× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
TIB calls for publication of draft amendments to Press Council Act
hear-news
player
google_news print-icon

প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধনীর খসড়া প্রকাশে টিআইবির আহ্বান

প্রেস-কাউন্সিল-আইন-সংশোধনীর-খসড়া-প্রকাশে-টিআইবির-আহ্বান
ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘আইনটির সঙ্গে সরাসরি গণমাধ্যম ও গণমাধ্যমকর্মীদের স্বার্থ, স্বাধীনতা ও মুক্ত গণমাধ্যমের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নীতি-নৈতিকতার বিষয়টি জড়িত। তাই এই সংশোধনের প্রতিটি ধাপে এই অংশীজনদের অবহিত করার পাশাপাশি মতামত গ্রহণের পর তা সমন্বয় করা আবশ্যক।’

বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল আইনের সংশোধিত খসড়া জনস্বার্থে প্রকাশের আহ্বান জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। দুর্নীতিবিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থাটি একইসঙ্গে আইনের সংশোধনীর খসড়াটি গণমাধ্যম ও গণমাধ্যমকর্মীদের মতামত নিয়ে সমন্বয়ের পরামর্শ দিয়েছে।

রোববার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে টিআইবি এ তথ্য জানিয়েছে।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘যে কোনো আইন প্রণয়ন ও সংশোধনের আগে তার খসড়া জনস্বার্থে প্রকাশ ও অংশীজনের মতামত নেয়া সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অন্যতম পূর্বশর্ত। দেশে সাম্প্রতিককালে প্রণীত প্রায় সব আইনের ক্ষেত্রে এটা অনুসৃত হচ্ছে।’

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘প্রেস কাউন্সিলকে আরও শক্তিশালী করতে এ বিষয়ক আইনের সংশোধিত খসড়া প্রণয়নের উদ্যোগ বেশ কয়েক বছর ধরে চলমান। এই আইনের খসড়া অপ্রকাশিত রাখার পাশাপাশি অংশীজনকে, বিশেষ করে সম্পাদক পরিষদসহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনকে দিতেও অপারগতা প্রকাশ করেছে প্রেস কাউন্সিল।

‘আইনটির সঙ্গে সরাসরি গণমাধ্যম ও গণমাধ্যমকর্মীদের স্বার্থ, স্বাধীনতা ও মুক্ত গণমাধ্যমের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নীতি-নৈতিকতার বিষয়টি জড়িত। তাই এই সংশোধনের প্রতিটি ধাপে এই অংশীজনদের অবহিত করার পাশাপাশি মতামত গ্রহণের পর তা সমন্বয় করা আবশ্যক।’

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘২০০৮ সাল থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন আইন প্রণয়ন বা সংশোধনের ক্ষেত্রে আইনের খসড়া পর্যলোচনা, মতামত সংগ্রহ ও অবহিতকরণের জন্য জনস্বার্থে তা প্রকাশ করে আসছে সরকার।

‘গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার একটি শক্তিশালী উদাহরণ হিসেবে এই অনুশীলন যখন সব আইনের ক্ষেত্রেই দেখা যায়, তখন প্রশ্ন ওঠে- প্রেস কাউন্সিল আইনের সংশোধনীর খসড়া কেন জনস্বার্থে প্রকাশ করা হবে না?’

এই গোপনীয়তা চর্চার মাধ্যমে দেশের আইন প্রণয়ন ও সংশোধন প্রক্রিয়ার প্রচলিত রীতিকে উপেক্ষার মাধ্যমে স্বেচ্ছাচারিতার নজির সৃষ্টি হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ইফেতখারুজ্জামান।

তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের স্বার্থ আর স্বাধীনতা রক্ষার চেয়ে নিয়ন্ত্রণের জন্য ব্যবহার করার উদ্দেশ্যে প্রেস কাউন্সিল এই গোপনীয়তার আশ্রয় নিচ্ছে কিনা এমন প্রশ্ন ওঠা যৌক্তিক। আমরা আশা করি, প্রেস কাউন্সিল দেশের প্রচলিত চর্চার প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে আইনটির খসড়া অনলাইনে অবমুক্তকরণে উদ্যোগী হবে।’

