× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Gabir will now eat salt rice not bharta bhaji Rizvi
google_news print-icon

ভর্তা-ভাজি নয়, গরিব এখন খাবে লবণ-ভাত: রিজভী

ভর্তা-ভাজি-নয়-গরিব-এখন-খাবে-লবণ-ভাত-রিজভী
জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ছবি: নিউজবাংলা
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আগে বলত গরিব মানুষ ভর্তা-ভাজি দিয়ে ভাত খায়। এখন ভর্তা-ভাজির দাম অনেক। ভর্তা করতে মরিচ লাগে, তার দাম আকাশ ছুঁইছুঁই করছে। এখন বলতে হবে কোনো রকম লবণ দিয়ে ভাত খাওয়া। কিন্তু সেই ভাত কেনারও সামর্থ্য নেই।’

নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে গরিব মানুষ এখন ভর্তা-ভাজি দিয়ে ভাত খাওয়ার সামর্থ্যও হারিয়েছে বলে মনে করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তার দাবি, এখন ভাত খেতে হয় কেবল লবণ দিয়ে। অনেকে সেই ভাত খাওয়ার ক্ষমতাও হারিয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

চা শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ৩০০ টাকা করার দাবি পূরণে সরকার কেন উদ্যোগ নিচ্ছে না, সেই প্রশ্ন রেখে বিএনপি নেতা এও বলেছেন যে জনগণের প্রতি আসলে তাদের কোনো দায়িত্ব নেই।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে এসব কথা বলেন রিজভী। চা শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ৩০০ টাকা করার দাবিতে আন্দোলন ও কর্মবিরতির প্রতি সংহতি জানিয়ে এই কর্মসূচির আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল।

চা শ্রমিকদের দাবির প্রতি সংহতি জানিয়ে বিএনপি নেতা বলেন, ‘শ্রমিকদের দাবি বাস্তবায়নের জন্য সরকারের গুরুদায়িত্ব আছে। কিন্তু সরকারের এখানে কোনো গুরুদায়িত্ব দেখতে পাচ্ছি না।

‘এই মুহূর্তে ১২০ টাকা একজন শ্রমিক মজুরি পান। অন্য সবকিছু বাদ দিলেও খাদ্যের যে দাম তাতে এই টাকা দিয়ে কি পেটভরে খাওয়াও সুযোগ আছে? আগে বলত গরিব মানুষ ভর্তা-ভাজি দিয়ে ভাত খায়। এখন ভর্তা-ভাজির দাম অনেক। ভর্তা করতে মরিচ লাগে, তার দাম আকাশ ছুঁইছুঁই করছে। এখন বলতে হবে কোনো রকম লবণ দিয়ে ভাত খাওয়া। কিন্তু সেই ভাত কেনারও সামর্থ্যও নেই।’

জনগণের কাছে তারা কীভাবে যাবে

জনগণের মধ্যে আওয়ামী লীগের কোনো ভিত্তি নেই বলে মনে করেন বিএনপি নেতা।

বলেন, ‘এত অবিচার, এত অন্যায়, এত গুম-খুন! জনগণের কাছে তারা যাবে কী করে? জনগণের মধ্যে ওনাদের কোনো ভিত্তি নেই। এ জন্য ওরা বিদেশের ভিত্তি তৈরি করছে।’

দেশের স্বার্থ বিক্রি করে দিয়ে নিজেদের ক্ষমতায় থাকার স্বার্থে বিদেশের কাছে ধরনা দিচ্ছে দাবি করে রিজভী বলেন, ‘এই সরকার যে তাঁবেদার, নতজানু, অন্য দেশের মুখাপেক্ষী, এগুলো আমাদের নতুন করে আর বলতে হচ্ছে না। মন্ত্রীরাই প্রমাণ করে দিচ্ছে তারা কাদের সরকার। কারণ ওরা তো জনগণের কাছে যেতে পারবে না।

আওয়ামী লীগ যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে, তার যৌক্তিকতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন রিজভী। বলেন, ‘নিজেদের স্বার্থে দেশের নিরাপত্তা বিদেশের কাছে বিক্রি করে দেয়াকে কি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বলে? ওরা আসলে মিথ্যার চেতনায় বিশ্বাস করে। মিথ্যার চেতনাকে ঢাকা দেয়ার জন্যই তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে।’

