× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
The strike of intern doctors of Dhaka Medical is called off
hear-news
player
google_news print-icon

ঢাকা মেডিক্যালের ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার 

ঢাকা-মেডিক্যালের-ইন্টার্ন-চিকিৎসকদের-কর্মবিরতি-প্রত্যাহার 
ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সঙ্গে ঢাকা মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ, পুলিশ, ঢাবি প্রশাসন, ছাত্রলীগের বৈঠক। ছবি: সংগৃহীত
সন্ধ্যার দিকে ঢাকা মেডিক্যা কলেজ হাসপাতালের সভাকক্ষে পুলিশ, ঢাবি ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকের পর কর্মবিরতি প্রত্যাহারের এ সিদ্ধান্ত নেয় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। 

সহকর্মী ও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় ডাকা কর্মবিরতি প্রত্যাহার করেছেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

রোববার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডা. মো. মহিউদ্দিন জিলানী এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, ‘১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। এ ছাড়া চিকিৎসা সেবার কথা মাথায় রেখে আমরা আমাদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নিচ্ছি। আজ থেকেই আমরা কাজে যোগদান করছি।’

মহিউদ্দিন জিলানী বলেন, ‘মারধরে জড়িতদের শনাক্তে সবাই আমাদের আশ্বস্ত করেছেন এবং তাদের কাজের অগ্রগতি দেখেই আমরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এর আগে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক একেএম সাজ্জাদ হোসেনকে মারধরের ঘটনা ঘটে। মারধকারীরা সে সময় নিজেদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে পরিচয় দিয়েছিল।

সন্ধ্যার দিকে ঢাকা মেডিক্যা কলেজ হাসপাতালের সভাকক্ষে পুলিশ, ঢাবি ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকের পর কর্মবিরতি প্রত্যাহারের এ সিদ্ধান্ত নেয় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাবির সহকারী প্রক্টর লিটন কুমার সাহা, ঢাকা মেট্রোপলিটনের রমনা জোনের উপ-কমিশনার মো. শহীদুল্লাহ, শাহবাগ থানার ওসি মওদূত হাওলাদার, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজ, সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সনাল, ঢামেক হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাজমুল হক, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. টিটো মিঞা, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়সহ ইন্টার্ন চিকিৎসক ও সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন:
ইন্টার্নদের কর্মবিরতিতে ঢাকা মেডিক্যালে চাপ
সাংবাদিক মারধরে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি
ডা. সাজ্জাদকে মারধর: ইন্টার্নদের কর্মবিরতির আল্টিমেটাম
শহীদ মিনারে মারধর: ইন্টার্ন চিকিৎসকদের আলটিমেটাম
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে ৩ জন

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Death of a young man who jumped from the seventh floor of Dhaka Medical

ঢাকা মেডিক্যালে সাততলা থেকে লাফ দেয়া যুবকের মৃত্যু

ঢাকা মেডিক্যালে সাততলা থেকে লাফ দেয়া যুবকের মৃত্যু
রনির বাবা দুলাল ব্যাপারী বলেন, ‘গ্রামের লোকজন বলেছিল, আপনার ছেলেকে ঢাকা মেডিক্যালে নিলে সুস্থ হয়ে যাবে। নিয়তির খেলা আমার ছেলের লাশ আমাকেই কাঁধে নিতে হলো।’

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নতুন ভবনের সাত তলা থেকে লাফিয়ে পড়ে আহত রিয়াজুল ইসলাম রনি মারা গেছেন।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টায় তার মৃত্যু হয়।

জানা গেছে, মানসিক সমস্যার কারণে গত সোমবার রনিকে ঢাকা মেডিক্যালের নতুন ভবনের সাত তলায় মেডিসিন ৭০১ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সাত তলা থেকে রনি নিচে লাফ দেন। সেখান থেকে তৃতীয় তালার সানশেডের উপর পড়ে এনাটমি বিভাগের বাউন্ডারির ভেতর পড়ন রনি। তাকে জরুরি বিভাগে নেয়া হয়। সেদিন রাত ১২টার দিকে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেয়া হয়। শুক্রবার বিকেলে রনিকে মৃত বলে জানান চিকিৎসক।