আরও পড়ুন:
স্বচ্ছলদের হাতে টিসিবির ফ্যামিলি কার্ড: জরিপ
সাংবাদিকদের ওপর হামলা কণ্ঠরোধের অপপ্রয়াস: টিআইবি
ইসিকে আইনি সংস্কারের প্রস্তাব দেয়ার পরামর্শ টিআইবির
পাচার অর্থ দেশে আনা বাতিলের আহ্বান টিআইবির
প্রধানমন্ত্রীকে সাধুবাদ টিআইবির

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Bananis residential hotel was searched by the police at night

রাতে বনানী-মতিঝিলের আবাসিক হোটেলে পুলিশের তল্লাশি

রাতে বনানী-মতিঝিলের আবাসিক হোটেলে পুলিশের তল্লাশি কাকলীর বিভিন্ন হোটেল তল্লাশি চালায় পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা
শনিবার রাতে কাকলীর ইনসাফ নামের একটি আবাসিক হোটেলে জঙ্গিরা অবস্থান করছে, এমন তথ্যে অভিযান শুরু হয়। পরে আশেপাশের অন্য হোটেলে তল্লাশি চলে।

রাজধানীর বনানী ও মতিঝিল এলাকার বেশ কয়েকটি আবাসিক হোটেল ও মেসে বিশেষ অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। তবে আটক ও উদ্ধার সম্পর্কে রাতে কিছু জানাতে রাজি হননি পুলিশ কর্মকর্তারা।

শনিবার রাত ৯ টার দিকে বনানীর কাকলী মোড়ে শুরু হওয়া এক অভিযানে পুলিশ সেখানে আবাসিক হোটেলে অবস্থানরতদের পরিচয় যাচাইয়ের পাশাপাশি আশেপাশে তল্লাশি চালায়।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ জানায়, কাকলীর ইনসাফ নামের একটি আবাসিক হোটেলে জঙ্গিরা অবস্থান করছে, এমন তথ্যে অভিযান শুরু হয়। পরে আশেপাশের অন্য হোটেলে তল্লাশি চলে।

অভিযানের তথ্য নিশ্চিত করে বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূরে আযম মিয়া নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমাদের কাছে প্রাথমিক তথ্য আছে হোটেলটিতে জঙ্গিবাদে সম্পৃক্তরা অবস্থান করছে। এজন্য আমরা এখানে অভিযান পরিচালনা করছি।’

রাতে বনানী-মতিঝিলের আবাসিক হোটেলে পুলিশের তল্লাশি
কাকলীর হোটেল ইনসাফে জঙ্গিদের অবস্থানের তথ্য পেয়েছিল পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা

মধ্যরাত পর্যন্ত কাকলী এলাকার বিভিন্ন হোটেলে পুলিশের একাধিক টিমকে অবস্থান করতে দেখা যায়। তখন কাউকে আটক অথবা গ্রেপ্তারের বিষয় নিশ্চিত করেননি পুলিশ কর্মকর্তারা।

শতাধিক পুলিশ সদস্য কাকলী এলাকার হোটেলগুলোতে ঢুকে তল্লাশি চালায়। একাধিক হোটেলে ও মেসে অভিযান চালালেও সন্দেহভাজন কাউকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেনি পুলিশ।

রাত সাড়ে দশটায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূরে আযম মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের কাছে তথ্য আছে আদালত থেকে পলাতক জঙ্গিরা কাকলী এলাকায় আত্মগোপন করে আছে। তাই আমরা এই এলাকার সম্ভাব্য সব জায়গায় অভিযান পরিচালনা করছি। কাকলী এলাকার সকল আবাসিক হোটেল ও মেসে ধারাবাহিকভাবে আমাদের অভিযান চলবে। তবে এখনো পর্যন্ত সন্দেহভাজন কাউকে পাওয়া যায়নি, আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে।

এদিকে রাত দশটার দিকে মতিঝিলের দৈনিক বাংলা মোড়ে পুলিশ তল্লাশি চালায় হোটেল রহমানীয়াতে। পুলিশের বিশেষ অভিযান চলে পল্টনসহ আশেপাশের এলাকাতেও।

মতিঝিল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইয়াসির আরাফাত বলেন, আমরা অভিযান পরিচালনা করছি। এ বিষয়ে পরে জানানো হবে।