একটি অনলাইন পোর্টালে গোয়েন্দা সংস্থার গোপন ঘরের বিষয়ে তথ্যচিত্র নিয়েও কথা বলেন রিজভী। বলেন, ‘আয়না ঘরের কথা শুনেছেন না? আয়না ঘর এখন ভূতের ঘর, আতঙ্কের ঘর হিসেবে সারা দেশের মানুষের মুখে মুখে।

‘আমরা যারা বিরোধী দলের রাজনীতি করি, সরকারের অন্যায়, অবিচার, গুম, খুনের সমালোচনা করি, তারা আতঙ্কে থাকি। সরকারের বিরুদ্ধে কথা বললে তাদের ধরে নিয়েই অত্যাচার করা হয়। নির্যাতন করা হয়, নির্যাতনের মাত্রা বীভৎস।

‘এত রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন বাংলাদেশে আয়না ঘর হওয়ার কথা ছিল না। এই ঘরে তো বিরোধীদলীয় নেতা নিয়ে অত্যাচার করার কথা ছিল না।’

প্রমাণ হয়েছে ইসি সরকারের আজ্ঞাবহ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সর্বোচ্চ ১৫০টি আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএমে ভোট নেয়ার সিদ্ধান্তেরও সমালোচনা করেন রিজভী। বলেছেন, নির্বাচন কমিশন যে শেখ হাসিনা সরকারের আজ্ঞাবহ তা আবার প্রমাণ করেছে।

তিনি বলেন, ‘প্রথমেই আমরা বলেছি এই সরকার যেখানে যাকে নিয়োগ করবে তাদের পরিচয় যা-ই হোক, তাদের অন্তর ছাত্রলীগ-যুবলীগ। যুবলীগ-ছাত্রলীগের অন্তর থাকার কারণে গণভবন থেকে যে নির্দেশনা আসবে তার বাইরে তারা যাবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা বলেছি এই নির্বাচন কমিশন শেখ হাসিনার আজ্ঞাবহ। সুষ্ঠু নির্বাচন করার ক্ষমতা এই নির্বাচন কমিশনের নেই। সেটা তিনি নিজেই আবার প্রমাণ করলেন। রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে তিনি যে সংলাপ করেছিলেন, সেখানে অধিকাংশ দল ইভিএমের বিপক্ষে কথা বলেছে। কিন্তু গতকাল তিনি বললেন ১৫০টি আসনে ইভিএম ব্যবহার হবে। তাহলে কিসের জন্য এই সংলাপ?’

শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম। শ্রমিক দলের প্রচার সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জুও এ সময় বক্তব্য রাখেন।

আরও পড়ুন:
বিএনপির সঙ্গে সংঘর্ষে ৮ পুলিশ আহত
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শোভাযাত্রা করবে বিএনপি
ক্ষীণ হয়ে আসছে সংলাপের সম্ভাবনা
পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে মন্ত্রীদের আচরণ ভণ্ডামী: রিজভী
বিএনপি নেতা এ্যানীর বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Anars daughter wants the Prime Ministers help in the trial of her fathers murder

বাবা হত্যার বিচারে প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চান আনারকন্যা

বাবা হত্যার বিচারে প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চান আনারকন্যা রাজধানীর মিন্টো রোডে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) কার্যালয়ে গিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন এমপি আনারের মেয়ে ডরিন। ছবি: সংগৃহীত
সাংবাদিকদের উদ্দেশে আনারকন্যা ডরিন বলেন, ‘আমি আমার বাবা হত্যার বিচার চাই। আশা করি এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী আমাকে সাহায্য করবেন।’

চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়ে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) আনোয়ারুল আজীম আনারের খুনের ঘটনার বিচার চেয়েছেন তার মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন।

কলকাতার নিউটাউন এলাকার সঞ্জিভা গার্ডেন থেকে বুধবার সকালে এমপি আনারের মরদেহ উদ্ধারের খবর জানায় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম।

এর আগে গত রোববার আনারের নিখোঁজ হওয়ার খবরটি সংবাদমাধ্যমকে জানান তার ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) আবদুর রউফ।

