনি আরও জানান, ‘মন আমার উড়ন্ত পাখি’ নামের আইডি দিয়ে মেয়েদের সঙ্গে এবং ‘ফারজানা আক্তার’ দিয়ে ছেলেদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করতেন ইমন।

আরও পড়ুন:
ফরিদপুরে ঢুকেছে ‘শয়তানের শ্বাস’
চকিত চাহনিতে যুবকের সব হারানোর অভিযোগ
পার্সেলের ফাঁদ: কুলি থেকে কোটিপতি
প্রতিবেশীর সন্তান দেখিয়ে মাতৃত্বকালীন ছুটি তদন্তে কমিটি
প্রতিবেশীর সন্তান দেখিয়ে মাতৃত্বকালীন ছুটি!

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Case application in the name of Eden Chhatra League President Editor

ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদকের নামে হত্যাচেষ্টার মামলা

ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদকের নামে হত্যাচেষ্টার মামলা ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানা। ফাইল ছবি
মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ২৪ সেপ্টেম্বর ইডেন ছাত্রলীগের সভাপতি রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার নির্দেশে রাত ১০টার দিকে আনিকা তাবাসসুম স্বর্ণাসহ অজ্ঞাত তিন থেকে চারজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌসের কক্ষে প্রবেশ করে গালিগালাজ করে তাকে খুঁজতে থাকেন। ওই সময় জান্নাতুলকে না পেয়ে তার আসবাবপত্র ভাঙচুর করেন তারা। এ ছাড়া জান্নাতুলের ২০ হাজার টাকা ও ব্যবহৃত ল্যাপটপ চুরি করে নিয়ে যান কক্ষে আসা তিন থেকে চারজন।

ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা, সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানাসহ আটজনের নামে নির্যাতন ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে।

কলেজ ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সহসভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস বুধবার ঢাকার মহানগর হাকিম সৈয়দ মোস্তফা রেজা নূরের আদালতে মামলার আবেদন করেন।

বিচারক বাদীর জবানবন্দি নিয়ে রাজধানীর লালবাগ থানাকে তদন্ত করে ২৩ অক্টোবর প্রতিবেদন জমার নির্দেশ দেন।

মামলায় অন্য যাদের আসামি করা হয়েছে, তারা হলেন নুজহাত ফারিয়া রোকসানা, মিম ইসলাম, নূরজাহান, ঋতু আক্তার, আনিকা তাবাসসুম স্বর্ণা ও কামরুন নাহার জ্যোতি।

এ ছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও ২৫ থেকে ৩০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ২৪ সেপ্টেম্বর ইডেন ছাত্রলীগের সভাপতি রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার নির্দেশে রাত ১০টার দিকে আনিকা তাবাসসুম স্বর্ণাসহ অজ্ঞাত তিন থেকে চারজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌসের কক্ষে প্রবেশ করে গালিগালাজ করে তাকে খুঁজতে থাকেন। ওই সময় জান্নাতুলকে না পেয়ে তার আসবাবপত্র ভাঙচুর করেন তারা। এ ছাড়া জান্নাতুলের ২০ হাজার টাকা ও ব্যবহৃত ল্যাপটপ চুরি করে নিয়ে যান কক্ষে আসা তিন থেকে চারজন।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, খবর পেয়ে জান্নাতুল তার কক্ষে আসার পথে আয়শা হলের সামনে রিভা-রাজিয়াসহ আট আসামি তাকে ঘিরে ধরেন। এরপর রিভা তার হাতে থাকা হকিস্টিক দিয়ে আঘাত করেন। আর রাজিয়াসহ বাকি আসামিরা তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে দুই দিক থেকে টান দেন। ওই সময় জান্নাতুল মাটিতে লুটিয়ে পড়লে ওই আটজন তাকে ছেড়ে যান।

জান্নাতুলের অভিযোগ, রিভাসহ অন্যরা মারধর করে যাওয়ার সময় তার হাত থেকে ২০ হাজার টাকার মোবাইল ফোন, গলায় থাকা ৩৫ হাজার টাকার স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যান।

তার ভাষ্য, খবর পেয়ে হলের দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকরা জান্নাতুল ফেরদৌসকে উদ্ধার করেন। তাকে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে ক্যাম্পাস না ছাড়লে তার জীবন শেষ করে দেবে বলে হুমকি দেন রিভা, রাজিয়ারা।

মামলার অভিযোগের বিষয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, ‘সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের উপস্থিতিতে আমার ওপর হামলা করা হয়েছে। আমাকে নির্যাতন করা হয়েছে।

‘আমি অসুস্থ। অথচ আমিসহ যারা এ ঘটনার প্রতিবাদ করল তাদের বহিষ্কার করা হলো। এটা কেমন অন্যায়!’