আরও পড়ুন:
১৫ দিনের বিশেষ অভিযানে পুলিশ
বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল, আহত পুলিশ
বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল হামলার অভিযোগ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Cocktail explosion in front of BNP office

নয়াপল্টনে ককটেল বিস্ফোরণ

নয়াপল্টনে ককটেল বিস্ফোরণ শনিবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ছবি: নিউজবাংলা
পল্টন থানার ওসি মো. সালাউদ্দিন মিয়া বলেন, ‘সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে একটি ককটেল বিস্ফোরণের খবর পেয়েছি। আমাদের টিম কাজ করছে। বিকেল থেকে ওই এলাকায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা ছিলেন। তাদের মধ্যে কেউ উত্তেজনা ছড়াতে বা নাশকতার উদ্দেশ্যে এমনটা করে থাকতে পারেন।’

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ এ ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে।

শনিবার সন্ধ্যার পর নয়াপল্টন সড়কের ফাঁকা জায়গায় ককটেলটি বিস্ফোরিত হয়। কে বা কারা এই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

বিএনপির দপ্তরে সংযুক্ত থাকা কেন্দ্রীয় নেতা তারিকুল ইসলাম তেনজিং এ বিষয়ে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘সন্ধ্যার পর পার্টি অফিসের সামনে ফাঁকা রাস্তায় একটি ককটেল বিস্ফোরণ হয়েছে বলে শুনেছি। তবে এতে কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।’

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সন্ধ্যা ৬টার পর এই ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তারা বলেন, চলন্ত গাড়ি থেকে কেউ ককটেল নিক্ষেপ করে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

পল্টন থানার ওসি মো. সালাউদ্দিন মিয়া বলেন, ‘সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে একটি ককটেল বিস্ফোরণের খবর আমরা পেয়েছি। আমাদের টিম কাজ করছে। বিকেল থেকে ওই এলাকায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা ছিলেন। তাদের মধ্যে কেউ উত্তেজনা ছড়াতে বা নাশকতার উদ্দেশ্যে এমনটা করে থাকতে পারেন। তদন্তের পর সব কিছু নিশ্চিত করে বলা যাবে।’

ককটেল বিস্ফোরণের এ ঘটনায় পুলিশি ৪-৫ জনকে আটক করেছে। তাদের সংশ্লিস্টতা না পেলে ছেড়ে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে পল্টন থানা পুলিশ।

পল্টন মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সালাহউদ্দীন মিয়া বলেন, নয়া পল্টনে ককটেল বিষ্ফোরনের ঘটনায় তদন্ত চলছে। বেশ কয়েকজনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে যদি কেউ অপরাধী না হয় তাহলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হবে।

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মতিঝিল বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার হায়াতুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বলেন, নয়াপল্টনে কেন ককটেল বিষ্ফোরনের ঘটনা ঘটেছে সেটা তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্তের স্বার্থে আমরা বেশ কয়েকজনকে আটক করেছি। জনমনে আতঙ্ক তৈরি করা এবং সমাবেশকে কেন্দ্র করে নয়াপল্টনে যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তার জন্য আমরা সতর্ক অবস্থানে আছি।

আরও পড়ুন:
ছাত্রলীগের মোটরসাইকেল বহরে ককটেল হামলা
উত্তরায় ফ্ল্যাটের রান্নাঘরে ৬ ককটেল বিস্ফোরণ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে পত্রিকা অফিসে ‘ককটেল’ বিস্ফোরণ
ককটেল বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণ, মা সহ যুবলীগ নেতা আহত
শিবগঞ্জে বাথান ঘরে ৩৩ ককটেল, একজন গ্রেপ্তার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Cockroaches in Sultans Diners Cutch

সুলতান’স ডাইনের কাচ্চিতে তেলাপোকা

সুলতান’স ডাইনের কাচ্চিতে তেলাপোকা সুলতান’স ডাইনের বসুন্ধরা ব্রাঞ্চ থেকে অর্ডার করা খাবারে পাওয়া গেল তেলাপোকা। ছবি: নিউজবাংলা
খাবার অর্ডারকারী ডালিয়া আফরোজ বলেন, ‘তারা আমাকে বলছে, ফুডপান্ডার ব্যাগের ভেতর থেকে তেলাপোকা গেছে। এর আগেও তাদের নাকি অনেকবার অভিযোগ এসেছে। ফুডপান্ডার ব্যাগে যদি তেলাপোকা থাকে, সেই তেলাপোকা কীভাবে রাবার দিয়ে টাইট করে আটকানো গরম খাবারের ভেতরে ঢুকে যাবে?’