বাবা হত্যার খবর পেয়ে আজ রাজধানীর মিন্টো রোডে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) কার্যালয়ে যান তার মেয়ে ডরিন।

সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমি আমার বাবা হত্যার বিচার চাই। আশা করি এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী আমাকে সাহায্য করবেন।’

এমপি আনার হত্যায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটকের কথা জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বুধবার সাংবাদিকদের বলেন, এ হত্যার কারণ খুঁজছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বাবা নিহতের ঘটনায় স্থানীয় কাউকে সন্দেহ করছেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে আনারকন্যা বলেন, ‘না, আমি এখনও এ ব্যাপারে কিছু বলতে চাই না। আমি এতিম হয়ে গেছি। আপনারা সারা বাংলায় আলোড়ন সৃষ্টি করে দিন। আমি শুধু আমার বাবার হত্যার বিচার চাই।

‘আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ, আপনারা আমাকে সহযোগিতা করবেন। আমি (ডিএমপি ডিবির প্রধান) হারুন (হারুন অর রশিদ) স্যারকে বলেছি, আমিও তো আইন নিয়ে পড়ি। আমি শুধু দেখতে চাই আমার বাবার হত্যাকারীদের শাস্তি হয়েছে। ১৪ বছর আমার বাবা নানা মিথ্যা মামালায় হুমকির সম্মুখীন হয়েছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি নিজ চোখে দেখতে চাই কারা আমাকে এতিম করল।’

আরও পড়ুন:
ফাঁকা গুলি ছুড়েছেন সাবেক এমপি বদি, অভিযোগ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর
রাজধানীতে রাত ১১টার পর চা-বিড়ির দোকান বন্ধের নির্দেশ
ব্যারিস্টার সুমনের চেষ্টায় কমল লোডশেডিং
জব্বারের বলী খেলা বৃহস্পতিবার, তৎপর সিএমপি
ফিলিপাইনের আনারস চাষ কুমিল্লায়

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Planned murder of MP Anar at Kolkata residence Home Minister

কলকাতার বাসায় এমপি আনারকে পরিকল্পিত হত্যা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কলকাতার বাসায় এমপি আনারকে পরিকল্পিত হত্যা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। ফাইল ছবি
কলকাতার বাসায় আনারকে হত্যার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের কাছে যা ইনফরমেশন, আমরা আরও ইনফরমেশন যখন পাব, তখন আপনাদেরকে আরও তথ্য জানাতে পারব। তো আমরা এইটুকুই এখন জানাতে পারছি, আপনাকে জানাতে চাচ্ছি, সেটা হলো তিনি খুন হয়েছেন। কলকাতার এক বাসায় তাকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে।’

চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়ে নিখোঁজ ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) ও কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ারুল আজীম আনারকে কলকাতার একটি বাসায় পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে বুধবার জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

আনারের নিখোঁজ হওয়ার খবরটি গত রোববার সংবাদমাধ্যমকে জানান তার ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) আবদুর রউফ।

তিনি ওই দিন বলেন, ‘সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার চিকিৎসার জন্য ১১ মে ভারতে যান। এরপর দুই দিন পরিবার ও দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। ১৪ মে থেকে তার সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে আমাদের।’

কলকাতার নিউটাউন এলাকার সঞ্জিভা গার্ডেন থেকে আজ সকালে এমপি আনারের মরদেহ উদ্ধারের খবর জানায় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের ঝিনাইদহের এক মাননীয় সংসদ সদস্য ১২ মে চিকিৎসার জন্য তিনি ভারতে গিয়েছিলেন। ভারতে যাওয়ার পরে আমরা দুই দিন পরে তার আর কোনো খোঁজখবর পাইনি। এতে উদ্বিগ্ন হয়ে তার মেয়ে আমাদেরকে খোঁজখবর জানালে আমাদের পুলিশ এ ঘটনাটি (নিয়ে) ইন্ডিয়ান পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছিলেন।