রনির বাবা দুলাল ব্যাপারী বলেন, ‘গ্রামের লোকজন বলেছিল, আপনার ছেলেকে ঢাকা মেডিক্যালে নিলে সুস্থ হয়ে যাবে। নিয়তির খেলা আমার ছেলের লাশ আমাকেই কাঁধে নিতে হলো।’

রনির গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর সদরে।

ঢাকা মেডিক্যালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মোহাম্মদ বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘রনির মরদেহ স্বজনরা ময়নাতদন্ত ছাড়া গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাবেন।’

আরও পড়ুন:
হোটেলের ছাদ থেকে মাথায় পানির ট্যাংক পড়ে মৃত্যু
বাস-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে পুলিশ আহত
কাভার্ড ভ‍্যানের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
বাড্ডায় হাসপাতালকর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার
বাসায় ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার, হাসপাতালে মৃত্যু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
They were on the river for 6 days

৬ দিন ধরে তারা করতোয়ার পাড়ে

৬ দিন ধরে তারা করতোয়ার পাড়ে
ভূপেন ছিলেন পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি। তাকে হারিয়ে পুরো পরিবার দিশেহারা। মাড়েয়া বামনপাড়া ইউনিয়নের ছত্র শিকারপুর হাতিডুবা গ্রামে ভূপেনের বাড়ি। তার খোঁজে প্রতিদিন নদীর তীরে আসছেন বাবা মদন চন্দ্র রায়।

‘আজ ৬ দিন পার হয়ে গেল, নিখোঁজ সন্তানের জন্যে ঘরে কারও মুখে খাবার যায় না। বাড়ির সবাই নদীর দুই পাড়ে পড়ে আছি।’

সন্তানকে ফিরে পাওয়ার আশায় পঞ্চগড়ের বোদায় করতোয়ার পাড়ে দাঁড়িয়ে একথা বলছিলেন সাকোয়া ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের খগেন্দ্র নাথ বর্মণ।

বোদার করতোয়া নদীর মাড়েয়া আউলিয়া থেকে বদ্বেশ্বরী ঘাটে যাওয়ার সময় গত ২৫ সেপ্টেম্বর রোববার নৌকাডুবিতে নিখোঁজ হন তার ছেলে সুরেন। সেদিন থেকে শুক্রবার পর্যন্ত ছেলের খোঁজে দুই ঘাটে ঘুরতে থাকেন বৃদ্ধ খগেন্দ্র। পরিবারটির অন্য সদস্যরাও সুরেনের ফিরে আসার অপেক্ষায় আছেন। তবে ঘটনার ষষ্ঠ দিনে এসে তাকে জীবিত ফেরত পাওয়ার আশা তারা ছেড়েই দিয়েছেন।

ওই দুর্ঘটনায় ডুবে যাওয়া যাত্রীদের মধ্যে এ পর্যন্ত ৬৯ জনের মরদেহ ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা মিলে উদ্ধার করেছে। এখনও পাওয়া যায়নি সুরেন, ভূপেন ও তিন বছর বয়সী জয়া রানীকে। তাদের উদ্ধারে প্রতিদিনও কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস।

ভূপেন ছিলেন পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি। তাকে হারিয়ে পুরো পরিবার দিশেহারা। মাড়েয়া বামনপাড়া ইউনিয়নের ছত্র শিকারপুর হাতিডুবা গ্রামে ভূপেনের বাড়ি। তার খোঁজে প্রতিদিন নদীর তীরে আসছেন বাবা মদন চন্দ্র রায়।

তিনি বলেন, ‘আমার পরিবারের একমাত্র উপার্যনক্ষম সন্তান ছিল ভূপেন। এতো কঠিন সাজা দিল ভগবান, জানি না কী অপরাধ করেছি আমরা।’