শুক্রবার পড়তি দুপুরের কথা। পরিবারের সবার জন্য দুপুরের খাবার হিসেবে সুলতান’স ডাইন থেকে কাচ্চি বিরিয়ানির অর্ডার করেন কর্মজীবী নারী ডালিয়া আফরোজ।

খাবার বাসায় আসার পর কিছুটা বিরিয়ানি খেয়েও ফেলেছিলেন তার ক্ষুধার্ত সন্তান। হুট করেই চোখে পড়ল কাচ্চির মধ্যে মৃত তেলাপোকা। খাবারের মধ্যে তেলাপোকা দেখে বমির উদ্রেক হয় তার।

সুলতান’স ডাইনের বসুন্ধরা শাখা অবশ্য এমন অভিযোগ মানতে নারাজ। তারা দায় চাপাতে চায় খাবার বহনকারী প্রতিষ্ঠান ফুডপান্ডার ঘাড়ে।

তবে সুলতান’স ডাইনের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ নতুন কিছু নয়। গত ৮ অক্টোবর মিরপুরের সুলতান’স ডাইনকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। অভিযোগ ছিল, তারা সেখানে পচা-বাসি খাবার রেখেছে।

আর এবার একই প্রতিষ্ঠানটির বসুন্ধরা ব্রাঞ্চ থেকে অর্ডার করা খাবারে পাওয়া গেল তেলাপোকা।

শুক্রবার বেলা ৩টা ১০ মিনিটে ফুডপান্ডার মাধ্যমে সুলতান ডাইনে তিনজনের একটি বাসমতী কাচ্চি অর্ডার দেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী ডালিয়া আফরোজ।

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘খাবার বাসায় আসার পর আমার ছেলে কিছুটা কাচ্চি খেয়ে ফেলে। খাওয়ার একপর্যায়ে হঠাৎ করে দেখে খাবারের ভেতরে একটা তেলাপোকা। তখন আমার ছেলের বমি করার অবস্থা। আমার স্বামীও অন্য খাবার খাচ্ছিল। সে তখন তেলাপোকা দেখে তার খাওয়া বন্ধ করে বমি করার অবস্থা হয়।’

স্বামী-স্ত্রী দুজনেই চাকরিজীবী হওয়ার কারণে সুলতান’স ডাইন থেকে মাঝেমধ্যে খাবার আনিয়ে খেতেন তারা। ডালিয়া আফরোজ বলেন, ‘তারা এত ভালো ব্র্যান্ড, তাদের খাবারের যদি তেলাপোকা পাওয়া যায়, তাহলে কোথায় খাব?’

সুলতান’স ডাইনকে বিষয়টি অভিযোগ আকারে শনিবার সকালে জানিয়েছেন ডালিয়া। উত্তরে অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য তাকে ২৪ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে বলেছে প্রতিষ্ঠানটি।

ডালিয়া অবশ্য তাদের এমন আচরণে নাখোশ। তিনি বলেন, ‘আজকে সকালে (শনিবার) আমি অভিযোগ করেছি তাদের বসুন্ধরা ব্রাঞ্চে। তখন ওখানকার ম্যানেজার আমাকে বলেছেন, ম্যাডাম, আপনি তেলাপোকা পেয়েছেন ঠিক আছে, এর পরে যখন খাবার অর্ডার করবেন আমাকে একটু খোঁজ করবেন। আমি তখন বললাম, মনে হয় না যে আর খাবার অর্ডার করব।’

খাবারে তেলাপোকা পাওয়া গেলেও এটির দায় সুলতান’স ডাইন নিজের কাঁধে না নিয়ে ফুডপান্ডার ঘাড়ে চাপানোর চেষ্টা করছে বলেও মনে করেন ডালিয়া আফরোজ।

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘তারা আমাকে বলছে, ফুডপান্ডার ব্যাগের ভেতর থেকে তেলাপোকা গেছে। এর আগেও তাদের নাকি অনেকবার অভিযোগ এসেছে। কয়েকবার অভিযোগ আসছে তাদের খাবারে তেলাপোকা পাওয়া যাচ্ছে।

‘ফুডপান্ডার ব্যাগে যদি তেলাপোকা থাকে, সেই তেলাপোকা কীভাবে রাবার দিয়ে টাইট করে আটকানো গরম খাবারের ভেতরে ঢুকে যাবে?’