‘আমরা আজকে সুনিশ্চিত হয়েছি সকালবেলায়, ভারতীয় পুলিশ জানিয়েছেন যে, তিনি খুন হয়েছেন। তো আমরা ইতোমধ্যেই তাদের যে তথ্য ভারতীয় পুলিশ আমাদেরকে দিয়েছিলেন, সেই তথ্য অনুযায়ী আমাদের পুলিশ, বাংলাদেশের পুলিশ, এদের তথ্য অনুযায়ী, যারা খুন করেছেন বা খুনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন, আমরা যা সন্দেহ করছি এবং তাদের থেকে আমরা যে তথ্য পেয়েছিলাম, সে তথ্য অনুযায়ী তাদের মধ্য থেকে তিনজন অপরাধীকে আমাদের পুলিশ ধরেছেন এবং তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে, তদন্ত চলছে।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন, ওই এলাকাটা একটা সন্ত্রাসপ্রবণ এলাকা, ওই ঝিনাইদহের এলাকাটা; ওই সীমান্ত এলাকা। আমাদের আনার সাহেব সেখানের মাননীয় সংসদ সদস্য হিসেবে এবারও নির্বাচিত হয়েছিলেন। চিকিৎসার জন্য তিনি যাওয়ার পরে এ ঘটনাটি ঘটে।

‘আমাদের পুলিশ এটা নিয়ে তদন্ত করছেন। আমরা শিঘ্রই খুনের মোটিভটা কী ছিল, আমরা আপনাদেরকে জানাতে পারব এবং ভারতীয় পুলিশ আমাদেরকে সর্ব ধরনের সহযোগিতা করছে।’

কলকাতার বাসায় আনারকে হত্যার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের কাছে যা ইনফরমেশন, আমরা আরও ইনফরমেশন যখন পাব, তখন আপনাদেরকে আরও তথ্য জানাতে পারব। তো আমরা এইটুকুই এখন জানাতে পারছি, আপনাকে জানাতে চাচ্ছি, সেটা হলো তিনি খুন হয়েছেন। কলকাতার এক বাসায় তাকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
ভারতে গিয়ে নিখোঁজ এমপি আনারের মরদেহ উদ্ধার
জেনারেল আজিজের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা, যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
ভারতে চিকিৎসা করাতে গিয়ে এমপি আনোয়ারুল আজীম ‘নিখোঁজ’
বনানীর আগে বাসে যাত্রী তুললেই মামলা: ডিএমপি কমিশনার
প্রকাশ্যে ভোট, বরিশালের এমপি হাফিজ মল্লিককে ইসিতে তলব

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Two people including the former president of Chhatra Dal Shravan were injured in the attack

হামলায় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শ্রাবণসহ দুজন আহত

হামলায় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শ্রাবণসহ দুজন আহত রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ। ফাইল ছবি
এসআই ইমন মোহাম্মদ ইশতিয়াক বলেন, আমরা ৯৯৯ নম্বরে খবর পেয়ে রাতে শিল্পকলা একাডেমির গেটের বিপরীত পাশে এসে সেখান থেকে দুজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই।

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় শিল্পকলা একাডেমির সামনে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি রওনকুল ইসলাম শ্রাবণসহ দুজন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার রাত সোয়া ৯টার দিকে শিল্পকলা একাডেমির গেটের উল্টা পাশের ফুটপাতে এ ঘটনা ঘটে। পরে আহত অবস্থায় তাদেরকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শ্রাবণ ছাড়া আহত আরেকজন হলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি মিয়া মোহাম্মদ ঝলক। ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হামলায় তারা আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন।

মোহাম্মদ ঝলক জানান, রাতে তারা দুজন শিল্পকলা একাডেমির উল্টা পাশের ফুটপাতে চায়ের দোকানে চা পান করার সময় ১৫ থেকে ২০ জন সেখানে এসে শ্রাবণের সঙ্গে কথা বলতে থাকেন। এক পর্যায়ে শ্রাবণকে মারধর শুরু করেন তারা।

তিনি জানান, তখন ঝলক এগিয়ে গেলে তাকেও লোহার পাইপ, হাতুড়ি ও চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করতে থাকেন ওই ব্যক্তিরা। পরে শাহবাগ থানা পুলিশ উদ্ধার করে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যান।

শাহবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইমন মোহাম্মদ ইশতিয়াক বলেন, আমরা ৯৯৯ নম্বরে খবর পেয়ে রাতে শিল্পকলা একাডেমির গেটের বিপরীত পাশে এসে সেখান থেকে দুজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই।