৬ দিন ধরে তারা করতোয়ার পাড়ে

ছোট্ট জয়া সেদিন মা ও আরেক বোনের সঙ্গে নৌকায় চড়ে মহালয়া দেখতে রওনা হয়েছিল। মাঝনদীতেই ডুবে গেল নৌকা, সে হারিয়ে গেল পানিতে। মা সাঁতার কেটে বেঁচে গেলেও পরে পাওয়া গেছে জয়ার বোনের মৃতদেহ। এখন বাবা ধীরেন্দ্র নাথ এক মেয়ের সৎকার করে আরেক মেয়ের লাশের জন্য নদীতীরে রয়েছেন অপেক্ষায়।

তিনি জানান, জয়ার মা দুই মেয়ে হারিয়ে পাগলপ্রায়। শিশুদুটি সারা বাড়ি মাতিয়ে রাখত। এখন তাদের ঘরজুড়ে কেবল আহাজারির শব্দ।

বোদায় করতোয়ার এক পারে পীর আউলিয়ার মাজার, আরেক পাড়ে ঐতিহ্যবাহী বদেশ্বরী মন্দির। এ কারণে দুই ঘাটের নাম আউলিয়া, বদেশ্বরী।

বদেশ্বরী মন্দিরে গত রোববার ছিল মহালয়ার আয়োজন। সেখানে যাওয়ার জন্যই নৌকাবোঝাই যাত্রীরা আউলিয়া ঘাট থেকে রওনা হয়েছিলেন। মাঝনদীতে নৌকা ডুবে গেলে অনেকে সাঁতরে ওঠে। কয়েকজনকে উদ্ধার করা হয় জীবিত। এরপর চার দিনে ৬৯ জনের মৃতদেহ পাওয়া যায় নদীর আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে।

৬ দিন ধরে তারা করতোয়ার পাড়ে

প্রথম দিন থেকেই স্থানীয় প্রশাসন ও ঘাটের লোকজন এই দুর্ঘটনার জন্য যাত্রীদের বাধা না মেনে নৌকায় ওঠাকে দায়ি করে আসছে। কর্মকর্তারা বলেছেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ মাইকিং করে নৌকায় অতিরিক্ত যাত্রীদের উঠতে বার বার মানা করছিল। তারপরও হুড়মুড়িয়ে যাত্রীরা নৌকায় ওঠে। ভার নিতে না পেরে ডুবে যায় নৌকাটি।

স্থানীয় কৈলাশ চন্দ্র সাহা বলেন, ‘আমার এই জীবনে এত বড় নৌকাডুবি দেখিনি। এত মানুষের নির্মম মৃত্যু কোনো ভাবেই মানতে পারছি না।’

এই দুর্ঘটনা তদন্তে গঠিত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দীপঙ্কর রায় বলেন, ‘এলাকায় থেকে মরদেহ উদ্ধারের চেষ্টার তদারকিসহ মৃতদের সৎকার, পরিবারগুলোর দেখভাল করতে সময় লেগেছে। এ কারণে সময়মতো তদন্তের কাজ হয়নি।

‘তদন্তের সময় বাড়ানো হয়েছে। শনিবার জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে।’

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স পঞ্চগড়ের সহকারী উপ-পরিচালক শেখ মাহাবুবুল আলম জানান, নিখোঁজদের উদ্ধার না করা পর্যন্ত তাদের কাজ চলবে।

আরও পড়ুন:
করতোয়ায় নৌকাডুবি: লাশের সারি বাড়ছেই
মরণ তুচ্ছ করে স্বামীকে বাঁচালেন যশবালা
করতোয়ায় নৌকা ডুবতে দেখে উদ্ধারে ঝাঁপ দিয়েছিলেন তারা
পূজার পোশাক কিনতে জমানো টাকায় হচ্ছে সন্তানের সৎকার
করতোয়ায় নৌকাডুবি: দুই দিনে উদ্ধার ৫০ মরদেহ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
2 drivers were killed in a collision between a bicycle and a motorcycle

বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে ২ চালকই নিহত

বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে ২ চালকই নিহত নিহত আরিফুলের স্বজনদের আহাজারি। ছবি: নিউজবাংলা
কালীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রহিম মোল্লা বলেন, ‘আরিফুল ইসলাম বিকেলে মারা গেছে। কোনো অভিযোগ না থাকায় পরিবারের কাছে তার মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। আর আলেক মণ্ডল যশোরে মারা গেছে। তার মরদেহটি সেখানেই আছে।’

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ জন নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার বিকেলে উপজেলার তেঘরীহুদা গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার কোলা ইউনিয়নের রাকড়া গ্রামের মাজেদুল হকের ছেলে ১৭ বছর বয়সী আরিফুল ইসলাম এবং একই গ্রামের ৪৫ বছর বয়সী আলেক মণ্ডল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার দুপুরে বাড়ি থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে গাজীরবাজারে যাচ্ছিলেন মাদ্রাসার ছাত্র আরিফুল। পথে ঘটনাস্থলে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি বাইসাইকেলের সঙ্গে তার সংঘর্ষ হয়। এতে আরিফুল ও বাইসাইকেল আরোহী আলেক মণ্ডল গুরুতর আহত হন।

সংঘর্ষের পরপরই আশপাশের মানুষ ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক আরিফুলকে মৃত ঘোষণা করেন।

অন্যদিকে গুরুতর আহত অবস্থায় আলেক মণ্ডলকে যশোরে পাঠান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা। পরে সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

কালীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রহিম মোল্লা বলেন, ‘আরিফুল ইসলাম বিকেলে মারা গেছে। কোনো অভিযোগ না থাকায় পরিবারের কাছে তার মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। আর আলেক মণ্ডল যশোরে মারা গেছে। তার মরদেহটি সেখানেই আছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
রাজধানীতে দুই বাসের প্রতিযোগিতায় কিশোর নিহত
সাফজয়ীদের সংবর্ধনায় এসে দুর্ঘটনায় নিহত স্কুলছাত্র
ইলেকট্রিক মিস্ত্রিকে মৃত ঘোষণা, ঢামেকে লেগুনা ফেলে পালান চালক
দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ২
বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল শিশুর

মন্তব্য

বাংলাদেশ
DNCC offers 10 percent discount on online tax payment

অনলাইনে কর পরিশোধে ১০ শতাংশ ছাড় ডিএনসিসির

অনলাইনে কর পরিশোধে ১০ শতাংশ ছাড় ডিএনসিসির
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, চলতি অর্থবছরের চার কিস্তির ওপর ১০ শতাংশ রেয়াতের সময়সীমা ও সারচার্জ ছাড়া ট্রেড লাইসেন্স নবায়নের সময়সীমা আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে ডিএনসিসি।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নাগরিকরা ঘরে বসেই অনলাইনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে হোল্ডিং ট্যাক্স, নতুন লাইসেন্স ও লাইসেন্স নবায়ন ফি পরিশোধ করতে পারছেন। ডিজিটাল এ পদ্ধতিতে ডিএনসিসি এলাকার করদাতা ও ব্যবসায়ীরা বকেয়াসহ চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের চার কিস্তি হোল্ডিং ট্যাক্স একসঙ্গে অনলাইনে পরিশোধ করলে দেয়া হবে ছাড়।

ডিএনসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা মকবুল হোসাইন শুক্রবার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, চলতি অর্থবছরের চার কিস্তির ওপর ১০ শতাংশ রেয়াতের সময়সীমা ও সারচার্জ ছাড়া ট্রেড লাইসেন্স নবায়নের সময়সীমা আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে ডিএনসিসি।