সুলতান’স ডাইন এখন তার বাসার ঠিকানা জানতে উৎসুক বলে জানিয়েছেন ডালিয়া। তিনি বলেন, ‘তারা আবার সেই প্যাকেজ বাসায় পাঠাতে চায়। আমি বলেছি না, পাঠাবেন না। আপনাদের খাবার দেখলেই বাসার মানুষ এখন বমি করবে। অনেক অনুরোধ করেছে। কিন্তু রাখি নাই।’

ডালিয়া মনে করেন, প্রতিষ্ঠানটির একটু সচেতন হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

সুলতান’স ডাইনের কাচ্চিতে তেলাপোকা
অ্যাপের মাধ্যমে কাচ্চি অর্ডার করেছিলেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী ডালিয়া আফরোজ

এ ব্যাপারে সুলতান’স ডাইনের সঙ্গে কথা বলেছে নিউজবাংলা। প্রতিষ্ঠানটির বসুন্ধরা ব্রাঞ্চের ব্যবস্থাপক মোশাররফ হাসিম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি আমার কাস্টমারের সঙ্গে কথা বলেছি। ফুডপান্ডার মাধ্যমে খাবারটা গিয়েছে। এটা আমাদের একটু চেক করতে হবে।’

হাসিম আরও বলেন, ‘ফুডপান্ডার ব্যাগ সব সময় আনহাইজেনিক থাকে। ব্যাগের মধ্যে অনেক সময় সমস্যা থাকে। পুরা বিষয়টা যাচাই করতে আমাদের কিছুটা সময় লাগবে।’

হাসিমের কাছে জানতে চাওয়া হয়, প্যাক করা গরম খাবারে কীভাবে তেলাপোকা ঢুকতে পারে? জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা শুধু রাবার দিয়ে প্যাকেট করা হয়। ফুডপান্ডায় আমাদের অভিযোগ বেশি। খাবার ঠান্ডা থেকে শুরু করে সবকিছু…। এ বিষয়ে আমরা ফুডপান্ডার সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের উত্তরের জন্য ২৪ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে।’

এর আগেও গ্রাহকদের কাছ থেকে খাবারে জীবিত তেলাপোকা পাওয়ার অভিযোগ এসেছে বলে নিজেই জানালেন হাসিম।

সুলতান’স ডাইনের কাচ্চিতে তেলাপোকা

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘এর আগেও ফুডপান্ডার মাধ্যমে খাবার পাঠালে আমাদের কাস্টমার জীবিত তেলাপোকা পেয়েছেন। তখন আমরা ফুডপান্ডাকে জানালে তারা তাদের ব্যাগ চেক করে আমাদের বলেছিল এই সমস্যা আর হবে না।’

তবে বিষয়টি নিয়ে খাবার বহনকারী প্রতিষ্ঠান ফুডপান্ডার তাৎক্ষণিক কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে সরাসরি যোগাযোগের কোনো মাধ্যম রাখা হয়নি।

প্রতিষ্ঠানটির গণসংযোগ শাখার তৌহিদ নামের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, লিখিত প্রশ্ন পাঠানো হলে ফুডপান্ডা উত্তর দেবে। তবে তাতে কত সময় লাগতে পারে তার কোনো সদুত্তর তিনি দিতে পারেননি।

আরও পড়ুন:
টিসিবির মাধ্যমে পণ্য চান রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ীরা
টিকা সনদ ছাড়া খাবার, ১২ রেস্তোরাঁকে জরিমানা
হয়রানি বন্ধের দাবি রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির
রেস্তোরাঁ খাতকে একটি মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিয়ে আসার দাবি
ব্যবসায়ীরা ‘নিঃস্ব’, রেস্তোরাঁ খুলে দেয়ার দাবি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Inauguration of Exim Bank Tower branch in Gulshan