তিনি বলেন, শ্রাবণের সারা শরীরে মারধরের জখম রয়েছে। ঝলকের মাথাসহ শরীরে জখম রয়েছে। জরুরি বিভাগে তাদের চিকিৎসা চলছে। তবে কী বিষয় নিয়ে মারামারির হয়েছে সেটা জানা যায়নি। এ বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
They are transport extortionists

ওরা পরিবহন চাঁদাবাজ

ওরা পরিবহন চাঁদাবাজ র‍্যাবের পৃথক অভিযানে আটক পরিবহন চাঁদাবাজ চক্রের হোতাসহ ১৩জন। ছবি: নিউজবাংলা
রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও কোতোয়ালিতে অভিযান চালিয়ে ১৩ জনকে আটক করেছে র‍্যাব। তারা যাত্রাবাড়ী, কোতোয়ালি, ডেমরা ও দক্ষিণ কেরানীগঞ্জসহ আশপাশের এলাকায় আন্তঃজেলা ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, লরি ও অটোরিকশার চালক-হেলপারদের কাছ থেকে জবরদস্তি চাঁদা আদায় করে আসছিল।

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও কোতোয়ালি এলাকায় বিভিন্ন পরিবহন থেকে চাঁদা আদায়ের সময় চাঁদাবাজ চক্রের হোতা ইউসুফ গাজী ও সাব্বিরসহ ১৩কে আটক হয়েছে। এসব পরিবহন চাঁদাবাজকে সোমবার আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১০।

মঙ্গলবার র‌্যাব-১০ এর সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) এম. জে. সোহেল এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গোয়েন্দা তথ্যে সোমবার সকাল সোয়া ৬টার দিকে রাজধানীর দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানে আন্তঃজেলা ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, লরি ও সিএনজিচালিত অটোরিকশাসহ বিভিন্ন পরিবহন থেকে অবৈধভাবে চাঁদা আদায়ের সময় চক্রের হোতা ইসুফ গাজীসহ ছয় পরিবহন চাঁদাবাজকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে আদায় করা চাঁদার আট হাজার ৪১০ টাকা ও ছয়টি কাঠের লাঠি জব্দ করা হয়।

আটক অপর পাঁচজন হলেন- মোহাম্মদ ইউসুফ, পিন্টু মিয়া, ডালিম, পাভেল ও মোহাম্মদ আলী।

র‍্যাবের একই দল ওইদিন সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর বাবুবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন পরিবহন থেকে অবৈধভাবে চাঁদা আদায়ের সময় সাব্বির গ্রুপের দলনেতা সাব্বিরসহ সাতজনকে আটক করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে আদায় করা চাঁদার সাত হাজার ৩৫০ টাকা, ছয়টি লাঠি ও একটি প্লাস্টিকের পাইপ জব্দ করা হয়।

আটক অপর ছয়জন হলেন- নাজির হোসেন, কামাল উদ্দিন, বিল্লাল হোসেন, মো. বিল্লাল, নাজির উদ্দিন ভূঁইয়া ও রনি হোসেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আটককৃতরা বেশ কিছুদিন ধরে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, কোতোয়ালি, ডেমরা ও দক্ষিণ কেরানীগঞ্জসহ আশপাশের এলাকায় আন্তঃজেলা ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, লরি ও সিএনজি চালিত অটোরিকশার চালক ও হেলপারদের ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা আদায় করে আসছিল।

আটক ১৩ জনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
নৌপথে চাঁদাবাজির অভিযোগ: সেই পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি
‘নৌ পুলিশের যন্ত্রণাটা ডাকাত দলের সদস্যদের চেয়ে কম নয়’
ঢামেক হাসপাতালে ৬৫ দালাল আটক, ৫৮ জনকে সাজা
ডিসির কাছে বিচার দিলেন ‘চাঁদাবাজে অতিষ্ঠ’ অটোরিকশার চালক

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Prime Minister agreed to run battery operated rickshaws thinking of livelihood Nanak

জীবিকার কথা ভেবেই ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচলে সম্মতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: নানক