বিজ্ঞপ্তিতে বর্ধিত সময়ের মধ্যে করদাতাদের বকেয়াসহ চলতি অর্থবছরের চার কিস্তি হোল্ডিং ট্যাক্স একত্রে পরিশোধ করে ১০ শতাংশ রেয়াতের সুযোগ নেয়ার ও ব্যবসায়ীদের সারচার্জ ছাড়া ট্রেড লাইসেন্স নবায়নের সুযোগ নেয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ডিএনসিসির পক্ষ থেকে জানানো হয়, এতে ট্রেড লাইসেন্স, লাইসেন্স নবায়ন ও গৃহকর পরিশোধে নগরবাসীর হয়রানির নিরসন হবে। সেইসঙ্গে বাঁচবে সময়ও।

আরও পড়ুন:
সরু রাস্তায় টাকা দেবে না ডিএনসিসি
চার স্কুলে বাস চালু করছে ডিএনসিসি
স্কুলবাস চালু করতে চান মেয়র আতিকুল
তথ্য যাচাই করে সত্য প্রকাশের আহ্বান ডিএনসিসি মেয়রের
ঢাকাকে বাঁচাতে হলে গাছ লাগাতে হবে: আতিকুল

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Ignorant party took life of insurance official

‘অজ্ঞান পার্টি’ নিল ইনস্যুরেন্স কর্মকর্তার প্রাণ

‘অজ্ঞান পার্টি’ নিল ইনস্যুরেন্স কর্মকর্তার প্রাণ
পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে বাসে ঢাকা থেকে বরিশাল আসার পথে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েন দেলোয়ার। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। মরদেহ মর্গে নেয়া হয়েছে।

ঢাকা থেকে বরিশালের পথে বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে মেঘনা লাইফ ইনস্যুরেন্সের দেলোয়ার হোসেন বাবু নামের কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার দুপুরে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন তিনি।

৪০ বছর বয়সী দেলোয়ারের বাড়ি বরিশাল নগরীর দক্ষিণ রুপাতলী এলাকায়। তিনি মেঘনা লাইফ ইনস্যুরেন্সে ঢাকায় কর্মরত ছিলেন।

শেবাচিম হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক)আব্দুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে বাসে ঢাকা থেকে বরিশাল আসার পথে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েন দেলোয়ার। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। মরদেহ মর্গে নেয়া হয়েছে।

হাসপাতালে দেলোয়ারের বড় ভাইর বন্ধু রুহুল জমাদ্দার জানান, সুগন্ধা পরিবহনের বাসে বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকা থেকে বরিশালের উদ্দেশে রওনা দেন দেলোয়ার। বাস কর্তৃপক্ষ তাকে অজ্ঞান অবস্থায় পেয়ে তার ভাই জর্জকে জানায়। তারা দেলোয়ারকে হাসপাতালে ভর্তি করে।

রুহুল জানান, চার কন্যা সন্তানের জনক দেলোয়ার। তার মৃত্যুর ঘটনায় পরিবার থেকে মামলা করতে আগ্রহী নয়। তবুও পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠিয়েছে।

কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই মো. রুম্মান জানান, ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

মডেল থানার ওসি আজিমুল করিম জানান, এটি একটি হত্যাকাণ্ড। ঢাকা থেকে বরিশাল আসার পথে এই ঘটনা ঘটেছে। ভবিষ্যতে যে কোন সময় এই ঘটনায় জড়িতরা আটক হতে পারে। তখন পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে।

আরও পড়ুন:
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে প্রাণ গেল ব্যবসায়ীর
আলাদা ঘটনায় তিনজন অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে ১২ লঞ্চযাত্রী
গরু ব্যবসায়ীদের অজ্ঞান করেন তারা
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থীর মৃত্যু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
9000 crore EVM project is a waste of peoples tax money

‘৯ হাজার কোটির ইভিএম প্রকল্প মানুষের ট্যাক্সের টাকার অপচয়’