গুলশানে এক্সিম ব্যাংক টাওয়ার শাখা উদ্বোধন

গুলশানে এক্সিম ব্যাংক টাওয়ার শাখা উদ্বোধন
এক্সিম ব্যাংকের ১৪৬তম শাখা উদ্বোধন হয়েছে। গুলশানে ‘এক্সিম ব্যাংক টাওয়ার শাখা’ উদ্বোধন হয় শনিবার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম মজুমদার।

রাজধানীর গুলশানে এক্সিম ব্যাংকের ১৪৬তম শাখা ‘এক্সিম ব্যাংক টাওয়ার শাখা’ উদ্বোধন হয়েছে।

শনিবার এক্সিম টাওয়ার এর মাল্টিপারপাস হল রুমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম মজুমদার। এতে সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মো. ফিরোজ হোসেন।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন প্রাণ আরএফএলের পরিচালক উজমা চৌধুরী, স্থপতি ইকবাল হাবিব, মাস্কো গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ সবুর, ওডেল গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহ্ মো. আব্দুল মহিতসহ বিশিষ্টজনেরা।

অনুষ্ঠানে পদ্মা ব্যাংকের চেয়ারম্যান চৌধুরী নাফিজ সরাফাত, এক্সিম ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য নূরুল আমিন ফারুক, নাজমুস সালেহীন, মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ, লে. কর্নেল অব. সিরাজুল ইসলাম, সংসদ সদস্য আনোয়ার হোসেন খান, প্রাইম ব্যাংকের পরিচালক জাইম আহম্মেদ, আব্দুল মোনেম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এস এম মাইনুদ্দিন মোনেম, এক্সিম ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহ্ মো. আব্দুল বারী, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক জসীম উদ্দীন ভুঁইয়া ও মাকসুদা খানম, ব্যাংকের নির্বাহী, বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং শাখা ব্যবস্থাপকরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
আনোয়ারায় এক্সিম ব্যাংকের ১৪৫তম শাখা
চট্টগ্রামের শান্তিরহাটে এক্সিম ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন
নতুন ঠিকানায় এক্সিম ব্যাংকের জুবিলি রোড শাখা
প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণভান্ডারে শীতবস্ত্র ও কম্বল দিল এক্সিম ব্যাংক
নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জে এক্সিম ব্যাংকের উপশাখা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Death by car entrapment Inquiry report January 9

গাড়িতে আটকে মৃত্যু: তদন্ত প্রতিবেদন ৯ জানুয়ারি

গাড়িতে আটকে মৃত্যু: তদন্ত প্রতিবেদন ৯ জানুয়ারি প্রাইভেট কারের নিচে ফেলে রুবিনাকে টিএসসি থেকে নীলক্ষেত পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান ঢাবির সাবেক শিক্ষক আজহার জাফর শাহ। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
নিহত রুবিনা আক্তারের ভাই জাকির হোসেন বাদী হয়ে ২ নভেম্বর রাতে শাহবাগ থানায় মামলা করেন। সড়ক পরিবহন আইনের ৯৮ ও ১০৫ ধারায় মামলা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ক্যাম্পাসে গাড়ি চাপায় রুবিনা আক্তারের মৃত্যুর ঘটনায় শাহবাগ থানায় দায়ের করা মামলায় প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৯ জানুয়ারি দিন ঠিক করেছে আদালত।

শনিবার ঢাকা মহানগর হাকিম শাকিল আহম্মেদ মামলার এজাহার গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য এ দিন ঠিক করেন।

মামলায় গাড়িচালক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আজহার জাফর শাহকে আসামি করা হয়েছে।