জীবিকার কথা ভেবেই ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচলে সম্মতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: নানক মঙ্গলবার রাজধানীর তালতলায় অবস্থিত লায়ন্স অগ্রগতি স্কুলে বিশেষ শিশু, বৃদ্ধ ও পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগীদের হুইল চেয়ারর বিতরণ অনুষ্ঠানে দেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক। ছবি: নিউজবাংলা
নানক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেমন করে গরীব-দুঃখী মানুষের জন্য কাজ করেন, আমরাও ঠিক তেমনভাবে মানুষের জন্য কাজ করতে চাই।’

মেহনতি মানুষের জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করেই গণমানুষের নেত্রী শেখ হাসিনা ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচলের নির্দেশ দিয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরিব-দুঃখী মানুষের আস্থার ঠিকানা বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর তালতলায় অবস্থিত লায়ন্স অগ্রগতি স্কুলে বিশেষ শিশু, বৃদ্ধ ও পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগীদের হুইল চেয়ারর বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সামাজিক সংগঠন ‘সোসাইটি ফর এইড প্রোগ্রাম’ (এসএপি)।

এ সময় রোগীদের মাঝে হুইল চেয়ার ও গরিব-দুঃখীদের মাঝে রিকশা বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে নানক বলেন, ‘সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে একটি বার্তা আসে- ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধ করা হয়েছে, তাই শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করেছেন। প্রধানমন্ত্রী কথাটা শুনে অবাক হয়ে গেলেন! তিনি জানতে চান- এর কারণ কী? প্রধানমন্ত্রী তখনিই পরিষ্কার করে বললেন- ওরা যা দিয়ে উপার্জন করে জীবন-জীবিকা চালায়, সেই পথ কেন বন্ধ করা হয়েছে? সঙ্গে সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন অটোরিকশা চালু করার জন্য এবং চালু হয়ে গেল।’

ঢাকা ১৩ আসনের জনগণের উদ্দেশে স্থানীয় সংসদ সদস্য নানক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেমন করে গরীব-দুঃখী মানুষের জন্য কাজ করেন, আমরাও ঠিক তেমনভাবে মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। যেকোনো প্রয়োজন আপনারা আমাদের কাছে জানাবেন, আমরা আপনাদের পাশে থাকব, চেষ্টা করে যাব।’

অনুষ্ঠানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ দলের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
ঢাকা শহরে ব্যাটারিচালিত রিকশা চলার অনুমতি প্রধানমন্ত্রীর: কাদের
কালশীতে পুলিশ বক্সে অটোরিকশা চালকদের আগুন
মিরপুরে ব্যাটারিচালিত রিকশাচালকদের সড়ক অবরোধ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Cancellation of admission of 169 students of Vikarunnisa ordered investigation of irregularities

ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল, অনিয়ম তদন্তের নির্দেশ

ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল, অনিয়ম তদন্তের নির্দেশ ছবি: সংগৃহীত
অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে  শিক্ষার্থী ভর্তির নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ভর্তির সময় দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ তদন্তে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে কমিটি গঠন করে দেয়া হয়েছে।

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রথম শ্রেণিতে ১৬৯ ছাত্রীর ভর্তিতে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে বলা হয়েছে, ওই ১৬৯ ছাত্রীর ভর্তি বাতিল থাকবে এবং অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি করতে হবে।

ভর্তির সময় হওয়া দুর্নীতি ও অনিয়ম তদন্তের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছে উচ্চ আদালত। কমিটিতে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানের একজন প্রতিনিধি এবং বুয়েটের একজন আইটি এক্সপার্টকে রাখতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে মঙ্গলবার রায় দেয়। রায়ে আদালত বলেছে, ১৬৯ শিশুর ভর্তি নিয়ে যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তাতে অভিভাবকরা দায় এড়াতে পারেন না।

আদালতে রিট আবেদনকারীদের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান খান, ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন ও আইনজীবী শামীম সরদার।

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ রাফিউল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী মাঈনুল হাসান।

ভিকারুননিসায় শিক্ষার্থী ভর্তি নিয়ে বয়সের নিয়ম না মানার অভিযোগ এনে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তিচ্ছু দুই শিক্ষার্থীর মা ১৪ জানুয়ারি হাইকোর্টে রিট করেন। প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ২৩ জানুয়ারি হাইকোর্ট রুলসহ আদেশ দেয়। আদালতের নির্দেশে ২৮ ফেব্রুয়ারি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) এ বিষয়ে একটি স্মারক হাইকোর্টে উপস্থাপন করে।