প্রেক্ষাপট

গত শনিবার রাতে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের এক সহসভাপতিকে মারধর করেন কলেজ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা। এর প্রতিবাদে রাতেই বিক্ষোভ করেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

রোববার সকালে সংবাদ সম্মেলন করে ওই ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের ৪৩ সদস্যের কমিটির ২৫ জন। সন্ধ্যায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক গ্রুপ। অন্যরা এর প্রতিবাদ জানালে আবারও সংঘর্ষ হয় দুই পক্ষের।

এ ঘটনার পর রোববার মধ্যরাতে ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ১৬ জনকে বহিষ্কারের কথা জানানো হয়।

স্থায়ী বহিষ্কার হওয়াদের মধ্যে ১০ জন বর্তমান কমিটির সহসভাপতি, একজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, একজন সাংগঠনিক সম্পাদক আর চারজন কর্মী।

তারা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা এবং সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার বিরুদ্ধে সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন অভিযোগ করে কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংগঠনের শৃঙ্খলা পরিপন্থি কার্যকলাপে জড়িত থাকার অপরাধে ১৬ জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আর এটির প্রাথমিক প্রমাণও পাওয়া গেছে।

স্থায়ী বহিষ্কার হওয়া ছাত্রীরা হলেন ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সহসভাপতি সোনালি আক্তার, সুস্মিতা বাড়ৈ, জেবুন্নাহার শিলা, কল্পনা বেগম, জান্নাতুল ফেরদৌস, আফরোজা রশ্মি, মারজানা ঊর্মি, সানজিদা পারভীন চৌধুরী, এস এম মিলি ও সাদিয়া জাহান সাথী। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফাতেমা খানম বিন্তি, সাংগঠনিক সম্পাদক সামিয়া আক্তার বৈশাখি এবং কর্মী রাফিয়া নীলা, নোশিন শার্মিলী, জান্নাতুল লিমা ও সূচনা আক্তার।

আরও পড়ুন:
‘ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদক কেন বহিষ্কার হলেন না?’
আমৃত্যু খাবার মুখে না তোলার প্রতিজ্ঞা ইডেন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃতদের
সংবাদ সম্মেলনে ইডেন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃতরা
ইডেন ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত, বহিষ্কার ১৬
ইডেনের সংঘর্ষে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে আ. লীগ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
RAB doesnt fire unless forced outgoing DG

বাধ্য না হলে র‌্যাব গুলি ছোড়ে না: বিদায়ী ডিজি

বাধ্য না হলে র‌্যাব গুলি ছোড়ে না: বিদায়ী ডিজি সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের বিদায়ী ডিজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন। ছবি: নিউজবাংলা
র‌্যাবের বিদায়ী ডিজি বলেন, ‘সিচ্যুয়েশন যেমন ডিমান্ড করে, আমরা ঠিক তেমন ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। এমন কখনও হয় না যে, কেউ আমাদের ধাক্কা দিল আর আমরা গুলি করে দিলাম। র‌্যাবের প্রত্যেক সদস্যকে এসব বিষয়ে নিয়মিত প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।’

পরিস্থিতি সামাল দিতে একেবারেই বাধ্য না হলে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সদস্যরা কখনও গুলি ছোড়েন না বলে দাবি করেছেন বাহিনীর বিদায়ী মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বুধবার সকালে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে বিদায়ী বক্তব্য তুলে ধরতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন দাবি করেন।

৩০ সেপ্টেম্বর পুলিশের ৩১তম মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।

বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে করা প্রশ্নে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘র‌্যাব পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যেখানে যেটুকু প্রয়োজন পড়ে, আইন মেনে সেটুকু শক্তি প্রয়োগ করে। আমরা যখন আক্রান্ত হই, তখনই আমাদের পাল্টা জবাব দিতে হয়।

‘সিচ্যুয়েশন যেমন ডিমান্ড করে, আমরা ঠিক তেমন ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। এমন কখনও হয় না যে, কেউ আমাদের ধাক্কা দিল আর আমরা গুলি করে দিলাম। র‌্যাবের প্রত্যেক সদস্যকে এসব বিষয়ে নিয়মিত প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এলিট ফোর্স হিসেবে আমাদের সবসময় চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে কাজ করতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘অপরাধীরা তাদের অপরাধ সংগঠিত করার জন্য তাদের সর্বশক্তি প্রয়োগ করে থাকে। আমরা তাদের বাধা দিতে গেলে তারা আমাদের হাতে ধরা না পড়তে ও আমাদের বাধা অতিক্রম করে অপরাধকাজ সংঘটিত করতে আমাদের ওপর হামলা করে বসে। তখন বাধ্য হয়ে র‌্যাব সদস্যরা তাদের প্রশিক্ষণ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেন।’