‘৯ হাজার কোটির ইভিএম প্রকল্প মানুষের ট্যাক্সের টাকার অপচয়’ বাম গণতান্ত্রিক জোটের মিছিল। ছবি: সংগৃহীত
দুর্গাপূজায় যেন কোনো ধরণের সাম্প্রদায়িক অপশক্তির আক্রমণ না আসে এবং হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা যাতে নির্বিঘ্নে ও নির্ভয়ে সম্পন্ন করতে পারে তার জন্য সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বান জানান বাম জোটের নেতারা।

৯ হাজার কোটি টাকার ইভিএম প্রকল্প মানুষের ট্যাক্সের টাকার অপচয় উল্লেখ করে এই প্রকল্প বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

বাম জোটের নেতারা বলেছেন, নির্বাচন কমিশন সরকারের ইচ্ছে পূরণে কাজ করতে গিয়ে জনগণের আকাঙ্খার বিপরীতে অবস্থান নিচ্ছে। সরকারের নীল নকশা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে দেশের রাজনৈতিক সংকট আরও গভীর করছে।

শুক্রবার বিকেলে পল্টন মোড়ে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এই অভিযোগ করেন বাম জোটের নেতারা।

৯ হাজার কোটি টাকার ইভিএম প্রকল্প বাতিল, নির্দলীয় তদারকি সরকারের অধীনে নির্বাচন, দমন-পীড়ন, মামলা, বিরোধী মতামত দমন বন্ধ, লুটের টাকা উদ্ধার ও দুর্নীতিবাজ লুটেরাদের বিচার, নিত্যপণ্যের দাম কমাও, মানুষ বাঁচাও-দাবি নিয়ে এই সমাবেশ করেন বাম জোটের নেতাকর্মীরা।

জোটের নেতারা বলেন, দেশের মানুষ এমন একটা পরিবেশ চায় যেখানে তারা নিরাপদে ভোট দিতে পারবে, কিন্তু দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে ভোটারদের কোন নিরাপত্তা থাকবে না। আমরা দলীয় সরকারের অধীনে কোন নির্বাচন চাই না।

বক্তারা নির্বাচনের সময় সংসদ বাতিল ও সরকারের পদত্যাগ করতে হবে বলে দাবি জানান সমাবেশ।

তারা বলেন, নির্বাচন কমিশন দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন আয়োজনে তোড়জোড় করছে, একটা পূর্ব নির্ধারিত ফলাফলের জন্য নির্বাচন এর আনুষঙ্গিকতা করতে চাইছে।

বক্তারা দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনের আয়োজনকে রুখে দাঁড়াতে জনগণের প্রতি আহবান জানান।

নির্বাচন কমিশন জনগণকে প্রতিপক্ষ বানাচ্ছে যার জবাব জনগণ দেবে বলে জানান।

দেশের মানুষ ইভিএম চাইছে না, কারণ এর কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন আছে। এর আগে জনগণের টাকায় কেনা ২৮ হাজার ইভিএম নষ্ট হয়ে পড়ে আছে কিন্তু তারপরও সরকারের আকাঙ্খা পূরণে ৯ হাজার কোটি টাকা খরচের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে, যা পুরোটাই অপচয় বলে উল্লেখ করেছেন নেতারা।

সমাবেশে বলা হয়, ‘ইডেন কলেজ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ এমন কোনো অপরাধ নেই যা করছে না, কিন্তু আইনের আওতায় না আনার একমাত্র কারন তারা আওয়ামী শাসনের সহযোগী।’

বক্তারা ইডেন কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি, সেক্রেটারিসহ অপরাধীদের গ্রেপ্তার দাবি করেন।

সমাবেশে জোট নেতারা আরও বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু ধর্মাবলবম্বীদের আসন্ন দুর্গাপূজার জন্য বানানো প্রতিমা ভাঙচুরের খবর আসছে।