মাউশির ওই স্মারকমতে, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ ২০২৪ শিক্ষাবর্ষে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে বয়সের ঊর্ধ্বসীমা অনুসরণ করেনি। ১ জানুয়ারি ২০১৭ সালের আগে জন্মগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের ভর্তি করার প্রক্রিয়া ছিল বিধিবহির্ভূত। এভাবে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০১৬ সালে জন্মগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৫৯ জন এবং ২০১৫ সালে জন্মগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১০ জন। এই মোট ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করে মাউশিকে অবহিত করার অনুরোধ করা হয়।

মাউশির নির্দেশে স্কুল কর্তৃপক্ষ ১৬৯ জনের ভর্তি বাতিল করে। এরপর ৬ মার্চ হাইকোর্ট আদেশ দেয়- অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে এক সপ্তাহের মধ্যে শূন্য আসনে ভর্তি নেয়া হোক।

ওই আদেশের বিরুদ্ধে ভর্তি বাতিল হওয়া শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা আপিল বিভাগে আবেদন করেন। আপিল বিভাগ ২০ মার্চ হাইকোর্টের জারি করা রুলটি দু’মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয় এবং ১৬৯ ছাত্রীর ভর্তির ওপর স্থিতাবস্থা জারি করে।

রুল নিষ্পত্তি করে রায় দেয়ার মাধ্যমে ওই স্থিতাবস্থা কেটে গেল। এখন হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়ন করবে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Nothing to be happy about ban on Gen Aziz Fakhrul

জেনারেল আজিজের ওপর নিষেধাজ্ঞায় খুশি হওয়ার কিছু নেই: ফখরুল

জেনারেল আজিজের ওপর নিষেধাজ্ঞায় খুশি হওয়ার কিছু নেই: ফখরুল মঙ্গলবার ডিআরইউতে এক আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: সংগৃহীত
ফখরুল বলেন, ‘আমি যদি নিজের ঘর নিজে সামলাতে না পারি, তবে অন্য কেউ আমার জন্য এটা করে দেবে না। আজিজের ওপর নিষেধাজ্ঞায় অনেকেই খুশি হতে পারেন। আমি মনে করি, এটি বিভ্রান্তিকর এবং আমরা সবসময় বিভ্রান্ত হচ্ছি।’

সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার খবরে খুশি না হতে দলের সহকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) এক আলোচনা সভায় এ আহ্বান জানান তিনি। খবর ইউএনবি

জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) প্রতিষ্ঠাতা শফিউল আলম প্রধানের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে জাগপার একাংশ।

ফখরুল বলেন, ‘অন্যের ওপর নির্ভর না করে নিজের শক্তি দিয়েই বর্তমান সরকারকে পরাজিত করতে হবে।

‘আমি যদি নিজের ঘর নিজে সামলাতে না পারি, তবে অন্য কেউ আমার জন্য এটা করে দেবে না। আজিজের ওপর নিষেধাজ্ঞায় অনেকেই খুশি হতে পারেন। আমি মনে করি, এটি বিভ্রান্তিকর এবং আমরা সবসময় বিভ্রান্ত হচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘আমেরিকা এর আগেও র‌্যাব, এলিট ফোর্স ও পুলিশ কর্মকর্তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল, কিন্তু বর্তমান সরকারের ভয়াবহ যাত্রা থামাতে পারেনি।’

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ফখরুল বলেন, ‘আমাদের নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে, নিজের শক্তি দিয়ে দাঁড়াতে হবে এবং নিজেদের শক্তি দিয়ে তাদের পরাজিত করতে হবে।’

উল্লেখ্য, ‘উল্লেখযোগ্য দুর্নীতিতে' জড়িত থাকার অভিযোগে সোমবার সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদ ও তার পরিবারের সদস্যদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর।

আরও পড়ুন:
যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে জেনারেল আজিজ যা বললেন
সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ ও তার পরিবারের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা

মন্তব্য

p
উপরে