রুবিনা আক্তার শুক্রবার তার দেবর নুরুল আমিনের সঙ্গে মোটরসাইকেলে রাজধানীর তেজগাঁওয়ের বাসা থেকে হাজারীবাগে তার বাবার বাড়ি যাচ্ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বিপরীতে টিএসসি অভিমুখী সড়কে বিকাল ৩টার দিকে একটি প্রাইভেটকার পেছন থেকে তাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে নুরুল আমিন মোটরসাইকেলসহ একপাশে ছিটকে পড়েন। রুবিনা আক্তার গাড়ির নিচে চাপা পড়েন। এ সময় গাড়ির বাম্পারে তার পোশাক আটকে যায়। ওই অবস্থায় চালক গাড়ি না থামিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ এলাকা থেকে বেপরোয়া গতিতে টিএসসি দিয়ে নীলক্ষেত এলাকার দিকে যান। রুবিনা আক্তার গাড়ির সঙ্গে আটকে যাওয়ায় তাকে টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন চালক। উপস্থিত জনতা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করলেও চালক গাড়ি থামাননি। পরে নীলক্ষেত মোড়ে গিয়ে আটকে যায় গাড়িটি।

এ সময় চালককে গণপিটুনি দেয় উপস্থিত জনতা। এতে গুরুত্বর আহত হন তিনি। পরে আহত রুবিনা আক্তার ও গাড়িচালককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৫টার দিকে রুবিনা আক্তার মারা যান। গাড়িচালক ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় রুবিনা আক্তারের ভাই জাকির হোসেন বাদী হয়ে ২ নভেম্বর রাতে শাহবাগ থানায় মামলা করেন।

সড়ক পরিবহন আইনের ৯৮ ও ১০৫ ধারায় মামলা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
প্রাইভেট কারে টেনেহিঁচড়ে নেয়া নারী নিহতের ঘটনায় মামলা
ঢাবির সাবেক শিক্ষক আজাহার ‘জানতেন না’ গাড়িতে কেউ আটকে আছে
এটি হত্যাকাণ্ড, মামলা হবে: ডিসি রমনা
টিএসসিতে চাপা দিয়ে নারীকে নীলক্ষেত পর্যন্ত টেনে নিল গাড়ি
মতিঝিলে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Demand to ban foreign vehicles in Dhaka University

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বহিরাগত গাড়ি বন্ধের দাবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বহিরাগত গাড়ি বন্ধের দাবি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে শনিবার দুপুরে মানববন্ধন করে নিরাপদ সড়ক চাই। ছবি: নিউজবাংলা
‘বহিরাগত যান যেন ক্যাম্পাসের ভেতর দিয়ে চলাচল না করে- বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উচিত সেই ব্যবস্থা করা। এই ধরনের ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেই ব্যবস্থা নিতে হবে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বহিরাগত সব যান চলাচল বন্ধের দাবি জানিয়েছে নিরাপদ সড়ক চাই।

শনিবার দুপুর ১২টার দিকে ক্যাম্পাসের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধন শেষে সমাবেশে এ দাবি জানায় সংগঠনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।

ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষকের গাড়ির চাপায় এক নারীর মৃত্যুর ঘটনায় কর্মসূচি দেয় নিরাপদ সড়ক চাই।

‘বহিরাগত গাড়ি ক্যাম্পাসে চলাচল বন্ধ চাই’ লেখা প্ল্যাকার্ড তুলে প্রতিবাদ জানান তারা।

সমাবেশে নিরাপদ সড়ক চাই এর ঢাবি শাখার সভাপতি রিফাত জাহান শাওন বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় আর বিশ্ববিদ্যালয় নেই, এটা একটা পার্কে পরিণত হচ্ছে। এই বিশ্ববিদ্যালয় যেন পার্কে পরিণত না হয়।

‘বহিরাগত যান যেন ক্যাম্পাসের ভেতর দিয়ে চলাচল না করে- বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উচিত সেই ব্যবস্থা করা। এই ধরনের ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেই ব্যবস্থা নিতে হবে।’

আরও পড়ুন:
৮০ শতাংশ গাড়ি আসে মোংলা বন্দর দিয়ে: বারবিডা 
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসবেন তাই সরলো বাবরের সেই গাড়ি
বিলাস দ্রব্যের তালিকা থেকে গাড়িকে বাদ দেয়ার দাবি
গাজীপুরে ফিলিং স্টেশনে বিস্ফোরণ: দগ্ধ আরেকজনের মৃত্যু
গাজীপুরে ফিলিং স্টেশনে বিস্ফোরণ: দগ্ধ একজনের মৃত্যু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Speech impaired girl killed to keep the rape secret

‘ধর্ষণের কথা গোপন রাখতেই বাকপ্রতিবন্ধী তরুণীকে হত্যা’