র‌্যাব ডিজি বলেন, ‘এতে যে শুধু অপরাধীরাই আহত বা নিহত হয় বিষয়টা কিন্তু তেমন না। আমাদের অনেক র‌্যাব সদস্য আহত, নিহত হয়েছেন। অনেকের অঙ্গহানি হয়ে চাকরি করার সক্ষমতা হারিয়েছে। তাছাড়া এমন কোনো ঘটনা ঘটলে দেশের প্রচলিত আইনেও ঘটনার তদন্ত হয়।

‘ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে সুরতহাল করে, মর্গে ডাক্তার পোস্টমোর্টেম করে, এরপর আদালত আইনজীবিরা আর্গুমেন্ট করে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে বিচারক বিচার করেন। এর কোনটির সঙ্গে র‌্যাব জড়িত থাকে না। র‌্যাব যদি অযথাই এমন কোনো ঘটনা ঘটাতো তাহলে দেশের আইনেইতো শাস্তি হতো।’

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করছে উল্লেখ করে দ্রুতই এর সুরাহা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন র‌্যাবের বিদায়ী মহাপরিচালক।

সাংবাদিকদের অন্য এক প্রশ্নে আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে যাওয়া চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সময়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নির্বাচন কমিশনের অধীনে কাজ করে থাকে। এ সময় কমিশনের নির্দেশনার বাইরে যাবার কোন সুযোগ নেই।

‘পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সকল ইউনিট কোনো রাজনৈতিক দলের হয়ে কখনো কাজ করে না। তারা শুধু নির্বাচন চলাকালীন সময়ে আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতির কোনো অবনতি না ঘটে সেজন্য কাজ করে।’

এর আগে র‌্যাব মহাপরিচালক হিসেবে নিজের দুই বছরের বেশি সময়ের দায়িত্বে পালনরত অবস্থায় র‌্যাবের অর্জন তুলে ধরেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন। করোনা মহামারির সময়ে সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও সাধারণের পাশে থাকা র‌্যাবের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ও এটিকেই র‌্যাবের সবচেয়ে বড় সফলতা এবং সাধারণের র‌্যাবের প্রতি আস্থার প্রতীক বলে উল্লেখ করেন তিনি।

আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব দেয়ায় প্রাধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।

আরও পড়ুন:
নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
আয়ুর্বেদিক ওষুধের নামে মাদক বিক্রি
র‌্যাবের এয়ার উইং পরিচালকের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Shop worker dies of electrocution while opening fridge

ফ্রিজ খোলার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দোকান কর্মচারীর মৃত্যু

ফ্রিজ খোলার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দোকান কর্মচারীর মৃত্যু রাজধানীর আরামবাগে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে প্রাণ হারানো শিশুর মরদেহ রাখা হয় ঢামেক হাসপাতালের মর্গে। ফাইল ছবি
বিদ্যুৎস্পৃষ্টে প্রাণ হারানো ১২ বছর বয়সী শাকিলের বাড়ি লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার হবিরচর গ্রামে। সে তার দোকানমালিক চাচা মনির হোসেন ওরফে মাসুদের সঙ্গে আরামবাগের একটি বাসায় থাকত।

রাজধানীর মতিঝিল থানাধীন আরামবাগে মুদি দোকানের ফ্রিজ খোলার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শাকিল আহমেদ নামের এক দোকান কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

১২ বছর বয়সী শাকিলের বাড়ি লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার হবিরচর গ্রামে। সে তার দোকানমালিক চাচা মনির হোসেন ওরফে মাসুদের সঙ্গে আরামবাগের একটি বাসায় থাকত।

মনিরের দোকানেই কাজ করত শাকিল। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া মনির বলেন, ‘১২৩ আরামবাগে আমার একটি মুদি দোকান। এই দোকানে ভাতিজা আমার সহযোগী হিসেবে কাজ করত। মঙ্গলবার রাতে ফ্রিজ খোলার সময় হঠাৎ বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ফ্রিজের সঙ্গে আটকে যায়।

‘তখন আমি তাকে কাঠের ডাসা দিয়ে ধাক্কা দিলে সে পড়ে যায়। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার আমার ভাতিজাকে মৃত বলে জানান।’

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, আরামবাগ থেকে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আসা শিশুকে মৃত ঘোষণা করেন ঢামেক হাসপাতালের চিকিৎসক। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, বিষয়টি মতিঝিল থানাকে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ভবন থেকে পড়ে রাজমিস্ত্রির মৃত্যু
পাকা ঘরে থাকা হলো না, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গেল ৩ প্রাণ
বিদ্যুৎস্পৃষ্ট কাঠমিস্ত্রির দল, নিহত ২ আহত ৪
ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে বাবার মৃত্যু, দেখতে এসে শিশুর
বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ রিকশাচালকের মৃত্যু

মন্তব্য

p
উপরে