দুর্গাপূজায় যেন কোনো ধরণের সাম্প্রদায়িক অপশক্তির আক্রমণ না আসে এবং হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা যাতে নির্বিঘ্নে ও নির্ভয়ে সম্পন্ন করতে পারে তার জন্য সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বান জানান তারা।

পাশাপাশি সরকারকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের অন্যতম নেতা ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলমের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ সাধারণ সম্পাদক বজলুর রশীদ ফিরোজ, বাংলাদেশের সামজতান্ত্রিক দলের (মার্কসবাদী) সমন্বয়ক মাসুদ রানা, বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাক সবুজ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলী।

আরও পড়ুন:
টায়ার পোড়ানোর অভিযোগে ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আটক
হরতাল: পল্টনে বাম জোটের মিছিল-অবস্থান
দেশবাসীকে হরতাল পালনের আহ্বান বাম জোটের
বাম জোটের নতুন সমন্বয়ক প্রিন্স
বাম ভাইদের সম্মান করি: তথ্যমন্ত্রী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
One and a half thousand policemen will guard Ma Hilsa

মা ইলিশ পাহারা দেবে দেড় হাজার পুলিশ

মা ইলিশ পাহারা দেবে দেড় হাজার পুলিশ মা ইলিশ সুরক্ষায় প্রচারণামূলক সভা করছে প্রশাসন। ছবি: নিউজবাংলা
সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ৭ অক্টোবর থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত মা ইলিশ রক্ষার কার্যক্রম চলবে।

এবার নদীতে মা ইলিশের সুরক্ষায় মোতায়েন করা হচ্ছে দেড় হাজার পুলিশ।

শুক্রবার নৌ-পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি পংকজ চন্দ্র রায় এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, ‘মা ইলিশ রক্ষা অভিযানে নৌ-পুলিশের পক্ষ থেকে দেড় হাজার পুলিশ নদীতে মোতায়েন করা হবে। এ ছাড়া এবার সব ধরনের লজিস্টিক সাপোর্ট নিয়ে অভিযানে নামা হবে।’

শুক্রবার বিকেলে চাঁদপুর সদর উপজেলার দূর্গম চর রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জনসচেতনতামূলক সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন পংকজ চন্দ্র রায়।

তিনি আরও বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞার সময়টিতে সব জেলার ট্রাস্কফোর্স কমিটি, মৎস্য মন্ত্রণালয়সহ সবার সুষ্ঠু সমন্বয়ে আমরা এই মা ইলিশ রক্ষা অভিযানটি সফল করতে চাই। তবে এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করতে হবে জনগণকে। অর্থাৎ যারা মৎস্যজীবী ও জেলে ভাই রয়েছে। আশা করছি, সবাই নিষেধাজ্ঞা মেনে আমাদের সহায়তা করবে।’

সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ৭ অক্টোবর থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত মা ইলিশ রক্ষার কার্যক্রম চলবে। ইতোমধ্যেই নৌ পুলিশ অভায়শ্রম এলাকাগুলোতে প্রচারণা শুরু করেছে।

প্রচারণার অংশ হিসেবে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি করে নৌ-পুলিশ।

চাঁদপুর নৌ-থানার ওসি মো. কামরুজ্জামানের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার (অপারেশন্স অ্যান্ড ইন্টেলিজেন্স) ড. আ ক ম আকতারুজ্জামান বসুনিয়া, চাঁদপুর নৌ-অঞ্চলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, সদর সহকারী কমিশনার (ভূমি) হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হযরত আলী বেপারি।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের উপহারের ইলিশ ভারতের বাজারে মঙ্গলবার
দুর্গাপূজার প্রথম চালানে ভারত গেল ১৬ টন ইলিশ
ইলিশ চেয়ে আবেদন
মনপুরায় ধরা পড়ল রাজা ইলিশ
যেভাবে ১৮ লাখ টাকার ইলিশ নিয়ে ফিরল ট্রলারটি

মন্তব্য

p
উপরে