‘ধর্ষণের কথা গোপন রাখতেই বাকপ্রতিবন্ধী তরুণীকে হত্যা’ সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান। ছবি: নিউজবাংলা
পুলিশ সুপার জানান, মূলত লতাকে ধর্ষণের কথা গোপন রাখতেই সুজন পরিকল্পিতভাবে এই হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছেন। মামলার তদন্ত এখনও চলমান।

ধর্ষণের কথা গোপন রাখতেই ঢাকার কেরানীগঞ্জে বাকপ্রতিবন্ধী লতা সরকারকে পরিকল্পিতভাবে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ওই তরুণীকে হত্যার মূল আসামি সুজন মিয়াকে গ্রেপ্তারের পর শনিবার ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান তার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

পুলিশ সুপার জানান, মূলত লতাকে ধর্ষণের কথা গোপন রাখতেই সুজন পরিকল্পিতভাবে এই হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছেন। মামলার তদন্ত এখনও চলমান।

আসাদুজ্জামান জানান, বাকপ্রতিবন্ধী লতার সঙ্গে সুজনের ৮ থেকে ১০ দিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন তিনি। ঘটনার দিন বিকেলে সুজন লতাকে ধর্ষণ করেন। এতে লতা সুজনকে বিয়ের জন্য জোরজবরদস্তি করতে থাকেন।

তিনি জানান, বিয়ে না করে পালিয়ে গেলে সুজনের কথা সবাইকে জানিয়ে দেবেন বলে লতা জানান। এ অবস্থায় লতাকে কাপড়চোপড় নিয়ে রাতে একটি জায়গায় অপেক্ষা করতে বলেন সুজন।

পুলিশ সুপার জানান, এরই ধারাবাহিকতায় সুজন লতাকে রাতে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার চুনকুটিয়া সাবান ফ্যাক্টরি রাস্তার ব্রিজের পরে অন্ধকার জায়গায় নিয়ে যান। সেখানে নিয়ে সুজন লতাকে মারধর ও সিমেন্টের পাথর দিয়ে তার মাথায় আঘাত করেন।

তিনি জানান, লতার ব্যাগের কাপড়চোপড় তার শরীরের ওপর রেখে দেশলাই দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে সুজন পালিয়ে যান। পরে লতাকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে জেনে সুজন মোবাইল ফোন বন্ধ করে ওই রাতেই শরীয়তপুর গোসাইরহাটের কোদালপুরে তার গ্রামের বাড়িতে পালিয়ে যান। পরে সেখান থেকে সুজন পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় তার শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে অবস্থান করেন।

পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, লতা সরকারের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় পুলিশ কর্তব্যরত চিকিৎসক ও একজন সাইন ল্যাংগুয়েজ এক্সপার্টের সহায়তায় তার মৃত্যুকালীন জবানবন্দি গ্রহণ করেন। এরপর তদন্ত টিম ঘটনাস্থলের বিভিন্ন আলামত ও সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে বিশ্লেষণ করে আসামিকে শনাক্ত করে। শুক্রবার ভোরে পটুয়াখালীর কলাপাড়া থানার তেগাছিয়া বাজার থেকে গ্রেপ্তার করা হয় সুজনকে।

লতা সরকারের ভাই ও এই মামলার বাদী স্বপন সরকার বলেন, ‘আমার বোন বাকপ্রতিবন্ধী ছিল। তাকে ফুসলিয়ে নিয়ে এসে ধর্ষণ করার পর আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। আমরা খুনির ফাঁসি চাই।’

গত ২৮ নভেম্বর রাত সাড়ে ১০টার দিকে ৯৯৯-এর মাধ্যমে পুলিশ খবর পায় কেরানীগঞ্জের সাবান ফ্যাক্টরি রোডের পাশে এক নারীর শরীরে কে বা কারা আগুন ধরিয়ে দিয়েছে।

পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজে (মিটফোর্ড) ও পরে শেখ হাসিনা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৯ নভেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন:
শিশু ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তার
হত্যার হুমকি পাওয়ার অভিযোগ আয়াতের বাবার
বাকপ্রতিবন্ধী তরুণীকে পুড়িয়ে হত্যা: একমাত্র আসামি গ্রেপ্তার

মন্তব্য

p
উপরে